Skip to main content

Full text of "Rajjog Ed. 13th"

See other formats


বরাজবোগ 


€ অথবা অভ্তঃপ্রকৃতি-জয ) 


লক্ষা্যী হ্লিতুহ্লন্লান্িম্জ্ল 





অয়োদশ সংস্করণ 


সর্ববন্ষত্ব সংরক্ষিত ছুই টাক। চার আনা 


প্রি শী 
| / প্কাশক-_হ্বামী আজ্াবাধানন্দ 


উদ্বোধন কাষালয় 
১ সদ্বাধল লেন, বাগবাজার 
কলিকাত' 


হেলুড শ্রীর'মকৃষ্ঃ নঠের অধ্যক্ষ কৰক 
সর্ববস্থ্থ সংরশ্ষিভ 


৩৫৬ 


প্রিন্টার-_ দেবেন্দ্রনাথ শীল 
কুল বিষ্টি ওযাকস 
২৭বি, গ্রে ছ্রীট 

কলিকাত। 


সূচীপত্র 


বিষয় 
গ্রন্থকরের ভমিক' 
প্রথম অধ্যার--অনভবুণিক। 
দ্বিতীম্ন অধ্যাব--সাধনের প্রথম সোপান 


তিতীয় এ্মধা1র-- প্রাণ -** *-" *** 
চতুর্থ অধ্য'য়ু প্রাণের আধ্যান্মিক রূপ 

পঞ্চম অধায়, ুন্সধ্যাম্ম প্রাণের সংবম “০ ৮০ 
বষ্ঠ অধ্যার--প্রঠ্য।ভার ও ধারণ। **- ১.» 


সপ্তন অধ্যায়-- ধ্যান ও সমাধি 
অষ্টম অধায়_- সংক্ষেপে রাজযোগ ( কুন্মপুরাণ হইতে গুহীত ) 


পাতঞ্জল যোগসুত্র 


উপক্রমণিকা ৮০৯ ডে টি 
পথম অধ্যায়-সমাবি-পাদ *** *০০ 

দিতীর অধ্যায় সাধন্পাদ 22" ৮০০ 2 
তিতা অধ্যা_-খিভৃভি-পাঁদ ও টা 


চতুর্থ অধ্যায়_-৫কবল্য-পাদ 
পরিশিষ্ট -- যোৌগাবষয়ে অন্তান্য শাস্সের মত *** 


পুন? 


সু, 
২০০১ 
৬২৩ 
৭৩) 
৮১ 
৪ ৩ 


১১৪ 


৯২৩ 
১৩৪ 
৯৯৭ 
৫৭ 
চা 


৬৩১ ২ 


অবতরপণিক! ' 


প্রকমাবি মত মাত্র, উনাদের সনভ্যাসত্য বিচারের তত একট 
মানদণ্ড নেই, বার যা খুশি, ভিন তাই প্রচার করতে ব্যস্ত ।» 
কিন্ত ন্ঠাভার? যাহাই ভাবুন না তেন, 'প্ররুতপক্ষে ধন্দ্মবিশ্বাসের 
'এক সার্বভৌম মলভিন্ভি  আছে--উহাই বিভিন্ন দেশের 
নিভিন সম্প্রদান্ের বিভিন্ন মতবাদ ও সর্কবধিধ বিভিন্ন ধারণা- 
সমুভের নিপানক 1 গুলির মূলদেশে যাইলে আসর)। দেখিতে 
পাত বে, উঠারা 5 সার্বজনীন অভিন্ততা) ও অন্ভূতির উপ্র 
এতিচিভ | 

- প্রথমত, আামি অন্তরোধ করি বে. আপনার পৃথিবীর ভিন্ন 
ভন্ধ ধম্যসকল একটু বিশ্রেবণ করির। দেখুন । অল অনুসন্ধানেই 
দেখিতে পাইবেন যে, উচ্ারা দুই ০শ্রনীতে বিভক্ত ॥ কতকগুলির 
শক-ভিত্তি আছে 5 কতকশুলির শাস্-ভিভ্ি নাই । যেগুলি শান্- 
ভিন্ন উপর স্থ।পিত, ভাজার সুঢ় 2 তদ্ধম্মাবলধি-লোকসংখ্যা ও 
অধিক । শান্দভিভ্ভিভীন ধন্মসকল 'প্রান্ই লুপ্ত । কতকগুলি নূতন 
হইকবছে বটে, কিন্ক অল্রসংহ্যক তলোঁকেই তদনুগত। অথাপি উক্ত 
সকল সম্প্রদান্েহ এই নটতক্য দেখা বাসর যে, ভাহাদের শিক্ষা বিশেষ 
বিশেষ ব্যক্তির প্রত্যক্ষ অন্থভব মাত্র ॥ খ্রাঙ্রিক্বান তোমাকে তাহার 
ধন্ষে, বীশুগ্রা্ীকে ঈশ্ববের "অবতার বলির1, ঈখর ও আত্মার আঅস্ভিত্তে 
এবং এ আত্মার ভবিষ্যৎ উন্নতির সম্ভাবনীক়তাক্ন বিশ্বাস করিতে 
বলিবেন। বর্দি আমি তাহাকে এই বিশ্বাসের কারণ জিজ্ঞাসা করি, 
তিনি আমাকে বলিবেন--ইহ1 অ!ম।র বিশ্বাস ।” কিন্ত যদি তুমি 
শ্রীষ্ট-ধন্মের মূলদেশে গমন করিয়া দেখ, তাহা হইলে দেখিতে পাইবে 
যে, উহাও 'প্রত্যক্ষান্ুভূতির উপর স্থাপিত । বীশুধুষ্ট বলিয়াছেন, 


পতি 
/রাজযোণগ 


"হানি জশ্বর দশন করিক়াছি ॥৮ কাহার শিষ্যেরাও বলিক্পাছিলেন” 
"আমরা? ঈশ্বরকে 'অন্তভব করিয়াছি ।৮ এইরূপ আরও অনেক 
প্রাত্যক্ষান্তভুতি শুন বার । 

বৌদ্ধধশ্মে 3 এইরূপ 7 বুদ্ধদেবের প্রত্যশ্দাচকভতির উপরে এই 
ধন্ম স্থাপিত । তিনি কতকগুলি সত্য অন্ফভবৰ করিম্বাছিলেন । 
তিনি সেউগুলি দর্শন কক্কাছিলেন* ৫সই সকল সভ্য সংস্পশে 
আলিযাছিলেন এবং ন্ভাভাউ জগন্ডে প্রচার করিকাশছিলেন । 
হিন্দুদের সম্বন্ষে ৪ এইজপ হ শ্চাভাদ্ের শানে খবি-নানধেত্স প্রন্থকক্তাগণ 
ব্লিক্া শ্লিষ্কাছেন, মানর" কনভুকশ্ঙডলি সন্যা আঅন্তভবৰব করিক্।াছি,” 
এল ভাাভারঃ তাহাভ জন্গতে প্রচার করিনা, টচিতাছেন । আত এব 
স্্ বুন্বা গেল ে, জগতে সনুদম্স ধল্মভ, জ্ঞীনেক আর্কবভৌম ও 
ল্দড় ভিন্ভি যে-প্রত্যন্গভভব-_ তাহার উপর স্রাপিত । সকল 
ধন্সাচাধ্যগণত ঈশ্বরকে দশন করিনাছিলেন । তাহারা সকলেই 
আনমুদশন করিন।ছেিলেন 5 সকলেই আপন ।দেরর অন্ন্ত শ্বরূপ। অবগত 
হইআাভিলেন১, আপনাদেল ন্ুলিন্যহ অবস্তা দেখিয়াছিলেন, আর 
বাঁভ। ভাভাপ্রা দেশিক্াভিলেন, হাখভাই প্রচাল করিনা শিাছেন । 
নে স্াভেিদ উন বে, পান সকল ধন্মেই, বিশেবতঃ ইদানীস্তন, 

ণ্জ্ন 


“এক্ষণে এই সকল আঅন্তভূত্তি জসম্ভন । বাভাবা ধন্মের প্রথম স্থাপন 

কর্তী, পরে বাভাদের নামে সেই সেই ধম্ম গরাচলিত ভন্র, এইব্প 

বলল ল্যক্ভিতেহই কবল, প্রভ্যন্ান্ুভবৰ সম্ভব ছিল । এখন আব 

এক্সপ অনুভব হহবান উপান্স লাই * ম্তরা২ এক্ষণে ধম্ম, 

বিশ্বাস করিয়া লইন্েে হইবে”_-আনি এ কথা সম্পূর্ণন্ধপে অস্বীকার 
গু 


অআবতব্রণিক! 


কন্ি। যদ্দি জগতে কোন প্রকার বিজ্ঞানের কোন বিষম কেহ 
কখন প্রত্যক্ষ উপলন্ষি কবির) থাকেন, ত্তাহ। হইলে তাহ হইতে 
আমর এই সার্বভৌম সিদ্ধান্তে উপনীত হইতে পারবি তে, পুর্বেব ও 
উহ €কোটী ০কাটী বার উপলব্ধির সম্ভাবনা ছিল, পরেও অনন্তকাল 
ধরিয়া) উহার উপলন্কির সম্ভাবনা) থাকিবে । সমবলভুন্ই প্ররুতিতর 
বলবৎ 1নক্বম 2 বাহ। একবার ঘটিক্সাছে, তাহ পুনবার ঘটিতে পারে । 
বোগ-বিছ্ভাল্ আচাধ্যগণ সেই নিমিন্ড বলেন, ধন্স তে কেবল 
প্ুর্বকালীন ন্গভুতির উপর স্কাপিত, তাহ! নভে ৮ পর্স্ধ স্বরং এই 
সকল মন্তভতসম্পঙ্গ না ভইলে কেহ ধাম্মিক হইতে পারে না। 
বে বিদ্যার দ্বারা এহ সকল অন্ভুটি হর, ত্যাহার নাম যোগ । 
ধন্মের সত্যসকল বতদিন না কেহ অন্ঞভব করিতেহেন, ততদিন 
ধম্মের কথা কভাইহ বুথ 1 ভগবানের নামে গাশুগ্গোলত, বুন্ধ ৮ বাদাজি- 
বাদ কেন? ভগবানের নামে হত বুক্তপাতি হইক্সাছে* অন্য কোন 
বিষয়ে জন্তু এত ব্রক্ভপাতি হন নাহ 5 ত।ভার কারণ এই», কোন 
লোকই মুলে গমন কতে নাই । সকলেই প্ুন্বপুরুবগণের কনক 
শুলি 'সচারেন অনুমোদন করিক্সাই সন্ষ্ট ছিলেন । তাহার? 
চাছিতেন, অআপরে ৪ তাহাই করুক । বাহার আত্মার অন্ভূতি 
অথব। ঈশ্বর সান্লাৎকাব না হইরাছে, তাহার আকা বা ঈখর 
আছেন বলিবার অধিকার কি? বদি ঈশ্বর থাকেন, শ্তীহাঁকে 
দশন করিতে হইবে ১ যদি আত্ম। বলিয়া কোন পদার্থ থাতকি, 
তাহাকে উপলন্ধি করিতে হইবে । তাহা না হইলে বিশ্বাস ন। 
করাই ভাল ।! ভণ্ড অপ্ক্ষে। স্প্বাদী নাক্তডিক ভীল। এক দ্দিকে, 
আজকালকার বিদ্বান বলিক্সা পরিচিত োকসকলেবধ মনের ভব 
৫ 


বাজযোগ 


এই যে, ধন্প, দর্শন ৪ পরম পুক্রষের অন্সন্ধানন সমসুদ্রন্থ নিশ্ষল 1 
পর দিকে, বাহার আদ্ধশ্শিক্ষিত* তভীাভাদের মনের ভাব এইক্প 
বোধ হন্র যে খ্রশ্ম-লর্শনাদির বাশ্তবিক “কান ভিত্তি নাতি »* তবে 
উহাদের এইট মাত্র উপযোগিত হে, উন্তার? কেবল জগন্ের মঙ্গল- 
লঃধনের নললবী পকরোাচিক$ শক্তি হঘর্দণি লোকের ইঈশম্বরসভ্বান্র 
বিশ্বাস থাকে, তাভিা। হইলে হস সঙ, নীতিপব্রাক্ষণ ও সৌজন্যশালী 
সামাজিক ভইমা শাকে । বাভাদেন্ এইব্দপ ভাব, তাভার্দিগকে 
ইনার জন্তু দোষ দেয়া বান না, কারণ, ভাভারা ধম্স সম্বন্ধে ব? 
কিছু শিক্ষা পাক, ভাতা কশতকশুলি অস্তঃস!বশন্ত ভন্মভ- প্রলাপ 
তুল্য আনন্ত শব্দসমন্টন্ডে বিশ্বাস মা 1 ভাভাদিগকে শব্দের ডপবনে 
বিশ্বাস করিনা থাঁকিত বলা হন্্র 5 ভাতা কি ৫কত কখন পাবে 2 
যদি লোক ভা পাঁরিভ, হাহ ভইলে নামার মান্বপ্রক্রত্িব '্রভি 


বিন্দুমাত্র আদ্ধা পাাকিভ না) মলিন সত্য চান শ্বন্ঃ সত্য অন্রভবৰ 
কলিতে চান, সশ্যকে ধাল্ণ কল্লিতে চান, সত্যকে সাক্ষাত্কার 
ক্লিতে চার, আঅভ্তরেত্র আন্তবে 'অন্রভন করিতে চান্স ॥ বেদ বলেলন, 


“০কনল তখনি সকল সন্দেহ চলি) নান্র, সব মোজ্ছাল ছিন্র-ভিন্গ 
ভইন্বা? বাক্স, সকল বক্রভা সরল ভইক্$ বাক্স” 

“ভগ্যতে হক্ব গ্রন্থিশ্ছিভ্যন্তে সর্ববসংশরাঃ 

ক্ীন্রস্তে চা্য কম্মীনি তশ্যিন্‌ দ্রষ্টে পরাবরে ॥*” সুডহ উহ ২।২।৮ 

“শক্তি বিশ্বে অন্রতস্ত পুত্র! 

অ। বে ধামানি দ্িব্যানি তগ্ছু 0৮৮ শ্বেহ উহ ২৫ 

““বেদ্াাহমেতং পুব্ুষং মহ।জ্তং 

আদিত্যবর্ণৎ তমসহ পরস্তাৎ । 


তি 


আ'ত্যা। মাত্রেই অব্যক্ত ত্রচ্ছ । 

বাহা ও অস্তঃপ্রক্কতি বশীভূত করিস্বা আত্মার এই ব্রহ্ষভাঁক 
ব্যক্ত করাই জীবনের চরম লক্ষ্য | 

কম্ম, উপাসন্?, হসংঘম অঞথব। জ্ঞান, হহাার মধ্যে এক 
একাধিক বা? সকল উপায়শুলির ছারা আপনার ব্রহ্ভাব ব্যক্ত 
কন ও মুক্ত হ93। 

ভহ1ই ধন্ষধের পুর্ণাঙ্গ । মনবাঁদ, অনুষ্টান-পদ্ধতি, শাস্ত্র, মন্দির 
বা? অন্য বাঁহা ক্রিনাকলাপ উত্তার গৌণ অআঙ্গঞত্যঙ্গ মাত্র । 





/% 


নু 
* রি ্ 





37 
/ 


ন্‌ 





1 


|| 


টা 


| 


৬ 








গ্রন্থকাঁরের 
ভূমিক। 


'প্তিহাসিক জগতের প্রারস্ত হইতে বশুমানকাল পধান্ত মনুম্া- 
সমাজে অনেক অলৌকিক ঘটনার সংঘটনের বিষন্ন উল্লেখ দেখিতে 
পাওয়া) বায । এক্ষণেও যে সকল সমাজ আধুনিক বিজ্ঞান্র 
পর্ণালোকে বাস কৰিতেছে, তাঁহাদের মধ্যেও এইক্প ঘটনার সাক্ষ্য- 
পদানকারা লোকের অভাব নাই । এইরূপ 'প্রমাণের অধিকাংশই 
বিশ্বামের অযোগ্য, কারণ, যে ব্যক্তিগণের নিকট হইতে এই 
সকল প্রমাণ পাওয়া বান, তন্মধ্যে অনেকেই অজ্ঞ, কুসংস্কাবাচ্ছিন্ত 


1 প্রতারক । অনেক সমম্েই দেখা বান, লোকে বে 
ঘটন্1গুলিকে অলৌকিক বলিম্ষ। নিদেশ কত্রে, সেগুলি 
'প্রকৃতপক্ষে নকল । কিন্তু কথ এই», উনার! কাভার নকল ? 


বার্থ অনুসন্ধান ন। করিয়া কোন কথা একেবারে উড়াইস্বা 
দেওযসা সত্যপ্রিয় €বজ্ঞানিক মনের পরিচয় নহে । বে সকল 
বৈজ্ঞানিক হস্্দশী নন, তাহার) নানাপ্রকার অলৌকিক মনো 
রাজ্যের ব্যাপারপরম্পরা ব্যাখ্য। করিতে অসমর্থ হইম্া সেগুলির 
অস্তিত্ব একেবারে অস্বীকার করিতে চেষ্টা পান । অতএব, 
উহারা--বে সকল ব্যক্তির বিশ্বাস, মেঘপটলরুঢড কোন পুরুষ- 
বিশেষ অথবা কতকগুলি পুরুষ তাহাদের প্রার্থনার উত্তর 
প্রদ্ধান করেন, অথবা) তাহাদের প্রার্থনায় প্রাকৃতিক নিমের 
6১) 


ভুমিকা 
ব্যতিক্রম করেন, _ তাহাদের অপেক্ষা! অধিকতর দোষী । 
কারণ, ইহাদের বরং অজ্ঞতা অথব। বাল্যকালেন্ ভ্রমপুর্ণ 
শিক্ষাপ্রণালীর € যাহ তাহাদিগকে এইব্ূপ অপ্রাকৃত পুরুষদিপের 
প্রত্তি নিব করিতে শিক্ষা! দ্িস্সাছে ও ০ নিভরত1 এক্ষণে 
তাহাদের অবনত স্বভাবের একাংশত্বরূপ হইস্বা পড়িম্বাছে ) তাহাই 
দেওয্স॥! চলিতে পারে, কিন্ত পুর্বেধোক্ত শিক্ষিত ব্যক্তিদ্িগের (দোহা 
দিবার কিছুই নাই । 

সহন্দ্ সহন্দ বৎসর ধরিযর়। লোকে এইব্ধপ অলোৌকিক 
ঘটনাবলী পধ্যবেক্ষণ করিকাছে, উহার বিষে বিশেষরূপে চিন্ত! 
করিকাছে ও তত্পরে উহার ভিতর হইতে কতকগুলি সাধারণ 
তত্ব বাহিত করিন্বাছে ২ এমন কি, মানুষের ধন্মএ্রবুত্তির 
ভিভিভূলমি পধ্যস্ত বিশেষরূপে তন্গ তন্ধ করিনা বিচার কন! 
হুইস্সাছে । এই সমুদক্স চিন্তা ও বিচারের ফল এই বাজবোগ- 
বিস্যা । বাজযোগ,__আজক।লকাবর অধিকাংশ তৈজ্ঞ।নিক পশ্ডিতদিগের 
অমাঞ্জনীষ্ ধার। অবলম্গনে_যে সকল ঘটনা)? ব্যাখ্যা কর! 
হুব্ূহ, তাহাদিগের অশভ্িত্বের অত্বীকার করে না, বব ধীবুভাবে 
অথচ সুস্পন্তু ভাবায় কুসংক্কারাবিশ্তু ব্যক্তিগণকে বলে যে 
লৌকিক ঘটনা, প্রার্থনার ভভ্তর» বিশ্বাসের শক্তি, এগুলি যদ্দিচ 
সত্য, কিল্ডত মেঘপটলাবূঢ কোন পুরুষ অথবা) পুক্রষগণঘ্বার। 
এব সকল ব্যপার সংসাধিত হক্স»ঞ এইবপ কুসংস্কারপুর্ণ ব্যাখ্যা 
হবার! এ ঘটনাগুলি বুঝা যাক্স না। হন? সমুদ্স্ মানবজাতিকে 
এই শিক্ষা দেসস যে, জ্ঞান ও শক্তির অনস্ত সমুদ্র আমাদের 
পশ্চাতে ব্রহিস্াছে, প্রত্যেক ব্যক্কি তাহারই একটি ক্ষুত্র প্রণাশী 

€২9) 


স্ুমিকা 
মাত্র) ইহাতে আরও এই শিক্ষা দেম্ যে, যেমন সমুদক্স বাসন। 
ও অভাব মানুষের অন্তরেই বহিস্কাছে, সেইরূপ তাহার অন্তব্রেই 
তাহ।র এ অভাব নোচনেকত্র শক্তিও রহিয্াছে ; বখনই এবং 
যেখানেই কোন বাসনা» অভ্ভাব ব। প্রার্থনা পরিপুর্ণ হন, ুখনই 
বুঝিতে হইবে বে, এই অনস্ত ভাণ্ডার হইত্তেই 


এই সম্দস্থ 
প্রার্থনাদি পন্রিপূর্ণ হইতেছে», উহা তেন 


অপ্রাক্কৃতিক পুরুষ 
হইতে নকে । অপ্রাকৃতিক পুরুষের ধারণান মানুষের ক্তিস্কাশক্তি 
কিঞ্চিৎ পরিমাণে ভদ্দীপ্ু হইতে পাকে বটে, কিন্ত ইহাতে আবার 
আধ্যাত্মিক অবনতি আনকন করে । ইহাতে স্বাধীনত। চলিম্ব; 
বাক, ভক্ম ও কুসংস্কার আসিক্া জদস্গকে অধিকার করে । ইহ 
“মানুষ শ্বভাবতহ হুর্ববলপ্রক্তি” এইবপ ভগ্ষঙ্কর বিশ্বাসে পব্রিণত 
হইন্স। থাঁকে । যে।'গা বলেন, “ক্সপ্রাকৃতিক বলিয়া! কিছু নাই, 
তবে প্রকৃতির স্থল ও স্স্স্ন বিবিধ গ্ুকাশ বা রূপ আছে বটে ।” 
সুম্ক্ব কারণ, স্থল কাধ্য । স্কুলকে সহজেই ইন্ড্রিনন দ্বারা উপলক্ষ 
করা যাস, শ্ম তজরপ নহে । ব্রাজযোগ অভ্যাস দ্বার? হস্ম অন্ুক্ভৃতি 
অজ্জিভ হইতে থাকে ॥ 

ভারতবষে যত €ক্দম্তাজসাঞগী দর্শনশান্ আছে, তাহাদের 
সকলের একই লক্ষ্য- পুর্ণ ভ; লাভ করিযর়। আত্মার মুক্তি । ইহার 
ডপাক্ম যোগ । “যোগ” শব্দ বহুভাবব্যাপী । সাংখ্য ও বেদাস্ত 
ভভয্ম মতই কোন ন। কোন আকাবে যোগের সমর্থন করে ।। 

বর্তমান গ্রন্থে নানাপ্রকার বোগের মধ্যে রাজযোগেন। বিষ 
লিখিত হইক্সাছে! পাতিঞলস্ত্র বাজবোগের শাস্স ও সর্বোচ্চ 
প্রামাণিক গ্রন্থ । অন্যান্ত দার্শনিকগণেক কোন কেন দাঁশনিক 

€৩) 


ভুমিকা 


বিবস্সে পতগ্রলিন্ সহিত মতভেদ হইলেও, সকলেই অবিপধ্যলে 
তদীত্র সাধনপ্রণালীর অনুমোদন করিক্বাছেন। এই প্ুম্ডভকের 
প্রথমাংশে, বলভমান লেখক নিউইয়র্কে কন্তকশুলি ছাত্রকে শিক্ষণ? 
বিবার জন্তা যে সকল বলত? প্রদান করেন, তসইশুলি দেওজ? 
গোল ॥ অপরাংশ পতঞজ্জলির স্ত্রতুলির ভাবানভবাদ ও তাহার 
সহিত একটি সংন্ষিপ্ ব্াখা। দে 5য় ভইক্সীছে । বতদুর সাধ্য, 
পলিভাঁষিক শব্দ ব্যবভাব্র ন$ঙখ করিবার ও কথোপকথনোপযোী 
সভজ ও সন্রুল ভাবার লিখিবান্র 05৯) কর হইস্মাছে । ধ্্রথমাংশে 
সাধনাণিগণের জন্য কতকণগুলি সবল ও বিশেন উপদেশ দেওয্? 
ভইরাছে হ কিকন্ধ ভিাহাদের সকলকেই বিশেষ কত্রিনা সাবধান 
করির! তের বাউত্েেছে তে, যে।গের কোন কোন সাঁমান্ অঙ্গ 
ব্যতীত, নিরাপদে €বাগশিক্ষা করিতে হইলে, শুরু সর্ববদ1 নিকটে 
থাক আবশ্যক । বদি কপানাভাবর ছলে প্রদত্ত এই সকল উপদেশ 
লোকেত্র অন্তরে এই সম্বন্ধে আরও অধিক জানিবব উচ্ছ। উদ্দেক 
করিনা দিতে পারে, হাহা ভইলে গুরুর "অভাব হইবে না । 

পাতগ্জলদশন সাংখ্যমতেহ উপর স্তাপিভ* এই ভ্ুই মতে 
প্রন "অতি সামান্য । ছুটি প্রধান মতবিভিল্তত এই হ প্রথমতঃ, 
_-পতঙজ্জলি 'আদিগুরুন্বরূপ সগ্চণ ঈশ্বর স্বীকার করেন, কিন্ত 
সলাংখ্যেরা কেবল পান পুর্ণ ভারা কোন ব্যক্তি, যাহার উপর 
সানন্তিক -€ কোন কলে ) জগতের শাসনভাবর প্রদত্ত হস্স, এইব্প 
অর্থবাৎ জন্ত-ঈশ্বনল সাত হ্বীকার করিক্সা থাকেন ॥। দ্বিতীস্কত2ঃ, 
যোগার ননকে আত্মা বও পুরুষের ভ্যান সর্বব্যাপী বলিস্কা। স্বীকার 
করিস্তা থাকেন, সাংখ্যের। ভাভ। করবেন না। 

€৪) 


88011352187 70510011115 116 £ 
(211 রি: ১2 


400০5৬11১11 1৬০0... 25. 
£721/6 €0/ /601517 4১2 ও রা 


গু * ছু ৫ ক্ষ খু গু শি পর খ ক বট জু ক গা ক 


স্াত্্ত্্বাহলা 


এশখখজ আঅধ্াজ 
অবতরণিকা 


আমাদের সকল জ্ঞানই স্বানুভৃতির উপর নিভর করে। 
আন্চমানিক জ্ঞানের (সামান্য হইতে সামান্ততর বা সামান্য হইতে 
বিশেষ ভ্তাঁন, উভক্মের ) ভিভি-স্বাচুভূতি । সেগুলিকে নিশ্চিত- 
বিজ্ঞান ্* বলে, তাহাদের সত্যত। লোকে সহজেই বুঝিতে 
পারে, কারণ, উহার! প্রত্যেক লোকদেই নিজে সেই বিবর সত্য 
কিনা দেখিক়া। তবে বিশ্বাস করিতে বলে ॥। বিজ্ঞীনবিৎ তোমাকে 
কোন্‌ বিবর বিশ্বাস করিতে বলিবেন না। তিনি নিক্তে কতকগুলি 


শু [73900 55521৮05-- নিশ্চিত-বিজ্ঞান অর্থাৎ যে সব বিজ্ঞানের তত্ব 
এতদূর সঠিক ভাবে নিণাত হইয়াছে যে, গণনা-বলে তাহার ছ্বার? ভবিবাৎ নিশ্চন্স 
-করিক্সা! বলিরা দিতে পারা যার & যথা গণিত, গণিত-জ্যাতিছ ইত্যাদি । 
৯১ 


বাজযোগ 


বিষক্স প্রত্যক্ষ অনুভব করিন্নাছেন ও সেইশুলিবর উপর বিচার 
করিনা কতকগুলি সিদ্ধান্তে উপনীত হইক্সাছেন । যখন তিন্দি 
তাহার সেই সিদ্ধাস্তগুলিতে আমাদিগকে বিশ্বাস করিতে বলেন, 
তখন তিনি মানবসাধারণের অন্ভূতিক্র উপর উহণদের সত্যাসত্য 
নির্ণয়ের ভার প্রক্ষেপ করির।? থাকেন । প্রত্যিক নিশ্চিত- 
বিজ্ঞানেরই € 725%255 5০15155 ) একটি সাধারণ ভিভিভিমি আছে, 
উহ7 হইতে যে সিদ্ধাস্তসমৃহ লব্ধ হক, সকলেই ইচ্ছ। করিলে 
উহাদের সত্যাঁসত্য তৎক্ষণাৎ বুঝিতে পারেন । এক্ষণে প্রশ্ন এই, 
ধন্মের একপ সাধারণ ভিভ্িভূমি কিছু আছে কিনা ? ইহার উত্তর 
আমাকে দিতে হইলে, “হা?” এবং “না” এই উভক্পই বলিতে হইবে ॥ 
জগতে ধন্মসম্বন্ষে সচরাচর এইরূপ শিক্ষা) পাওযক্স॥ বার বে, ধন্ম কেবল 
শ্রদ্ধা ও বিশ্বাসের উপর স্থাপিভ, অধিকাংশ স্থলেই উহ ভিন্ধ ভিন্স 
মতসমষ্টি মাত্র । এই কারণেই ধন্মে ধন্মে কেবল বিবাদ-বিসম্বাদ 
দেখিতে পাও বাসস । এই মতশুলি আবার বিশ্ব।(সের উপন্ 
হ্বাপিত 2 কেহ কেহ বলেন, মেঘপটলারূড এক মহান্‌ পুরুষ 
আছেন, তিনিই সমুরক্ম জগৎ শাসন করিতেছেন ১ বক্ত। আমাকে 
কেবল তাহার কথার উপর নির্র কলিক্সাই উহ বিশ্বাস করিত্তে 
বলেন । এইরূপ আমারও অনেক ভাব থাকিতে পারে, আমি 
অপরকে তাহ বিশ্বাস করিতে বলিতেছি । বযর্দি ভাহার। কোন 
যুক্তি চাঁন, এই বিশ্বাসের কারণ জিত্ঞাস1। করেন, আমি তাহাদিগকে 
০কোনবপ যুক্তি দেখাইন্তে অপমর্থ হই । এই জন্তই আজকাল থম 
ও দর্শনশাক্সের ছুনাম শুন। বাক্স । প্রত্যেক শিক্ষিত ব্যক্তিই যেন 
মনে ভাব এই যে, প্দূর ছাই, ধন্ধগুলেো। ত দেখছি কতকগুলে! 
এ 


অবতবণিকা। 


“তমেব বিদিত্বাতিম্মভ্যমেতি ॥ 
নান্ুত পস্থ। বিদ্যতেহয়নার ৪৮ শ্বেহ উহ ৩৮ 

হে অম্রতের পুভ্রগণ, হে দিব্যধামনিবাসিগণ, অবণ কব--- 
আমি এই অজ্ভানান্ধকার ভইতে আলোকে যাইবার পথ পাইস্কাছি, 
“যন সমস্ত তমেতর অত্তভীত, তাহাকে জানিতে পার্িলেই তথাক্ 
যাওযণ বাক্স-_ মুক্তির আর কোন উপাস্ন নাই । 

বাকজযোগ-বিস্া। এই সভ্য লাভ করিবার, প্রকৃত কাধ্যকর্পী ও 
সাধনোপধোগী €বজ্ঞানিক 'প্রণালী মাঁনবসনক্ষে স্থাপন কবিবাল 
পস্জাঁন করেন । প্রথমভঃ, প্রত্যেক বিছ্যারই অন্রসন্ধান বা সাধন- 
প্রণালী ব্বতস্ত্র ব্বতস্ত্র। তুমি বর্দি জ্যোতির্বেবভা ভইতে ইচ্ছা কর, 
আব্ বসিয়। বসিক্সা কেবল জ্যোতিষ জ্যোতিষ বলিক্পা চীতুকার 
কর জ্যোতিষবশান্দসে তুমি কখনই অধিকারী হইবে না। বসাক্সন 
শান্স সম্বন্ধেও এউন্ধপ, উহাঁতেও একটি নির্ছিউ প্রণালীর অনুসরণ 
করিতে হহবে ; পরীক্ষাগাবে (15170155015 ) শামন কবিষা 
বিভিন্গ দ্রব্যাদি লইতে হইবে. উহাদিগরকে একত্রিত কব্রিতে 
হইবে, মাত্র) বিভাগে মিশাইতে হইবে, পরে তাহাদিগকে লইঙ! 
পরীক্ষা করিতে হইবে, তবে তুমি রসাকসনবিত হইতে পারিবে । 
যদি তুমি জ্যোতির্ব্িৎ হইতে চাঁও”» তাহ? হইলে তোমাকে 
মানমন্দিরে গমন কিক দৃরবীক্ষণ যজ্তর সাহ[য্যে তারা ও গ্রহ- 
শুলি পধ্যবেক্ষণ করিক্সা তদ্িষয়ে আলোচনা করিতে হইবে, 
বেই তুমি জ্যোতিবিবৎ হইতে পারিবে । প্রত্যেক বিগ্যারই এক 
একটি নিদিষ্ট প্রণালী আছে ॥। আমি তোমাঙ্দিগকে শত সহম্ব 
উপদেশ দিতে পারি, কিন্ত তেল যদি সাধনা না কর» তোমর। 

শী 


ব্াজযোগ 


কখনই ধাশ্মিক হইতে পারিবে নাঃ সমুদস্ব যুগেই, সমুদয় 
দেশেই, নিক্াম শুন্ধ-স্বভাব সাধুগণ এই সত্য প্রচার করিক্স। 
গিক্বাছেন । তাহাদের, জগতের হিত ব্যতীত আর কোন কামন। 
ছিল না । তাহারা সকলেই বলিয়াছেন যে-_ইক্ছ্রিয়গণ আমাদিগকে 
যতদূর সত্য অন্ুভৰ কবৰাাইনে পারে, আমরা তাহা! অপেক্ষ? 
উচ্চতর সত্য লাভ করিন্বাছি এবং তাহ।॥ পরীক্ষা করিতে আহ্বান 
করেন ॥। তাহার! বলেন, তোমরা নিদ্দি সাধনপ্রণালী লইস্কা সরল- 
ভাবে সাধন করিতে থাক ॥ বর্দি এই উচ্চতর সভ্য লাভ না কর, 
তাহা হইলে বলিতে পাব বটে যে, এই উচ্চতর সত্য সম্বন্ধে যাহ? 
বল! হম্ব, ভাহ। যথার্থ নহে ॥ কিন্ত তাহার পুর্বে এই সকল উক্তির 
সত্যতা একেবারে 'অন্বীকার করা তে!ন মতেই বুক্তভিবুত্তত নহে। 
অতএব আমাদের নির্দ৪ সাধন প্রণালী লইক্স। বথাঁবথভাবে সাধন 
কর? আবশ্ঠক, নিশ্চম্সই আলোক "আসিবে । 

কোন জ্ঞন লাভ কবরিতে হইলে আমরা সামাহীকরণের 
সাহাব্য লইসক্সা থাকি ; ইহার জন্য আবার ঘটনাসমূৃহ পধ্যবেক্ষণ 
আবশ্যক ॥। আমর প্রথমে ঘটনাবলী পধ্যবেক্ষণ করি, পরে সেই- 
গুলিকে সামান্ঠীকৃত এবং ন্তাহা হইতে আমাদের পিদ্ধাস্ত ব। 
মতামতসমুহ উদ্ভাবন করি । আমরা যতক্ষণ পধ্যস্ত না মনের 
(ভিতর কি হইতেছে না হ্ইত্তছে প্রত্যক্ষ করিতে পাবি, ততক্ষণ 
আমরা আমাদের মন সম্বন্ধে, নাচষের আভ্যন্তরীণ প্রকৃতি সম্বন্ধে, 
মানুষের চিন্ত। স্ধন্ধে কিহুই জানিতে পাতি না। বাহা জগতের 
ব্যাপার পধ্যবেক্ষণ করা অতি সহজ ॥। প্রকৃতিন প্রতি অংশ 
পধ্যবেক্ষণ করিবার জন্ত সহম্্ সহম্ যন্ত্র নির্মিত হইক্সাছে* কিন্ত 

ডা 


অবতরপণিকা 


অস্তরজগতের ব্যাপার জান্বার জন্তঠ সাহাব্য করে, এস্ন কোনও 
য্্র নাই । কি্ত তথাপি আমর ইহ নিশ্চন্স জানি যে, কোন 
বিষের প্রকৃত বিজ্ঞান লাভ করিতে হইলে পধ্যবেক্ষণ আবশ্যক । 
বিশ্লেষণ ব্যতীত বিজ্ঞান নিরর্থক ও নিম্ষল হইন্ী ভিভিহীন অন্- 
মানমাত্রে পধ্যবস্তি হইক্স॥ পড়ে । এই কারণেই যে অল্প কস্েক 
জন্‌ মনম্ডভ্রন্থেবী পধ্যবেক্ষণ করিবার উপান্ন জাঁনিক্বাছেন, তাহারা 
ব্যতীত আবু সকলেই চিরকাল কেবল বাদশন্ছবাৰ করিতেছেন মাত্র ॥ 
ব্াজযোগ-বিছ্যা প্রথমতহ মান্ধবকে তাহার নিজের আভ্যন্তরীণ 
অবস্থাসমূহু পধ্যবেক্ষণ করিবার উপান্ন দেখাইয়া দেস্স। মনই 
শী পধ্যবেক্ষণের যন্ত্র । আমাদের বিষয়বিশেষে অবহিত হইবার 
শক্তিকে ঠিক ঠিক নিরমিত করিরা বখন অন্তর্জগগতের দিকে 
পরিচালিত করা হয়, তখনই উহা? মনের প্রত্যেক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ 
বিশ্রেষণ করিয়া ফেলিবে এবং তাহার আলোকে আমাদের মনের 
মধ্যে কি ঘটনা ঘটিতেছে, তাহ ঠিক ঠিক বুক্ধিতি পাঁবিব । 
মনের শক্তিসমূহ ইতভস্ডতোবিক্ষিণ্ুত আলোকরশ্মিসদূশ । উহার! 
কেন্দ্রীভূত হইলেই সমস্ড আলোকিত করে, ইহাই আমাদের 
সমুদয্স জ্ঞানের একমাত্র ভপাম্ম । কি বাহাজগতে, কি অন্তর্জগতে 
সকলেই এরই শক্তির পরিচালন॥। করিতেছেন ; তবে বজ্ঞানিক 
বহির্জগতে যে স্স্ঘ পধ্যবেক্ষণশক্তি প্রসক্ষোগ করেন, মনম্তভ্তান্বেধীকে 


তাহাই মনেক্র উপর প্রক্োগ করিতে হইবে । ইহাতে অনেকে 
অভ্যাসের আবশ্যক করে । বাল্যকাল হইতে আমরা কেবল 


বাহিরের বস্ততেই মনোনিবেশ করিতে শিক্ষিত হইন্সাছি, অস্ত- 
অগতে মনোনিবেশ করিতে শিক্ষা পাই নাই ।? আব এই কারণে 


বাজযোগ 


আমাদের মধ্যে অনেকেই অস্তধস্ত্রেরে পধ্যবেক্ষণ-শক্তি হাবাইস্্া 
ফেলিন্নাতছেন । মনে অস্তম্্থী করা, উহার বহিমুখী গতি নিবারণ 
করা, যাহাতে মন নিজেল ত্বভান জানিতে পারে, নিজেকে বিশ্রেষণ 
করিস দেখিতে পারে, ভজ্জন্য উহার সমুদয় শঞ্ডিগুলিকে কেন্দ্রীভৃত 
কপ্িক্সা নিজের উপরেই প্রক্ষোগ করা অতি কঠিন কাধ্য । কিস্ছ এ 
বিষক্সে ৫বজ্জীনিক প্রথাকয় অগ্রসর হইন্ডে হইলে ইহাই একমাত্র 
উপায় । 

এইকব্প জ্ঞানের ভপকারিত। কি? প্রথমত, জ্ঞানই জ্ঞানের 
সর্বেধাচ্চ পুরস্কার । দ্বিতীয়তঃ, ইহার উপকারিতা আছে-__উহ। 
সমন্ড হুহখ হরণ করিবে । যখন মানুষ আপনার মন বিশ্লেষণ 
করিতে করিতে শএমন এক বস্তকে সাম্মাৎ দর্শন করে, যাহার 
কোন কালে নাঁশ নাই-_যাহা স্বরূপতঃ নিত্যপূর্ণ ও নিত্যশুদ্ধ, 
ভখখন তাহার তুহখ থাকে না, নিরানন্দ থাকে না। ক্স ও 
অপূর্ণ বাসনা সমুদস্স হুহখেল মুল । পুর্বেবোক্ত অবস্গ। প্রাপ্ত 
ভইলে মানব বুঝিতে পারিবে, তাহার ম্মতুযু নাই, ক্ুতরা তখন্‌ 
আর ত্যুভন্ব থাকিবে না। নিন্দেকে পুর্ণ বলিম্পা জানিতে 
পাঁরিলে অসার বাসন। আর থাকে না। পুর্ববোক্ঞ কারণদ্য়ের 
অভাব হইলেই আর কোন ছুঃখ থাকিবে না। তৎপরিবন্ভে এই 
দেহেই পরমানন্দ লাভ হইবে । 

জ্ঞান্লাভেরন একমাত্র উপাম্ন একাশ্রভী । বরসারনতক্ভাম্বেবী 
নিজের পরীক্ষাগারে ভিক্ষা, দ্িিজের মনের সমুদক্ম শক্তি কক্দ্রীভত 
কতিম্ব1, তিনি যে সকল বন্ধ বিশ্বেষণ করিতেছেন তাহাদের উপর 
প্রশ্নোগ করেন এবং এইবূপে ভাভাদের রঙম্ত অবগত হন। 


শপ 


অবতবরণিকা! 


জ্যোতির্বিব্ নিজের মনের সমুদ্ক্স শক্তিগুলি একত্রিত কবিক্স! 
তাহাকে দূরবীক্ষণ যক্ত্রের মধ্য দিক্সা আকাশে প্রক্ষেপ করেন, আর 
অমন্নি তার, স্ধ্য, চক্র ইহার। সকলেই আপন আপন বহস্ত ভাহার 
নিকট ব্যস্ত করে । আমি বে বিষয়ে কথ। কহিতেছি, ০স বিষয়ে 
আমি যতই মনোনিবেশ করিতে পারিব» ততই সেই বিষয্ের গুড 
তলত তোমাদের নিকট প্রকাশ করিতে পাবিব । তভোমর)? আমার 
কথ! শুনিতেছ 2 তোমরা 3৪ যতই এ বিষক্তে মনোনিবেশ করিবে, 
ততই আমার কথ। স্পষ্টভাবে ধারণ। করিতে পারিবে । 
' মনের একা গ্রত+শক্তি ব্যতিরেকে আর কিন্ধপে জগতে এই 
সকল জ্ঞান লন্ধ হইন্পাছে £ প্রকৃতির দ্বারদেশে আঘাত প্রদ্দান্‌ 
করিতে জানিলে._্তথার যেদপ ধাক্কা! দেওযক্। প্রস্মোজন, তাহ। 
দিতে জাঁনিলে- প্রকৃতি ভাহার রহস্য উদঘাটিত করিক্পা দেন এবং 
সেই আঘাতের শক্তি ও ততজঃ, একাগ্রত। হইতেই আইনে । 
মন্ব্যমনের শক্তির কোন সীমা নাই ;? উহ ষতই একা প্র হস, ততই 
উহার শঠক্ত এক লক্ষ্যের উপর আইলে এবং ইহাই বুহস্ত । 

মনকে বহিধিষক্ষে স্থিন করা অপেক্ষাকৃত সহজ । মন 
স্বভাবতই বহিমু্খী £ কিন্ত ধন্স, মনোবিজ্ঞান কিংব। দর্শন বিষজ়ে 
জ্ঞাত ও ঢতজ্ক্স €(বা বিষন্দী ও বিষনগ) এক । এখানে প্রমেস্ 
একটি আভ্যন্তবীণ বস্ত, মনই এখানে প্রমেস় । মনস্তত অন্বেষণ 
করাই এখানে প্রযমোজন, আর মনই মনম্তত্ব পধ্যবেক্ষণ করিবার 
কর্ত।! আমর)? জানি ষে, মনের এমন একটি ক্ষমতা আছে, 
যদ্দ্ার। উহা নিজের ভিতরে যাহ) হইতেছে» তাহা দেখিতে পারে-_ 
উনাকে অস্তঃপধ্যবেক্ষণ-শক্ষি বল। যাইতে পারে । আমি তোমাদের 

৬১ 


বরাজযোগ 


সহিত কথ। কহিতেছি 5 আবার এ সমস্সেই আমি যেন আর একজন 
লোক, বাহিরে দ্লাড়াইস্সা রহিয্জাছি এবং যাহা করিতেছি তাহ? 
জানিতেছি ও শুনিতেছি । তুমি এক সময়ে কাধ্য ও চিস্তী উভগ্সই 
করিভেছ», কিন্ড তোমার মনের আর এক অংশ যেন বাহিবে 
ঈাড়াইক্স1,» তুমি যাহ। চিন্তা করিতেছ, তাহা দেখিতেছে । মনের 
-সমুদস্স শক্তি একত্রিত করিস্সা মনের উপরেই প্রয়োগ করিতে 
হইবে । তেমন স্র্যোর তীক্ষ বশ্মির নিকট অত্তি অন্ধকরময় 
স্গানসকলও তাহাদের গুপ্ত তথ্য প্রকাশ করিয়া দেয়, তব্রপ 
এই একা প্র মন নিজের অভি অস্তরতম বহস্তাসকল প্রকাশ 
করিক্সা দিবে! তখন আমরা বিশ্বাসের প্রকৃত ভিভ্িিতে উপনীত 
হইব । তখনই আমাদের প্রকৃত ধন্মলাভ হইবে । তখনই আত্ম। 
আছেন কি না, জীবন কেবল এই সামান্য জীবিত কালেই 
পধ্যাঁণ্ড বা অনন্তব্যাপী এবং জগতে ঈশ্বর কেহ আছেন কি ন। 
আঁমর॥ স্বন্ত দেখিতে পাইব । সমুদকসইছ আমাদের জ্ঞান-চক্ষুর 
সমক্ষে উদ্ভাসিত হইবে । বআাজযোগ ইহাই আমাদিগকে শিক্ষ! 
দিতে অগ্রসর ॥ ইহাতে বত উপক্দশ আছে», তৎ্সমুদকের উদ্দেশ্তা-__ 
প্রথমতহ মনের একাগ্রতা-সাধন, ততৎ্পরে উহার গভীরতম শুাদেশে 
কত প্রকার ভিন্গ ভিন্ন কাধ্য হইতেছে» তাহার ভ্ভাঁনলাভ, 
তৎ্পরে ত্রীশুলি হইতে সাধারণ সত্যসকল নিক্াশন করিস তাহ। 
হইতে নিজের একটা সিদ্ধান্তে উপনীত হওযস্1॥ এই ক্ল্যুই 
আাজযষোগ শিক্ষা করিতে হইলে, তোমার ধন্্ যাহাই হউক-_ 
তুমি আব্ডিক হও» নাস্তিক হও» স্বান্ছদ্ি হও» বৌদ্ধ হও» 
অথব শ্রীানই হও---ভাহাতে কিছুই আসিয়া যাক্স না। তুমি 
১২. 


অবতরণিকা! 


মানুষ_তাহাই বথেই। প্রত্যেক মন্তষ্যেরই ধন্সমতত্ত অন্সন্ধান 
করিবার শক্তি আছে, অধিকারও আছে ॥। প্রত্যেক ব্যক্তিরই 
যে কোন বিষয়ে হউক না কেন, তাহার কারণ জিজ্ঞাসা করিবার 
অধিকার আছে, আর তাহার এমন ক্ষমতাও আছে যে, সে 
নিজের ভিতর হইতেই তে প্রশ্বের উক্তর পাইতে পাবে । তকে 
অবশ্য ইহার জন্য একটু কষ্ট স্বীকার কর আবশ্যক । 

এতক্ষণ দেখিল।ম, এই বাজধযোগ-সাধনে কোন প্রকার বিশ্বাসেক 
আব্গ্ক কবরে না । যতক্ষণ না নিজে প্রত্যক্ষ করিতে পার» 
ততক্ষণ কিছুই বিশ্বাস করিও না, রাঁজবোগ ইহাই শিক্ষা দে । 
সত্যকে অতিঠিত করিবার জন্য অন্য কোন সহাক্ষতার আবশ্যক 
করে ন!। ভেোমর। কি বলিতে ৮ও যে, জাগ্রত অবস্থার সত্যত। 
প্রমাণ করিতে স্বপ্ অথব। কলনান্ সহাক্ততার আবশ্যক 
হস্স ? কখনই নহে । এই ব্রাজবোগ-সাধনে দীর্ঘকাল ও নিরস্তর 
অভ্যাসের প্রস্মোজন হক্স। এই অভ্যাসের কিক্সদংশ শরীবর-সংযম- 
বিষকক ॥ কিম্ত ইহার অধিকাংশই মন্ঃসংঘমাত্মক । আমরা ভ্রমশহ 
বুকিতে পাবিব, মন শরীরের সহিত কিব্ধপ সম্বন্ধে সম্বন্ধ। যদি 
সামরা। বিশ্বাস করি তে, মন কেবল শরীরের স্ক্ম্ন অবস্থাবিশেষ 
মাত্র, আর মন শরীরের উপর কাধ্য করে-__-এ সত্যে যর্দি আমাদের 
বিশ্বাস থাকে, তাহ হইলে ইহাও স্বীকার করিতে হইবে যে, শরীরও 
মুন উপর কাধ্য করে । শরীর অস্রন্থ হইলে মন অন্স্থ হস্, 
শরীর নুস্থ থাকিলে মনও সুস্থ ও সতেজ থাকে । যখন কোন 
ব্যক্তি ক্রোধান্বিত হস্স,় তখন তাহার মন অস্থির হক্স । অনে্র 
অস্ফিরতা হেতু শরীরও সম্পূর্ণ অস্থির হইন্থা পড়ে ॥ অধিকাংশ 


৩ 


প্াজযোগ 


লোকেরই মন শরীরের সম্পূর্ণ অধীন । বাল্ডবিক ধরিতে গেলে 
তাহাদের মনঃশভ্তি অতি অল্পরিমাণেই প্রস্কুটিত । তামরা ষদদি 
কিছ মনে না কর, তবে বলি, অধিকাংশ মন্ুব্যই পশ্ুড হইতে অতি 
অল্পই উন্ত ॥| কারণ, অনেক স্থলে সামান্য পশুপন্দথী অপেক্ষা 
তাহাদের সংযমের শক্তি বড় অধিক নহে । আমাদের মনকে নিগ্রহ 
করিবার শক্তি অতি অলই আছে । মনের উপর এই ক্ষমতালাভের 
জন্য, শরীর ও মনের উপর ক্ষমত। বিস্তার করিবার জলন্ত আমাদের 
কতকগুলি বহিরঙ্গ সাধনের--টদহিক সাধনের প্রস্জোজন । শরীর 
বখন সম্পূর্ণরূপে আম্ত্ত হইবে, তখন মনকে লইক্স॥ নাড়াচাড়। 
করিবান সমন আসিবে । এইকব্দধপে মন যখন আমাদের অনেকটা বশে 
আন্সিবে, তখন আনর। ইচ্ছামত উহাঁকে কাজ করাাইতে ও ইচ্ছামত 
উহার বুত্তিসমুহকে একমুখী হইন্ডে বাধ্য করিতে পাবিব । 

রাজযোগান্ মতে এই সমুদক্স বহির্জগত অস্তঞ্গত বা স্শ্প্র- 
জগতের স্থল বিকাশ মাত্র । সর্ববস্থলেই স্ম্মকে কারণ ও স্কুলকে 
কাধ্য বুকবিতে হইবে ॥। শএ্রই নিয়মে বহির্জগতৎ কাধ্য ও অন্তজগৎ 
কারণ ॥ এই হিসাবেই স্থল জগতে পরিদৃশ্তমান শক্ক্িশুলি 
আভ্যন্তপ্রীণ সুশ্মতর শক্তির স্কুলভাগ মাত্রা? যিনি এই আভ্যন্তরীণ 
শক্তিগলিকে আবিষ্কার করিনা উহার্দিগকে ইচ্ছামত পরিচালিত 
কৰ্সিতে শিখিস্বাছেন, তিন্নি সমুদক্স প্রকৃতিকে বশীকত কব্সিতে 
পারেন । যোগী সমুদ্র জগৎকে বশীভূত করা ও সমুদয় প্রকতির 
উপর ক্ষনমত। বিস্তার কর। রূপ স্ুবুহৎৎ কাধ্যকে আপন কর্তব্য বলিক্ব। 
গ্রহণ করেন । তিনি এমন এক অআবস্থাম্ম বাইতে চাহেন+গ-_ যথাস্ 
আঁক! ধাহার্গিগরকে প্প্রক্কতির নিক্মমাবলি” বলি, তাহার! তাহার 

১.) 


1 


অবতরণিকা। 


উপর কোন প্রভ।ব বিস্তার করিতে পারিবে ন--বে অবস্থায় 
তিনি শর সমুদ্ধযর্ন অতিক্রম করিতে পাব্রিবেন। তখন তিনি 
আভ্যন্তরীণ ও বাহা সমুদয় প্রকৃতির উপনু প্রভুত্ব লাভ করেন। 
মন্ব্জাতির উন্নতি ও সভ্যত৭, এই প্রকৃতিকে ব্শাভৃত করার শক্তির 
উপর নির্ভর করে । 

এই প্রকৃতিকে বশীভত করিবার জন্ত ভিন্জ ভিন্গ জাতি ভিন্ন 
ভিন্ন 'প্রণালী অবলম্বন করিয়া থাকে । যেমন একই সমাজের 
মধ্যে কতকগুলি ব্যক্তি বাহাপ্রকৃতি, কতকগুলি আবার অস্তঃ- 
প্রকৃতি বশীভূত করিতে চেষ্টা পাক, সেইরূপ ভিন্ন ভিন্ন জাতির মধ্যে 
কোন কোন জাতি বাহা ও কোন কোন জাতি অন্তহপ্রকৃতি 
বশীভূত করিতে চেষ্টা করে । কাহারও মতে, অস্তঃপ্রক্ৃতি বশীভূত 
করিলেই সমুদম্ব বশীভূত হইতে পারে; কাহারও মতে বা বাহা- 
প্রকৃতি বনাভূত করিলেই সমুদয় বশীভূত হইতে পাঁরে। এই 
দুইটি সিদ্ধান্তের চরমভাব লক্ষ্য করিলে ইহ। প্রতীরমান হুর যে, 
এই উভয় সিদ্ধান্তই সত্য; কারণ প্রকৃতপক্ষে বাহা, অভ্যন্তর 
বলিক্। কোন ভেদ নাই। ইহ? একটি কাল্ননিক বিভাগ মাত্র। 
এইনূপ বিভাগের অস্তিত্ই নাই, কখনও ছিল না। বতির্বাদী ব। 
অন্তর্ববাদী উভক্সে যখন স্ব স্ব জ্ঞানের চরম সীম। লাভ করিবেন, 
তখন একস্থানে উপনীত হইবেনই হইবেন । বেমন বহিবিজ্ঞান- 
বাদী নিজ জ্ঞানকে চরম সীমার লইযর়। বাইলে শেষকালে 
তাহাকে দার্শনিক হইতে হর, সেইরূপ দাশনিকও দেখিবেন, 
তিনি মন ও ভূত বলিক্পা যে দুইটি ভেদ করেন, তাহ) বাস্তবিক 
কাল্পনিক মাত্র, তাহ একদ্বিন একেবারেই চলিক। যাইবে । 

১৫ 


রাজযোগ 


যাহ] হুইতে এই বহু উৎপন্ন হইক্স/ছে, যে এক পদার্থ বহুব্দপে 
প্রকাশিত হইস্সাছে* সই এক পদার্থকে নির্ণয্ করাই সমুদ্কসস 
বিজ্ঞানের মুখ্য উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য ॥ ব্াজযোগীরা বলেন, “আমর! 
এপরথমে আন্তর্গতের জ্ঞ।ন লান্ড করিব, পরে উহার দ্বারাই বাহা 
ও) আন্তর উভক্প প্রক্তিই বশীভূত করিব ।” প্রাচীন কাল 
হুইভেই লোকে এই বিবশ্সে চেষ্টা করির॥ আপিতেছেন্‌ ॥ ভাবরতি- 
বর্ষেই ইহার বিশেষ চেষ্ট হয্স 2 তবে অন্ঠণন্ত জাতিরাও এই বিষক্ে 
কিঞ্চিৎ চভেষ্ট।! করিকব্রছিল । পাশ্চাত্য দেশে ঢোকে ইহাকে 
ব্রহস্তা বা! গুঞ্বিছ্া ভাবিভ, বাহার) ইহা অভ্যাস করিতে 
যাইতেন, তাহাদিগকে ভাইন, প্রন্্রজালিক ইত্যাদি অপবাদ 
দিস্রা পোড়াইন্র। অথবা অন্ঠরূপে মারিন্ন। ফেল? হইত ; ভারতবর্ষে 
নানা কারণে ইভা এমন ঢলাকসমুহের ভস্তে পড়ে, যাহার। 
এই বিস্তার শতকরা! নব্বই অংশ নষ্ট করিক্া অবশিইটকু অতি 
শোাপনে আাধিভ্ে 61 করিকয্াাছিল । আজকাল আবার ভারত- 
বর্ষের শুরুগণ অপেক্ষা নিকুছই শুকুন।মধান্ী কতকগুলি ব্যক্তিকে 
দেখ। যাইতেছে * ভারতবর্ষের গুরুগণ তবু কিছু জানিতেন» এই 
আধুনিক গুরুগণ কিছুই জানেন না । 

এই সমস্ড যোগ-প্রণালীতে গুহা বা অদ্ভুত যাহা কিছু আছে 
সমুদয় ত্যাগ কত্িতে হইবে । যাহা কিছু বল প্রদান করে, 
তাহাই অন্সরণীক্স । অন্যন্য বিষয়ে ও যেমন» ধন্মেও তদ্রপ । যাহা। 
তোমাকে তর্ধল করে, তাহ! একেবারেই ত্যাজ্য । ব্রহস্তস্পৃহাই 
মানবমন্তডিক্ষকে তুর্বল করিম! ফেলে । এই সমন্ড গুহা ব্রাখাতেই 
যোগশাক্্ প্রায় একেবারে নই হইস্সা গিস্সাছে বলিলেই হক্স | কিন্ত 


১ ম্৩ 


অবতরণিকা 


বাস্তবিক ইহা একটি মহাবিজ্ঞান । চতুঃসহম্রাধিক বর্ষ পুর্বে 
ইহ? আবিদ্কত হয়, সেই সময় হইতে ভারতবর্ষে ইহ? প্রণালী- 
বন্ধ হইব বর্ণিত ও প্রচার্িভ হইতেছে । একটি আশ্চর্য এই যে 
ব্যাখ্যাকার ফত আধুনিক, তাহার ভ্রমও তেই পরিমাণে অধিক । 
লেখক যতই প্রাচীন, তিনি ততই অধিক ন্যায়সঙ্গত কথ। বলিয়া 
ছেন। আধুনিক লেখকের মধ্যে অনেকেই নানাপ্রকার রহস্তের 
ব) আজগুবী কথা কহিক্॥ থাকেন । এইবপে যাহাদেন হন্তডে ইহ? 
পড়িল, তাহার] সমস্ড ক্ষমত। নিজকবতলস্থ বাখিবান হইচ্ছণস 
ইহাকে মহ। গোপনীয্স বা আজগুবী করির। তুলিল এবং বুক্তিব্ধপ 
প্রভাকবের পুর্ণালোক আর ইহাতে পড়িতে দিল ন। ।॥ 

আমি প্রথহনই বলিতে চাই, আমি যাহ। প্রচার করিতেছি, 
ভাহার ভিতর শুহা কিছুই নাই । যাহা বত্কিব্িৎ আমি জানি, 
তাহা তোমাদিগকে বলিব । ইহ যতদূর যুক্তি ছার) বুঝান যাইতে 
পারে, ততদুর বুঝাইবার চেষ্টা করিব । কিন্ত আমি যাহা বুঝিতে 
পারি না, তৎ্সম্বন্ষে বলিব», “শাস্ত্র এই কথ+ বলেন ॥” অবিশ্বাস কর। 
অন্যায় 2 নিজের বিচারশভ্তি ও যুক্তি খথাটাইতে হইবে * কাধ্যে 
করিয়। দেখিতে হইবে যে, শান্দে যাহ॥ লিখিত অ।ছে» তাহ সত্য 
কি-না ॥ জড়বিজ্ঞান শিখিতে হইলে যে ভাবে শিক্ষা কর, ঠিক 
সেই প্রণালীতেই এই ধন্ম-বিজ্ঞান শিক্ষা কব্রিতে হইবে । ইহাতে 
গোপন করিবার কোন কথ। নাই, কোন বিপদের আশঙ্কাও নাই » 
ইহার মধ্যে যতদূর সত্য আছে, তাহা সকলের সমক্ষে রাজপথে 
প্রকাশ্তভাবে প্রচার কর। উচিত । তোনরূপে এ সকল গোপন 
করিবার চেষ্ট করিলে অনেক বিপদের উৎপন্ভি হয় । 

১৭ 


প্রাজযোগ 


আর অধিক বলিবাঁর পুর্বে আমি সাংখ্যদর্শন সম্বন্ধে কিছু 
বলিব । এই সাংখ্যদর্শনের উপর বাজযোগ-বিছ্য1 সংস্থাপিত ॥। সাংখ্য 
দর্শনের মতে বিষক্স-ত্ঞানের প্রণালী এইরূপ-- প্রথমতঃ, বিষের 
সহিত চক্ষুরার্দি যক্ত্রের সংঘোগ হয় । চক্ষুরার্দি ইক্ছ্রি্ম গণের নিকট 
উহ! প্ররণ করে হু ইন্ড্রিম্সগণ মনের ও মন নিশ্চনাত্িকণ বুদ্ধির 
নিকট লইক্বা বায়; তখন পুক্ুষ বা আত্মা উহা প্রহণ করেন 
পুরুষ আবার, নে সকল ঢাপানপরুস্পন্পান উহ1 আসিম্বাছিল, 
তাহাদের মধ্য দিনঃ তেন উহাকে ফিরিক্া। যাইন্ডে আদেশ কেন । 
এইব্পে বিষন্ব গ্ুহীত হইন্স। থাকে । পুরুষ ব্যতীত আর সকলগুলি 
জড়। শঅতবে মন চক্ষুরাদি বাহা বন্ধ অপেক্ষা স্শ্মতর ভৃন্তে নিমন্মিত | 
মন বে উপাদানে নিশ্মিভ ভাতা ক্রমশহ স্ুলতর হইলে তন্মাত্রাতর 
উৎপন্ভি ক্স ॥ উন অ:রও স্কুল হইলে পরিদৃশ্যমান ভুতের উৎপত্তি 
তক্ম। সাংখ্যের মনোবিজ্ঞান এই । স্যতরাং, বুদ্ধি ও স্কুল ভূতের মধ্যে 
প্রত্্দ কেবল মাত্রার তারভম্যে । একমাত্র প্রক্রষই চেতন । মন 
বেন অ।ন্মার ভন্ড বন্্রবিশেষ । উহা দ্বারা আত্মা বাহ্া বিষক্ষম গ্রহণ 
কৰিব থাকেন । মন সদ? পরিবণ্তনশ্রীল,ং একদিক হইতে অন্য 
দিকে দৌড়ান্, কন সম্ুদ্দক্স ইক্দ্রিক্ষশুলিতেে সংলগ্ন, কখন বা একটিতে 
হলপ্র থাকে, আবার কখনও বা কোন ইন্দ্রিশ্েইে সংলপ্র থাকে 
ন1॥। মনে কর আমি একটি ঘড়ির শব্দ মনোষোগ কপ্তিয। 
শুনিতেছি » এন্সপ অবস্থান আমার চক্ষু ভন্দমীলিত থাকিলেও কিছুই 
দেখিতে পাইব না ইহাতে স্পট জানা বাইতেছে তে, মন যদিও 
অবণেক্দিয়ে সংলপ্র ছিল, কিন্ত দশনেক্ছিয়ে ছিল না । এইবন্প 
আন সমুদ্র ইক্ড্রিয়েও এক সমক্ে সংলশ্ব থাটনিতে পারে । মনের 

৭৬৮ 


অবতরণিক? 


আবার ''অস্তদ্রণতি শক্তি আছে, এই শক্ভিবলে মানুষ নিজ 
অন্তরের গভীরতম প্রদেশে দ্স্তটি করিতে পারে । অস্তদ্র্ি- 
শক্তির বিকাশ সাধন করাই বোগীর উদ্দেশ্য ১ মনের সমুদক় শক্তিকে 
'একতর করিনা ও ভিতরের দিকে ফিরাইর), ভিতরে কি হইতেছে» 
শাহাই ৮ভ্িনি জানিতে চাতেন । ইহাতে বিশ্বাসের কোন কথা নাই, 
হহ$ কতকগুলি দ্ার্শনিকের মনস্তত্তবিশ্রেষশণের ফলমাত্র । আধুনিক 
শরীরতক্তবিৎ পশণ্ডিতেরা বলেন” চক্ষু প্রকৃতপক্ষে দশনের করণ নভে, 
এ করণ মন্তডিক্ষেতর অন্তর্গত সারুহকন্দে অবস্থিত । সমুদ্র ইন্িক্স- 
সন্বক্কেই এইকব্দপ বুঝিতে ভইহে । ভাভার। আরও বলেন- _মম্ভিষ্ষ ফে 
পদার্থে নিশ্মিত» এউ কক্রণুলিও ঠিক সেই পদার্থে নিশ্মিভ | 
সাংখ্যেরাও এইরূপ বলিয়া থাকেন ১ তবে অপ্রভেদ এই ষে-- 
সাংখ্যের সিদ্ধাম্ত আধ্যাত্মিক দিক দিক্সা আর ঠবজ্ঞানিকেক ভোতিক 
দক দিয় । তাহ)? হইলেও», উভস্খই এক কথ।। আমাদিগকে 
তার অতীত রাজ্যের অন্বেষণ করিতে হইবে । 

যোগীর চেষ্টা, নিজেকে এমন স্ঙ্গ্ান্ুভতিসম্পন্মগ করা, 
ঘাহাতে তিনি বিভিন্গ মানসিক অবন্থাগুলিকে প্্রত্য্ষ করিতে 
পারেন । মানসিক প্রতিক সমুদকের পুথথক প্রথক্‌ ভাবে মানস 
প্রত্যক্ষ আবশ্যক । বিষদ্ষসমৃহ চক্ষুর্গোলকাদ্দিকে আঘাত করিবামাত্র 
তহুৎ্পন্ম ০বর্দন॥ কিব্ূপে তর্ভৎ কৰরণসহায়ে সাঘুমার্শে ভ্রমণ করে, 
মনন কিরূপে উহণদ্িগকে গ্রহণ করে, কি করিক। উহার) আবার 
নিশ্চম্সণাত্মিক? বুদ্ধিতে গমন করে, পরিশেষে কি করিক্জাই ব? পুক্ুষের 
নিকট যাকস-_-এই সমুনক্স ব্যাপারশুলিকে প্রথক্‌ পুথক্‌ ভাবে প্রত্যক্ষ 
করিতে হইবে ॥। সকল বিষয় শিক্ষারই কতকগুলি নির্দিউ প্রণালী 

৯ ৩১ 


বাজযোগ 


আছে । যে কোন বিজ্ঞান শিক্ষ7? কব না কেন, প্রথমে আপনাকে 
উহ জন্য প্রস্তত হইত্তে হয়” পরে এক নিদিষ্ট প্রণালীর অনুসরণ 
করিতে হয় । তাহা না করিলে উক্ত বিজ্ঞনের সিদ্ধাম্তসমূৃহ বুঝিবাবু 
আর দ্বিতীক্ষ ভপাক্ নই । বাজযোগ সম্বন্ধেও তন্রপ | 

আহার সমন্ধে কতকগুলি নিয়ম আবশ্যক ॥। যাহাতে মন খুব 
পবত্র থাকে, অএক্দপ আহার করিতে হইবে । যর্দি কোন পশু- 
শ[ল[ন গমন করা বাঘ, তাহ) হইলে "বাহারের সহিত জীবের 
কি সন্বন্ধ, তাহা স্পষ্টই বুঝিতে পাবা বার ॥। হম্ডী অতি বুহতৎ্কাক্স 
অত কিন্ত তাহার প্রক্কৃতি অতি শাম্তঃ আর বন্দি তুমি 
সিংহ বা ব্যান্রের পিজরার দিকে গমন কর, দেখিতে পাইবে" 
তাহা ছটকট করিতেছে । উহাতে বুঝা যাক ১ আহারের 
তারতন্যে কি ভস্কনিক পরিন্কন সাধিত হইক্াছে । আমাদের 
শরীরে যতগুছি শক্তি ক্রীড়া করিতেছে, আহার সমুদন্শুলিই 
আহার হইতে উতপন্গ, আমরা ইহ প্রতিদিনই দেখিতে পাই । যদি 
সুমি ভপবাস করিতে আরম্ভ কর, তামার শরীর হুর্ববল হইক্স? 
বাহবে, €দছিক শক্তিশুলির হ্রাস হইবে, কস্ষেক্দিন পে 
মানসিক শক্তিগুলিরও হ্রাস হইতে থ।কিবে। প্রথমতঃ, স্বভিশক্তি 
চলিন7? যাইবে, পন এনন এক সমন্ব আসিবে, যখন তুমি চিন্ত! 
করিতেও সমর্থ হইবে না, বিচার করা তদ্ুরের কথ । সই জন্য 
সাধনের প্রথমাবস্থাক্স তভাজনের বিবক্ষে বিশেষ লক্ষ্য রাখিতে হইবে, 
পরে সধনে বিশেষ অগ্রসর হইলে এ বিবক্ে ততদৃর সাবধান 
ন॥। হইলেও চলে । বতক্ষণ গাছ ছোট থাকে ততক্ষণ উহাকে 
বেড়া দিস্বা রাখিতে হনব, তাহ) না হুইলে পশুর উহ1 খাইক্স। 

৮ 


অবতবণিকা! 


ন্ট কনিক্পা! ফেলিতে পারে £ কিস্ত বড় হইলে আব বেড়ার প্রক্ষোজন 
হক্স না, তখন উহ সমুদ্দঘ় অত্যাচার সহা করিতে সমর্থ ভক্স । 
যোগিব্যক্তি অধিক বিলাস ও কঠোরত। উভরই পব্রিত্যাগ 
করিবেন, ভাহান উপবাস কর। অথবা শরীরকে অন্তর্ূপে ক্রেশ 
দেওসা। উচিত নক । গাতাঁকার বলেন, যিনি আপনাকে অনর্থক 
ক্লেশ দেন, তিনি কখনও যোগ হইতে পারেন না । 
“'নাত্যশ্রতস্ত বোগোহক্ডি ন €চকাম্তমনশ্র তহ । 
ন চাতি্বপ্রনীলস্ত জাগ্রতে। €নব চাজ্ভুন ॥ 
যুক্তণহারবি্হারস্ত বুক্তচেষ্টস্ত কম্মক্ত । 
বুক্তম্বপ্লাববোধস্য ষে।গো। ভবতি হুহখহ4 1৮ 
গীতা, ভষ্ঠ অধ্যায়, ১৬১৭ 
অভতিভোজনকারী, উপবাসশীল, অধিক জাগরণশীল, অধিক 
নিদ্রালু, অতিরিক্ত কন্ম্ী, অথব$ একেবারে নিকষম্ম।__-ইহাঁদের মধ্যে 
কেহই যোগী হইতে পানে ন। | 


৫ -৫৪৮+- 
২১ ৫০৭ সি 


৯৫০৯1 ০৮৮ 


2 ছ্িভীক্ আঅধ্নাজ 
- সাধনের প্রথম সোপান 


রাজযোগ অআগ্টাঙ্গবৃক্ত । ১ম বম নঅর্াহ অহিংস, সত্য, 
অস্ত ( অচৌধ্য ), ব্রন্গচখ্য, অপরিগ্রহ । হ২য়-_নিয়ম অর্থাৎ 
শোৌচ, সন্তোষ, তপ্ত, স্বাধ্যা ('অধ্যাত্ম শাস্ত্র পাঠ ) ও ঈশ্বর- 
প্রণিধান বা ঈশ্বরে আত্ম-সমর্পণ । শুয়--আসন অর্থাৎ বসিবার 
প্রণালী । ৪র্থ- প্রাণাক্সাম । এম--প্রভ্যাহার অর্থাৎ মনের বিষয্া- 
ভিমুখী গতি ফিরাইন্ন* উহাকে অন্তমু্থী করা। ৬১- ধারণ! 
অর্থাৎ একাগ্রতা । খম-ধ্যান। ৮ম- সমাধি অর্থাৎ জ্ঞানাতীত 
অবস্থা! আমরা দেখিতে পাইতেছি, যম ও নিয়ম চরিত্রগঠনের 
সাধন । ইহাদিগকে ভিভ্ভিস্বূপ ন1 রাখিলে কোনরূপ ষযোগ- 
সাঁধনই সিদ্ধ হইবে না। বম ও নিপ্»ম দৃঢ়প্রতিষ্ঠ হইলে যোগা 
তাভার সাধনের ফস অনুভব করিতে আরম্ভ করেন । ইহাদিগের 
ভাবে সাধনে কোন কলই ফলিবে না। যোগী কাক্মমনোবাক্যে 
কাহারও প্রতি কখনও ভিংসাঁচরণ করিবেন না । রি শুদ্ধ যে মনুষ্যাকে 
ভিংসা না করিলেই হইল, তাহা নভেঃ অন্য প্রাণীর প্রতিও যেন 
হিংস। ন। থাকে 2 দয) কেবল মন্তব্যজাত্তিতে আবদ্ধ থাকিবে, ভাহা। 
নহে, উহ? যেন আরও অগ্রসর ভইঙ্ব। সমুদক্স জগৎকে আলিঙ্গন 
করে। 
১ যম ও নিয়মের পর আসন £ যতদিন ন। খুব উচ্চাবস্থা। লাভ 
৮ এ-এ 


সাধনের গ্থম সোপান 


হয়, ততদিন প্রভ্যভ নিস্নমত কতকগুলি শারীরিক ও মান্সিহ্ 
প্রক্ক্রিসা করিতে হয়, সুতরাং দীর্ঘকাল একভাবে বসিক্সা থাকিতে 
পারা] যায়» এমন একটি আসন-অভ্যাসের আবশ্তক ॥। বাহার 
ষে আসনে বসিলে সুবিধা হন, তাহার তেই আসন করিনা বস 
কর্তব্য £ একজনের পক্ষে একভাহব বপিয়। চিন্তা করা সহজ হইতে 
পারে, কিন্ক অপরের পক্ষে হত তাহ কঠিন বোধ হইবে । 
আমর পরে দেখিতে পাইৰ বে. ঘোগ-সাধনকালে শরীরের ভিতর 
নান)? 'প্রকার কাধ্য হইতে খাকিবে । আন্ববীষ শক্তিপ্রবাহের 
গতি ফিরাইর] দিয়! তাহ:দিগকে নুতন পথে শ্রবাছিত করিন্ডে 
হইবে 5 তখন শরীরের মণ্যে নৃহন প্রকার কম্পন ব) ক্তিম্ন আরম্ভ 
ভইবে £ সমুত্রক্স শরীবাটি যেন পুনর্পঠিত হইব যাইবে । এই ক্রিক্সার 
অধিকাংশই তমরুদণ্ডের অভ্যন্তরে হইবে 2 স্তর।ং আসন সম্বন্ধে 
এইটুকু বুঝিতে হইনে বে, মেরুদগুকে সহজভাবে রাখা আবশ্যক 
_ ঠিক সোজ? হইক্স॥ ব্সিতে হইবে, আর বক্ষঃদেশ, আ্রীবা ও মন্ডক 
সমভাবে বাখিতে হইবে-_-হের সমুদর ভাবটি যেন পঞ্জরগুগলর 
উপর পড়ে । বক্ষ2ঃদেশ বদি নীচের দিকে ঝুঁকিয়া থাকে, তাহা 
হইলে কোনরূপ উচ্চতুত্্ চিন্ত। করা সম্ভব নক,/তাহ1 তুমি সহজেই 
দেখিতে পাইবে । /বাজযোগের এই ভাগটি হঠযোগের সহিত 
অনেক মিলে । হঠযোগ কেবল স্কুলদেহ লইক্সাই ব্যস্ত 1/ ইহার 
উদ্দেশ্য কেবল স্কুলদেহকে সবল কর! ॥ হঠযোগ সম্বন্ধে এখানে কিছু 
বলিবার প্রস্মোজন নাই, কারণ উহার ক্্রিক্সাগুলি অতি কঠিন । 
উহ? একদিনে শিক্ষা? করিবারও বে! নাই । আরখু উহ দ্বার! 
আধ্যাত্মিক উন্নতিও হম্স না) এই সকল ক্ত্রিক্সারর অধিকাংশই . 


৮০ 


লাজযোগ 


ডেলসাট” ও অন্ঠান্ত ব্যাক্কামাঁচাধ্যগণের শ্রন্থে দেখিতে পাওয। যান ॥ 
উহারাঁও শরীরকে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে বাখিবার ব্যবস্থা! করিস্বাছেন । 
কিজ্ঞ হঠবোগের ভ্াক্সগ উহারও উদ্দেশ্য-_-টদহিক, আধ্যাত্মিক উন্নতি 
নহে । "শরীরের এমন কোন পেনা নাই, যাহা হঠযোগী নিজ বশে 
আনিতে না পারেন + হৃরম্ববন্ত্র তাহার ইচ্ছামত বদ্ধ অথবা? চালিত 
হইতে পারে, শরীরের সমুদন্ন অংশই তিনি ইচ্ছাক্রমে পরিচালিত 
করিতে পারেন । 

1 মানুষ কিসে দীর্ঘজীবী হইতে পারে, ইহাই ভ্ঠযোগের এক- 
মাত্র উদ্দেশ্তঠ ১৯ কিসে শরীর সম্পূর্ণ স্শ্ছু থাকে, ইহাই হঠবোগী- 
দিগের একমাত্র লক্ষ্য । “আমার যেন পীড়া না হন্স,” হঠযোগীর এই 
দৃঢসহ্কল 2 এই দৃঢ়সহ্কলের জন্য তাহার পীড়াও হন্ম নাঃ তিনি 
দীর্ঘজীবী হইতে পারেন ১/ শতবব জীবিত থাক? তাহার পক্ষে অতি 
তুচ্ছ কথা । দেড়শত বশসর বরস হইস্স! গেলেও দেখিবে, তিনি পূর্ণ 
ঘুব। ও সতেজ রহিয়াছেন, তাহার একটি কেশও শুভ্র হস্স নাই। 
কিন্ত ইহার ফল এই পধ্যন্তই । ব্টবৃক্ষও কখন কখন পাঁচ হাজার 
বৎসর জীবিত থাকে, কিন্ত উভা হতে বটবুক্ষ সেই ব্টবুক্ষই থাকে । 
তিনি ও না হয় তন্রপ দ্রীর্ঘ লীবী হইলেন, তাহাতে কি ফল? তিনি 
না হম্র খুব নুন্থকাম্ জীব, এইমাত্র ।€ হঠযোগাদের ছুই একটি 
পাঁধারণ উপদেশ বড় উপকানী * শিরঃপীড়1 হইলে, শব্যা হইতে 
উঠিক্সাই নাসিক দিক শীতল জল পাঁন করিবে, তাহ। হইলে সমস্ত 
দিনই তোমার মম্তডিকষ অতিশন শ্লাতল থাকিবে, তোমার কখনই 
সর্দি লাগিবে না । নাসিক দিক্সা জল পান করা কিছু কঠিন 
নয়, অতি সহঙজ্জ। নাসিক। জলের ভিতর ডুবাইয়া গলার ভিতর 

২৪ 


সাধনের প্রথম ০সাপান 


জল টানিতে থাক, ক্রমশঃ জল আপন আপনিই ভিতরে 
যাইবে 1 


1 আসন সিদ্ধ হইলে, কোন কোন সম্প্রনাক্সের মতে নাড়ীশুদি 


করিতে হস়্। অনেকে বাজযষোগেত অন্তর্গত নহে বলিয়া ইহার 
আবশ্টকত। স্বীকার করেন না । কিন্ত বখন শহ্করাচাধ্যের ভ্চাক্স 
ভাব্যকার হহার বিধান দিরাছেন তখন আমারও ইহা! উলেখ কর। 
উচিত বলিক্পা বোধ হন্দ। আমি] শ্েতাশ্বতর উপনিষদের ভাব্য 
হইতে এ বিষয়ে তাহার মত উদ্ধত করিব _্প্রীণান্াম দ্বারা যে 
মনের মল বিধোত্ত হুইত্রছে, ০সই মনই ব্রন্ষে স্থির হক্স | এই জন্যই 
শান্সে প্রাণাম্বামের বিষক্র কথিত হইক্সাছে। প্রথমে নাড়ীশুদ্ধি 
কবিতে হম, তবেই প্রাণান্বাম করিবার শক্তি আইনে । বুদ্ধাক্ুভের 
দ্বারা দক্ষিণ নাস! ধারণ করিকয়। বাম নাসিকার দ্বার যথাশক্তি 
বাবু গ্রহণ কব্তিতে হইবে, পরে মধ্যে বিন্দুমাত্র সমব বিশ্রাম ন। 
করিক্সা বাম নাসিক বন্ধ করিযা দক্ষিণ নাসিক। দ্বার বাধু ৫রেচন 
করিতে হইবে । পুনকাক্স দক্ষিণ নাসিকা দ্বার! বাস গ্রহণ করিস্ব 


শ্ সম্থেতাখতর উপনিষদের শাক্কর-ভাক্ক -. 
প্রাণায়াম-ক্ষকিত-মনোমলত্ত চিত্তৎ ব্রক্ষণি স্থিত ভবতীতি শ্রাণাক্সামো 
নিদ্দিশ্ততে । শ্রথম২ৎ নাড়ীশোধনং কর্তব্াৎ ॥ ততঃ  আণাআমেহধিকারহ ॥ 
দক্ষিণ-নাসি ক পুউমঙ্গুল্যাবষ্টভ্য বামেন বাধূং পুরকেদ্‌ বথাশক্তি । ততোহনস্তরমুত- 
স্ঃজ্যৈবং £ দক্ষিণেন পুটেন সমুত্স্যজেৎ্ ॥ সব্যমপি ধারকে্॥ পুন্দক্ষিণেন পুরসিতা। 
সব্যেন সমুতহজেত্ বথাশক্তি ॥ ব্রিঃপঞ্চকৃত্থটে বৈবমভ্যন্তত5হ সবন্চতুষ্টক্সমপররাত্রে 
সধ্যাহে, পুর্ববরাত্রেহকঞ্ধরাত্রে চ পক্ষান্স।স।দ্বিশুদ্ধিভবতি । 
যব, ৮ জো। 
শঞ 


বরাজবোগ 


যাশক্তি বাম নাসিক? ছারা বারু রেচন কর ।॥। অহোরাত্র চারি 
বার অর্থাৎ উষা, সধ্যাহ্, সাম্বীহ্ন ও নিনাথ এই চারি সমন 
পুর্বেবোজ্ত ক্রিস তিনবার অথব। পাঁচবার অভ্যাস করিলে এক পক্ষ 
অথল। এক মাসের মধ্যে নাড়ী-শুদ্ধি হর; তৎপরে প্রাণাস্গামে 
অধিকার হইবে 1» 

সর্বদা অভ্যাস আবশ্যক ।] তুমি প্রতিদিন অনেকক্ষণ ধিক 
ন্সিক্া আমার কথা শুনিতে পার, কিন্থ [অভ্যাস না করিলে? 
তুমি এক বিন্দু অগ্রসর হইতে পারিবে না । সমুদয়ই সাধনের 
উপর শির করে ।1 প্রত্যক্ষানুভূত্তি না হইলে এ সকল ত্ড 
কিছুই বুঝা যাক না। নিজে অনুভব করিতে হইবে, কবল 
ব্যাখ্য। ও মত স্ঞনিলে চলিবে না। সাধনের অনেকগুলি বিন্র 
আছে । ১ম ব্যাধিগ্রস্ত দেহ-_ শরীর সুস্থ »1 থাকিলে সাধনের 
ব্যতিন্রম হইবে, এইজন্যই শরীরকে ছুস্থ বাখা। আবশ্তক ॥। কিরূপ 
পানাহার করিব কিরূুপে জীবন-যাপন করিব এ সকল বিযক্ষে 
বিশেষ মনোবোগ রাখা আবগ্তক । মনে ভাবিতে হইবে, শরীর 
সবল হউক/_-এখানকার 00171156127 501517552% মতাব্লহ্বীর। 

মী তি ররহ্দৃদ। ০০$57৯0০5 - এই সম্প্রদ্থাক্স মিসেস আএডিড নামক এক 
আমেরিকান নহিল। কর্ডক প্রতিন্িত হয় ॥। ইহার মতে জড় বলিকা1 বাস্তবিক 
কোন পদার্থ নাই, উহ্‌? কেবল আমাদের মনের ভ্রমমাত্র ॥ বিশ্বাস করিতে 
হইবে -_ আমাদের কোন রোগ নাই, তাহ! হইলে আমরা তত্ক্ষপাৎ রোগমুক্ত 


ইহার (01571505575 50751১05 নাম হইবার কারণ এই হযে এ 


হইব ॥ 
খুষ্ট যে সকল 


মতাবলম্বীর! বলেন, “আমর খ্ুষ্টের শ্রকুত পদান্থসরণ করিতেছি । 
অদ্ভুত ক্রি! করিরাছিলেন, আমরাও তাহাতে সমর্থ ও সর্বপ্রকারে দোবশুনয 


জীবনযাপন করা আমাদের উদ্দেহ্ট ॥” 
৮ 


সাধনের প্রথম সোপান 


যেরূপ করিক্সা থাকে । | বাস্‌, শরীরের জন্য আর কিছু করিবার 
আবশ্যক নাই । ন্বাস্থ্যরক্ষণের উদ্দেশ্য সাধনের একটি উপান্র 
মাত্র- ইহা যেন আমরা কখনও না ভুলি / যদ্দি স্বাস্থ্যই উদ্দেশ্য 
হইত, তবে ত আমরা পশুতুল্য হইতাম । পশুর) শ্রীক্সই অন্ুস্থ 
হয় না । 

দ্বিউীক্স বিদ্ব সন্দেহ । আমরা বাহ। দেখিতে পাঁই না, সে সকল 
বিষে সন্দিপ্ধ হইম্॥ থাকি । মাঁচষ বতই চেষ্টা করুক না কেন, 
কেৰল কথার উপর নির্ভর করিম? সে কখনই থাকিতে পারে না 
এই কারণে যোগশান্সোক্ত বিষের সত্যতা সম্বন্ধে সন্দেহ উপস্থিত 
হস্স। | এ সন্দেহ খুব ভাল লোকের দেখিতে পাঁওয়! যাঁয়। 
কিন্ত সাধন করিতে আরম্ভ করিলে অতি অল্প দিনের মধ্যেই কিছু 
কিছু লোকাতীত ব্যাপার দেখিতে পাইবে ও তখন সাধনবিষস্ষে 
তোমার উৎসাহ বদ্ধিত হইতে | যোগশাস্ত্রেরে জনৈক টীকাকার 
বলিক্কাছেন, “যোগশাস্সের সত্যত৭ সম্বন্ধে দি একটি খুব সামান্ত 
প্রমাণণড পাওযা। যায়» তাহাতেই সমুদ্স্স যোগশাস্রের উপর বিশ্বাস 
হইবে 17” | উদাহব্রণস্বরূপ দেখ, কক্সেক মাস সাধনের পর দেখিবে 
যে তুমি অপরের মনোভাব বুঝিতে পারিতেছ, সেগুলি তোমার 
নিকট ছবিব্র আকারে আসিবে 2 অতি দূরে কোন শব্দ বা কথাবার্ত। 
হইতেছে, মন একাগ্র করিসস॥ শুনিতে চেষ্টা করিলেই হস্ত উহ! 
শুনিতে পাইবে । প্রথমে অবশ্ত এ সকল ব্যাপার অতি অল্প 
অল্পই দেখিতে পাইবে । কিন্তড তাহাতেই তোমার বিশ্বাস, বল 
ও আশ। বাড়িবে। মনে কর, যেন তুমি নাসিকাত্রে চিভ্তসংবম 
করিলে, তাহাতে অল্প দিনের মধ্যেই তুমি দিব্য সুগন্ধ আত্রাণ 
ৃ ২৭ 


বরাঁজযোগ 


করিতে পাইবে 5 ভাহাতেই তুমি বুঝিতে পারিবে যে, আমাদের 
মনন কখন কখন বস্তর বাস্তব সংস্পর্শে না আসিন্নাও তাহা অচ্কভব 
করিতে পারে । কিন্ত এইটি আমাদের সর্বদা স্মরণ বাঁখা আবশ্াক 
বে, এই সকল সিদ্ধির আর স্বতস্ত্র কোন মুল্য নাই, উহ আমাদের 
প্রকৃত উদ্দেশ্যসাধনের কিধিৎ্ সহাক্স মাত্র । আমাদিগকে স্মরণ 
বাখিতে হইবে যে, এই সকল সাধনের একমাত্র লক্ষ্য-_একমাত্র 
উদ্দেশ্য--“আত্মার সুক্তি” । প্রকৃতিকে সম্পূর্ণরূপে আপনার অধীন 
করাই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য, ইহা ব্যতীত আর কিছুই আমদের 
প্রকুত লক্ষ্য হইতে পারে না । সামান্য সিদ্ধ্যাদিতে সম্্ট থাকিলে 
চলিবে নাঁ। আমনরাই প্রকৃতির উপর প্রভুত্ব করিব, প্রকৃতিকে 
আমাদের উপর প্রভৃত্ব করিতে দিব না। শরীর ব। মন কিছুই 
যেন আমাদের উপর প্রভুত্বর করিতে না পারে; আর ইহাও 
আমাদের বিস্বাত হওস॥? উচিত নক্ব যে--শরীর আমার”--আমি 
শরীরের নভি” | 

এক দেবতা ৪ এক অস্ত উভস্সেই এক মভাপুক্রষের নিকট 
আত্মজিভ্ঞান্ু ভইক্স)? গিক্বাছিল । তাহারা সেই মহাপুক্রষের নিকট 
অনেক দিন বাস করিস্সা শিক্ষা করিল । কিছুদিন পরে মহাপুকুব 
তাহাদিগকে বলিলেন, “ভুমি যাহা অন্বেষণ করিতেছ, তাহাই 
তুমি 7৮৮ তাহার! ভানিল, তবে দেহই “আত্ম।”। তখন তাহার? 
উভয়েই “আনাদের যাঁহ। পাইবার, তাহ! পাইস্সাছি” মনে করিক্স 
সনু চিত্তে স্ব স্ব স্থানে প্রস্থান করিল । তাহার? যাইম্সা আপন 
আপন শ্বজনের নিকট বলিল, “ষাহ। শিক্ষা) করিবার তা 
সমুদক্সই শিক্ষ) করিয়া আসিয়াছি, এক্ষণে আইস ভোজন, পান, 

সই 


সাধনের প্রথম সোপান 


ও আনন্দে উন্মত্ত হই-_আমবাই সেই আত্মা; ইহ ব্যতীত আব 
কোন পদার্থ নাই |” সেই অন্থরের স্বভাব অজ্ঞান্-ম্ঘোবুত 
ছিল, স্তবরাৎ সে আর এ বিষয়ে অধিক কিছু অন্বেং্ণ করিল না । 
আপনাকে ঈশ্বর ভাবি সম্পূর্ন সম্ভষ্ট হইল 3 সে “আত্মা” শব্দে 
দেহকে বুঝিল । কিন্ত দেবতাটির স্বভাব অপেক্ষাকৃত পবিত্র ছিল, 
তিনিও প্রথমে এই ভ্রমে পড়িকাছিলেন যে, “আমি” অর্থে এই শরীর, 
ইহাই ব্রহ্গ, অতএব ইহাকে সবল ও স্ন্থু রাখা, সুন্দর বসনাদি 
পরিধান করান ও সর্বপ্রকার ঠদহিক স্থথ সম্ভোগ করাই কর্তব্য 
কিন্ত কিছু দিন বাইতে না বাইন্ডে তাহার প্রতভীতি হইল, শুরুর 
উপদেশের অর্থ ইহ)? নহে ষে, “6দেহুই আত্ম”» দেহ অপোক্ষণ+ 
শ্রেষ্ঠ কিছু অধছে। তিনি তখন গুরুর নিকট প্রত্যাবৃক্ত হহইন্বা 
জিজ্ঞাস। করিলেন, এগুরো, আপনার বাক্যের তাত্পধ্য কি 
এই তে, শরীরই আত্ম ?” কিম্ভ তাহ? কিনূপে হইবে 2 সকল 
শরীরই ধ্বংস হইতেছে দেখিভেছি, আত্মার ত ধ্বংস নাই |” 
আচাধ্য বলিলেন, “তুমি অ্বম্বং এ বিষর নির্ণম্ম কর 5 তুমিই 
তাহা ।”৮ তখন শিষ্য ভাবিলেন হতে, শরীরের ভিতর যে প্রাণ 
রহিয়াছে তাহাকে উদ্দেশ ককরিস্াই বোধ হয় গুরু পূর্বোক্ত 
উপদেশ দিত্রা থাঁকিবেন। কিন্তু তিনি শীদ্বই দেখিতে পাইলেন 
বে, ভোজন করিলে প্রাণ সতেজ থাকে, উপবাস করিলে প্রাণ 
ছুর্বল হুইপ পড়ে । তখন তিনি পুনরান্ম গুরুর নিকট গমন 
করিয়া বলিলেন, “শুরো, আপনি কি শ্রাণকে আত্ম বলিক্স+ 
ছেন্‌ ?”” গুরু বলিলেন, “*ম্য়ং ইহ) নির্ণয় কর, তুমিই তাঁহ। 1৯৮ 
সেই অধ্যব্সায়শীল শিষ্য প্ুনর্বার গুরুর নিকট হইতে আপিয়। 
ষ্ ০১ 


রাজযোগ 


ভাবিলেন, তবে মনই “আত্ম?” হইবে । কিন্তু শীত্রই বুঝিতে 
পারিলেন বে, মনোবুক্তি নানাবিধ, মনে কখন সাধুবৃর্তি আবার 
কখন বা অসবত্বুভ্তি উঠিতেছে 5 মন এত পরিবর্তনশীল যে, উন! 
কখনই আজ্মাঁ হইতে পারে না। তখন তিনি পুনরাক্স গুকুর নিকট 
যাইস্বখ+ বলিলেন, “মন-- আত্ম, আমার তত ইহ; বোধ হন নাহ 
আপন্মি কি ইহাই উপদেশ করিক্জাছেন ?”” শুরু বলিলেন, “না, 
তুমিই ন্াহী। তুমি নিজে উহা নির্ঁক্স কর।” এইবার সেই 
দেবপুঙ্গব আব একবার ফিব্রিক) গেলেন * তখন তাহার . এই 
জ্ঞানোদক্স হইল যে, “আমি সমস্ত মনোবুত্তির অতীত আত্ম, 
আমিই এক, আমার জন্ম নাই, মৃত্যু নাই, আমাকে তরবারি ছেদন 
করিতে পারে না, অপ্রি দাহ করিতে পারে না, বাবু শুক করিতে 
পারে না, জলও গলাইতে পারে না আনি অনাদি, জন্মরহিত, 
অচল,» অস্পর্শ, সরুর্বভ্ভ, সর্ববশক্তিমান্‌ পুরুব । “আত্মা” শরীর বা মন 
নহে; আত্মা এ &দকলেরই অভীত 1 এইরূপে দেবতার জ্ঞানে দর 
হইল ও তিনি তজ্জনিত আনন্দে তৃপণ্ হইলেন । অন্গর বেচারার 
কিন্ত সত্যলাঁভ হইল না, কারণ তাহার দেহে অত্যন্ত আসক্তি 
ছিল । 

এই জগতে আনেক অন্থুব্রপ্রক্কাতিবৰ লোক আছেন 5 কিন্তু 
দেবভ) যে একেবারেই নাই, তাঁভাও নত । বদ্দি কেহ বলে যে, 
আইস», €তভামাদিগকে এমন এক বিস্ভা শিখাইব, যাহাতে 
তোনাদের ইক্দ্রিক্জুখ অনন্তগুণে বন্ধিত হইবে» তাহ? হইলে অগণ্য 
লোক তাহার নিকট ছুটির বাইতব। কিম্ত যর্দি কেহ বলেন, 
“আইল, তোঁমাদ্দিগকে জীবনের চরম লক্ষ্য পরমাত্স।র বিষন্র 

ও) €১ 


সাধনের প্রথম সোপান 


শিখাইব»” তবে কেহই তাহার কথা গ্রান্ করিবে না । উচ্চ তত্ব 
শুধু ধাঁরণ। করিবার শক্তিও অন্ি অল তোঁকের মধ্যেই দেখিত্তে 
পাওয়া বাক্স» সভ্য লাভের জন্তু অধ্যবসাক্সশীল লোকের সংখ্য। 
ত আরও বিরল ।- কিন্ছু আবার সংসাঁলে এমন কতকগুলি মহাপুক্ুব 
আছেন, ধাহাঁদের ইহ! নিশ্চন ধারণ! তব, শরীর সহনল বর্ষ ই 
থাকুক বা লক্ষ বর্ষই থাকুক, চরমে সেই এক গতি । যে সকল 
শক্তির বলে দেহ বিবৃত বুহিরীছে, ভাহাবা অপস্যত হইলে দহ 
থাকিবে না । টোন লোকই এক মুহ্ত্ডের জন্যও শনলীরের 
পরিবন্তন নিবারণ করিতে সমর্থ হনব না । শরীর” আর কি? 
উহ? কতকগুলি নিক্গত পরিবর্তনশীল পরমাণু সমষ্টি মাত্র । নদীর 
দৃষ্টান্তে এই তত্র সহজেই তোধগম্য হইতে পারে । তোমার সম্মুখে 
এ নদীতে জলরাশি দেখিতেছ ১ এর দেখ-_সুহ্র্তের মধ্যে উহা? 
চলি গেল ও নূতন আর এক জলরাশি আসিল । 'ষে জলরাশি 
অ।সিল তাহ? সম্পূর্ণ নুতন বটে, কিস্ত দেখিতে ঠিক প্রথম জলবাশির 
সদৃশ ॥। শরীরও তেইরূপ ক্রমাগত পরিবর্তনশীল । শরীর এইক্গপ 
পব্রিবর্তনশীল হইলেও উহাকে সুস্থ ও বলিষ্ঠ রাখা আবশ্তক* কারণ 
শরীরের সাহাষ্যেই আমাদিগকে জ্ঞান্লাভ কব্রিতে হইবে । তাহ? 
ব্যতীত আব কোনও উপাক্স নাই । 

সর্বপ্রকার শরীরের মধ্যে মানবদেহই শ্রেষ্ঠতম ২5 মানুষই 
শ্রে্ঠতম জীব । মানুষ সর্বপ্রকার নিক প্রাণী হইতে, এমন 
কি, দেবাদ্দি হুইতেও শ্রষ্ভ। মানব হইতে শরেষ্ঠতর জীব আর 
নাই ॥। €দবতাদিগকেও জ্ঞান্লাভের জন্তয মানবদেহ ধারণ করিতে 
হস্বম। একমাত্র মচুষই জ্ঞান্লাভের অধিকারী, দেবতাবরাও এ 


২৩০৯ 


বাজযোগ 


বিষয়ে বঞ্চিত । য়াহু্দি ও সুসলমাঁনদিগের মতে ঈশ্বর, দেবতা ও 
অন্যান্য সমুদ্র ্ষ্ির পর মন্ুব্য স্ষ্টি করিয়া, দেনতাদিগকে গিক্ষা 
মন্ষ্যকে প্রণাম ও অভিনন্দন করিতে বলেন; ইব্রিশ ব্যতীত 
সকলেই তাহ? করিনাছিলেন, এই জন্ঠই জশ্বর তাহাকে অভিশাপ 
প্রদান করেন । তাহাতে সে শক্তানরূপে পরিণত হয়। উক্ত 
বূপকের অভ্যন্তরে এই মহত সত্য নিহিত আছে তে, জগন্ডে 
মানবজন্মই সর্বাপেক্ষা শ্রেষ্ঠ জন্ম । পশ্বাদি ভ্িধ্যক স্হ্ি ভমহ- 
প্রধান । পশ্ুর। কোন উচ্চতত্ব ধাবরণ। করিতে পারে না । (েব- 
চণও সন্তষ্যজন্ম না! লইন্সা মুক্তি লাভ করিতে পারেন না। দেখ, 
মান্তষের আত্মোন্রভির পক্ষে অধিক অর্থও অন্কূুল নহে, আবার 
একেবারে অতিশকপ নিঃস্ব হইলে ও উন্তি স্রদূরপরাহত হয় । জগতে 
মহাত্মা জন্মগ্রহণ করিক্রাছেন, সকলেই মধ্যবিস্ত শ্রেণী 
ত। মধ্যবিভ্দিগের ভিতরে সব বিল্োধী শক্তিগুলিব সমম্বসস 


সনি 


এ] 
4 | 


আছে । 

এক্ষণে প্রক্কুত প্রস্জাবের অনভ্রসরণ করা যাউক । আমাদিগকে 
এক্ষণে প্রাণাকামের বিষ আলোচনা করিতে হইবে । দেখা 
বাঁউক, |চিন্ত-বুত্তি-নিরো সের সহিত প্রাণানামের কি সম্বন্ধ ৷ শ্বীস- 
প্রশ্বাস যেন দেহ-বন্ধের গভি-নিনামক মুল-যন্ত্র €0৮-৮৮155251) 1 
একটি বুহৎ এঞ্জিনের দিকে দৃষ্টিপাত করিলে দেখিতে পাইবে যে» 
একটি বুহৎ্ চক্র ঘুরিতেছে» সেই চক্রের গতি ক্রমশঃ সস্প্রাৎ হুঙ্তর 
বস্ত্রে সঞ্চারিত হস্স । এইবপে, ঘেই এঞ্জিনের অভি স্শ্ঘ্ততম যন্ধগুলি 
পধ্যন্ত ও গভিগ্রাল তম্স। শ্বাস-প্রশ্বাস সই গতি-নিক্সামক চক্র 
€£15-/1,55] )। উহ্াই এই শরীরের সর্বস্থানে যে কোন 

, 2 


সাধনের প্রথম সোপান 


প্রকার শক্তি আবশ্যক, তাহা যোগাইতেছে ও ক্র শক্তিকে 
নিয়নিভ করিতেছে ।/ 

এক রাজার এক মন্ত্রী ছিল, €তোন কারণে বাজার অপ্প্িক্স পাত্র 
হওয়ায়, রাজী তাহাকে একটি অতি উচ্চ দ্রর্গের উচ্চতম প্রদেশে 
বদ্ধ করিয়। বাখিতে আদেশ করেন । বাজার আদেশ প্রত্ডিপীলিত 
হইল 5 মন্ত্রীও সেই স্থানে বদ্ধ হইক্সা মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা! করিতে 
লাগিলেন । মন্ত্রীর এক পতিব্রত? ভাধ্য। ছিলেন, তিনি বজনী- 
বোগে সেই ছুর্সের সমীপে আসিক্া তুর্গনাধস্থিত পত্িিকে কহিলেন, 
“আমি কি উপায়ে আপনার মুক্তিসাধন করিব বলিয়)॥ দিন 1” 
মন্ত্রী কহিলেন, “আগামী রাত্রিতে একটি লঙ্ন৷া কাছি, এক গাছি 
শক্ত দড়ি, এক বাগ্ডিল স্থতৰ, খানিকটা স্স্দম রেশমের সত, একট! 
গুবরে পোক? ও খানিকটা মধু আনিও ।॥” 'ভঠাহার সহ্ধন্মিলা 
পতির এই কথ? শুনিকস। অভ্তিশপ্র বিস্ময়শাবিষ্ট হইলেন ॥। যাহ? হউক 
তিনি পতির আজ্ঞাচসারে প্রাথিত সমুদয় দ্রব্যগুলি আনয়ন করি- 
লেন । মন্ত্রী তাহাকে রেশমের স্ুত্রটি দৃঢ়ভাবে গুববরে পোকাটিতে 
সংবুক্ত করিনা দিম্ব]» উহার শ্র্দে একবিন্দু মধু মাখাইক্সা। দিক 
উহার মস্তক উপরে রাখিস্তনা, উহাকে হুর্গপ্রাচীরে ছাড়িস্কা দিতে 
বলিলেন । পতিব্রত1 সমুদয় আজ্ঞ! প্রতিপালন করিলেন । তখন্‌ 
সেই কীট তাহার দীর্ঘ পথ-যাত্রা আরম্ভ করিল । সম্মুখে মধুর 
আত্রাণ পাইয়া) সে শী মধু-লোভে আন্ডতে আন্ডে অগ্রসর হইতে 
ল।গিল, এইব্ূপে সে ছুর্গের শীর্দেশে উপনীত হইল । মন্ত্রী 
উহাকে ধরলেন ও তৎসঙ্গে রেশমন্ত্রটিও ধরিলেন, তৎপরে 
তাহার আসীকে রেশম স্তরের অপব্বাংশ এ যে আর এক বাগ্ডিল 

২৩১২৩ 


রাজযোগ 


আপেক্ষাকত শক্ত শুতা ছিল, তাহাত্তে সংযষোগ কব্রিতে আদেশ 
দিলেন ॥। পরে উহাও তাহার হন্ডগত হইলে শপ ভপায্ে তিনি 
দড়ি ও অবশেষে মোট কাছিটিও 'প/ইলেন। এখন আবু বড় 
কিছু কঠিন কাধ্য অবশিষই রহিল ন1। সম্ত্রী প্র রজ্জব সাহায্যে হুর্গ 
ভইত্তে অবতরণ কবিরা পলাম্বনন করিলেন ৮ আমাদের দেভে 
শখাস-প্রশ্থাসের গতি বেন রেশম-স্তর-্বরূপ ॥ উিহাকে ধারণ ব॥ 
সংবম কর্রিতে প।রিলেউ জআাম্ববীন-শক্তি-প্রবাহ-হ্যর্প। ৫2820 825 
531151715 ) স্রাব বাতিল, ভঙপন্েে মন্োবুভিবনপ দড়ি ও 
পর্রিশেনে ত্রাণরূপ বজ্জুকে ধত্রিতি পারা যার $+ প্রাণকে জস্ 
করিতে পার্িলেই ঘুক্কিলাভ হইক্স। থাকে ॥ / 

আমর ব্য স্ব শরীর সম্বন্ধে অত্িশমস আঅভ্ভ ১ কিম্ত জানাও সম্ভব 
বলিন। বোধ হক্স না । আমাদের সাধ্য এই পব্যস্ত যে, অআ।মল। 
অত-দেহ-ব্যবচ্ছেদছ করিকরা। উহার ভিতর কি আছে না আছে 
দেখিতে পারি »* কেহ তেহ আবার জীবিত তেহ ব্যবচ্ছেদ করি? 
উহার ভিত্ুক্প কি আছে ন। আছে দেখিতে পারেন*গ কিন্ত উহার 
সহিত আমাদের লিজ শরীরের কোন সংশ্রব নাই । অন নিজ 
শরীরের বিবন্ব খুব 'অলই জানি ।/ ইহার ক?রণ ? / ইহার 
কারণ আমরা মনকে তত্দৃর একাশ্র করিতে পারি না, যাহাতে 
শরীরানভ্যন্তরশ্হছু অতি স্ুশ্ম ুক্ত গতিগুলিকে ধরিতে পালি । 
মন যখন বাহ্া বিষস্কে পরিত্যাগ কবিন্না দেহভ্যজ্তনে প্রবিু তস্স 
৪ আন্ত স্ক্মাবস্থা ল।ভ করে, তখনই আমরা) শর গভিগুলিকে 
জানিতে পারি । এইবপ স্ুম্মাঙুভূতি-সম্পল্গ হইতে হইলে প্রথমে 
স্থল হইতে আন্স্ত করিতে হইবে । €দখিতে হইবে, সমুদ্দক্স শরীর- 


৩৪ 





. আর্ট 


সাধনের পথম সোপান 


নন্ধকে চালাইতেছে কে? উহা বে প্রাণ, তাহাতে কোন সন্দেহ 
নাই । শ্বাস-প্রশ্বাসই এ প্রাণশভ্তির প্রত্যক্ষ পরিদৃশ্যমান কূপ । 
এখন শ্বাস প্রশ্বাসের সহিত ধীরে বারে শরীবাভ্যন্তরে প্রবেশ 
করিতে হইবে । অতাহ।তেই আমরা দেভাভ্যস্তরস্থ স্থস্মাচনুক্ 
শৃক্তিগুলি সন্বন্ষে জানিতে পারিব » জানিতে পারিব বে, লাব্বীক্ 
শক্ত্প্রবাভগুলি কেমন শরীরের সর্বত্র ভ্রমণ করিতেছে । আর 
বখনই আমরা উহাদিগকে মনে মনে অনুভব করিতে পাৰিব, 
তখনই উভারা।__ও তৎসঙ্গে দেহ ৪-_ আমাদের আরন্ত হইহে । 
মনও এই সকল শ্নাম্ববীন্ব শক্তি-প্রবাহেন্ দ্বার সঞ্চালিত হইতেছে, 
স্গতরাং উহা্দিগকে জন্ম করিতে পারিলেই মন এবং শরীরও 
আমাদের অধীন হইক্সা পড়ে ; উহার আমাদের দাস-স্বরূপ হইর। 
পড়ে ॥ জ্ভ্রানই শক্তি । এই শক্তি লাভ করাই আমাদের উদ্দেশ্য 
সুতরাং শরীর ও তন্ধধ্যস্তড সাবু-সগুলীর অভ্যন্তরে যে শক্তিপ্রবাহ 
সর্ববদ চলিতেছে, তাহাদিগের সম্বন্ধে জ্ঞান্লাভ বিশেষ আবশ্ক | 
স্থতরা২ আমাদিগকে প্রাণায়।ম হইতেই প্রথম আরস্ত করিতে 
হইবে ।॥ এই প্রাণাক্সাম-তত্বটির সবিশেষ আলোচন। অতি দীর্ঘ সমক্স- 
সাপেক্ষ, ইহ1 সম্পূর্ণরূপে বুঝাইতে হইলে অনেক দিন লাগিবে । 
আমর ক্রমশঃ উহার এক এক অংশ লইক়॥ আলোচন? করিব । 
,/আমরা ক্রমে বুঝিতে পারিব হে, প্রাণাক্সাম-সাধনে যে সকল 
ক্রিয়া করা হস্স তাহাদের হেতু কি* আর প্রত্যেক ক্ত্রিক্সানর 
দেহাভ্যন্তরে কোন্‌ প্রকার শক্তির প্রবাহ হইতে থাকে । ক্রমশঃ 
এই সমুদ্রত্মই আমাদের বোধগম্য হইবে। কিন্ত ইহাতে নিরস্তর 
সাধনের আব্শ্তক ।/সাধনের ছ্ারাই আমার কথার সত্যতার 
"৩৫ 


বাজযোগ 


প্রমাণ পাওয্রা যাইবে । আমি এ বিষক্সে যতই যুক্তি প্রক্ষোগ করি 
না কেন, কিছুই তোমাদের উপাদেন্ধ বোধ হইবে না, ষত দিন 
না নিজের। প্রত্যক্ষ করিবে । যখন। দেহের অভ্যন্তরে এই সকল 
সশক্তি-প্রবাহের গতি স্পঞ্$; অনুভব করিবে, তখনই সমুদক্ম সংশ 
চলিক্সা যাইবে » কিন্ত ইহা অনুভব করিতে হইলে প্রত্যহ কঠোর 
অভ্যাসের আবশ্তাক । প্রত্যহ অন্ততঃ ছুইবার করিক্সা অভ্যাস 
করিবে; আবু এ অভ্যাস করিবার উপযুক্ত সমন্স প্রাতহ ও সায়াহ্ত | 
যখন ব্জনীর অবসান হইন্রঃ+ দিবার প্রকাশ হন্স ও যখন দ্িবাবসান 
হইন্র। রাত্রি উপস্থিত হয, এই ছুই সমস্ষে প্রকৃতি অপেক্ষাক্কত 
সাস্ত ভাব ধারণ করে । খুন প্রত্যুষ "ও গোধুলি, এই ছইটি সমর 
মনঃ-স্থিয্যের অনুকুল । এই ছুই সময়ে শরীর যেন কতকটা শস্ত- 
ভাবাপন্ধ হম্ম। এই ভ্ুই সমন সাধন করিলে প্রক্কতিই আমার্দিগকে 
অনেকটা সহান্রভা কবিবে, সুতর।ং এই ছুই সমক্সেই সাধন কর! 
আবশ্যক ॥। সাধন সমাগ্ড না হইলে ভজন করিবে না, এইন্দপ 
নিকস্সম কর 5 এইন্দপ নিম্ন করিলে ক্ষুধার প্রবল বেগই তোমার 
আলহ্য নাশ করিক্সা। দিবে । আান-পুজা। ও সাধন সমাণু ন1 হওন। 
পধ্যন্ত আহার 'অক-্ব্য,ভি(রতবর্ষে বালকের এইন্সপই শিক্ষা পা ; 
সমক্পে ইহ1 ভাহাদের পক্ষে স্বাভাবিক হইক্স1 যাক্স। তাহাদের ফতক্ষণ 
না কান-পুজ1 ও সাধন সমাগত হয» ততক্ষণ তাহারা ক্ষুধার্ত হক্স না । 
তোমাদের মধ্যে যাহাদদের সুবিধা আছে», তাহাব1/সাধনের জন্ত 
একটি স্বতন্ত্র গুহ রাখিতে পারিলে ভাল হয্স। এই গুহ শকনার্থ 
ব্যবহাব্দ করিও না, ইহাকে পবিজ্র রাখিতে হইবে । ন্লান না 
করিক। ও শত্রীন মন শুদ্ধ না করিত্সা এ গৃহে প্রবেশ করিও না। 
২৩০৩৩ 


সাধনের প্রথম সোপান 


এ গৃহে সর্ববদ্ষ। পুম্প ও হৃদক্সাঁনন্দকারী চিত্রলকল রাখিবে ; যোগীর 
পক্ষে উহাদের সন্িকটে থাকা বড় উত্তম। প্রাতে ও সাক্নাহ্ছে 
তথায় ধূপ, ধূনাদি প্রজ্লিত করিবে । প্র গুহে কোন প্রকার 
কলহ, ক্রোধ বা অপবিত্র চিন্তা ঘেন নাহর। তোমাদের সহিত 
যাভাদের ভাবে মেলে, কেবল তাহার্দিগকেই প্র গৃহে প্রবেশ করিতে 
দিবে । এইরূপ করিলে শীঘ্রই সেই গৃহটি জত্বগুণে পুর্ণ হইবে 2 
এমন কি, বখন কোন প্রকার ছঃখ অথবা দংশন আসিবে অথব! 
মন চঞ্চল হইবে, তখন কেবল প্র গৃহে প্রবেশ করিবামাত্র তোমার 
মনে শান্তি আপিবে 1./মন্বির, গির্জী প্রভৃতি করিবার প্রকৃত 
উদ্দেশ্য এই ছিল । এখনও অনেক মন্দির ও গিজ্জাস্স এই ভাব 
দেখিতে পাঁওয়। বায় 5 কিন্ত অধিকাংশ স্থলে, লোকে ইহার উদ্দেশ্য 
পধ্যন্ত বিস্মত হইয়াছে । / চতুদ্দিকে পবিত্র চিন্তার পরমাণু সদ। 
স্পন্দিত হুইতে থাঁকিলে সেই স্থানটি পবিত্র জ্যোতিতে পুর্ণ হইর। 
থাকে । যাহারা এইরূপ স্বতন্ত্র গৃহের ব্যবস্থা করিতে না! পারে 
তাহার যেখানে ইচ্ছ! বসিপ্নাই সাধন করিতে পারে। শরীরকে 
সরলভাবে বাখিত্নট উপবেশন কর । জগতে পবিত্র চিন্তার একটি 
ম্বোত চালাইয়া! দাও । মনে মনে বল, জগতে সকলেই সুখী হউন ; 
সকলেই শাস্তি লাভ করুন ; সকলেই আন্ন্দ লাভ করুন 7 এইরূপে 
পুর্ব» পশ্চিম, উত্তর, দক্ষিণে পবিভ্র-চিন্ত-প্রবাহ প্রবাহিত কর ॥ 
এইব্ূপ যতই করিবে, ততই তুমি আপনাকে ভাল বোধ করিবে & 
পরিশেষে দেখিতে পাইবে যে, অপর সাধারণ সুস্থ হউন, এই 
ভাবনাই স্থাঙ্থ্য-লাভের সহজ উপাক্ন। অপর সকলে স্থত্ী হউন, 
এইক্ধপ চিস্তই নিজেকে সুখী করিবার সহজ উপাক্গ। | তৎপরে 
৩৭ 


বাজনা 


বাহার? ঈশ্বরে বিশ্বাস করেন, ভাহ।!র। | ঈশ্বরের নিকট 'প্রার্থন। 
করিবেন অর্থ, স্বাস্থ্য অথবা স্বর্গের জন্য নহে, জ্ঞান ও হুদক্সে সত্য- 
তক্তোন্মেষের ভন্ঠ প্রার্থনা, প্রান্সোজন ॥/ ইহা ব্যভীত আর সমুদন্ব 
প্রার্থনাই ব্বার্থনিশ্রিত ॥ 'তিঅপরে ভাবিতে হইবে, আমার দেহ 
বক্তবত্ দুঁঢ়” সবল ও লস | এই দেহই আনার মুক্তির একমাত্র 
সভান্র ॥ ইহ? বজ্র ন্ায্স দু়ীভূভ চিস্ত। কৰিছে ।॥ মনে মনে চিন্ত। 
কর, এই শরীরের সাহ!ব্যে আনি এই জীবন-স্মুপ্ধ উতভীর্ণ হইব । 
যে ছুর্বল, ০ কখনও নমুক্তিলাভ করিতে পাবে না । সম্মদম 
তর্ববলভা পরিত্যাগ কর । দশকে বল, তুমি স্থবলিষ্ঠ। মনকে 
বল, তুমিও 'অনস্ত-শক্তিধর 5 এবং নিজের উপর খুব বিশ্বাস ও 


ভরসা রাখ ॥ 


২০৮৮ 





অনেকেই বিবেচন। করেন, প্পাণানাম শ্বাস-প্রশ্বাসের কোন 
ক্রি(বিশেষ, বাস্তবিক তাহ নহে । প্রক্কভপক্ষে শ্বাস-প্রশ্বাসের 
ক্রিনাব্র সহিত ইহার অতি অল্প সম্বন্ধ 1 প্রকৃত প্রাণাক্গাম-সাধনে 
অধিকারী হইতে হইলে ত্তাহার অনেকগুলি বিভিন্ন উপান্ম আছে । 
শবাস-প্রশ্থাসের ক্রিম্সী তন্মস্যে একটি উপা মাত্র । প্রাণান্মনের 
নর্থ প্রাণের সংবন ।/ ভারতীন দার্শনিকগণেন মতে সমুদক্স জগৎ 
হুইটি পদার্থে লিম্সিও তাহাদের মধ্যে একটিব্র নাম আকাশ । 
এই আকাশ একটি সর্বব্যাপী সর্বীনুশ্্যত সভা |/ যেকোন বস্তর 
আঁকার আছে, যে কোঁন বস্ত্র অন্থণন্ত বস্তর মিশ্রর্খে উতপন্গ,« তাঁহই 
এই আকাশ হইতে উতপন্স হইন্াছে। এই আকাঁশই বাযুরূপে 
পরিণত হক, ইহাই তল পনার্থের কূপ ধারণ করে, ইহাই আবার 
কঠিনাকার প্রাপ্ত হয়» এই আক।শই স্ধ্য, প্ুথিবী, তার, ধূমকেতু 
প্রভৃতির্ূপে পরিণত হয় । জর্বপ্রাণীর শরীর--পশুশরীর, উদ্ভিদ্‌ 
প্রভৃতি ষে সকল বূপ আমর? দেখিতে পাইন! যে সমুদক্ম বস্তু অমর! 
ইন্জির দ্বারা অনুভব করিতে পারি, এমন কি জগতে ঘষে কোন 
বস্তু আছে, সমুদয়ই আকাশ হইতে উতপন্গ। এই আকাশকে 
ইন্দিদের দ্বার। উপলব্ধি কৰিবার উপাক্স নাই ১ ইহ! এত স্ুশ্ম যে, 
ইহ1 সাধারণের অনুভূতির অতীত । যখন ইহ স্থল হইস্স। কোন 


৩০৪১ 


রাজযোগ 


আকৃতি ধারণ করে, আনর)? তখনই ইহাকে অনুভব করিতে পারি । 
স্ঙ্ির আদিতে একমাত্র আকাশই থাকে । আবার কল্াস্তে 
সনুদ্র কঠিন তরল ও বাম্পার পদার্খ--সকলই পুনর্ববাঁর আকাশে লবন 
প্রাপ্ত হর্ন ॥ পরবন্তী স্য্টি আবার এইরূপে আকাশ হইভেই উৎপন্ন হয়। 

কোন্‌ শক্তির প্রভাবে আকাশ এই প্রকারে জগতরূপে পরিণত 
হয়? এই প্রাণের শক্তিতে । যেমন ম্সাকাশ এই জগতের 
কারনীভূত অনস্ত সর্ববব)খপী মুল পদার্থ প্রাণও সেইব্দপ জগছৎ- 
পভ্তির কারণীভূত) অনস্ত সর্ববব্যাঁপিনী বিক্াশিনী শত্তি । কলের 
আদিতে ও অন্তে সমুদয় আকাশরূপে পরিণত হর, আর 
জগতের সমুদন্ শক্ত্িগুলিই প্রাণে লম্ম প্রাপ্ত হম, পরকলে 
আবার এই প্রাণ হইতেই সমুদ্দক্স শক্তির বিকাশ হস্গ। এএই 
প্রাণই গতিন্দপে প্রকাশ হইয়াছে, এই প্রাণই মাধ্যাকর্ষণ অথব 
চৌন্বকাকর্ষণ-শক্তিকন্ূপে প্রকাশ পাইতেছে । এই প্রাণই শ্নাক্ববীকস 
শক্ক্িপ্রবাহরূপো  0/:৮০-০50:1516), চিস্তাশক্িক্দপে ও ৫হিক 
সমুদ্ক্স ক্রিক্সারূপে প্রকাশিত হইক্সাছে। চিস্তাঁশক্তি হইতে 
আর্ত করিব! অতি সামান্য £দহিকশক্তি পধ্যস্ত সমুদ্ধঘই প্রাণের 
বিকাশমাত । বাহা ও অস্তর্জগভের সমুদক্স শক্তি যখন তাহাদের 
সুলবস্থায় গমন করে, তখন তাহাঁকেই প্রাণ বলে। যখন অস্তি 
বা নান্ডি কিছুই ছিল না, বখন তমোছার। তমহ আবুত ছিল, 
তখন কি ছিল? এই আকাশই গতিশ্ন্ত হইস্সা অবশ্থিত 


» লাস্দালীম্রে! সদ।সীতদানীম্‌-_-ইত্যাদ্ি | 
তম.আসীৎ্ ভসসাগুডমগ্রে প্রকেত--ইত্যাদি। খখেদ সংহিতা ১*ম মগুল। 
96৬ 


প্রাণ 


ছিল ।” প্রাণের কোন প্রকার প্রকাশ ছিল না বটে, কিন্ত 
তখনও প্রাণের অস্তিত্ব ছিল । আমরা আধুনিক বিজ্ঞানের দ্বারাও 
জানিতে পারি বে, জগতে যত কিছু শক্তির বিকাশ হইপ্পাছে, 
তাহাদের সমষ্টি চিরকাল সমান থাকে, এ শক্তিগুলি কল্গাস্তে শান্ত 
ভাব ধারণ করে-- অব্যক্ত অবস্থান গমন করে - পরকলের আদতে 
উহ্াীর।ই আবার ব্যক্ত হইক্সা আকাশের উপবু কাধ্য করিতে থাকে । 
এই আকাশ হইতে পরিদৃশ্যমান সাকার বস্ত সকল উৎপন্ন হক্সঃ 
আর আকাশ পরিণাঁম-প্রাশ্ড হইতে আরভ্ভ হইলে, এই প্রাণও 
নানাপ্রকার শক্তিরবূপে পরিণত হইব খাকে । এই প্রাণের পক্কত 
তত্ত জান! ও উহাকে সংঘম করিবার চেষ্টাই প্রাণায়ামের প্রকৃত 
অর্থ। / 

1 এইপ্রাণাক়।মে সিদ্ধ হইলে আমাদের যেন ছ্বঅন্ম্ত শক্তির দ্বার 
খুলিয়া যাক্স। | মনে কর, ষেন কোন ব্যক্তি এই প্রাণের বিৰর 
সম্পূর্ণরূপে বুঝিতে পারিলেন ও উহাকে জনন করিতেও কৃতকাধ্য 
হইলেন, তাহ! হইলে জগতে এমন কি শক্তি আছে, বাহ! 
তাহার আঙ্ভ না হয়? তীহার আজ্ঞাম্ম চক্দ্রহধ্য স্বস্থান্চ্যত 
হয়, ক্ষুদ্রতম পরমাণু হইতে বুহভ্তম স্ধ্য পধ্যস্ত তাহান বশীতূত 
হম্স, কারণ তিনি প্রাণকে জন্ব করিক্সাছেন। ! প্রকৃতিকে বশীভূত 
করিবার শক্তিলাভই প্রাণাক্সাম-সাঁধনের লক্ষ্য 1 যখন যোগী সিদ্ধ 
হন, তখন প্রক্কতিতে এমন কোন বস্ত্র নাই/ধাহ। তাহার বশে 
না আসে । যর্দি তিনি দেবতাদিগকে আসিতে আহ্ব/ন করেন, 
ভাহার। তাহার আজ্ঞামাত্রেই তৎক্ষণাৎ আগমন করেন £ ম্ৃত- 
ব্যক্তিদিগকে আসিতে আজ্ঞ। করিলে তাহা তৎক্ষণাৎ আগমন 

৪১ 


বরাজযোগ 


করে । প্রকৃতির সমুদ্র শক্তিই তাহার আজ্ঞানাত্র দাসবৎ কাধ্য 
করে । অভ্ঞ লোকের! যষে।গীর এই সকল কাধ্য-কল।প লোকাতীত 
বলিন্না মনে করে । হিন্দুদিগের একটি বিশেবত্ব এই বে, উহার 
যে কোন তত্তের আলোচন।? কতক না কেন অগ্রে উহার 
ভিতর হইতে যতদুর সম্ভব একটি সাধারণ ভাঁবের অনুসন্ধান 
করে, উহার মধ্যে ঘা কিছু বিশেষ আছে তাহা] পরে মীমাংসার 
জন্য বাখিক্সা দেন । বেদে এই প্রশ্ন পুনহ প্ুনহ জিজ্ঞাসিত হইয়াছে, 
“কম্মিন্র,ভগবে? বিজ্ঞাতে সর্বমিদং বিজ্ঞাতং ভবতি ?” (মু উহ ১1৩) । 
এমন কি বস্ত আছে, যাহা জানলে সমুদ্র জানা যাঁর 2 এইরপ, 
ম্পানাদেনল যত শাব্সু আছে, বত দন আছে, স্মূদকসম কেবল ষে 
বস্তকে জালিলে সম্ম্দনই জানা বার, সেই বস্তকে নির্ণক্ন কৰ্িতেই 
ব্যস্ত। যদি কে ন্ঞেলোক জগতের তত্ব একট একটু করিস 
জানিতে চাহে, হাহ? হইলে তাহার ত অনন্ত সসক্স লাগিবে £ 
কারণ তাহাকে 'সবশ্য এক এক কণ। বালুকাকে পধ্যস্ত গুথক্‌ 
ভবে জানিতে হইবে । তবেই দেখা ছেল তে», এইবপে সমুদ্‌ষ 
জন একপ্রকান অসম্ভব । তবে শএরব্দপভাবে জ্ঞান্লাভের 
সম্ভাবনা? কোথা ? এক এক বিষন পুথকু পুথক্‌ জানিক্) মান্ছষের 
সর্বজ্ঞ হইবার সম্ভাবন। কোথাক্স ? বোশারা বলেন, “এই সমস্ত 
বিশেব অন্িব্যক্তিব্র অন্তরালে এক সাধারণ সভা ব্রহিস্বাছে। 
উহাকে ধরিতে ব। জানিতে পাবিলেই সমুদ্দস জানিতে পার যাক্স । 
এই ভাবেই বেদে সমুদন জগৎকে এক, সম্ভবসামান্্যে পধ্যবসিত 
কর হইস্বাছে। যিনি এই “অন্ডিম্বরূপকে ধরিস্বাছেন, তিনিই 
সমুদ্ন্স জগতকে বুঝিতে পারিক্সাছেন। উক্ত প্রশালীতেই সমুদ্স 
৪২. 


প্রাণ 


শক্তিকে এক প্রাণরূপ সামান্। শক্তিতে পধ্যব্সিত করা হইম্সছে। 
স্তবাং যিনি প্রাণকে ধরিক়াছেন, তিনি জগতের মধ্যে বত কিছু 
তভোঁতিক বা? আধ্যাত্মিক শক্তি আছে সমুদ্রক্পকেই ধবিক্সাছেন । যিনি 
প্রাণকে জকস করিক্সাছেন, তিনি শুদ্ধ আপনার মনন নহে, সকলের 
মনকেই জয় করিক়্াছেন। তিনি নিজ দেহ ও অন্তান্ত বত দেহ 
আছে, সকলকেই জন্ব করিক্াছেন, কারণ প্রাণই সমুদ্র শক্তির মূল । 
/ কি করিয়। এই প্রাণ জস্ক হইবে, ইহাই প্রাণান্সঠনের একমাত্র 
উদ্দেগ্ ! এই প্রাণারামের যত কিছু সাধন ও উপদেশ আছে, 
সকলেরই 'এই এক উদ্দেশ । প্রত্যেক সাঁধনাঞ্ী ব্যক্তিরই নিজের 
অত্যন্ত সমীপস্থ যাহা, তাহা! হইন্ডেই সাধন আরম্ভ কর)? উচিত, 
তাহার সমীপস্থ বাঁহ। কিছু সমস্ডই জন করিবার চেষ্টা কর। 
উচিত ॥। জগতের সকল বস্তর মধ্যে দেহই আমাদের সর্ব [পেক্ষা! 
সন্িহিত, আনার ম্ন তাহা অপেক্ষাও সন্গিহিত । বে প্রাণ 
জগতের সর্বত্র ক্রীড়। করিতেছে, তাহার যে অংশটুকু এই শরীর 
ও মনকে চ)]লাইতেছে, সেই শ্রাণটুক্ু আমাদের সর্বাপেক্ষ। 
সন্িহিত। এই যে ক্ষুত্র প্রাণভরঙ্গ-_-যাহা আমাদের শারীরিক 
ও মাসসিক শক্তিরূপে পরিচিত, তাহ! আমাদের পক্ষে অনস্ত 
প্রাণসসুদ্রের সর্বাপেক্ষা নিকটবর্তী তরঙ্গ । যদি আমরা এই 
ক্ষুদ্ধ তরঙ্গকে জয় করিতে পারি, তবে আমর) সমুদ্রন্ম প্রাণ- 
সমুদ্রকে জক্স করিবার আশা করিতে পারি ৮ যে যোগী এ বিষস্ে 
ক্লতকাঁধ্য হন, তিনি সিদ্ধিলাভ কেন, তখন আব ০তোন শক্তিই 
তাহার উপ প্রভুত্ব করিতে পারে না? তিনি এককব্প সর্ববশক্তি- 
মান ও সর্বজ্ঞ হন ।॥ আমরা সকল দেশেই এবধপ সম্প্রদাকস্কল 
5৩ 


বাজযোগ 


দেখিতে পাই, বাহার) কোন না কোন উপায়ে এই প্রাণকে 
জন্ম করিবার চেষ্টা করিতেছেন । এই দেশেই (আমেরিকা ) 
আমর মন:-শক্তি দারা আন্বোগ্যকারী 07030155215), বিশ্বাসে 
আরোগ্যকারী (22615-1)5 5151), €প্রতি-তক্কবিৎ €57511- 
(002,115 ), খ্বা্বিজ্ঞানবিৎ €(0017115612517-50110061505 ) ঝা 
বণাকরুণবিগ্ভাবি €15৮115061555 ) প্রস্ততি সম্প্রদান্ম দেখিতে 
পাঁইতেছি । যদি আমরা এই মতশুলি বিশেষরকূপে বিশ্লেষণ করি, 
তাহ। হইলে দেখিতে পাইৰব হে, ওই মতশুলিরই মুলে-_ 
তাহার) জান্তক বা নাই জাভক-প্রাণায়ীম রহিয়াছে । তাহাদের 
সমুদক্স মতগুলির মুলে একই জিনিস রহিয়াছে । তাহারা সকলেই 
এক শক্তি লইক্াই নাঁড়াচাড়। করিন্ডেছে ; তবে তাহার বিষপ্প 
তাহারা কিছুই জানে না, এইমাত্র । ভাহার টদবক্রমে ষেন একটি 
শক্তি আবিক্ষান কিন) ফেলিক্াছে, কিন্তু ০সই শক্তির ন্ববূপ 
সম্থন্ধে সম্পূর্ণ অনভিজ্ঞ । 'অন্ভিজ্ঞ হইলেও» যোগী যে শক্তির 
পরিচালন করিনা থাকেন, ইহারাঁও না জানিক্॥ তাহারই পরিচালন! 
করিতেছে । উহা। 'প্রাণেরই শক্তি । 

/ এই [প্রণই সমুদ্রশ্ন প্রাণীর অস্তরে জীবনীশক্তিন্ূপে রহিক্লাছে। 
মনোবুন্তি ইহা স্ঙ্মতম ও উচ্চতন অভিব্যক্তি; যাহাকে আমব। 
সচরাচর মনোবুর্ভি আখ্যা দিয়! থাকি», মনোবুক্ভি বলিতে কেবল 
তাহাকে বুঝাত্স না। মনোবৃন্তির অনেক আকারভেদ আছে 
যাহকে আমরা সহজাত-জ্ঞান * (12851011756) অথবা জ্ঞান-বিরহিত- 
চিন্তবন্ভি বলি, তাহ আমাদের সর্ববাপেক্ষ। নিম্নতম কাধ্যক্ষেত্র ৷ 


*. ২৬ পৃষ্ঠার টিপ্নী দেখ ॥ 
58 


প্রাণ 


আমাকে একটি মশক দংশন করিল ; আমার হাত আপন! আপনি 
উহাকে আঘাত করিতে গেল । উহাকে মারিবার জন্য হাত উঠাইন্তে 
নামাইতে আমাদ্িগের বিশেষ কিছু চিস্তার প্রস্োজন হক্স না। এ 
এক প্রকারে মনোবুত্তি। শরীরের সমুদ্কস জ্ঞান-সাহাধ্য-বিরছি ত- 
প্রাতিক্রিক্সাগুলিই € চ২575১-2.001910 ক্ষ 9) এই শ্রেণীর মনোবুক্তির 
অন্তর্গত । ইহ? হইতে উচ্চতর আব এক শ্রেনীর মনোবুক্তি আছে, 
উহাকে জ্ঞানপুর্বক বা সজ্ভান মনোবুত্তি € 09785058005 ১ বলা 
যাইতে পারে । আমি ধুক্তিতর্ক কত্পি, বিচার করি, চিস্তী করি, 
সকল বিষজ়ের ছুইদিক্‌ আলো5ন। করি ॥। কিন্তু ইহাতেই সমুদয় মনে- 
বুন্তি ফুরাইল না! আমর জানি, যুক্তিবিচার অতি ক্ষুদ্র সীমার 
মধ্যে বিচরণ করে । উহা! আমাদিগকে কিরদ্দ,র পধ্যস্ত লহইঙ্স!1 
ব।ইতে পারে, তাহার উপর উহার আর অধিকার নাই । যেস্থানটুকুর 
ভিতর উহ ঘুরিক্া॥ €বড়ণক্স, তাহ! অতি অল-__-অতি সক্কীর্ণ। কিন্ত 
ইহাও দেখিতে পাইতেছি, নানাবিধ বিষক্সম যাহ? উহার অধিকারের 
বহিভূত, তাহাঁও উহার ভিতর আলির পড়িতেছে। ধুমকেতু, সৌর 
জগতের অধিকারের অস্তভূতি না হইলেও তেমন কথন কখন উহার 
ভিতর আসিক্সা পড়ে ও আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়, ০সইরুপ অনেক 
তত্র যাহ? আমাদের যুক্তির অধিকারের বহিভূতি, তাহাও উহার 
অধিকারের ভিতর আসিক্স? পড়ে । ইহ1ও নিশ্চস্র বে, উহার এর সীমার 
বহিদ্দেশ হইতে আঁদিতেছে, বিচার-শক্তি কিন্ত প্র সীমা ছাড়াইম্ব। 

ক * বাহিরের কোন; কোনরূপ উত্তেঞনাস্স শরীরের কোন যম সময়ে সময়ে জ্ঞানের 
কোন সহায়তা না লইয়া আপনি কাধ্য করে, সেই কাধ্যকে £22০য- 
2০৫5০ বলে । 

৪৫ 


বাজযোগ 


যাইতে পারে না। এ যে বিষয়গুলি এই ক্ষুদ্র গণ্ডির ভিতর আসিস? 
অনধিকর প্রবেশ করিভেছে, তাহাদের কারণ অবশ্তই ত্র সীমার 
বহিততি প্রদেশে বাইয়া অন্সন্ধান করিতে হইবে । আমাদের 
বিচারধুক্তি তথার শৌছ1ইতেই পারে না । কিস্ত বোগীর। বলেন, 
ইহাই ,বে আমাদের জ্ঞানের চরমসীনী, তাহ) কখনই ভইন্ডে 
পারে না। মন পুর্বে!ক্ত ছুইটি ভূমি হইতে ও উচ্চতর জভূনিতে 
বিচরণ করতে পারে? তেই ভঁমিকে আমরা জ্ঞানাতীত 
€ পুর্ণ চৈততন্ত ) ভূমি বলিতে পারি । যখন মন, সমাধি নামক 
পূর্ণ একাগ্র ও জ্ঞানীতীত অবস্থান আনুঢ় হয়” তখন উহ! যুক্তির 
বাজ্যের বাহিত্রে চলিক্স? বাক্স এবং সহজাত ভ্ভান ও বুক্তির অনভীত 
বিষয়সকল প্রত্যক্ষ করে । শরীরের সম্মদক্স হুল্মানুস্ডম্ম শক্তিগুলি 
বাহার। প্রাণেরই অনস্তীভেদ মাজ, ভতাঁভারা যদি ঠিক প্রক্কভপথে 
পরিচালিত ভয়, তাহা ভইলে ভাহার। মলের উপব্র বিশেষভাবে 
কাধ্য কনে । মনও তখন প্ুর্বণপেক্ষী। উচ্চতর অবস্থাক্স অর্থাৎ 
জ্ঞানাতীতভ বা পুর্ণচচ তন ভুমিতে চলিক্। যাস ও তথা হইতে 
কাধ্য করিভে থাকে । 

কি বহির্জগত্, কি অস্তর্জগৎ্, যেদিকে দৃষ্িপাত করা যায়, 
সেই দ্দিকেই এক অখণ্ড বস্তরাশ্ি দেখিতে পাওযস্ব? যামস। তভোঁতিক 
জগতের দিকে দৃষ্টিপাত করিলে দেখ! বাক বে, এক অখণ্ড বস্তই 
যেন নানারূপে বিরাজ করিতেছে । প্রকতপক্ষে তোমার সহিত 
স্ধ্যের কোন প্রভেদ নাই । €বজ্ঞনিকের নিকট গমন কর, 
তিনি তোমাকে বুঝাইক্স। দিবেন, এক বস্তর সহিত অপর বস্তর 
ভেদ কেবল কথার কথা মাত্র । এই টেবিল ও আমার মধ্যে 

৪৬ 


প্রাণ 


ত্বরূপতহ তোঁন ভেদ নাই। শ্রী টেবিলটি অনস্ত. জড়রাশির এক 
বিন্দুব্বব্ূপ*» আর অ।মি ভহার অপু বিন্দু । প্রত্যেক সাকার 
বস্তই যেন এই অনম্ত জড়সাঁগবের আবর্তম্বরূপ॥। 'আবর্তশুলি 
আবার সর্বদা! এককন্প থাকে না। মনে কর, কোন ক্রোতস্ষিনীতে 
লক্ষ লক্ষ আবর্ত রহিয়াছে, প্রতি আবর্তে, প্রতি মুহুর্তেই নুতন 
জলব।শ্শি আসিতেছে, কিছুক্ষণ ঘ্ুরিহেছে, আবার অপর দিকে 
চলিন্ন।) যাইতেছে ও নুতন জলকণাসমুহ আহার স্থান অধিকার 
করিতেছে ॥ এই জগতৎও এইক্প নিমিত পব্রিবর্তননীল জডররাশি 
মাত্র, আমর)? উহার মধ্যে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আবর্তম্বরূপ । কতকগুলি 
ভতসম্তি এই জগব্রুপ মহ) আবর্তের মধ্যে প্রবেশ করিল, কিছুদিন 
আবর্তে ঘুরি! হরত মানবদেহে প্রবেশ করিল, আবার হয়ত 
51 কোন [শধ্যক্জাতীঙ্গ প্রানীর বনূপ ধারণ করিল, আবার হয়ত 
কন্েক বৎসর পরবে খনিজ নামে আর এক শ্রাকার আ'বর্তের আকার 
ধারণ করিল । ক্রমাগত পরিবর্তন ' কোন বস্তই স্থির নহে । 
আমার শরীর, তোমার শরীর ব্লিম্সা। বাশ্ডবিক কেন বস্তু নাই, 
এরূপ বলা কেবল কথ।র কথা মাত্র । এক অখণ্ড জড়-ব্াশি মাত্র 
বিরাজমান বুহিম্সাছে। উহার কোন বিন্দুর নাম চন্দ্র, কোন বিন্দুর 
নাম স্ধ্য,» কোন বিন্দু মন্যষ্য, তকোন বিন্দু পৃথিবী, কোন বিন্দু ব। 
উদ্ভিদ্‌্, অপর বিন্দু হয়ত তোঁন খনিজ পদার্থ? ইহার কোনটিই 
সর্ববদ। একভাবে থাকে না, সকল বস্তই সর্বদাই পব্রিণাম প্রাপ্ত 
হইত্ডেছে 25 জড়েবন একবার সংশ্রেষণ আবার বিশ্লেষণ চলিতেছে । 
অন্তর্জগ্ৎ সম্বন্ধেও এই একই কথ। জগতের সমুদ্‌সস বস্তই “ইথার”. 
হইতে উৎপল, স্থতরাং ইহাকেই সমুদস্স জড়বস্তর প্রাতিন্ধিম্ব রূপ 
৪৭ 


হি 


61 


রাজযোগ 


গ্রহণ করা যাইতে পারে । প্রাণের সুক্মতর স্পন্দনলীল অবস্থার 
এই "“ইথারকেই” মনেরও প্রতিনিধিম্বপূপ বল। বাইতে পারে । 
ভরাং সম্বদষ্ মনোজগৎও এক অখগুস্বর্াপ । যিনি নিজ 
মনোমধ্যে এই অতি স্শ্ম কম্পন উত্পাদন কব্রিতে পালেন, তিনি 
দেখি্তি পান, সমুদর্র জগৎ কবল স্স্মানুস্ষষ্্ কম্পনের সমভিমাত্র ॥ 
কোঁন ওষধের শক্তিতে আমাদিগকে ইন্ছ্রিয়ের অতীত রাজ্যে 
লইক্স॥ যাক, এইকপ অবস্থান আমরা, সঙ্গ কম্পন €5500]5 
৬৮1১1765012) স্পষ্ট অনুভব করিতে পারি । তোমাদের মধ্যে 
অআহনেকের ভার হলি. ডেভির € 5527 [00101025510 3 
বিখ্যাত প্রীক্ষ।র কথা মনে থাকিতে পারে । হাম্যজনক বাম্প 
(17205171105 555) তাহাকে অভিভ্্ত করিলে, তিনি স্ডন্ধ ও 
নিস্পন্দ হইব) দ্লাড়াইবা বহিলেন 2 ক্ষণেক পরে সংক্ভালাভ হইলে 
বলিলেন সম্ব্দস্স জগত কেবল ভাব্রাশির সমষ্টিমাত্র । কিছুক্ষণের 
জন্য সমুদ্র স্থুল-কস্পন-€ 57955 ৮1:50:০0) খুলি চলিক্গ! ভিক! 
কেবল স্ব সুন্্ন কম্পনগুলি, যাহাকে তিনি ভাবরাশি বলিক। 
অভিহিত কবিস্ি।ছিলেন--ব্র্তমান ছিল । তিনি চতুর্দিকে কেবল 
ক্ষ কম্পন্শুলি মাত দেখিতে পাইয্সাছিলেন । সম্বদকর জগৎ 
ভাহার নিকট তেন এক মহা? ভাবসমুদ্রকপে পরিণত হইঞগ্সাছিল । 
সেই মহাসমুদ্রে ভিনি ও চবাচর জগতের প্রত্যেকেই যেন এক 

একটি ক্ষুদ্র ভাঁবাবর্ত ৷ 
এইউনরূপে আমর অস্তর্জগতের মধ্যেও এক অখথশু ভাব দেখিলাম, 
অন অবশেষে বখন আনরা বাহা, আম্তর», সকল জগৎ 
ছাঁড়াইস্বা সেই আম্মার সমীপে যাই, তখন সেখানে এক অখণ্ড 

৪৮ রর 


পাণ 


ব্যতীত আব কিছুই নাই অনুভব করি । সর্বপ্রকার গতি- 
সমুহের অন্তরালে সেই এক অখগু সভা আপন মহিমাম্ব বিরাজ 
করিতেছেন * এমন কি, এই পরিদৃশ্তমান গতিসমূুহের মধ্যেও _ 
শক্তির বিকাঁশসমূুহের নধ্যেও-_ এক অখণ্ড ভাব বিছ্ামান। 
এ সকল এখন আব অস্বীকাদ করিবার উপাক্গ নাই, কারণ আজ- 
কালকার বিজ্ঞ।নশাম্মও ইহ! প্রতিপন্গ করিয়াছে । আধুনিক 
পদার্থ-বিজ্ঞাঁন পধ্যন্ত প্রমাণ করিক়াছে বে, শক্তিসমন্ি সর্বত্রই 
সমান । "আরও ইহার মতে এই শক্তিসম্ভি ছুইক্পে অবস্থিতি করে, 
কখন শ্িমিত বা? অব্যক্ত অবস্থার, আবার কখন ব্যক্ত অবস্থাস্থ 
আগমন করে । ব্যক্ত অবস্থায় উহ এই সকল নানাবিধ শক্তির 
সাকার ধারণ করে । এইরূপে উহ অনন্তকাল ধরিয়া কখন ব্যক্ত, 
কৃথখন বা অব্যক্ত ভাব ধারণ করিতেছে । এই শক্তিরপী প্রাণের 
শ্যমের নামই প্রাণান্বাম । 

] এই প্রাণাক্বামের সহিত শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্তক্রিক্ার সম্বন্ধ অতি 
অলই । প্রক্কত প্রাণারামের অধিকারী হইবার এই শ্বাস-প্রশ্বীসের 
ক্রিক) একটি উপাক্র মাত্র । আমর ফুসফুসের গতিতেই প্রাণের 
প্রকাশ ন্স্পষ্রূপে দেখিতে পাই । উহাতেই প্রাণের ক্ত্রিস্বা 
সহজে উপল্ন্ষি হয় । ফুসফুসের গতি ক্ুদ্ধ হইলে দেহের সমুদ্রস্স 
ক্রির একেবারে স্থগিত হইক্স বাক্স, শরীরের অন্ঠান্তড যে সকল শক্তি 
ক্রীড়। করিতেছিল, তাহারাও স্তিমিত ভাব ধারণ করে ;/ অনেক 
লোক আছেন, বাহাঁরা এমনভাবে আপনাদিগকে শিক্ষিত করেন 
যে, তাহাদের ফুসফুসের গতি রোধ হইক্সা গেলেও দেহপাত হন 
না। এমন অনেক লোক আছেন, বাহার? শ্বাস-প্রশ্বাস ন। লইস্ 

১: ১ 


বাজযোগ 


কয়েক ম।স ধরিয়া? মভিকাভ্যজ্ঞবে বাস করিতে পারেন । ভাহাতেও 
তাহাদের দেহনাশ হস না। কিন সাধারণ লোকের পক্ষে, দেহে 
যত গ্তি আছে, তাহার মধ্যে ইহাই প্রধান টদহিক গতি। 
সুক্মতর শক্তির কাঁছে যাইতে হইলে স্ুলভর শক্তির সাহায্য লইতে 
হয় । এইক্দপে ক্রমশঃ হ্ল্মাঙ হম্মতর শক্তিতে গমন করিতে 
করিতে শেষে আনাদের চরম লক্ষ্যে উপস্থিত হই। [শরীরে 
বত প্রকার ক্িয়। আছে, অতন্সধ্যে ফুসফুসের ক্রিক্াই অতি 
সহজ প্রত্যক্ষ । উহা! যেন যঙ্তমধ্যস্থ গতিনিরামক চক্রম্বরূপে 
অপর শক্তিগুলিকে চাল।/ইন্তেছে । '্রাণাকামের প্রকরুত অর্থ 
ফুসফুসের এই গতিরোধ করা 5 এই গতির সহিত শ্বাসেরও অতি 
নিকট সম্বন্ধ । শ্বাস-প্রশ্াস ঘষে ই গতি উত্পাদন করিতেছে 
তাহ) নন্ব, বরং উহাই শ্বা(স-প্রশ্থীসের গতি উত্পাদন করিতেছ্ছে। 
এই বেগ» উত্ভতোলন-যন্ত্রের মত, বাবুকে ভিতর দিকে আকৰণ 
করিতেছে । প্রাণ এই ফুসফুস্কেই চালিত করিতেছে । এই 
ফুসফুসের গতি আবার বাসুকে আকর্ষণ করিতেছে । তাহা? 
হইলেই বুঝা গেল, প্রাণান্বাম শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্রিম নহে । হে 
টপশিক-শক্তি ফুসফুস্কে সঞ্চালন করিতেছে, তাহাকে বশে 
আনাই প্রাণানাম ॥। যে শক্তি সাযুমণ্ডলীষ ভিতর দির মাংসপেনী- 
গুলির নিকট যাইতেছে ও যাভ। ফুসফ্ুস্কে সঞ্চালন করিতেছে, 
তাহাই প্রাণ প্রাণাক্ামসাধনে আমাদিগকে উহাই বশে অ।নিতে 
হইবে । যখনই প্রাণজস্ব হইবে, তখনই আমরা দেখিতে পাইব, 
শরীরের নধ্যে প্রাণের অন্ঠান্চ সমুদরু ক্রিয়াই আমাদের__ আস্ভা- 
ঘীনে আসিক্সাছে 7/ আমি নিজেই এমন লোক দেখিক্সাছি, বাহার 
, রি 


প্রাণ 


তাহণদের শরীরের সমুদ্র তপেশীগুলিকেই বশে আনিঝখছেন অর্থাৎ 
সেশুলিকে ইচ্ছামত পরিচালন করিতে পারেন । তেনই বা না। 
পারিবেন £ বর্দি কতকগুলি পেশী আমাদের ইচ্ছামত সঞ্চালিত 
হন» ন্তবে অন্যন্য সমস্ত পেলী ও ম্নাবুশুদলিকেও আমি ইচ্ছামত 
পরিচালন করিতে পারিব না কেন £ ইহাতে অসম্ভব কি আছে? 
এখন আমাদের এই সংযমের শক্তি লোপ পাইক্সাছে, আর এ 
পেনীশুলি ইচ্ছান্গ না খাকিন। স্বর হইগা? পড়িক্মাছে। আমর! 
ইচ্ছ?মত কর্ণ সঞ্চালন কবিতে পারি ন1, কিন্ত আমরা জানি বে, 
পন্ডজদের এ শক্তি আহে । আমদের এই শক্ভিরর পরিচ।লন নাই 
বলিস্কাই এ শক্তি নাই । ইহাকেই পুকর্বান্ছক্রমিক শক্কি-হ্বালস 
€ 205৬5 2% ) বলা হয় । 
আর /ইহাও আমাদের অবিদ্িত নাই বে, যে শক্তি এক্ষণে 
অন্যভ্ুত ভাব ধার? কনিস্গাছে, তাহাকে আবার ব্যক্তাবস্থান্্ 
আনয়ন কর যায় । খুব দৃঢ় অভ্যাসের দ্বারা আমাদের শরীরম্থ 
অনেকশুলি ক্ত্িপ্»$,» বাহ)? এক্ষণে আনাদের ইচ্ছণধীন নহে, তাহ 
দিগকে পুনরাক্ঘ আমাদের ইচ্ছার সম্পুর্ণ বশবন্তী কর? ষাইতে পারে । 
এইভাবে বিচার করিলে দেখিতে পাঁওয়। বায়, শরীরের প্রত্যেক 
ংশই যে আমাদের সম্পুর্ণ ইচ্ছাধীন করা যাইতে পারে, ইহ কিছু 
মাত্র অসম্ভব নহে, বরং খুব সম্ভব । যোগী প্রাণাস্গামের ছারা 
ইহাতে কৃতকাধ্য হইস্স। থাকেন 1/ €ভামকা হক্সত ! যোগশাসম্ের 
অনেক গ্রন্থে দেখিস্সা থ।কিবে যে, শ্বাসগ্রহণের সমক্স সমুদক্স 
শরীরটিকে প্রাণের ছারা পুর্ণ কর, এইরূপ লিখিত বহিস্বাছে 
ইংরাজী অন্বাদে প্রাণ শব্দের অর্থ করা হুইস্াছে, শ্বাস। ইহাতে 
১ 


প্লাজযোগ 


তোমাদের সহজেই সন্দেহ হইতে পারে বে, শ্বাসের দ্বার সমুদক্জ 
শরীর পুর্ণ করিব কিনূপে। বাস্তবিক ইহা অচ্বাদকেরই দোষ। 
/ দেহের সমুদ্র ভাগকে, প্রাণ অর্থাৎ এই জীবনী-শক্তি ছ্ার। পুর্ণ 
কর! যাইতে পারে, আর যখনই তুমি ইহাতে ক্তকাধ্য হইবে, 
তখনই সমগ্র শরীরটি তোমার বশে আসিবে ॥। দেহের সমুদক্স ব্যাধি, 
সমুদক্স হহখ+ তোমার ইচ্ছাধীন হইবে । শুদ্ধ ইহাই নহে, তুমি 
অপরের শরীরের উপরেও ক্ষমতা) বিস্ত/রে ক্ৃতকাধ্য হইবে 
জগতের মধ্যে ভাল মন্দ যাহা কিছু আছে, সবই সংক্রামক । তামার 
শরীরঘন্ত্র, মনে কর, যেন কোন বিশেষ প্রকার সরে বাধ আছে 
তোমার নিকট যে ব্যক্তি থাকিবে, তাহার ভিতরও তেই স্র_ 
সেই ভাব আমিবার উপক্রম হইবে । যর্দি তুমি সবল ও স্ুস্থকার 
৪» তবে তোমার সমীপস্থিভ ব্যক্তিগণের বেন একটু ন্ুস্থ ভাব, 

একটু সবল ভাব আসিবে । আর তুমি যি রুগ্ন বা ছুর্ববল হও, 
তবে তোমার নিকটব্ভ্ভী অপব লোকে যেন একটু রুপ্ন ও দুর্বল 
হইতেছে, দেখিতে পাইবে । ভামার টহিক কম্পনটি যেন 
অপরের ভিতর সঞ্চারিত হইক্সা বাইবে। যখন একজন ঢোক 
অপরকে নোণগমুক্ত কব্িবার চেষ্টা করে, তখন তাহার প্রথম চেষ্টা? 
এই হম্স ঘে, আমার স্বাস্থ্য অপরে সঞ্চারিত কৰিক্স। দিব । ইহাই 
অ।দিম চিকিত্সাপ্রণালী । জ্ঞাতসারেই হউক, আর অজ্ঞাতসারেই 
হউক, একজন ব্যক্তি আব একজনের দেহে স্বাস্থ্য সঞ্চারিত 
করিক্স। দিতে পারেন । খুব বলবান্‌ ব্যক্তি বদি কোন হর্ধধল 
লোকের নিকট সদ সর্ববদ। বাস করে, তাহ)? হইলে তেই হর্ববল 
ব্যক্তি কিখিৎ পরিমাণে সবল হইবেই হইবে। এই বল-সথশরণ- 
৫২. 


0 
তি 


প্রাণ 


ক্রিক জ্ঞাঁতসারেও হইতে পারে, আবার অজ্ঞাতসাবরেও হইতে 
পারে । যখন এই প্রক্রিন্না জ্ঞাতসাঁরে কৃত হয়, তখন ইহ'র 
কাধ্য অপেক্ষাকৃত শত্র ও উত্তমরূপে হুইক্সা থাকে । আর এক 
প্রকার আরোগ্য-প্রণালী আছে, তাহাতে আরোগ্যকাঁরী শ্বয়ৎ খুব 
হুস্থকাক্স না? হইলেও অপর শরীরে স্বাস্থ্য সথশরিত কিয়? 
দিতে পারেন । এই সকল স্থলে শ্রী আরোগ্যকাঁরী ব্যক্তিকে 
কিঞিত্ পরিমাণে প্রাণজস্বী বুঝিতে হইবে । তিনি কিছুক্ষণের 
জন্ত নিজ প্রাণের মধ্যে কম্পনবিশেষ উত্পাদন করিয়া! অপরের 
শরীরে তাঁহ। সধশারিত করিস? দেন । | 

অনেকম্থছলে এই ক|ধ্যটি অতি দূরেও সংসাধিত হইগ্রাছে । 
নাস্ডবিক দূরত্বের অর্থ যদি ক্রমবিচ্ছেদ (5:5৮) হনব” তবে 
দুরত্ব বলিম্পা কোন পদার্থ নাই। এমন দুরত্ব কোথাক্স আছে, 
যেখানে পরম্পর কিছুমাজ সম্বন্ধ, কিছুমাত্র মোগ নাই? স্্ধ্য 
ও তুমি, ইহার মধ্যে বাস্তবিক কি কোন ক্রমবিচ্ছেদ আছে? 
এক অবিচ্ছিন্ধ অখণ্ড বস্ত রহিক্বাছে, তুমি তাহার এক অংশ, স্ষ্য 
তাহার আর এক অংশ । নদীর এক দেশ ও অপর দেশে কি 
ক্রমবিচ্ছে্দ আছে? তবে শক্তি একস্থান হইতে অপর স্থানে 
ভ্রমণ করিতে পারিবে না! কেন? ইহার বিরুদ্ধে তত কোন ধুক্তিই 
দেওয॥ যাইতে পারে না।॥ এই সকল ঘটনা)? সম্পূর্ণ সত্য, এই 
প্রণকেই বহুদূরে সঞ্চারিত করা বাইতে পারে, তবে অবশ্ত এমন 
হইতে পারে যে, এ বিষয়ে একটি ঘটনা যদি সত্য হয়, ত শত শত 
ঘটন) কেবল জুয়াছরি বই আর কিছুই নহে। ঢোকে ইহাকে 
যতদূর সহজ ভাবে, ইহ ততদুর সহজ নক। অধিকাংশ ম্যলে 

৫৩ 


বাজযোগ 


দেখব ষাইবে ঘষে, আঁরোগ্যকারী মানব-দেহের শ্ব(ভাবিক সুস্থতার 
সাহাব্য লইক্সা সব কাধ্য সারিতেছেন। জগতে এমন কোন্‌ 
রোগ নাই বে, সেই রোগাক্রান্ত ভইম্া সকল লোক মৃত্যুপ্রাসে 
পতিভ হন্স।? এমন কি, বিস্চিক? মহাঁমারীতেও যদি কিছুদিন 
শতকর। ৬০ জন মরে, তবে দেখ বাক্স ভ্রমশহ এই মৃত্যুর হার 
কমিক্স শতকরা ৩০ হয়, পরে ২০তে দাড়ায়, অবশিষ্ট সকলে 
বোঁগমুক্ত ভক্ম । এলোপ্াাথ চিকিৎসক আসিলেন, বিস্ছচিকা। 
কহাগপ্রস্ত ব্যক্তিগণকে চিকিৎস। করিলেন, ভ্াহাদিগের ওষধ 
দিলেন । হভোমিওপ্যাঁথ চিকিৎসক 'আসিনা, তিনিও তাহার 'শবধ 
দিলেন, হক ত ঞলোপ্যাথ অপেক্ষা অধিকসংখ্যক বোগী আন্োগ্য 
করিলেন। হোঢিন€প্যাঁথ চিকিৎসকের 'অধিক ক্তকাধ্য হইবার 
কারণ এই যবে, তিনি রোগার শরীরে কোন গোলযোগ না। 
বাপাইস। প্রকৃতিকে নিজের ভাবে কাধ্য করিতে দেন; আর 
বিশ্বাস-বলে আরোগ্যকারী আরও অধিক আরোগ্য করিবেনই, 
কারণ, তিনি নিজের ইচ্ছাশক্তি দ্বার? কার্য কলিছ্গ॥ বিশ্বাাসবলে 
রোগীর অব্যক্ত কছুণণশক্তিকে প্রবে।ধিত করিয়া দেন । 

কিন্ত বিশ্বাসবলে বোগ-আরোগ্যকারীদের সর্বদাই একটি 
ভ্রম হুইন্্র। থাকে, তাভার। মনে করেন, সাঁক্ষীৎ্ বিশ্বাসই লোককে 
নোগমুত্ত করে । বাস্তবিক €কব্ল বিশ্বাসই একমাত্র কারণ, 
তাহ বল। বাক্স না। এমন সকল ল্রোগ আছে যাহাতে ক্রোগা 
নিজে আদেৌ বুঝিতে পারে না যে, ভাহার সেই রোগ আছে । 
রোগী নিজের নীব্োগিতা সম্বন্ধে অতীব বিশ্বাসই তাহ 
রোগের একটি প্রধান লক্ষণ, আর ইহাতে আশু মৃত্যুরই সুচনা 

৫৪ 


তাপ 


করে । এ সকল স্থলে কেবল বিশ্বাসেই রোগ আরোগ্য হয় না । 
বদি বিশ্বসেই রোগ আরোগ্য হইত» তাহা হইলে এই সকল 
রোগী কালগ্রাসে পতিত হইত না; প্রকৃতপক্ষে এই প্রাণের 
শক্তিতেই তাহারা রোগমুক্ত হুইক্স॥। থাকে । হোন প্রাণজিৎ পবিভ্রাত্ম! 
পুরুষ নিজ প্রাণকে এক নির্দিষ্ট কম্পনে লইক্স। গিয়া অপরে 
সধশারিত করিনা দিক) তাহার মধ্যে সেই প্রকারের কম্পন 
উত্পাদন করিতে পারেন । তোমরা প্রতিদিনের ঘটনা হইতেই 
এই বিব্ষের প্রমাণ পাইতে পার।। আমি বক্ততা দিতেছি, 
বক্তৃতা! দিবার সময় আমি করিতেছি কি? আমি আমার মনের 
ভিতর যেন এক প্রকার কম্পন উৎপাদন করিতেছি, আর আমি 
এই বিষে বতই কৃতকাঁধ্য হইব, তোমরা ততই আমার বাক্যে 
মুগ্ধ ভইবে । তামর$ সকলেই জান, বক্তৃতা? দিতে দিতে আমি 
বেদিন খুব মাতিস্সা উঠি, সেদিন আমার বক্তা তোমাদের 
অভতিশম্ব ভাল লাগে, আর আমার উত্তেজন। অল্প হইলে 
তোমাদের ও আমার বক্তত শুনিতে তত আকর্ষণ হস্স নব ॥ 

জগত আলোড়নকারী তীব্র ইচ্ছ?-শক্তিসম্পন্ধ মহাপুরুষগণ নিজ 
প্রাণের মধ্যে খুব উচ্চ কম্পন উত্পাদিত করিক্া এ প্রাণের 
বেগ এ্রত অধিক ও শক্তিসম্পন্ধ করিতে পারেন যে, উহ৭ 
অপরকে মুহ্র্তমধ্যে আক্রমণ করে, সহত্র সহন্ল্ লোক তাহাদের 
দিকে আকৃষ্ট হক্স ও জগতের অদ্ধেক লোক তাহাদের ভাবাক্ুসানে 
পরিচালিত হইক্স। খাঁকে। জগতে যত মহাপুরুষ হইস্বাছেন, 
সকলেই প্রীণজিৎ ছিলেন ॥ এই প্রাণসংবমের বলে তাহার 
প্রবল ইচ্ছশক্তিসম্পন্ম হুইক্সাছিলেন । তাহারা তাহাদের প্রাণের 


৫৫ 


ব্াজযোগ 


ভিতর অতিশত্র উচ্চ কম্পন উত্পাদন করিতেন এবং উহাতেই 
তাহাদিগকে সমুদর জগতের উপর প্রভাব বিস্তার করিবার শক্তি 
দিরাঁছিল । /ভগতে বত প্রকার তেজ বাঁ শক্তির বিকাশ দেখা 
ঘাস, সম্ুদক্সই আ্রানের সংবম হইত্ডে উত্পন্ধ তন । সাজুষে ইহা 
প্রক্কৃত তথ্য না জানিতে পারে, কিন্তু অর কোন উপায়ে ইহার 
ব্যাখ্যা? হম্স না । তোনার শরীরে এই প্রাণ কখন এক দিকে 
অধিক, অন্ত দিকে অল্প হইক্সা পড়ে । এইন্দপ জ্রাণের অসাম্ঞীন্তেই 
কবোগেব উত্পভ্ভি । অতিব্রিক্ঞ প্রাণটুকুকে সবাইস্সা যেখানে প্রাণের 
ভাব ভইক্সাছে তথাঁকান অভাবটকু পুরণ কব্িতে পীব্িলেই 
বোগা আরোগ্য হম্স। কোথ।য় অধিক” কোথায় বা অল প্রাণ 
আছে,» ইহ। জানাও প্রাণানামের অন । অনুভব শক্তি এতদূর সঙ্গম 
হইবে যে, মল বুঝিতে পারিবে, পদাঙ্থুভে অথব1! হম্তস্থ অস্্লিতে 
যতটুকু প্রাণ আব্্তক, তাঁভ। নই, আর উহ এ প্রাণের অন্ভাব 
পরিপুর্ণ করিতেও সমনগ্গ হইবে । এইন্দপ প্রাণায়ানের লান। অঙ্গ 
আছে । প্রগুলি বীলে ধীরে ও ক্রনশঃ শিক্ষা করিতে হইবে । ক্েলে 
দেখিতে পাঁওক্া। যাইবে যে, বিটিলরূপে প্রকাশিত প্রাণের সংমম 
ও ভউহ্াদ্িঠাকে বিভিন্ধ প্রকান্ে চাঁলন। করাই রাজযোগের একমাত্র 
লক্ষ্য 1/ যখন ০কহ নিজ সুত্র শক্তিগুলিকে সংবম কগিতেছে, 
তখন সে নিজ দেহুন্ছু '্রাণকেভ সংবন করিতেছে । যখন কেহ 
ধ্যান করে, সেও প্রাণকেই সংবন করিতেছে, বুঝিতে হইবে ।. 
মহাসমুদ্রের দিকে দৃষ্টিপাত কৰিলে দেখিতে পাইবে, তথাক্ষ 
পর্ববততুল্য বুহতৎ তরঙ্গদমুহু বহিক্সাছে, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র তরঙ্গ বহিস্বাছে, 
অপেক্ষাকৃত শ্ষত্রতর তরঙ্গ রহিয়াছে, আবার ক্ষ্র ক্ষুদ্র বুদ্ধ,দও- 
£€ 





ওাণ 


রহিয়াছে । কিন্তু এই সন্গুদরেকর্ পশ্চাতে এক অনন্ত অভাসমুদ্র । 
একদিকে এ ক্ষু্র বুদ্ধদটি অনন্ত সমুদ্রের সহিত সংনুক্ত» আনাক 
সেই বৃহৎ তরঙ্গটিও সই মহাসমুদ্রের সহিত সংনুক্ত। এইবপ 
২সানে €কেহ বা মহাপুরুষ, কেহ বা ক্ষুত্র জলবুদ্ধদতুল্য সামান্ত 
ব্যক্তি হইতে পারেন, কিন্তু সকলেই ৫০সই অনস্ত মহাশক্তিসমুদ্রের 
সহিত সংযুক্ত । এই মশ্তাশক্তির সহিত জীবমাত্রেরই জন্মগত 
সম্বন্ধ ৷ ! যেখানেই জীবনী শক্তির প্রকাঁশ দেখিবে, সেখানেই বুঝিতে 
হইবে, পশ্চাতে অনন্ত শক্তির 'ভাগু।র রহিয়াছে 1) একটি ক্ষুদ্র 
বেডের ছাতা রহিয়াছে উহা হস্ত এত ক্ষুদ্র ও এত স্ন্ন যে অপু- 
বীক্ষণযন্ত্র দ্বারা উহ দেখিতে হয় ২ তাহ? হইতে আরম্ভ কর, 
দেখিবে, €সটি [সি শক্তির ভাগ্ার হইতে ক্রমশঃ শক্ত্িসংগ্রহ 
করিয়। আর এক আকাল ধারণ করিতেছে । কালে উভ1 উদ্ভিদ্রূপে 
পরিণত হইল», উহাই আবার একটি পশুর আকার ধরিল, পরে 
মন্ষ্যর্ূপ ধারণ করিয়।? অবশেষে উহাঁই ঈশ্বররূপে পরিণত হস্স। 
অবশ্য প্রাকৃতিক নিরিমে এই ব্যাপ।র ঘটিতে লক্ষ লক্ষ বর্ষ অতীত 
হস্স। কিন্ত /এই সমর কি? সাধনার বেগ বুদ্ধি করিব দিলে 
অনেকে সময়ের সংক্ষেপ হইতে পারে ।/ যোগীর। বলেন, “বে কাধ্যে 
সাধারণ চেষ্টাক্স অধিক সমস্বম ল।গে, তাহাই কাধ্যের তেগ বুদ্ধি 
করিক্সা! দিলে অতি অল সময়ের মধ্যে সম্পন্গ হইতে পারে মানুষ 
এই জগতের শক্তিরাঁশি হইতে অতি অল অঙ্গ করিক্সা শক্তি 
সংগ্রহ করিক্। চলিতে পারে । এমন ভাবে চলিলে একজনেক 
দেবজন্ম লাভ করিতে হয়ত লক্ষ বৎসর লাগিল । আরও উচ্চা- 
বস্থা প্রাপ্ত হইতে হয়ত পাঁচ লক্ষ বৎসর লাগিল । আবার পুর্ণ 
৫৭ 


পবাজযোগ 


সিদ্ধ হইতে আরও পাঁচ লক্ষ বৎসর লাগিল । উন্রতির বেগ বন্ধিত 
করিলে এই সমক্স সংক্ষিপ্ত হইরা আসে । রীতিমত চেষ্টা করিলে, 
ছয্স মাসে অথব1 ছক্স বর্ষের ভিতর সিদ্ধিলভ না হইবে কেন ঠ% বুক্তি 
দ্বার] বুঝ]! ষাকস, ইহাতে নির্দিষ্ট সীমাবদ্ধ সমক্ব নাই । মনে কর. 
কে।ন বাম্পীত-যন্ত্র নির্দিই পরিমাণ করল! দিলে প্রতি ঘণ্টার ছুই মাইল 
করিকস। যাইতে পারে । আরও অধিক কস্তল। দিলে, উহ! আরও শান্ত 
যাইবে । এইব্দপে দি আমরাও তীব্র সংবেগসম্পন্গ (যোহ সঃ ১২১) 
হই, তবে এই জন্মেই মুক্তিলাভ করিতে না পারিব কেন? অবশ্য, 
সকলেই শেষে মুক্তিলাভ করিবে, ইহ! আমরা জানি । কিম্তভ আমি 
এতদিন অপেক্ষ। করিব কেন? এইক্ষণেই, এই শরীরেই, এই 
মনুব্য-দেহেই আমি মুক্তিলাভ করিতে কেন না সমর্থ হইব? এই 
অনস্ত জ্ঞান ও অনন্ত শক্তি আমি এখনি লাভ না করিব কেন £ 
আত্বার উন্নতির €তবেগ বুদ্ধি করিব) কিরূপে অল্প সময়ের 
মধ্যে মুক্তিলাভ কর। যাইতে পাঁরে, ইহাই যোগবিস্ভার লক্ষ্য ও 
উদ্দেশ্য ৷ 'যতর্দিন না সকল মানুষ মুক্ত হইতেছে, ততদিন অপেক্ষা 
কৰরির। একটু একটু করিক্া অগ্রসর ন। হইক্সা প্রকৃতির অনস্ত শত্তি- 
ভাগার হইতে শক্তি গ্রহণ করিবার ক্ষমতখ বুদ্ধি করিয়া? কিন্দপে 
শীঘ্র মুক্তিলাভ হম্ম যোগার তাশ্ারই উপাস্র উদ্ভাবন করিক্সাছেন %. 
£/ জগতে সমুদ্র মহাপুরুষ, সাধু, সিদ্ধপুঁ উহার! কি করিক়াছেন ? 
৯» তাহারা তক জন্মেই, সময়ের সংক্ষেপ করির, ' সাধারণ মানব কোটী 
€কোটাী জন বে সকল অবস্থার ভিতর দি গিক্সা মুক্ত হইবে 
তৎ্সমুদয্ই ভোগ কনিকা লইম্বাছেন। এক জন্মেইে তাহার 
আপনাদের মুক্তিসাধন করিক্বা লন। তাহারা আর কিছুই চিন্তা 
* ৫৮ 


আপ 


করেন ন1।/ আর কিছুর জন্য নিশ্বাস-প্রশ্বাস পধ্যস্তু ফেলেন 
না? । 7এক মুহূর্ত সময়ও তীাহার্দের বুখ। যার না। এএইব্পেই 
তাহাদের মুক্তির সমর সংক্ষিপ্ত হইয়। আইসে একা গ্রতার অর্থই 
এেই, শক্তিসঞ্চর়ের ক্ষমতা বৃদ্ধি করিক্সা সমর সংক্ষিপ্ত করা » 
রাজবোগ এই একগ্রতা-শক্তি-লাভ করিবার বিজ্ঞান । 

এই প্রাণারাঁমের সভিত প্রেততত্বের সম্বন্ধ কি ? উহা 
এক প্রকার প্রাণাক্সাম বিশেষ । বদি এ কথা সত্য হস্স বে, পর- 
লোকগত আত্মার অন্তডিত্ব আছে, কেবল আমর। উহাদিগকে 
দেখিতে পাইতেছি না, এইমাত্র, তাহ? হইলে ইহাও খুব সম্ভব যে, 
এখ [নেই হয়ত শত শত লক্ষ লক্ষ আত্ম! ব্রহিয়াছে, যাহাদিগকে, 
আমর। দেখিতে, অস্কভব করিতে বাস্পর্শ করিতে পারিতেছি ন! 
আমর ভন্রত সর্বদাই উহাদের শরীরের মধ্য দিয় যাতারাত, 
করিতেছি । ব্প ইহাঁও খুব সম্ভব বে, তাহার আমাদিগকে 
দেখিতে ব। কোন্রূপে অন্কভব করিতে পারে না । এ যেন 
একটি বৃত্তের ভিতর আর একটি বুত্ত, একটি জগতের ভিতর আক 
একটি জগৎ । যাহারা এক ভূমিতে (7৮155) থাকে, তাহারাই 
পরম্পর পরস্পরকে দেখিতে পান্ন। আমর1 পঞ্চেক্দ্রি-বিশিই প্রাণী ॥ 
আমাদের প্রাণের কম্পন অবশ্যই এক বিশেৰ প্রকারের । যাহাদের 
প্রাণের কম্পন ঠিক আমাদের মত, তাহার্দিগকেই আমর) দেখিতে 
পাইব। কিন্ত যদ এমন কোন প্রাণী থাকে, যাহাদের প্রাণ 
অপেক্ষাকৃত উচ্চ-কম্পনশীল, তাহাদিগকে আমরা দেখিতে 
পাইব না । আলোকের ওজ্জল্য অতিশক্ন বুদ্ধি হইলে আমা উহ+ 
দেখিতে পাই না, কিন্ত অনেফ প্রাণীর চক্ষুঃ এরূপ শক্তিসম্পন্গ যে» 

৫ 


ব্াজঝোগ 


তাহারা এরূপ আলোকেও দেখিতে পায় । আবার বর্দি আলোকের 
পরমাণুখুলির কম্পন অতি মহ ভর” তাহা হইলেও উহ 
আমরা দেখিতে পাই না, কিন্ত পে5চক বিড়ালাদ্ি জন্তগণ উহ 
দেখিতে পান । আমাদের দৃষ্টি এই প্রাণ-কম্পনের প্রকার-বিশেষই 
প্রত্যন্ম করিতে সমর্থ । /অথব। বানুরাশির কথ। ধর। বায়ু সুরে 
স্ডরে যেন সজ্জিত রহিক্বাছে । এক শ্বের উপর আব এক ভর বাধু 
স্থাপিত ॥ পুথিবীর নিকটবত্তী যে শুর তাহা তদৃদ্ধন্থ শর হইতে 
ধিক ঘন, আবও উদ্ধদ্দেশে যাইলে দেখিতে পাওয়া যাইবে, বানু 
ক্রেমশঃ তরল হইতেছে । অথব1 সমুদ্রের বিষ ধর হ সমুদ্রের যতই 
গভীর ভইত্েে গভীরতর প্রদেশে বাইবে, জলের চাঁপ ততই বর্ধিত 
হইতে । বে সকল জন্ক সমুদ্রতলে বাস করে, তাহারা উপরে 
কখনই আসিতে পারে না। কারণ, আমিলেই তাহারা তৎক্ষণাৎ 
মত্যু- গ্রাসে পতিত হম ॥ . 

সমুদয় কভ্গরথকে “ইথারের” একটি সন্ুদ্রক্পে চিস্তা কর। 
প্রাণের শক্তিতে বেন উহ স্পন্দিভ ভইত্ডেছে» স্পন্দিত হইস্কা যেন 
স্বরে স্তরে লিভিন্বরূপে অবস্থিত ভইল । ত্াভা হইলে দেখিবে, যে 
স্কান ভইন্ডে স্পন্দন '্সারন্ত ভইনাছে», তাহ হইতে বতদৃর বাওয। 
যাইতেছে, ভভই নেন €সেই স্পন্দন ম্হ্ভাবে অন্স্ভুত হইতেছে । 
কেন্ছের নিকট স্পন্দন অতি দ্রুত ॥। আরও মনে কর যে এই 
এক এক প্রকারের স্পন্দন এক একটি স্তর । এই সমুদস্থ স্পন্দন- 
ক্ষেত্রকে একটি বুক্তরূপে কল্পনা কর; সিদ্ধি উহার কেক্ন্বক্প 2 
শ্রী কেন্দ্র হইতে যত দুরে বাওয়।॥ যাইবে, স্পন্দন ততই স্ব হইস্স। 
আসিবে । ভূত সর্বাপেক্ষা, বহিঃস্তর, মন তাহা হইতে নিকটবর্তী 

5 


প্রাণ 


স্তর, আর আত্মা যেন কেন্দ্রহ্থরূপ । এইক্প ভাবে চিন্ত করিলে 
দেখা যাইবে বে, যাহারা এক ভ্ডরে বাস করে, ভাহারা পরস্পর 
পরস্পরকে চিনিতে পাব্সিবে, কিন্ত তদপেক্ষা নিম্ন বা উচ্চ শ্রের 
জীবদিগকে চিনিতে পারিবে না । তথাপি, যেমন আমরা আপু 
বীক্ষণ ও দুর্রবীক্ষণ যন্ত্রসহকারে আমাদের দৃষ্টির ক্ষেত্র বাঁড়াইতে 
পারি, তভ্রপ আনরী। মনকে বিভিন্গ প্রকার স্পন্দন-বিশ্িউ করিক্স। 
অপর স্তরের সংবাদ অর্থাৎ শথায় কি হইতেছে জানিতে পারি 1 
মন্‌. কর, এই গ্রুভেই এমন কতকগুলি প্রাণী আছে, বাহানা 
আমাদের দৃষ্টির বহিভূতত। তাহারা প্রাণের এক প্রকার স্পন্দন ও 
'আমনবা আর এক প্রকার স্পন্দনের ফলম্বদূপ । মনে কর, তাহার! 
অধিক স্পন্দন-বিশিষ্ট 2৪ আমরা? অপেক্ষাকৃত অল্প স্পন্দননীল । 
আমর1ও 'প্রাণস্বরূপ মলবস্ত হইতে গঠিত, তাহারাও তাহাই £ 
সকলেই এক সমুদ্রেরই বিভিন্্ অংশ মাত্র । তবে বিভিন্নতা কবল 
স্পন্দনের । টঘপি মনকে এখনি অধিক স্পন্দনবিশিষ্ন করেতে পারি, 
তবে আমি আর এই শুরে অবস্থিত থাকিব না,১ আমি আতর 
তে।মাদিগাকে দেখিতে পাইব নাঃ (তাস আনার সম্মুখ হইতে 
অন্তহিত হইবে ও তাহার আবিভূত হইবে ।/ ০ভামাদের মধ্যে 
ঘমনেকেই বোধ হক্স জান বে, এই ব্যাপারটি সত্য । (মনকে এইচ 
হইতে উচ্চতর স্পন্দনবিশিষ্ট করাকেই বোগশ!স্তরে “সমাধি” এই 
একমাত্র শব্দের দারা লক্ষ্য করা হইরাঁছে । আর এই সমাধির নিম্ন 
তব অবস্থাশুলিতেই ॥ এই 'অতীনক্ত্রির প্রীনিসমূহকে প্রত্যক্ষ কর 
যাক ।॥ সমাধির সর্বেবোচ্চি অবস্থার আমাদের সত্যত্যবরূপ ব্রহ্ষদশন 
হস । তথন আমর! ষে উপাদ্দান হইতে এই সমুদ্রন্ন বহুবিধ 
৬১ 


বাজঝবোগ 


জীবের উৎপত্তি হইক্সাছে* তাহাকে জানিতে পারি । “বেমন্‌ 
একটি ম্€পিগকে জানিলে সকল ম্বতৎ্পিণ্ড জানা যার, অতন্দ্র 
ব্রহ্ম দৃশনেই সমুদয় জগৎ জানিতে পারা ষাক্স ০ 

এইরূপে আমর! দেখিতে পাই যে, ০প্রত্ততভ্তবিদ্ভাক্ম ফেটরকু সত্য 
আছে, তাহাঁও প্রাণান্ামেরই অস্তভত। / এইব্দপ যখনই তোমরা 
দেখিবে, কোন এক দল বা সম্প্রদাক্স কোন অভীন্দ্রি্ম বা শুগুতুস্ত 
আবিকার করিবার চেষ্টা করিতেছে, তখনই বুঝিবে, ভাভাব। 
প্রক্কুতপক্ষে কিক্র্পরিমাণে এই ব্রাজবোগই সাধন করিতেছে, 
প্রাণসযমের চেষ্টা করিতেছে । যেখানে কোনরূপ অসাধারণ 
শক্তির বিকাশ হইনস।ছে, ৫সখানেই প্র।ণের শক্তি বুঝিতে হইবে । 
এমন কি, বহিনিজ্ঞানশুলিকে পধ্যস্ত প্রাণাক্নামের অসন্তভুক্তি করা 
বাইন্তে পারে । বাম্পীয ষন্ধকে কে সঞ্চালিত করে 2 প্রাণই বাশ্পের 
মধ্য দিন॥ উহাকে চালাইর) থাকে । এই €ষ অড়িতের অভ্যঙ্ভু 
ক্রিকাসমূহ দেখা যাইতেছে, এগুলি প্রাণ ব্যতীত আর কি হইতে 
পারে ? (পণার্থবিজ্ঞাঁন বলিতে কি বুঝিতে হইবে ?£ উহা বহি- 
রুপানে প্রাণাম্বাম 171 প্রাণ বখন আধ্যাত্মিক শক্তিরূপে প্রকাশিত হর, 
তখন আধ্যাত্মিক উপানেই উহাকে সংবম করা যাইতে পারে। 
বে প্রাণাক্গামে প্রাণের স্থলবরূপশুলিকে বাহা ডপাযের দ্বারা জন 
করিবার চেষ। করা! হন্ব, তাহ।কে পদার্থবিজ্ঞান বলে। আর 
ঘষে প্রাণান্গামে প্রাণের আধ্যাত্সক বিকাশগুলিকে আধ্যাত্সিক 
উপানের দ্বার! সংবযমের চেষ্টা করা হস্স»ধ তাহাকেই কআাজযোগ বলে। 


শস্ই 


চতুর্থ অধ্নাক 
প্রাণের আধ্যাত্বিক রূপ 


| যোগিগণের মতে মেরুদণ্ডের মধ্যে ইড়া ও পিস্তল? নামক ছৃইঙ্রি 
বায়বীয় শক্তিপ্রবাহ ও মেরুদণ্ডস্থ মজার মধ্যে সুযুন্নাী নামে একটি 
শৃন্ নালী আছে । এএই শুূন্চ নালীর নিন্নপ্রান্তে কুণগুলিনীর আধার- 
ভূত পদ্ম অবস্থিত । বৌগারা। বলেন, উহ ত্রিকোণাকাঁর । যোগী- 
দিগের রূপক ভাবার ত্রস্থানে কুগুলিনী শক্তি কুগুলাকিতি হইয়! 
বিরাজমান । যখন এই কুগুলিনী জাগরিত। হন, তখন তিনি এই 
শূন্ত নালীর মধ্য দিয়) পথ করিয়া উঠিব।র চেষ্টা করেন, আর ষতই 
তিনি এক এক সোপান উপরে উঠিতে থাকেন, ততই মনের স্তরের 
পর সুর যেন খুলিয়। যাইতে থাকে ; আর সেই যোগীর নানাবূপ 
অলৌকিক দৃহ্য দর্শন ও অদ্ভুত শক্তি লাভ হইতে থাকে । যখন 
সেই কুগুলিনী মন্তডিফ্ষে উপনীত হন, তখন যোগী সম্পূর্ণরূপে 
শরীর ও মন হইতে পুথথক হইক্সা বান এবং তাহার আত্মা আপন: 
মুস্তভাব উপলব্ধি করেন । মেরু-মজ্জা যে এক বিশেষ প্রকারে 
গঠিত, ইহ আমাদের জানা। আছে । ইংরাজী ৮ (8) এই অক্ষরটিকে 
যদি লম্বালম্বি ভাবে ৫০০ ১ লওয্া যাক্স, তাহা হইলে দেখ। যাইবে 
যে, উহার ছইটি অংশ রহিয়াছে আর প্র ছইটি অংশও মধ্যদেশে 
₹বুক্ত | এইরূপ অক্ষর, একটির উপর আর একটি সাঞজাইলে, 


৬৩ 


রাজযোগ 


বেন্ধপ দেখার», তমরু-মজ্জী কতকট। সেইবূপ। উহার বামভাগ ইড়ী, 
দক্ষিণ দিক পিল, আর বে শূন্য নালী মেরুমজ্জীর ঠিক মধ্যস্থল 
দির] গিনি।ছে, ব্তাঁভাই স্ুমুন্সী । মেরু-মজ্জ। কটিদেশস্থ মরু 
দণ্ডাশস্থিত কতকগুলি অস্থির পরেই শেষ হইক্সাছে» কিন্ড তাহ? 
ভইলেও একটি ল্ন্্ম স্যত্রব্ষ পদার্থ বরাবর নিলে নামির! 
আসিম্বাছে 1 ল্গুযুন্পাী লালী সেখানেও অবস্থিত, তবে এ স্থানে খুব 
স্ক্ষ্ম ভইরাছে মাত্র নিক্্দিকে এ নালীর মুখ বদ্ধ থাকে । 
উহার নিকটেই কটিদেশস্থ সাবুজাল € 55০৫2] 0153005 ) অবস্থিত | 
আজকালকার শারীর-বিধান শান্দের ৫7৮1558০125 ১ মতে» উহ! 
ত্রকোণাকত্িি । ক সমুদয় নান্ডাজ।!লের কেন্দ্র মেরু মজ্জার মধ্যে 
“নুক্িত ২ উভ্াদ্িগাকেই যোগিগণের ভিন ভিন্ন পদ্মম্বরূপ শ্রহণ 
করা যাইত পারে। 

বো 21 বলেন, সর্বনিন্নে মুলাধাত্র ভইতে আরম্ভ করিস! 
অন্ভিঙ্গে সহল্রংক ব1 সহঙলদল পদ্ম পথ্যন্ত কতকগুলি কেন্দ্র আছে ॥ 
হি আদব্রা প্র প্দ্মগুলিকে প্র্বেবাক্ত নাডীজল (11505) বলির? 
মনে কি, ভাঁভা হইলে আজকালকার শারীর-বিধান- শমসের ছাতা 
অনি সহজে বোগাদিগের কথান ভাব বুঝা ঘাইবে ॥ আমরা জানি, 
আমাদের আারুমধ্যে ছুই প্রকারের 'প্রবাভ আছে 2 আহাদের একটিকে 
আন্তমু্ী ও অপবটিকে বহিমুথী, একটিকে ভ্ঞানাত্মক ও অপবটিকে 
হত্যান্সক, একটিকে কেন্দ্রাভিমুখী ও অপরটিকে কেক্দ্াপসান্রী বল! 
বাইতে পারে । উনাদের মধ্যে একটি মস্ডিক্ষাভিসুখে সংবাদ বহন্‌ 
করে, অপরটি মক্ত্ি্ছ হইতে বাহিরে সমুদক্স অঙ্গে সংবাদ লহইস্। 
নায় । এ প্রবাহশুলি কিন্ত পরিণামে মস্তিষ্কের সঙ্গে সংযুক্ত । 

৬৪ 


ওাণের আবধ্যাত্সিক জপ 


আমাদের আরও জান। উচিত যে, সমুদয় চক্রের মধ্যে সর্ববনিন্নস্থ 
মূলাধার» মস্ভতকম্থ সভহল্দল-পদ্ম ও নাভিদেশে অবস্থিত মণিপুর ত্র 
এই কর্েকটির কথা মনে বাঁখা বিশেষ আবশ্যক না 

এইবার পদার্থবিজ্ঞানের একটি তত্ব আমাদিগকে বুঝিতে 
হইবে । আনরা সকলেই ভাড়িত ও তৎসম্প্‌ক্ত অন্তান্য বহুবিধ 
সক্তির কথা। শুন্ষ্বাছি । তাড়িত কি, তাহ)? কেহই জানে না, 
তবে আমর এই পধ্যস্ত জানি বে, তাড়িত এক প্রকার গতিবিশেষ । 
জগত অন্যান নানাবিধ গতি আছে, তাড়িতের সহিত উহাদের 
এপ্রতেদ কি? মনে কর, একটি টেবিল সঞ্চালিত হইছে» 
উহার পর্মাণুগুলি বিভিন্গ দিকে সঞ্চালিত হইতেছে । যদি উহা- 
দিগাকে অনবরত একদিকে সঞ্চালিত করা বায়, স্ডাহা হইলে 
তাভাই বিত্যচ্ছক্তিদ্ধশে পরিণত হইবে । সমুদন পরমানুগুলি 
একদিকে গতিশীল ভইলে* তাহাকেই €বহ্যতিক গতি বলে হ 
এই পুত্ভ যে বাযুবাশি বভিয্।ছে, তাহাকে সমুত্ক্সন পরমাণুশুলিকে 
যর্দি ক্রমাগত একদিকে সর্গালিত কক্স বাক্স, তাহ)? হইলে উহ এক 
মভ বিহ্যদাধার-বক্স 0 135,065হ£% ) রূপে পরিণত হইবে ॥ 

এইবার / শারীর-বিধান-শান্দ্রের একটি কথা "আমাদিগকে স্ররণ 
করিতে হইবে । তাহ এই-__ষে জ্াসুকেন্র শ্বীস-প্রশ্ব। স-যন্ত্রুলিকে 
নিক্সশিত করে, সমুদ্দম্স জাবুপ্রবাহণুলের উপরও তাহান্ধ একটু 
প্রভীৰব আছে 5 শী কেন্র বক্ষোদেশের ঠিক বিপরীত দিকে 
েরুদণ্ডে অবস্থিত । উহ শ্বাস-প্রশ্বাসগুলিকে নিয়মিত কনে এবং 
অন্ঠান্ত যে সকল আ্বারুচক্র আছে, তাহাদের উপরেও কিঞ্চিৎ 
প্রভাব বিস্তার করে । 


রাজযোগ 


এইবার আমরা প্রাণাক্সাম-ক্রিসস়ী-সাধনের কারণ বুঝিতে পাঁরিব। 
প্রথমতঃ, বর্দি নিস্রমিত শ্বস-প্রশ্বীসের গতি উত্থাপিত করা বায়, 
তাহা হইলে শরীরের সমুদক্স পরমাণুশুলিরই একদিকে গতি হইবার 
উপক্রম হইবে । যখন নানাদিকগামী মন নানাদিকে না গিক়। 
একমুখী হইক্স॥ একটি দৃঢ় ইচ্ছাশক্ত্িন্ধপে পরিণত হয়», তখন সনুদক্ষ 
সারুপ্রবাহ ও পরিব্ডিত হইব্রা এক প্রকার বিহ্যদ্বৎ গতি প্রাপ্ত 
হয় 1১ কারণ, 1 স্রাবুগুলির উপর তাড়িত ক্রিত্লা করিলে উহাদের উন্তক্ব 
প্রীস্তে বিপরীত শক্তিদ্বরের উদ্ভব ভয়! দেখ গিক্সাছে। ইহাঁতেই 
বোধ হম্স যে»? যখন ইচ্ছাশক্তি নারুপ্রবীহরূপে পরিণত হয়, তখন 
উহ1 বিহ্যদ্ধৎ কোঁন পদার্থের আকার ধারণ করে । /যখন শ্রীরস্থ 
সমুদক্স গভিগুলি সম্পুর্ণ একাভিমসুখী হয়, তখন উহ যেন ইচ্ছ।- 
শক্তির একটি প্রবল বিহ্যদাধারন্বরূপ ৫ 709651% ) হইব পড়ে ॥ 
এই শ্রীবল ইচ্ছাশক্তি লাভ করাই যোগী ভদ্দেশ্য । প্রাণাক়াম 
ক্রিস্বাটি এইকব্পে শারীর-বিধান-শান্ত্রের সাহায্যে ব্যাখ্যা কর! 
যাইতে পারে । উন শরীরের মধ্যে এক প্রকার একাভিমুখী গতি 
উত্পাদন করে ও শ্বাস-প্রশ্বাসকেন্ড্রের উপর আধিপত্য বিস্ডার 
করিয়া শরীরস্থ অন্ঠান্ত কেন্দ্রগুলিকেণ বশে আনিতে সাহায্য 
করে । এস্বলে প্রাণানামের লক্ষ্য-_মুলাধানে কুগুলাকারে অবশ্থিত 
কুগুলিনী শক্তির উদ্বোধন কর । 

অ[মরা যাহা কিছু দেখি, কল্পনা করি অথবা যে কোন ব্বপ্ধ 
দেখি, সমুদ্দয়ই আমাদিগকে আকাশে অন্কভব করিতে হক্স। এই 
পলিদৃশ্তমান আকাশ, বাহ সাধারণতঃ দেখা যাক্স* তাহার নাম 
মহাকাশ । ষোগী যখন অপরের মনোভাব প্রত্যক্ষ কনেন ব% 

৬ 


প্রাণের আধ্যাত্সিক পা 


অলোৌকিক বস্ত-জাত দর্শন করবেন, তখন তিনি উহ চিভ্াাকাশে 
দেখিতে পান । আর বখন আমাদের অনুভূতি বিষকশুন্ঠ হস্স, 
যখন আত্ম! নিজের স্বরূপে প্রকাশিত হন্েন, তখন উহার নাম 
চিদাকাশ । বখন কুগুলিনীশক্তি জাগরিত হইক্সা কুযুক্্র নাড়ীতে 
প্রবেশ করেন, তখন যে সকল বিষ অন্তত হম্সর, তাহ! 
চিভ্াাকাশেই ভইম্কা থাকে । যখন তিনি এ নালীর শেষ সীমা 
মন্ডিক্কে উপনীত হরেন» 'তখন চিদাকাশে এক বিষয়শৃহ্য ভ্ঞান 
অনুভৃত হইঙ্জ) থাকে । 

এইবার ভাড়িতের উপমা আবার লও)? ষাক। আমর 
দেখিতে পাই যে, মানুষ কেবল তার-যাগে কোন তাড়িতপ্রবাহ 
একস্থান হইতে অপর স্থানে চালাইতে পানে । কিন্ত প্রকৃতি ত 
তাহার নিজেকে মহা মহ)? শক্তি প্রবাহ ত্রেরণ কত্পিতিে কোন 
তারের সাহাধ্য লন না । ইহাতে ৫বেশ বুঝা যাক্স যে, কোন শ্রবাহ 
চ|লাইবাঁর জন্য তারের বাস্তবিক তোন আবশ্তক নাই । তবে 
কেবল আমরা উহার ব্যবহার ত্যাগ করিয়)॥ কাধ্য করিতে পারি 
না বলিম্বাই, আমাদের তারের আবশ্যক হয়। (তাড়িত প্রবাহ 
যেমন তারের সাহ।ব্যে বিভিন দিকে ০প্ররিত হস্ত, ঠিক তব্দপভাবে 
বহির্বিবিষক্ন হইতে ঘে জ্ঞান্প্রবাহ মস্তি্ষে অথব। মন্ডিকফ হইতে 
যে কনম্মপ্রবাহু বহিদ্দেশে প্রেরিত হইতেছে, তাহ আাধুতন্কভব্দপ 
তারের সাহাষ্যেই হইতেছে । ৫মরুমজ্জ/মধ্যস্থ জ্ঞানাত্মক ও 
কন্ীত্মক ..লাবুগুচ্ছন্ডম্তই যোগিগণের ইড়। ও পিঙ্গলা নাভী । 
প্রধান্তঃ ত্র নাড়ীঘর়ের ভিতর দিয়াই পুর্বোত্ত অস্তম্খী ও 
বহিসুুখী শব্তিপ্রবাহঘবস্র চলাচল কৰিতেছে। কিন্ত১ক্রথা হইতেছে, 

৬৭ 


বাজযোগ 


এইকব্প কোন প্রকার তারতুল্য প্দ্ার্থের সাহাব্য ব্যতীত মক্তিক্ষ 
হইতে চতুদ্দিকে বিভিন্ন সংবাদ ০প্ররণথ ও নানাস্থান হইতে 
মন্তিক্ষেই বিভিন্ধ সংবাদ গ্রহণের কারা না হইবে কেন ?) প্রক্কতিতে 
ত একব্প ব্যাপার ঘটিতে দেখা যাইতেছে 1. যোগীর। বলেনঃ ইহাতে 
কৃতকাধ্য হইলেই ভোতিক বন্ধন অতিক্রম করা বাইতে পানে । 
ইহাতে কুতকাধ্য হইবার উপাম্স কি? বর্দি মেরুদণুমধ্যস্থ সুযুমার 
মধ্য দিনা মারুপ্রবাহ চালিত করিতে পারা বাক্স, তাহ) হইলেই 
এই সমস্ত মিটন্না যাইবে । মনই এই নাধুজাল নিনম্মাণ কর্সিম্ণাছে, 
উহ।কেই ভ্র জাল ছিন্গ করিব কোনরূপ সাহাধ্যনিরপেক্ষ হইঙ্স। 
আপনার কাজ চালাইতে হইবে । তখনই সন্গুদক্স জ্ঞান আমাদের 
আশ্বভ্ত হইবে, দেহেন্ বন্ধন আর থাকিবে না । এই জন্য সবুর 
নাড়ীকে জনন করা আমাদের এত জ্রানোজন । বদি তুনি এই শূন্য 
নালীর মধ্য দিক! নাড়ীজালের সাভাব্য ব্যতিরেকেহ মানসিক প্রবাহ 
চালাইভে পার* তাহা হইলে এই সমস্ত, মানাংস। হইরা গেল ॥ 
তবোগীবরা। বলেন, ইহ? করিতে পানা? বর । 

সাধারণ লোকের ভিতরে ন্ুবুন্না নিক্ষদিকে বদ্ধ» উহার দ্বারা 
কোন্‌ কাখ্য হইতে পারে না ঘোঁগীরা বলেন, এই স্গষুমাদার 
উদঘাটিত করিরা তুদ্বযর। লঘুপ্রবাহ চালাইবার নির্দি প্রণালী 
আছে । সেই সাধনে ক্ুতকাধ্য হইলে শাঘুপ্রবাহ উহার মধ্যদিক্স। 
চাঁলাইতে পারা বাপ ॥ বাহা বিধন-স্পর্শে উৎপন্ন প্রবাহ বখন কোন্‌ 
কেন্দ্রে যাইক্সগখ উপনীত হয়, তখন এ্ঁ কেন্দ্র হইতে এক প্রতিক্রিক্? 
(5 5.505018) উপস্থিত হনব । ৫স্বর-কেন্দ্রগুলিতে (55092285685 
€:3810755) এ প্রতিক্রিস্কার ফল কেবল গাঁতি ঃ €চতুন্ঠ ময়একক্্রগুলিতে, 

৬৮ 


প্রাণের আধাজ্সিক কপ 


(০০175007305 5৪1802-5) কিন্তু শাথমে অনুভব, পলে গতি কন 

সমুদক্স অন্তূত্তিই বতিদ্দেশ হইতে আগত করিনা গ্রতিক্তিক্সানাত্র : 
তবে স্বপ্লে অনুভূতি কিরূপে ভম্ম ? তখন ত বাহিরের কোন ক্ষ 
নাই, তবে ত বি্বন্বভিঘানত-জনিত আ্নারবীক্স গতিগুলি শরীবের 
কোন ন। কোঁন স্থানে নিশ্চই অব্যক্তভাবে অবস্কান কদর 
মনে কর, আমি একটি নগর দেখিলাম । তন্গগরবাচ্য বহিব্বস্তরাঁজির 
আঘাতের প্রতিঘাভেই আনাদের সেই নগরের অনুভূতি অর্থাৎ 
সেই নগরের বহির্বস্তনিচর ছারা আমাদের অন্তর্ববাহী আাসুম শুলীর 
মধ্যে হযে গতিবিশেষ উতপন্স ভইক্বাছে, তন্থার) নম্ডিষষমধ্যস্থ 
পরুম।ণুগুলির ভিতর গতিবিশেষ উতপন্ম ভইক্বাছে । এক্ষণে দেখ! 
যাইতেছে যে, অনেক দিন পরেও এ নগরাটি আম।র স্মরণ-পথে 
আইনে । এই স্মতিতেও ঠিক প্র ব্যাপারই ভইক্সা থাঁকে, 
তবে ম্রহুতক্ ভাবে । কিন্তু উহ) মস্তিষ্কের ভিত বে তথাবিধ 
ম্ৃহতর কম্পন আনিয়। দেক্স, শশভাই ব1 কোথ। হইতে আইসে £ 
ডহ। যে সেই আদি বিবক্বাভিবাঁহ-জনিত, তাহ কখন্হ বলিতে 
পারা যাক নাঁ। তাহা হইলে স্পঈই প্রতাত হইতেছে বে, এ 
বিষক্সাভিঘাত-জনিভ গভিত্রবাভগুলি শরীরের কোন না কোন 
স্থানে কুগুলীকৃত হইব)॥ বহিঝখছে এবং উহাদের অভিথাতের 
ফলে স্বাপ্রিক অন্ভূতিরূপ মহ প্রতিক্রিনার উডব। _যে_ 
কক্ট্রে বিষক়্াভিঘা ত-জনিত্র__-গ্রতিপ্রব্হের অবশিষ্টাংশ ব1 সং তি 
সমন্টি যেন সুঞ্চিত_ থাকে, তাহাকে, মূলাধার বলে, আর এ 
কুগুলীরুত_ ক্রিস্াশক্তিকে_ কুগুলিনী ; বলে 1 সম্ভবত গতিশক্তিগুলির 
অবশিষ্টাংশও এই- স্থানেই কুগুলীক্কত ; হুইক্সা সঞ্চিত রহিক্বাছে ঠ- 


৬০৯১ 





বাজযোগ 


কারণ, বাহা বস্তর দীরকাল চিন্তা ও আলোচনার পর শরীরের থে 
স্থানে এ মুলাধার চক্র (সম্ভবতহ 5০151 (15505 ) অবস্থিত, 
তাহ) উষ্ত হইতে দেখা যান । বর্দি এই কুগুলিনী শক্তিকে 
জাগর্বিত করির! জ্ঞাতসারে সুবুত্নী নালীর ভিতর দিস্সা এক €কক্ত্র 
ভইত্েে অপব্র কেন্দ্রে লইক্স যাও) বাক্স, উহ যেমন বেমন বিভিন্ন 
কেন্দ্রের উপর ক্রিয়া করিবে, অমনি প্রবল প্রতিক্রিয়ার উৎপত্তি 
ভইবে। যখন কুগুলিনী শক্তির অতি সামান্য অংশ কোন নারুরজ্ভুর 
সধ্য দিয়া প্রবাভিত হই বিভিন্ কেন্দ্র হইতে প্রতিক্রিক্সার স্যষ্ভি 
করে, তখন্‌ ভাহই স্বপ্প অথব। কলন। নামে অভিহিত হম্ম। কিন্ত 
বখন ভ্র দ্রীঘক।লসঞ্চিত বিপুলাক্বতন শক্তিপুঞ্জ দীর্ঘকাঁলব্যাপী তীব্র 
ধ্যানের শক্তিতে স্বুঙ্গামার্গে ভ্রমণ করিতে থ।কে, তখন তব প্রতিক্রিয়া? 
হয, তাহ অতি প্রবল । তাঁভা ম্বপ্র বা কলন।-কালীন প্রতিক্রিয়া 
হইতে তত ননন্ত শুনে শ্রেষ্ঠ বটেই, জাপ্রহকালীন বিষন্জ্ঞানের 
প্রতিক্রিয্সণ? ভইতে ও অনস্তগুণে প্রবল । ইহাই অতীন্দ্িক্স অনুভূতি, 
আব ননের এই অবস্থার উভ্তা জ্ঞানাতীভ ভূমিতে আরোহণ করিক়াছে 
বল যাক । আবার যখন উহ সম্ুদক্স ভ্ঞানের, সম্বদক্স অন্ভূতির কেন্দ্র: 
স্বরূপ মস্তিষ্কে যাইয্না উপস্থিত হয়» তখন সমুদ্ক্স মস্তডিক্ষ এবং উহার 
অনুভবসম্পন্গ প্রত্যেক পরমাণু হইতেই নেন প্রতিক্রিন্ন। হইতে থাকে £ 
ইহার ফল ভ্ঞানালোকের পুর্ণ প্রকাশ ব। আয্মানভূতি । কুগুলিনী 
শন্ভি যেমন বেমন এক কেন্দ্র হইতে অপর কেন্দ্রে বাইবে, অমনি 
যেন মনের এক একটা পদ্দা খুলিক্স। ষাইবে এবং তখন তযোঁগী এই 
জগতের স্শ্ বা? কারণাবস্থাটিকে উপলব্ধি করিতে থাকিবেন । তখনই 
কেবল আমদের বিষক্াভিঘাত ও ভহাব প্রতিক্কিস্বাম্ঘরূপ জগতের 
৭৬ 


প্রাণের আধ্যাত্সিক জপ 


কারণসমূহের যথার্থ স্বরূপজ্ঞান হইবে, স্থতরাং তখনই আমাদের 
সর্ববিষক়ের পুর্ণ জ্ঞান লাভ হইবে । কারণ জানিতে পারিলেই 
কাধ্যের জ্ঞান নিশ্চিত আদিবেই আলিবে ।/ 

এইব্দপে দেখা গেল যে,/র কুণুলিনীকে ঠচতন্য করাই তত্ব-জ্ঞান, 
জ্ঞানাতীত 'অন্ক্ৃতি বা আঁআ্মানুভূতির একমাত্র উপাকস । কু" 
লিনীকে ঠ5চতন্ত করিবার অনেক উপার আছে । কাহারও কেবল 
মাত্র ভগবত্রেমবলে কুগুলিনীর ঠেতন্য হন্স»গ ক'ভারও বা সিদ্ধ 
মভাপুরুষগণের ক্কপাক্স উহ? ঘটিকা? থাকে, কাহারও বা স্শ্ম জ্ঞান 
বিচার দ্বারা কুশগুলিনীর ঠচতন্য হইক্জী। থাকে । লোকে যাহাকে 
অলৌকিক শক্তি বা জ্ঞান বলিয়। থাকে, যখনই কোথাও তাহার 
কিস্তৎপরিনাণে প্রকাশ দেখা যায়», তখনই বুঝিতে হইবে তে, কিঞ্চিৎ 
পরিমাণে এই নুশ্ডলিনী শক্তি - কোন মতে স্ুযুপ্ার ভিতর প্রবেশ 
করিয্াছে । তবে এক্স অলোৌকিক ঘটনাগুলির অধিকাংশ স্থলেই 
০দেখ! যাইবে বে, সই ব্যক্তি না জানিরা হঠাৎ এমন কোন সাধন 
করি)? ফেলিয়াছে যে, তাহাতে তাহার অজ্ঞাতসারে কুগুলিনীশস্তি 
কিন্ততৎপরিনাণে স্বতন্ত্র হইক্বা স্ুযুক্াঘ প্রবেশ করিয়াছে । যে তকোন্‌ 
প্রকারের উপাসনাই হউক, জ্ঞাতসাঁনরে অথব1 অজ্ঞাতভাবে সেই 
একই লক্ষ্যে পহুছিস্স। দের* অন্পধাৎৎ তাহাতে কুগুলিনীর ৫চতন্ হয় 
বিনি মনে করেন, আমি আমার প্রার্থনার উত্তর পাইলাম, তিন্নি 
জানেন ন। যে, প্রার্থনাবূপ মনোবুভ্তি-বিশেষের দ্বার! তিনি তাহারই 
দেহশ্থিত অনস্ত শক্তির এক বিন্দুকে জাগরিতি করিতে সমর্থ 
-হুইক্াছেন । স্তরাঁং মাচ্ষ ন। জানিস বাহাকে নান! নামে, ভক্ষে, 
কষ্টে উপাসনা করে, তাহার নিকট কি করিক্সা অগ্রসর হইতে হস্স 
শ১ 


ব্াজযোগ 

জানিলে বুঝিবে, তিনিই প্রত্যেক ব্যক্তির অস্তরে প্রকৃত জীবন্ত 
শক্তির্রপে বিব্বীজমানা। ও অনস্তন্খপ্রসবিনী- €তবাগিগণ জগতের 
সমক্ষে ইহাই উচ্চক্ে তোোষণ। করেন । সুতরাং বাজবোগইা 
প্রাকৃত ধন্ম্মবিজ্ঞান । উহাাই সমুদ্প্ন উপাসনা, সমুদ্র প্রার্থনা, 
বিভিন্ন প্রকার সাধন্পদ্ধতি ও সসমুদ্রক্স অলৌকিক ঘটনার বুক্তি- 
সঙ্গত ব্যাখ্যান্বরূপ । / 


শি 


গার্9স অধ্যায় 


অধ্যাত্ম প্রাণের সংষবম 


এখন আমর প্রাণাক্ামের বিভিন্ন ক্রিক়াগুলি সম্বন্ধে আলোচনা 
করিব । আমরা পূর্বেই দেখিক্বাছি, যোগিগণের মতে সাধনের 
প্রথম অঙ্গই ফুসফুসের গতিকে আ'য়ভ্বাধীন করা! আমাদের 
উদ্দেশ্ট-_-শরীরাভ্যনস্তরে যে সকল স্্শ্স শুশ্দ গতি হইতেছে, 
তাহাদিগকে অন্গভৰ করা। আমাদের মন একেবারে বাহিরে 
আসিয়া পড়িয়াছে, উহ? ভিতরের সুম্মানুস্ক্ম গতিগুলিকে মোটেই 
ধরিতে পারে না) আমর) উহাদিগকে অনুভব করিতে সমর্থ 
হইলেই উহাদ্দিগকে জন্ম করিতে পারিব। এই ন্াক্ববীষক্ব শক্তি- 
প্রবাহগুলি শরীরের সর্বত্র চলিতেছে £ উহার প্রতি পেনীতে গ্িক্ন। 
তাহাকে জীবনী-শক্তি দিতেছে; কিন্তু আমরা সেই প্রবাহ- 
গুলিকে অনুভব করিতে পারি না । যোগীরা বলেন, চেষ্টা করিলে 
বামর। উহাদিগকে অনুভব করিতে শিক্ষী করিতে পারি। 
প্রথমে ফুসফুসের গতিকে জস্স করিবার চেষ্টা করিতে হইবে । কিছুকাল 
ইহ) করিতে পারিলেই আমর) সুস্মতর গতিগুলিকেও বশে আনিতে 
পারিব । 

- এক্ষণে প্রাণাক্সামের ক্রিয়্াগুলির কথা আলোচন। কর। যাউক । 
সরলভাবে উপবেশন করিতে হইবে । শরীরকে ঠিক সোজাভাবে 
রাখিতে হইবে । মেরুমজ্জাটি যদিও মেরুদণ্ডের অভ্যন্তরে অবস্থিত 

শ৩ 


বাজযোগ 


তথাপি উহা মেকুদ্‌ণ্ডে সংলগ্ন নহে । বক্র হইস্সখ বসিলে, উহ। 
বিপধ্যস্ত ভইঙ্বা পড়ে । তএব দেখিতে হইবে, উহ? যেন শ্বচ্ছন্দ- 
ভাবে থাকে । বক্র হইক্সা বসিক্$। ধ্যান করিবার চেষ্টা করিলে 
নিজের ক্ষতি হস্স। শরীরের তিনটি ভাগ, ষথা-__বক্ষোদেশ,» শ্রীব। 
ও মন্ডক, সর্বদ1 এক রেখায় ঠিক সরলভাবে রাখিতে হইবে । 
দেখিবে, অতি অল্প অভ্যাসে উহ শ্বীস-প্রশ্বাসের ন্যাক্স সহজ হইস্স! 
যাইবে । তৎপবে আারুশুলিকে বণাভূত করিবার চেষ্টা করিতে 
হইবে । আমরা পুর্বেবই দেখিক্সাছি, হযে আাবুকেন্দ্র শ্বাস-প্রশ্বাস 
যন্থের কাধ্য নিন্মিত করে, অপরাপর আারুশুলির উপরও তাহার 
কতকট প্রভাব আছে । এই জন্ঠই শ্বাসগ্রহণ ও ত্যাগ তালে ন্ডালে 
(70) 61515501) কত্রা আবশ্যক । আনরা সচরাচর যে ভবে শ্বাস- 
প্রশ্বাস গ্রভণ বা ত্যাগ করি, তাহ) শ্বাস-প্রশ্বাস নামের ঘোগ্যই 
হইতে পারে না,» উহা এত অনিন্রনিত । আবার স্্রীপুক্ষষের ভিতরে 
শ্বাস-প্রশ্বাসের একটু স্বাভাবিক প্রভেদ 'অ।ছে । 

প্রাণাব্বামসাধনের প্রথম ক্রি] এই ভিতরে নিদ্ি 
পরিমাণে শ্বাস শ্রহণ কর 'ও বাহিরে নিদ্দিই পরিমাণে প্রশ্থ(স ত্যাগ 
কর। এইরূপ করিলে দেহযন্ত্রটির অসানজস্ত-ভাব বিদুরিত 
হুইবে ।? কিছুদিন ইভা অভ্য।স করিবার পর, এই শ্বাসগ্রহণ 
ও ্য্বাগের সমস ওক্কার অথবা অন্য কোন পবিত্র শব্দ মনে মনে 
উচ্চারণ করিলে ভাল হম । ভারতের প্রাণাকানের শ্বাসপ্রহণ ও 
ত্যাগের সংখ্যা নিব্পণ করিব।র জন্য এক, ছুই, তিন, চাবি এই 
ক্রমে গণনা ন1 করিক্সা ১আমরা। কতকগুলি সাহ্কেতিক শব্দ ব্যবহার 
করিক। থাকি । এই জন্তই আমি প্রাণাক়াামের সমক্স ওক্কার অথব। 

৪ 


অধ্যাত্স প্রাণের সংযম 


অন্য তোঁন পবিত্র শব্দ ব্যবহার কব্সিতে বলিতেছি । মনে 
করিবে, উহা শ্বাসের সহিত তালে তালে বাহিরে যাইতেছে ও 
ভিতরে আসিতেছে । এবূপ করিলে দেখিবে বে, সমুদ্ধয্র শরীরই 
ক্রমশ যেন সাম্যভাব অবলম্বন করিতেছে । তখনই বুঝিবে, 
প্রকৃত বিশ্রাম কি। উহার সহিত তুলনাক্স নিদ্র' বিশ্রামই নহে ॥ 
একবার এই বিশ্র।স্ত অবস্থা আদসিলে অতিশম শ্রাস্ত ন্নাসুগণ 
পধ্যন্ত জুড়াইস্সা যাইবে আর তখন বুঝিবে যে, পূর্বে কখনও তুমি 
প্রকৃত বিশ্রামন্রুথ সম্ভোগ কর নাই । 

এই সাধনে প্রথম ফল এই দেখিবে ঘষে, তোমার মুখশ্রী। পরি- 
বর্তিত হইব? যাইতেছে । মুখের শুক্ষতা ব। কঠোরতাব্যঞজক খা 
গুলি অন্তহিত হইবে । মনের শাস্তি মুখে ফুটিস্॥। বাহির হইবে ॥ 
দ্বিতীত্রতঃ, €তানার ত্বর অতি সুন্দর হইবে / আমি এমন বোগা 
একটিও দেখি নাই, বাহার গলার স্বর কর্কশ ॥। করেক মাস অভ্যাসের 
পরই এই সকল চিহ্হ প্রকাশ পাইবে । 1 এই প্রথম প্রাণাস্সামের কিছু- 
দিন অভ্যাস করিক্স। প্রাণান্বামের আর একটি উচ্চতর সাধন গ্রহণ 
করিতে হইবে ॥। উহা এই»-__ইড়? অর্থাৎ বাম নাসিক? দ্বার? ধীরে 
ধীরে ফুস্ফুস্‌ বাবুতে পুর্ণ কর । প্র সঙ্গে ন্নাধুপ্রবাহের উপর মন্‌» 
সংযম কর ১ ভাব, তুমি যেন ল্াধুপ্রবাহটিকে মেক্ুম্জার নিমিদেশে 
ব্পেরণ করিয়া কুগুলিনীশক্তির আধারভত মুলাধারস্কিত ত্রিকোণা- 
কৃতি পদ্মের উপর খুব জোরে আঘাত করিতেছ ৮ তৎপবে এ ন্গাক্ধু 
প্রবাহকে কিছুক্ষণের জন্য এ স্থানেই ধারণ কর । তৎপরে কলন। কর 
যে, সেই স্নাক্সবীক্ষ প্রবাহটিকে শ্বাসের সহিত অপর দিক ব। পিজলার 
সবার উপরে টাঁনিকা। লইতেছ । পরে দক্ষিণ নাসিক? হারা বাষু বীরে 


শি ৫ 


বাজঝবোগ 


খীরে বাহিরে প্রক্ষেপ কর 1৯/ইহু1 অভ্যাস কর। তোমার পক্ষে একটু 
কঠিন বোধ হুইবে। /সহজ উপাস্__ প্রথমে অঙ্গুষ্ঠ দ্বার দক্ষিণ নাসা 
বন্ধ করিক্সা বাম নাস। দ্বার) ধীরে ধীরে বাযু পুরণ কর। তৎপরে 
অস্গুষ্ঠ ও তজ্জনী দ্বারা উভয় নাসিক) বদ্ধ কর ও মনে কর, যেন 
তুমি নাফুপ্রবাহটিকে নিক্নদেশে প্রেরণ করিতেছ ও স্যুমার সূলদেশে 
আঘাত কবর্িিতেছ* তৎপরে অস্গুষ্ঠ সরাইয়া! লইক্সা দক্ষিণ নাস 
দ্বারা বায়ু বরেচন কর ।॥। তৎপরে বাম নাসিক। তঞ্জনী দ্বারা বন্থ' 
রাখিক্সাই দক্ষিণ নাসারজ্জধ দ্বারা ধীরে ধীরে পুরণ কর ও পুনরাক্স 
পর্বের মত উভভম্ন নাসারহ্ধই বন্ধ কর ;১ হিন্দুর্িগের মত প্রাণাক্সাম 
অভ্যাস করা এদেশের € আমেরিকার ) পক্ষে কঠিন হইবে, কারণ 
হিন্দুরা বাল্যকাল হইতেই ইহার অভ্যাস করে, তাহাদের ফুসফুস্‌ 
হস্তে অভ্যস্ত । এখানে চব্ি সেকেণ্ড সময হইতে আর্ত 
_কতির ক্রমশঃ বুদ্ধি করিলেই ভাল হক্স। চারি সেকেগ্ড ধরিক্স! বায়ু, 
পুরণ কর, বেল সেকেণ্ড বন্ধ কর ও পরে আট সেকেণ্ড ধরিক্বা। বায়ু 
রেচন কর। ইহাঁতেই একটি প্রাণারাম হইবে । প্র সমরে কিন্ত 
মূলাধারস্থ ত্রিকোণাকার পদ্মটিত্র উপর মন স্থির করিতে বিস্মৃত 
হইবে না। এরূপ কল্নায় তোমার সাধনে অনেক স্মবিধ। হইবে । 
আব একপ্রকার €(তৃতীক্গ ) প্রাণাস্তাম এই, ধীবে ধীরে ভিতনে শ্বাস 
গ্রহণ কর, পরে ক্ষণবিলম্ম ব্যতিনেকে বাতিরে ধীরে ধীরে রেচন 
করিয়া বাহিরেই শ্বাস কিছুক্ষণের জন্ত বুন্ধ করিস্সা রাখ 52 সংখ্যা 
পুর্বব প্রাণাক্সামের মত । পুর্বব প্রাণাক্সামের সহিত ইহার প্রভেদ্দ এই 
যে, পুর্ব প্রাণাকামে শ্বাস ভিতরে বুদ্ধ করিতে হয়», এক্ষেত্রে উহাকে 
বাহিরে ক্ুদ্ধ করা হইল । এই শেষোক্ত ব্রাণাকামটি পৃর্ববাপেক্ষা 
৪2 


অধ্যাত্স প্রাণের সংবম 


সহজ । বে প্রাণাক্সামে শ্বাস ভিতনব্ে রুদ্ধ করিতে হয়, তাহ? 
অতিরিক্ত অভ্যাস করা ভাল নহে । উহ প্রাতে চার বার ও 
সায়ংকালে চার বার মাত্র অভ্যাস কর । পরে ধীরে ধীরে সময় 
৩ সংখ্য। বুদ্ধি করিতে পার । ক্রমশঃ দেখিবে যে, তুমি অতি 
সভজেই ইহ) করিতে পান্িতেছ, আর ইহাতে খুব আঁনন্দও 
পাইতেছ ॥। অতএব যখন দেখিবে বেশ সহজে করিতে পারিতেছ, 
ভখন তুমি অতি সাবধানে ও সতর্কতার সহিত সংখ্যা চাব্র হইতে 
ছয্স বুদ্ধি করিতে পার ॥ অনিস্মমিতভাবে সাধন কৰিলে তোমার 
অনিষ্ট হইতে পারে । 

বণিত তিনটি প্রক্রিসার মধ্যে প্রথমোক্ত ও শেষোক্ত ক্তর্রিস্বাটি 
কঠিনও নর, আর উহাতে ০কোন বিপদেরও আশঙ্ক। নাই । প্রথম 
[ক্ররাটি বতই অভ্যাস করিবে, ততই তোমার শাস্তভাব আসিবে । 
উহার সহিত ওজঙ্ার যোগ করিনা? অভ্যাস কর, দেখিবে যে, যখন 
তুমি অন্ঠকাধ্যে নিবুক্ত রহিয়াছ» তখনও তুমি উহা অভ্যাস কন্রিতে 
পারিতেছ । এই ক্রিনার ফলে তুমি নিজেকে সকল বিষয়ে ভালই 
বোধ করিবে । এইনবূপ করিতে করিতে একদিন হয় ত খুব অধিক 
সাধন করিলে, তাহাতে তোমার কুগুলিনী জাগরিত হইবেন । 
বাহার দিনের মধ্যে একবার ব1 হইবার অভ্যাস করিবেন, তাহাদের 
কেবল দেহ ও মনের কিঞ্ স্থিরত। ও স্ুম্থত লাভ হইবে । কিস্ত 
যাহার! উতিক্বা। পড়িয়া সাধনে অগ্রসর হইবার চেষ্টা করিবেন, 
তাহাদের কুণগুলিনীর ঠ5তন্ঠ হইবে £ তাহাদের নিকট সমগ্র প্রক্তিই 
আর এক নব রূপ ধারণ করিবে, তাহাদের নিকট জ্ঞানের হাব 
উদঘাটিত হইবে । তখন আর গ্রহ্থে তোমার জ্ঞান অন্বেষণ করিতে 

৭৭ 


বাজযোগ 


হইবে ন1, তোমার মনই তোমার নিকট অনন্ত-জ্ঞান-বিশিষ্ট পুস্তকের 
কাধ্য করিবে । আমি পুর্বেবেই মেরুদণ্ডের উভয্প পার্খ দিয়! প্রবাহিত 
ইড়া ও পিঙ্গল। নানক ছইটি শক্তিপ্রবাহের কথা৷ উল্লেখু করিয়াছি, 
আর নেরুমজ্জান মধ্যদেশম্বরূপ ন্তবুক্রার কথাও পুর্ববেই বল! 
হইয়াছে | এএই ইড়া, পিল, সুযুয্ন। প্রত্যেক প্রানীতেই বিরাজিত । 
যাহাদ্দেরই ৫েরুদণ্ড আছে, তাহাদেরই ভিতরে এই তিন প্রকার 
ভিন্গ ভিন্ ব্রার প্রণালী আছে । তবে ষোনীরা বলেন, সাধারণ 
জীবের এই স্গষুক্সা বন্ধ থাকে, ইহার ভিতরে কোনব্প করিত! অন্গভব্‌ 
কর বার না, কিন্ক ইড়া ও পিঙ্গল।! নাঁড়ীদয্ের কাধ্য অর্থাৎ 
শরীরের বিভিন্ন প্রদেশে শক্তিবহন কর» তাহ) সকল প্রানীতেই 
প্রকাশ থাকে । 

কেবল যোগীর্ই এই স্থবুক্না উন্মুক্ত থাঁকে । নুযুন্নাদ্বার খুলিম্স? 
গিয়া তাভার মধ্য পির] সযসবীর শক্তিপ্রবাহ যখন উপরে উঠিতে 
থাকে, তখন চি্তও উচ্চতর ভূমিতে উঠিতে থাকে, তখন আমর 
অতীন্ডিক বাল্যে চলি বাই। আমাদের মন তখন অতীন্দ্রিয়, 
জ্ঞানাতীত, পুর্ণ €তন্ ইত্যার্দি নামধেকসস অবস্থা লাভ করে । তখন 
আমর বুদ্ধির "অতীত প্রদেশে চলিক্স॥ যাই, তখন আমরা এমন 
একস্থানে চলিক্স। যাই যেখানে তর্ক পৌছিতে পারে না । এই 
নৃযুন্নাকে উন্মুক্ত করাই যেগার একমাত্র উদ্দেশ্য ॥ পুর্বেব যে সকল 
শক্তিবহনকেন্দরের কথ। উল্লিখিত হইন্তাছে, বোগী্িগের মতে তাহার 
ক্ৃযুম্ার মধ্যেই অবস্থিত । রূপক ভাষায় উহাদ্দিগকেই পদ্ম বলে। 
পন্মগুলির মধ্যে সকলের নিমন্সদেশস্থটি সুষুস্ার সর্ব নিক্রভাগে 
অবস্থিত__উহার নাম € ১ম) মুলাধার, তৎ্পরে € হস) স্বাধিষ্ঠান্‌, 

০ 


অধ্যাত্য প্রাণের সংযঙ্ 


পরে (৩ক্স) মণিপুর, €(৪র্থ) অনাহত, €(ঞম) বিশুদ্ধ, (৬) 
আজ্ঞ1, সর্বশেষে (৭ম ) মন্ডিক্ষম্থ সহন্রার বা সহজ্রদলপদ্ম । ইহাদের 
মধ্যে আপাততঃ আমাদের দুইটি কেন্দ্রের (চক্রের) কথ। জান? 
আবশ্টাক। সর্ববনিম্দেশবভভী মূলাধার ও সর্ব্বোচ্চদেশে অবস্থিত 
সহল্লার । সর্ববনিপ্লচক্রেই সমুদর শক্তি অবস্থিত, আর সেই স্থান 
হইতে উহাকে মন্ডিফষস্থু সব্বাোচ্চ চক্রে লইক্স/) যাইতে হইবে । 
যোগারা বলেন, মন্ষ্যদেহে যত শক্তি অবস্থিত, তাহাদের মধ্যে 
সর্বশ্রেষ্ঠ শক্তি ওজহ । এই ওজহ মন্তডিক্ষে সঞ্চিত থাকে, বাহার 
মস্তকে বে পরিমাণে ওজোধাতু সঞ্চিত থাকে, তে ০সই পরিমাণে 
বুদ্ধিমান ও আধ্যাত্সিক বলে বলী হম্স। ইহাই ওজোধাতুর 
শক্তি ।৯ এক ব্যক্তি অভি স্থন্দর ভাব ব্যক্ত করিতেছে, কিন্ত 
লোক আকুষ্ট হইতেছে না, আবার অপর ব্যক্তি বে খুব সুন্দর 
ভাষায় সুন্দর ভাব বলিতেছে তাহা নহে, তবু তাহার কথার 
লোকে মুগ্ধ হইতেছে । ওজঃশক্তি শরীর হইতে বহির্গত হইকস্স়াই 
এই অদ্ভুত ব্যাপার সাধন করে । এই ওজংশক্তিসম্পন্স পুরুষ বে 
কোন কাধ্য করেন, তাহাঁতেই মহাঁশক্তির বিকাশ দেখা যার । 

রি সকল মানছগষের ভিতরেই অল্লাধিক পরিমাণে এই ওজঃ 
আছে £ শরীরের মধ্যে যতগুলি শক্তি ক্রীড়া! করিতেছে, তাহাদের 
উচ্চতম বিকাশ এই ওজঃ। ইহা? আমাদের সর্বদা মনে রাখ! 
আবশ্যক তে, এক শক্তিই আর এক শক্তিতে পরিণত হইতেছে । 
বহির্জগগতে যে শক্তি তাঁড়িত বা! চৌস্বকশক্তিরূপে প্রকাশ 
পাইতেছে, তাহা ক্রমশঃ আভ্যন্তরীণ শক্তিরপে পব্সিণত হইবে» 
&পশিক শক্তিগুলিও ওজৌোরূপে পরিণত হইবে । যোগীর। বলেন, 


শট 


রাজযোগ 


মানুষের মধ্যে বে শক্তি কামক্রিয়7» কামচিস্তা ইত্যাদিরূপে প্রকাশ 
পাইতেছে, তাহা দমিত হইলে সহজেই ওজোধাতুরূপে পরিণত 
হইয়॥ যাক । আর আমাদের শরীরস্থ সর্ববাপেক্ষী নিন্নতম ককক্ছ্রটি 
এই শক্তির নিক্সামক বলিয়। বোশগীর। উহার প্রতিই বিশেষ লক্ষ্য 
করেন। তাহাদের ইচ্ছ। এই তবে, সমুদ্ধর্র কামশক্তিটিকে লহঙ্গ! 
ওজোধাতুতে পরিণত করেন । কামজনীী নর-নারীই কেবল এই 
ওজোধাতুকে নম্তিষধে সঞ্চিত করিতে সমর্থ .হন। এই জন্যই 
সর্ববদেশে ব্রল্গচধ্য সর্বশ্রেষ্ঠ ধন্মরূপে পরিগণিত হইক্সাছে। মানুষ 
সহজেই দেখিতে পাক ৫, কামকে প্রশ্রয় দিলে সমুদক্স ধন্মভাব, 
চপ্রিত্রবল ও মানসিক তেজঃ-__সবই চলিক্স বায । এই কারণেহ 
দেখিতে পাইবে, জগতে ঘষে বে খন্মসম্প্রদাক্স হইতে বড় বড় 
ধম্সবীর জন্মসিক্সাছেন, তেই সেই সম্প্রদঠপ্ই ব্রহ্গচধ্য সম্বন্ধে বিশেষ 
জোর দিকাছেন । এই জন্ঠই বিবাভত্যাগী সন্গযাসিদলের উতপভ্ভি 
হইন্সাছে । এই ব্রন্মচধ্য পুর্ণভাঁবে কাকসমনোবাক্যে অনুষ্ঠান কর 
নিতান্ত কর্তন্য । ব্রহ্গচধ্যশুন্ত হুইক্স) রাজধোগসাধন বড় বিপত্- 
সন্কুল ; কারণ উহাতে শেষে অস্ষিক্ষের বিষম বিকার জন্মাইতে 
পারে । যদি কেহ রাজবোগ অভ্যাস করে, অথচ অপবিত্র জীবন 
যাপন করে, সে কিরূপে বোগা হইবার আঁশ।ী করিতে পাবে ? 1 


তক 





এপত্যাহার ও ধারণ! 


(প্র।ণাক়ামের পর প্রত্যাহার সাধন করিতে হক্প 1 ১ এক্ষণে 
“জিজ্ভাস্তয এইস প্রত্যাহার কি ? তামরা) সকলেই জান, একিরূপে 
বিবক্ান্থভূতি হইয়ী। থাকে । সর্ব প্রথমে দেখ, ইন্ছিয়িছারস্বব্ূপ 
বাহিরের যন্ত্রগুলি রহিয়াছে, পরে এ ইন্দ্রি্সগোলকের অভ্যন্তরবর্তী 
ইন্ডছ্রিরগুলি__ইহার। মস্তিকম্থ নারুকেন্দ্গুলির সহাক্ষতার শরীরের 
উপর কাধ্য করিতেছে, ততৎপবে মন।১ যখন এই ইন্দ্িক্সগুলি 
একত্রিত হুইয়॥ কোন বহিরস্তর সহিত সংলগ্ন হর্‌, তখনই আমরা 
সেই বস্ত অন্তভব করিক্সা থাকি 1) কিন্তু আবার মনকে একা গ্র 
করির? কেবল কোন একটি ইন্ছ্রিয়ে সংযুক্ত করিক্সা রাখা অতি 
কঠিন * কারণ, মন € বিষয়ের ১ দীসম্বক্ষপ ॥ 

আমরা জগতে সব্বত্রই দেখিতে পাই, সকলেই এই শিক্ষণ? 
দিতেছে বে, “সাধু হও,” “সাধু হও” “সাধু হও” ॥ বোধ হয়, 
জগতে কোন দেশে এমন কোন বালক জন্মায় নাই» যে “মিথ্য। 
কহিও না”, “চুরি করিও না” ইত্যার্দিরপ শিক্ষা! পাক্স নাই, কিস্ত 
কেহ তাহাকে এই সকল অসৎ কনম্ম হইতে নিবৃভ্ির উপান্র 
শিক্ষা দেস না । শুধু কথায় হয় না। কেনই বা ০ চোর ন। 
হইবে? আমরা ত তাহাকে চৌধ্যকম্্ম হইতে নিবৃত্তির উপাক্ক 
শিক্ষা দিই না» কেবল বলি, “চুরি করিও না” । মনঃসংবম করিবার 

৮৮১ 


বাজযোগ 


উপাঁব শিক্ষা দিলেই তাহাকে বথার্থ সাহায্য কর। হব, তাঁহাতেই 
তাহার শিক্ষা ও উপকার হইক্সা থাকে 1/ যখন মন ইন্ড্রির-নামধেক্স 
ভিন্ন ভিন্ন শক্তিকেন্দে সংযুক্ত হয়, তখনই সমুদ্র বাহা+ ও 
আভ্যন্তরীণ কন্ম হইজ। থাকে ১ ইচ্ছশপুর্বকই হউক, আর 
অনিচ্ছাপুর্বকই হউক» মানব নিজ মনকে ভিন্ম ভিন্গ € ইন্ড্রির- 
নামধেস্র ) কেন্দ্রগুলিতে সংলপ্ধ করিতে বাধ্য হস ।১ এই জন্যই 
মান্ছব নানাপ্রকার হুক্ন্ম করে, করিক্া শেষে কই পাত্র । মন 
যদি নিজের বশে থাঁনকিত, তবে মানুষ কখনই অন্ঠাক্স কম্ম 
করিত না । € মনঃসংবম করিবার ফল কি? ফল £এই যে, মন 
যত হইকসা। গেলে, সে আব তখন আপনাকে ভিন্ন ভিন্ন 
ইন্ড্রিক্বরূপ বিষপ্চুভূত্ি-কেন্দ্রশুলিতে সবংঘুক্ত করিবে না। তাহা। 
হইলেই সর্বপ্রকার ভাব ও ইচ্ছ)7 আমাদের বশে আসিবে 1১ এ 
পধ্যন্ত বেশ পরিক্ষার বুঝ গেল । এক্ষণে কথ এই», ইহ। কাধ্যে 
পরিণত করা কি সম্ভব? ইহ সম্পূর্ণরূপেই সম্ভব । তোনর! 
বর্তমানক।লে উহার কতকট। আভাস দেখিতে পাইতেছ £ 
বিশ্বাসবলে আরোগ্যকারিসম্প্রদ্ধা ছুঃখ, কই, অস্ঞভ ইত্যাদির 
অন্ডিত্ব একেবারে অস্বীকার কন্িতে শিক্ষা দদিতেছেন । অবশ্য 
ইহাদের দর্শন কতকট। শিরোবেষ্টন করিক্সা নাসিক) প্রদশনের 
হাক । কিন্ত উহাও একরপ তোগ, €কোঁনবরূপে উহ তাহার! 
আঁবিক্ষার করিক্া ফেলিক্সাছেন। যে সকল স্থলে তাহারা ছঃখ- 
কঞ্টের অন্ডিত্ব অন্বীকার করিতে শিক্ষা দিস লোকের হঃথ দর 
করিতে ক্ৃতকাধ্য হন, বুঝিতে হইবে, তে সকল স্থলে তাহার! 
প্রকৃতপক্ষে প্রত্যাহারেন্ই কভকট। শিক্ষণ দিক্লাছেন; কারণ 
৮২. 


ওপ্ত্যাহার ও ধারণা! 


ভাহারা। সেই ব্যক্তির মনকে এতদূর সবল করিক্স॥ দেন, যাহাতে 
সে ইন্দ্রিত্রগণের কথ প্রামাণ্য বলিক্সাই শ্রহণ করে না। বশীকবরণ- 
বিছ্যাবিদ্গণও € 18071010918515 ) পুর্বে ক্ প্রকারের সদৃশ উপাক্প 
অবলম্বন্দে ইঙ্গিত-বলে € আত, 191275০0615 55155555035), 
কিরত্ক্ষণের ন্ট তীহাদের বশ্যব্যক্তিগণের ভিতবে একরপ 
অস্বাভাবিক প্রত্যাহার আন্স্ুন করেন । যাহাকে সচরাচর 
বশাকরণ-ইঙ্গিত বলে, তাহ কেবল করোগ-গ্রস্ত দেহ ও মোহ- 
ভিমির[চ্ছঙ্গ মনেই তাহার প্রভাব বিস্তার করিতে পারে । বশী- 
করণকারী যতক্ষণ না স্থিরদৃষ্টি অথবা অন্য কেন উপায়ে তাহার 
বগ্তব্যক্তির মনকে নিক্ক্রি্পন জড়তুল্য অস্বাভাবিক অবস্থার লইস্গ। 
যাইতে পারেন, ততক্ষণ তিনি যাহাই ভাবিতে, দেখিতে বা 
শুনিতে আদেশ করুন না কেন, উহার কোন ফল হক না । 
বণীকবণক।রী বা বিশ্বাসবলে আরোগ্যকারীরা যে কিছুৎ্- 
ল্ষণের জন্য ভাহাদের বশ্যব্যক্তিন্ন শরীরস্থ শক্ত্িকেক্ছ্তগুলিকে 
( ইন্ড্রির ) বশীভূত করিক+' থাকেন, তাহা অতিশক নিন্দাহ কনম্ম, 
কারণ উহাতে ত্র বশ্যব্যক্তিকে চরমে সর্বনাশের পথে লইস্স। 
যান্স। ইহা ত নিজের ইচ্ছাশক্তিবলে নিজের মন্ডিক্ষস্থ কেন্দ্রগুলির 
সতষুম নক» অপত্রের ইচ্ছাশক্তির হঠাৎ প্রবল আঘাতে বশ্তব্যক্তির 
মনকে খানিকক্ষণের জন্য যেন স্তম্তিত করিক্সা রাখ! । ভহ1 বশ 
ও ৫পশিক শক্তির সাহাধ্যে শকটাকর্ষক উচ্ছজঙ্খল অম্বগণের উন্মত্ত 
গতিকে সংবত করা নহে, উহা অপরকে তেই অশ্বগণের উপর 
তীব্র আঘাত করিতে বলিক্স॥। উহাকে কিন্তুৎক্ষনণের জন্য স্তম্ভিত 
করিস শান্ত করির) রাখা । সই ব্যক্তির উপর এই প্রক্রিস। 
৩ 


বাজযোগ 
যতই করা হয়, ততই সে তাহার মনের শক্তির কিক্নদংশ করির" 
হারাইতে থাকে, পরিশেষে মনকে সম্পূর্ণ জর করবা দূরে থাক, 
ক্রমশঃ তাহার মন একপ্রকান্ধ শক্তিহীন কিস্ভুতকিমাকার হইব 
ষায়, পরিশেষে বাতুলালক্বই তাহার চরম গতি হইনস৭ দাড়া । 

নিজের মনকে নিজের বশে আনিবার চেষ্টার পরিবর্তে এইবূপ 
পনেচ্ছা প্রণোদিত সংযমের চেষ্টায় কেবল ঘে অনি হত্স তাহ? 
নহে, উহা যে উদ্দেশ্তে কৃত হয় তাহাই সিদ্ধ হয় না । প্রত্যেক 
জীবাত্মারই চরম লক্ষ্য মুক্তি বা স্বাধীনত। 5 জড়বস্ত 'ও চিত্বুত্তির 
দাসত্ব হইতে মুক্তি লাভ নকরিঘ্প।া উহাদের প্রভুত__বাহ 
ও অস্তঃপ্রক্কৃতির উপর গ্ভুত্ব। কিন্তু উহ্ভার সহায়তা কর। দূরে 
থক, অপর ব্যক্তি কতক প্রযুক্ত ইচ্ছাশক্তিপ্রবাহু € উহ আমার 
প্রতি যে আকারেই প্রবুক্ত হউক না কেন,__ডহাদ্বার। সাক্ষাৎ 
সম্বন্ধে আমার ইন্ড্রক্িগণ বাত হউক, অথনা উহ? এককুপ 
পীড়িত বা শিক্ুতাবস্থাক্ম আমার ইক্দ্রি়গণকে সংবত করিতে 
বাধ্য করুক ) বরং আনি যে সকল চিভুবুত্তিকপ বন্ধনের_-€ে 
সকল প্রাচীন কুসংস্কারের-__শুরু শৃঙ্খলে আবদ্ধ, তাহারই উপর 
আর একটি বন্ধনের, আর একটি কুসংস্কারের গ্রন্থি চাপাইন্ব। 
দেক্স। অতএব সাবধান, অপরুকে তোমার উপর বথেচ্ছ শক্তি 
সঞ্চালন করিতে দিও না । অথব। অপবের উপর এএইক্ষপ ইচ্ছ।- 
শক্তি প্রয়োগ করিকসস॥ না জানিয়্া তাহার সর্বনাশ করিও না। 
সত্য বটে, কেহ কেহ অনেকের প্রবৃত্তির মোড় ফিরাইক়া দিয়! 
কিছুদিনের জন্য তাহাদের কিক্পৎ পরিমাণে কল্যাঁণসাধনে ক্কৃতকাধ্য 
হন, কিন্তু আবার অপরের উপন্থ এই বশীকরণ-শক্তি প্রক্বোগ 

|: | 


প্রত্যাহার ও ধারণক 


করিস), না জানিলস। যে কত লক্ষ লক্ষ নরনারীকে একবূপ বিকৃত 
জড়াবস্থীপন্গ করিক্স। তুলেন, বাহাতে পরিণামে তাহাদের আত্মার 
অস্ভিত্থ পব্যস্ত বেন বিলুগ্ হইযস। যার, তাহার ইয়া! হয় নাই। এই 
কারণেই যে কোন ব্যক্তি তোমাকে অন্ধ বিশ্বাস করিতে বলেন, 
অথবা! নিজের ষ্ঠ তর ইচ্ছাশক্তিবলে বশীভৃত করিক্ষা বহু 
লোককে তাহার অনুসরণ কবিতে বাধ্য করেন, তিনি ইচ্ছ? 
করিয়া না করিলেও মন্ষ্যজাতির শুরুতর অনিষ্ট সাধন করিস? 
থাকেন । 

অতএব (নিজ মন সংবত করিতে সর্বদাই নিজ নলের সহাব্ত 
লইবে, আর এইটি সর্বদ1 স্মরণ রাখিবে বে, তুমি যদি রোগগ্রন্ 
না) হু, তবে তোমার বৃহির্দেশস্থ কোন ইজ্ছণশক্তি তোমার 
উপর কাধ্য কবিতে পাবিবে ন্।১) আব যে কোন ব্যক্তি তোমার 
অন্ধভবে বিশ্বাস করিতে বলেন, তিনি ঘত বড় লোক বা যত 
বড় সাধুই হউন না কেন, তাহার জঙ্গ দূর হইতে পরিহার 
করিবে । জগতের সর্বত্রই বহু সম্প্রদান্স আছে-_নৃত্য, লম্ফ-বম্ফ, 
চিতকার বাহারের ধন্মের প্রধান অঙ্গ । তাহারা যখন সঙ্গীত, 
নৃত্য ও প্রচার করিতে আরস্ত করে, তখন তাহাদের ভাব বেন 
২ক্রামক রোগের মত লোকের ভিতর ছড়াইক্া পড়ে । তাহারাও 
এক প্রকার বশীকরণকারী ॥। তাহার ক্ষণকালের জন্য সহজে 
অভিভ্ভাব্য ব্যক্তিগণের উপব্র আশ্চধ্য ক্ষমতা বিল্ডাঁর করে। 
কিন্ত হাক্স ! পরিণামে সমুদক্সম জাতিকে পব্যস্ত একেবারে অধহ- 
পতিত করিনা দেক্স॥ এইব্দপ অস্বাভাবিক বহিঃশক্তিবলে কোন্‌ 
ব্যক্তি বা জাতির পক্ষে আপাততহ ভাল হওক; অপোক্ষ। বরং 

৮৮৫ 


বাজবোগ 


অসৎ থাকাও ভাল ও স্বাস্থ্যের লক্ষণ। এই সকল খন্মোন্সাদ্‌ 
ব্যক্তিদিগের উদ্দেশ্য ভাল বটে, কিন্তু ইহাদের কোন দাত্রিত্ববোধ 
নাই ॥ ইহারা মাজষের যে পরিমাণে অনিষ্ট করে, তাহ? ভাবিতে 
গেলে যেন হরর দমিক্সা যান । তাহার। জানে না যে, যে সকল 
ব্যক্তি সঙ্গীতস্ডবাদির সহায়তা তাভাদের শক্তিপ্র ভাবে এইব্দপ 
হঠাৎ ভগবছাবে উম্মভ ভইর। উঠে, তাহারা কেবল আপনা- 
দিগকে জড়, বিক্ুত-ভাব।পন্ধ ও শক্তিশুহ্য করিক্সা ফেলিতেছে । 
ক্রমশহ তাহাদের মন এব্প হইক্স॥। যাইবে যে, অতি অসহ প্রভাব 
আসিলেও তাহারা তাহার অধীন হইয়া? পড়িবে, উহা প্রতিরোধ 
করিবার তাহাদের €তোন শক্তিই থাকিবে না । এই অজ্ঞ, আত্ম 
প্রতারিত ব্যক্তিগণের ত্বপ্রেও মনে উদস্স হক্স না! যে, তাহার। যখন 
আপনাদের মনুষ্যহৃদস্ পরিবস্তন করিবার অদ্ভুত ক্ষমতা আছে 
বলিন্রা আনন্দে উৎ্কুল হয়ে ক্ষমতা তাহারা মনে করে, মেঘ- 
পটলাবরূঢড কোন পুরুৰ কন্ডউক তাহাদিগকে প্রদত্ত ভ্ইক্সাছে-__তখন 
ভাভারা ভবিষ্যৎ মানসিক অবনতি, পাপ» উন্মভুত। ও স্ৃত্যুত্র 
বীজ বপন করিতেছে । অতএব বাহাঁতে তোমার স্বাধীনতা নষ 
ভন» এমন সর্ণবপ্রকার প্রভাব ভইতে আপনাকে সাবধানে 
ব্াখিবে-_ উহাকে দাকুণ বিপ্দসক্কুল জ্ঞানে প্রাণপণ চেষ্টা উহ 
দুর হইতে পরিহার কৰিবে । 

বিনি ইচ্ছাক্রমে নিজ মনকে কেক্দ্রগুলিতে সংলপ্ অথবা 
কেন্দ্রণগুলি ভইতে সরাইরা লইতে ক্লতকাধ্য হইক্সাছেন, তাহারই 
প্রত্যাহার সিদ্ধ হইক্সাছে ॥। প্রত্যাহারের অর্থ»ষ একদিকে আহরণ 
সকরা-মনের বহির্গতি বুদ্ধ করিস) ইন্ছ্রিকসেগণের অধীনত হইতে 

৮৬ 


আত্যাহার ও ধাবণ। 


মনকে মুক্ত করিরা ভিতর দিকে আহরণ করা । ইহাতে 
বতকাধ্য হইলে» তবেই আমরা যথার্থ চরিত্রবান হইব ঃ এবং 
তখনই ৫মআঁনর। মুক্তির পথে অনেক দূর অগ্রসর হইন্রাছি বুঝিবু ১২ 
তাহ? ন। করিতে পারিলে বন্ত্রের সহিত আমাদের প্রভেদ কি? 

মনকে সংঘম করা কি কঠিন! ইহাকে যে উন্সভ বানরের 
সহিত তুলনা কর]? হইঙক্ষাছে, তাহ। বড় অসঙ্গত নহে । 
কোন স্থানে এক বানর ছিল । আহার মর্কট-স্বভাব-হ্থলভ 
চঞ্চলতা ত ছিলই--বেন প্র স্বাভাবিক অস্থিরতার কুলাইল ন! 
বলিল এক ব্যক্তি উহাকে অনেকট। মদদ খাওয়াই দিল, 
তাহাতে সে আরও চঞ্চল হইম্না উঠিল । তারপর তাহাকে 
এক বুশ্চিক দংশন করিল । তোমর1 অবশ্ঠই জন, কাহাকেও 
বৃশ্চিক দংশন করিলে সে সারাদ্িনই চারিদিকে কেবল ছটফট 
করিনা বেড়াম। স্কতরাৎ ক্র মর্ত অবস্থান আবার বুশ্চিক 
দংশন বানর বেচাপ্।টির অস্থিরতা অতিমাত্ান্য বুদ্ধি পাইল । 
পরে ৫বন তাহার হখেন। মাত্রা পুর্ণ করিবার জন্তই এক 
কত তাহার ভিতরে শবেশ করিনা তাহাকে আরও অস্থির 
কৰিসসা তুলিল। এই অবস্থার বনরটির তে ভক্গানক চঞ্চলতা। 
আসিল, তাহা! ভাষায় বর্ণনা করা অসম্ভব ।॥। মনুষ্ত-মন 
এ বানরের তুল্য । মন ত স্বভাঁবতঃই নিক্গত চঞ্চল, আবার 
উহ বাসনারূপ মদিক্াতে মত্ত, ইহাতে উহার অস্থিরত)1 বুদ্ধি 
হইতাছে । যখন বাসনা আপিন মনকে অধিকার করে, তখন 
স্কী লোকদিগকে দেখিলে ঈর্ধ্যার'প বুশ্চিক তাহাকে দংশন 
করিতে থাকে | পরে আবার যখন অহঙ্কার-নূপ পিশাচ তাহার 

৮৭ 


বাজযোগ 


ভিতনে প্রবেশ করে, তখন সে আপনাকেই বড় বলিয়। বে।ধ 
করে ॥। এই আমাদের মনের অবস্থা] € স্তরাং ইহাকে সংযম 
করা কি কঠিন! 

তএব/ননঃসংবনের পএ্রথন তোঁপান এই বে, কিছুক্ষণের জন্ঃ 
চুপ করিক্া বসি থাক ও মনকে নিজের ভাবে চলিতে দাও । 
মন সদ চঞ্চল 1১ উহু? বানরের মত সর্ববদ। লাফাইতেছে । 1 মন্‌-১ 
বানর যত ইচ্ছ) লম্ফ-ঝম্ফ করুক ক্ষতি নাই, ধীরভাবে 
অপেক্ষা) কর ও মনের গতি লক্ষ্য করিস? যাও 1৬ কথ্থান্স বলে, 
জ্ঞানই গ্রক্কৃত শক্তি_ ইহ) অতি সত্য কথ। + যতক্ষণ না মনের 
ক্রিন্াশুলি লক্ষ্য কঙ্িতে পারিবে, ততক্দণ উহাকে সংবম করিতে 
পারিবে না। উহাকে বথেচ্ছ বিচরণ করিতে দাও । খুব 
ভস্ষাঁনক ভগ্থান্ক বীভৎস চিন্তা হন্বুত তোমার মনে আসিনে-_ 
তোমার মনে এতদূর অন্ত চিন্ত! আসিতে পারে, ইহা ভাবিক্স। 
তুমি আশ্চব্য হুইর1 যাইবে । কিন্ত দেখিবে, মনের এই সকল 
ক্রীড়ী। ৩৩দিনই কিছু কিছু কমিত্রা আসিতেছে, প্রতিদিনই সন 
ক্রেমশ25 স্থির হইন্া আসিতেছে ॥ প্রথম কয়েক মাস দেখিবে, 
তোমার দনে সহন্দ্র সহজ চিন্তা আসিবে, ক্রমশঃ হননত উহা কমিন। 
গিক্সা শত শত চিস্তাক্স পরিণত হইবে । আরও কক্ষেক মাস পরে 
উহ1 আরও কমিক্স আন্িস্স। অবশেষে মন সম্পূর্ণনপে আমাদের 
বশে আসিবে 2 কিন্ত প্রতিদিনই আমাদিগকে ধধর্যের সহিত 
অভ্যাস করিতে হইবে 1১৯ যতক্ষণ এপ্িনের ভিতন বাম্প থাঁকিবে 
ততক্ষণ উহা চলিবেই চলিবে» যতদিন বিষম আমাদের 
সম্মুখে থাকিবে, ততদিন আমাদিগকে বিষয় দেখিতে হইবেই 

৮৮ | 


ওগত্যাহার ও ধারণ! 


ভইবে । ল্ুততাং মাত্ৰ তে এর্জিনের মত যন্ত্রমাত্র নহে, তাহ! 
প্রমাণ করিতে গেলে তাহাকে দেখাইত্ে হইবে ঘে» সে কিছুরই 
অধীন নর। এইরূপে মনকে সংবম করা ও উহাকে বিভিন্ধ 
উত্ডিম্-গোঁলকে সংঘুক্ত হইতে না। দেওয়াই প্রত্যাহার । হহা। 
অভ্যাস করিবার উপান্প কি? ইহা একদিনে হইবার নহে, 
অনেক দিন ধরিসী। ইহার অভ্যাস করিতে হইবে । ধীরভাবে 
সহিষ্ণুতাঁর সহিত ক্রমীগাত্, বত বর্থ অভ্যাঁস করিলে তবে ইহাতে 
ক্কতকাধ্য হওয়া? যায় । ১১ 

/কিছুকালের জন্য প্রত্যাহার সাধন করিবার পর ত্পরের 
সাধন অর্থাৎ ধারণা অভ্যাস করিবার চেষ্টা করিতে হইবে । 
পতভ্যাহারের পর ধারণা- ধারণা অর্থে মনকে দেহাভ্যস্তরবত্তী 
থব। বহিদ্দেশহ্ছু কোন দেশবিশেষে ধারণ) বাঁ স্থাপন করা । 
মনকে ভিন্গ ভিন্ন স্থানে ধারণা করিতে হইবে, ইহার অর্থ কি? 
ইহাঁর অর্থ এই, মনকে শরীরের অন্য সকল স্থান হইতে বিশ্রিষ্ট 
করিয়া কোন এক বিশেষ অংশ অনুভব করিবার জন্য ব্লপুর্ববক 
নিধুক্ত রাখা । মনে কর, যেন আমি মনকে হন্ডের উপর ধারণ 
করিলাম, শরীরের অন্তান্ত অবকরব তখন চিস্তার অবিষন্গীভূত 
হইকসা। পড়িল। বখন চিত অর্থাৎ মনোবুত্তি কোন নিদ্দিষ্উ দেশে 
আবদ্ধ হস্স তখন উহাকে ধারণা বলে। এই ধারণা নানাবিধ । 
এই ধারণা অভ্যাসের সমক্ষ কিছু কল্পনার সহাক্সত? লইলে ভাল 
হস্স। মনে কর, হৃদস্মমধ্যস্থ এক বিন্দুর উপর মনকে ধারণ। 
করিতে হইবে । ইহ কার্যে পরিণত করা বড় কঠিন ॥। অতএব 
সহজ উপায় এরই যে, হৃদক্সে একটি পক্ষের চিস্তা কর, উহ 

ও 


লাজযোগ 


যেন জ্যোতিহতে পুর্ণ চারিদিকে সেই জ্যোতিঃআভ! বিকীর্ণ 
হইতেছে, সেই স্থানে মনকে ধারণ কর। অখবা মস্ভিক|ভ্যন্তরন্থ 
সহল্রদল কমল অথবা পুর্বেবোক্ত ক্ুযুমার নধ্যস্থ চক্রশুলিকে 
জ্যোঞ্ছিম্মনক্দপে চিস্তা করিবে । 

যোগীর প্রতিনিয়তই অভ্যাস আব্ঠ্ক । তাহাকে নিঃসঙ্গ- 
ভাবে থাঁকিবার চেষ্টা করিতে হইবে, নানারূপ লোকের সঙ্গে 
চিত বিক্ষিপ্ত হইক্»। পড়ে । ভাহার বেণী ক্খ। ক'ওযা। উচিত নব | 

কথ! বেশী কহিলে মন চঞ্চল হইত পড়ে । বেশী কাধ্য কর! 
ভাল নয়, কারণ, অধিক কাধ্য করিলে মন চঞ্চল হইক্সী পড়ে ; 
সমন্ড দিন কঠিন পরিশ্রমের পর মনঃসংযম কর? বান না । খিনি 
এইক্ধপ দুঁট-সক্কলশালী হইস্বা কথিত নিক্গমে চলিতে পারেন, 
তিনিই যোগী হইতে পাঁরেন।১ সকম্মের এমনি অদ্ভুত শক্তি 
যে, অন্তি অল্পনত্র সতকনম্ম করিলে মহা1কফললাভ ভন । ইহাতে 
অনিষ্ট কাহারও হইবে না, বরং ইহাতে সকলেরই উপকার 
হইবে | / প্রথমত2, আ্লাক্সবীর উত্তেজনা শান্ত হইবে, মনে শান্ত 
ভাব আনিকা দিবে, আব সকল বিষন্ন অতি সুম্পষ্টভাবে দেখিবার 
ও বুঝিবাঁর স্মমত। আসিবে । মেজাজ ভাল হইবে, স্বান্্যও 
ক্রমশঃ ভাল হইবে । যোগীর যোগঅভ্যাসকালে বে সকল চিহ্ৃ 
প্রকাশ পার, শরীরের সুস্থতাই তন্মধ্যে প্রথম চিহ্ৃ ১ স্বরও ুন্দর 
হইবে । খ্বরের বাহ? কিছু বকল্য আছে, সমুদ্দ্স চলিক্স। যাইবে । 
তাহার অনেক প্রকার চিহ্ন প্রকাশ পাইবে, তন্মধ্যে এইগুলিই 
প্রথম । বাহার! অত্যন্ত অধিক সাধনা করেন, তাহাদের আরও 
অন্ঠান্ত লক্ষণ প্রকাশ পাক্স। কখন কখন দুর হইতে যেন 

€টি গু 


গু ভযাহার ও ধারণা 


ঘণ্ট1-ধবনির ন্টাকস শব্দ শুনা বাইবে-যেন অনেকগুলি ঘন্ট! দুরে 
বাঁজিতেছে ও €সই সমস্ড শব্দ একত্রে মিলিয়] কর্ণে £তিল- 
ধারার শব্দপ্রবাহু "আসিতেছে £ কখন কখন দেখিবে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র 
আলোককণ। বেন শুচ্ছে ভাসিত্েছে ও ক্রমশঃ একটু, একটু 
করির্প! বঞ্ধিত হইতেছে ॥। যখন এই সকল লক্ষণ প্রক।শ পাইবে, 
তখন বুঝিনে তুমি খুব ভ্রুত উন্নতির পথে চলিতেছ । বাহার? 
যোগী হইতে ইচ্ছা করবেন এবং খুন অধিক অভ্যাস করেন, 
ভাঁহাদের পরথমাবস্থাক্স আহার সম্বন্ধে একটু বিশেষ দৃষ্টি রাখ! 
আবশ্যক । বাহবা খুব বেশী উন্গর্তি করিতে ইচ্ছ। করেন, 
তাহারা যদি কমেক মাস কেবল হুপ্ধ ও ্ন্গ।দি নিরামিষ তভোজন 
করিরা জীবনধারণ করিতে পারেন, তাহাদের সাধনের পক্ষে 
অনেক সুবিধা হইবে । কিন্ত বাহার অন্তান্ত টনিক কাজের 
সঙ্গে অল্পম্বন্ন অভ্য।স করিতে চায়, তাহারা বেশী না খাইলেই 
হইল । খানের প্রকার বিচার করিবার তাহাদের প্রস্কেেজন নাই, 
তাহার ষাঁহ? ইচ্ছ) তাহাই খাইতে পারে । 

যাহারা অধিক অভ্যাস করিস্কা শীদ্র ভউন্গতি করিতে ইচ্ছ! 
করেন, তাহাদের পক্ষে তাহার সম্বন্ধে বিশেষ সাবধান হওয়া 
আবশ্তক । দেহযস্ত্র উত্তকোভ্তর যতই স্স্ত্র হইতে থাকে” ততই 
তুমি দেখিবে যে, অতি সামান্ত অনিসক্পমে তোমার সমম্ড শরীরের 
ভিতনে ০গালধোগ উপস্থিত করিয়া দিবে । বতদ্দিন পধ্যস্ত ন 
মনের উপর সম্পূর্ণ অধিকার লাভ হইতেছে, ততদিন একবিন্দু, 
আহারের ন্যুন্াধিক্যে একেবারে সমুদ্ক্স শরীরযস্্রকেই অপ্রকুতিস্থ 
করিস ভুলিবে। মন সম্পূর্ণরূপে নিজের বশে আসিলে পর যাহ 

৯৯ 


ব্াজযোগ 


ইচ্ছ। ভাহাহইি খাইতে পার । তুমি দেখিবে যে, যখন মনকে 
একাগ্র করিতে আরম্ত কবিসাছ, তখন একটি সামান্চ পিন 
পড়িলে বোধ হইবে যে, যেন তোমার মন্তডিক্ষের মধ্য দি বজ 
চলিম্ন গেল । ইন্ড্রিক্ববস্ত্রগুলি বত স্থন্্ন ভন, অন্ভূত্তিও তত স্শ্ম্ন 
হইতে থাকে 2 এই সকল অবস্থার ভিতর দিয়াই আমাদিগকে 
ক্রমশহ অগ্রসর হইতে হইবে । আর বাহার অধ্যবসারসহকারে 
শেষ পধ্যস্ত লাগির থাকিতে পারে, ্গাহাবাই ক্কৃতকাধ্য হইবে । 
সর্বপ্রকার তর্ক ও যাহাতে চিভ্তের বিক্ষেপ আইসে, সমুদকস দূরে 
পরিতভ্যাগ কর । শুস্ু ও কুটতর্কপুর্ণ প্রলাপে কি কল? উভা। 
কেবল মনের সাম্যভাঁব নই করির। দিন উহ!কে চঞ্চল কতে 
মাত্র । এ সকল শুত্ত উপলন্ধি কব্রিবার জ্তিনিস। কথাক্ম কি 
তাহ হইবে? অতএব সর্বপ্রকার বুথা বাক্য ত্যাগ কর। 
ধাভারা গত্যক্ণজগভব করিস? লিশিক্জাছেন, কেবল ভাহাদের লিখিত 
গ্রন্থ বলী পাঠ কর । ১ 

শুক্তির ভাস হও । 'ভ(রতবর্ষে একটি ন্ুন্দর কিংবদন্তী 
প্রচলিত আছে, তাহ এই --আকাশে স্বাতীনক্ষত্র ভুঙ্গস্যথ থাকিতে 
যদি বুষ্টি হক, আব ত্র বুষ্টিজলের বদি এক বিন্দু কোন শুক্তির 
উপবু পড়ে, তাহা হইলে তাহা একটি মুক্তারূপে পরিণত হস্স। 
শ্ক্তিগণ ইহ)? অবগত 'আছে ১ সুতরাং শর নক্ষত্র আকাশে উঠিলে 
তাহারা জলের উপর আসিক॥! প্র সমক্রকান্র একবিন্দু অমুল্য 
বুষ্টিকণার জন্য অপেক্ষ! করে । যেই একবিন্দু বুষ্টি উহার উপর 
পড়ে, অমনি সে প্র জলকণাটিকে আপনার ভিতরে লই 
খে!লাটি বন্ধ কিয়! একেবারে সমুদ্রের নীচে চলিত যাক ও 

€ট 


প্রত্যাহার ও ধারণ। 


তথাকস গ্রিক্স)? অতীব সহিকুততাসহকারে উহা হইতে মুক্ত প্রস্তুত 
করিবার জন্ঠ বত্ববান হত্স ॥ আমাদেরও ত্র শুক্তির ভ্ণম্ম হইতে 
হইবে । (প্রথমে শুনিতে হইবে, পরে বুঝিতে হইবে, পরিশেষে 
বৃহির্জগন্ভের দিকে দৃষ্টি একেবারে পরিহার করিয়ণ, সব প্রকার 
বিক্ষেপের কারণ হইতে দূরে থাকিয়া আমাদের অন্তর্নিহিত সত্য- 
তত্রকে বিকাশ করিবার জন্য যত্রবান হইতে হইবে । একটি 
ভাবকে নুতন বলিক্প। গ্রহণ করিয়া সেটিব নুতন্ব চলিক্স। গেলে 
পুনরাস্ আর একটি নূতন ভাব আশ্রক্স করা, এইরূপ বারংবার 
করিলে আমাদের সমুদক্স শক্তি নানাদিকে ক্ষন হইস্া বাক । 
সাধন করিবার সমম্ন এইরূপ নুতনভাব-প্রিক্তা কূপ বিপদ আ।ইসে । 
একটি ভাব গ্রহণ কর, সেটি লইস্ই থাক । উহার শেষ পধ্যস্ত 
দেখ । উহার শেষ না দেখিস্সা ছাড়িও না। যিনি একটা ভাব 
লইস্না মাতিস্বা থাকিতে পারেন, তাহারই হ্ৃদয্ে সত্য-তত্তের 
উন্মেব হন ।॥ আর যাহারা এখানকার একটু ওখানকার একটু 
এইরূপ অন্নাম্বাদনবৎ সকল বিষয়ে একটু একটু দেখে, তাহার? 
কখনই কন বন্ত লাঁভ করিতে পারে নড। কিছুক্ষনের জন 
তাহাদের নায়ু একটু উত্তেজিত হইয়॥ তাহাদের ৪ একরূপ আনন্দ 
হইতে পাঁবে বটে, কিল্তু উহাতে 'আবর কিছু ফল তন না। 
তাহার) চিরকাল 'প্রক্কৃতির দাস হইব থাকিবে, কখনই অতীক্জিক্স 
রাজ্যে বিচরণ কৰ্রিতে সম্র্থ হইবে না? । 

ধাহার। বথার্থই যোগী হইতে ইচ্ছা করেন, তাহাদের এইরূপ 
প্রত্যেক জিনিস একটু একটু করিক্বা ঠোকরান ভাব একেবারে 
পরিত্যাগ করিতে হইবে । একটি ভাব লইক্পা ক্রমাগত তাহাই 


১০৯ 


বাজযোগ 


চিন্তা "করিতে থাক। শক্ষনে ত্বপনে সর্বদ।ই উহ] লইক্সই 
থাঁক। তোমার মন্ডিকফষ* লাযু, শরীরের সর্বাক্গই এই চিস্তায় পুর্ণ 
থাকুক । অন্ত সমুদক্স চিন্তা পরিত্যাগ কর । ইহাই সিদ্ধ হইবার 
উপাক্স ; ত্র কেবল এই উপাস্সেই বড় বড় ধন্দবীরের উদ্ভব 
ভইয়।ছে । নাকী আব সকলেই কেবল বাক্যব্যকসণীল যন্ত্র মাত্র । 
যদি আমরা নিজেরা কৃতার্থ হইতে ও অপরকে উদ্ধার করিতে 
ইচ্ছ। করি, তা হইলে আমাদিগকে শুধু কথ ছাঁড়িয়। আরও 
ভিভরে প্রবেশ করিতে হইবে । ইহা কাধ্যে পরিণত করিবার 
গপম সোপান এই নে, মনকে কেোন্মতে চঞ্চল করিবে নায় 
আর বাহভাদের সঙ্গে কথ। কহিলে মনের চঞ্চলতা আসে, তাভাদের 
সঙ্গ কত্সিনে না। তোমর। সকলেই জান যে, তোমাদের 
'গতভ্যেকেরই স্থান্বিশেন, ন্যক্তিবিশেষ ও খান্ভবিশেষের প্রতি 
নেন একট নিরক্তির ভাঁন আছে । এ্রশুলিকে পৰিভ্যাগ করিবে । 
"সার যাহারা সর্বোচ্চ অবস্থা লাভের অভিলাবী, তাহাদিগকে 
সৎ অসত সর্বপ্রকার সঙ্গ ভ্যাঁগ করিতে হুইবে। খুব দৃঢ়ুভ।বে 
সাধন কর। মর, বাঁচ, কিছুই প্রাহ্থ করিও না । এমন্তের সাধন 
কিংব। শরীর-পাঁতন ।” ফলাফলের দিকে লক্ষ্য না করিয়া সাধন- 
সাগরে ডুবিক্সা যাইতে হইবে । নিভীক হইক্সা এইরূপে দিবারাত্র 
স।ংধন করিলে ছক্স মালের মব্যেই তুমি একজন সিদ্ধ যোগী হইতে 
পরিবে । কিন্ত আর বাভাত্না অল্পম্বলল সাপনা করে, সব বিষক্েই 
একটু আধটু দেখে, তাহারা কখনই বড় কিছু উক্তি করিতে 
পারে না। কেবল উপদেশ শুনিলে কোন ফলসলাভ হম্ব না। 
যাহারা তমোগুগণে পুর্ণ, অজ্ঞান 'ও অলল, বাহাদের মন কোন, 

৪৯৪ 


পত্যাহভার ও পারণা। 


একট! জিনিসেত্র উপর শ্থির ভইক্। বসে না, যাহার কেবল 
একটুখানি আমোদের অন্বেষণ করে, তাহাদের পক্ষে ধর্ম ও দর্শন 
কেনল ক্ষণিক আমোদের জন্য 2 সেই আমোদটুকু ভাহ।বা পাইযা'ও 
থাকে । ইহারা সাধনে অধ্যবসারহীন । তাহারা ধন্মকথা শুনিয়। 
মনে করে, নাঃ, এ ভ নেশও তার পর বাড়ীতে গিক্সা সব ভুলিন্ব। 
বাস্স। সিদ্ধ হইভ্ে হইলে প্রবল অধ্যবসানত্র, মনের অসীম বল 
'আবশ্তাক ॥। অধ্যবসাক্শীল সাধক বলেন, “আমি গগ্ু.বষে সমুদ্র পান 
করিব । আমার ইচ্জাঁমাজে পর্ত চর্ণ হইস্সা) বাইনে ॥।৮ এইকপ 
তেজ, এইরূপ সঙ্কল। 'আশ্রন করিকপ। খুব দৃঢ়ভাবে সাঁদন কর । 
নিশ্চয়ই €সই পরমপদ লাভ ভইনে 1১ 


৪৯ ৫ 


লগ্ঙ আধা 
ধ্যান ও সমাধি 


এতক্ষণে আনর। ব্রাজযোগের অন্তরঙ্গ সাঁধনগুলি ব্যতীত 
অবশিই সম্র্দঘ অঙ্গের সংক্ষিপ্ত বিবরণ শেষ করিরাছি । এ 
অন্তরঙ্গ সাধনগুলির লক্ষ্য--একাগ্রতা লাভ । এরই একাগ্রতা- 
শক্তি-ল।ভই রাজযোগের চরম লক্ষ্য । আমরা দেখিতে পাই, 
মন্ুম্াদাতিন যন কিছু ভান, বাভাদ্দিগকে বিচারজাভ জ্ঞান 
বলে, সে সকলই মহংবুদ্ধির অধীন । আমি এই টেব্লিটিকে 
জানিতেছি, আমি তোমার অস্সিত্বের বিষয় জ!নিতেছি, এইরূপে 
আমি অনান্য বস্তও জানিতেছি। আর এই অহংজ্ঞানবশতঃ 
আমি বুঝিতে পারিতেহি, তুমি এখানে, টেবিলটি এখানে, আর 
অন্ঠান্ত যে সকল বস্ত দেখিতেছি, অনুভব কব্রিতেছি ব। 
শুনিতেছি, তাহারাও এখানে রহিয়াছে । ইহা ত গেল 
একদিকের কথা । আবার আর একদিকে ইছাও দেখিতে 
পাইতেছি যে, আমার সতত বলিতে যাহ! বুঝায়, তাহার 
অনেকটাই আমি অন্ভব করিতে পারি না। শরীরাভ্যন্তরস্থ 
সমুদয় বন্ধ, নন্ডিক্ষের বিভিন্ন অংশ প্রভৃতি কাভারও জ্ঞানের 
বিষয় নহে । 

যখন আমি আহার করি, তখন তাহ) জ্ঞানপুর্বক করি, কিন্তু 
যখন আমি উহার সারভাঁগ ভিতরে গ্রহণ করি, তখন আমি 

৪উ 


ধ্যান ও সমবপ্নি 


উহা অভ্ঞাঁতসারে করির1) থাকি । যখন উহ) রক্ত-রূপে পরিণত 
হক্স, তখনও উহ? আমার অজ্ঞাতসারেই হইম্া থাকে । আবার 
ষখন শ্র বুক্ত হইতে শরীবেব ভিন্ধ ভিন্ম অংশ গাঠিত হম, তখনও 
উহা আমার অজ্ঞাতসাঁরেই হইত্রী থাকে ॥ কিন্তু এই সমুদনস 
ব্যাপারশুলি আমার দ্বারাই সংসাধিত হইতেছে । এই শরীরের 
অধ্যে তত আর বিশটি লোক বসিয়! নাই যে প্র কাধ্যশুলি 
করিতেছে । কিন্তু কি কৰিব জানিলাম যে, আমিই এগুলি 
করিতেছি, অপর কেহ কনিতেছে না € এ ব্ষিন্নে ত অনাক্বাসেই 
আপভ্ি হইতে পাবে বে, আহার করার সঙ্গেই আমর »ম্পর্ক £ 
খাছা পরিপাক করা ও হাহা হইতে শরীর গঠন কর? আমার 
জন্য আর একজন করিয়। দিতেছে । একথা কথাই নহে, কারণ 
ইহ1 প্রমাণিত হইতে পারে বে, এখন তে সকল কাব্য আমাদের 
অজ্ঞাতসারে হইতেছে, তাহার প্রাক্স সকলগুলিই আবার সাধন- 
বলে আ।নাদের জ্ঞাতসারে সাদিত হইতে পারে । আমাদের 
হৃদক্সযন্ত্রের কাধ্য আপনিই চলিতেছে বলিয়া বোধ হয়, 
আমরা কেহই উহাকে ইচ্ছামত চালাইতে পারি না, উহ1 নিজের 
খেয়ালে নিজে চলিতেছে । কিন্ত এ হৃদয়ের কাধ্যও অভ্যাঁসবলে 
এমন ইচ্ছাধীন করা বাইতে পারে যে, ইচ্ছাম।ত্রে উহ1। শীঘ্র 
বা? ধীরে চলিবে, অথবা প্রাক্ম বন্ধ হইক্স। যাইবে । আমাদের 
শরীরের প্রাস্স সমুদক্স অংশই আমাদের বশে আনা যাইতে পারে । 
ইহাতে কি বুঝ। বাইতেছে £ বুঝা যাইতেছে যে, এক্ষণে হে 
সকপ্প কাধ্য আমাদের অভ্ভঞাতসাঁরে হইন্তেছে, তাহাঁও আমব। 
“করিতেছি 2 তবে অজ্ঞাতসারে করিতেছি, এইমাত্র? সতএব 
৪৯১৭ 


বরাজযোগ 


দেখা গেল, সম্ষ্যমন ছুই অবস্থার থাকিক্সা কণধ্য করিতে পাবে । 
প্রথম অবস্থাকে জ্ঞানভূমি বলা যাইতে পারে । যে সকল কাধ্য 
করিবার সমর সঙ্গে সঙ্গে আমি করিতেছি, এই জ্ঞ।ন সদাই 
বিচ্যমান পাকে, সেই সকল কাধ্য জ্ঞানভুনি হইতে সাধি হয়, 
নল যাক্স। আব একটি ভূমির নাম অজ্ঞানভুমি বলা বাইতে 
পরে । যে সকল কাধ্য জ্ঞানের নিক্সভুমি হইতে সাধিত ভর, 
যাভাঁভে “আমি” জ্ঞান থাঁকে না, আাভাকে আঅজ্ঞান্ভুমি নূল। 

বাউতে পালে । 
অ!মাদের কাধ্যকলাপের মধ্যে যাহাতে এমহং মিশ্িভ 
আছে, ভআভাকে জ্ঞানপুর্ববক ক্রিনী, আর বাহাতে “অহংএর 
সংক্রন নাই ন্তাভাঁকে অভ্ঞান্পুর্বক ক্রিয়) বল যান । নিয্জাতীনর 
জন্ুতে এই অভ্ঞান্পুর্বক কাধ্যগুলিকে সহজাঁতভ্ভঞাঁন €(27507051 ) 
ললে। অতদপেক্গ। উচ্চভর জীবে ও সর্বাপেক্ষা) উচ্চতম জীন 
অক্রম্যে এই দ্বিতভীর প্রকার কাধ্য অর্থাৎ বাভাতে “অভৎএক্র 
ভাব থাঁকে, তাহাই অধিক দেখ বান্ব_উহাঁকেই জ্ঞাঁনপুর্ববক 

ক্রিয। বলে । 
কিন্তু এই দুইটি বলিলেই যে সকল ভূমির কথ? বলা হইল, 
তাহা নহে । মন এই ছুইটি হইতেও উচ্চভর কভ্রমিতে বিচরণ 
করিতে পারে ॥। মন জ্ঞানের অতীত অবস্থাক্স বাইতে পারে। 
যেমন অজ্ঞানভূমি হইতে নে কাধ্য হয়», তাহা জ্ঞানের নিক্নভূমির 
কাধ্য, তুন্রপ জ্ঞানাতীত ভূমি হইতেও কাধ্য হইন। থাকে । 
উহাতে কোনরূপ “অহংএর কাধ্য হয় :না। এই অহংজ্ভানের 
কাধ্য কেবল নধ্য অবস্থা হইস্বা থাকে । বখন মন এই অহং-. 
৪৯৮ 





ধ্যান ও সমাধি 
জ্ঞানরূপ রেখার উর্জে বা নিম্রে বিচরণ করে তখন কোন্রূপ 
অহতজ্ঞান থাকে না, কিন্ত তখনও মনের ক্কিন্রা চলিতে থাকে । 
বখন মন এই ভ্ঞানভূমির অতীত প্রদেশে গনন করে তখন 
তর্কে সমাধি, পুর্ণ তন্য-ভূমি বা? জ্ঞানাতীত ভূমি বলে। 
এই সমাধি জ্ঞানেরও পরপারে অবস্থিত । এক্ষণে আমরা কেমন 
করিম) জাঁনিব বে, মানুষ সমাধিঅবস্থাক্ জ্ঞানভূমির নিনস্তরে 
গমন করে কি-ন1-- একেবারে হীনদশাপন হইন্ন। পড়ে কি-না? 
এই উন্ভর্ অবস্থার কাধ্যই ত অহংজ্ঞানশুন্ত ॥ ইহার উত্তর এই, 
কে জ্ঞানভূমির নিমদেশে আব কেই ব! উদ্ধণদেশে গমন করিল, 
তা) ফল দেখিকাই নিনীত হইতে পারে । যখন কেহ গভীর 
নিদ্রা মশ্র হম্সত ০স তখন জ্ঞানের নিত্রভমিতে চলিয়া যান । ০স 
অভ্ঞাতসারে তখনও শরীরের সমুদ্র ক্রিনা, শ্বাস-প্রশ্বাস, এমন 
কি শরীর-সঞ্চালন্-ক্রিক। পধ্যন্ত করিনা থাঁকে 5 শাহার এই সকল 
কাধ্যে অহংভাবে্র কোন সংশ্ব থাকে নাঃ তখন সে অভ্ঞানে 
আচ্ছন্ন থাকে 2 নিদ্র। হইতে যখন উ্খিত হন, তখন তে যে মানব 
ছিল, তাহ হইতে কোন অংশে তাহার ৫বলক্ষণ্য হয় না । আহার 
নিদ্র) বাইবার পুর্ববে তাহার যে জ্ঞানসমষ্টি ছিল, নিদ্রাভঙ্গের 
পরও ঠিক তাহাই থাকে, ভহাঁর কিছুমাত্র বৃদ্ধি হয় না । তাহার 
শদস্সে কোন নুতন তত্তালোক প্রকাশিত হত না। কিন্ত বখন 
মানুষ সমাধিস্থ হর», সমাধিস্থ হইবার পুর্বেব সে যদি মহামর্খ অজ্ঞান 
থাকে, সমাধিভঙ্গের পর €স মহাঁজ্জানী হুইপ? উঠিক্রা আসে ॥ 
এক্ষণে বুঝিক্সা দেখ, এই বিভিন্নতাঁর কারণ কি? এক অবস্থা! 
হুইতে মানুষ যেমন শিক্বাছিল, সেইরুপই ফিরির। আসিল ; আর 


সি 


বাভাষাগ 


এক অবপ্তা হইতে ফিরিয়া মাচ্ষ জ্ঞানালোক প্রীপু হইল - এক 
মন্াসাধু সিদ্ধপুরুষরূপে পরিণত হইল, তাহার স্বভাব একেবারে 
সম্পূর্ণ পরিবন্ডিত ভইয়া গেল, তীহার জীবন একেবারে অন্ত 
আকার ধারণ করিল । এই ত ছুঈ অবস্থার বিভিন্ন কফল। এক্ষণে 
কথন হইতেছে, ফল ভিন্ম ভিন্ন হইলে কারণও অবশ্য ভিন্ন ভিন্গ 
হইবে । আর সনাঁধি অবস্থা? হইতে লব্ধ এই জ্ঞানালোক বথন 
অভ্ঞখন-অবস্থা হইতে ফিরিবার পরের অনস্থা বা সাধারণ 
জ্ঞান্ঠবস্থায় খুক্তিবিচাঁরলন্ধ জ্ঞান হইতে অনেক উচ্চতর জ্ঞান, 
তখন উহা! অবশ্যই ভ্ঞানাতীত ভূমি হইতে আসিতেছে ॥  সমাধিকে 
সেইজন্ষই জ্ঞানা ভীত ভনি নামে অভিহিত করিবাছি । 

সমাশ্ি বলিলে সংক্ষেপে ইভাই বুঝা ॥ আমাদের জীবনে 
এই সমাপিল্র কাধ্যকারিতা কোথান্র ? সমাধির বিশেষ কাঁধ্য- 
কারিতা আছে । আমর জ্ঞাতসারে বে সকল কম্ম করিন। থাকি, 
বাশাকে বিচারের অধিকারভূমি বল। বাম়ত তাঁহ। অতিশর 
সীমাবদ্ধ । মাঁনব-যুক্তি একটি ক্ষুদ্র বুকের মধ্যেই কেবল ভ্রমণ 
করিতে পারে । উহা ভাহার বাহিরে আর বাইভে পারে না) 
আমর কতই উহার বাহিরে বাহইতে চেষ্টা করি, ততই শ্রী চেষ্ট। 
বেন অপম্তবৰ বলিক্না বোধ হম্স। তাহা হইলেও. মন্ষ্য বাহ 
অতিশয় মুল্যবান বলিক্পা আদর করে, তাহ! এ যুক্তিরাজ্যের 
বাহিরেই অবস্থিত 1/%/ অবিনানী আত্মা আছে কি-না, ঈশ্বর 
আছেন কি-না, এই সমুদপ্প জগতের নিরস্তা পরমজ্ঞান-ম্বরূপ 
কেহ আছেন কি-না_-এ সকল তত্ব নি্ণিস্ক করিতে ঘুক্তি অপারগ 
যুক্তি এই সকল প্রশ্সের উত্তর দানে অসমর্থ ।১ যুক্তি কি বলে? 

১৬৬ 


ধান ও সমাধি 


যুক্তি বলে, আসামি অজ্ঞেকসবাদী, আমি তেন বিষয়ে হও বলিতে 
পারি নব, নব-ও বলিতে পারি না” ॥ কিন্তু এই শ্রশুলির মীমাংস। 
আমাদের প্ষে অতীব প্রয়ে।জনীর । এই প্শ্সশুলির বথাবথ 
উত্তর করিতে না পারিলে মানবজীব্ন অসম্ভব হুইক্স॥ পড়ে । এই 
ঘুক্তিরূপ বুকের বহির্দেশ হইতে লব্ধ সাধনাসমূহই আনাদের 
সমুদস্ম তনতিক মত, সম্বদ্র় €নতিক ভাব, এমন কি, মন্ব্য- 
স্বভাবে যাহ কিছু মহত ও সুন্দর ভাব আছে, অতৎ-সমুদ্ধয়ের্ই 
ভিভিি । অতএব এই সকল প্রশ্ের সুমীমাৎসব। ন্$ হইলে মানবের 
জীব্নধারণই অসম্ভব হইন্স।) পড়ে । বদি মন্তব্যজীবন সাম।ন্য পাঁচ 
মিনিটের ভিনিস হয়, আর বর্দি জগৎ কেবল কতকগুলি পরমাণুর 
আকস্নিক সম্মসিলন্সাত্র হক, তাহা ভুইলে অপরের উপকার আমি 
কেন করিল? দর) নভ্যাকপরতা অথবা সহানুভূতি জগতে 
থাকিবার আবশ্টক কি? তাহ হইলে আমাদের ইহাই একমাত্র 
কর্তব্য হইন্স॥ পড়ে যে, বাহার বাভ1! ইচ্ছা, সে তাহাই করুক, 
নিজের কুখেত্র জন্য সকলেই ব্যস্তথ হউক । যদি আমাদের 
ভন্ব্যিতে অস্তিত্বের আশাই না থাকে, তবে আমি আনার 
ভ্রানার গল! না কাটির। তভতাভাকে ভালবাসিব কেন? বি 
সমুদ্ন্ম জগতের অতীত সম্ভ কিছ না থাঁকে, বদি মুক্তির আশাহ 
না থাকে, যদি কতকশুলি কঠোর, অভেছ্য, জড় নিয়মই সর্ববস্থ 
হন্, তবে বাহাতে আমর ইহলোকে জী হইতে পাবি, তাহাই 
আমাদের কর্তব্য হইস্স] পড়ে । আজকাল অনেকের মতে, 
নীতির ভিভিি হিতবাঁদ € 08115 ) অর্থাৎ যাহাতে অধিকাংশ 
লোকের অধিক পরিমাণে স্খ-স্বাচ্ছন্দ্য ভ্ইতে পাবে, তাহাই 
১০১ 


ব্াজবোগ 


নীতির ভিভ্ি ॥। উহাদিগকে জিজ্ঞাসা করি, আমবা এই ভিভির 
উপর দগ্ান্মমান হইব] নীতি পালন কৰিব, তাহার হেতু কি? 
বর্দি আমার উদ্েগ্ত সিদ্ধ হয়, তাহা? হইলে €কন না আমি 
অধিকাংশ লোকের অত্যধিক অনিষ্ট সাধন কৰ্পিব? হিতবাদিগণ 
(06111651825) এই প্রশ্নের কি উত্তর দিবেন ? কোনটি ভাল 
কোন্টি মন্দ তাহ। তুমি কি করিনা জানিবে? আমি আমার 
স্গথ-বাসনার দ্বারা পরিচালিত হইনা উহার তৃণ্তিসাধন করিলাম, 
উহ৭ আমার স্বভাব, আমি উহ? অপেক্গী অধিক কিছু জানি না। 
আমার ব।সন। রহিক্াছে, আদি উহার তৃণ্তিসাধন করিব, 
তোনাতর উহাঁভে আপভ্ি করিবার কি অধিকার আছে 2 মন্ষ্য- 
জীবনের এই সকল মহত সত্য, বথা- নীতি, আত্মার অমরত্ব, 
ঈশ্বর, প্রেম ও সহানুভূতি, সাধুত্ব ও সর্বাপেক্ষা মহাসত্য বে 

নিঃম্বার্থপরতা, এই সকল ভান আমাদের কোথা হইতে আসিল ? 
সমুদম্ম নীতি শন, মানুষের সম্মত কাধ্য, মানুষের সমুদয় 
চিনুবৃক্তি এই নিহম্বার্থপরতান্দপ একমাজ ভাবের (ভিত্তির ১ 
উপব্ন স্থাপিত, ম।নবজীবনের সমুদর ভাব, এই নিংন্বার্থপরতাবদপ 
একমাত্র কথার ভিতর সন্গিবেশিত করা যাইতে পারে । আমি 
কেন স্বার্থশূন্ত হইব ? নিঃম্বার্থপর হইবার প্রক্ষোেজনীযসত1 কি? 
আর কি শক্তিবলেই বা আমি নিঃম্বার্থ হইব? তুমি বলিন। 
থাক, “আমি যুক্তিবাদী, আমি হিতবাদী” ১ কিন্ত তুমি যদি 
আমাকে “জগতের হিতসাধন কন্িতে তেন যাইবে» তদ্বিষয়ে যুক্তি 
দেখাইতে না পার, তাহ? হইলে তোমাকে আমি অযৌক্তিক 
আখ্য। প্রদান করিব। আমি যে নিঃংম্বার্থপর হইব, তাহার: 
১০২ 


ধ্যান ও সমাধি 


করণ দেখাও » কেন আমি বুদ্ধিহ্ীন পশুর আচরণ করিব লা? 
অনম্ঠা নিঃস্বাখপররতী। কবিত্ব হিসাবে অভি স্রন্দব হুইন্তে পুরে” 
কিন্চ কবিত্ব ত যুক্তি নহে । আমাকে বুক্তি দেখাও 2 কেন আক্ষি 
নিঃম্বার্থপর হইব, ৫কন আনি সাপু হইব? অন্বক ওই করা 
বলেন, অভএব এইরূপ কর-- এইরূপ কোন ব্যক্তিবিশেষের 
কপ। আনি মানি না। আমি যে নিঃস্বার্পর হইব» ইহাতে 
আমাৰ ভিত কোথাক্সর ? স্বার্থপর ভইলেই আমার ভিত হয়- 
“ভিউ” অর্থে বদি “অধিক পারিমাণে আখ” বুঝা ॥ আমি অপরকে 
'পাভারণ! কত ও অপরের সর্বস্ম হরণ করিয়া সর্বাপেক্ষা অধিক 
স্ব লা করিতে পারি । হিতবাদিগণ ইহার কি উত্তর দিবেন % 
তাহারা ইহার কিছুই উত্তর দিতে পানেন না। ইহার প্রকৃত 
উত্তর এই হযে, এই পরিদৃশ্যমান জগত একটি অনন্ত সমুদ্রের ক্ষুত্র 
বুদ্'দ-_একটি অনন্ত. শুঙ্খলের একটি ন্মুদ্র অংশমাত্র। বাহার? 
আগতে নলিঃস্বার্পরতগ প্রচার করিকরাছিলেন ও মন্ুষ্যজাতিকে 
উঠ শ্পিক্ষ? দিক্রাছিলেন, তাহারা এ তভ্ত কোথায় পাইলেন ? 
আমরা জানি, ইহা সহজাতজ্ঞানলভ্য নহে । পশ্ডগণ, যাহারা 
এই সহজত-ভ্ভাঁনসম্পন্র, তাহারা ত ইহা জানে না, বিচার- 
বদ্ধিতেও ইহ1 পাঁওস্বা যাক না, এই সকল তরক্তের কিছুমাত্র 
জানা যাক্স না। তবে প্র সকল তক্ত তাহারা তকোথ। ভইন্তে 
প/ইলেন ? 

ইতিহাসপাঠে দেখিতে পাও! যার, জগতের সমুদন্স ধন্স- 
শিক্ষক ও ধন্মপ্রচারকই, “আমরা জগতের "অতীত শ্রদেশ হইতে 
এই সকল সত্য লাভ কনিয়াছি” বলিয়া গ্িক্সাছেন । তভাহার। 

৯৬৩) টি 


রাজযোগ ্ 


অনেকেই এ্রই সত্য ঠিক কোথা হইতে পাইলেন, তদ্িবস্ষে 
অনভিজ্ঞ ছিলেন ॥। কহ হয় ত বলিলেন, "এক ন্বর্গীক্স দৃত পক্ষবুক্ত' 
মন্ষ্যাকারে আমার নিকট আদিম আমাকে বলিলেন, “ওহে 
মানব, শুন, আমি স্বন্গ হইতে এই স্সসমাচার আনন কবিস্াছি . 
গ্রহণ কর” ।” আর একজন বলিলেন, পতেজহ-প্ুঞ্জকাক্ম এক 
দেবত। আমার সম্ম্খে আবিভূত হইয়॥ আমাকে উপদেশ 
দিলেন 1৮ শসার একজন বলিলেন, আমি ত্বপ্ধে আমান পিতৃ- 
পুরুবগণনে দেখিতে পাইলাম, তাহারা আমাকে এরই সকল 
তত্ব উপদেশ দিলেন ।” ইনার অন্তিক্রিক্ত তিনি আব কিছুই 
বলিতে পারেন না । এইবধপে বিভিন্থধ উপান্সে তত্তলাভের কথা! 
বলিলেও ইহারা সকলেই এই বিষন্রে একমত হেন বুক্তিতর্কের ছার 
তাহার এই জ্ঞান লাভ করেন নাই, উহার অহীত-ঞদেশ হইতে 
তাহ।রা উহ লাভ করিক্সাছেন । এ বিবম্ে যোগশাস্তের মত 
কি? ইহার মতে তাহার তে বলেন, বুক্তিবিচাবের অতীত- 
প্রদেশ হইতে তাহার) এ জ্ঞান লাভ করিক্বাছেন, ইহ॥ ঠিক কথা 
কিন্ত ভাহাদেতর নিজের ভিতর হইতেই প্র জ্ঞান তাহাদের 
নিকট আসিক্তাছে । 

“ যোগার বলেন, এই ননেরই এমন এক উচ্চাবস্থা আছে, যাহ! 
বিচার-যুক্তির অধিকানের অন্তীত বা জভ্ঞভানাতীত-ভূমি ॥ এ 
উচ্চাবস্থাস্ম পৌছিলেই মানব তর্কের অগম্য জ্ঞান লাভ করে। 
€লেই ব্যক্তিরই সমুদ্ক্স বিবন্বজ্ঞানের অনভাত পরমার্থজ্ঞান ব। 
'সতীন্ছিকজ্ঞান লাভ হক্স। অইব্প পরম।থজ্ঞান__বিচারের অতীত 
হান- যে জ্ঞানে তর্কবুক্তি চলে না,--বাহাতে লোকে সাধারণ 

১৯৬৪ 


ধ্যান ও সমাধি 


মানবীয় জ্ঞান অতিক্রম করিতে পারে, তাহ? কখন কখন 
লোকের ৫্বাৎ লাভ হইতে পারে; সে ব্যক্তি অতীক্ড্রিয়জ্ঞান- 
লাভের বিজ্ঞান সম্বন্ধে অনভিজ্ঞ থাকিতে পানে, কিম্ড তাহাতে 
তাহার এ জ্ঞান্লাভের প্রতিবন্ধক হযস না। ক ঘেন তাহাকে এ 
জ্ঞানব্রাজ্যে ঠেলিন্ু॥। ফেলিক॥ তের । আর ব্রবপ হঠাৎ অতীক্কিম্- 
জ্ঞানলাভ হইলে সে সাধারণতভহ মনে করে বে, এও জ্ঞান বহিহ- 
প্রদেশ হইতে আসিতেছে ১১ ইহ) হইতে বেশ বুঝা যাশ্স তে, 
এই পারমাথিক জ্ঞান সকল দেশেই প্রকৃতপক্ষে এক হইলেও 
কোন দেশে দেব্দুভ হইতে, ০তোন দেশে €তদশবিশেষ হইতে, 
আবার কোথাও ব। সাক্ষাৎ ভগবান হইতে অপ্রাপ্ত বলিয়া ' শুন! 
যাক্স কেন? ইহার অর্থ কি? ইহার অর্থ এই তে, মন নিজ 
প্রক্কতিবশে1নিজ অভ্যন্তর হইতেই শ্রী জ্ঞান লাভ করিন্াছে। 
কিন্ত বাহার উহ1 লাঁভ করিক্সাছেন, তাহার নিজ নিজ শিক্ষা ও 
বিশ্বাস অনুসারে এ জ্ঞান কিরূপে লাভ হইল, তাহার বর্ণন। 
করিক়্াছেন । প্রকৃত কথ। এই তে, ইহারা সকলেই এ জ্ঞানাতশ্বত 
অবস্থায় হঠাৎ আলিক্বা পড়িকাঁছেন । 

/ যোগীর1! বলেন, এই জ্ঞানাতীত অবস্থাকস হঠাৎ আসিয়া পভাক্স 
এক ঘোর বিপদাশক্ক/! আছে । অনেক স্থলেই মস্তি একেবারে 
নই হইবার সম্ভাবন। 1১ আরও দেখিবে, যে সব ব্যক্তি হঠাৎ 
এই অভীন্ডরিক্সজ্ঞাঁন ল।ভ করিয়াছেন অথচ উহার €বজ্ঞানিক তত্ব 
বুঝেন নাই, তীহার। ষত বড়ই হউন না তেন, তাহার? সাধারণতঃ 
অন্ধকারে হা1ভড়াইক্সাছেন এবং তাহাদের তেই জ্ঞানের সহিত 
কিছু না কিছ কিস্ভুতকিমাকার কুসংস্কার মিশ্রিত আছেই আছে । 


১৬৫ 


বাজযোগ 


তাহার) অনেক আজগুবি খেস্বাল দেখিক্সাছেন ও উত্তার 'প্রশ্রর 
দিক ভিকাছেল্‌। 

বাতা হউক, আমরা অনেক মহভাপুকরুষের ভীবনচরিত আলোচন। 
করিক্স। দেখিতে পাই বে, সমাধি লাভ কন্িিতে প্ুন্দোক্তরূপ 
বিপদের আশঙ্কা আছে । কিন্ত তাভাারা সকলেই তব ও বস্তা 
লাভ করিক্পাছিলেন, ভগ্বিবন্ে কোন সন্দেহ নাউ । তাভারা যে 
ব্েোনবপে ভউক, শ্রী জ্ঞানাভীত ভনিভেি অআ।রোহুণ কক্রিক্াছিলেন ১ 
তবে আমরা? দেখিতে পাভ, যখন কোন মহাপুরুষ কেবল অভাবের 
দ্বার পরিচালিত হ্রইস্সাছেন, কেনল ভ।বোচ্ডু/সবশোে এই ব্অবস্থা 
উপনীত ভইপ্রাছেন, ভিনি কিছু সত্য লাভ করিনাছেন বটে, কিন্ত 
তহ্সঙ্গে কুসংস্কার শৌড়ামি এ সকলও তাঁভাতে আসিয়াছে । 
উহার শিক্ষার ভিতরে যে উত্ক্কছ্ অংশ, তদ্দার। বেমন জগতের 
উপকার হইবাছে, শ্রী সকল কুসংস্কারাদির দ্বারা ততমনিি স্ষতিও 
হইয়।ছে 1]. মন্ষ্যজীবন নানাপ্রকার বিপরীতভাবে আক্রান্ত 
বলিয়। অসামঞজস্তপৃর্ণ » এই অসামগ্স্তের ভিভর কিছু সামজন্ত 
ও সত্যলাঁভ করিতে হইলে, আমাদিগকে তর্কবুক্তির অতীত 
প্রদেশে বাইতে ভইবে । কিন্ত উহা ধীরে ধীরে করিতে হইবে £ 
নিকস্সমিত সাধনাদছারী ঠিক টবজ্ঞানিক উপায়ে উহাতে পৌছিতে 
হইলে, আর সম্ুদম্থ কুসংস্কার আমাদিগকে ত্যাগ করিতে 
হইবে । অন্য কোন বিজ্ঞান-শিক্ষার সনয় আবনর॥ বেরূপ করিস! 
থাকি, ইহাভেও ঠিক সেই ধারার অনুসরণ এবং বুক্তি- 
বিচারকেই আমাদের ভিভিব্বরূপ ক্রিতে হইবে । অতর্কযুক্তি 
আমাদিগকে যতদুর লইস্স। যাইতে পারে, ততদূত্ন যাইতে হইবে ॥ 

১০৬০ 


ধ্যান ও সমাধি 


তৎপর যখন আন্র তর্কনুক্তি চলিবে না, তখন উহাই সই 
সর্বেবাচ্চ অবনস্থ। লাভের পথ আমাদিগকে দেখাইক্সা দিবে | অতএব 
যখন কেহ নিজেকে প্রত্যাদিষ্ট বলিয়! দাবি করে অথচ বুক্তিবিরুদ্ধ 
যাতা বলিতে থাকে, তাহার কথা শুনিও না ॥ কেন? কারণ, 
যে তিন অনস্থার কথা বল। ভইক়াছে, বথ। -পশুপক্ষীতে ৃষ্ট 
সহজাত জ্ঞান, বিচারপূর্বক জ্ভ!ন ও জ্ঞানাতীত অবস্থা, উহার 
একই মনের অবস্থাবিশেষ । একজন লোকের তিনটি মন থাকিতে 
পারে না, সেই এক মনই আঅপরভাবে পব্সিণত হম্স। সহজাতি- 
জ্ঞান বিচারপুর্নবক জ্ঞানে ও বিচাবুপর্বক-জ্ঞান জ্ভানাতীত 
অবস্থাস্্ পরিণত ক্স ৯স্সতরাং এই কনেক অবস্থার মধ্যে এক 
'অনস্থা। অপর অবস্থার বিরোধী নহে । অতএব বখন কাহারও 
নিকট আসন্বদ্ধ প্রলাপতুন্য এবৎ বুভ্তি ও সহজজ্ঞানবিরুদ্ধ কথাবার্ত। 
শুনিতে পাও» তখন নিভীক অন্তরে উহা শ্রাত্যাখ্যান্ন করিও ও 
কারণ, প্রকৃত গ্রত্যাদেশ বিচারজনিত জ্ঞানের অসম্পূর্ণতা 
পূর্ণতা মাত্র সাধন করে । পুর্ববততন মহাপুরুষগণ ঘেমন বলিঝাছেন» 
“আমরা বিনাশ করিতে আসি নাই», সম্পূর্ণ করিতে আসিসক্বাছি”__ 
এইরূপ প্রত্যাদেশও বিচান-জনিত জ্ভাঁনের-পৃর্ণতাসাধক ॥ বিচার- 
জনিত জ্ঞানের সহিত উহার সম্পূর্ণ সমন্বন্সম আছে, আর যখনই 
উহা? যুক্তির বিরোধী হইবে, তখনই জানিবে, উহ! যথার্থ 
প্রত্যাদেশ নহে । 

/. ঠিক টবজ্ঞানিক উপায়ে সমাধি অবস্থা লাভের জন্যই প্পুর্বব- 
কথিত সমুদক্স যোগাক্গগুলি উপদিষ্ট হইম্সাছে । আরও এটি বুঝা 
বিশেব আবশ্তঠক যে, এই অতীন্ড্িক্স জ্ঞান্লাভের . শক্তি প্রাচীন 

৯৩০৭ 


প্লাজ যোগ 


মহাপুকরুষগ্ণের নভ্াক্স প্রত্যেক মনুষ্যে ব্বভাবসিদ্ধ। তাহারা। 
আমাদিগ হইতে সম্পুর্ণ প্রথক্‌ প্রকৃতির জীববিশেষ ছিলেন না, 
তাহার তোমার আমার মতই মানুষ ছিলেন। অবশ্য তাহার! 
খুব উচ্চাঙ্গের যোগা ছিলেন এবং পুর্বেবাস্ত জ্ঞান্াতীত অবস্থ। 
লাভ কৰিক্াছিলেন। তবে চেষ্টা? করিলে তুমি আমিও উহা 
লাভ করিতে পারি । তাহারা যে কোন বিশেষ প্রকার অজ্ভুত 
লোক ছিলেন, সাাহ॥? নহে । এক ব্যক্তি এ অবস্থা লাভ করিক্সাছেন, 
উহ1 হইতে প্রমাণিত হস্স বে, গ্রাত্যিক ব্যক্তিরই এই অবস্থ। 
লাভ করা, সম্ভব । ইহ ষে শুধু সম্ভব তাহ। নহে, সকলেই 
কালে এই অবস্থা লাভ করিবেই করিবে, আর এই অবস্থ। 
লাভ করাই ধন্দ্ । বল প্রত্যক্ষ অন্ভূতি ছ।/রাই প্রত শিক্ষা! 
লাভ হর । আমরা সার)? জীবন শুর্কবিচাঁর করিতে পারি, কিন্ত 
নিজে প্রত্যক্ষ অন্তভবৰ না করিলে সত্যের কণামাত্র ও বুঝিতে 
পারিব না। ১কনেকখ!নি পুস্তক পড়াইক্সা তুমি কোন ব্যক্তিকে 
অস্ত্রচিকিৎসর্ক করির7 তুলিবার আশা করিতে পার না। 
কেবল একখানি মানচিত্র দেখাইলে কি আমার দেশ দেখিবার 
কোৌতুহল-চরিভার্৫থ ভইবে ? নিজে তথাম্স গিক্সা সেই দশ প্রত্যক্ষ 
করিলে তবে আনার কৌতুহল মিটিবে। মানচিত্র কেবল 
দেশটির আরও অধিক জ্ঞান লাভের জন্য আগ্রহ জন্মাইক্সা দিতে 
পারে । ইহা ব্যতীত উহার আব কেন মুল্য নাই । কেবল 
পুস্তকের উপর নিভর করিলে, মনুষ্যমনকে কেবল অবনতির 
দিকে লইকস] যাক্স । ঈশ্বরীন্প জ্ঞান কেবল এই পুস্তকে বা এ শাস্ে 
আবদ্ধ বলা অপেক্ষা) ঘোর নাস্তিকত! আর কি হইতে পারে? 
| ৩ ৮৮ 


ধ্যান ও সমাধি 


মানব ভগবানকে অনস্ত বলে* আবার এক ক্ষুদ্র গ্রন্থের ভিত তাহাকে 
আবন্ধ করিতে চাম্স! কি আম্পদ্ধা ! পুখিতে বিশ্বাস করে নাই 
বলির, “একখানি গ্রন্থের ভিতরে সমুদয় ঈশ্বরীয় জ্ঞান আবদ্ধ, ইহ 
বিশ্বাস করিতে প্রস্তত হয় নাই বলিয়। লক্ষ লক্ষ লোক হত হইয়াছে । 
অবশ্ঠ সে হত্যাদির যুগ আর এখন নাই, কিন্তু জগত এখনও এরই 
প্রহ্থ-পিশ্বীসে ভন্পানক জড়িভ ৷ 

রর ঠিক 'ইবভ্ঞ।নিক উপায়ে জ্ঞান।তীত অবস্থা লাভ করিতে 
হইলে, অমি তোমাদিগকে ব্াঁজযোৌগবিষযে যে সকল উপদেশ 
দিতেছি, তাহার প্রত্যেক সাধনটর ভিতর দিক? যাইতে হইবে ১ 
পুর্বব বন্কুতাঁর প্রত্যাহার ও ধারণ? সম্বন্ধে বলা হইক্সাছে, এক্ষণে 
ধ্যানের বিষস্স আলোচনা করিব । দেহের অন্বর্তী অথব। 
বাহিরের কোন শুদেশে মনকে কিছুক্ষণ স্থির বাখিবাঁর চেষ্টা পুন 
প্ুনহ করিতে থাকিলে উহার এ দিকে অবিচ্ছে্তা গতিতে 
বাহিত হইবার শক্তি ল্/ভ হইবে । এই অবস্থার নাম ধ্যান । 
যখন ধ্যানশক্তি এতদূর উৎকর্ষ প্রাণ হব যে, অনুভূতির 
বহিগটি পরিত্যক্ত হইয়। কেবল উহার অন্তর্ভাগটির অর্থাৎ 
অর্থের দিকেই মন সম্পূর্ণরূপে গমন করে, তখন সেই অবস্থার 
নাম সমাধি । ধারণ], ধ্যান ও সনাধি এই তিনটিকে একত্রে 
লইলে, তাহাকে সংযম বলে * অর্থাৎ (১) বর্দি কেহ কোন বস্তর উপব 
মনকে একা ত্র করিতে পারে, €২) পরে দীর্ঘকাল ধরিক্া এ বস্তর 
উপর একা প্রতাপ্রবাহ চখলাইতে পারে, (৩ ) অবশেষে এইব্প ক্রমাগত 
একা প্রত ছারা, ঘষে আভ্যন্তরীণ কারণ হইতে শর বাহা বস্তর 
অন্ুভূত্তি উৎপন্থ হইয়াছে, কেবল তাহার উপর মনকে খথরিক্স। 

১৯৩০৯ 


বাজযোগ 


রাখিতে পারে, সমুদ্রয্সই এইবপ শক্তিসম্পন্দ সন্রে বশীভূত হইকস। 
বাক্স । 

বন্ত প্রকার অবস্থা আছে, তন্মধ্যে এই ধ্যানাবস্থাই জীবের 
সর্বোচ্চ অবস্থা যতদিন বাসনা থাকে, ততর্দিন বথার্থ স্থ 
আসিতে পারেন1, কেবল বন কোন্‌ ব্যক্তি সমুদক্স বস্ত এই 
ধ্যানানব্থ হইতে অন্ন সাঁন্সিভ।বে পধ্যালোচনা। করিতে পারেন, 
তখনই ভাহাব্র প্রকৃত ক্খ্লাভ্ হয় ॥। ইতর প্রাণীর স্রথ ইক্দিযের 
উপর নিডর কবে । মানবের স্খ_ বুদ্ধিতে, আবু দেবমানব 
'আশধাত্িক ধ্যাঁনেই আনন্দলাভ করেন ॥। যিনি এইবূপ ধ্যানাবস্থ। 
প্রাপ্ত হইক্সাছেন, তাহার নিকট জগৎ বথার্ধহ ্সতি স্ন্দররূণপে 
প্রতীক্মান হক । বাহার বাসন নাই, বিনি সর্বববিবন্ষে নিলিপ্ত, 
তাহার নিকট প্রক্কতির এই বিভিন্ন পরিবন্তন কেবল এক মহ 
সৌন্দধ্য ও মভান্‌ ভাবের ছবিনাত্র । 

/ ধ্যানে এই তত্তগুলি জানা "সাবশ্যাক । মনে কর, আমি একটি 
শব্দ শুলিলাঁন । প্রথমে বাহির ভইতে একটি কম্পন আসিল, 
তৎ্পরে সানবীন্ গতি- উজ! মনেতে শ্রী কম্পনটিকে লইপ্জা গেল, 
পরে মন হইছে আবাত্ এক প্রতিক্রিপা হইল, উভাবর সঙ্গেসঙ্গেই 
আমাদের বাহ্যবস্ত্র ভ্ত।ল্‌ উদন হইল ॥ এই বাহ বস্তটঁটই আকাশাক্স 
কম্পন ভইতে মানসিক পপভিক্রিপা। পধ্যস্ত ভিন্ন ভিন পত্রিবর্তন- 
গুলির কারণ । হযোগশান্দে এই ভিনটিকে শব্দ, অর্থ ও জ্ঞন 
বলে । শারীরবিধ।ন শ।ব্রের জআ্ঞাবার এ্গশুলিকে আক?ণা 
কম্পন, নানু ও মন্ডিক্ষমধ্যস্থ গন্তি এবং মানসিক প্রতিক্রিয়। এইব্প 
আখ্য। দেওক। বান । এই তিনটি প্রক্রিক্না সম্পূর্ণ স্বতন্ত্র হইলেও 


৯১৯৬ 


ধ্যান ও সমাধি 


এখন এমনভাবে মিশ্রিত ভইম্া পড়িন্াছে বে, উহাদের শ্রভেন 
আর বুঝ। যার শা । স্মামর। বাস্তবিক এক্ষণে এ তিনটির 
কোনটিকেই অন্কভব করিত পারি না,» কেবল উহাদের সন্মিলনের 
ফলম্বূপ ব্াজ্ঞ বস্তমাত্র অন্ন করি ॥। শ্রাত্যেক অন্ঞভব্ক্কিন্নরাঁতেই 
এই শভিনটি ব্যাপার রহিয়াছে, আমরা উহাদিগকে প্রথক্ করিতে 
+রিব ন। কেন ? 

এপথমোক্ত বোগাকগুলির জ্ঞভ্যাসের দার বখন মন দত ও 
লংবত তনম্ম ও শ্মতল' আঅন্তবের শত লাল করে, খন উহাকে 
ধ্যানে নিব্ভ্ুত করা কর্তব্য । প্রথমতঃ, স্ুল ব্স্ত লইন্ন ধ্যান কর! 
আবগ্ভক ॥ পরে ভ্রমণ স্ক্াত সুক্মতর ধ্যানে অধিকার হইবে, 
পরিশেষে আামরা বিবনশূন্য অর্থাৎ নিবিবকল ধ্যানে ক্তকাধ্য 
₹ইব। মনকে প্রথমে অনুসূতিল বাঙ্ক কারণ স্অর্ণী২ৎ বিষ» পরে 
নাবুমগুলমধ্যস্থ গতি, ততৎপরে নিব প্রতিক্রিনাশুলিকে আঅন্ভব 
করিবার জন্য নিযুক্ত করিতে হুইবে। বখন কেবল "অনুভূতির 
বাহ্া উপকব্রণ, অর্থাৎ বিবয়সমুভকে পৃথকভাবে পরিজ্ঞ।/ত হওযস। 
বাইবে, তখন সমুদর স্ক্ম-ভীতিক পদার্থ সমুদয় ুশ্মশরীর ও 
সুক্ষ-র্ধূপ জানিবার ক্ষমতা হইবে । বখন আভ্যন্তরীণ গতিগুলিকে 
অন্য সমুদয় বিষর হইতে পুথক্‌ করিম জানা যাইবে, শুথন 
মানসিক বুভিপ্রবাহগুলিকে-আপনার মধ্যেই হউক বা অপরের 
মধ্যেই হউক জানিতে পারা যাইবে; এমন কি উহার? 
তভোঁতিক শক্তির্ূপে পরিণত হইবার পুর্বে উহার্দিগকে পলিজ্ঞাত 
হওক বাইবে এবং বখন্ন কেবল মানসিক ুতিক্কিন্গ+গুলিকে 
জানিতে পারা যাইবে, তখন বোগী সর্ব পদার্থের জ্ভান লাভ 

৯১৯৬১ 





বরাজঝযোগ 


করিতে পারিবেন * কারণ, বত কিছু বস্ত আমাদের প্রত্যক্ষ 
হয়» এমন কি সমুদয় চিভবুর্তি পধ্যস্ত এই মানসিক 
প্রতিক্রিত্রার ফল ॥। এক্ূপ অবস্থালাভ হইলে, তিনি নিজ মনের 
যেন ভিত্তি পধ্যস্তও অনুভব করিবেন এবং মন তখন তাহার 
সম্পূর্ণ বশে আসিবে 5 €যাগীব্ নিকট তখন নানাপ্রকার 
অলৌকিক শান্ত আসিবে 1৮ কিন্ত যদি তিনি এই সকল শক্তিলাজ্ে 
প্রলোভিত হইব পড়েন, তবে ভাহার ভবিষ্যৎ উন্গতির পথ 
অবরুদ্ধ ভইক্সা। যাঁর । ভাগের পশ্চাতে ধাবমান হওরাত্র এতই 
অনর্থ। কিন্ত বদি তিনি এই সকল অলৌকিক শক্তি পধ্যন্ত 
ত্যাগ করিতে পারেন, তবে তিনি মন-রূপ-সমুদ্র-নধ্যস্থ সমুদয় 
ূ বুন্তি প্রবাহকে সম্পূর্ণ অবরস্দধা করা-ন্দপ “বোোগের চরম লক্ষ্যে 
উপনাত হইতে পারিবেন । তখনই মনের নানাপ্রকার বিক্ষেপ ও 
তেভিক নানাবিধ শহতি দ্বার। বিচলিত না হইব) আত্মা মহিম। 
নিজ পুর্ণ জ্যাতিতে প্রকাশিত হইবে । তখন যোনী জ্ঞানঘন, 
অবিনাণা ও সর্ববব্যাপিরপে নিজ সম্বরূপেকর্ উপলন্ধষি কর্িবেন, 
বুঝিবেন-_তিনি অনাদি কাল হইতেই ত্রব্দপ রহিয্ষাছেন । 

এই সমাধিতে শাত্যেক মন্ম্যের্র, এমন কি, প্রত্যেক শ্রাণীর 
অধিকার আছে । অতি নিম্ন তর ইতর জন্ড হইতে অতি উচ্চ 
দেবত1 পধ্যন্ত, তকোন না কোন্‌ সময়ে সকলেই এই অবস্থা লাভ 
করিবে, আর বাহার যখন এই অবস্থা লাভ হইবে, সে তখখনই-_ 
কেবল তখনই, প্রকৃত ধন্ম লাভ করিনে। তবে এক্ষণে আমরা 
যাহা করিতেছি, এগুলি কি? ব্রশুলির সহায়ে আমরা এ 
অবস্থার দিকে কব্রনাগত অগ্রসর হইতেছি ॥ এক্ষণে আমাদের 

১১২ 


ধ্যান ও সমাধি 


সহিত, যে ধর্ম না মানে, তাহার বড় বিশেষ প্রভেদ নাই। 
কারণ আমাদের অতীন্দ্রিক্স তর সম্বন্ধীক্স কোনরূপ জ্্ত্যক্ষাজভূতি 
নাই ॥। এই এক(গ্রতাঁসাধনেন প্রস্বোজন-_ প্রত্যক্ষাঁচ্ভূতি-লাভ । 
এই সমাধি লাভ করিবার অত্যেক অঙ্গই বিশেষরূপে বিচাব্িত, 
নিক্মিত, শ্রেণীবদ্ধ ও €বজ্ঞানিক প্রণালীতে সংবদ্ধ হইক্সাছে । 
যদি ঠিক ঠিক সাধন হ্ম্ব* তাহা? হইলে উহ1 নিশ্স্সই আমাদিগকে 
প্রকৃত লক্ষ্যস্থলে পৌছিক্সা দিবে । তখন সমুদব দুঃখ চলিক্॥ যাঁইবে, 
কন্মের বাজ দগ্ধ হইস্সা যাইবে, আত্মা ও অনন্তকালের জন্য মু 


সি 


হইয়া যাইবে । ১১ 


৬১ 


অভ্উঙ্ অধ্নাক 


ক্ষেপে আাজবোনা 
( কুস্মপুরাণ, উপরিভাগ, একাদশ 'অধ্যার হইাতে উদ্ধত ) 


যোঁগ।গ্রি মানবের পাপ-পিঞজরুকে দগ্ধ করে এবং তখন সত্শদ্ধি 
ও সান্দাৎ নিব্বাণ লাভ হস । বোগ হইতে জ্ঞান লাশ হক্স। 
শনও যোগার মুক্তিপথের সহার । বাহাতে যোগ ও জ্ঞান 
উভয়ই বিরাজমান, ঈশ্বর তাহার প্রতি প্রসন্গ হন।॥ যাহার 
প্রত্যভ একবার, দুইবার, ভিন্বীর অথবা সদ [সর্ববদ মহাযোগ 
অভ্যাস করেন, তীহাদিগকে দেবতা বলিম্মা। জানিবে। বোগ 
দুই প্রকার ৮ বখাঅভাঁব ও মহাযোগ। যখন আপনাকে 
শৃন্তা ও সর্বপ্রকার গুণ-বিরঠিত-বপে চিন্তা কর যার, তখন তাহাকে 
অভাঁবযোগ বলে । যন্দারা আত্ম(কে আনন্দপূর্ণ» পবিত্র ও ব্রচ্দেক 
সহিত অন্িন্রূপে চিন্ত। করা হব, তাহাকে মহাযোগ বলে। 
হোগা এই উন্ভদ্ প্রকীর বোগের দ্বারাই আম্ম-সাক্ষীৎকার করেন । 
আর) অন্তান্ত ও বে সমস্ড যোগের কথ? শান্দে পাঠ করি বা শুনিতে 
পাই, সে সমস্ত যোগ এই ব্রন্মযোগের_বে ব্র্মযোগে যোগা 
আপনাকে ও সমুদ্ষে জগতকে সাক্ষাত ভগবজন্বরূপে অবলোকন 
করেন, তাহার এক কণার সমানও হইতে পারে না। ইহাই 
সমুদয় বোৌঁগের মধ্যে শ্রেষ্ঠ । 

রাজফোগের এই কয়েকটি বিভিন্ধ অঙ্গ বা ০সাঁপান আছে। 
যম, নিরন, আসন, প্রাণায়াম, প্রত্যাহার, ধারণ, ধ্যান ও সমাধি। 

৮৯১৪ 


সংক্ষেপে বরাজযোগ 


উহাদের মধ্যে বম বলিতে অভিৎস1, সত্য” অন্তের, ব্রহ্মচধ্য ও 
অপরিগ্রন্তকে বুঝা । এই বম দ্বার? চিভ্তশুদ্ধি লাভ ভয্ম। কান, 
মন ও বাক্য দ্বারা সদাসর্বদ। সর্বপ্রানীর হিংসা না করা বক 
কক্ুশোত্পাদন না করাকে অভিংসা বলে । অহিংসা অপেক্ষা 
শ্রেষ্টতর ধন্দ আনু নাই । জীবের প্রতি এই 'অভিংসাভাব 
অবলম্বন করা অপেক্ষ॥ মান্ধষের উচ্চতর সুখ আর নাই । সত্য 
হইতে সমুদর লাভ ভর, সত্যে সমুদয় . প্রাতিষ্ঠিত। যথার্থ 
- কথনকেই সত্য বলে। চৌধ্য বা বলপূর্বক অপরের বস্ত্র গ্রহণ 
না করার নান অস্তেয । কারমনোবাক্যে সর্ববদ সকল অবস্হায় 
মৈথুনরাভিত্যেঞ্ক নামই ত্র্চচধ্য । অভি কষ্টের সময়ও কোন্‌ 
বৃক্তির নিকট হইতে কোন উপহার গ্রহণ না করাকে অপরিগ্রহ 
বলে । অপরিগ্রহ-সাধনের উদ্দেগ্য এই,--কাহারও নিকট কিছু 
লইলে হৃদয্স অপবিত্র হইন্স1 বাস্ত, গ্রহীতা হীন হইব 1 যান, তিনি নিজের 
ব্বাবীনত বিশ্মাভ হন এবং বদ্ধ ও আসক্ত হইব) পড়েন । 1 

1 তপহ, ত্বাধ্যায়, সম্তে'ষ* শোঁচ ও ঈশ্বর-প্রণিধান _ এই 
কম্সেকটিকে নিয়ম বলে । নিরম শব্দের অর্থ নিয়নিত অভ্যাস ও ব্রত 
পরিপালন । উপব।স বা অন্ঠবিধ উপাক্ে দেহ-সংযমকে শারীরিক 
তপস্তা। বলে । বেদপাঠ অথবা অন্য কোন মন্ত্র উচ্চারণকে 
সত্শুদ্ধিকর স্বাধ্যার বলে। মন্সজপ করিবার তিন প্রকার নিক্পম 
আছে-_বাচিক, উপাংশু ও মাঁনস। বাটিক অপেক্ষ! উপাংশু 
জপ শ্রেষ্ঠ এবং তাহা হইতে মানস জপ শেষ্ঠ । যে জপ, এত 
উচ্চস্বরে কর। হন্ম যে, সকলেই শুনিতে পায়, তাঁহাকে বাচিক 
বলে। যে জপে কেবল ওষ্ে স্পন্দন মাত্র ভব, কিন্ত নিকটবর্তী 

১১৫ 


বাজযোগ 


ব্যক্তি কোন শব্দ শুনিতে পায় না» তাহাকে উপাংশু বলে। 
যাহাতে কোন শব্দ উচ্চারণ হক্স না, কবল মনে মনে জপ কব? 
হয় ও তৎসহ ০সই মন্ত্রের অর্থ স্মরণ কন? হয, তাহাতে মানসিক 
জপ বলে। উহ্াই সর্বাপেক্ষা শ্রেষ্ঠ । খৰগণ বলিক্পাছেন, 
শৌচ দ্বিবিধ,_ বাহ ও আভ্যন্তর । ম্তিক1» জল অথবা) অন্যান 
দ্রব্য ছার? বে শরীর শুদ্ধ করা হন, ভাঁভাকে বাহ শৌচ বলে» যথ। 
স্ানাদি। সত্য ও অন্ঠান্য খধশ্মীদি দ্বারা মনের শুদ্ধিকে 
আঁভ্যন্তর শোৌচ বলে। বাহা ও আভ্যন্তর শুদ্ধি উভ্তম্পই আবশ্যক । 
কেবল ভিতরে শুচি গাঁকিঝ। বাহিরে অশুচি থাকিলে শৌচ 
সম্পূর্ণ হইল না। বখন উভর প্রকার শৌঁচ কাধ্যে পরিণত করা! 
সম্ভব না ভ্র, তখন কবল আভ্যন্তর শৌচ অবলম্বনই শশ্রনস্কর | 
কিন্ত এই উভ্স্বম প্রক।র শৌচ না থখকিলে কেহই বোগা হইতে 
পারেন না । ঈশ্বরের স্ততিঃ স্মরণ ও পুঙ্রারূপ ভক্তির নাম ঈশ্বর- 
প্রণিধান । ২. 

২খম ও ন্স্সিম সম্বন্ধে বলা। হইল ॥ (তৎপবে আসন ॥। আসন 
সম্বন্ধে এইটুকু বুঝিলেই যথেষ্ট হইবে হে, বক্ষচ্থল, শ্বীবা ও 
মস্তক সমান ন্াখিয়! শরীরটিকে বেশ শ্ষচ্ছন্দভাতে রাখিতে 
হইবে | ক্ষণে প্রাণায়ামের বিষয় কথিত হইবে । প্রীণের 
অর্থ নিজ শরীরের অভ্যন্তরস্থ জীবনীশক্তি ও আক্াান অর্থে 
উহার সংযম । প্রাণাঙ্ান ভিন প্রকার-_-অধম” মধ্যম ও 
উত্তন । উহ আবার তিন ভাগে বিভক্ত» যথা পুলক» কুস্তক 
ও রেচক । যে প্রাণাক্জামে ১২ ০সকেণ্ কাশ বাবু পুরণ কর। 
বান্থ, তাহাকে অধম প্রাণাক্সাম বলে। ২৪ সেকেণ্ড কাল বাস 

১১৩৩ 


সংক্ষেপে বাজযোগ 


পুরণ করিলে মধ্যম প্রাণাক্সাম ও ৩৬ সেকেশ্ড কাল বাু পুরণ 
করিলে তাহাকে উত্তম শ্রাণাক্সাম বলে ।? অধম প্রাণাক্ামে ঘন্ম, 
মধ্যম প্রাণাক্বামে কম্পন এবং উত্তম প্রাণাক্ামে আসন হইতে 
উত্থান হক্স। গাক্সত্রী €তেঙ্গের পবিভ্রতম মন্ত্র।॥। উহার অর্থ, 
“আমরা এই জগতের প্রসবিত। পবন দেবতার বঝনীন্ম তেজ 
ধ্যান করি, তিনি আন।দের বুদ্ধিতে জ্ঞ/ন্‌ বিকাশ করিস দিন ।” 
এই মন্ত্রের আদিতে ও অন্তে প্রণব সংযুক্ত আছে । একটি 
প্রাণাক্স।মের সমস তিনটি গাক্সত্রী মনে মনে উচ্চারণ করিতে 
হজম । প্রত্যেক শাস্দেই আঁণাক্মাম তিন ভাগে বিভক্ত বলিন। 
কথিত আছে, বথ।-__-৫রেচেক, বাহিরে শ্বাসত্যাগ 5 প্রব্বক, শ্বাসগ্রহণ ॥ 
ও কুম্তক, স্থিতি_ ভিতরে ধারণ কর! অন্ুভবশক্তিবুক্ত ইন্ড্রিক্গণ 
ক্রমাগত বহ্ষ্মিীন হইন্বা কাধ্য করিতেছে ও বাহিরের বস্তর 
স্পর্শে আসিতেছে । প্রগুলিকে আমাদের নিজের অধীনে আনক্পন 
কন্বাকে প্রত্যাহার বলে । আপনার দিকে সংগ্রহ ব। আহরণ কর, 
ইহাই প্রত্যাহার শব্দের প্রকৃত অর্থ ॥| 

। হৃদ্‌্-পগ্সে, মস্ডকের ঠিক মধ্যদেশে বা দেহের অন্ত স্থানে 
মনকে ধারণ করার নাম ধারণ ॥/ মনকে এক স্থানে সংলগ্ন 
করিক্স॥, সেই একমাত্র স্থানটিকে অবলম্বনস্বরূপ শ্রহণ করিক়?, 
কতকগুলি বুত্তিপ্রবাহ উত্ণ(পিত কব! হইল 5 অন্তবিধ বুভ্িপ্রব।হ 
ভঠিন॥ যাহাতে এ্রগুলিকে নু না করিতে পারে তাহার চেষ্টা 
করিতে করিতে স্রথমোক্ত বুভ্তিপ্রবাহগুলিই ত্রমে প্রবলাকার 
ধারণ করিল এবং ০শেষোক্তশুলিই কমিক কমিক্স) শেষে একেবারে 
চলিক্স। গেল : ১/ সবলেখে এই বহুবুত্তিরও নাশ হইস্সা একটি 


১৯৭ 


বরাজযোগ 


ব্ত্ভিনীত্র অবশ্িউ রহিল; উহাকে ধ্যান বলে ॥ / বখন এই 
অবলম্বনের ও কিছু ত্র যোজন খাঁকে না, সম্র্দ রন মন্টিই যখন 
একটি তরঙ্গরূপে পরিণত ভয়,» মনের এই এএকরূপতানর নাম 
সনাপি। তখন কোন বিশেষ '্রদেশ অথবা? চক্রালশেষকে 
অবলম্বন করিস ধ্যান-প্রবাভ উখ্াপিশ ভল্স ন!” কেবল ধ্যেস 
বন্তর ভাবনা অবশিষ্ই থাকে । যর্ণি মনকে কোন স্থানে ১২ 
েকেণু ধারণ কর)? বান, তাহাতে একটি পাঁরণা। হইবে * 
রি 





এই ধারন দ্বাদশ শুণিভ ভইলে "কটি ধান এবং এই ধ্যান 
ছাঁদশ শুণ হইলে এক সমাবি ভইলে । / | 

যেখানে অগ্ি লা জল হইন্তে কোন বিপ্দাশহনে আছে 
এসন স্থানে, শুক্ষপত্রাকীর্ণ ভূমিতে, নম্চজল্ঞসনানুল ক্লে, চতুষ্পথে, 
অভ্িিশক্ব তোলাভ্লপুর্ণ স্থানে, অভ্যন্ত ভয়জনক স্থানে, 
বলুীকস্ড.পসমীপে, অথবা ভুর্জনক্রান্ত স্থানে বোহগা সাধন করা 
চি ন্র্র। এই ব্যবস্থা বিশেষভাবে ভারতের পক্ষে খাটে । 
বখন শরীর অশিশন্স অলস বা অন্স্থ তোধ ভয্ত অথবা মন 
যখন অভিশন ছঃখপুর্ণ থাকে, তখন সাধন করিবে নাঠ। অতি 
ক্ুপুপ্টু ও নির্জন স্থানে, যেখানে লোকে তোমাকে বিরুভ্ত 
কৰ্িিতে না আইসে, এমন স্থানে গিক্া।) সাধন কর ॥। অশুচি 
স্তানে বসিক্স। সাধন করিও না। বলং সুন্দর দৃশ্তিবুক্ত স্থানে 
অথনা। আমার নিজগুহস্থিত একটি সুন্দর ঘরে বসিক্ সাধন 
করিবে । সাধনে প্রবুভভড হইবার প্ুর্বেবে সমুদস্ম প্রাচীন €তযোগিগণ» 
তোমার নিজ গুরু ও ভশ্গবানকে নলক্কার কল্সিক্স সাধনে প্রবুক 
তভইবে । 


লংক্ষেপে পবাজবযোগ 


ধ্যানের বিবন্দ পুর্বেই উল্লিখিত হইছে । এক্ষণে 
কতকগুলি ধ্যানের প্রণালী বণিত হইতেছে । $ঠিক সরলভাবে 
ভপবেশন করিরা নিজ নাপিকাগ্রে দৃর্ি কর । দেখিবে এই; 
নাসিকাগ্রে দৃষ্টি মনহস্ছিধ্যের বিশেব সভাযক । চাক্ষুষ লাবুদ্ধয়ের 
বণাকরণ দ্বার! এপ্রতিক্রিররৈ কেন্দ্রভূর্মিকেও অনেকটা আদ্মভাধীনে 
অন যায়, স্থতরাং উহ দ্বার)? ইচ্ছাশক্তিও আমদের অনেকট। 
বশীভূভ ভ্ইক্সা পড়ে । এইবার কয়েকপ্রকর ধ্যানের কথা বল! 
যাইতেছে । চিস্তা কর» মস্তক হইতে কিঞ্চিৎ উদ্ধে একটি 
পদ্ম বুহিরাছে, ধন্ম উহার মুূলদেশ, জ্তঞান উহার ম্বণালস্বব্প, 
বোগীর অইুসিদ্ধি শ্রী পদ্মেবক অই্দলব্বরূপ আব বৈরাগ্য উহার 
অন্যন্তরস্থ কণিক? ॥ ঘষে তযোগা অষ্টসিদ্ধি উপ্স্থিত হইলেও 
উহাদিগকে পরিত্যাগ করিতে পারেন, তিনিই মুক্তিলাভ 
কলেন্‌ ॥ এই কারণেই অগ্রসিদ্ধিকে বহিঙ্দেশবর্তভী অষ্টদলকপে 
এবং অভ্যন্তরস্থ কর্ণিকাকে পর-টবব্রাগ্য অর্থাৎ এঅগ্ুসিদ্ধি উপস্থিত 
হইলে তাহাতেও €৫বরাগ্য”ব্ূপে বর্ণনা করা হইল । এই পদ্মের 
অভ্যজ্তবে _হিরপ্সযত সর্বশাক্তমান, অস্পশ্য, ওক্কাববাচ্য, অব্যক্, 
কিরণসমুহু পরিব্যাণ্ত__পরম জ্যোতির চিন্তা কর-তীহাঁকে 
ধ্যান কর। আর একপ্রকার ধ্যানের বিষর কথিত হইতেছে । 
চিন্তা কর, তোমার হৃদ ভিতরে একটি আকাশ বহিম্সীছে, 
আব শর আকাশের মধ্যে একটি অগ্িশিখাবত €জ্যাতিহ 
উদ্ভাসিত হইতেছে» শর জ্যেতিঃশিখাকে নিজ আত্মারূণে 
চিন্তা কর, আবার শর জ্যোতির অভ্যন্তরে আর এক জ্যোতিম্মক্ত 
আকাশের চিন্ত। করযঃ উহ? তোমার আত্মার আত্ম? 

১০৯ 


পাজযোগ 


পর্মাত্মান্বক্প ঈশ্বর । হদক্ষে উহাকে ধ্যান কর। ব্রহ্মচধ্য, 
অহিংস৭ অর্থাৎ স্ককলকে এমন কি, মহা শক্রকেও ক্ষমা করা,» সত্য, 
আস্তডিক্য প্রভৃতি বিভিন্ন ব্রত-ম্ব্ূপ । এই সমুদম্মশুলিতে 
ষদি তুমি সিদ্ধ হইতে না পার, তাহ হইলেও হুহখিত বা ভীত 
হইও না । চেষ্টা কর, ধীরে স্বীরে সবই আসিবে । বিষমাভিলাব, 
ভস্ম ও ক্রোধ পব্রিত্যাগপূর্বক বিন ভগবানের শব্ণাগত ও 
তন্মর হইম্সাছেন, বাহ হৃদত্ পবিত্র হই গ্ি্রানে» তিন্নি 
ভগবানের নিকট বাঁভা কিছু বাঞ্চ। করেন, ভগবান ততক্ষণাৎ্ৎ 
ভাহা। পুরণ করিন। দেন। অতএব উীভাকে জ্ঞান, ভক্তি অ্থব। 
€ববাগ্যযোগে উপ।সনা॥ কর । 

“বিনি কাহারও হিংস। করবেন নাগ যিনি সকলের মিত্র, 
ঘিন্ি সকলের শ্রতি করুণাসম্পন্গ, বাশার অহঙ্কার বিগত 
হইক্সাছে, বিন সদাই সনু, বিন সর্বদা যোঁগবুক্ত, যতাত্মা ও 
দুঢ-নিশ্চ্, বাহার মন ও বুদ্ধি আমার প্রতি অর্পিত ভ্ইস্াছে, 
তিনিই আমার প্রি ভক্ত । যাহা হইতে লোকে উদ্বিপ্র হস্ক 
না, ঘিনিি লোকসমুহ হইতে উদ্দিপ্র হন না, যিনি অভিবিক্ত 
হর্ষ, হৃহখ», ভন্র ও উদ্বেগ ত্যাগ করিক্ষাছেন, এইরূপ ভক্তই 
আমার প্রিক্র । বিনি কিছুরই অপেক্ষা রাখেন না, বিনি শুচি, 
দক্ষ, স্ুখহহখে উদাসীন, বাচার হ্5হখ বিগত হইক্সাছে, বিনি। নিন্দা] ও 
স্তাভিতে তুল্যভাঁবাঁপন্ন, €মীনী, বাহ। কিছু পান তাহাতেই সন্ত, গৃহশুন্ঠ, 
বাহার নির্দি কোন গুহ নাই, সমুদন্ন জগতৎ্ই ধাহার গুহ, বাহার বুদ্ধি 
স্থির, এইরূপ ব্যক্তিই যোগা হইতে পাঁজেন 1৮ (শীত, ১২।১৩-১৯ ) 

ডি ৮০ নি পি 


১০২৩ 


সংক্ষেপে পাজযোগ 


নারদ নামে এক ভউচ্চাবস্থাপল্স দেবষি ছিলেন । যেমন 
মান্ধষের মধ্যে খষি অর্থাৎ ম্হামহ! যোগী থাকেন, সেইক্দপ 
দেবতাদের মধ্যেও বড় বড় তযোগী আছেন । নারদও সেইব্দপ্‌ 
একজন মহাষোগী ছিলেন । তিনি সর্বত্র" ভ্রমণ করিস 
বেড়াইতেন ॥? একদিন তিন্নি বন-মধ্য দিস গমনকালে 
দেখিলেন, একজন্ম €তোক ধ্যান করিতেছেন । তিনি এত 
ধ্যান করিতেছেন, এতদিন একাসনে উপবিচ্ছ আছেন যে তাহার 
চতুর্দিকে বক্মীক-স্ড.প হইক্সা পড়িক্সখছে । তিনটি নারদকে 
বলিলেন, “প্রভে1» আপনি কোথান্স যাইতেছেন ?” নারদ উত্তর 
করিলেন, “আমি €₹বকুণ্ে বাইতেছি ।” তখন ভিনি বলিলেন, 
“ভগবানকে জিজ্ঞাস) করিবেন, তিনি আমাকে কবে কুপা। 
করিবেন, আমি কবে মুক্তিলাভ করিব ।” আরও কিছুদূর 
যাইতে যাইতে নারদ আর একটি €লোঁককে দেখিলেন। €০স 
ব্যক্তি লম্ফ-ঝম্ফ নুত্য-গীতার্দি করিতেছিল । ০সও নারদকে এ 
প্রথ্থ করিল ॥ সই ব্যক্তির ম্বর, বাগ্ভঙ্গী প্রভৃতি সমুদ্রক্সই 
বিক্ৃতভাবাপন্গ। নারদ তাহাকেও পুর্ববের মত উত্তর দিলেন । 
সে বলিল, “ভগবানকে জিজ্ঞাসা করিবেন” আমি কবে মুক্ত 
হইব ।” পরে নারদ তেই পথে পুন্রাত্স ফিরিয়। যাইবার সমর 
সেই ধ্যানস্থ বল্মীক-স্ত.প-মধ্যস্থ €তোগীকে দেখিতে পাইলেন ॥ 
তিনি জিজ্ঞাসা কন্িলেন, “দেবর্ষে, আপনি আমার কথা কি 
জিজ্ঞাসা করিক্সাছিলেন ?” নারদ বলিলেন, “হী, অআঅ।মি জিজ্ঞাসা 
করিক্বাছিল।ম 1” তখন বোগী তাহাকে জিজ্ঞাস! করিলেন, “তিন্নি কি 
বলিলেন ০ নারদ উত্তর দিলেন, “ভগবান বলিলেন- আমাকে 

৩৭২৯ 


রাজযোগ ৮: 


পাইতে হইলে, তামার" আর চাবি জন্ম লাগিবে ।” তখন সেই 
যোগী অতিশন্স বিলাপ করিন্রা বলিতে লাগিলেন, আনি এত 
ধ্যান করিয়াছি যে, আমার চতুর্দিকে বল্ীক-ভ্ড-প হই গিক্সাছে, 
আমার এখনও চাবি জন্ম অবশ্পি* আছে 1” নারদ তখন অপর 
ব্যক্তির নিকট গমন করিলেন । তে তাহাকে জিজ্তীস। করিল, 
আমার কথ? কি ভগবানের নিকট জিজ্ঞাসা করিক্সাছিলেন ?” 
নারদদ বলিলেন, “হ1, ভগবান বলিলেন, শএ্রই তোমার সম্মূথে 
তিস্তিডী বুক্ষ বকিস্তাছে, ইহার বযতগুলি পত্র আছে, তোঞষ্ণুকে 
ভতবার জন্মগ্রভণ করিতে হইবে 1” আই কথা শুনিন। সে 
আনন্দে নুত্য করিতে লাগিল», বলিল, আমি শ্রুত অল সময়ের 
মধ্যে মুক্তিলীভ করিব 1” তখন এক পট€দববানা ভইল», “বৎস, 
ভুমি রই মুহুর্তে মুক্তিলাভ করিবে ।” সে ব্যক্তি এইরব্প 
অধ্যবসাপ্রসম্পন্ন ছিল বলিন্নাই, তাহার এ পুরঙ্কার লাভ হইল । 
সে ব্যক্তি এত জন্ম সাধন কবিন্ে প্রস্তত ছিল ॥। কিছুতেই 
ভাশাকে নিরুদ্ধমন করিতে পারে নাই । কিজ্দর প্র শ্রথমোক্ত 
ব্যন্কি চারি জন্মাকেই বড় বেণা মনে করিয়াছিল । যে ব্যক্তি 
মুক্তির জন্য শত শত বুগ 'অপেক্ষ॥ করিতে প্রস্ভতভ ছিল, তাহার 
হশসন অধ্যবসারুসম্পন্স হইলেই উচ্চভন ফললাভ হুইন্স। থাকে । 


৯ ২. 


পাভঞ্জল-০ষাগনুত্র 
ডপক্রমণিকা। 


মোগন্ব্রব্যাখ্যার চেষ্টা করিবার পূর্বে, যোমাদের সমগ্র 
ধন্মশমত যে ন্ডিত্তির উপর স্থাপিত, আমি এমন একটি প্রশ্নের 
'আলে।চন। করিতে চেষ্টা করিব । জগহছের শ্রেষ্ঠ মনীষিবুন্দের 
সকলেরই এই বিষয়ে একমত বলিয়া বোধ হয়, আর ভৌতিক 
প্রকৃতি সম্বন্ধে অনুসন্ধানের ফলে ইহা একরূপ প্রমাণিত 
ভইয়) গিয়াছে যে, আমরা আমাদের বর্তমান সবিশেষ ভাবের 
পশ্চাতে অবস্থিত এক নিধিবশেষ ভাবের বহিঃপ্রকাশ ও 
ব্যক্তভাবস্বরূপ £ 'আবার সেই নিবিবশেষভাবে প্রত্যাবৃত্ত হইবার 
জন্য ক্রমাগত অগ্রসর হইতেছি। যদি এইটুকু স্বীকার কর 
যায়, তাহা! হইলে প্রশ্ন এই, উক্ত নিব্বিশেষ অবস্থা শ্রেষ্ঠতর, 
ন। বর্তমান অবস্থা? এমন লোকের অভাব নই, যাহার মনে 
করেন এই ব্যক্ত অবস্থাই মানবের সর্বোচ্চ অবস্থা । অনেক 
চিন্তাশীল মশীবীর মত, আমরা এক নির্বিবশেব সম্ভার ব্যক্তভাব 
আর এই সবিশেষ অবস্থা নিব্িবশেষ অবস্থা হইতে শ্রেষ্ট। 
তাহারা মনে করেন, নিবধিবশেষ সম্ভার কোন গুণ থাকিতে 
পারে ন।, সুতরাং উহ নিশ্চয়ই অচৈতন্য,় জড়, প্রীণশুন্ । 

১২৩ 


বাজবযোগ 


এই হেতু তাহারা বিবেচনা করেন, ইহজীবনেই কেবল স্মখভোগ 
সম্ভব, স্তরাঁং ইহজীবনের স্থথেই আমাদের আস্ত হওয়া 
উচিভ । প্ররথমভহ দেখা যাউক, এই জীবন-সমম্ঠাত আর 
কি কি নীমাংস। আছে, তেইশুলির বিষন্ন আলোচন? কর॥ 
যাউক । এ সম্বন্ধে অতি প্রাচীন সিদ্ধাস্ত এই বে, মৃত্যুর পর 
মানুষ বাহ তাহাই থাঁকে, তবে ভাহার সমুদন্ম অশুভ চলিক! 
যান, ভতত্পত্রিবক্ডে হেবল যাহ)? কিছু ভাল, তাহাই অন্স্ভ- 
কালে জন্য থাকিস্পা বায় । প্রণালীবদ্ধ €নবান্সিক ভাবাক় 
এই সত্যাটি স্থাপন করিলে উহ) এইরূপ দাড়া তে, মানুষের 
চরমগন্তি এই জগাৎ-্এই জগতেরই কিছু উচ্চাবস্থ।-_আর 
উহার সমুদ্স্স অসৎভাগ বাদ দিলে যাত। অবশিশ থাকে» 
ভাহাকেই স্বর্ণ বলে। ইহাই পুর্বেবেক্ত মতাবলম্বীদিগের 
চঞম লক্ষ্য ॥ এই মতটি বে অভ্তি অসম্ভব ও অকিঞ্চিৎকবঝ,» নাভ 
অভি সহজেই বুঝ বাক্স; কারণ তাহা হইতেই পারে না। 
ভাল নাজ অথচ মন্দ আছে বা মন্দ নাই, ভাল আছে -এবপ 
হইতেই পারে না । কিছু মন্দ নাই, সব ভাল একপ জগতে 
বাসের কলনাকে ভারতী €নস্বাম্িকগণ আকাশকুক্ুম বলিস! 
বর্ণন। করেন । ভাহার পর আব একটি মত বর্তমান অনেক 
সম্প্রদায়ের নিকট হইতে শুনা যাক্স ২ তাহা এই €ষ, মানুষ 
ক্রমাগত উন্নতি করিবে, চর্ম লক্ষ্যে প্ৌছিবান চেষ্টা করিবে, 
কিজ্ড কখনও তথাক্স পৌোছিতে পারিবে ন7। এই মতও আপাততঃ 
খনিতে অভি বুক্তিসঙ্গত বলিক্না বোধ হইলেও বাম্ডবিক অতিশস্ব 
অসঙক্গত, কারণ সরল €রখার কোন গতি হইতে পারে না। 
১২৪ 


উপাত্রমণিকা। 


সমুদয় গতিই বুভ্তাকারে হইক্সা থাকে । বর্দি তুমি একটি প্রস্ডর 
লইক্স/ আকাশে নিক্ষেপ কর, তঙপরে যদি তোমার জীবন পধ্যাপ্ত 
হস্স ও প্রস্ডরটি কোন বাধা না পাক, তবে উহা ঠিক তোমার 
হ্ডে ফিরি আদসিবে। যদি একটি সরল রেখাকে  অনস্ত পে 
প্রসারিত কর ভয়, ভাতা হইলে উহা একটি বুক্তরূপে পরিণত 
হউন্স। শে ভইবে । অভ এব মানুষের গতি সর্বদাই অন্ভ্ত 
উন্মতির দিকে» তাভার কোথাও তেব নাই-_এই মত অসঙ্গত & 
অপ্রাসঙ্গিক হইলেও আমি এক্ষণে এই পুর্বেবাক্ত মত সম্বন্ধে 
হুই একটি কথ! বলিব । নীতি-শান্ে বলে, কাভাকে ও দ্বণ। 
করিও না, সকলকে ভালবাসিও । লীতিশাস্ত্রের এই সত্যটি 
পুর্বেধোক্ত মতদ্বার॥ প্রতিপন্ন হইব যায় । যেমন তাড়িত অথবা 
অন্ঞ কোন শক্তি সম্বন্ধে আধুনিক মত এই যে, সেই শক্তি-_- 
শক্তির আধার-যন্ত্র €:775700) হইতে বহির্গশত হইক্স। স্ুরিক্স। 
আবার তেই যন্ত্রে প্রত্যাবুভ্ত হত্স, ইহাঁও ঠিক সেইবূপ । প্রকৃতির 
সমুদয় শক্তি সন্বন্ধেইে এই নিরম। সমুদন্ শক্তিই ঘুরিকস। 
কিরিস্ষা যে স্থান হইতে গিক্াছিল* ০সই স্থানেই ফিরিম্বা আসিবে ॥ 
এই হেতু কাহাকেও স্বণা কর)? উচিত নর, কারণ ক্র শক্তি__এ 
বণ বাহ)॥ তোমা হইতে বহির্গত হইন্সীছিল, তাহ। কালে 
তোমার নিকট ফিরিস্বা আসিবে । যর্ি তুমি লাককে ভালবাস, 
তবে দেই ভালবাসা দ্বুরিক্ন॥) ফিরিস়্) তমার নিকট ফিরিক। 
আসিবে । এটি একেবারে অত্তি সত্য যে, মানুষের অস্তঃকবণ 
হইত্তে যে ত্বণার বীজ নির্গত হয়, তাহা দ্বুরিক্স) ফিরিকসা তাহার 
উপর আসিকসা পুর্ণ বিক্রমে প্রভাৰ বিস্তার করিবে ॥ 
৩২২৫ 


র।জযোগ 


কেহই ইহার গতি রোধ করিতে পারে না ॥। ভালবাসা সম্বন্ধে ও 
প্রুরূপ । অনম্ত উন্ধতি সম্বন্বীক্ষ মভ যে স্থাপন কর! অসম্ভব, 
ভাভা। আব অন্ত প্রভ্যক্ষে উপর স্থাপিভ অনেক 
যুক্তি দ্র প্রমাণ করা বাইতে পারে । প্রত্যক্ষ দেখা বাইতেছে 
যে, ভৌতিক সনদ বস্তরই চরন গতি এক বিনাশ -_ছুভতরাং 
“অনন্ত উল্ভির ম৩৮ কোন মতই খাটিতে পাকে নী; আমল! 
এই বে নানা প্রকার চেষ্টা করিতেছি, আমাদের এই সব 
এত আঁশ, এভ ভন্র, এত ক্খ- ইহার পরিণাম কি? ম্বত্যই 
আশমাদেন সকলেন্ধ চরম গাভি। উহ অপেক্ষা স্নিশ্চিত 

অর কিছুই হইতে পারে না ॥। তবে এইন্দপ সরল রেখার গতি 
তকোথাক্স রহিল ? এই অনম্ত উন্মতি তকোথান্র থাকিল ? খানিক 
দূর গিপ্রা আবার বেখান হইতে গতি আরম্ভ হুইন্সছিল, 
সেই স্থানেই প্ুন্হ প্রত্যান্ভন । শীহারিক) € 2051052125১ হইতে 
কমন স্ুধ্য, চন্দ্র, তারা উৎ্পন্ধ হইতেছে, পুন্রাক উভান্েই 
'প্রত্যাবর্তন করিতেছে ॥। এএইক্ষপ সর্বত্রই চলিতেছে । উত্ভিদ্গণ 
মৃত্তিকা হইতেই সার গ্রহণ করিতেছে, আবার পচিন্না শিষ্ব। 
মাটিতেই মিশাইতেছে । বত কিছু আক্কুভিমান বস্তু আছে, তাহ 
এই চতুদ্দিকস্থ পরনাণুপুঞ্জ হইতেই উৎপন্ন হইব আবার তেই 
পরমাণুতেই নিশাভতেছে । 

একই নিন্ম যে বিভিন্গ স্থানে বিভিন্রর্ূপে কাধ্য করিবে» ভাভা। 
হইতেই পারে না। নিরম সর্বত্রই সমান । ইহা অপেক্ষ। 
নিশ্চনপ্ আর কিছুই হইতে পানে না। যদি ইহ একটি প্রকৃতির 
নিক্সষম হয্সতষ তাহা হইলে অস্তর্জগতে এ নিন্ম খাটিবে না৷ 


০ ২২. ও 


উপক্রমণিকা। 


কেন? মন উহার উৎ্পভি-স্থানে গিরা। লক্ষ পাইবে । আমর] 
উচচ্ছা1? করি বা না করি, আমাদিগকে. সেই আশরিতে ফিরির? 
বাইতে ভইবে । প্ঁ আদি কারণতে ঈশ্বর বা অনস্তকাল বলে। 
আন্রা। ঈশ্বর ভইত্ে আসিনাাছি, ইঈশ্বরেতে পুনরার যাইবঈ 
বাইব । এই ঈশ্বরকে তে নান দিরাই ডাকা হউক না ৫কন-__ 
উাহযকে গভ. বল, নিবিবশেষ সভা বল, আল প্রক্ৃতিই বল, অথবা? 
আর যে কোন নামেই তাভাকে ডাক নী তকেন-_উহাী ০সই একই 
পদার্থ । “যশ্তো বা উমানি ভভানিি জারভ্তে। তেন জাতানি 
জীবন্তি। যহ প্রস্স্তযভিসংবিশ্ভ্তি-_€ 65 উঠ, ৩১) “বাছখ হইজ্ডে 
সম্ষুদস্স উৎপল হইছে, যাহ।তে সম্বদনন আনা স্থিতি করিতেছে ও 
বাহাতে আবার সকল ফিরি) বাইবে । ইহা অপেক্ষা নিশ্চক্স আর 
কিছুই হইতে পাবে না । প্রকৃতি সর্বত্র এক নিরমে কাধ্য 
করিন।॥ থাকে । এক তোকে তব কাধ্য হইতেছে, অন্য লক্ষ লঙ্গ- 


লোকে ও সেই একই নিয়মে কাধ্য হইবে । গ্রহসমুহে বাভ। 
দেখিতে পাওয়॥ যাইতেছে, এই প্রথিবী* সমুদক্স মন্তয্া ও 
সমুদর নক্ষত্রেও ০সই একই ব্যাপার চলিতেছে । বুহশ অশ৩রঙ্গ 


লম্ষ লক্ষ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র তরঙ্গের এক ম্হাসমডি মাত্র । সমুদয় 
জগতের জীবন বলিতে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র লক্ষ লক্ষ জীবনের সমগ্িমাত্র 
বুঝার । আর এই সমুদক্স ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র লক্ষ লক্ষ ভীবের স্বত্যুই 
জগতের ম্ৃতুযু | 

এক্ষণে এই প্রশ্ন উদন্ম হইতেছে €১ এই অভগবানে 
প্রত্যাবর্তন উচ্চতর অবস্থা অথবা উহ! নিম্নতর অবস্থা ? 
ঘযোগমতান্লম্বী দারশনিকগণ এ কথার উত্তরে দ্ুঢভাবে বলেন, 

১২৭ 


বরাজযোগ 


“হা1» উহ1 উচ্চাবস্থা 1” তাহারা বলেন, “মানুষের বর্তমান 
অবস্থা অবনত *অবস্থ) |” জগতে এমন কোন ধন্দম নাই, যাহাতে 
বলে যে, মানব পূর্বে ঘষে প্রকার ছিল তদপেক্ষ॥ উন্নত অবস্থা 
প্রাণ ভইত্বাছে । সকল ধন্মেই এরই একরূপ তত্র পাওয়া যাক 
যে. মান্চষ আদিতে শুদ্ধ ও" পুর্ণ ছিল, তে তৎপরে ক্রমাগত 
নিম্নদিকে বাইতে থাকে, ক্রমশহ এতদূর নীচে যায়, যাহার 
নীচে আর সে যাইতে পারে না। পরে এমন সময় আসিবেই 
আসিবে, যে সনক্সে সে বুভাকারে ঘুরি উপরে গিরা পুনরায় 
সেই প্ুর্বব স্থানে উপনীত ভবে । ব্রভাকারে গতি মানুষের 
হইবেই হইবে । সে যতই নিম্দ্িকে চলিক্ যাক না কে. 
সে পরিশেষে এউ উদ্ধগন্তি প্রন্হপ্রাপ্ত হইবে ও পরিশেষে 
তাহার আদি কারণ ভগবানে ফিত্রিক্সা) যাইবে । মানুষ প্রথমে 
কভুগাবণন ভইন্তভে আইসে, মধ্যে সে মলল্ুষ্যরূপে প"সবস্থিতি কবে, 
পরিশেষে প্রুন্রায় ভগব।নে প্রত্যাবর্তন করে । ্বতবাদের 
ভানাক্স এই তত্রটি এ ভাবে বলা যাইতে পাবে । অদ্বৈতবাঁদের 
ভাষাম্ম বলিতে গেলে বলিতে ভয়, মানুষ ভগবান, আবার 
ফিক) তভাহাীতেই যায় । যদি আমাদের বর্তমান অবস্থাটিই 
উচ্চতর অবস্ঠা ভয়, তাহা হইলে জগতে এত ছুঃখ কষ্ট, এন 
ভক্সাবহ ব্যাপারসকল ব্রতিক্জাছে কেন %€ আর ইহার অস্তই ব? 
হস্স কেন? ঘর্দি এইউটিই উচ্চতর অবস্থা! হক্স- তবে ইহার শেষ 
তন্স কেন? যেটি বিকৃত ও অবনত হর, সেটি কখন সব্ধবোচ্চ 
অবস্থ। হইতে পালে না । এই জগত এত পৈেশাচিক-ভাবাপন-- 
প্রথণের অতৃপ্তিকর কেন? ইহার পক্ষে জোর এই পধ্যস্ত বল! 
৯ 


উপাক্রমণিকা? 


যাইতে পারে বে, ইহার মধ্য দিক) আমরা একটি উচ্চতর 
পথে বাইতেছি । আমরা নবজীবন লাভ করিব বলিক্সীই এই 
অবস্থার ভিতর দিক্সা॥ আমাদিগকে চলিতে হইতেছে ॥ ভূমিতে 
বীজ প্ুুতিম্ন দ্বাও» উহ1 বিশ্রিট হইব কিছুকাল পরে একেবারে 
মাটীর সহিত মিশিন) যাইবে, আবার সেই বিশ্রিউ অবস্থা 
কইতে মভারুক্ষ উৎপন্তধ ভইবে। শী মহত বক্ষ হইবার জন্ত 
প্রত্যেক বীকগকেই পচিতে হইবে, এইরূপ ব্রহ্মভাবাপন্ধ হইতে 
হইলে প্রত্যেক আত্মাকেই অবনতির অবস্থার ভিভর দিয়! 
যাইতে হইবে । ইহ ভইতেই এইটি বেশ প্রতীয়মান হুইত্তেছে 
বে* আমরা যত মনা এই ণমানব”সংজ্ভঞক অবস্থাবিশেষকে 
অঙক্রম করিম অভদপেক্ষা। উচ্চাবস্থ।ক্স যাই, আমাদের তত 
মঙ্গল । তবে কি আত্মহত্যা করিক্সা আমরা এ অবস্থা অতিক্রম 
করিব ? কখনই নহে । উহাতে বরং হিতে বিপরীত হইবে । 
শরীরকে অনর্থক পীড়া দেওয়া» অথব।! জগৎকে অনর্থক 
গালা গালি দেওক, এএউ সংসাঁর-তরণের উপাক্স নহে । 
আমাদিগকে এরই টনরাম্তের পহ্থিল হুদের মধ্য দিয়া যাইতে 
হইবে » আব বত নী ষাইতে পারি ততই মঙ্গল। কিন্তু 
এটি হেন সর্ববদ। স্মরণ থাকে যে, আমাদের এই বর্তমান অবস্থ। 
সর্বেবাচ্চ অবস্থা নহে । 

ইহার সধ্যে ইটুকু বোঝা বাস্ডবিক কঠিন যে তে 
নির্বিবশেষ অবস্থাকে সর্বোচ্চ অবস্থা বলা হত তাহা অনেকে 
যেরূপ আশহ্কা) করেন, . প্রস্তর অথব॥ অদ্ধ-জন্ভ-অদ্ধ-বুক্ষবহ্ 
জীববিশেষের ভ্যান নহে । এইব্দপ আভাবিলেই মহা বিপদ । 

৯০২. ৩১ 


বাজবোগ 


বাহার এইব্দপ ভাঁবেন, তাহারা! মনে করেন জগতে যত অস্ডিত্থ 
আছে তাঁভ। ছুই ন্ভাগে বিভক্ত-এক প্রকার প্রস্ডর।দির 
হ্যাসু জড ৪ অপর প্রকার চিন্তাবিশিষ । কিম্ভ তীহাদ্দিগকে 
জিজ্ঞাসা করি5 তভাভার। হযে সমুদ্র অভ্ভিত্রকে এই ভুই শ্শে 
বিভক্ত করিনাই সন্ধ্ট থাকেন, ইহাতে তাহাদের কি অপ্িকার 
আছে? চিন্ত। ভইনে আঅন্জ্ত শুনে উচ্চানস্থা কি নাই? 
আলোকের কম্পন আঅভ্তি মরু হইলে তাহ। আমাদের দুষ্টিগোচরে 
আইসে না, যখন ওঁ কম্পন অপেক্ষাক্তত তীত্র হম তখনই 
আমাদের দুপ্িগোচবে : আউসে-__তখনই আমাদের চক্ষে উহ 
আলোক্ন্রসে শ্রতিভাত হন? আবাব বখন উহা তাঁব শুন 
ভতম্স», তখনও আনব? উহা1 দেখিতে পাই না, উহ আমাদের 
চক্ষে অন্ধকারবত গপ্রভীক্মমান হম্গ। এই শেষোক্ত  অন্ধকালাটি 
এ এখনো অন্ধকঠরের সহিত কি সম্পূর্ণ এক £ উহ|দের 
মধ্যে কি কোন পার্থক্য নাই? কখনই নহে । উভার। 
মেকুহযের হ্যা পরম্পর বিভিন্ন । প্রত্ডরের চিন্তাশৃহ্তত)। ও 
ভগবানের চিন্তাশৃন্ত ভ উভয়ই কি এক পদার্থ? কখনই নহে। 
ভগবান চিন্তা করেন না-লবিচার করেন না ॥ তিন্নি তেন 
করিবেন £? তাহার নিকট কিছু কি অজ্ঞাত অ।ছে. যে, তিন্নি 
বিচার করিবেন ? প্রস্তর বিচার করিতে পারে না, ঈশ্বর বিচার 
করেন না-ই পার্থক্য । পুর্বেবোক্ত দার্শনিকেরা বিবেচন। 
করেন বে, চিন্তার রাজ্য বাভিবে যাওয়া অতি 
ভনাব্হ ব্যাপ।র, তাহাবা চিন্তার 'অতীত কিছু খুজি! 
পন লা । 








১৩০৩ 


উপব্রুমণিকা 


যুক্তির রাজ্য ছাড়াইত্র) গিয়া তদপেক্ষীও অনেক উচ্চতর 
অবস্থ। বভিরাছে । বাস্তবিক, বুদ্ধির ভীত  প্রদেশস্ণেই 
মআমাদিগের প্রথম ধন্মজীব্্ন আস্ত ভন? যখন তুমি চিন্ত।, 
বুদ্ধি, বুক্তি_-সম্বক্স ছাঁড়াইয়। চলিয়॥ যাঁও, ভখনই তুমি ভগবৎ্- 
'পাশ্তিল পথে প্রথম পদক্ষেপ করিলে । ইনাঁই জীবনের '্রক্কত 
পারজ্ঞ । যাভাঁকে সাধারণত জীনন বলে, তা প্রক্কত জীবনে 
আপজঅবস্হা মাত্র । 

এক্ষণে 'প্রশ্ব হইতে পারে বে চিন্তা ও বিচালেক্ অতীত 
অবস্থাটি যে সর্বোচ্চি 'অবস্থ), তাহার প্রমাণ কি? এুথমতহ, 
জগীতেন কত শ্রেষ্ঠ ব্যক্তি_ (কেবল বাহবা বাক্য-ব্যন্ন করিব] 
পাকে, ভাভাদের অপেক্ষ॥। ্রষ্টতর ব্যক্ভিগণ--নিজ শক্তিবলে 
বাভারা। সমুদস্স জগৎকে পরিচ।লিভ কব্িষাাছিলেন, যাহাদেরল 
হদদয়ে স্বারেরি লেশমাত্রও ছিল না, ভাভার। জগতের সম্ক্ষে 
ঘোষণা) কবির গিরাছেন থে, আমাদের জীবন সই সববাতীত 
অনস্তত্বরূপে লোৌছিনাঁ পথের একটি বিশ্রামস্থান-মাত্র 1 
ছ্বিতীনুত2, তাহারা কেবল এ্রইকপ বলেন ভাহী নহে, কিল 
উহার সকলকেই তথাকস ফাইবার পথ দেখাই) দেন, তাহাদের 
সাধন-প্রণালী সকলকেই বুঝাইবা। দেন বাহানত্ে সকলেই 
তাহাদের পদাছুসরণ করিকা চলিতে পারেন ॥ তুতীম়তঃ» পর্বের 
যে ব্যাখ্যা প্রদত্ত হইল», তাহা ব্যতীত জীবন-সমস্ত।র আর 
কোন প্রকার সম্তোবকর ব্যাখ্যা দেওয়। যাক্স না। যদি স্বীকার 
করা যায় যে, ইহ অপেক্ষা উচ্চতর অবস্থা আব নাই, তবে 
জিজ্ভাত্য এই যে, আমর) চিরকাল এই চক্রের ভিতর দিয় তেন 

১৩) 


বাজবোগ 


যাইতেছি ? কি যুক্তিতে এই দুশ্ঠম।ন সমুদক্স ব্যাপারাজ্সক 
জগতের ব্যাখ্যা করা বাম্স 2 যি আমাদের ইহা অপেক্ষ। অধিক 
দ্র যাইবার শক্তি না থাকে, বদি আমাদের ইহা অপেক্ষা অধিক 
কিছু প্রার্থনা করিব!র না খাঁকে, ভাহা হইলে এই পঞ্চেন্ছিক্স গ্রাহ্য 
্রগৎই আমাদের জ্ঞানের চবুম সীমা: রহিনা? যাইবে । ইহ।কেই 
অভ্নবাঁদ ব্লে। কিন্ত প্রঙ্্ এই, আমর ইন্দ্রের সমুদয় 
সান্ষ্যে যবে বিশ্বাস করিব, ভ্ঞাহারই বা বুক্তি কি? আমি 
তাঁহাকেই প্রক্কতত আঅজ্ঞেক্সবাদী বলিব, যিনি পথে চুপ করিম! 
দাঁড়াইক্সা থাঁকিনা মরিতে পারেন । যদি বুক্তিই আনাদের 
সর্বস্ব ভর. তবে তাভানে অ।নাদিগকে এই শৃম্তবাদ অবলম্বন 


করিব জগভে শ্থিন্ হইনা কোথাও তিচ্িতে দিনে ন।॥ কেবল 
অর্থ, যশ2, নামের আক1ভক্ষা এইুলি ব্যতীত পর সনুদর 
বিষরে নাভ্ডিক হইলে--০স €তকবল জ্ঞপ্াচোর মাত্র । ক্যাণ্ট 


€ জা). নিহসংশজ্িতভাবে স্্রমাণ করিনাছেলন বে, আনব? 
বুক্তিরূপ ছুন্ডেগ্ভ প্রাচীর অতিক্রম করিক্কা তাঁহার অতীত প্রদেশে 
যাইতে পারি না। কিন্তু ভাব্রতবর্ষে বত অত আবিস্কৃত 
হইন্পাছে তাহার সকলগুলিরই প্রথম কথা, বুক্তিন্ন পরপাবে 
গমন করা । বোগার। অতি সাহসের সহিত এই কব্রাজ্যের 
অন্বেষণে প্রবু্ত হন ও অনশ্েবষে এমন এক বস্ত লাভ করিস 
ক্ুতকাধ্য হন, বাহ বুক্তিব্ উপরে এবং €বখখানেই কবল 
আমাদের বর্তমান পরিদৃপ্তমান অবস্থার কারণ পাওর1 যাক্স | 
যাহাতে আমাদিগকে জগতের বাহিবে লইঙ্কা যাক» তাহার 
বিষস্থ শি্ষা করিবার এই ফল । "তুমি আমাদের পিত1, তুমি 
১৩০৭ 


উপ্াক্রমণিকা! 


আমাদিগকে অজ্ঞানের পরপারে লইজ্জা যাইবে 1৮ “ত্বং হি ন্‌হ 
পিতা, বোহ্স্মাকমধবিভ্যানাত পর পালং তারক লীতি” (অশোপ- 
নিষদ্‌্+ ৬1৮) ইহাই ধন্মবিজ্ঞান। আব কিছুই প্রক্কৃতি ধন্মবিজ্ঞান 
নামের বোগ্য হইতে পারে না! । 





১৩৩ 


পাতিগ্ঁল-যোগসুত্রে 
ওপাখজ আব্তায় 
সমাধি-পছছে 
অথ যোগানুশালনম্‌ ॥ ১ ॥ 
্রত্রার্থ এক্ষণে যোগ ব্যাখ্যা করিতে শু্রবুত্ত 
হওয। যাইতেছে । 
যোগশ্চিভবুভিনিরোধ? ॥ ২ ॥ 


স্কত্রার্থ_ চিন্তকে বিভিন্ন প্রকার বুক্তি অর্থাৎ অ'কার 
ব। পরিণাম গ্রহণ করিতে না দেওয়াই যোগ । 

ব্যাখ্যা এখানে অনেক কণা আমাদিগকে বুঝাইতে 
হইনে । প্রথমতঃ, চিন্ড কি ও বুভিগুলিই বা কি, শু |হ। 
বুঝিতে হইবে । আমার এরই চক্ষু ব্রভিম্াছে। চক্ষু বাস্তবিক 
দেখে না) যদি মন্ডিকষনধ্য্ক দশনেন্দির বা? দর্শনশক্তিটিকে 
নাশ করিয়া ফেল, তবে তোনার চক্ষু খপাকিতে পাবে, 
চক্ষের পুতুল অন্ত থাকিতে পারে, আর চক্ষের উপর যে 
ছবি পড়িক্সা দর্শন হয, তাঁহীও থাকিতে পারে তথাপি দেখ? 
বাইবে না। তবেই চক্ষু কেবল দর্শনের গৌণ যন্ত্র মাত্র 
হইল | উহা প্রকৃত দশনেক্দ্রিত্ নহে । দর্শনেক্দিয মন্ডিষষের 
অন্তর্গত নারুকেন্দ্রে অবস্থিত। স্ৃতরাং দেখা গেল, কেবল 

১৩)৪ 


যোগস্জ 


হইটি চক্ষুভে কোন কাজ হইতে পারে না। কখন কখন লোকে 
চক্ষু খ্ুলিয়। নিদ্রা বাম্ব। বাহ্য চি্রতটি বুহিক্সীছে, দশনেক্ছিসও 
বিস্বাছে, কিল্ তৃতীক্ম একটি বস্তর প্রস্পেঠেজন । গ্রহণ ধারণ জন্য )। 
মন্‌ ইন্্রিনে সংযুক্ত হও চাই । সুতরাং দর্শনক্রিস্সার জন্য চক্ষুব্দপ্‌ 
বৃভিখন্্, সক্তডিক্ষন্থ ম্বামুকেন্দ্র ও মন্‌ এই ভিন্টি জিনিসের আবশ্যক ॥ 
কখন কখন এমন হর যে, লাজ্তা দিক) গাড়ী চলিক্সা যাইতেছে, 


কিন্ত তুমি উহার শব্দ শুনিতে পাইতেছ না। ইহার 
কারণ কি? করণ ভোমার মন শ্রবণেক্ছ্িক্সে সংবুক্ত হয় 
নাই । অতএব প্রত্যেক অন্ুভবক্রিক্ার জন্য চাই-_ প্রথমতঃ, 


বাভিরের যন্ত্র, তৎ্পরে ইন্দ্র এবং তৃতীক্ত2, এই উভস্বেতে 
সনের যোগ । মন্‌ বিষক়ণভিঘাতুজনিত € আলোচনা ১ বেদনাকে আরও . 
অভ্যন্তরে বহন করিয়। নিশ্চত্বাকত্মিক। বৃদ্ধির নিকট অর্পন করে । 
ভন বুদ্ধি হইতে প্রতিক্রিয়া? € উহাপোহতত্জ্ঞান ) হন্স।? এই 
প্রতিক্রিক্ার সহিত অহংভাব জানিয। উঠে । আর এই ক্রিয়া ও 
'প্রতিক্রিনা্ সমন্টি, পুরুষ বা প্রকুত আত্মার নিকট অপিত, 
হয়! তিনি তখন এই মিশ্রণটিকে একটি (মুভি ও ব্যন্ধি ) বস্ত্রূপে 
উপলব্ধি করেন । ইন্ছ্রিস্সিগণ, মন, নিশ্চয়াত্মিক বুদ্ধি ও অহৎকার 
মিলিত হইস্স। যাহ ভস্ব* তাহাকে অন্তঃকরণ বলে ॥। চিভ্সংশ্ঞক 
মনের ভপরখদীনীভূত বস্তর ভিতর উহার ভিন্ন ভিন্ন প্রক্রিয়া- 
স্বরূপ ॥ চিন্তে অন্তর্গত এউ সকল চিন্তাপ্রবাহকে বৃত্তি (হ্বুণি ) 
নলে। এক্ষণে জিজ্ঞান্ত, চিস্ত। কি পদার্থ? চিজ্তা মাধ্যাকর্ষণ 
বা) বিকষণ-শক্তির ভ্াক্স একপ্রকার শক্তিমাত্র । প্রাকৃতিক 
শক্ডির অক্ষ ভাণ্ডার হইতে এই শক্তি পশুহীত। চিভ্তনামক 


৯৩০৫ 


নাজযোগ 


যন্ত্রটি এই শক্তিটিকে গ্রহণ করে, আর যখন উহা ভোত্িক 
প্রকৃতির অপর প্রান্তে নীত হয়, তখনই তাহাকে চিন্তা বলে । 
এই শক্তি আমাদের খাছ হইতে সংগৃহীত হস্ক। শ্রী খাছ 
হইতেই শরীরের গতি ইত্যার্দি শক্তি হম্স। আর চিন্তারপ 
সম্র্দর সুস্মতর শক্তিও উহা) হইতেই উৎপন্ধ হক্স॥ ক্যতবাং 
মন চৈতন্তমন্্ নহে । উহ আপাততহ টচৈতন্ঠমর ব্লিয়। তবোধ 
হস্স মাত্র । এইরূপ কবোধ হইবার কারণ কি? কারণ 
তচেতন্যমক্সম আত্মা উনার পশ্চাতে রহিক্বাছে। তুমিই একমাত্র 
€চতন্যমন্ম পুক্রষ-মন কেবল একটি যন্ত্রমাত্র, যদ্দার। তুমি 
বহিঞ্গণ্ অনুভব কর । এই পুহ্তকখাঁনির কথ। ধর, বাহিরে 
উহার পুস্ডক-ব্পী অন্তিত্ব নাই |, বাহিরে বাজ্ডবিক যাহ? 
আছে তাহ! অজ্ঞত ও অজ্কেকস। উহা! কেবল উভেজক কারণ 
মাত্র! যেমন জলে একটি প্রস্ডরখণ্ড নিক্ষেপ করিলে জল 
প্রবাহাকারে বিভক্ত হইব প্র প্রস্তর-খণ্ডকে প্রতিঘাত করে, 
তব্রপ উহ বাইক্কা মনে আঘাত প্রদান করে, আর মন হইতে 
একটি প্রতিক্রিসস) হক । স্মতরাং আসল বহিঞ্গতৎটি মানসিক 
প্রতিক্রিস্ার উত্তেজক কারণ মাত্র । প্ুক্তকাঁকার, গঙজাকার 
বা মন্ক্যাকান কোন পদার্থ বাহিরে নাইয বাহিনের 
উত্তেজক কারণ হইতে হযে মনের মধ্যে প্রতিষ্ক্রিয়া হক 
€কবলমাত্র তাহাই আম্রা জানিতে পাকি । জন ্টস্রার্ট 
মিল বলিক্বাছেন, “অনুভবের নিত্য সম্ভাব্যতা নাম ভূত ”9। 
বাহিরে কেবল শ্র প্রতিক্রিক্স। উৎপন্ন করিয়। দিবার উত্তেজক 
কারণ মাত্র রহিক্সাছে। উদাহরণ-স্থলে একটি শুক্তিকে 


১৩৩ 


যোগস্ত্র 


লওযা! যাউক। তোমরা জান, মুক্তা কিরুপে উতৎপন্ধ হস্স। 
এক বিন্দু বালুকণী% অথবা আর কিছু উহার ভিতরে প্রবেশ 
করিয়া উহাকে উত্তেজিত করিক্॥ থ।কে 52 তখন সেই শুক্তি শর 
বালুকার চতুর্দিকে একপ্রকার এনামেল-তুল্য আবরণ দিতে 
থাকে । তাহাতেই মুক্ত) উৎপন্ন হয়। এই সমুদক্স ব্রহ্গাণুই 
যেন আমাদের নিজের এনামেল-স্বর্প । প্রকৃত জগৎ ক্র 
বালুকা-কণ। । সাধারণ লোকে এ কথা কখন বুঝিতে পারিবে 
না, কারণ যখনই সে ইহা বুঝিতে চেষ্টা করিবে, তে তখনই 
বাহিনত্রে এনামেল নিক্ষেপ করিবে ও নিজের €সই 
এনামেলটিকেই দেখিবে। আমরা এক্ষণে বুঝিতে পারিলাম, 
বুক্তির প্রকৃত অর্থ কি। মানুষের প্রক্কুত স্বরূপ বাহ?» তাহা 
মনেরও অতীত । মন তাহার হস্ডে একটি যন্ত্রতুল্য £॥ তাহাঁরই . 
টত্তন্ত ইহার ভিতর দিবা আসিতেছে । ষখন তুমি উহার 
পশ্চাতে দ্রষ্টাক্পে অবস্থিত থাক, তখনই উহা ঠচতন্তময় হইস্স! 
উঠে । যখন মানব এই মনকে একেবারে ত্যাগ করে, 
তখন উহার একেবারে নাশ হইক্া যাস, উহার অন্তিত্ব মোটেই 
থাকে না । ইহা হইতে বুঝা ছেল, চিভ্ত বলিতে কি বুঝায় । 
উহ মনম্তত্-স্বরূপ--বুভ্তিগুলি উহার তবজ-স্বব্দপ, যখন 
বাহিরের কতকগুলি কারণ উহান্ উপর কাধ্য করে, 
তখনই উহা ক্র প্রবাহ-বূপ ধারণ করে । জগৎ বলিস্ব। 


শ. বৈজ্ঞানিক পণ্ডিতগণের মতে বালুকণা হইতে মুক্তার উৎ্পভ্ি, এই 
লোক্প্রচলিত বিশ্বাসটির কোন দৃঢ় ভিত্তি নাই, সম্ভবতঃ ক্ষুদ্র কীটাণু- 
বিশেষ (0,3,£5,5805) হইতে মুক্তার উৎপত্তি । 

১৩৭ 


রাজযোগ 


আমাদের যাহা ধারণা আছে, তাহার সমুদক্সছই কেবল এই 
বুক্তিগুলিকে বুঝিতে হইবে । 

আমরা তভ্রদের তলদেশ দেখিতে পাই ন1, কারণ উহার 
উপরিভাগ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র তরঙ্গে আবৃত ।॥। যখন সমুদকস তরঙ্গ শাস্ত 
ভইপ্প জল স্থির হইর়॥ যাঁর, তখনই কেবল উহার তলদেশেব 
ক্ষণিক দর্শন পাওনা সম্ভন। বযর্দি জল €ঘোল। খাঁকে ব। উভ। 
ক্রমাগত নভিতে থাকে, তাহ হইলে উহার তলদেশ কখনই 
দেখা বাইবে না । যদি উহা নিন্মল থাকে, আর উভাতে 
পিন্দুমাত্র তরঙ্গ না থাকে, তবেই "আমর? উহার তলদেশ দেখিতে 
পাইব। ত্রদের তলদেশ আমাদের প্রকৃত স্বর্ূপ- ত্রদটি চিত, 
আসার উহার তরঙ্গগুলি বুভিত্বরূপ । আবও দেখিতে পাওন! 
বায়, এই মন ভ্ঞবিধ-ভাবে অবস্থিতি করে; প্রথমটি 
অন্দধকা ক্রম অর্থাৎ মং, যেমন পশু ও অভি মুর্খদিগের 
মন । উহার কাধ্য কেবল অপরের অনিষ্ট করা 5 এইরূপ 
মনে আর কোনপ্রকা্ ভাব উদর হন্স না। দ্বিতীয্, মনের 
ক্রিক্াশীল অবস্থা, রজ১--এ অবস্থার কেবল গ্রভুত্ব ও ভোগেন 
ইচ্ছ। থাকে । "আমি ক্ষমতাশালী হইব ও অপরের উপর প্পরতভত 
করিব তখন এই ভাব থাকে । তৃতীর”, বখন্‌, সমুদ্র প্রবাহ 
উপশাস্ত হযর়-__হুদের জল নিন্মল হ্ইয়ী যায্__তাহাকে জঙ্ত 
না শাস্ত অবস্থা! বল) বাক্স । ইহ জড়াবস্থা নহে, কিন্তু অতিশন্ু 
ক্রিক্সা্াল অবস্থা)? । "শান্ত হওক শক্তির সর্ববাপেক্ষ।? উচ্চতম 
বিকাশ । ক্র্িক্সাশাল হওয়া ত সহজ !| লাগাম ছাড়িয়। 
দিলে অশ্বের। ভেমাকে আপনিই টানিত্র। লইক্স। যাইবে । 

৯২৩৮৮ 


বোগস্ঠজ 


যে সে লোকি ইহা করিতে পারে; কিন্ত যিনি এইরূপ 
দভ্রুতধাবনশীল অশ্বকে থাঁমাইতে পারেন, তিনিই মহাশিভিজ্ধর 
পুরুষ । ছাড়ি) দেও) ও বেগ ধারণ করা ইহাদের মধ্যে 
কোন্টিতে অধিকতর শক্তির প্রয়োজন ? শান্ত ব্যক্তি আর "অলস 
বাক্তি একপ্রকারের নহে । সন্তকে বেন অলসতা! মনে কর্রিও না। 
ঘিনি মনেব্র এই শতরঙ্গশুলিকে আপনার অধীনে আনিতে পারিক্সখছেন, 
তিনিই শান্ত পুরুষ | ক্ক্রিস্াণালত নিম্ন তর শক্তির ও শাম্তভাব উচ্চতর 
শক্তির প্রকাশ । 

এই চিভ্ত সদা-সর্ববদাই উহার স্বাভাবিক পবিত্র অবস্থ। 
পুনহ-প্রাপ্তির জন্ঠ চেষ্টা করিতেছে, কিন্ত ইন্দ্রিসসগুলি উষ্কাকে বাহিরে 
আকষণ কতক্ষণ বাখিতেছে । উহাকে দমন করবা, উহার বাহিরে 
যাইবার প্রবুর্ভিকে নিবারণ কর)? ও উহাকে প্রত্যাবুত্ত করিকা সেই 
চৈতন্গঘন্‌ পুরুষের নিকটে বাইবার পথে ফিরান-__ইহাই বোগের প্রথম 
সোপান ঃ কান্ণ কেবল এই উপাক্সেই চিত্ত উহার প্রক্কুত পথে 
বাইতে পারে । 

বদিও অতি উচ্চতম হইতে অতি নিমতম প্রানীর ভিতরেই 
এই চিত্ড ব্হিক্মাছে, তথাপি তকেবল মন্ষ্যর্দেহেই আমর) উহাকে 
বুদ্ধিকবূপে বিকশিত দেখিতে পাই। মন বতদিন না বুদ্ধির আকার 
ধারণ কব্রিতেিছে» ততদিন উহার পক্ষে এই সকল বিভিন্ম সোপানের 
মধ্য দিন্স। প্রত্যাবর্তন করিয়া আত্মাকে মুন্ত করা সম্ভব নহে । গে। 
অথব) কুকুরের পক্ষে সাক্ষাৎ মুক্তি অসম্ভব, কারণ উহাদের মন 
আছে বটে, কিন্তু উহাদের মনন এখনও বুদ্ধির আকার ধারণ করে 
নাই । 


৯৩০১ 


বাজযোগ 


এই চিত্ত অবস্থাভেদে নানা রূপ ধারণ করে, যথ__ক্ষিগু, 
মু়, বিক্ষিণ্ু ও একাগ্র (বিবেকখ্যাঁতি বা প্রসংখ্যান ) *॥। মন্‌ 
এই চারিপ্রকার অবস্থার, চারিপ্রকার ব্দগপ ধারণ করিতেছে । 
প্রথম, ক্ষিণ্-_বে অবস্থায় মন চারিদিকে ছড়াইক্প) যাক, বে 
অবস্থান কম্মবাসনা প্রবল থাকে । এইক্ধপ মনের চেষ্টা কেবলই 
সুখ ভুঃখ এই দ্বিবিধ ভাবে শ্রকাশ হওয়।।  ততৎ্পরে মুড 
অবস্থ।__উভা তমোশুণাত্মক £ঃ উহার চেষ্টা কেবল অপরের অনিষ্ট 
করা । বিক্ষিপ্ত অবস্থা তাহাই, বখন মন আপনার কেন্দ্রের দিকে 
যাইবার চেষ্টা করে ॥ এখানে টীকাকাঁর বলেন, বিক্ষিণুড অবস্থা 
দেবতাদের *ও মুড্াব্ন্থা! অস্থরদিগের স্বাভাবিক । একার চিতই 
আমাদিগকে সমাপ্িতে লইক্স যায় । | 


তদ! দ্রেষ্ট.৪ স্বরূপেহবস্থানম্‌ ॥ ৩ ॥ 


স্ুতার্থ-তখন € অর্থাৎ এই নিরোধের অবজ্থায় ) 
দুষ্ট € পুরুৰ ) আপনার € অপরিবর্তনীয় ) স্বরূপে অবস্িত 
থাকেন । 

ব্যাখ্য।__বখনই ্রবাহগুলি শাম্ত ভ্ইক্সী যায় ও হুদ 
শাস্তভাঁবাঁপন্ধ হইসক্সী যার, তখনই আমর) হ্ুদের নিক্ভূমি দেখিতে 
পাই । মন স্বন্ষেও এইরূপ বুঝিতে হইবে । যখন উহা শান্ত 
হইক্স॥। যাকস১ তখনই আমর আমাদের ম্বরূপ বুঝিতে পারি ঃ 


শ এখানে নিরদ্ধ € ধন্দমেন বা পরপ্রসংখ্যান ) অবস্থার কথা বল! হক 
নাই, কারণ নিরদ্ধাবস্থাক্ষে প্রকৃতপক্ষে চিন্তবৃতি বলা যাইতে পারে ন! 
৯৪০৩ 


যোগস্্ভ্র 


তখন অ।মর। এ প্রবাহগুলিব্র সহিত আপনাদিগকে মিশাইয্া। ফেলি ন।, 
কিন্ত নিজের স্বরূপে অবস্থিত থাকি । 


লে 


ব্াভ-সারূপতমিতরন্তর ॥ ৪ ॥ 

স্রত্রার্থ--অন্ঠাহ্য সময়ে €অর্থাৎ এই নিরোধের 
অবস্থা ব্যতীত সময়ে ) দ্রপ্ঘ। € চিত্ত ) বুক্তির সহিত এএকীভ্ভত 
ভইক্সা থাকেন । 
ণ ব্যাখ্য)--ঘেমনন কেহ আমাকে নিন্দা করিল, আমি 
অতিশনন ছুঃখিত হইল।ম ১ ইহা? একাকার পবিণাম-__একক্রকার 
বুর্ভি--আমি উহার সহিত আমাকে মিশ্রিত কক্িক্পা ফেলিতেছি £ 
উহ্শর ফল ছু । 

বুভয়৪ পঞ্চতব্য৪ ক্রিকাহুক্রিফলাত ॥৫ ॥ 
স্রত্রার্থ বুভ্ভি পীচপ্রকার-__ ক্রেশ-যুক্ত ও ক্রেশ-শুন্য | 


প্রমাণ-বিপধ্যয়-বিকল্স- নিছে! স্সতয়হ ॥ ৬ ॥ 
স্ত্রার্থ_ প্রমাণ, বিপধ্যয়*+ বিকল্প, নিদ্রা ও স্মৃতি 
অর্থাৎ সত্যজ্ভান, অভম-জ্ভীন, শাব্ভ্রম* নিদ্রা ও স্মতি__ 
বুক্তি এই “পাচ প্রকার । 
প্রত্তক্ষান্সমানাগমাহ অম্াণানি ॥ ৭ ॥ 
স্রত্রার্থ প্রত্যক্ষ অর্থাৎ সাক্ষাৎ অন্কভব* অন্থমান 
ও আগম অর্থাৎ বিশ্বস্ত লোকের বাক্য-__এইগুলিই 


প্রমাণ । 
৯১৪১ 


বাজযোগ 


ব্যাখ্য।--বখন আমাদের দুইটি অন্ভূতি পরস্পর পরস্পরের 
বিরোধী না হক, ভাভাকেই প্রমাণ বলে। আমি কোন 
বিষম্ম শুনিলাম ৮ বদি উহ)॥? কিছু প্ুর্ববানভৃভত নিযে বিরোধী 
হণ্র, ুবেই আনি ভহ্তারু বিরুদ্ধে শর্ক করিতে থাকি, উহ? কথনই 
বিশ্বাস করি না। ্রামাণ আনান তিন প্রকার । সাক্ষাৎ 
অনুভব বা প্রত্যক্ষ ইহা আএকপ্রকার এপ্রমাণ 1 বধর্দি আমর। 
কোনপ্রকার চক্ষুকর্ণের ভ্রমে না! পড়িক্সা থাকি, তাহা হইলে 
আমরা যাহ কিছু দেখি বা নুভবৰ করি, তাভাঁকে প্রত্যক্ষ 
বল$ বাইবে। আমি এইট জগাঙ তেখিতেছি», উহার অস্তিত্ব 


আছে, তাঁহার ইহাই বথেছু মান । ছ্বিতীষ্মত় অআন্মান-- 
তোমার কেন লিঙ্গজ্ঞান হইল ৷) 151 হইতে উহ? যে বিষয়ের 
স্চচনা কব্রিতেছে তাহাকে জানাইম। দেস্স। তৃতীন্গভঃ, 


বণগুবাকা- যোগী অর্ৎ বাহার? প্রকৃত সত্য দর্শন করিম্বীছেন, 
আহাদের প্রত্যক্ষান্গভূত্তি। আমরা সকলেই জ্ঞান্লাভের জন্গ 
ক্রঘাগত চেষ্টা ক্বর্রিতেছি । কিজ্০ু তোমাকে আমাকে উহার 
জন্য কঠোর চেষ্া করিতে তক, বিচার-ন্দপ দীখকালব্যাপী 
বিরক্তিকর ব্রাস্ত। দিস? গ্রনলর ভইতে হব্র, কিন্ত বিশুুদ্ধসত্ 


বোগী এই সকলের পারে গিক্বাছেন। তাহার মনশ্চক্ষের 
সমক্ষে ভূত, ভবিব্যত্+ বর্তমান সব এক হইক্সা গিন্রাছে», ভাহার 
পক্ষে উহারা বেন একখানি পাঠ্যপুস্তকত্বর্ূপ । আমাদের 


মত জ্ঞানলাভের প্র ম্বহুগতি বিরক্তিকর প্রণালীর ভিতর দিক? 

বাওকস।॥। তাহার পন্ষে আর আবশ্যক করে না । ভাহার 

বাক্যই প্রমাণ, কাতণ তিনি নিজের ভিতরেই সমুদক্স জ্ঞানের 
৯৪০ " 


,. ফোগস্তত্র 


উপলন্কি করেন । তিনিই সর্বজ্ঞ পুরুষ । এইরূপ ব্যক্ভিগণই 
শাস্ের রচগসিতা» আর এই জন্তই শাক্স প্রমাণ বলিক্ষা গ্রাহ্য | 
বদি বর্তমান সনক্ে এন্ধপ €লোক কেহ থাকেন, তবে তাহার 
কথা অবশ্য প্রমাণরূপে গণ্য হইবে । অন্যান্য দার্শনিকেরা এই 
অআ।প্রুসশ্বন্ষে আনেক বিচার করিক্সাছেন। তাহারা প্রশ্ন উত্থাপন 
কপ্রিস্াছেন, আগ্তবাক্য সত্য কেন ? তাহারা ইহার এই 
উত্তর দেন, “আগ্রবাক্যের প্রমাণ এই যে, উহা ভাহাদের প্রভাক্ষ 
অন্সভূত্তি ।৮- তেমন পুর্বভ্ঞানের বিরোধী না হইলে, তুমি যাহ? 
দেখ, আমি যাঁভ। দেখি, তাহা শ্রামাণ বলির গ্রাহ্য ভয়, 
উহারও প্রামাণ্য সেইরূপ বুঝিতে হইবে । ইন্ট্রিক্সের অতীত 
জ্ঞান লাঁভ করা সম্ভব; যখনই এ জ্ঞান, যুক্তি ও মন্ন্যে পুর্ব 
সত্য অন্ভূতিকে খণ্ডন না করে, তখন সেই জ্ঞানকে শ্রমাণ বলা। 
বাস । একজন উন্সভু ব্যক্তি 'আসিয়!। বলিতে পারে, আমি 
চারিদিকে দেবতা দেখিতে পাইতেছি |] উহাকে শ্রমাণ 
বল। যাইবে না। প্রথমতঃ, উহা সত্যজ্ভান ভওয়া চাই। 
দ্বিতীকতহ, উহা যেন আমাদের পুর্ববজ্ঞীনের বিরোধী না হন্স। 
তুতীক্তঃ, সেই ব্যক্তির চরিত্রের উপর উহ! নিরব করে । 
অনেককে এবূপ বলিতে শুনিত্বাছি যে, এরূপ ব্যক্তির চরিত্র 
কিরূপ দখিনা তত আবশ্যক নাই, তে কি বলে ০সইটিই 
জান! বিশেষদপে আবশ্যক- ০ কি বলে ইহাহ শ্ররথম 
শুনা আবশ্তাক । অন্যান্য বিষয়ে এ কথা সত্য হইতে পারে; 
কোন লোক হষ্টপ্রক্কতি হইলেও ০স ক্যোঁতিষ সম্বন্ধে কিছু 
আবিক্ধার করিতে পারে, কিন্ত ধর্মবিষয়ে স্বতস্্র কথ। +. কারণ 
৯৪৩ 


বাজযোগ 


কোন অপবিত্র ব্যক্তিই খন্মের প্রকৃত সত্য লাভ করিতে 
পারিবে না। এই কারণেই আমাদের প্রথমতহ দেখা উচিত, 
যে ব্যন্তি আপনাকে আপু বলিক্না) ঘোষণা করিতেছে, ০স 
ব্যক্তি সম্পূর্ণরূপে নিঃন্ব।র৫ ও পবিভ্র কি-না । দ্বিতীক্গতঃ, দেখিতে 
ভইবে, €স অতীক্ত্রিয় জ্ঞান লাভ করিক্াছে কি-না । তৃভীয়ত2, 
আমাদের দেখা? উচিত যে, সে ব্যক্তি যাহা বলে ভাহ। 
মন্তব্যভা1তিবর পুর্বব সত্যজ্ঞান ও অভিজ্ঞশার বিরোধী কি-না । কোন 
নূন্তভন সত্য অ।বিদ্রত হইলে, উভব3 পুর্বেবের কোন সত্যের 
খণ্ডন করে না বরং পূর্ব সত্যের সহিত ঠিক খাপ খাইক্স) যাক্স | 
চতুর্থত25, এ সত্যকে অপরের প্রত্যক্ষ করিবার সম্ভাব্যত? 
থাকিবে । যদি কোন ব্যক্তি বলে, আমি কোন অলৌকিক 
দৃথ্য দর্শন করিকাছি, জার সঙ্গে সঙ্গে বলে যে তোমার উহ? 
দেখিবার কোন অধিকার নাই, আদি তাহার কথা বিশ্বাস 
করি না । প্রত্যেক ব্যক্তি নিজে প্রত্যক্ষ উপলব্ধি করিব? 
দেখিতে পারিবে উহা সত্য কি-না । আবার বিন্ি ধন-_ 
বিনিময়ে আপনার ভ্ভঞান বিক্রপ্ম করেন, ভিন কখনই আপ্ 
নহেন। এই সমম্ড পরীক্ষান্স উত্তীর্ণ হওক? আবশ্যক ৷ 
প্রথমতহ দেখিতে হইবে, সই ব্যক্তি পবিত্র ও নিহন্যার্থ 
তাহার লাভ অথবা যশের আকাজ্ষা! নাই । দ্বিতীক্সতঃ, ইহ 
তাহাকে দেখাইতে হইবে যে, তিনি জ্ঞানাতীত ভূমিতে 
আরোহণ করিক্াছেন। তৃতীয়ত তাহার আমাদিগকে এনন' 
কিছু দেওয়া আবশ্তক যাহা আমরা ইন্দ্রিয় হইতে লাভ কব্রিতে 
পাননি না ও যাহ] জগতের কল্যাণকর । আবও দেখিতে হইবে 
৯৪৪ 


যোগস্তত 


যে, উহ1 অন্ঠান্ সত্যের বিরোধী না হয়ঃ বদি উহা অন্ঠান্ঠ 
১বজ্ঞানিক সত্যের বিরোধী হম্ম তবে উভা ততক্ষণাৎ পরিত্যাগ 
কর। চতুর্থতঃ, তেই ব্যক্তিই যে কেবল শ্র বিষক্ষের অধিকারী, 
আবর কেহ নম্বর, ভাঁহ ভইলে না । অপরের পক্ষে যাহা লাভ করা সম্ভব 
তিনি কেবল নিজের জীবনে তাহাই কাধ্যে পরিণত করিকা। দেখাইবেন । 
স্াঁভ? হইলে প্রমাণ তিন প্রকার হইল + প্রত্যক্ষ _ ইক্ড্রির-বিষন্সান্ুভূতি , 
অনুমান ও আশুবাক্য । এই আগ কথাটি ইংরাজীতে অনুবাদ করিতে 
পাঁরিতেছি না | উইভাকে অন্ঞপ্রাণিত (1550159) শব্দের দ্বার গ্রকাশ 
কর। যায় না; কারণ+ এই অন্গপ্রাণন বাহির হইতে আইসে, আর 
এক্ষণে যে ভাবের কথ) হইতেছে, তাহা ভিতর হইতে আইসে। 
ইহার আন্ষর্রিক অর্থ-__“যিনি পাইক্রাছেন” । | 
বিপর্যয়ে মিথ্যাজ্ভানমতন্জ পপ্রতিষ্ঠম্‌ ॥ ৮ ॥ 

স্রত্রার্থ-__বিপধ্্যক্স অর্থে মিথ্যা-জ্ভান, যাহা সেই বস্তর 
প্রকৃত-স্বরূপে প্রতিষ্ঠিত নহে । € উহ তিন শ্রকার-_ সংশয়, 
বিপবধ্যকস ও তর | ) 

ব্যাখ্যা__আর এক প্রকার বুক্তি এই বে. এক বস্ততে অন্য বস্তর 
ভ্রাস্তি। ইহাকে বিপধ্যয় বলে £ ষথা, শুক্তিতে রজত-ভ্রম । 

শব্দ-ভ্ভানান্ুপাতী বস্তশুন্যেো বিকলঃ ॥ ৯ ॥ 

স্রত্রার্থ_ কেবলমাত্র শব্দ হইতে ষে একগ্রকাঁর জ্ঞান 
উৎপন্ন হয়, অথচ তেই শব্দ-প্রতিপাছ্য বস্তর অস্তিত্ব যদি ন। 
থাকে, তাহাকে বিকল্প অর্থাৎ শব্দ-জাত ভ্রম বলে । ইহা! 
তিন প্রকার- বস্ত, ভরিয়া ও অভাব | ) 


১5৪৫ 


প্রাজযোগ 


ব্যাখ্যা বিকল নামে আর এক প্রকার বুভ্তি আসছে । একট। 
কণা শুনলাম, তখন আর আমর উহাব্ অর্থবিচার ধীরভাবে না 
করিয়া শাড়াতাড়ি একট সিদ্ধাস্ত করিয়া বসিলাম । ইহ? চিভ্ের 
হুরববলতার চিজ । সংবমবাদটি এখন বেশ বুঝ। যাইবে! মাক্ছব ষত 
হর্ববল হস, তাহার সংবমেবর ক্ষমত। ততই কম থাকে । সর্ববদ1 এই 
সংবমের মানদণ্ড দ্বারা আত্মপরীক্ষা। করিবে । যখন তোমার ক্রুদ্ধ 
অথব। হঃখিত হইবার ভাব আসিতেছে, তখন বিচার করিয়া দেখ যে, 
কোন সংবাদ তোমার নিকট আস্বামাত্র কেমন তোমার মনকে 
বুত্ভিতে পরিণত করিক্সা দিতেছে । 


অভাব-প্রত্যয়ালম্বন। বুাভিনিভ্া ॥ ১০ ॥ 


স্ুত্রার্থব__ষে বুক্তি শুহ্যভাঁবকে অবলম্কন করিয়া থাকে, 
সেই বুত্তিই নিদ্রা । 


ব্যাখ্যা আব এক শ্রকার বুভির নাম নিদ্রা (স্ব ও 
ন্ুবুণ্তি )। আমরা বখন জাগিক্স। উঠি, তখন আমরা জানিতে 
পারি যে, আমরা গুমাইতেছিলাম । অনুভূত বিষয়েরই কেবল 
স্সরতি হইতে পারে । বাহ আমরা অন্তভব করি না, আমাদের 
সেই বিষষ্ষের কোন স্মত্তি আসিতে পাবে ন7॥। প্রত্যেক 
প্রতিক্তিসাই চিভক্রদের শএ্রকটি তরঙ্গ-স্বর্ূপ | এক্ষণে কথা 
হইতেছে» নিদ্রাক্স যদি মনের কোন প্রকার বুক্তি না থাকিত, 
তাহ। হইলে এ অবন্থাম্ আমাদের ভাবাত্সক বা অভাবাত্মক 
কোন আঅন্তভূতি থাঁকিত না। স্তরাং আমরা ভহা স্মরণও 
করিতে পারিতাম না? ॥। আমরা বে নিত্রাবস্থাটি স্মরণ করিতে 

৯৪৩ 


বো গস্ত্র 


পারি, ইহ1তেই প্রমাণিত হইতেছে বে, নিদ্রীবস্থাক্স মনে এক প্রকার 
তরক্দ ছিল ॥ স্মতিও এক প্রাকার বুভ্তি ৷ 
অন্ুভ্ভতবিবয়াসহ্প্রমোবহ স্মসতিহ ॥ ১১ ॥ 
স্ত্রার্থী_অনুসভূত বিষয় সমস্ত যখন আমাদের মন হইতে 
চলিয়া! না যায €বখন সংস্কারবশে জ্ঞানের আযক্ত হয), 
তাহাকে স্মৃতি বলে । €ইহহা হই প্রকার-ভাবিভ ও 
অন্থভ্ঞভাবিত 1) 
ব্যাখ্যা পুর্বে নে চারি প্রকার বুক্তির বিষয় কথিত হইক্সাছে, 
ত।হার প্রত্যেকটি হইতেই স্র্তি আসিতে পারে । মনে কর, 
তুমি একটি শব্দ শুনিলে। ত্র শব্দটি যেন চিভুক্ুদে বিক্ষিপ্ত 
'প্রশ্ডর-তুল্য ১ উহ1তে একটি ক্ষুদ্র তরঙ্গ € প্রত্যকস ) উৎপন্ন ভক্স । সেই 
তরঙ্গটি আবার আরও অনেকশুলি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র তর্ঙ্গমাল! উত্পাদন 
করে । ইহাই € প্রাহা রূপ) স্মৃতি । নিদ্রাতেও এই ব্যাপার ঘটিকা! 
থাকে । যখন নিছা। নাক তরঙ্গ বিশেষ চিভ্ের ভিত স্মৃতির্প অনেক 
শুরঙ্গপরম্পর উত্পাদন করে», তখন ভহাকে শ্বপগ্ধ বলে । জাশ্রৎকালে 
নাহাকে স্মৃতি বলে, নিদ্রাকাঁলে সেইরূপ তরঙ্গকেই স্বপ্ধ বলিক্না থাকে । 
অভগ্রাসবৈরাগন্তাভতাৎ তন্িরোধও ॥ ১২ ॥ 
স্ত্রার্থ অভ্যাস ও বেরাগ্যের দ্বারা এই বুভ্িগুলির 
নিরোধ হয় । - 
ব্যাখ্যা-এই €বরাগ্য লাভ দরিতে হইলে, মন বিশেষক্ধপ 
নিষ্মল, সত ও বিচারপুর্ণ হওয়া)? আবশ্তক। অভ্যাস করিবার 


আবশ্যক কি? প্রত্যেক কাধ্যই হুর্দের উপরিভাগে কম্পননীল 
নি ১৪৭ 


'বাজযোশগ 
প্রবাহুন্বরূপ । প্রত্যেক কাধ্যেই যেন চিভহ্রদের উপব্র একটি 
তরঙ্গ চলির! যান্ন। এই কম্পন কালে নাশ হইস্সা যাকস। থাকে 
কি? সংস্কারসমৃহই অবশি্ থকে । মনে এইরূপ 'অনেক গুলি 
স্কার পড়িলে সেগুলি একত্রিত হইর)? অভ্যাসর্ধপে পরিণত 
হম্ম | পজঅভ্যাঁসই ছি্িতীক্সম স্বভাব” এইরূপ কথিত হইস্কা থাকে 2 
শুধু দ্বিতীক্স স্বভাব নহে» উহা? প্রথম স্বভাবও বটে__মান্থষের 
সমুদক্স স্বভাঁবই প্র অভ্যাসের উপর নিভর করে । আমরা এখন 
হবরূপ প্রক্ৃতিবিশ্িষ্ট বহিক্সাছি, তাহ পুর্ব অভ্যাসের ফল। 
সমুদ্র অভ্যাসের ফল জাচত্রুতিে পাব্িলে, আমাদের মনে 
সাস্তনা আইসে, কারণ বর্ণি আমাদের ব্ভমান স্বভাব কেবল 
অভ্যাসবশেই হইস্সা থাকে, তাহ হইলে আমর ইচ্ছ। করিলে 
যখন ইচ্ছ? শ্রী আঅভ্যাসকে নাশও করিতে পাতি । আমাদের 
মনের ভিতর বে চিস্তাপ্রবাহণুলি চলিক্স! যার», তাহার প্রত্যেকটি 
এক একটি দাগ রাখিক্স। বায়, সংস্কারগুলি তাহাদের সমগ্ি । 
আমাদের চরিত্র এই সমুদক্স সংস্কারের সমগ্তিষ্বর্ূপ । মখন কোন 
বিশেষ বুভ্ভিপ্রবাহু প্রবল ভম্ত, তখন লোকের সেই ভাব হইসস! 
দাড়ান । যখন সদ্‌্শুণ প্রবল হনব, তখন মানব সত হইঝ। বাক্স | 
বর্দি মন্দ ভাব প্রবল হয়, তবে মন্দ হইক্সা বাম্স। যদি 
আনন্দের ভাব প্রবল হয়, তবে মনুষ্য স্রী হইক্সা থাকে । 
অসত্, অভ্যাসের একমাত্র প্রতিকার__তাহার বিপরীত অভ্যাস । 
যত কিছু অলস অভ্যাস আমাদের চিত্তে সংক্কারবন্ধ হইক্স 
গিস্বাছে», তাহা! কেবল সত অভ্যাসের দ্বারা নাশ করিতে 
হইবে । তেব্ল সত্কাঁধ্য করির। যাও», সর্বদা পবিত্র চিন্ত! 
৯১৪৮৮ সি 





যোগস্ঠ্ত্র 

কর; অসৎ সংস্কার নিবারণের ইহাই একমাত্র উপাঁক্স ॥ কখনই 
বলিও না, অমুকের আর উদ্ধারের আশা নাই । কারণ অসৎ 
ব্যক্তি কেবল একটি বিশেষ প্রকার চরিত্র, যাহ? কতকগুলি 
অভ্যাসের সমষ্টিমাত্র« তাহাঁরই পরিচম্ম দিতেছে । নূতন ও 
সৎ অভ্যাসের দ্বার। এগুলিকে দূর করা যাইতে পারে। চরিত্র 
কেবল পুনঃ পুনহ অভ্যাসের সমষ্টিমাত্র । এইরূপ পুনহ পুনঃ 
অভ্যাাসই কেবল ত্বভাঁবকে সংশোধন করিতে পাবে ॥ 

তত্র স্থিতো যত্বোহভাসহ ॥ ১৩ ॥ 

স্ত্রার্থএ বুক্তিগুলিকে সম্পূর্ণরূপে বশে রাখিবর 
যে নিয়ত চেষ্ট।, তাহাকে অভ্যাস বলে । 

ব্যাখ্য।-- অভ্যাস কাহাকে বলে? মনকে দমন করিবার চেষ্ট। 
অর্থাৎ উহার প্রবাহর্পে বহির্পাতি নিবারণ করিবার চেষ্টাই অভ্যাস । 
স তু দীর্ঘকাল নৈরন্তধ্যস্কারদেবিতো দৃঢ়ভুমিহ ॥১৪॥ 


স্ত্রার্থ_ দীর্ঘকাল সদ! সকবদ। তীব্র শ্রদ্ধার সহিত 
€সেহু পরম-পদ-প্রাপ্তির ) চেষ্টা করিলেই অভ্যাস 
দৃঢভমি হইয়া যায় । 

ব্যাখ্যা_-এই সংযম এক দিনে আইসে না, দীর্ঘকাল 
নিরস্তর অভ্যাস করিলে পর 'আইসে । . 
দৃষ্টানুশ্রবিকবিবয্মবিতৃষ্ণস্ত বশীকার সংজ্ঞা! 

বেরাগতম্‌ ॥ ১৫ ॥ 
সুত্রার্থ_দৃশ্ট অথবা শ্রুত সববপ্রকান বিষয়ের 


৯১৪০১ 


বরাজযোগ 


আকাতক্ষা ঘিনি ত্যাগ করিয়াছেন, তাহার নিকট বে 
একটি অপ্ুকবব ভাব আইসে, যাহাতে তিনি সমস্ত বিষয়- 
বাসনাকে দমন করিতে পারেন, তাহাকে €তবরাগ্য ব। 
অনাসক্তি বলে । € উহ? চারি প্রকার__ফতমান, ব্যতিরেক, 
একক্দ্রির ও বনীকার |) 

ব্যাখ্য1-_-ছুইটি শক্তি ীমাদের সমু কাধ্যপ্রবৃভির 
নিষ্ামক--৫(১) আমাদের নিজেদের অভিজ্ঞত1» (২) 
অপরের অন্ভূতি । এই ছুই শক্তি আমাদের মনোহ্রদদে নান। 
ভবুঙ্গ উত্পাদন করিতেছে ॥। টতবরাগ্য এ শক্তিদ্ধয়ের বিরুদ্ধে 
বুদ্ধ করিবার ও মনকে বশ্পে বাখিবার শক্তিত্বরূপ ॥। হুভবাং 
আমাদের প্রয্জোজন-- ই কাধ্যপ্রবুর্ভির নিত্বামক শক্তিদ্বরকে 
শ্যাগা করিবার শক্তি লাভ কর! । মনে কর, আমি একটি পথ 
দিনা যাইতেছি* একজন €লাক আসিন্ন। আমার ঘডিটি কাড়িকস। 
লইল ৷) ইহা সামার নিজের প্রত্যক্ষানুভূতি । ইহা? আমি 
নিজে দেখিল।ম । ভহা আমার চিভ্কে তৎক্ষণাৎ োধরূপ 
নুর্ভিব আকারে পরিণত করিকা। দিল । এ ভাব আনসিতে দিবে 
না। যদি উহ নিবারণ করিতে ন। পার, তবে তোমাতে আছে 
কি? কিছুই নাই । যদি নিবারণ করিতে পার তবেই তোমার 
€ব্রালয আছে, বুঝা যাইবে । এইরূপ* সংসারী লোকে যে 
বিষয়ভোগ কনে তাহাতে আমাদিগকে শিক্ষা দেস্স যে বিবক্র- 
হোগই জীবনের চরম লক্ষ্য ॥ এ সকল আমাদের ভয়ানক 
প্রলোভন-স্বরূপ ॥। এ্রগুলিতে সম্পূর্ণ উদাসীন হওয়া ও মনকে 
উহাদিগকে লইযা বুভ্ভির আকারে পরিণত হইতে ন। দেওয়াই 

৮১৫৩ 


যোগস্ঠহ্ 


উবরাগ্য । ম্বাহভৃত ও পরানুভূত বিষক্ষম হইতে যে আমাদের 
দুই প্রকার কাধ্যপ্রবৃত্ি জন্মাক্স* উহাদিগকে দমন করা ও এইক্পে 
চিভ্কে উহাদের বশ হইতে না দেওয়াকে টবরাগ্য বলে। শ্রগুলি 
যেন আমার অধীনে থাকে, আমি তেন উহাদের অধীন না হই । 
এই প্রকার মনের বলকে বরাগ্য বলে-__এই ঠববাঁগ্যই মুক্তির 
একমাত্র উপাস্র | 


ত-্ুপরং পুরুষখ্যাতেগুদণবৈভৃষ্ত্তম্থ ॥ ১৬ ॥ 


্রত্রার্থি _ফে তীত্র বৈরাগ্য লাভ হইলে আমর 
গণগুলিতে পধ্যজ্ত বীতরাগ হই ও উহাদিগরকে পরিত্যাগ 
করি, তাহ?ই পুরুষের প্রকৃত স্বরূপ ও্রকাশ করিয়া দেয় । 


ব্যাখ্যা--বখন এই €বরাগ্য আমাদের শুণের প্রতি 
আসক্তিকে পধ্যস্ত পরিত্যাগ করান তখনই উহাকে শক্তির 
উচ্চতম বিকাশ €( অগ্র্যা ) বলা যার ॥। প্রথমে পুরুষ বা আত্মা কী 
ও গুণগুলিই ব। কী, তাহ। আমাদের জানা উচিত ।? যোগ- 
শাস্সের মতে, সম্মুদূর্ন প্রকৃতি ভ্তিগুণাত্সিক। ৮» প্র শুনগুলির 
একটির নাম তমঃ, অপরটি রজহ ও তৃতীক্ষটটি সত্ব । এই তিন্য 
গুণ বাহাজগতে আকর্ষণ, বিকর্ষণ ও উহাদের সামজভ্য-__ এই 
ভ্রিবিধ ভাবে প্রকাশ পাক ॥ প্রকৃতিতে যত বস্তু আছে» সমুদ্দক্স 
প্রপঞ্চই পরই তিন শক্তিন বিভিন্ন সম্বায়ে উতৎ্পন্গ। সাংখ্যের। 
প্রকৃতিকে নানাপ্রকার তক্বে বিভক্ত করিক্াছেন £ মন্থষ্যেকস আত্ম! 
ইহাদের সকলগুলির বাহিরে, প্রক্কতির বাহিরে ঃ উহ। ন্বপ্রকাশ, 
শুদ্ধ ও প্ুর্ণত্যরূপ £ আর প্রকৃতিতে যে কিছ চেতন্টের প্রকাশ 

১৫৯ 
১৬৯ 


বাজযোগ 


দেখিতে পাই, তাহার সমুদ্য়ই প্রকৃতির উপবে আত্মার প্রতিবিহ্ব 
মাত্র । প্রক্তি নিজে জড়।।॥ এটি স্মরণ রাখ! উচিত যে, 
প্রকৃতি বলিতে উহার সহিত মনকেও বুঝাইতেছে । মনও 
প্রক্ুতির ভিতরের বস্ত । আমাদের যাহ] কিছু চিস্তা, তাহাঁও 
প্রকৃতির অন্তর্গত ॥ চিন্তা হইতে অতি স্ুলতম ভূত পধ্যস্ত 
সমুদ্স্সই প্রকৃতির অন্তর্গত প্রকৃতির বিভিন্ন বিকাশ মাত্র । 
এই প্রকৃতি মনকে আত্মাকে আবুত বাখিক্বাছে £ যখন প্রকৃতি 
এ আবরণ সরাইয়? লন, তখন আত্মা আবরণমুস্ত হইস্স। 
ত্ব-মহিমাকর প্রকাশিত হন। পঞ্চদশ সুত্রে বণিত এই বৈব্রাগ্য 
ছার প্রক্কতি বশীভূত হন বলিক্পণ উহ আত্মার শ্রাকাশের পক্ষে 
অতিশম্ব সাহাষ্যকারী । পরন্ত্রে সমাধি অর্থাৎ পুর্ণ 
একাগ্রতার লক্ষণ বর্ণনা কর হইক্সাছে। ভহাই যোগার চরম 
লক্ষ্য | 

বিভর্কবিচারানন্দান্মিতারপান্ছগমাহ্ সম্প্রজ্ঞাতহ ॥১৭॥, 


স্তত্রার্থযষে সমাধিতে বিতর্ক, বিচার, আনন্দ ও 
অস্মিতা অনুগত থাকে» তাহাকে সম্প্রজ্ঞভাত বা সম্যক্‌ 
ভ্ভানপুর্ববক সমাধি বলে । 


ব্যাখ্য।_-সমাধি ছই প্রকার । একটিকে সম্প্রজ্ঞাত ও 
অপারটিকে অসম্প্রজ্ঞতাত ব্লে। এই সম্প্রজ্ঞাত সমাধিতে 
প্রক্কতিকে বশীকরণের সমুদ্বক্ব শক্তি আসে। সম্প্রজ্ঞাত সমাধি 
আবার চাবি প্রকার । হহাঁর প্রথম প্রকাঁরকে সবিতর্ক সমাধি 
বলে। সকল সমাধিতেই মনকে অন্ান্য বিষয় হইতে সরাইক্স। 

১৫২ 


যোগস্হজ্র 


বিষ্ববিশেষের পুনঃ পুনহ অন্ুধ্যানে নিযুক্ত করিতে হয়। এএই 
প্রকার চিস্তা বা ধ্যানের বিষয় হই প্রকার । প্রথম, জড়-_ 
চতুর্বিবংশতি তত্ব ও দ্বিতীক্প চেতন পুরুষ ॥ যোগের এই অংশটি 
লম্পুর্ণরূপে সাংখ্যদর্শনের উপর স্থাপিত । এই সাংখ্যপ্র্শনের 
বিষ তোমার্দিগকে পুর্বেবইি বলিক্সাছি। তোমাদের ল্মরণ 
থাকিতে পারে, মন বুদ্ধি অহঙ্কার_ ইহাদের এক সাধারণ 
ভিভ্ভিভূমি আছে । উহাকে চিত্ত বলে, চিত্ত হুইতেই উহাদের 
উৎপত্তি । এই চিত্ত প্রকৃতির ভিন্ন ভিম্ম, শক্কিগুলিকে গ্রহণ 
করিক্া উহাদিগকে চিস্তারপে পরিণত করে । আবার শক্তি 
ও ভূত উভস্মেরই কার্ণীভূত এক পদার্থ আছে, ইহা অবস্থাই 
স্বীকার করিতে হইবে । আই পদ্ার্থটিকে অব্যক্ত বলে_ উহু! 
স্ষ্টির প্রাক্কালীন প্রকৃতির অপ্রকাশিত অবস্থা । উহাতে এক 
কল পরে সমুদ্দস্স প্রক্তিই প্রত্যাবর্তন করে, আবার পরকলে 
উহা! হইতে প্ুনরাস্ন সমুদ্‌স্স প্রাহভূত হসক্ম। এই সমুদস্ষে 
অতীত প্রদেশে ঠতন্তঘন পুক্ুষ বহিস্াছেন। জ্ঞানই প্রক্ত 
শক্তি । কোন বস্তর জ্ঞানলাভ হইলেই আমরা উহার উপব্র 
ক্ষমত। লাভ করি । এরইরূপে যখনই আমাদের মন এই সমুদক্ 
ভিন্ম ভিন্ম বিষয় ধ্যান করিতে থাকে, তখনই উহাদের উপর 
ক্ষমত। লাভ করিক্সা থাকে ॥ যে প্রকার সমাধিতে বাহা কুলে 
ভূতগণই ধ্যেক্স হস্সর০ তাহাকে সবিতর্ক বলে। বিতর্ক অর্থে 
প্রশ্ন --সবিতর্ক অর্থে প্রশ্নের সহিত । যাহাতে ভ্ভৃতসমুহু 
উহাদের অন্তর্পত সত্য ও উহাদের সমুদসস শক্তি প্রন্ধপ 
ধ্যানপরায়ণ পুরুষকে প্রদান করে, যেন এইজন্য সূতগুলিকে প্রশ্ন 


৯৫৩ 


বাজযবোগ 


কবা,-_-তাহাঁকেই সবিতর্ক বলে। কিন্ত শক্তি লাঁভ করিলেই 
মুক্তি লাভ হস্স না । উহা কেবল ভে ।গের জন্য চেষ্টা মাত্র । 
আর এই জীবনে প্রকৃত €তভাোগন্থথ হইতেই পারে ন1। 
ভোগস্থখের ম্বেষণ বুথ, ইহাই জগতে অতি শ্রাচীন উপদেশ ॥ 
কিন্ত মানুষের পক্ষে ইহা ধারণা করা অতি কঠিন। যখন 
সে ইহার ধারণা করিতে পারে, তখন সে জগতেব্ অতীত 
হইস্স) মুক্ত হইস্কা যাকস। ষযেগুলিকে সাধাঁরণতহ গুহ্ৃশক্তি বলে, 
তাহা লাভ করিলে ভোগের বুদ্ধি হয় মাত্র, কিন্তু পরিশেষে 
তাহ)? হইতে আবার বযক্ত্রণারও বুদ্ধি হস্স। অবশ্য, বিজ্ঞানেক 
চক্ষে দৃষ্টি করির) পতভঞ্জলি এই গুহা শক্তিলাভের সম্ভাবনা 
ত্বীক।র করিয়াছেন । কিন্তু তিনি এই সমুদয় শক্তির প্রলোভন 
হুইতে আমাদিগকে সাবধান ক্রিক) দিতে ভুলেন নাই । 

আবার সেই ধ্যানেই যখন শ্রী ভূতগুলিকে দেশ ও কাল 
হইত্তে পুথক করিক্া উহাদ্িগের স্বরূপ চিস্তা করা যার, তখন 
সই সমাধিকে নিবিবতর্ক সমাধি বলে । যবখন আব এক 
সোপান অগ্রসর হইক্সা তন্মাত্রগুলিকে ধ্যানের বিষজ্জ করিস! 
উহার্দিগকে দেশকা!লের অন্তর্গত বলিয়া! চিতা কর! যাঁর, তখন 
তাহাকে সবিচ।র সমাধি বলে। আবার এ সমাধিতে যখন এ 
হুল্মভৃতগুলিকে দেশকালেন্র অতীত ভাবে লইক্সা উহাদের 
স্বরূপ চিস্তা কর যাস্স« তখন. তাহাকে নির্বিচার সমাধি বলে। 
ইহার পরবস্তী সোপান এই-_ইহাতে সুষ্্র, স্থল উভক্স প্রকার 
ভুতের চিন্তা পরিত্যাগ করিক্স অন্তঃকরণকে ধ্যানের বিবক্ 
করিতে হর । যখন অস্তঃকরণকে বজভ্ডমোলেশানুবিদ্ধর্ূপে চিন্তা 

১৫৪) 


[বু রে 


যোগস্তত্র 


করা হয়, তখন উহাকে আনন্দ সমাধি বলে। যখন আমরা 
অন্তঃকরণকে রজভ্তমলেশশৃন্ত শুদ্ধ সত্বরূপে চিন্তা করি, যখন 
সমাধি বিশেষ পরিপকক হইব যায়, যখন স্থুল স্ুঙ্ম সমুদনর 
ভূতের চিন্তা পরিত্যক্ত হ্ইকসা মনের স্বরূপাবস্থাই ধ্যেক্স বিবর 
হইব দাড়ায়, কেবল সাত্বিক অহঙ্কার মাত্র অন্তান্ত বিষক্র 
হইতে পৃথথকৃকৃত হইয়। বর্তমান থাকে, তখন উহাকে অস্মিত 
সমাধি বলে। এ অবস্থাও সম্পূর্ণরূপে মনের অতীত হওয়া 
যায়, না। যে ব্যক্তি প্র অবস্থা পাইন্াছেন, তাহাকে বেদে 
“বিদেহ” বলিক্া থাঁকে। তিনি আপনাকে স্থুলদেহশূন্ধরূপে 
চিস্ত। করিতে পারেন বটে, কিস্ত তাহার নিজেকে সুস্মশরীরধারী 
বলিয়া চিন্তা করিতে হুইবেই হইবে । বাহাঁরা এই অবস্থার 
থা1কিক্স।ী সেই পরমপদ লাভ না) করিক॥ প্রকৃতিতে লয় প্রাপ্ত 
হন, তীহাদ্দিগকে প্রকৃতিলীন বলে? কিন্তু বাহার এ প্রকার 
লক ভোগম্থথেও সঙ্থ নন, তীাহারাই চরমলক্ষ্য মুক্তিলাভ 
করেন । 


বিরাম-প্রত্যয়াভ্যাসপুর্ব্বঃ সংস্কার শেষোহন্যঃ ॥ ১৮ ॥ 


স্ত্রার্থ অন্য প্রকার সমাধিতে সব্বদা সমুদয় 
মানসিক ক্রিয়ার বিরাম অভ্যাঁস করা হয়, কেবল (ব্যু্থান 
প্রত্যয়হীন ) সংস্কার-মাত্র অবশিষ্ট থাকে । 

ব্যাখ্য।--ইহাই পুর্ণ জ্ঞানাতীত অসম্প্রজ্তাত সমাধি; 
প্র সমাধি আমাদিগকে মুক্তি দিতে পারে। প্রথমে যে সমাধির 
কথ। বল। হইয়াছে তাহা আমাদিগকে মুক্তি দিতে পারে না 


৯৫৫ 


বাজযোগ 


আত্মাকে মুক্ত করিতে পাবে না। একজন ব্যক্তি সমুদ্স্স শক্তি 
লাভ কন্সিতে পারে, কিন্তু তাহার পুনরাস্থ পতন হইবে। 
যতক্ষণ না আত্মা প্রকৃতির অতীতাঁবস্থাক্স গিয়া সম্প্রশ্ভাত 
সমাধিরও বাহিরে ষাইতে পাবে, ততক্ষণ পতনের ভক্ব থাকে । 
যদিও ইহার প্রণালী খুব সহজ বলিক্প'? বোধ হক্স, কিন্ত ইহ! 
লাভ কর$ অতি কঠিন । ইহার প্রণালী এই--মনকে ধ্যানের 
বিষ কিক যখনি তাহাতে কোন চিস্তা আসিবে, তখনি 
তাহাকে দাবাইক্সা। দেওকা। মনের ভিতর কোন প্রকার চিত্ত! 
আসিতে না দিয়া উহাকে সম্পূর্ণরূপে শুন্য করা । যখনি আমর 
হহ)। যথার্থক্পে সাধন করিতে পারিৰব* সেই মুহূর্তেই আমর? 
মুক্তি € পর প্রসংখ্যান ) লাভ করিব । প্রুর্বব সাধন ধাহার। আক্মভ না 
করিয়াছেন, তাহার! যখন মনকে শুহ্য করিতে চেষ্টা পান, তখন 
তাহাদের চিত্ত অজ্ঞান্-ত্বভাব তমেোঁশুণ ছারা আবুত হইক্স॥ বাক্স, 
তাহাতে তাহাদের মনকে অলস ও অকম্মমণ্য করিক্বা ফেলে । তাহারা 
কিন্ত মনে করেন আমর) মনকে শুন্কভশবে ভাবিত করিতেছি । ইহ? 
প্রককৃতরূপে সাধন করিতে সমর্থ হওযস। উচ্চতম শক্তির '্রকাশ--- 
মনকে শুন্ঠ কব্িতে সমর্থ হইলেই সংষমের চূড়াস্ত হইস্সা গেল । 
যখন এই অসম্প্রজ্ঞাত অর্থাৎ জ্ঞানাতীত অবস্থা লাভ হক্স, 
তখন ক্র সমাধি নিব্বীজ হইক্সা যাঁক্স। সমাধি নিব্বাজ হয়» ইহার 
অর্থ কি? সম্প্রজ্ঞাত সমাধিতে চিভ্বুত্তিগুলি দমিত হয মাত্র, 
উহাবর। সংস্কার বা বীজ আকারে অবশিষ্ট থাকে । আবার সমস 
আসিলে তাহার! পুনরায় তরঙ্গাকারে প্রকাশিত হইক্স। থাকে । 
কিন্ত যখন সংস্কারশুলিকে পধ্যন্ত নির্শল করা হয়» যখন মনও 


১৫ড 


যোগত্জ 


প্রায় বিন হইন্সা আসে, তখনই সমাধি নিব্বীজ হইস্সা যাক্স । তখন 
মনের ভিতর এমন কোন সংস্কার-বীজ থাকে না, যাহা হুইতে এই 
জীবনলতিক। পুনহ পুনঃ উৎপন্গ হইতে পারে--যাহা! হইতে এই 
অবিরাম জন্মমৃত্যুচক্র প্রবাহিত হইতে পানে । 

অবস্তা তোমরা জিজ্ঞাসা করিতে পার যে, জ্ঞান থাকিবে না, 
মে আবার কি প্রকার অবস্থা । যাহাকে আমরা জ্ঞান বলি, 
তাহ? এ জ্ঞানাঁতীত অবস্থার সহিত তুলনায় নিম্নতব্ু অবস্থামাত্র । 
এইটি সর্ববদ? স্মরণ রাঁখা উচিত যে, কোন বিষয়ের সর্বেবোচ্চি ও 
সর্বনিম্ন প্রাস্তদ্ম্ন প্রাস্স একই প্রকার দেখাক্ব। হথারেন কম্পন 
মুহুতম হইলে উহাকে অন্ধকার বলে, আবার উহার উচ্চতম 
কম্পনও অন্ধকারের ভাস দেখাক । কিন্তু ওর ছুই প্রকার 
অন্ধকারকে কি এক বলিতে হইবে ?£ উহার একটি-_প্রক্কত 
অন্ধকার, অপরটি-_-অতি তীব্র আলোক, তথাপি উহারী। দেখিতে 
একই প্রকার ॥ এইরূপে» অজ্ঞান সর্বাপেক্ষা নিম্াবস্থা, জ্ঞান মধ্যাবস্থ1» 
আর এ জ্ঞানেক্ব অতীত (বিজ্ঞান্ধাতু ) একটি উচ্চ অবস্থা আছে। 
ককিম্ত অজ্ঞানাবস্থা ও জ্ঞানাতীত €(নিঃসত্ত নিজীব ) অবস্থ। দেখিতে 
একই প্রকার । আমরা ধাহাকে জ্ঞান বলি+ তাহা এক উৎপন্ দ্রব্য-_ 
উহ? একটি মিশ্র পদার্থ, উহ? প্রক্কৃত সত্য নহে ॥। এই উচ্চতর সমাধি 
ক্রমাগত অভ্যাস কৰিলে তাহার কি ফল হইবে? উহাতে 
এই অভ্যাসের পুর্বেধ আমাদের অস্থিরতা ও জড়ত্বের দিকে 
মনের যে একটা প্রবণতা ছিল, তাহা ত নষ্ট হইবেই, সঙ্গে সঙ্গে 
সব্প্রবুত্তিরও নাশ হইক্স/া যাইবে । অপরিক্কত ক্বর্ণ হইতে 
উহার খাদ বাহির করিবার জন্ত কোন রবাসপাক্ষনিক ভ্রব্য 


১৬৭ 


প্লাজযোগ 


মিশাইলে যাহা হয়, এ ক্ষেত্রেও ঠিক তাহাই হইক্স) থাকে । যখন 
খন্মি হইতে উত্তোলিত অপরিস্কত ধাতুকে গলান হয়, তখন বে. 
ব্রাসায়নিক পদার্থশুলি উহার সঙ্গে মিশান হয়, সেগুলি প্র খাদের 
সহিত গলির] যাক্স। এই প্রকারেই সর্বদা পুর্ব্বোক্ত সমাধি 
অভ্যাসরূপ সংবযম-শক্তিবলে প্রথমে প্ুর্ববতন অসৎ প্রবুভ্ভিশুলি 
ও পরিশেষে সত্প্রবৃত্তিগুলিও চলিক্সা যাইবে । এইব্ধপে সদসৎ্, 
প্রবুভিদ্বয়ের নিরোধে আত্মা সর্বববন্ধনবিসুস্ত হইয়া) ম্বমহিমাসর 
সর্বব্যাপী» সর্বশক্তিমান ও সর্বজ্ঞ কব্দপে অবস্থিত থাকিবেন । 
স্ষতরাৎ সমুদক্স শক্তি ত্যাগ কর্সিলেই আমরা সর্বশক্তিমান 
হইতে পারি, এই ক্ষুদ্র জীবনের অভিমান ত্যাগ করিলেই 
আমর ম্বত্যু অতিক্রম করিস? মহাপ্রণণরূপে অবস্থিত হইতে 
পারি । তখন মাছৰ জানিতে পারিবে, কোঁনকালে তাহার 
জন্মম্ুত্যু ছিল ন1, তাহার ব্বর্ঁ ব। পৃথিবী কখনই কিছুরই 
প্রক্নোজন ছিল না। সে তখন বুঝিবে, তাহার আসাবাওযষ। 
কোন কালেই নাই, আঁসা-যাঁওক্া)? কেবল প্রক্কতির । আর 
প্রকৃতির বর গতিই আত্মার উপর প্রতিবিস্থিত হইয়াছিল । 
কাচ হইতে প্রৃতিবিশ্বিত হইক্সা প্রাচীরের উপর আলোক 
পড়িক্নাছে ও নডিতেছে। প্রাচীর নির্বেবেধের মত ভাবিতেছেঃ 
আমিই নডিতেছি । আমাদের সকলের সন্বন্ষেই এইক্প % 
চিভ্তই ক্রমাগত এদিক ওদিক যাইতেছে, উহা? আপনাকে 
নানাক্পে পরিণত করিতেছে, কিম্তু আমরা মনে করিতেছি, 
আমরা আই বিভিন্গ আকার ধারণ করিতেছি । অসম্প্রজ্ঞাত 
সমাধির অভ্যাসে এই সমুদক্ব অভ্ভঞানই চলিক্সা যাইবে । সেই 
১৫৮ 


যোগস্চত্র 


মুক্ত আত্মা যখন যাহ) আজ্ঞা কৰিবেন-প্রার্থনা ব1 ভিক্ষুকের 
মত যাজ্ঞা নয়, কিল্ত আত্ঞা করিবেন,_-তিনি যাহ ইচ্ছ? 
করিবেন তৎক্ষণাৎ তাহাই পুর্ণ হইবে, তিনি বখন যাহ। ইচ্ছ। 
করিবেন, তখন তাহাই করিতে সমর্থ হইবেন । সাংখ্যদ্শনের 
মতে ঈশ্বরের অন্ডিত্ব নাই। এই দর্শন বলেন, জগতের ঈশ্বর 
কেহ থাকিতে পারেন না, কারণ যদি তিনি থাকেন, তাহ! 
হইলে তিনি নিশ্চয়ই আত্মা, আব আত্মা) বদ্ধ কা মুক্তস্বভাব-_ 
এই উভক্সের অন্তর । ০ আজ্সা প্রকৃতির বশীভূত, প্রকৃতি হে 
আত্মার উভপবর্ব আধিপত্য স্থাপন কত্রিকশধছেন, তিনটি কিবূপে 
স্ষ্টি করিতে পারেন? তিনি ত নিজেই দ্াসরূপ ॥ আবার 
যঙ্দি অপর পক্ষ গ্রহণ কর! যায়, অর্থাৎ আত্মাকে ব্ধি মুক্ত 
বলি! ম্বীকার করা যাস» তবে এই আপভ্তি আসে যে, মুক্ত 
আত্মা! কিব্ধপে স্হট্টি ও এই সম্বদন্ জগতের ক্কিকাদি নির্বাহ 
করিতে পারেন ? উহার তোঁন বাসনা থাকিতে পাবে না, 
কৃতরাং উহার স্যষ্টি ও জগতৎশাঁসনাদদি করিবার কোন প্রক্মোজন 
থাকিতে পারে না। দ্বিতীব্রতঃ, এই সাংখ্যদর্শন বলেন যে, 
ঈশ্বরের অন্ডিস্ব ম্বীকার করিবার কোন আবশ্তক নাই । 
প্রকৃতি স্বীকার করিলেই বখন সমুদ্ন্ন ব্যাখ্যা কর যাক, তখন 
ঈশ্বরের আর প্রকেোজন্ন কি? তবে কপিল বলেন, অনেক 
আত্মা এরূপ আছেন, যাহার সিদ্ধাবস্থার কাছাকাছি যাইক্সাও 
বিভূতিলাভেন্ন বাঁসন। সম্পূর্ণরূপে ত্যাগ করিতে না পারাক্ষ 
যোগভষ হন । তাহাদের মন কিছুদিন প্রকৃতিতে লীন হইক্স! 
থাকে £ তাহারা যখন আবার উৎপন্গ হন, তখন প্রককতির 


১৫০ 


বরাজযোগ 


প্রভু হইক্সা আসেন ॥। ইহার্দিগকে যদ্দি ঈশ্বর বল, তবে একবপ 
ঈশ্বর আছেন বটে। আমরা সকলেই এক সমক্ষে এক্সপ 
ঈশ্বরত্ব লাভ কৰিব । আব সাঁংখ্যদর্শনের মতে, €ব্দে হে 
ঈশ্বরের কথা বধবিত হইক্বাছে* তাহা এইরূপ একজন মুক্তাত্মার 
বর্ণনা! মাত্র । ইহা ব্যতীত নিত্যমুক্ত, আনন্দময়, জগতের 
স্য্টিকর্তী কেহ নাই । আবার এদিকে যোগীরা বলেন, “না, 
একজন ইঈশ্ব্ আছেন, অন্ঠান্য সমুদক আত্মা সমুদক্স পুরুষ 
হইতে পুথথক একজন বিশেষ পুরুষ আছেন5 তিনি সমুদক্স 
স্প্টির অনস্ত নিত্য প্রভু, নিত্যমুক্ত» সমুদম্ম গুরুর গুরুত্বর্ূপ 1৮ 
যোগীর। ন্অবশ্ত, সাংখ্যেরা বধাহার্দিগকে প্রকুতিলীন বলেন, 
তাহাদেরও অন্তত ত্বীকার করেন। তাহারা বলেন ষে, 
ইহারা ধেোগভ যোগী । কিছুকালের জন্য তাহাদের চরমলক্ষ্যে 
গমনের ব্যাঘাত ঘটিক্স। থাঁকে বটে, কিন্ত তাহারা সেই সমকে 
জগতের অংশবিশেষের অধিপতিব্দপে অবস্ফিতি করেন । 


ভব-প্রত্যয়ে। বিদেহ-প্রকৃতিলয়ানাম্‌ ॥ ১৯ ॥ 


স্রত্রার্থ_( সমাধি পর-রব্রাগ্যের সহিত অনুষ্ঠিত 
না হইলে ) তাহাই দেবতা ও ্রকৃতিলীনদিগের 
পুনরুৎপন্তির কারণ । 

ব্যাখ্য।_ ভারতীক্ম সমুদক্স ধর্মশপ্রণালীতে দেবত1 অর্থে 
কতকগুলি উচ্চপদস্থ ব্যক্তিকে বুঝাস্ম। ভিঙ্গ ভিন্ন জীবাত্ম। 
ক্রমান্বয়ে এ পদ পুর্ণ করেন। কিম্তু ইহাদের মধ্যে কেহই 
পূর্ণ নহেন। 

১৩০৩ 


যোপত্ত্জ 

শ্রদ্ধাবীধ্যস্মতিসমাধিপ্রভ্ভাপুর্বক ইতব্েষাম্‌ ॥২০॥ 
স্তত্রার্থ_অপর কাহারও কাহারও নিকট শ্রদ্ধা অর্থাৎ 
বিশ্বাস, বীধ্য অর্থাৎ মনের তেজ, স্মৃতি, সমাধি বা 
একাগ্রতা ও সত্য বস্তর বিবেক হইতে এই সমাধি 


উৎপন হয়। 

ব্যাখ্যা বাহার দেবত্বপদদ অথবা) কোন কলের শাসনভাব 
প্রার্থনা না? করেন, ভাহাদেরই- কথ? ব্ল। হইতেছে । তাহার। 
মুক্তিলাভ করেন । 


তীব্রসংবেগানামাসনহ ॥ ২১ ॥ 


্ুত্রার্থ_ধাহারা অত্যন্ত আগ্রহযুক্ত বা উৎসাহী, 
তাহারা অতি শীম্রই যোগে কৃতকাধ্য হন। 
ম্বছুমধ্তাধিমাত্রত্বা ততোহুপি বিশেষহ ॥ ২২ ॥ 
স্রত্রার্থ_ আবার ম্বহ চেষ্টা, মধ্যম” চেষ্টা, অথবা অত্যস্ত 
অধিক চেষ্টা-_এই অন্ুসারেই ঘযোশিগণের সিছ্ধির বিশেষ 
বা ভেদ দেখা যাষ। 
জঈশ্বরপ্রণিধানাদা ॥ ২৩ ॥ 
স্রত্রার্থ_ অব! ঈশ্বরের প্রতি ভক্তি দ্বারাও € সমাধি 
লাভ হয় )১। 
ক্রেশকন্পবিপাকাশয়ৈর পরাস্বষ্টঃ 
গুরুববিশেষ জশ্বরহ ॥ ২৪ ॥ 
৩৩৯ 


বাজযোগ 


সুত্রার্থী_-এক বিশেষ পুরুষ, বিনি ছহহখ, কল্প, 
কম্মকল অথবা বাসনা দ্বারা অস্পষ্ট, তিনিই ঈশ্বর 
€ পরম নিয়ভ্তা )। 

ব্যাখ্যা আমাদের এখানে পুনরাক় স্মরণ করিতে হইবে যে, 
পাতগ্ল যোগশাস্স সাংখ্যদর্শন্ের উপর স্থাপিত» কিন্ত সাংখ্যদশ্শনে 
ঈশ্বরের স্থান নাই 5 যোগার কিন্ত ঈশ্বর স্বীকার করিস থাকেন । 
যোগীরা ঈশ্বর স্বীকার করিলেও স্হিকর্তৃত্বার্দি ঈশ্বরসম্বন্ধীন বিবিধ 
ভাবের কোন প্রসঙ্গ উত্থাপন করেন না। বোগাদিগের ঈশ্বর 
অর্থে জগতের স্ষ্টিকর্ত। ঈশ্বর স্চিত হন্‌ নাই, বেদমতে কিন্ত 
ঈশ্বর জগতের স্হষ্টিকর্তী । বেদের অভিপ্রাক্স এই», জগতে যখন 
সামজস্ত দেখ। যাইতেছে, তখন জগৎ অবশ্ত এক ইচ্ছাশক্তিরই 
বিকাশ হইবে। 

যোগীরা ঈশ্বরাক্ডিত্ব স্থাপনের জন্য এক নুতন ধরনের বুক্তির 
অবতারণা করেন । শুহার। বলেন” 

তত্র নিরতিশয়ং পর্ববভ্তত্ববীজম্‌ ॥ ২৫ ॥ 


স্ত্ার্থ _অন্যেতে যে সর্ববজ্ঞত্বের বীজ আছে, তাহা 
ভাহাতে নিরতিশয় অর্থাৎ অনস্ত ভাব ধারণ করে । 
ব্যাখ্যা__মনকে অতি বৃহ ও অতি ক্ষুদ্র এই হইটি চূড়াস্ত 
ভাবের ভিতর ভ্রমণ করিতে হইবেই হইবে । তুমি অবশ্ত্য 
সীমাবদ্ধ দেশের বিধন্স চিস্তা করিতে পার, কিন্ত উহ চিস্ত। 
করিতে গেলেই, উহার সঙ্গে সঙ্গে তোমাকে অনস্ত দেশের চিস্ত। 
করিতে হইবে । চক্ষু মুদ্রিত করিক্সা যদি একটি ক্ষুদ্র দেশের 
৭৬০ 


যোগস্তত্র 


বিষম চিস্তা কর, তাহা হইলে দেখিতে পাইবে, যে মুহূর্তে শ 
ক্ষুদ্র দেশর্দপ ক্ষুত্রবৃর তদেথিতে পাইতেছ» তেই মুহূর্তেই উহার 
চতুর্দিকে অনস্ত বিস্তৃত আর একটি বুভ্ত রহিক্সাছে। কাল 
সম্বন্ষেও এর কথ।॥?। মননে কর, তুমি এক সেকেও্ সমরের বিবস্স 
ভাবিতেছ*, তৎ্সঙ্গেসঙ্গেই তোমাকে অনস্ত কালের কথা চিন্তা 
করিতে হইবে । ভান সন্বন্ধেও শ্রব্ূপ» ম।ন্ছষে কেবল জ্ঞানের 
বীজ-ভাঁব আছে । কিন্ত প্র ক্ষুদ্র জ্ঞানের চিস্ত। করিতে হইলেই 
উহার. সঙ্গে সঙ্গে অনস্ত জ্ঞানের বিষয় চিস্তা করিতে হইবে । 
স্থতরাং আমাদের নিজ মনের গঠন ইহ] হইতেই €বশ প্রতিপন্গ 
হইতেছে বে, এক অনস্ত জ্ঞান বহিক্াছে । যোগী সেই অনস্ত 
জ্ঞানকে ঈশ্বর বলেন । 


স পুর্ববেষামপি গুঞ্5 কালেনানবচছ্ছেদাহ ॥ ২৬ ॥ 


সুত্রার্থ_ তিনি পুকব পুবব € শ্রাচীন ) গুরুদিগেরও 
গুরু, কারণ তিনি কালদ্বারা সীমাবদ্ধ নন । 

ব্যাখ্যা_আ মাদ্দিগের অভ্যন্তরেই সমুদয় জ্ঞান রহিয়াছে 
বটে, কিম্তভু অপর এক জ্ঞানের দ্বার) উহাকে জাগব্িত করিতে 
হইবে । জানিবার শক্তি আমাদের ভিতরেই আছে বটে, কিস্ত 
উহাকে জাগাইতে হইবে । আর তোগীরা বলেন, প্ররূপে জ্ঞানের 
উন্মেবক কেবল অপর একটি জ্ঞানের সাহাব্যেই সম্ভব হইতে পারে । 
জড়» অচেতন ভূত কখন জ্ঞান বিকাশ করাাইতে পারে না 
কেবল জ্ঞানের শক্তিতেই জ্ঞান বিকাশ হইক়া॥ থাকে । 
আমাদের ভিতরে যে জ্ঞান আছে, তাহার উন্মেষের জন্ত জ্ঞানী 


১৩০৩ 


বাজযোগ 


ব্যক্তিগণের সর্বদাই আমাদের নিকট থাকার প্রস্বোজন, ক্ৃতরাং 
এই গুক্গণের সর্বদাই প্রক্সোজন ছিল । জগৎ কখনও এই 
সকল আচাখ্যবিরহিত হস্স নাই। কোন জ্ঞানই তাহাদের 
সহায়ত ব্যতীত আসিতে পাবে ন)7। জীশ্বর সমুদয্স শুরুরও ওর» 
কারণ, এই সমন্ড শুরুগণ যতই উন্গত হউন না কেন, তাহার! 
দেবতাই হউন, অথবা ত্বর্গদ্ৃতই হউন, সকলেই বদ্ধ ও কাল 
ঘ্বারা সীমাবদ্ধ, কিস্ত ঈশ্বর কাল দ্বারা আবদ্ধ নন । যোশগীদিগের 
এই ছুইটি বিশেষ সিদ্ধাম্ত-___প্রথমটি এই যে, সাস্ভ বস্তর চিন্ত। 
কব্িতে গেলেই মন বাধ্য হইয্াই অনস্ভের চিস্তা করিবে। 
আর বর্দি এ মানসিক অনুভূতির এক ভাগ সত্য হয়” তবে 
উহার অপর ভাগও সত্য হইবে । কারণ ছুইটিই যখন সই 
একই মনের অনুভূতি তখন ছুইটি অন্ভূতিব মুল্যই সমান । 
মান্তষের অল্প জ্ঞান আছে অর্থথৎ মানুষ অন্রভ্ঞভ-ইতা1 হইতে 
বুঝা! যাইতেছে যে* ঈশ্বরের অনস্ত জ্ঞান আছে-_ ঈশ্বর 
অনস্তজ্ঞান্সম্পগ ॥ যর্দি আমর) এই ছুইটি অনুভূতির ভিতরে 
একটিকে গ্রহণ করি, তবে অপব্টিকেও গ্রহণ না? করিব কেন £ 
যুক্তি ত বলে-- হী, উভক্পকে গ্রহণ কর, নকল, উভয়কেই পরিত্যাগ 
কর ॥ যদি আমি বিশ্বাস করি যে, মানব অলজ্ঞানসম্পন্স, তবে 
আমাকে অবশ্যই ম্বীকান করিতে হইবে যে. তাঁহার পশ্গতে 
একজন অসীমজ্ঞানসম্পঙ্জছ পুরুষ আছেন । দ্বিতীয় সিদ্ধাস্ত' 
এই যে, গুকু ব্যতীত কোন জ্ঞানই হইতে পারে না। বর্তমান 
কালের দার্শনিকগণ যে বলিয়া! থাকেন» মানুষের জ্ঞান তাহার 
আপনার ভিতন হুইতে উৎপন্ন হয়-এ কথা সত্য বটে, সমু্বক্স 
৩5 


যোগস্ুক্র 


জ্ঞানই মানুষের ভিতরে রহিক্াছে, কিন্তু প্র জ্ঞানের উন্মেষের 
জন্য কতকগুলি অনুকুল পারিপাশ্থিক অবস্থার প্রক্ষোজন । আমর! 
গুরু ব্যতীত কোন জ্ঞান লাভ করিতে পারি না। এক্ষণে কথ। 
হইতেছে, যদি মনুষ্য, দেব অথবা হ্বর্পবাসী দূতবিশেব আমাদের 
গুরু হন, তাহ) হইলে তাহার! ত সকলেই . সসীম 2 তাহাদের 
পুর্বেব তাহাদের আবার শুরু কে ছিলেন? আমাদিগকে বাধ্য, 
হইস্বা এই চরম সিদ্ধান্ত স্থির করিতে হইবেই হইবে বে» 
এমন একজন গুরু আছেন, যিনি কালের ছ্বারা লীমাবদ্ধ 
ব1 অবিচ্ছিহ্ধ নহেন। সেই এক অনস্তজ্ঞানসম্পন্গ শুরু, বাহার 
আদিও নাই, অস্তও নাই, তীাহাকেই ঈশ্বর বলে। 
ভক্ত বাচকও শণবও 1 ২৭ ॥ 

স্ুত্রার্থ প্রণব অর্থাৎ ওঙ্কার তাহার প্রকাশক । 

ব্যাখ্য।_০তোমার মনে যে কোন ভাব আছে, তাহারই 
এক প্রতিবূপ শব্দও আছে; এই শব্দ ও ভাবকে পৃথক কর 
যাক্স না। একই বস্তর বাহাভাগটিকে শব্দ ও তাহাই 
অন্তর্ভাগটিকে চিস্তা বা ভাব আখ্যা দেওয। হইস্সী থাকে । 
কোন মনুষ্যই বিশ্লেষণবলে চিস্তাকে শব্দ হইতে পুথক করিতে 
পারে না। কস্তকণুলি লোক একত্রে বসির €োন্‌ ভাবের 
জন্য কি শব্দ প্রক্সেগ করিতে হইবে, এইরূপ স্থির করিতে 
করিতে ভাষার উৎপন্তি হইক্সাছে--এইরূপ অনেকের মত, 
কিন্তু এই মত যে ভ্রমাত্মক, তাহা! প্রমাণিত হইয়াছে । 
যতদিন মানুষ রহিক্ষাছে, ততর্দিন শব্দ ও ভাষা উভকস্ষেরই 
অস্তিত্ব রহিস্াছে। এক্ষণে কথ। হইতেছে, একটি ভাব ও 


পবাজযোগ 


একটি শব্দে পরস্পর সম্বন্ধ কি? আমরা যদিও দেখিতে পাই 
যে, একটি ভবের সহিত একটি শব্দ থাঁক! চাই-ই চাই, 
কিন্ত এক ভাব ঘে একটি মাত্র শব্দের দ্বারা প্রকাশিত হইবে, 
তাহা নহে। কুড়িটি বিভিন্ন দেশে ভাব একনপ হইতে 
পারে, কিন্তু ভাষা -সম্পূর্ণ পৃথক পৃথক ॥ প্রত্যেক ভাব প্রকাশ 
করিতে গেলে অবশ্ত একটি না একটি শব্দের প্রক্োজন হইবে, 
কিন্তু এই একভাব-প্রকাশক শব্দগুলিকে যে এক প্রকার 
উচ্চারণবিশিষ্ট হইতে হইবে, তাহার কোন প্রম্মোজন নাই । 
ভিন্স ভিন্ন জাতিতে অবশ্য ভিন্ন ভিন ভচ্চারণবিশিষ্ শব্দ ব্যবহার 
করিবে । সেই জন্য টীকাকার বলিন্বাছেন যে, প্ব্দিও ভাব ও 
শব্দের পরস্পর সন্বন্ধ ত্বাভাবিক, কিন্ত এক শব্দ ও এক ভাবের 
মধ্যে যে একেবারে এক অনতিক্রমণীর সহ্বন্ধ থাকিবে, তাহ! 
বুঝাইতেছে ন11”% এই সমন্ড শব্দ ভিন্ন ভিন্ন হয় বটে, 
তথাপি শব্দ ও ভাবের পরস্পর সম্বন্ধ স্বাভাবিক ॥ যর্দি বাচ্য 
ও বাচকের মধ্যে প্রকৃত সম্বন্ধ থাকে, তবেই ভাব ও শব্দের 
সধ্যে পরম্পর সম্বন্ধ আছে বল। যায়,» তাহা না হইলে সে 
বাচক শব্দ কথনই সর্ববসাধারণে ব্যবহার করিতে পারে না। 
বাচক বাচ্য-পদার্থের প্রকাশক । যর্দি সে বাচ্য বস্তর পুর্ব 
হইতে অস্তিত্ব থাকে, আর আমরা যদি পুনঃ পুনহ পরীক্ষাদ্বার! 
দেখিতে পাই বে, প্র বাচক শব্দটি প্র বস্তকে অনেক বার 


*  সব্বে এব শব্দাঃ সব্বাকারার্৫থাভিধানসমর্থা--ইতি স্বিত এবৈষাং 


সর্বাকারৈরর&৫ঃ স্বাভাবিক সন্থন্ধঃ | 
--ব্যাসভাষ্যের বাচম্পতিমিশ্রকৃত টাকা 


১৬৩৬ 


যোগাস্তজ 


বঝাইক্সাছে, তাহা হইলে আমরা বুঝিতে পারি যে, ওর বাচ্য- 


নাচকের মধ্যে যথার্থ একটি সম্বন্ধ আছে । যদি শ্রী 
পদাণ্শুলি উপস্ফিভ না থাকে, সহজ সহম্প ব্যন্তি উহাদের 
বাচকেব্ দ্বাব্রাই উহাদেল জান লাভ করিবে । বাচ্য ও 


নাচকেন মধ্যে স্বাভাবিক সম্বন্ধ থাকা! অবশ্স্তাবী ;হ অন্তএব 
বখন ওঁ বাচক শব্দটি উচ্চালণ করা হইবে, তখনই উহ এ 
বশচ্য-পদ্ার্থটিত কথা মনে উদ্রেক করিক়া দিবে । স্ত্রকার 
বলিতেছেন, ওক্ষার ঈশ্বরের বাঁচক । স্ভ্রকীর বিশেষভাবে 
“৮. এই শব্দটির উল্লেখ ককব্রিলেন কেন? “ঈশ্বর” এই 
ভাবি বুঝাইরার জন্য শভ শত শত শব্দ রহিক্বাছে ॥। একটি 
ভাবের সহিত সহজ সহন্্র শব্দের সম্বন্ধ থাকে । ঈশ্বর 
ভাবটি শত শত শব্দের সহিত সন্থদ্ধ রশিস্সাছে, উহার গ্রত্যেকটিই 
ত ঈশ্বরের বাচক। ভাল, তানাই হইল: কিন্তু তাহ? 
হইলেও এ শব্দগুলির মধ্যে একটি সাধারণ শব্দ বাহির কর 
গাই। শ্রী সমুদ্দযঘ্স বাচকগুলিত্র একটি সাধারণ শবন্দ-ভূমি বাহির 
করিতে হইবে- আর যে বচক শব্দটি সকলের সাধারণ 
বাচক হইবে, সই বাঁচক শব্দটিই সর্ববশ্রেষ্্রূপে পরিগণিত 
হইবে, আব সেইটিই বাস্তবিক উহার বার্থ বাচক হহবে। 
কোন শব্দ উচ্চারণ করিতে হইলে, আমরা কঞচনালী ও 
তালুকে শব্দোচ্চারণাধাররূপে ব্যবভার করিয়া থাকি । এমন 
কি কোন্ড ভোৌঁতিক শব্দ আছে, অপর সমুদয় শব্দ যাহার 


প্রকাশব্বরূপ--যাহা ্বভাবতঃহই অন্য সমুদয় শব্দশলিকে 
বুঝ্াাইতে পারে? শু--এ্রই শব্দই এই প্রকার * উহাঁই সমুদল 
২৩৬০৭ 


এ 


বাজযোগ 


শব্দের ভিভি-ত্বরূপ । উহার প্রথম অক্ষর “অত সমুদকস্ম শব্দের 
মুল -__উভাঁই সনম্মদ্ক্সম শব্দের কুঞ্চিকান্বরূপ, উহা? জিহ্বা! অথবা 
তালুর কোন অংশ স্পর্শ না করিল্রাই ভচ্চারিত ভম্স 1 “স”- 
বীমা সমু শব্দের শেব শব্দ, উহার উচ্চারণ করিতে 
কইলে ওষ্দ্রত্ন বন্ধ করিতে হত । আব “উ” এই শব্দ দিহ্বামুল 
কইতে মুখমধ্যব্ভী শব্দধাধারের শেব সীম পধ্যস্ত যেন গড়াইকস। 
বাইতেছে । এউন্দপে “4” শব্দটির ছারা সমুদদ শব্দোচ্চারণ। 
ব্যাপারটি প্রকধশিভ হইতেছে । এই কারণে উহাই স্বাভাবিক 
বাচিক শব্দম-_উহাই সমুদন্ম ভিন্ন ভিন্স শব্দের জননী-ম্বরপ । যত 
প্রকার শব্দ উচ্চারিত হইতে পারে_ আমাদের ক্ষমতাক্স বত 
প্রকার শব্দ উচ্চারণের সম্ভাবন। আছে, উহা তৎ্সমুদক্ের 
স্চক ॥ এই সকল আন্ম।নিক গবেষণ। ছাডিক্স। দিলেও 
দেখা যার, ভারতবর্ষে বত প্রকার বিভিন্ন ধন্সভাঁব আছে» এই 
ওক্কার্খ সকলগুলিরই কেন্দ্রম্ব্প* বেদের বিভিলস ধন্মভাঁবসমুহ 
এই ওহক্কারকে আশ্রসস করিম রহিস্থাছে । এক্ষণে কথ হইতেছে, 
ইহার সহিত আমেত্রিক1,» ইংলগু ও অন্তান্ত দেশের কি সম্বন্ধ 
আছে? ইহার : উত্তর এই--সর্বদেশে এই ওক্কীরের ব্যবহার 
চলিতে পাব্রে১ আহার কারণ এরই ব্ে, ভারতবর্ষে ষতরূপ 
বিভিন্ন ধন্মভাব্র বিকাশ হইয়।ছে, ওক্কার ভাহাব্স প্রত্যেক 
সোপানেই পরিরক্ষিত ভইস্কাছে ও উহ) জশ্বরসন্বন্ধীকঘ্ম ভিন্ম ভিন্ম 
ভাব বুঝাইবার জন্য ব্যবহৃত হ্ইরাঁছে। অছ্বৈতবাদী,» দবতবাদী, 
চ্বিতাদ্বৈতবাদী, ভেদাঁভেদবাদী, এমন কি নাস্ডিকগণ পধ্যস্ত 
ভাহাদের উচ্চতম আদশ-প্রকাশের জন্য এই ওক্কান অবলম্বন 
৯৬৮ 


যো গন্ত্র 


করিক্বাছিলেন । স্ততরাং কাধ্যতহ বখন এই ওষ্কার সাঁনব- 
জাতির অধিকাংশের বন্মভাব-প্রাকাশের জন্য ব্যবহ্ধভ হইতেছে, 
তখন সকল দেশের সকল জাঁতিই উন) অবলহ্গন করিতে 
পারেন । ইংরেজী “গড়” শব্দ ধর, উহাতে যে ভাব প্রকাশ 
করে», তাহা বড় বেশী দূর বাইতে পারে না) ঘযদ্দি তুমি 
উঠার অতিরিক্ত কোন ভাব ও শব্দ দ্বারা বুঝাইতে ইচ্ছণ 
কর, তবে তোমাকে উহ্বাতে বিশেষণ যোগ কবিতে হইবে-__ 
বেম্ন সুপ (152501020)৯ নিশুণি (হ00951551), নির্বিবিশেষ (4৯৮৮ 
০1705) ইত্যাদি । অন্থ্য সমুদ্ন্র ভাবাতেই ঈশ্বরবাচক তব সকল শব্দ 
আছে, তৎসম্বন্ষেও এই কথ খাটে ১ উহ্বার্দের অত্তি অঙ্গ-ভাঁব প্রকাশ 
করিবার শক্তি আছে । কিন্তু “ও” এই শব্দে এই সর্ববপ্রকার 
ভাঁবই ব্ুভিক্ষাছে । অতএব, উহ? সর্বসাধারণের গ্রহণ করা 
আবশ্যক ৷ 
তভ্জ পত্তদর্থভাবনম্‌ ॥ ২৮ ॥ 

স্ত্রার্থ_এই ওস্কীরের পুনঃ পুনহ উচ্চারণ ও উহার 
অর্থ ধ্যান € সমাধিলাভের উপায় )। 

ব্যাখ্য।-__এক্ষণে কথা হইতেছে, পুনত পুনহ উচ্চারণের 
আবশ্তাকত। কি? অবশ্য, আমাদের সংস্কারবিষপক মতবাদের 
কথ স্মরণ আছে 2 সমুদয় সংস্কারসমষ্টিই আমাদের মনোসধ্যে 
অবস্থিত আছে । সংস্কারশুলি মনের নধ্যে বাস করেঃ তাহার। 
ক্রমশ স্রশ্মানুস্ছশ্ম হইস্সা অব্যক্তভাব ধারণ করে বটে, কিন্ত 
একেবারে লুপ্ত হনব না, উহার মনের মধ্যেই অবস্থিত থাকে ॥ 

১২০৩৯ 


রাজযোগা 


উদ্দীপক কারণ উপস্ষিত হইলেই উহার ব্যক্তভাব ধারণ করে । 
আণবিক কম্পন কখনই নিবুভ্ত হইবে ন7। যখন এই সমুদ্র 
জগৎ নাশ হইবে, তখন প্রকাণ্ড প্রকাণ্ড কম্পন ব1 প্রবাঁভ 
সমুদয়ই চলিম্না যাইবে 5 কুধ্য, চক্র, তারা, প্রথিবী সকলই 
লন্্ম ভইন্সা। ঝাঁইবে * কিন্ত পরমাণুগুলির মধ্যে যে কম্পন ছিল 
তাহা থাকিবে । এই বুভৎ বৃহৎ ব্রহ্গাণ্ডে ঘষে কাধ্য ভইতেছে, 
প্রত্যেক পরমাণু সেই কাধ্য সাধন করিবে । বাহাবস্তু সম্বন্ধে 
বেরূপ কথিভ হইল, চিত্ত সম্বন্ধে তন্রপ । চিত্র অভ্যন্তরন্থ 
কম্পনসমুদ্ক্স অপ্রকাশ হইবে বটে, কিন্ত পরমাণু-কম্পনের নর 
তাহাদের “ুক্ম গতি অব্যাহত থাকিবে, তাঁহার। উত্তেজক কারণ 
পাইলেই পুনঃ প্রকাশিত হউন পড়িবে । পুন পুনঃ উচ্চারণের 
অর্থ এক্ষণে বুঝা বাইবে। আমাদের ভিতর যে সকল ধম্মের 
সংস্কার আছে, ইভ$ সেইগুলিকে বিশেনভাবে উত্তেজিত করিবার 
প্রধান সহায় । “ক্ষণমিহ সজ্জনসঙ্গতিবেক। । ভবত্ভি ভবার্ণব- 
তরণে নৌক? ॥৮ €(শংকরকৃত মোহমুদগর» « )।॥ ক্ষণমাত্র সাধুসঙ্গ 
ভবসমুদ্রপারের একমাত্র নৌকাত্বরূপ হয়। সতসঙ্ের এতদূর 
শক্তি! বান সৎসঙ্গের যেমন শক্তি কথিত হইল,» তেমনি আস্তরিক 
সৎসঙ্গ ও আছে । এই গওস্কারের পুনহ পুনঃ উচ্চারণ ও উহার অর্থ 
স্মরণ করাই নিজ অন্তরে সাধুসঙ্গ করা । পুনঃ পুনঃ উচ্চারণ কর্‌ 
এবং তৎ্সঙ্গে উচ্চারিত শব্দের অর্থ ধ্যান কর, তাহ হইলে হৃদয়ে 
স্তানালোক আসিবে ও আত্মা প্রকাশিত হইবেন । 

কিন্তু যেমন “৩” এই শব্দের চিস্তা করিতে হইবে, তৎ্সন্গে 
উহার অর্থেরও চিস্তা করিতে হইবে । অসৎসঙ্গ ত্যাগ কর, 

৯৪৩ 


যোগন্ছত্র 
কারণ, পুরাতন ক্ষতের চিহ্ন এখনও তোমার অঙ্গে বহিক্সাছে £ 
এই অসৎসঙ্গরূপ তাপ তেই উহার উপর প্রবুক্ত হয়» অমনিই 
আবার তেই ক্ষত প্রর্কব-বিক্রমে আনিষ) দেখা দেকস । এই উদাহরণের 
দ্বারাই বোধগম্য ভইবে যে, আমাদের ভিতরে বে সকল উভ্ম 
সংস্কার আছে, গুলি এক্ষণে অব্যক্ত ভাব ধারণ করিক্সাছে বটে, 
কিন্ত উহার? আবার সৎসঙ্গের দ্বারা জাগর্রিত হইবে-ব্যক্তভাব 
ধারণ করিবে । সত্সঙ্গ অপেক্ষী জগতে পবিত্রতর কিছু নাই, 
কারণ, সৎসঙ্গ হইতেই শুক সংক্কারগুলির জাগরিত হইবার স্থষোগ 


উপস্থিত হস্ত _এ্রশুলি চিুহ্দের ভলছেশ হইতে উপনিভাগে আসিবাত 
উপক্রম করে । 


ততঃ প্রত্যকৃচেতনাধিগমোহপাতক্তরায়াভাবশ্চ ॥২০1 
স্রত্রার্থ_ উহা হইতে অস্তদৃষ্টি লাভ হয ও তোগবিপ্- 
সমুহ নীশ হস্স। 


ব্যাখ্য।-__এই ওক্কার জপ ও চিস্তাঁর প্রথম ফল এই তেখিবে যে, 
কুমশহ অভ্তদু্টি বিকশিত এবং মানসিক ও শারীরিক আষোগবিপ্রসমুদ নর 
দুর্পীভূতত হইতে থাকিবে । এক্ষণে প্রশ্ন হইতেছে, এই যোগবিদ্শুলি 


কিকি? 

বাধিস্তানসংশয় আঅমাদ1লস্তাবির তিভ্রান্তিদর্শনালক্ষ- 

সুমিকত্বানবস্ফছিতত্ব(নৈ চিভবিক্ষেপাস্ভেহভ্তরায়াও ॥৩০॥ 
সুত্রার্থ রোগ, মানসিক জড়তা, সন্দেহ, উদ্যম 


বাহিত্য, আলস্য, বিব্যতৃষ্ড১, মিথ্যা অনুভব, একাগ্রতা 
১৭৯৯ 


বাজযোগ 


লাভ না করা, এ অবস্থা লাভ হইলেও তাহা হইতে 
পতিত হওয়াঁ_এএইগুলিই চিত্তবিক্ষেপের অন্তরায় ৷ 
ব্যাখ্য।-__ব্যাঁধি-_-এই জীবন-সমুদ্রের অপর পারে যাইতে 
হইলে, এই শরীর উন] পার ভইবার একমাত্র নৌকা । ইহাঁকে 
সুস্থ রাখিনাঁর জনক বিশেষ বত্র কলিতে হইবে । অন্ুস্থশরীবিগণ 
যোগী ভইন্েে পারে না] মানসিক জড়তা আপিলে, আমাদের 
যোগবিষয়ক প্রবল অন্তরাগ নইঈ ভইরা যার । উহার অন্ঞাঁবে 
সাধন করিবার জন্য যে দ্ঢ সংকল ও শক্তি পাকা 'প্রয়োলন, 
তাহার কিছুই থাকে না। 'আগাদের এই বিবক্ে বিচ!রজলিত 
নিশ্বাস যতই থাকুক না কেন, বশুদিন দৃরদশ্শন, দৃরএনণাদি 
অলৌকিক অনুভূতি ন "আসিবে, ভতদিন 'এই বিচার সন্যভ] 
নিষক্সে অনেক সন্দেভ আদিবে। বখন এই সকলের একট 
একট আভাস আসিতে থাকে, তখন মনও খুব দু ভইভে 
এাকে, তাঁভাতে ক্র সাবককে সাধনপপে আরণ্ড অধ্যবসানরশাল 
করিত তুলে । 'অনবস্ডতিতত্ব কয়েক দিন বা কয়েক সপ্টা 
ধরিয়া সাধন করিবার সময় দেখিবে, মন বেশ সহজে 
একাগ্র ও স্থির হইতেছে ; বোঁধ হইতেছে, তুমি সাধনপথে শান্তর শীঘ্র 
খুব উন্নতি করিতেছ । একদিন দেখিবে, ভঠ।ৎ্ তোমার এই 
উন্নতিন্মোত বন্ধ হইক্সা) গেল । তুমি দেখিলে যেন হঠাৎ একদিন 
তোনার সমুদর উন্নতিল্রোত বন্ধ ভইয়, যেমন জাহাজ চড়ায় সংলগ্র 
ভইলে চলনরহিত ভয়, সেইরাপ হইল । এইরূপ হইলেও অধ্যবসারশূন্ 
হই না। এইরূপে বারবার উঠা-পড়ী ভইতেই ক্রমে উন্নতিলাভ 


ইয়া থাকে । 





৯৭০ 


যোগস্তঞ্র 


৪খনৌন্মনম্তাঙ্গমেজক্ত্বশ্বাসপ্রশ্বাসা- 
বিক্ষেপসহভবহ ॥ ৩১ ॥ 

স্ুত্রার্থ-_ ছঃখ, মন খারাপ হওয়া, শরীর নডা, 
€ অঙ্গম্7 এজনত্র । ৮ এজুকম্পনে ) অনিয়মিত শ্বাসপ্রশ্বাস, 

এইগুলি এক'গ্রত:র অভাবের সঙ্গে সঙ্গে উৎপন্ন হয় । 
ব্যাখ্যা যখনই বখনহ একাগ্রতা অভ্যাস কর। যায়, তখন্দ 
খনি অল ও শরীর সম্পূর্ণ স্থিরভ।ব ধারণ করে । বথন ঠিক 
পদে পাধনা না হুন্র, আণবা যখন চিত ব্ীত্তিমত সংবত না থাকে, 
তখনই এই বিদ্রশুলি 'আসির) উপস্থিত তয় । ওস্কার জপ ও 
ঈশ্ববে আত্মসনপণি হইতেই মন দুঢ় হর ও নূন্ন বল আসে । 
সাধনপথে প্রা সকলেরই এইনবপ আাক্সবীর চাঞ্চল্য উপস্থিত 
হয় ॥ ওদিকে খেয়াল শা করিয়া সাধন করিক। বা9। সাধনের 

ছারাঁই শুলি চলিম্র। যাইবে, তখন আসন স্থির হইবে । 

ত-্প্রতিবেধার্থমে ক তত্ব ভযাসঃ ॥ ৩২ ॥ 

স্ত্রার্থ_ইহা নিবারণের জন্য এক-তন্ব (ঈশ্বর ব! 
স্থলণদে বা অভিমত তত্ব ) অভ্যাসের আবশ্যক । 
ব্যাখ্যা কিছুক্ষণের জন্ত মনকে কোন বিবয়বিশেষের 
আকারে আকারিত করিবার চেষ্টা করিলে পুর্ব্বোস্ত বিদ্রশুলি 
চলিয়) যায় । এই উপদেশটি খুব সাধারণ ভাবে দেওযা) হইল । 
পর স্ত্রগুলিতে এই উপদেশটিই বিস্তারিতভাবে বিবুত্ত হইবে 
ও বিশেষ বিশেষ ধ্যেক্স বিষয়ে এই সাধাব্রণ উপদেশের প্রস্েগ 
উপদ্িই হইবে । এক প্রকার অভ্যাস সকলের পক্ষে খাটিতে 
১৭৩ 


বরাজযোগ 


পারে নী, এই জন্ত নানাপ্রকার উপাক্ের কথা বলা হইয়াছে । 
প্রত্যেকেই নিজে পনীক্ষী করিনা কোন্টি তাহার পক্ষে খাটে, 
দেখিয় লইতে পারেন । 


মৈব্রীকরুণাম্ুুদিতোপেক্ষাণাৎ স্ৃখছ৪খপুণতা- 
গুপ্যবিষষাণাং ভাবনা তশ্চিকপ্রসাদনম্‌ ॥ ৩৩ ॥ 
সত্রার্থ সুখ, ছুহখ, পুণ্য ও পাপ এই কয়েকটি 
ভাবের প্রতি বথাক্রমে বন্ধৃতা, দয়া, অআখনন্দ ও উপেক্ষ। 
এই কয়েকটি ভাঁব ধারণ করিতে পারিলে চিত্ত প্রসম হয় । 
ব্যাখ্য।- আমাদের এই চারি প্রকার ভাব খাঁকাই 
আবশ্তক । আমাদের সকলের প্রতি বন্ধু রাখা, দীন্জনের 
প্রতি দয়াবান হওয়া, লোককে সৎকন্ম করিতে দেখিলে অআখী 
হওয়া এবং অসৎ ব্যক্তির প্রতি উপেক্ষা প্রদর্শন কর। আবশ্যক ৷ 
এইরূপ যত কিছু বিষম্ম আমাদের সম্ম্থে আমে, তেই- 
গুলির প্রতিও আমাদের এই এই ভাব ধারণ কর। আবশ্যক ৷ 
যদি বিষপ্লটি সুখকর ভয়, তবে উহার প্রতি বন্ধু অর্থাৎ অনুকুল 
ভার ধারণ করা আবশ্তাক । এইরূপ, যদি কোন ভুঃখকর ঘটন। 
আমাদের চিন্তার বিষয় হুর, তবে যেন আমাদের অন্তঃকরণ 
উহার প্রতি করুণভাবাপন্ধ হম্ব»। বদি উহা কোন শুভ বিষন্ন 
হয়, তবে আমাদের আনন্দিত হওয়। আবশ্ুক আর অসৎ বিষ 
হইলে সই বিষয়ে উদাসীন থাকাই শ্রন্বঃ॥। অই সকল বিভিন্ন 
বিষস্বের প্রতি মনের এই এই রূপ ভাবদ্বারা মন শাম্ত হইয়া 
যাইবে । আমাদের টদনন্দিন জীবনের অধিকাংশ গোলযোগ 
৯৭৪ 


যোগস্ত্র 


ও শান্তির কারণ, মনকে উ-্ীরূপভাবে ধারণ করিবার 
অক্ষমতা । মনে কর, একজন আমার প্রর্তি কোন অন্তর 
ব্যবহার কর্ল্‌, অমনি আমি তাভার প্রতীকার করিতে উচ্চ 
হইলাম । আব আসব! নে কোন আঅন্ঞান ব্যবহারের .প্রতিশোশ 
না লইয়া? সাকিতে পাবি না তাভার কারণ এই বে, আমরা? 
চিভুকে গানাইর। বাসিতন্েে পারি না? উন এ পদাথেব প্রতি 
প্রবাভাবণারে ধাবমান হম্ম 25 আমরা তখন মনের শক্তি হাবাভন্ 
ফেলি । 'আমাদিগের মলে ম্বণা। অগব। অপরের অন্ষ্করণ-ও্রবুর্ভি- 
বাদ মে জতিক্রিম। তদুত তাহা শক্তি ক্ষনমাত | আর কোন 
অশুব্ড চিজ্ত। অথব। ক্পণাপ্রক্ত কাধ্য অথবা কোন প্রকার গা তি 
ক্রিকার চিন্তা বদি দমন কর যান্র, শবে তাহা হইতে শ্ককরী 
শক্তি উৎপল হই আমাদের উপকারার্থ সঞ্চিত গ্াকিকে। 
এইউক্প স্ংবমের দ্বার! আমাদের যে কিছু ক্ষতি হক তাঁহ। নভে, 
বরং তানা হইতে 'আশাতীত উপকার হইয্স থাকে । বখ্খনইউ 
আমরা ঘ্বণা। আঅথব$ ক্রোধবুক্তিকে সংষত করি, খন উভ 
আমালদর অচ্কুল শুভশ্ক্তিন্বরূপ সঞ্চিত হইস্॥ উচ্চতর শক্তিন্পে 
পরিণত হইক্সা থাকে । 


প্রচ্ছর্দনবিধারণাভ্যাং বা প্রাণস্ত ॥ ৩৪ ॥ 

স্রত্রার্থ শ্বাস বাহির করিযষা দেওয়া ও ধারণ 
দ্বারাও € চিত স্থির হয় )। 

ব্যাখ্যা এ স্থানে অবশ্য প্রাণ শব্দ ব্যবহ্ধত হ্ইন্সাছে । 


প্রাণ অবশ্য ঠিক শ্বাস নহে । সমুদক্স জগতে যে শক্তি ব্যাণ্ড 
দ্ 
১৭৫. 


বাজযোগ 


রহিরাছে, ভাঁতভারই নাম প্রাণ ! জগতের বাহ কিছু দেখিতেছ, 


বাত] কিছু একন্তান হুইন্ডে অপর স্থানে গমনাগমন করে, যাহ? 
কিদ্ি কাধ্য করিতে পাবে, অথবা ষাহ।র জীবন আছে, তাঁহ1ই 


ইউ ধাপের বিকাশ । সম্মুদক্স জগতে যত শক্তি প্রকাশিত 
বতিনাডে॥ সাভার সমষ্টিকে প্রাণ বলে। যুগোৎ্পভ্িির "প্রাক্কালে 


এই ত্রাণ "প্রান এুকবপ গাতিভীন '্অবুস্থ)ত্ অবস্তান কলে, 


আলাল প্ুগপ্রারন্তকালে প্রাণ বাক্ত হইন্ডে আবস্ত হয়া এই 
পরাণ গরতিকূপে শ্রকান্পিত ভইতেছে, উভাভ সন্ষ্যজাতি অথব্। 
অন্ন শ্াানাতে আ্বারবীয় গিলে আ্রক(শিত, বসান 
৪ 1ণউ চিন্তা) ও আনন শক্তিনূপে প্রকাশিত ভয় । সমুদ্র জগত 
এই প্রাণ ৪ আকাশের সমষ্টি ॥  মন্তয্যদে৯9 এরূপ 5 যা)? কিছু 
দেশিতেছ বা জ্ন্সভুব করিতেছি» সন্ুদন্ন পানার্থভ আকাশ ভইতে 


৮০ 


উৎপল আর গান ভইতে সন্ুদন্ন বিভিন্ন শক্তি উতৎপন্গ 
চে 


ভগ্ন | এই এ্াণকে বাতিরে ত্যাগ করা ও উন ধারণ 
লবাাল নানউ প্রাণাম।ন 1 ঘবোগশান্দের পিভাস্বরপ পভঞ্জলি এই 


'শাণানান সম্বন্ধে কিছু বিশে বিধান দেন নাই, কিন্ত তীাভার 
পলনুর্ভী আঅল্ঞাতা বোগারা এই প্রাণারাম সহ্গন্দে অনেক তত্ত্ব 
আবিষ্কার করিস! উহাঁকঝেই একটি মহতী বিদ্যা করিক্স। তুলিক্স?- 


ছেল ॥ ভগ্জলির মতে ইহ চিন্তবুক্ভিনিরোধের বিভিজ্ উপাঁয়- 
সনহের মধ্যে অন্যতম উপাক্স মাত্র” কিন্ত তিনি ইহার ডপত 
বিশেষ ঝোোক দেন লাই । তাহার ভান এই যে, শ্বাস 


»[নিকক্ষণ বাভিরে ফেলিক্স। 'আবাঁর ভিতরে টাঁনিস্স॥? লইবে এবং 
কিছ্রুন্দণ উন ধারণ করিয়া বাশখিবে, ভাহাতে-মন অপোক্ষান্ধভ 
পু 
১৭৬৬ 


যোগস্তত্র 


একট স্থির ভইবে । কিন্ত পরবর্তী কালে ইন ভইভেই 'পাণান্াম 
নামক বিশেব বিছ্যার উৎপত্তি হইক্াছে। এই পব্রবর্তভী বোগিগণ 
কি বলেন, আমাদের তৎ্সম্বন্ষে কিছু জানা! আবগ্তক ॥। এ 
শিষয়ে পুর্বেবেউ কিছু বল। ভইম্মাছে», এখানে আরও কিছু বলিল 
০গামাদেরল আনে আাখিবাব স্বিধা। হইবে ॥ প্রথমত 2 মন্দ 
র।খিতে ভইলে, ভ্রেউ প্রাণ বলিতে তিক শ্বাস-প্রপাস বুঝা না 5 যে 
শ্তিবলে শ্বাসপ্রশ্বাসের গতি ভয়, যে শক্তিটি বাভ্ডবিত্ শ্বাস- 
'প্রশ্বাত়েরও নানি রি ভাঁভীকে বান কলে ॥। আনার এই 


পাঁণম্ব্দ সমুদয় উন্দ্যিগুলির নলামরূপে বাবজভ ভউকসণ পাকে । 
এই পমুদম্কেউ প্রাণ বলে । মনকেও আবার গাণণ বলে। 
অনভএব দেখা গেল হব, আাণ অর্দ শক্তি । অথাপি ইশ্ভাকে 
আমরা শক্তি নাম দিতে পাবি ন!ঃ, কংলণ শভ্তি উ শ্পানের 
বিকাশব্বজন্প । উই শক্তি ও নানালিস গতিরপে কাশি 
ভইন্ডেভে । চিন্ত যন্মন্বরূপ হইয়া  চত্ুর্দিক .ভইন্ডে ্াণকে 
আকর্ষণ করিয়া এউ ঘ্রাণ ভইতেই শবীররন্দার কারনীভভতভ ভিন্ত 
ভিন্ম ভীবনী-শক্তি এল চিন্তা, ইঈচ্ছ] ৩ অন্যান্য সমুদক থর বু 
উত্পন্ম করিতেছে । পুর্বেলাক্ত 'প্রাণাক্সাম ক্িয়ান্াবা আমর? 


শরীরের সমুদয় ভিন্ন ভিন্ন গতি ও শরীরের অন্তর্গত সমুদয় 

নিন্ম ভিন্ন আকবীষ্ম শক্তিপ্রবাহণগ্ুলিকে বশে আনিতে পারি । 

"মামা প্রথম প্শুলিকে উপলব্ধি ও সাম্ষা২কার করি, 

পলে অলে অল্পে উভ্দের উপর ক্ষমতা লাভ করি_উহাদিগকে 

বশীভূত করিতে ক্ৃতকাধ্য হুই। পতঙ্জলির পরবন্তী যোঁগী- 

দিগের মতে শরীরের মধ্যে তিনটি প্রধান প্রাণপরবাছ আছে । 
১৭৭ 


প্াজযোগ 


একটিকে তাহার)? ইড়।, অপরটিকে পিঙ্গল। ও তৃতীয়টিকে সুযুষ্ন। 
বলেন । ভাহাদের মতে, পিঙল! মকুদণ্ডের দক্ষিণ দিকে, 
ইড়া নামদ্দিকে, আর এ মেরুদণ্ডের মধ্যদেশে সুযুক্্ানানী শুন্ঠ 
নালা আছে । ভাহভাদের মতে, ইড়া ও পিঙগল। নামক 
শক্তি প্রাবাহদ্ন প্রত্যেক মন্রষ্যমধ্যে প্রবভিত হইতেছে, 
উহাদের সাঁভাব্যে১ই আমরা? জীবনযাআী। নির্বাভ কল্রিতেছি ॥ 
স্্বুন্রার কাধ্য সকলেবখ মধ্যেই সম্ভব বটে, কিত্ফ কাধ্যতুঃ 
কেবলা বোলার শরীরেই উহার মধ্য দিস্স$ কাধ্য হইক্সা থাকে । 
তোমাদের স্মরণ রাখা উচিত বে, ০যোাগা তযোগসাধনবলে 
পলা দেভকে পরিব্িত করেন। তুমি যতই সাধন 
করিবে, ততই তোমার দেহ পরিবন্তিত হইন্রী বাইবে » সাধনের 
পর্বেব ত্পেমার যেব্ুপ শরীর ছিল, পনে আর তাহ॥। থাকিবে 
না। ব্যাপারটি অযৌক্তিক নহে, ইহা যুক্তি দ্বারা ব্যাখ্য। 
করা যাইতে পারে । আমরা যে কিছু নুতন চিস্তা করি, 
তাশাই আমাদের মন্তডিকষ্ষে একটি নুতন প্রণালী নিম্মাণ 
করিনা দম । ইহা ভইতে তেশ বুঝা বান» মন্ব্তত্ষভীৰব এত 
শ্রিতিশীলতার পক্ষপাতী তেন ১» মন্ুম্তক্ষভাবই এই যে, উহ! 
পুর্ববাবতিত পথে ভ্রমণ করিতে ভালবাসে, কারণ উহা? 
অপেক্ষাকৃত সহ | দৃষ্টাস্তম্ব্ূপ বদি মনে করা যায়, মন. 
একটি স্চিকান্বরূপ আর মম্তিফ উহার সম্মথে একটি কোমল 
পিশুমাত্রঞ তাহা হইলে দেখা যাইবে যে, আমাদের প্রত্যেক 
চিন্তাই মস্তডিকফষমধ্যে যেন একটি পথ প্রস্তত করিক্সা দিতেছে, 
আর মন্তিফমধ্যস্থ ধুসর পদার্থটি যদি প্র পথটির চার্রিধারে 
৭ 


£ 


যোগস্চঞ্র 


এক সীম) প্রস্তত করিয়া না দেত্স*« ভাঁহা হইলে এ প্থটি বন্ধ 
হইস্সা যাকস। যদ্দি শ্রী ধুসরবর্ণ পদার্থটি না থাকিত, তাভ। 
হইলে আমদের স্মতিই সম্ভব হইত না, কারণ স্মৃতির অর্থ, 
পুরাতন পণ ভ্রমণ, একটি পুর্ব চিন্তার উপর দাগ! বুলান । 
হুয্ুত তোমব্র। লক্ষ্য কৰিয়॥ থাকিবে, বখন আমি সর্বপরি চিত 
কতকতশুলি বিষ গ্রহণ করি! এ্রগুলিবই পোরফের করিয়া 
কিছু বলিতে ব্রবৃত হই» তখন তোমরা সহজেই আমার কথা 
বুঝিতে পার ১ ইহার কারণ আর কিছুই নম্ব_এই চিন্তার পথ 
ব প্রণালীগুলি প্রত্যেকেরই মস্তিষ্কে বিদ্যমান আছে* কেবল 
এীগুলিতে পুনহ পুন্5 প্রত্যাবর্তন করা আবশ্যক হয়,» এই 
মাত্র । কিম্ভডু যখনই কোন নৃতন বিবি আমাদের সম্মৃথে 
আসে, তখনই মন্তিক্ষের মধ্যে নুতন 'প্রণালীর নির্মাণ আবশ্যক 
হয় 2 এই জন্য তত সহজে উহা বুঝা যায় না। এই জন্যই 
মন্তিফ-__মাভষের। নয়» মন্ডিফই-_অজ্ঞাতসারে এই নুতন শ্রকার 
ভাবদ্ারা পরিচালিত হইতে অস্বীকার কবে । উহ)? যেন সবলে 
এই নুতন প্রকার ভাবের গতিরোধ করিবার চেষ্টা করে। 
প্রাণ নুতন নুতন প্রণালী করিতে চেষ্টা করিতেছে, সন্তিক্ষ 
তাহ? করিতে দিতেছে না। মানব যে স্ছিতিশালভতাঁর এত 
পক্ষপাতী, তাহার শুহা করণ ইহাই ॥ মস্তডিক্ষের মধ্যে এই 
প্রণালীগুলি যত অল্প পরিমাণে আছে, আব প্রাণরূপ চিক? 
উহার ভিত বত অলসংখ্যক পথ প্রস্তভ কল্িিম্নাছে, মন্তিক্ষ 
*ততই স্ফিতিশীলতাত্তরিক্স হইনে» ততই উহা? নুতন প্রকার চিন্তা ও 
ভাবের বিরদ্ধে সংশ্রাম করিবে । মানব যতই চিস্তানাল 
১৯৭০৯ 


বাজষোগ 


হম», মন্তডিক্ষেকর ভিতরের পথশুলি সততিই অধিক জটিল হইবে, 
ততই স্হজ্ে ০ নুতন নুতন ভাব্গ্রহণ করিবে ও তাহ বুঝিতে 
পারিবে । অত্যেক নূতন ভাব সম্বন্ধে এইবর্প জাঁনিবে। 
মণ্ডক্ষে একটি নুতন ্ভাৰব আনসিলেই মস্তিক্ধের ভিভকব্র নুত্তন 
প্রণালী নিম্মিত ভহতইল। এই জন্য কবোগঅভ্যাঁসের সমন 
আমর) পথমে এত শস্ারীরিক বাধ প্রাপ্ত হই। কারণ বোগ 
সম্পর্ণরূপে কতকশুলি নৃততনপ্রকার চিন্তা ৩ ভাবসমন্টি। এই 
জন্ঞই আমরা দেখিতে পাই বে, ধন্মের যে অংশ প্রকুতির 
জাগতিক ভাব লইক্স/ বেশী নাড়াচাড়। করে, তাহ? সর্বসাধারণের 
গ্রাহ্য হয়, অর উহার অপরাংশ অর্থাৎ দর্শন বা মনোবিজ্ঞান, 
বাহী। তেবল সমন্ষ্যেরক আভ্যন্তরীণ ভাগ লইক্বা ব্যাপুত* তাহ! 
সাধারণত লোকে শত পগ্রান্যের মধ্যে আনে না । আমাদের 
এই জগতের লক্ষণ স্মরণ রাখা! আবশ্যক ১ জগত আমাদের 
জ্ঞানভূমিতে শ্রকাশিত অনন্ত সভ্মাত্র । অনস্তের কিয়দংশ 
আমাদের জ্ঞানের সম্মুখে প্রকাশিত হইক্বাছে* উহাকেই আমর? 
আমাদের জগত বলিয়া থাকি ॥। তাহ! ভইলেই দেখা গেল যে, 
জগতের অতীত প্রদেশে এক অনস্ত সত রহিম্বাছে । ধন্ম 
এই উভক্প বিবকক হওযস্সা আবশ্তটাক 1 অর্থাৎ এই ক্ষুদ্রপিশ, 
যাভাকে আমরা জগ বলি, আব জগতের অতীত অনস্ত 
সভ্ভ/-এই উভ্ভস্সই ধন্মের বিবস্ষ । তে ধন্ম এই উন্ভয্বের মধ্যে 
কেবল একটিকে লইক্সীই ব্যপুত, তাঁহ+ অবশ্যই অসম্পূর্ণ । 
ধন্ম এই উভস্র-বিষন্পক হওযস্াই আবশ্যক । অনন্তের যে ভাগ 
আমাদ্দিগেরক এই জ্ঞানের ভিতর দিক্পা .অন্ুভবৰব করিতেছি, 
৮৩ 


যোগক্ুভ্র 


ষাহ। দেশকালনিমিভব্ধপ চক্রের ভিতর আসিম্বা পড়িস্নাছে, 
ধন্মের তে ২শ ইহার বিষত্স লইক্স॥। ব্যাপ্ত, তাহ॥ "আমাদের 
সহন্দে বোধগম্য ভয়» কারণ, আমরা ত পুর্ব ভইতেই উহার 
বিষন্ন জ্ঞ।ভ আছি, আর এহ জগতের ভাব একন্দপ স্মরণাতীত কল 
ভইতেই আমদের পৰ্গিচিত ॥ কিন্তু উহার তে অংশ অনন্তের 
বিবর লইক্কা ব্যাপুত, ভাঁহ। আমাদের পক্ষে সম্পূর্ণ নুতন, 
সেইজন্য উহার চিন্তাস্ম মস্তডিক্ষের মধ্যে নুতন 'প্রণালী গঠিত 
ভইন্তে থাকে, উচ্ভাতে মুসন শরীরটাই হেন উলটিক্া পালটিয়। 
যায়; সেইজন্য সাধন কৰর্রিতি গিম। সাধারণ তোকে প্রথমটা। 
যেন আমাদের চিরাভ্যস্ত পথ হইতে বিচ্যুত হইক্সা পড়ে । 
যথাসম্ভব এই বিদ্র-বাধাশুলি যাহাতে না আসে, তজ্জন্তউ 
পতগ্তুলি এই সকল উপাকন্ন আবিষ্কার করিক্সাছেন, যাহাতে 
অমর? উহাদিগেত্র মধ্য হইত্ডে ব।ছিকা লইক্স। যেটি আমাদিগেন 
সম্পুর্ণ উপযোগী এমন হবে কোন একটি সাঁধন্- প্রণালী অবলম্বন 
করিভে পারি ॥ ্‌ 


বিষয়বতাী ব1 প্রবৃতিরু-পন্ন! 
রর মনসও স্ছিতিনি্বন্ধিনী ॥ ৩৫ ॥ 


স্ত্রার্থহযে সকল সমাধিতে কতকগুলি অলৌকিক 
ইন্দ্রিবিষয়ের অনুভুতি হয়, তাহারা মনের স্ফিতির কারণ 
হইয্সা থাকে । 
ব্যাখ্য।-_ ইহ)? ধারণা অর্থাৎ একাগ্রতা হইতেই আপন? 
আপন্মি আসিতে থাকে 2? যাগাব্া। বলেন, যদি নাসিকাত্ে মন 
১৮১ 


বাজযো গা 


একাগ্র কর। যায়” তবে কিছু দিনের মধ্যেই অদ্ভুত সুগন্ধ 
অন্চভব করা যায় । জিহ্বামূুলে মনকে এইরূপে একাগ্র করিলে, 
ক্রন্দন শব্দ শুনিভে পাওয়া) যান । জিহ্বাপ্রে এইবুপ করিলে 
দিব্য বসাস্ত্রাদ ভন, জিহ্বামধ্যে -সংবম করিলে বোধ হয় যে, যেন 
কি এক বস্ত স্পর্শ করিলাম । অভালুতে সংযম করিলে দিব্যক্মপ- 
সকল দেখিতে পাওয়া। যাস । কোন অস্থিরচিভ্ ব্যক্তি যদি এই 
বেগের কিছু সাধন ্সবলম্বন করিক্বাও উহা সত্যতাক্স. 
সন্দিহান ভয়, ভখন কিছুদিন সাধনার পর এই সকল অন্ুক্ত্তি 
ভইতে থাকিলে আর তাহার সন্দেহ থাকিবে না, তখন সে 
'অধ্যবসীক্মসহুকারে সাধন্ন করিতে থাকিবে । 
বিশোকা ব॥ জ্যোাতিজ্মতী ॥ ৩৬ ॥ 
স্ত্রার্থ  শোকরহিত জ্যোতিম্মান্‌ পদার্থের €বিষয়বতী 
হুশপ্দাকাশ অথবা অনস্সিতা ) ধ্যানের সমাধি হয় । 
ব্যাখ্য)-_- ইহা আর এক প্রকার সম।ধি। এইরূপ ধ্যান কর 


বে» জদক্সের মধ্যে যেন এক পদ্ম রহিক্বাছে 7» তাঙহাার কণিক। অধোসুখী ও 


উহার মধ্য দিয়া? স্যুন্ন। গিরীছে । শৎ্পরে পুরক কর, পরে রেচক 
করিবার সমক্ব চিস্ত। কর যে, প্র পদ্ম কণিকা সহিত উদ্ধমুখ 
ভইসক্মাছে, আব ও পদ্ধের মহাজ্যোতিহ রহিরাছে । প্র জ্যোতির 


ধ্যান কর । 
বীতরাগবিবয়ং বা চি্ম্‌ ॥ ৩৭ ॥ 


সুত্রার্থ--অথবা যে হৃদয় সমুদজ ইক্ছিয়বিষয়ে 


৯৮০, 


যোগন্ুত্র 


আসক্তি পরিত্যাগ করিয্নাছে, তাহার ধ্যানের দ্বারাও চিক 
স্থির হইয়া থাকে । 

ব্যাখ্যা কোন সাধুপুরুষের কথা ধর । কোন মহাপুরুষ, 
বাহার প্রতি তোমার খুব শ্রদ্ধা আছে» কোন সাধু, যাহ।কে তুমি 
সম্পূর্ণরূপে অনাসক্ত বলির। জান» তাহার হৃদয়ের বিষন্ন চিজ্তা কর। 
তাহার অস্তঃকরণ সর্ববিষক্ষে অনাসক্ত হইস্সাছে € নিশ্চিন্ত, নিরিচ্ছ ও 
প্রাশাম্ত ), ক্ছুতরাং তাহার মস্তরের বিষন্ব চিস্ত। করিলে তোমার 
অন্তঃকরণ শান্ত হইবে । ইহ? বর্দি করিতে সমর্থ না) হও», তবে আর 
এক উপান্স আছে । 

স্বননিভ্রাজ্ভানালন্বনং বা ॥ ৩৮ ॥ 


স্রত্রার্থ অথবা স্বপপাবস্থায কখন কখন যে 
অপ্পুকব জ্ভানলাভ হয়, তাহার এবং স্বুপ্তি-অবস্থীয় 
লব্ধ সাত্বিক সুখের ধ্যান করিলে €চিভ্ত শ্রশাস্ত 
হয ) ॥ 


ব্যাখ্য।--কখন কখন লোকে এইবপ ম্বপ্ত দেখে যে, 
তাহার নিকট দেবতারা আ সিক্স) কথাবার্তী কহিততছেন, ০৭ 
যেন এরকরূপ ভাবাবেশে বিভোর হইক্স। রহিক্বাছে। বাবুর 
মধ্য দিয়! অপুর্ব সঙ্গীতধ্বনি ভাঁসিতে ভাসিতে আসিতেছে, 
সে তাহ। শুন্িতেছে !। এ জ্প্লাবস্থাকস সে একরূপ আনন্দের 
ভাবে থাকে ॥ জাগরণের পর শ্রী ম্বপ্ধ তাহার অন্তরে দৃঢ়বন্ধ 
হুইক্সাঁ থাকে । শ্রী স্বপ্রটিকে সত্য বলিক্ষ। চিন্ত। কর, উহার 

৯২৩০ 


বট ২৩) 


বাজযোগ 


ধ্যান কর । তুমি বদি ইহাঁতেও সমর্থ না হও, তবে যে কোন 
পবিজ্র বস্থ ততাঁমার ভাল লাগে, তাহাই ধান কর । 


হথাভিমতধ্রানাছ 1 ॥ ৩৮ ॥ 


স্ত্রার্থ_ অথবা যে কোন জিনিস তোমার নিকট 
ভাল বলিয়া বোধ হয়, তাহারই ধ্যান দ্বারা € সমাধি 
লাভ হয় )। 

ব্যাখ্য।-অবশ্য উনণরন্ে এমন বুঝাইতেছে না যে. কোন 
অসৎ, বিষয় ধ্যান করিতে হইবে । কিম্ছে বে কোন সৎ বিবক্ষ তুমি 
ভালবাসে কোন স্থান তুমি খুব ভালবাস, বে কোন দৃশ্য তৃমি খুব 
ভালবাস, হযে কোন ভাব তুনি খুব 'ভাঁলবাঁস, বাহাঁতে তোমার চিন্ঞ 
একা গ্র হন্স, তাহাঁরই চিস্ত। কর । 

পরমাণু-পরমমহস্তবান্তোহস্য বশীকারঃ ॥৪০ ॥ 


স্কত্রার্থ-_এইকব্প ধ্যান করিতে করিতে পরমাণু 
হইতে পরম বৃহৎ পদার্থে পধ্যস্ত তাহার মন অব্যাহত- 
গতি হয় । 
ব্যাখ্য।__-মন এই অভ্যাসের দ্বারা,অতি স্শ্শ্ন হইতে বুহভ্তম বস্ত 
পধ্যস্ত সহজে ধ্যান করিতে পরে । তাহ হইলেই এই মনোবুভ্তি- 
প্রবাহণুলিও স্পীণতর হইক্স। আসে । 
ক্ষীণবরুতেিরভিজাতস্েব মণেগ্রহীভৃ-শ্রহণগ্রাম্যেষু 
তস্হথ-তদঞ্জনতা সমাপভিও | ৪১ ॥ 
১৮ 


যোগস্হঞ্ 


স্তরার্থ- যে চোঙীন চিভুব্ুত্িগুলি এইক্ধপা ক্ষীণ 
হইয়া বাক €( বশে আসে), তাহার চিশু তখন, হফেমন 
শুদ্ধ স্কটিক € ভিন্ন ভিন্ন বর্ণযুক্ত বস্তুর সম্মুখে তৎসদৃশ্শ 
আকার ধারণ করে ), সেইরূপ গ্রহীতি।, গ্রহণ . ও গ্রাহ্য 
বস্তুতে € অর্থাৎ আতা, মন ৩ বাহা বস্ততে ১ একাত্রতা। 


ও একীভাব শ্রীপ্ত হয় । 





ব্যাখ্য।__-এইকপ ক্রমাগত ধ্যান করিতে করিতে কি ফল 
লান্ড হর? আমাদের অবশ্যই স্মরণ আছে যে, পুর্বেবের এক 
শুতে পতঞ্জলি ভিন্ম ভিন্ন প্রকার সমাধির কথা বর্ণন! করিয়।(ছেন । 
থম সন্ধি সকল বিষক্সম লইক্সাঁ, দ্বিভীসটি শুশ্স বিষ লইহ্তা ও 
পরে ক্রমশ আবও স্ঙ্গান্ুহ্ছল্ত্র বস্তু আমাদব সমাধির বিষর 


হয়" তাঁহীও পুবেব কথিত হইস্বাছে । এই সকল সমাধির 
অভ্যাস দ্বারা স্কুলের হ্যায় ক্ঙ্দ বিষন্ন ও আমরা জঅভজে ব্যান 
করিতে পাতি । এই অবস্থা যোগী তিনটি বত দেখিতে 


পান--গ্রহীতা, গ্রাহ্য ও শ্রহণ অর্থাৎ আজ্া, বিষয় ও মন্‌। 
ভিন প্রকার ধ্যানের বিষয় আমাদিগকে তেওন। ভ্ইস্বাছে । 
প্রথমভ2, স্থল, যথা শরীর-বা ভৌতিক পদার্থসমুদক্স (বিশ্বভেদ )। 
দ্বিতীক্বতঃ, স্হম্ম বস্তসমুদস্ব, বথা- মন বা চি । তুতীয়তহ, শুণ- 
বিশিই পুরুষ (ইশ্বর বা মুক্ত ) অথব। অন্মিতা বা অহঙ্কার । 
এখানে আত্মা বলিতে উহার বথার্থ স্বরূপকে বুঝাইতেছে না। 
অভ্যাসের দ্বারা যোগী এই সমুদ্দকস ধ্যানে দৃঢ় প্রতি হইক্স। থাকেন । 
তখন তাহার এতাদৃশী একা গ্রত-শক্তি লাভ হক্স যে, যখনই তিনি 
১৮৫ 


বাজবোগ 


ধ্যান করেন, তখনই অঙ্ঠান্ সমুদ্ন্ম বস্তরকে মন হইতে সরাইকন। 
দিতে পারেন । তিনি; বে বিষয় ধ্যান করেন, সে বিষক্ষের সহিত এক 
হইক্স1 যাঁন (তৎস্থিতত1 ও তদঞ্জনত? ) ১ বখন তিনি ধ্যান করেন, 
তিনি যেন একখণগ্ড স্ষটিকতুল্য হইক্সা বান ; পুস্পের নিকট স্ফটিক 
থঠকিলে, এ স্ফাটিক যেন পুম্পের সহিত একরূপ একীভূত হই 
যাক্স। যদি পুম্পটি লোহিত হয়, তবে স্ষডিকডিও লোহিত দেখান, 
বদ্দি প্ুস্পটি নীলবর্ণবিশি্ হর, তবে স্ফটিকটিও নীলবর্ণবিশিষ্ট 
দেখার । 
তত্র শব্দার্থভ্ভঞানবিকনল৪ সঙ্কীণ1 সবিতর্ক। 
সমাপ্তি ॥ 5২ ॥ 


স্ুতার্থ--স্শব্দ, অর্থ ও তহ্প্রস্তত জ্ঞান যখন মিশ্রিত 
হইয্! থাকে, তখনই তাহা সবিতর্ক অর্থ বিতরবুক্ত 
সমাধি বলিয্। কথিত হয । 


ব্যাখ্য এখানে শব্দ অর্থে কম্পন । অর্থ অর্থে যে 
সায়বিক শক্তি প্রবাহ উহাকে লইক্সর' ভিতনেে চখলিত করে, আর 
জ্ঞান অর্থে শ্তিত্রির।। আমরা এ পধ্যস্ত বত প্রকার সমাধির 
কথ। শুনিলাম, পতগ্জলি এ সকলশুলিকেই সবিতর্ক বলেন । 
ইহ্বর পর তিনি আমাদিগকে ক্রমশ5ত আবও উচ্চ উচ্চ সমাধির 
কথ। বলিবেন। এই সবিতর্ক -সমাধিগুলিতে আমরা বিষক্সী 
ও . বিষদ্প-_এই ছুইটি সম্পূর্ণরূপে পুথথক ব্াখিক্স) থাকি; ভহ 
শব্দ, উহার অর্থও তঙত্প্রস্থুত জ্ঞীনমিশ্রণে ভত্পন্ধ হম্ব। প্রথম 
বাহাকম্পন- শব্দ ;ঃ উহা ইন্ড্রিকপ্রবাহদার। ভিতনে প্রবাহিত 

৮ -৮৬] 


যোগস্চত্র 


হইলে তাহাকে অর্ন বলে। তৎপরে টিতে এক প্রতি- 
ক্রিকীপ্রবাঁহু আসে, উহাকে জ্ঞান বলা যাক] যাহাকে আমর? 
বাহ্যবস্তর অনুভূতি বলি, তাহা প্রক্রুতপক্ষে এই তিনটির 
সমষ্টি ( সংকীর্ণ ) মাত্র । আমরা এ পধ্যস্ত যত প্রকার সমাধির কথা৷ 
পাইস্সাছি, তাহার সকলগুলিতেই এই সমট্িই আমাদের থধ্যেকস । 
ইহার পরে যে সমাধির কথা বলা হইবে, তাহা অপেক্ষাক্কত 
শেন ৷ 
স্মাতিপরিশুদ্ধো স্বর পশুন্তে বার্থমা ন্রনির্ভাস। 
নির্বিবিতর্কা ॥ ৪৩ ॥ 


স্তত্রার্থ_-যখন স্থতি শুদ্ধ হইয়া যায়, অর্থাৎ 
স্মরত্তিতে আর কোন শুণসম্পক থাকে না, যখন উহা! 
কেবল ধ্োয়্ বস্ত্র অর্থমাত্র শ্রকাঁশ করে, তাহাই 
নিবিবতর্ক অর্থাৎ বিতকম্ুন্য সমাধি । 

ব্যাখ্যা _-পুর্বেবে বে শব্দদ অর্থ ও. জ্ঞানের কথ। বল 
হইছে, এই তিনটির একত্রে অভ্যাস করিতে করিতে এমন 
এক সমর আসে, যখন উহার) আব মিশ্রিত হক্স না, তখন 
আমর। অনাক্সাসে এই তভ্রিবিধি ভাবকে অতিক্রম করিতে 
পারি । এক্ষণে প্রথমতহ এই তিন্টি কি, আমর। তাহ 
বুঝিতে বিশেষ চেষ্টা করিব । এই চিভ্ত বহিস্কাছে, পুর্বেবর 
"সেই হুর্দের উপমার কথা স্মরণ কর, হ্দকে মনস্তত্ের সহিত 
তুলনা করা হইয়াছে, আব শব্দ বা বাক্য অর্থাৎ বস্তর কম্পন 
যেন উহার উপর একটি প্রবাহের হ্যান্ব আসিতেছে । তোমার 

৯৮৭ 


বাজযোগ 


নিজের মধ্যেই শ্রী ক্র হ্রদ লহিয্ণাছে । মনে কর, আমি “গে, 
এই শব্দাটি উচ্চারণ করিলাম । যখনই উহা তোমান কনে 
প্রবেশ করিল, অমনি তৎসঙ্গেই তোমার চিভহরদদে একটি 
'এরবাভ উখিত হইল । শ্রী এসবাহাটিই “গো এই শব্দ-স্থচিত্ত 
ভব বা 'র্থ। কিমি বে মনে করিক্া থাক, আমি একটি 
“গো”কে জানি, উত্া কেদল তোমার মনোমপ্যস্থ একটি 
ভবজমাল । উভা বাতা ও আন্যন্তর শব্দপ্রবাহের 'পভিক্কিয়- 
ব্বরূপ উৎ্পন্গ হইস্স। থাকে, তরী শব্দের সঙ্গে সঙ্গে প্রবাহটি ও 
নস হুইসস) বাত্স। একটি বাক্য বা শব্দ ব্যতীত প্রবাহ থাকিতে 
পারে না । আবৃত তামার সনে এরূপ উদক্স হইত্তে পারে 
যে, যখন কবল এগাশটির নিষক্ চিন্তা কর অথচ বাহির 
হইতে কে!ন শব্দ কর্ণে না আসে, তখন শব্দ থাঁকে কোথায় ?€ 
তখন ত্র শব্দ তুনি নিজে নিজেই করিতে থাক । তুমি তখন 
নিভের মনে মনেই “গে এই শবটি আস্তে আমে বলিতে 
থাক, তাঁভ। ভইতেই তত|মাঁব অন্তত একটি শ্রবাহ আসিব 
থাকে । শব্দের উত্তেজন্। ব্যতীত কোন প্রবাহ আসিতে পাবে 
না; আর বখন বাভির হইতে শ্রী উত্তেজনা? না আসে, তখন 
ভিতর হইতেই উহা আসে । আব বখন শব্দটি থ।কে না, 
তখন প্রবাহটিও থাকে না । তখন কি অবশিষ্ট থাকে £ তখন 
শর প্রতিক্রিক্ার ফলমাত্র অবশিষ্ট থাঁকে। উহাই জ্ঞান ॥। এই 
তিনি আমাদের মনে এত দৃঁ়সহ্ঘদ্ধা বহিক্ষাছে তে, আনর। 
উশ্তাদিগকে পুথক করিতে পাত্ধি না। যখনই শব্দ আসে, 
তখনই ইক্দিষষগণ কম্পিত হইক্সা থাকে, আর প্রবাহসকল 
৯৮৮ 


রি 
র্‌ 


যোগস্ঠত্র 


প্রতিক্রিক্সাত্বরূপে উৎপন্ন হইয়া থাকে, উহার! একটির পর 
আর একটি এভ শী আপিয়া থাকে যে, উহাদের মধ্যে 
একটি হইতে আর একটিকে বাছিরা লওয়া অতি . হছর্ঘট ; 
এখানে যে সমাধির কথ বল হইল, তাহা দীর্ঘকাল অভ্যাস 
করিলে পর্ন সনদ সংস্কারের আশধারভদমি স্মৃতি শুদ্ধ হইত! 
যার, তথনই আমরা উহদের মধ্যে একটি হইতে অপরটিকে 
পুছ্ক কবিতে পব্রি, ইহাকেই নিব্িবতর্ক সমাধি বলে । 


এতষ্ৈব সবিচারা নিব্বিভার। চ 
সুম্ষববিষক্বা বাখযাতা ॥ ৪৪ ॥ 
স্ত্রর্থ_পুবেবাস্ত স্যত্রদ্ধয়ে যে সবিতর্ক ও নিবিব- 
তর্ক সমাধিদছ্য়়ের করা বলা হইল, তদ্দারাই সবিচার 
ও নিবিবচার উভক্স শ্রকার সমাধি, যাহাদের বিবিক্ 
স্রন্মতর, তাহাদেরও ব্যাখ্যা করা হইল । . 
ব্যাখ্যা এখানে পুর্বের ন্যান্ বুঝিতে হইবে । - কেবল 
পৃর্বেধাক্ত ছইটি সমাধির বিষন় স্থুল, এখানে উহার বিষস্ব সুক্ষ । 
সুন্ষববিষস্ত্বঞ্চালিঙগ পধ্যবসানম্‌ ॥ ৪৫ ॥ 


স্ত্রার্থ স্ল্মবিবয়ের অস্ত প্রধান পব্যন্ত । 
ব্যাখ্যা কতগুলি ও তাহ হইন্ডে উৎপন্ন সমুদ্র বস্তকে 
স্থল বলে । স্ুঙ্মবন্ত তন্মাত্রা হইতে আরম্ভ হয় । ইন্ড্রিয়,০ মন 
€ অর্থাৎ সাধারণ ইন্ছ্রিদ্স, সম্ুদক্ম ইন্ড্রিয়ের সসষ্রিন্বক্প ), অহঙ্কার, 
মহত্তত্ড (যাহা সমুদয় ব্যক্ত জগতের কারণ ), সত্ব: রজঃ ও 
৬৮০ 


বাজযোগ 


তমের সাম্যাবস্থারূপ প্রধান, প্রকৃতি অথবা অব্যতস্ত*$় ইহার 
সমুদয়্ই ুস্ম বস্তর অস্তর্গতি । পুরুষ অর্শ আত্মাই কেবল 
হভাবু ভিতর পড়েন না । 
ত1 এব সবীজহ সমাধি ॥ ৪৬ ॥ 

স্রত্রার্থ_এই সকলগুলিই সবীজ সমাধি । 

ব্যাখ্য।__এই সমাধিশুলিভে পুর্ববকন্ধের বীজ লাশ হন না 
স্ৃতরাং উনাদের দ্বারা মুক্তিলাভ হয় না। অভনে উহাদের দ্বার! 
কি ভয়? ভাভ। পশ্চালিবিস্ঠ স্ত্রগুলিতে ব্যক্ত হইতাছে । 


[িবিবচালর-বেশারছ্োহধ্তাত্সঞ্রসাদ5 ৪৭ ॥ 
স্রত্রার্থ-_নিবিবচার সমাধির স্বচ্ছত! জন্মসিলে চিত্তের 
স্িতির দুঢ়ত1 হয্স € ইহাই বেশারদী শ্রভ্ভঞা )। 
ধাতস্ভর তত্র পভ ॥ ৪৮ ॥ 
স্রত্রার্থ_উহাাতভে যে জ্ভানলাভ হুয়ঞঠ় তাহাকে 
ঝতম্ভর অর্থাৎ সত্যপুণ ত্ভান বলে । 
ব্যাখ্য1__ পরুস্ত্রে ইহ? ব্যাখ্যাত ভইবে ৷ 
শ্রতানুমানপ্রজ্ভাভ্তামন্যাবিবয়! বিশেষার্থত্বা 0৪৯৪ 
স্ত্রার্থ যে জ্ঞান বিশ্বস্ত জনের বাক্য ও অন্কমান 
হইতে লব্ধ হয়, তাহা সাধারণ বস্ভতবিষয়ক। যে 
সকল বিষয় আগম ও অন্ফমানজন্য জ্ঞানের গোচর 
নহে, তাহার পুক্বকখিত সমাধির এও্রকাশ্য | 


ব্যাখ্যা ইহার তাত্পধ্য »এই যে, আমরা সাধারণবস্ত- 
৯০১৬ 


যোঁগস্ডুত্র 


বিষয়ক জ্ঞান প্রত্যক্ষা্ছভব, তছপস্থাপিত অন্ঞমান ও বিশ্বস্ত 
লোকের বাক্য হইতে প্রাপ্ত হই। “বিশ্বস্ত লোক” অর্ধে যোগীর। 
ঝধিদিগকে লক্ষ্য করিক্া থাকেন, ফি অর্থে তেদবণিত ভাব- 
গুলির দ্রষ্টী অর্ছগাৎ বাহারা সেইগুলিকে সাক্ষাৎ করিক্বাছেন। 
তাহ।দের মনে শাসন্সের প্রামাণ্য কেবল এই জন্য যে, উহ 
বিশ্বস্ত লোকের বাক্য ॥। শান্তর বিশ্বস্ত লেকের বাক্য হইলেও 
তাহার) বলেন, শুধু শান্স আমাদিগকে সত্য নঅন্ভনবৰ করাঁইতে 
কখনই সমর্থ নভে । আনব সমুদয় বেদ পাঠ করিলাম, 
তথাপি আধ্যাত্মিক ভক্তের অন্ভূতি কিছুম।ন ভইল নল) কিন্ছ 
যখন আমর) সেই শান্বোক্ত সাধন্-প্রণালী অনুসারে ক্রাধ্য করি, 
তখনই আমর এমন এক অবস্থা উপনীত তই, তে অবস্থায় 
শাস্সোক্ত কথাশুলির প্রত্যক্ষ উপলব্ধি হয় 5 থুক্তি, শ্রভ্যক্ষ ও 
অনুমান যথাক্সম সিনে পানে না, উহা অতথাক্স ও প্রবেশে 
সমর্থণ তথাক্র আশুবক্যেরও কোন কাধ্যকারিতী। নাই । এরই 
স্ত্রদ্বার। ইহাই প্রকাশিত হইয়াছে বে, প্রত্যক্ষ করাই যথার্থ 
ধন, ধর্মের উভাই সার, আর অবশিষ্ট যাঁভ। কিছু, যখ- 
ধন্মবক্ততাশ্রবণ অথবা ধন্মপুস্তকপাঠড বা বিচার কেবল এ 
পথের জন্য প্রস্তুত হওর। মাত্র । উহ) প্রকুত পন্ম নভে । কেবল 
কোনমতে বুদ্ধির সক দেওয)?, বা না-দেওযা। ধন্দম নহে। 
যোশীদিগের মূল ভাব এই বে, যেমন ইক্দছ্রির-বিবয়ের সহিত 
আমাদের সাক্ষাৎ সন্বন্ধ'ঘটনা ভম্ব, ধন্মও তন্দরপ 'প্রত্যক্ষ করা 
য।ইতে পারে ১ বরং উন আরও উজ্জলতররূপে অনুভূত হইতে 
পারে । ঈশ্বর, আত্মা প্রভৃতি ধর্মের থে সকল শ্রতিপাছ্ 
১০১১ 


রাজযোগ 


সত্য মাছে, বহিরিন্ড্রি় দ্বারা, উহাদের প্রত্যক্ষ হুইভে পাশে 
না। চক্ষু দার। আমি ঈশ্বরকে দেখিতে পাই না অথব। হস্ডদ্বার। 
স্পর্শ করিতে পাতি না। আর ইহাও জানি ঘে, বিচার 
আঁনাদিগকে ইন্ড্রিশ্বের অতীত প্রদেশে লই যাইতে পারে নাঃ 
উহা? আনাদিনতকে সম্পূর্ণ অনিশ্চিত প্রদেশে ফেলিন্ব। দিক্সী চলিব| 
বাসর? সমস্ত জীবন বিচার কর না কেনক তাহা ফল কি 
ভইবে £ আধ্যাত্সিক ভক্ত প্রনাণ বা অপ্রমাণ কিছুই কতব্রিনে 
পারিবে না ॥। এইরূপ বিচার তত জগৎ সহন্রবর্ষ ধরিক্। করিয়। 
আসিতেছে 2 আনব ব।ভা? সাক্ষাৎ অন্ভবৰ করিতে পালি, 
ত1হাতি ভিভিস্করূপ করিক্ত। সেই ভিভ্ভিল উপর যুক্তি, বিচাবাদি 


করিনা থাকি । অতএব উহা স্পষ্টই বোধ হইতেছে যে, 
যুক্তিকে এই নিষ্্নাচ্ভূতিন্দপ গশ্ডির ভিতর ভ্রমণ করিতে হইবেই 
হইবে ১ উহ)? ভাহার উপর কখনই যাইনে পারে না। সুতরাং 


যাভ। কিছু আধ্যাত্মিক তত্র অনুভব করিন্ডে হইবে, সমুদয়ই আমাদের 
ইক্ড্রিরের অতীত প্রঙগেশে । বোগার। বলেন, মানুষ ইন্দ্রিরজ প্রত্যক্ষ 
ও বি5।বুশক্তি উভক্বকেই অতিক্রম করিতে পারে । মাছষের নিজ 
বুদ্ধিকে ও অতিক্রম করিবার শক্তি রহিস্বাছে, আর এই শক্তি 
প্রত্যেক শ্রানীতে, প্রত্যেক জন্ততেই অস্তনিহিত আছে । 
যঘোগ।ভ্যাসের ছার এই, শক্তি জাগরিত হয় । তখন মানুষ 
বিচারের গণ্ডি পার হইক্স। গিন্ন। তর্কের অগাম্য বিষক্ষসমুহ 
প্রত্যক্ষ করে । 


তভ্ভঃ সংস্কারে হন্য সংস্কার প্রতিবন্ধী ॥ ৫০ ॥ 
৪৯ ৭ 


বোগস্তশ্র 


স্রতরার্থ এই সমাধিজাত € জ্ভান ও ক্রিয়া ) সংস্কার 
অন্যান্য সংস্কারের প্রতিবন্ধী হয় অর্থাৎ অন্যান্য স্ংক্কারকে 
অর আসিতেত দেয় না । 


ব্যাখ্যা- আনর। পুর্ব স্ুজে দেখিক্সাছি যে, ৩ 
জভঞানাতীভ ভূমিতে যাইবার একমাজ উপাক-__ একা প্রত 
আমরী আবে দেখিগাছি, পুর্ববসংস্কাতগুলিই কেবল আমা দিগের 
প্র গ্রাকার একাগ্রতা লাভের শ্রতিবন্ধক। তোমরী? সকলেই 
লক্ষ্য করিনাছ যে বনই তোমরা মনকে একাপ্র করিতে চেগ্ত। 
কর, তখনই তোমাদের ন।নাপ্রকার চিন্তা "আসে । যখনই 
ঈশ্বরচিন্ত। করিতে চেষ্টা কর, ঠিক েউ সময়েই এর সকল 
সংস্কার জাগিন্না উঠে । অন্ত সময়ে ভাহারা। ভতভ আনল থাকে 
না), কিজ্ড বখনই উহ্াদিগঞকে আাড়াইবার চেষ্টা কর, তখনই 
উহার)? নিশ্চন আসিবে, তামার মনকে বেন একেবারে ছা ইসস! 
ফেলিবার চেষ্টা করিনে। ইভ্ার করণ কি? এই একাগ্রতা 
অভ্যাসের সমন্েই ইহ।রা এত গাবল হক তেন? ইহার 
কারণ এই, তুমি উহাদ্দিগকিে দমন করিবার চেষ্টী করিতেছ 
বলিক্ণই উহার উহাদের সমুবন বল প্রকাশ করে। অন্যান্য 
সমন্সে উহার) ওক্ধপ ভাবে বল প্রকাশ করে না । এ সকল 
পূর্বসংস্কারের সংখ্যাই বা কত! চিত্তের কোন স্থানে উহার 
জড় হইন্্! বহিয়াঁছে, আর ব্যান্বের ভ্াাকস লম্ষ প্রদান করিনা 
আক্রমণের জন্য যেন সর্বদা প্রন্তত হইন্বা রূহিক্সাছে। এীগুলিকে 
প্রতিরোধ করিতে হইবে, বাঁহাত্ে আমরা, যে ভ।বটি হৃদস্ষে 


৯০৯৩ 


রাজযোগ 
রাখিতে ইচ্ছ॥) করি, কেবল ঢেইটিই আসে, অপরাপর সমুদয় 
ভাবগুলি চলিয়া! যাক । তাহ। না হইয়া? তাহারা এ সময়েই 
আসিবার চেষ্টা করিতেছে । সংস্কারসমূহের এইবূপ মনের 
একা গ্রতী-শক্তিকে বাধা! দিবার ক্ষমত। আছে। সুতরাং যে 
সমাধির কথা এই মাত্র ব্লা হইল, উহা? অভ্যাস কর 
বিশেষ আবশ্তাক ; কারণ উহা শ্রী সংস্কারগুলিকে নিবারণ 
করিতে সমর্থ। এইরূপ সমাধির অভ্যাসের দ্বারা বে সংস্কার 
উত্থিত হইবে, তাহা এত প্রবল হইবে বে, অন্থান্ট 
সংস্কারের কাধ্য বন্ধ করিব তাহাদিগকে বনাভৃত করিন। 
রাঁখিবে । | 
তস্তাপি নিরোধে সর্বনিরোধানিবাঁজঃ সমাধি ॥৫১॥ 

স্রত্রার্থ তাহারও € অর্থাৎ যে সংস্কার অন্যান্য 
সমুদয় সংক্গারকে অবরুদ্ধ করে) অবরোধ করিতে 
পারিলে, সমুদয় নিরোধ হওয়াতে নিবাীজ সমাধি 
আসিয়! উপস্থিত হয় । 

ব্যাখ্যা তোমাদের অবশ্ত স্মরণ আছে, আমাদের জীবনের 
চরম লক্ষ্য - এই আত্মাকে সাক্ষাৎ উপলদ্ধি কবা। আমর! 
আজ্সাকে উপলব্ধি করিতে পারি না, কারণ উহা প্রকৃতি, মন ও 
শরীরের সহিত মিশ্রিত হইয়া পড়িয়াছে। অত্যন্ত অজ্ঞানী 
আপনার দেহকেই আত্ম! বলিয়া মনে করে। তাহা অপেক্ষা 
একটু উন্নত লোকে মনকেই আত্মা বলির মনে করে। কিন্ত 
উভয়েই ভ্রাম্ত । আত্মা এই সকল উপাঁধির সহিত মিশ্রিত 

৯৯৪ | 


যোগস্ক্ত্র 


হন কেন? টিভে এই নানাপ্রকার তরঙ্গ উখিত হইস্সা আত্মাকে 
আবুত করে, আমর। কেবল এই তরঙ্গগুলির ভিতর দিস্সাই 
আত্মার কিঞ্চিৎ প্রতিবি্মমাত্র দেখিতে পাই । বদি ক্রোধ 
বুভ্তিবূপ প্রবাহ উখিত হন্স, তবে আমরা আত্মাকে ক্রোধঘুক্ত 
অবলোকন করি; বলির থ।কি* আমি রুষ্ট হইক্সাছি । যদি 
প্পেমের এক তরঙ্গ চিভ্েে উত্থিত হত, তবে প্র শুবরঙ্গে আপনাকে 
প্রতিবিহ্িত দেখিক্স। মনে করি বে, আমি ভালবাসিতেছি । 
যদি ভুর্বলতারপবুক্তি আসিক্সা) উদ্দিত হত» তবে উহাতে 
আপনাকে প্রতিবিশ্বিত করিয়। মনে করি, আমি হছুর্বল ॥। এই 
সকল বিভিন্ন পুর্ববসংক্কার আত্মার ত্বরূপকে আবরণ করিলেই 
এই সকল বিভিন্ন ভাব উদ্দিত হইত্ন) থাকে । চিতুঙ্রুদে 
যতদিন পধ্যন্ত একটিও তরঙ্গ থাকিবে, ততর্দিন আত্মার 
প্রকৃত স্বরূপ দেখা যাইবে না। যতদিন না সমুদকন্স গাবাহ 
একেবারে উপশাস্ত হইনা যাইতেছে, ততর্দিন আত্মার প্রক্কত 
স্বরূপ কখনই প্রকাশিত হইবে না। এরই কারণেই পততঞ্জলি 
প্রথমে এই প্রবাহত্বরূপ বুভিগুলি কি, তাহ? জানাইক্স) দ্বিতীয়তঃ 
উহাদ্িগকে দমন করিবার সর্বশ্রেী উপাক্স শিক্ষ। দিলেন । 
তৃতীক্তঃ এই শিক্ষা দিলেন বে, যেমন এক বুহতৎ অগ্রিরাশি ক্ষত 
অশ্সিকণাগুলিকে গ্রাস করে, তেমনি একটি এপ্রবাহকে এত দূর 
প্রবল করিতে হইবে যাহাতে অপর প্রবাহশুলি একেবানে 
লুগ্ হইক্স)? যায় । যখন একটি প্রবাহনাত্র অবশিষ্ট থাকিবে, 
তখন উহাঁকেও নিবারণ করা সহজ হইনে। আর যখন 
উহ1ও চলিন্ন। যাইরে, তখনই সেই সমাধিকে নিব্বীজ সমাধি 
৯৩১৫ 


বাজযোগ 

বলে। তখন আব কিছুই খাঁকিবে না, আজ্ঞা নিজন্বরূণে 
নিজমহিমার অনস্থিত হইলেন ॥। আমরা তখনই জানিতে পারিব বে, 
আত্ম মিশ্র পদার্থ নহেন, উনিই জগতে একনা ত্র নিত্য অমিশ্র পদাথ, 
ক্রবাীং উহার জন্ম ও নাই, মৃত্যুও নাঁই-উন্ি অমর, অবিনশ্বর» নিত্য, 
€চভন্ঞঘন সভ1-স্বরূপ । 


৯৩১৩৬ 


ছ্িভীক্ অধ্াক্স 
সাধন-স্দ্‌ 


তপরঃন্বাধ্যারে শ্বরপ্রণিধানানি ক্রিয়াবো52 ॥ ১ ॥ 

স্ত্রার্থ_তপস্তযা, অধ্যাত্মশাস্্-পাঠি ও ঈশ্বরে সমুদয় 
কম্মফল-সমর্পণকে ক্রিয়াযোগ কহে । 

ব্যাখ্য।-_ পুর্ব অধ্যায়ে ষে সকল সমাধির কথ। বলা হইয্াছে, 
শাহ) লাঁভ কর) অতি হর্ঘট । এই জনা আমার্দিগকে ধীরে 
ধীরে পে সকল সমাঁধিলাভের চেষ্টা করিতে হইলে । ইহার 
প্রথম সোপাঁনকে ক্রিরাষোগ বলে । ইভার শুব্দার্থ- কন্ম- 
দারা যোগের দিকে অশ্রসল ভওয়।। আনাদের ইন্দ্রিরগুলি 
যেন অশ্বন্গলপ, মন তাহার প্রগ্রহ (রশ্মি না লাগাম ), বুদ্ধি 
সারথি, আত্মা সেই রথের আরোহী, আবু 'এই শবীর ল্রথ- 
স্বরূপ । গরহভ্বামিত্বপরূপ বানুষের আত্মা বাঁজী-স্বরূপে এই রথে 
বসিয়। আছেন । যদি অশ্বগণ অন্তি প্রবল হয়, রশ্যিন্বার! 
সংযত না থাকিতে চায়, আর যদি বুদ্ধিরপ সারথি এ অশ্- 
গণকে কিরূপে সংযত করিতে হইবে তাহা না জানে, তবে 
এই রথের পক্ষে মহা বিপদ উপস্থিত ভইবে। ' পক্ষাস্তরে, 
বদি ইক্ছ্রিয়দ্প অশ্বগণ উত্তমরূপে সংযত থাকে, আর মন্রূপ 
রশ্মি বুদ্ধিরপ সারথির হন্ডে দুঢরূপে ধুত থাকে, তবে এ 
রথ ঠিক উহার গম্তব্য স্থানে পৌছিতে পারে । এক্ষণে এই 

১০১৭ 


বাজষোগ 


তপস্যা) শব্দের অর্থ কি বুঝিতে পারা যাইবে । তপস্তা শব্দের 
অর্থ-- এই শরীর ও ইন্ড্রিমগণকে পরিচালন করিবার সমর 
খুব দৃঢ়ভাবে ব্রশ্মি ধরিয়া থাক,» উহাদিগকে ইচ্ছামত কাধ্য 
করিতে না দিনা আত্মবশে বংখা। তত্পরে, পা5 বা স্বাধ্যায় | 
এ স্থলে পাঠ অর্থে কি বুঝিতে হইবে ? নাটক, উপন্যাস 
বা গলের পুস্তক পাঠ নযবে সকল গ্রন্থে আত্মার মুক্তি 
কিসে হয় শিক্ষা দেরঃ? তেই সকল শ্রহ্থপাঠ ॥ আবার ব্বাধ্যান 
বলিতে তর্ক বা বিচারাত্মক পুস্তকপাঠ বুবিতে হইবে না। 
ইহ7 বুঝিতে হইবে যে, বিনি তোগী, তিনি বিচারাদ্দি করিন? তৃগ্ 
হইঞ্জাছেন্‌ ১ আর তাহার বিচারে ক্রচি নাই । তিনি (জপ, ০স্ডাত্র 
ও শ্ান্ম ) পাঠ করেন, কেবল তাহার ধারণাশুলি দৃঢ় করিবার জন্য । 
ছুই প্রকার শান্্রীয জ্ঞান আছে, এক প্রকারের নাম 
বাদ €বাহা অতর্ক-বুক্তি ও বিচারাত্মক ) ও দ্বিতীয়-_সিদ্ধাস্ত 
€ মীমাংলাত্সক )।1। অজ্ঞানাবস্থাক লোকে প্রথমোক্ত শ্রকার 
শান্ীয় জ্ঞানান্তরনালনে প্রাবুত্ত হক্স, উহ1 তর্কবুদ্ধ-ত্বপ্ূপ--প্রত্যেক 
বস্তর সব দিক দেখিক্সা বিচার করা» এই বিচার শেষ 
হইলে তিনি কোন এক মীমাংসান্স উপনীত হন। কিন্তু শুধু 
সিদ্ধাস্তে উপনীত হইলে চলিবে না। এই সিন্ধাস্ত-বিষন্ষে 
মনের ধারণ। প্রগাছ় করিতে হইবে । শাস্স অনস্তভ, সমস 
ক্ষিপ্ত, অতএব জ্ঞান্লাভের গুগুকৌশল এই যে, সকল 
বস্তর সারভাগ গ্রহণ করা উচিত। ত্র সারটুকু লইক্স। শর 
উপদেশ মত জীবনযাপন করিতে চেষ্টা কর। ভারতবষে 
প্রালীন কাল হইতে একটি প্রবাদ প্রচলিত আছে, তাহা এই 
১৯৩১৮ 


যোগস্চত্র 


যে, ষদি তুমি কোন রাজহংসের সম্মুখে একপাত্র জলমিশ্রিত 
ভগ্ধ ধর, তবে সে সমুদয় হগ্চটুকু পান করিবে, জলটুকু ফেলিক্বা 
রাখিবে। এইরূপে জ্ঞানের বেটুকু প্রকোজনীত্র ₹শ, তাহ? 
গ্রহণ করিক্প। আঅসারভ।গটুকু আমাদিগকে ফেলি দিতে 
হইবে । ধ্রথম অবস্থাস্ম এই বুদ্ধির ব্যাক্সাম আবশ্যক কনে ॥ 
অন্ধভাবে কিছুই শ্রহণ করিলে চলিবে না) তবে বিন 
ঘোলা, তিনি এই অতর্কবুক্তির্ন অবস্থা অতিক্রম করিস্্। একটি 
পর্ববতব অচল দৃঢ় সিদ্ধান্তে উপনীত হইক্সাছেন। তাহার 
তখন একমাত্র উদ্দেশ্য হস্ত হযে, এ সিদ্ধাস্তটিতে দুঢ়প্রত্যক্স 
হওয়। ! তিন্নি বলেন, বিচার কছিও না5 যদি কেহ জো 
করিস্সা তোমার সহিত তর্ক করিতে আসে, তুমি তর্ক নন 
করিন্না চুপ করিক্সা থাকিবে! হোন তকের উত্তর না দিয়া! 
শাম্তভাবে তথা হইতে চলিস্বা য।ইবে, কারণ তর্কের দ্বার! 
কেবল মন চঞ্চল হম মাত্র । তর্কের প্রক্বোজন ছিল কেবল 
বুদ্ধিকে সতেজ করা * ভাহাই বখন্ন সস্পন্গ হইস্খ? হোল, তখন 
আর ভহাতে বৃথ। চঞ্চল করিবার প্রাস্মোজন কি? বুদ্ধি একটি 
তর্ববল বস্ত্র মাত্র উহ আমাদিগকে ইন্দ্রিক্সের গঞণ্ডির মধ্যবভ্গ 
জ্ঞান দিতে পারে মাত্র। যোগী উদ্দেশ্য ইন্ছরিম্াতীত প্রদেশে 
বাওযস্া1” আ্তরাং তাহার পন্ষে বুদ্ধিচালনার আর কোন প্রস্সোজন 
থকে না তিনি এই বিষক্ষে দৃঢুনিশ্চক্স হইক্বাছেন, স্তরাং 
তিনটি আর তর্ক করেন নী, চুপচাপ থাকেন । কারণ তক 
করিতে গেলে মন সমতাচ্যুত হইক্স পড়ে, চিভ্তের মধ্যে একট! 
বিশৃজ্ঘল। উপস্থিত হন্গ ; আর চিত্তের এইব্সপ বিশৃঙ্খল তাহার 
১৯৯ 


১৪ 


বাজযোগ 


পক্ষে বিদ্রমাত্র। এই সমুদ্দর তর্ক, যুভ্তি বা বিচারপুর্বক 
তভ্তবান্বেণ কেবল প্রথম শিক্ষার্থীর পক্ষে । এই তকষুক্কির 
অতীত প্রদেশে উচ্চতর তত্রসমূহ রহিস্কাছে । সমুদক্ জীবনটাই 
কেবল বিগ্ভালস্বে বালকের নাক বিবার বা বিচার-সমিতি 
লইক্সাই পধ্যাশ্ড নহে! ঈশ্বরে কম্মকল-অর্পন অর্থে কর্মের 
জন্য নিজে নিজে তোনরূপ প্রশংসা ব। নিন্দা না লইস্জ। এহ 
হুইটিই ঈশ্বরে সমর্পণ কিক নিজে শাক্তিতে অবস্ষিতি কণা! 
বুঝা । 

সমা(ধি-ভাবনার্থঃ ক্রেশতন্মকরণার্থশ্ি ॥ ২ ॥ 

স্ুত্রর্থ- এ ভ্রিয়াবোগের প্রয়োজন, সমাধিকে ভাবিত 
বা উদ্দীপিত এবং ক্রেশজনক বিদ্বসমুদয়কে ক্ষীণ করা । 

ব্যাখ্যা__আমরা অনেকেই মনকে আছুরে ছেলের মত 
করিস! ফেলিক্ষাছি । উহ? যাহা চান্স, তাহাই পিক থাকি । এই 
জন্য সর্ববদ। ক্রিক্সাযোগের অভ্যাস আবশ্টক* যাহাতে মনকে 
যত করিক্সা নিজের ব্ণাভভূত করা বাক্স । এই সংষমের অভাব 
হইতেই €বোগের সমুদক্স বি উপস্থিত হইব্রাঁ থাকে ও তাহাতেই 
ক্রেশের উতৎ্পন্তি। উহাদ্দিগকে ঘুর কাববার উপাক্ব-ক্করিক্সাবোগের 
দ্বারা মনকে বণভূত করা ভহাকে ভহাবর কাধ্য করিতে 
না দেওয়া । 
অ(টবগ্যাহুস্মিতারাগছেষাভিনিবেশাও পঞ্চ-ক্রেশাহ ॥৩॥ 


স্তত্রার্থ_ _অবিচ্যা, অন্সিতা, রাগ, ছ্বেষ ও অভি 


নিবেশ- ইহহারাই পঞ্চ ক্রেশ ॥ 
খই গু ও 


যোগস্ত্ত্র 


ব্যাখ্য।--ইহারাই পঞ্চ ক্রেশ, ইহারা পঞ্চবন্ধনম্বর্ূপে আমা- 
দিগকে এই সংসারে বদ্ধ করিক্তা রাখে । অবশ্য, অবিদ্ভাই এ 
অবশিষ্ট সমুদক্ষশুলির জননীম্বরূপ। (| এও অবিষ্ভাই আমাদের 
হুঃখ্ত্র একমাত্র কারণ । আর কাহার শক্তি আছে যে, আমাদিগকে 
এইকূপ হহখে রাখে ? আত্মা নিত্য আনন্দত্বরূপ*» ইহাকে 
অভ্ভান, ভ্রন, মাক্সা ব্যতীত আর কিসে ছুহখিত কব্রিতে পারে ? 
আত্মার এই সম্বদ্বয্ন ভুঃখই কবল ভ্রমনাত্র | 

আবন্যি। ক্ষত্রমুভ্রেষাং 

প্রস্থশুতন্দবিচ্ছিন্োন্াারাণান্‌ ॥ ৪ ॥ 

স্ত্রার্থ__অবিগ্যাই পরগুলির উৎপাদক ক্ষেত্র 
স্বরূপ । উহার কখন লীনভাবে, কখন স্ক্ধ্প ভাবে, কখন 
অন্য বুৃন্তি দ্বারা বিচ্ছিন্ন অর্থ অভিজ্ভঠতত হইয়া, কখন 
বা প্রকাশ থাকে । ৃ 

ব্যাখ্যা-_-অবিস্যা অন্মিতা, বাগ, ঘ্বেব ও অভিনিবেশের 
কারণ । এ সংস্কারগুলি আবার বিভিন্ন লোকের মনে বিভিজ্স 
অবস্থাক্ম অবস্থিতি করিস্সা থ।কে ॥। কখন কখন হারা প্রসথস্তু- 
ভাবে থাকে । তোমরা অনেক সমর “শিশুতুল্য নিব্ীহ” এই 
বাক্য শুনিক্বা থাক, কিস্ত এই শিশুর ভিতরেই হস্ত দেবত। ব! 
অন্গুরের ভাঁব রহিক্সাছে। ত্র ভাব ক্রমশহ প্রকাশ পাইবে । 
যোগীর হৃদকে প্ুর্ববকম্মের ফলস্বব্ধপ শ্রী সংস্কারগুলে তন্ছভাবে 
থাকে ॥। ইহার তাঁৎপধ্য এই, উহার খুব স্ন্ষ অবস্থাস্ম থাকে, 
তিনি উহার্দিগকে দমন করিয়া ব্লাখিতে পারেন । তাহার 


সহ গু ৯ 


বাজযোগ 


উহ্াদিগকে ব্যক্ত হইতে না দিবার শক্তি আছে । কখন কখন 
কতকগুলি প্রবল সংস্কার আর কতকগুলি সংস্কানত্রকে কিছুকালের 
জন্য আচ্ছন্ন করিনা বাখে, কিন্ত যখনই শর আচ্ছন্রকারী 
কারণশুগল চলিক্সা বাঁক, তখনই আবার উহারা প্রকাশ হইব্র। 
পড়ে । এই আঅবস্থাঁটিকে বিচ্ছিন্ধ বলে। শেষ অবস্থাটির ন।ম 
উদার । এ অবস্থাক্স সংস্কারগুলি অনুকুল পারিপার্িক অবস্থার সহাক্পত। 
পাইয়1 শুভ ব1 অশুভর্দপে খুব প্রবলভাবে কাধ্য করিতে থাকে ॥ 

অনিনত্তাশুচিভ৪€খানাত্মক্ 

নিত্যশুচিকজ্খাত্সখতাতিবরবিহ্যা ॥ ৫ ॥ 

স্রত্রার্থ_অনিত্য, অপবিভ্রৎ ছুহখকর ও আআ ভিন 
পদার্থে যে লিভ্য, শুটি, স্মুখকর ও আত্মা বলিম্া ভ্রম 
হয়, তখহাঁকে অবিদ্যা বলে । 

ব্যাখ্যা_-এই সমুদ্র সবংক্কারের একমাত্র কারণ অবিস্যা! । 
আমাদের প্রথমে জানিভে হইবে, এই অবিদ্ভা কি? আমরা সকলেই 
সনে করি, “আমি শরীর, শুদ্ধ জ্যাতিন্সযস নিত্য আনন্দন্বরূপ আত্ম! 
নহি”--ইহা অবিদ্ধা ॥ আমরা মানুষকে €(স্থান-বীজ-উপষ্টস্ত-নিস্ঞন্দ_ 
নিধন-দোষে দেহ স্বতঃই অশুচি ) শরীর বলিক্কা ভাবি এবং দেখি, ই! 
মহ জম । 

দৃগদর্শনশজ্ঞ্যোরে কাজ তৈবাহস্মিতা ॥ ৬ ॥ 

স্কৃত্রার্থ- দৃক ও দর্শনশক্তির একীভাবই অস্মিতা । 

ব্যাখ্যা _আত্মাই যথার্থ দ্রষ্টাী, তিনি শুদ্ধ, নিত্যপবিভ্র, অনস্ত 
ও অমবু । আর দর্শনশক্তি অর্থাৎ উহার ব্যবহাধ্য বস্রকি কি? 

২০২ 


যোগস্তত্র 


চিত বুদ্ধি অর্থাৎ নিশ্চব্রাত্যিক। বুরভ্ভি, মন ও ইন্দ্রিসসগণ, -এইগুলি 
উহার বন্ত্র। এএইগুলি তাহার বাহা জগৎ দেখিবাব্ধ যন্ত্রক্বূপ, আর 
আত্মার সহিত প্রশুলির একীভাবকে অন্মিতারূপ অবিস্তা বলে। 
"আমর বলিকা থাকি, “আমি চিভুবুত্ি, আমি কউ হইক্সাছি, 
অথব। আমি ক্ষতী |” কিন্ত কথা! এই», কিরূপে আমরা কষ্ট হইতে 
পারি ব$ কাভাকেও ম্বণা করিতে পাবি?” আত্মার সহিত 
আপনাকে অভেদ জানিতে হইবে । আত্মার ত কখন পরিণাম 
ভয় না । আত্মা! যদি অপবিণামী ভন, তবে তিনি কিব্দপে 
এইক্ষণে ল্হী, এইক্ষণে ছঃখী হইতে পারেন? তিনি নিরাকার, 
অনন্ত ও সর্বব্যাপী । উহাকে পরিণাম্প্রাপ্তু কবরাইতে পারে 
কে? আত্মা সর্ববিধ নিম্রমের অতীত । কিসে তাহাকে 
বিকৃত করিতে পারে ?. জগতের মধ্যে কিছুই আত্মার উপর 
কোন কাধ্য করিতে পারে না। তথাপি আমরা অজ্ঞতাবশতঃ 
আপনাকে মনোবুভ্তির সহিত এএকীত্ৃত করিক্সা ফেলি এবং স্থখ 
অথব। ছুঃথ অনুভব করিতেছি মনে করি । 


কৃখান্ছশক্ী বাগ ॥ ৭ ॥ 


স্ত্রণর্থষে মনোবুক্তি কেবল সুখকর পদার্থের 
উপর থাকিতে চায়, তাহাকে বাগ বলে । 

বাখ্যা_আমরা কোন কোন বিষকে সুখ [পাোইক্সা থাকি » 
যাহাতে আমরা সুখ্খ পাই, মন একটি প্রবাহের মত তাহার দিকে 
প্রবাহিত হইতে থাকে । স্ুখ-কেন্ছের দিকে ধাবমান আমাদের 
মন্ব প্র প্রবাহকেই € গঞ্ধঃ ) বাগ বা আসক্তি বলে । আমর যাহাতে 


ম্ট্‌ ৩৭৩) 


বাজযোগ 


স্থখ পাই না এমন কোন বিষয়েই কখন আকৃষ্ট হই না। 
আমর অনেক সময়ে নানা প্রকার কিন্তুতকিমাকার ব্যাপারে 
স্থখ পাইয়) থাকি, তাহা হইলেও রাগের যে লক্ষণ দেওয়। 
গেল, নাভ সর্বত্রই খাটে । আমরা যেখানে স্থথ পাই, 
সেখানেই আকুষ্ট হইয়। থাকি । 
ছহখানুশম্ী দ্বেষ ॥ ৮ | 

স্ত্রার্থ_ ছঃখকর পদার্থের উপর পুনহগুনহ স্ছিতি- 
শীল অন্তঃকরণবুত্তিবিশেষকে ছেষ বলে । 

ব্যাখ্যা! আমরা বাহাঁতে ছুঃখ পাই তৎক্ষণাৎ তাহ। 
ন্যাগ করিবার চেষ্টা পাইয়। থাকি । 

স্বরসবাহী বিছবোহপি তথারূঢ্োহভিনিবেশঃ ॥৯॥ 

সুত্রার্থ_ যাহ] পুর্ব পুর্ব মরণানুভব হইতে স্বভাবতঃ 
প্রবাহিত ও যাহ। পণ্ডিত ব্যক্তিতেও প্রতিষ্ঠিত তাহাই 
অভিনিবেশ অর্থাৎ জীবনে মমতা । ১ 

ব্যাখ্যা1--এই জীবনের মমতা প্রত্যেক জীবনেই প্রকাশিত 
দেখিতে পাওয়া যায় । ইহার উপর অনেক পরকাল সম্বন্ধীক্স 
মত স্থাপন করিবার চেষ্টা হইগ্বাছে। যেহেতু লোকে এহিক 
জীবন এতদূর ভালবাসে, স্থতরাং “ভবিষ্যতেও যেন জীবিত 
থাকি” এইরূপ আকাজ্ষ। করিক্সা থাকে । অবশ্য ইহ) বল! 
বাহুল্য ঘষে, এই যুক্তির বিশেষ কোন মূল্য নাই। তবে ইহার 
মধ্যে এইটুকু আশ্চর্য ব্যাপার দেখিতে পাওয়।! বায় যে, 
পাঁশ্চাত্যদেশসমূুহে এই জীবনে মমতা হইতে ষে পরলোকের 

২০৪ 


যোগজ্ড্ত্র 


সম্ভাবনীক্সত। স্চিত হস্ত তাহ? তাহাদের মতে কেবল মানুষের 
পক্ষেই খাটে, কিস্তু অন্যান্য জন্তর পক্ষে নহে । ভারতে এই 
জীবনে মম, পূর্ববসংস্কার ও পুর্ববজীবন প্রমাণ করিবার একটি 
যুক্তিত্বরূপ হইক্সাছে । মনে কর” বর্দি সন্ুদক্স জ্ঞানই আমাদের 
প্রত্যক্ষ অনুভূতি হইতে লাভ ভইয়! থাকে, তবে ইহা নিশ্চস্ক 
যে» আমরা যাহ। কখন প্রত্যক্ষ অনুভব করি নাই, তাহা কখন 
কলনাও করিতে পারি না 'অসথব। বুঝিতে 9 পারি না । কুকুট- 
শাবকগণপ ভিম্ব হইতে ফুটিবামাত্র খাছ্য খুটটিয্। খাইতে আরজ্ত 
করে । অনেক সমনে এরূপ দেখা গিক্সাছে যে, যখন কুকুটীদ্বার! 
শংসভিম্ব ফুটান্‌ হইয়াছে, তখন হ্ংসশাবক ডিম্ব হইতে বাহির 
হইবামাত্র জলে চলিম্পা গিক্লাছে 5 তাহা কুক্ুটী-নাত। মন্দ 
করিল শাবকটি বুঝি চল ভুবিক্পা গেল॥। যর্দি প্রত্যক্ষাচ্ভূতিই 
জ্ঞানের একমাত্র উপায় ভব, শাহ? হইলে এই কুকুটশাবকগুলি 
০কোথা। হইতে খাছ খু'টিতে শিখিল অথব। ও হংসশাবকগুলি 
জল তাহাদের ত্বাভাবিক স্থান. বলিক্সা জানিতে পার্ল? 
যর্দি তুমি বল, উহ সহজাতি জ্ঞান € 2856200£ ) মাত্র» তবে 
ভাঁহশতে কিছুই বুঝাইল না। কেবল একটি শব্দ প্রয়োগ কবর! 
হইল মাত্র, কারণ ব্যাখ্যা কিছুই করা হইল না। এই সহজাত 
জ্ঞান কি ?£ আমাদেরও ত এইবপ সহজাত জ্ঞান অনেক বহিয়াছে । 
দষ্টাম্ত্বক্প দেখ! যাউক, আপনাদের মধ্যে অনেক মহিলাই 
পিক্মানে। বাজাইকস॥। খাঁকেন ঠ আপনাদের অবশ্য স্মরণ থাকিতে 
পাবে, যখন আপনার। প্রথম শিক্ষা করিতে আরম্ভ করেন 
তখন আপনাদ্িগকে শ্বেত, কৃষ্ণ উভক্ম প্রকার পর্দাস্থ একটির 
২০৫ 


বাজযোগ 


পর অপরুটিতে কত বত্বের সহিত অস্কুলি প্রক্সষোগ করিতে হইত, 
কিস্তু বহুবৎসরের অভ্যাসের পর এক্ষণে আপনার। হষ্ত 
কোন বন্ধুর সভিত কথা কহিবেন, অথচ সঙ্গে সঙ্গে পিসক্ানোর 
উপর অঙ্গুলি আপনা আপনি চলিতে থাকিবে । উহা এক্ষণে 
আপনাদের সহজাত জ্ঞানে পরিণত হইস্াছে* উহা আপনাদের 
পক্ষে সম্পুর্ণ ঘ্বাভাবিক তইক্সা পড়িরাছে । অন্ঠান্ত কাধ্য যাহ! 
আমরা করিয়। থাকি, তাহার সন্বন্বেও শর । অভ্যাসের দ্বারা 
উহ সহ্জাঁত জ্ঞানে পর্রিণত ভম্, শ্বাভাবিক হইক্সা বান্ন। 
কিন্তু আমরা) যতদূর জানি, এক্ষণে যে ক্রিক্সাশুলিকে শ্বাভাবিক 
বা সহজাতি জ্ঞানজনিত বলির$ থাকি, সেগুলি পুর্বে বিচারপুর্ববক 
জ্ঞানের ক্কিক্সী ছিল, এক্ষণে নিম্নভাবাপন হহৃক্না প্রব্দপ স্বাভাবিক 
হইয়া! পড়িক্সাছে। যোগীদিগের ভাষার সহজাত জ্ঞান, বিচারের 
নিক্পভাবাঁপন্র ভ্রমসক্কুচিত অবস্থা মাত্র । বিচারজনিভত জ্ঞান 
অবনতভাবাপন্দ হইক্সা ম্বাভাবিক সংস্কারে পরিণত হক্স। 
অতএব, আমর। এ জগতে বাহাকে সহজাত জ্ঞান বলি তাহ! বে 
কেবলমাত্র বিভারজনিত জ্ঞানের নিস্সাবন্থা মাত্র, একথা, সম্পূর্ণ 
যুক্তিসঙ্গত । এই বিচার আবার প্্রত্যক্ষান্ছভূতি ব্যতীত হইতে 
পারে না, স্ততবাং সমুদ্দর সহজাত জ্ঞানই পুর্ববপ্রত্যক্ষাচুভূতির 
ফল । কুক্ুটগণ শ্তেনকে ভক্ করে, হংসশাবকগণ জল ভালবাসে, 
ইহ সবই পূর্বব-প্রত্যক্ষান্ভূতির ফলম্বরূপ । এক্ষণে প্রশ্ন এই, 
এই অনুভূতি জীবাত্মার অথবা উহা কেবল শরীরের ? হংস 
এক্ষণে যাহা! অনুভব কব্রিতেছে, তাহ! কেবল ভশ্র হংসের পিতৃ- 
পুরুষগণের অনুভূতি হইতে আসিতেছে, ন৷ উহা হংসের নিজের 
২০৬ 


যোগস্ত্র 


প্রত্যক্ষান্ছভূতি ? আধুনিক €বজ্ঞানিকগণ বলেন, উহা কেবল 
তাহার শরীরের ধন্ম । কিন্ত যোগীর! বলেন, উহ] মনের অন্সভূতি-_ 
শরীরের ভিতর দিস আসিতেছে মাত্র । ইহাাকেই 
পুনভ্জন্মবাদ বলে। আমরা পুর্বেব দেখিয়াছি, আমাদের সমুদক্স 
জ্ঞান যাহাদিগকে এ্ত্যক্ষ” বিচারজনিত জ্ঞান বা সহজাত জ্ঞান 
বলি, তাহার সমুদয়ই প্রত্যক্ষান্থভূতিরূপ জ্ঞানের একমাত্র প্রণালী 
দিস্সাই আদিতে পারে * আব বাহাঁকে আমরা সহজাত জ্ভঞাঁন 
বলি, তাহা আমাদের পুর্ব প্রত্যক্ষানুভূতিন ফলম্বরূপ, উহাই 
এক্ষণে অব্ন্তভাবাপন্স হইব) সহজাত জ্ঞানরূপে পব্রিণত 
হইম্রাছে* সই সহজাত জ্ঞান আবার বিচারজনিত জ্ঞান্বূপে 
পরিণত হইক্সা থাকে । সমুদ্ন্ন জগতের ভিতরেই এই ব্যাপার 
চলিতেছে । ইহার উপরেই ভারতের পুনজ্জন্মবাদের একটি 
প্রধান যুক্তি স্থাপিত হইক্বাছে । পুর্ববানভূত অনেক ভয়ের 
সংস্কার কালে এই জীবনের মমতারূপে পবিণশত হইক্নাছে। 
এই কারণেই বালক অভি বাল্যকাল হইতেই আপনা আপনি 
ভম্ম পাইস্া থাকে, কারণ তাহার মনে কষ্টের পুর্ববাচভূতিজনিত 
সকার রহিক্পাছে । অতিশয় বিদ্বান ব্যক্তির ভিতরে বাহার! 
জানেন যে এই শরীর চলিয়। যাইবে, ধাভার। বলেন আত্মার 
মৃত্যু নাই, আমাদের শত শত শরীর রহিক্সাছে, সুতরাং কি 
ভক্স* তাহাদের মধ্যেও তাহাদের সমুদ্র বিচারজাত ধাবরণা- 
সত্বেও আমরা এই জীবনে প্রগাঢ় মমতা দেখিতে পাই । এই 
জীবনে মমত1 কোথ। হইতে আদিল € আমরা দেখিয়াছি -ষে, 
ইহ। আমাদের সহজ বা স্বাভাবিক হইক্স। পড়িয়ছে। যোগীদিগের 
স্২৩৭. 


বরাজযোগ 


দার্শনিক ভাষায় উহ সংস্কাররূপে পরিণত হইয়াছে, বলা যাক্স । 
এই সংক্কারগুলি সুস্প বা শুগ্ত হইন্র) চিভের ভিতর যেন নিদ্রিত 
রহিক্বাছে । এই সমুদ্র পুর্ববম্ত্যুর অনুভূতিগুলি, বাহাদ্িগকে 
আমরা সহজাত জ্ঞান বলি, তাহারা যেন জ্ঞানের নিম্স- 
ভূমিতে উপনীত হ্ইশ্রাে। উহার চিভেই বাস করে, আর 
অভাহার। যে নিজ্ছ্রিক্ভাবে অবস্থান করিতেছে তাহ নভে, 
উহার? ভিতরে ভিতরে কাখধ্য করিতেছে । এই চিন্তবুত্তিশুলি 
অর্থাৎ যেশুলি স্ুলভাবে প্রকাশিত রহিক্সাছে, তাহাদিগকে আমর! 
বেশ বুন্মিতি পানি ও অনুভব করিতে পারি* তাহাদিগকে 
সহজেই দমন কর যাইভে পারে, কিন্ত এই ্ছশ্মতর 
স্কারগশুলির দমন কিরূপে হইবে? উহাদিগকে দমন করা 
বাক্স কিরপে £ যখন আমি রুষ্ট হই, তখন আমার সমুদ্র 
মনটি যেন এক মহ! ক্রোধের তরক্গাকার ধারণ করে । আমি 
উহ অন্কভব করিতে পাবি, উহাকে দেখিতে পারি, উহাকে 
যেন হাতে করিক॥? নাড়িতে চাড়িতে পারি, উহার সহিত 
সহজেই যাহ ইচ্ছ)॥ তাহাই করিতে পারি, উহার সহিত ঘুদ্ধ 
করিতে পারি, কিন্ত আমি যি মনের অভি গভীর প্রদেশে 
না যাইতে পারি, তবে কখনই আমি উহার মুলোৎ্পাটন্ন 
ক্ৃুতকাধ্য হইব না। তেন লোক আমাকে খুব কড়॥ কথ! বলিল, 
আমারও বোধ হইতে লাগিল ষে আমি গরম হইতেছি, 
সে আরও কড়া! কর বলিতে ল।গিল, অবশেষে আমি ক্রোধে 
উন্মভ্ভ হইস্স॥' উঠিলাম, আত্মবিস্থাতি ঘটিল, ক্রোধবুত্তির সহিত 
যেন আপনাকে মিশাইক্স) ফেলিলাম । যখন সে আমাকে প্রথমে 
২০৮ 


যোগস্ুত্র 


কটু বলিতে আরম্ভ করিরাঁছিল, তখনও আমার বোধ হুইন্ডেছিল' 
যে আমার ক্রোধ আসিতেছে । তখন ক্রোধ একটি ও আমি 
একটি পৃথক পৃথক ছিলাম। কিম্তু যখনই আমি ক্ুুদ্ধ হইক্স। 
উঠ্তিলাম, তখন আমিই বেন ক্রোধে পরিণত হইক্সা গেলাম ॥ 
প্র ব্বত্তিশুলিকে মূল হইতেই--তাহাদের স্ুশ্মাবস্থা হইতেই 
উত্পাটন করিতে ভইবে। উহারা আমাদের উপর কাধ্য 
করিতেছে», এটি বুঝিবাঁর পুর্বেবেই ভহাদ্দিগকে সংবন করিতে 
হইবে । জগতেক্ অধিকাংশ লোক &ই বুভিশুলির স্ম্মাবস্থার 
অস্তিত্ব পধ্যন্ত ভ্ভাত নহে । তে অবস্থান এ বুভিশুলি জ্ঞানের 
নিশ্রভূমি হইতে একটু একটু করিনা উদর হয়, তাহাকেই 
বুক্ভির স্ক্মাবস্থ। বল। বাব ।॥ বখন কোন হ্রদের তলদেশ হইতে 
একটি তরঙ্গ উশ্খিত হয়, তখন আমরা উহাকে দেখিতে 
পাই না3 শুধু তাহ। নহে, উপক্িভাগের খুব নিকটে 
আসিলেও আমরা উহা দেখিতে পাই না2 বখনই ভহাব। 
উপরে উঠিয়া॥ একটি তরঙ্গাকারে পরিনত হয়, তখনই আমর? 
জানিতে পারি যে একটি তরঙ্গ উঠিল ॥। যখন আমরা এ 
তরঙ্গগুলির স্শ্মাবস্থাতেই উহার্দিগকে ধরিতে পাঁরিব তখনই 
আমর। উহাদিগকে নিবারণ করিতে সমর্থ হইব ॥ এরইব্পে 
যত দিন না আমরা স্থলভাবে পরিণত হইবার পুর্বেবেই 
স্পঙ্ষ্াবস্থাক্স ও ইন্ড্রিসবৃভিকে সংবত করিতে পারিব, ততদিন 
কোন বুত্তিই পুর্ণনূপে সংযম করিতে পাবিব না। ইন্দ্র 
বুক্তিগুলিকে সংঘম করিতে হইলে, আমাদিগকে উহাদের মুলে 
গিষ। সংবম করিতে হইবে । তখনই, কেবল তখনই আমর) 
স্টি গু 2 


বাজযোগ 


|] 
উহাদের বীজপধ্যস্ত দদ্ধ করিস) ফেলিতে পারিব ; যেমন 
ভঞ্ঞজিত বীজ ম্তিকাক্স ছড়াইবর। দিলে অস্কুত্ন উৎপন্ন হয় না, তন্দপ 
এই ইন্দড্রিয়ের বুর্ভিশুলি আব উদ্ক্স হইবে না । 


তে প্রতিপ্রসবহেয়াঃ সুন্কবাও ॥ ১০ ॥ 


স্চত্রার্থ7 সেই ক্ঞম্ন্ন সংস্কারগুলিকে শ্রতিপ্রসব 
অর্থাৎ অ্রতিলোমপরিণাম দ্বারা নাশ করিতে হয় । 


ব্যাখ্যা-ধ্যানের ছারা) বখন চিভুবুভ্তিগুলে নু হয়, তখন বাহ। 
অবশ্শিঈ গাঁকে তাহাকে স্শ্মসংস্কার ব)। বাসনা বলে । উহাকে নাশ 
করিবার উপাক্ধ কি? উহাকে প্রতি প্রসব অর্থাৎ প্রতিলোম-পরিণাঁমের 
দ্বারা নাশ করিতে হইবে । শ্রতিলোম-পরিণাম অর্থে কাধ্যেব কারণে 
লক্স ॥ চিত্তরূপ কাধ্য বথন সমাধিছ্বার অশ্মিতারূপ স্বকারণে লীন 
হইবে, তখনই চিত্তের সহিত ও ক্কারগুলিও নষ্ট হইন্স। 
বাইবে । 

ধানহেয়াভ্দ্বুভয়হ ॥ ১১ ॥ 


স্ুত্রার্থ ধ্যানের দ্বারা উহাদের স্তুলাবস্থা নাশ 
করিতে হয় । 


ব্যাখ্য।--ধ্যানেই এই বুহৎ্থ তরঙ্গগুলির উৎ্পভ্ি নিবারণ 

কৰিবার এক প্রধান ভপাক্স । ধ্যানের দ্বারা মনেব্র বুভ্িরূপ 

তরঙ্গসকল লক্গ পাইবে । যদি দিনের পর দিন, মাসের 

পু মাস, বৎসরের পর বৎসর এই ধ্যান অভ্যাস কর, 

€ষতর্দিন ন। উহ$ তোমার স্বভাবের মধ্যে ললাড়াইক্স। বাক্স, যতদিন 
৮ 


যোগস্ঠজ 


ন1 তুমি ইচ্ছ। ন1 করিলেও এ ধ্যান আপন হইতেই আসে )--তাহ। 
হইলে ক্রোধ, দ্বণ। 'প্রভভৃতি বুভ্ভিগুলি চলিক্স। যাইবে । 


ক্রেশমুলঠ কন্মাশয়ে! ছুষ্টাদৃষ্টজন্মতদনীয়€ ॥ ১২ ॥ 


সুত্রার্থ_কম্মের আশয়ের মূল এরই পুবেবাক্ত 
ক্রেশগুলি ; বন্ভমান অথব। পরজীবনে উহার! ফল প্রসব 
করে । 

ব্যখ্য।-_ কন্মাশনের অর্থ এই সংস্কারশুলির সমন্তি। আমর! 
তে কোন্‌ কাধ্য ক্রি না কেন, অমনি মনোতহ্রর্দে একটি তরঙ্গ 
উত্থিত হম । আমরা? মনে করি, এর কাধ্যটি শেষ হইক্সা গেলেই 
তরঙ্গটিও চলিয়। যাইবে 2 কিম্ত বাম্ডবিক তাহা নহে । উহা? 
বেন প্রল্ম আকার ধারণ করিয়াছে মাত্র, কিন্ত তথাপি তখনও 
এ স্থানেই বভিষ়াছে । যখন আমল উহ। স্মরণ করিবার চেষ্ট। 
করি, তখনই উহ পুনর্ববার উদ্দিত হইনা॥ আবার অতরঙ্গাকারে 
পরিণত ভয় ॥ সুতরাং জান। যাইতেছে, উহ্7 মনের ভিতর 
গ্ুঢভাাবে ছিল; বর্দি না থাঁকিত, তাহা হইলে স্মত্তি অসম্ভব 
হইত ॥ ল্তব্রাং প্রত্যেক কাধ্য, প্রত্যেক চিস্ত, তাহ শুভই 
হক আর অশুভই হউক, মনের গভীরতম প্রদেশে শিক্ষা 
স্ল্মনভভ(ব ধারণ করে ও প্র স্থানেই সঞ্চিত থাকে । স্থখকর 
অথব)॥। ছুঃখকর সকল প্রকার চিন্তাঁকেই ক্রেশ বলে, কারণ 
বোগীদের মতে উভস্সই পরিণামে ছঃখ প্রসব করে । ইক্জরিযিসমুহ 
কইতে তে সকল স্কখ পাওয়া! যাক্স, তাহার! পরিণামে হঃখ 
আনয়ন কর্িবেই করিবে । ভোগে ভোগতৃষ্ণ। বাড়িকসা॥। থাকে 

২১১ 


বাজযোগ 


তাহার ফল হঃখ॥। মানুষের বাসনার অস্ত নাই, মানুষ 
ক্রমাগত বাসনা করিতেছে » বাসন)? করিতে করিতে যখন সে 
এমন স্থানে উপনীত হস তে কোন মতে তাহার বাসন! 
অর পরিপূর্ণ হক্স না, তখনই তাহার হুঃখ উৎ্পন্ধ ভ্ষ্ব। এই 
জনই চযোগীরা শুনভ্তড অশুভ সমুদ্র *সংস্কারগুলির স্ম্িকে 
ক্লেশ বলিন্প॥ গাকে, উত্তারী। আত্মার মুক্তির পথে বাধ। প্রদান করে । 
সমুদ্র কাষ্যের স্ুষ্মমবলন্বরপ সংস্কারশগুলি সম্বন্ধে বুঝিতে হইবে 
তে তাহারা কারণব্বরূপ হই? ইভ্জীবনে অথব। পরজীবনে ফল 
প্রসব করিকা॥ থাকে (দুষ্ট বা অদ্বষ্ট জন্ম-বেদনীক্প )॥। বিশেষ বিশেষ 
স্থলে শ্রী সতস্কারশুলির প্রাবল্যহ্তু উহার অন্তি শীঘই ফল প্রসব 
করে, অত্যুতৎ্কট পুণ্য বা পঠপকম্ম ইহজীন্নেই তাহার ফল উৎপাদন 
করে । যোশীরা বলেন যে, তে সকল ব্যন্তি ইহজীবনেই 
খুব প্রবল শুভসংস্কার উপ্াঙ্জন করিতে পারেন ভাহাদের মৃত্যু 
হয্স ন1, ভাহারা ইহুজীবনেই এই দেহকে দেবদ্দেহে পরিণত 


কন্িরিতে পারেন । যষেগীদিগের গ্রন্থে এরইন্দপ কতকগুলি 
দুষ্টাস্তের উল্লেখ আছে । ইহারা আপনাদের শরীরের উপাদান 
পধ্যজ্ত পরিবর্তন করিক্সা ফেলেন । উহার নিজেদের দেহের 


পর্মাণুতুলিকে এমন নুতনভাবে সন্নিবেশিত করিস্স!॥ লন বে, 

তাহাদের আর কোন পীড়া হন্স না এবং আমর! যাঁহাকে 

মৃত্যু বলি, তাহাঁও তাহাদের নিকট আসিতে পারে না। 

এরূপ ঘটনা না ভইবার তোঁন কারণ নাই । শারীরবিধান- 

শাক্স খাছ্ের অর্থ করেন-_সুধ্য হইতে শক্তিগ্রহণ । এ শক্তি 

প্রথমে উদ্ভিদে প্রবেশ করে 5 সেই উদ্ভিদকে আবার কোন পশু 
৯২ 


বো গস্তত্র 


ভোজন করে, মানষ আবার সেই পশুমাংস ভোজন করিক্সা থাকে | 
এই ব্যাপারটি টজ্ঞানিক ভাষাক্ম বলিতে গেলে বলিতে হইবে 
যে» আমরা স্থষ্য হইতে কিছু শভ্তি গ্রহণ করিক়। উহাকে 
নিজের অঙ্গীভূতভ করিক্া লইলাম । ইহ1 বন্দি যথার্থ হত” তবে 
এই শক্তি আহরণ করিবার যে একমাত্র উপাক্ম থাকিবে, তাহা। 
কে বলিল £ আমর তব্রূপে শক্তি সংগ্রহ করি, উদ্ভিদের শক্তি- 
₹ংগ্রহের উপাক্স ঠিক তাহা নহে 5 আনরা। বেরূপে শক্তি সংগ্রহ 
করি, প্রথিন্ীী সেরপে কনে না, কিন্তু তাহা হইলেও সকলেই 
কোন না কেো।নব্পে শক্তি সংগ্রহ করিক্সা থাকে । যোগার? 
বলেন, তাহার তেব্ল মনহশক্তিবলেই শক্তি সংগ্রহ কবিতে 
পারেন । তাহারা বলেন, আমরা সাধারণ উপাস্ম অবলম্বন 
না করিন্নাও বত ইচ্ছ? শক্তি সংগ্রহ করিতে পাবি । উর্ণনাভ 
যেমন নিজ শরীর হইতে অতভ্ভ বিস্তার করিম পরিশেষে 
এমন বদ্ধ হুইক্রী পড়ে তে, বাহিরে কোথাও যাইতে হইলে 
সেই তম্ভ অবলম্বন না কবিষ। বাইতে পারে না, ০সইব্প 
আমরাও আমাদের উপাদানীভূত পদার্থ হইতে এই স্নারুঙগাল 
স্টি করিক্সাছি, এখন আর হু ম্নাযুপ্রণালী অবলম্বন না 
করিনা কোন কাধ্য করিতে পারি না। যোগী বলেন, ইহাতে 
বন্ধ থাকিবার আমার প্রকস্বোজন কি? এই ভতভত্তটি আর একটি 
উদ্শহরণের ছারা বুঝাঁন যাইতে পান্ে। আমরা পুথিবীর 
চতুর্দিকে অতড়িৎ্শক্তিকে ০প্ররণ করিতে পারি, কি্ড উহ। 
প্রেরণ করিবার জন্য আমাদের তারের আবশ্টাক হকস । কেন, 
প্রকৃতি ত বিনা ভারে বহু পরিমাণে শক্তি প্রেরণ কল্পিতেছেন। 
৩) 


ব্াজযোগ 


আমরাই বা কেন তাহা করিতে পারি না)? আমরা চতুর্দিকে 
মাঁনসতড়িৎ রণ করিতে পারি । আমরা যাহাকে মন বলি, 
তাভী। প্রায় তড়িৎশক্তির সদৃশ । নাধুর মধ্যে যে এক তরল 
পদার্ঁ প্রবাহিত হইতেছে, তাহার মধ্যে যে অনেক পরিমাণে 
বিছ্যুতৎশক্তি আছে ভাহাতে কোন জন্দেতে নাই । কারণ 
তড়িতের হ্যাত্স উহার গ্রাক্তদ্য়ে বিপরীত শক্তিদ্বকস দৃষ্ট 
হম্ম এব তভিতের অন্াহ্ত তে সকল ধন্ম, উহাতেও সই ধর্মশুলি 
দেখা বাক্স । এই অতড়িৎশক্তিকে এক্ষণে আমরা কেবল মায়ু- 
মণ্ডলের মধ্য দিক্সাই প্রবাহিত করিতে পারি । কিত্ড ্নাযু 
মগুলীর সাহাব্য না লইত্াই বা আমরা তেন ইহা প্রবাহিত 
কন্িিতে সমর্থ ভইব না? যোগী বলেন, ইহ॥ সম্পুর্ণ সম্ভব 7 শুধু 
সম্ভব নহে, ইহ1 কাধ্যে পরিণত কর)? যাইতে পারে । আর 
ইহ্শতে ক্ৃতকাধ্য হইলে তুমি সমুদ্র জগন্ডের মধ্যেই আপনার 
এই শক্তি পরিচালন করিতে সমর্থ হইবে ॥ তখন তুমি কোন 
সারুযন্ত্রের সাহাধ্য না লইন্বাই €ষখানে ইচ্ছ?, বে শরীরের উপব 
ইচ্ছ) কাধ্য করিতে পারিবে । যখন কোন আত্মা এই আবু 
যন্সরূপ প্রণালীর ভিতর দিক্সা কাধ্য করেন, আঁমর। তখন 
ভাহাকে জীবিত, আর এই যন্ত্রগুলির নাশ হইলেই তাহাকে 
স্তৃত বলি। কিস্ত যিনি এইরূপে আ্নাযুযস্ত্রের সাহাধ্যেই হউক 
অথবা) অভতহ্সাহাধ্যনিরপেক্ষ হইক্াই হউক», উভন্স প্রকারেই 
কাধ্য করিতে পাবেন, তাহার পক্ষে জন্ম 'ও মুত্যু এই ছুই 
শব্দের কোন অর্থই নাই। জগতে বত ভিন্ন ভিন্গ প্রকার 
শরীর আছে, সবই অতন্মাত্রাধারা রচিত, কেবল প্রভেদ 
২১৪ 


যোগস্ঠজ 


তাহাদের বিল্তাসের প্রণালীতে । যদি তুমিই এ বিল্ঠাসেক্র 
কর্ত। হও» তাহা হইলে তুমি তেরূপে ইচ্ছ),» শী তন্মত্রাগুলিব, 
বিম্তাঁস করিস শরীর রচন্। করিতে পার ॥ এই শরীর তুমি, 
ছাড়া আর কে নিন্মাণ কবিয়াছে 2? আহার করে কে? বদি 
আর একজন তোমার -হহক্সা আহার করিক্সা দিত* তোমাকে 
বড় বেশী দিন বাচিতে হইত না। শ্রী খাছ হইতে ব্রক্তই 
বা উত্পাদন করে কে? নিশ্চন্ন তুমিই । প্র ব্ুস্তকে বিশুদ্ধ 
করিয়া ধমনীর মধ্যে প্রবাহিত করিতেছে কে £ তুমিই ॥ 
আমরাই দেহের কর্ত। এবং উহাতে বাস করিতেছি । কবল 
উহা॥। কিবর্ূপে নুতন করিক্সা গড়িতে হর, সেই জ্ঞান আমর 
হাক্রাইক্স। ৫ফলিন্াছি !? আমরা যন্ত্রতুল্য অবনতম্বভাব হইক্স! 
পড়িক্াছি । আমরা দেহের পরমাণুত্লির বিন্যাসপ্রণালী ভুলিক্ষ। 
গিক্সাছি । সুতরাং আমরা এক্ষণে যাঁহ। যমতত করিতেছি, 
তাঁহ। জ্ঞাতসারে করিতে হইবে ॥ আমরাই কর্তী, সুতরাং 
আনাদ্িগকেই এই বিন্ঠাসপ্রণালীকে নিক্ষমিত করিতে হইবে ॥ 
ইহাতে ক্লৃতকাধ্য হইলেই আমর)? ইচ্ছামত নুতন করিক্স। দেহের 
নিম্মাণে সমর্থ হইব £ তখন আমাদের জন্ম, ব্যাধি, ম্বৃত্যু কিছুহু 
থাকিবে না। 


সতি মুলে তদ্বিপাকে। জাত্যায়ুক্ডোগাহ ॥ ১৩ ॥ 


্ত্রার্থ7মনে এই সংস্কারকরূপ মূল থাকাক্ম তাহান্' 
ফলস্বরূপ মনুষ্াদি জাতি, ভিন ভিন্ন পরমাযু ৪৩ ্ুখখ- 
হহখাদি ভাগ হয় । 


স্৯৫৫ 


১৫ 


বলাজযোগ 


ব্যাখ্য)-__ মূল অর্থ সংক্কারব্পী কারণশুলি ভিতবে থাকাতে 
তাহারাই ব্যক্তভাব ধারণ করিয়! ফলরূপে পরিণত হস্স । কারণের 
নাশ হইয়1 কাধ্যের উদ্দস্ব হত্স*, আবার কাধ্য স্থশ্ভাব ধারণ করিয়া! 
প্রবন্ভী কাধ্যের কারণত্বরূপ হম্স॥। বৃক্ষ বীজ ধ্রসব করে» বীজ 
আবার পরবভ্ভী বুক্ষের উতৎপভ্িবর কারণ হইর। থাকে । এই- 
রূপেই কাধ্যকারণপ্রবাঁহ চলিতে থাকে । আমর)। এক্ষণে বে 
কিছু কন্ম করিতেছি, সমুদ্রয়ই প্ুর্ববসংক্কারের ফলব্বরূপ । এই 
কাধ্যশুলি আবার সংস্কাররূপে পরিণত হইস্সরা ভবিষ্যৎ কাধ্যের 
কারণ হইবে ঠ এএইক্ধপেই কাধ্যকারণ-প্রবাহু চলিতে থাকে । 
এই ্চ্ত্র এই জন্যই বলিতেছে যে, কারণ থাঁকিলে তাহার ফল 
বা কাধ্য অবশ্তই হইবে । এই ফল প্রথমতহ জাতিরূপে 
প্রকাশ পাক» » কেহ বা মানুষ হইবেন, কেহ দেবতা, কেহ পশু, 
তেহ বা অক্ুর হইবেন । দ্বিতীরতঃ, এই কন্দ্সম আবার আমকে ও 
ন্য্িমিত করিবে । একজন হত্রত পঞ্চাশ বর্ব জীবিত থাকিস? 
স্ৃত্যুমুখে পতিত হস্ত, অপরের জীবন হক্সত শত বর্ষ, আবার 
কেহ হত্রত ছুই বৎসর জীবিত খাকিক্সাই মৃত্যুমুখে পতিত হক্স, 
সে আর মোটেই পুর্ণবনস্ক হক্স না। এই তে বিভিন্সত1, ইহা 
কেবল প্ুর্ধবকন্্মবারা নিস্রমিত হন । কাহাকেও দেখিলে €বাধ 
হস্স যে, কেবল স্থখভোগের জন্যই তাহার জন্মঃ বদি ৫স বনে 
পিন্স। লুকাইক্সা থাকে, সুখ যেন তাহার পশ্চা্ৎ পশ্চাৎ্ যাইবে । 
-'আবু একজন যেখানেই যান, ছহখ বেন তাহার পশ্চা্ পশ্চাঁৎ 
ধাবিত হয়, সবই তাহাঁর নিকট ছুঃখমক্স হইক্া ঈাঁড়াঁ । এই 
সমুদ্রল্পই তাহাদের নিজ নিজ পুর্ববকর্্মেরে ফল। যোগীদিগের 

২১৬ 


যো গস্হ্র 


মতে, সমুদর পুণ্যকম্মে সুখ ও সমুদজ্ পাপকন্মে ছহহখ আনক্সন 

করে । যেব্যক্তি কোন অসৎ কাধ্য করে, সে নিশ্চস্সটই ক্রেশবপে 

তাহাল কতকন্মের ফলভ্োগ করিবে । 

€ত হলাদপর্িতাপফলাহ গ্ুণতাগুণ্যহেতুত্বাত ॥ ১৪ ॥ 
স্ত্রার্থ প্রণ্য ও পাপ উহাদের কারণ বলিষ়া। 

উহাদের ফল আনন্দ ও ছঃখ। 
পর্রণামতাপসংস্কারছঃখৈগু-পব্বভিবিরোধাচ্চ 

2খমেব স্ব্বং বিবেকিনহ ॥ ১৫ ॥ 


স্ত্রার্থুকি পরিণাম-কালে, কি ভুোাগ-কালে 
ভুোাগব্যাঘাতের আশঙ্কায়, অথবা স্থখের সংস্কারজ নিত 
তৃব্গর শ্রসবকারী বলিয়া, আর গুণবুত্তি, অর্থাৎ সত্ব 
রজ2, তমঃ পরস্পর পরস্পরের বিরোধী বলিয়া বিবেকীর 
নিকট সবই ছুঃখ বলিয়া বোধ হয় । 

ব্যাখ্যা যোগীরা বলেন, বাহার বিবেকশভ্ভি আছে, 
বাহার একটু ভিতরের দিকে দৃষ্টি আছে, তিনি হ্গথ ও হহথ নাম 
ধেয়স সর্বববিধ বস্তুর অন্তস্ডল পধ্যস্ত দেখির। থাকেন, আর জানিতে 
পারেন যে, উহাবা। সর্ববদ। সর্বত্র সমভাবে বহিম্রাছে। একটির 
সঙ্গে আর একটি যেন জভাইস্সরা, একটি যেন আর একটিতে 
মিশিক। আছে । সই বিবেকী পুরুষ দেখিতে পাঁন যে, মানুষ 
সমুদক্স জীবন হেবল এক আলেরার অনুসরণ করিতেছে » ০ 
কখনই তাহার বাসন! পুরণে সমর্থ হস্স না। এক সমস্ে মহারাজ 

্ ১৭ 


বাজযোগ 


যুধিষ্ঠির বলিক্াছেন, “জীবনে সর্ববাপেক্ষ। আশ্চধ্য ঘটন। এই যে, 
প্রতি মুহূর্তেই আমরা ভূতগণকে ম্ুত্যুযুখে পতিত হইতে 
দেখিতেছি, তথাপি আমরা মনে করিতেছি আমর। কখনই 
মরিব না।” চতুদ্দিকে মুর্খ ব্যক্তিগণদ্বার। পরিবেষ্টিত হই) মনে 
করিতেছি, কেবলমাত্র আমরাই পশ্ডিত _ আমরাই কেবল মুর্খশ্রেণী 
হইতে স্বতভ্ত । চতুদ্দিকে সর্বপ্রকাক্ধ চঞ্চলতার দৃষ্টাস্ত বেষ্িত 
হইয়া) আমরা মনে করিতেছি, আমাদের ভালবাসাই একমাত্র 
স্থাপী ভালবাস) । ইহা কি করিস) হইতে পারে? ভালবাসাও 
স্বার্থপরতামিশ্রিত। যোগী বলেন, ণপব্িণামে দেখিতে পাইব, 
এমন কি, পতিপত্বীর ধ্েম, সন্তানের প্রতি ভালবাস! এবং 
বন্ধগণের প্রণয় পধ্যস্ত অলে অলে ক্ষ ভইরা নাশ পায় 1” এই 
সারে ক্ষয় প্রত্যেক বস্তকেই আক্রমণ করিনা থাকে । যখনই -- 
কেবল যখনই সংসারের সকল ব।সনা, এমন কি ভালবাস। পধ্যস্ত 
বিফল হয, তখনই যেন চকিতেন নভ্াঁষষ মাছ বুঝিতে 
পারে এই জগত কি ভ্রম, যেন ম্বপ্রসদৃশ ! তখনই এক বিন্দু 
১বরাগ্যভাব তাহার হৃদজে উদ্দিত হইয়া! থাকে, তখনই সে 
জগতের অতীত সম্ভার যেন একটু আভাস পাক্স। এই জগৎকে 
ত্যাগ করিলেই পারলৌকিক তত্ব হৃদয়ে উদ্ভাদিত হস্ম;ঃ এই 
জগতের স্ুথে আসক্ত থাকিলে, ইহ! কখনও সম্ভাবিত 
হইতে পারে না ॥। এমন কোন মহাত্মা হন নাই, বাহাকে 
এই উচ্চাবস্থা লাভের জন্ত ইন্ডরকিস্খভোগ ত্যাগ করিতে 
হস্স নাই । হুঃখের কারণ, প্রকৃতির বিভিজ শক্তিশুলির 
পরস্পর বিরোধ । মানুষকে একটি একদিকে, অপরটি আর 
২১৮ 


যোগক্ুচ্র 


একদিকে টানিস়্া লইক্সা যাইতেছে, কাজেই স্থাী আখ অসম্ভব 
হইয়া পড়ে । 
হেয়ং ছ$খমনাগতম্ ॥ ১৬ ॥ 

স্রত্রার্থুযে হঃখ এখনও আসে নাই, তাহ! 
ত্যাগ করিতে হইবে 1! 

ব্যাখ্যা _কম্মের কিঞ্িদংশ আমাদের তভোগ হইক্সা গিক্সাছে, 
কিক্চিদিংশ আমর বর্তমানে ভোগ করিতেছি, আবু অবশিষ্টাংশ 
ভবিষ্যতে কলপ্রদানোন্যুখ হইক। আছে । আমাদের যাহা ভাগ 
হইক্স॥ গিস্াছে» তাহ! তত চুকিক্স। পিক্সীছে । আমবা বত্তমীনে 
যাহ) তোগ করিতেছি, তাহা আমাদিগকে ভাগ করিতে 
হইবেই হইবে, কেবল যে কম্ম ভবিষ্যতে ফলপ্রদানোহশ্মুখ হইক্ষ! 
আছে, তাহাই আমরা জন্ব অর্থাৎ নাশ করিতে পারিব । এই 
কারণেই আমাদ্বিগের সমুদক্ম শক্তি যে কন্ম এক্ষণেও তোন ফল 
প্রসব করে নাই, তাহারই নাশের জন্ঠ নিধুক্ত কর আবশ্যক ॥ 

দ্রষ্ট,দৃশ্টঠযেোোত সংযোগো! হেযহেতুহ ॥ ১৭ ॥ 

স্রত্রার্থ_ এই যে হেয়, অর্থাৎ ঘষে হঃখকে ভ্যাগ 
করিতে হইবে, তাহার কারণ ত্রষ্ট! ও দৃশ্যের সংযোগ । 

ব্যাখ্য।-_এই দ্রষ্টার অর্থ কি? মন্ষ্যের আতর পুরুষ । 
দৃশ্য কি £ মন হইতে আরভ্ভ করিক্বা স্থল ভূত পধ্যস্ত সমুদ্র 
প্রকৃতি । এরই পুরুষ ও মনের সংষ্ঠেগ হইতেই স্থথছুঃখ সমুদস্থ 
উৎ্পপন্গ হইক্সাছে । তোমাদের অবশ্য স্মরণ থাকিতে পালে, 
এই ষোগশাস্ত্ের মতে. পুরুষ শুদ্ধস্থরূপ ৮ যখনই উহ? প্রক্কতির 

খই ১৩৯১ 


রাজযোগ 


সহিত সবংঘুক্ত হপ্ন ও প্রক্রতিতে '্রতিবিষ্বিত হত্স, তখনই উহা 
হয স্থথ, নয» দুঃখ অনুভব করে বলিল্প। প্রতীয়মান হয় । 
এপ্রকাশক্রিষ্বাস্থিতিশীলং ভুতেক্ক্রিয়াত্স কং 
ভোগাপবর্ণার্থং দৃশ্ন্‌ ॥ ১৮ ॥ 

্ত্রার্থ_দৃশ্য অর্থে ভূত ও ইন্দ্রি়গণকে বুঝায় । 
উহ প্রকাশ, ক্রিরা ও স্িতিশীল । উহ। দ্রষ্টার অর্থাৎ 
পুরুবের ভোগ ও মুক্তির জন্য ৷ 

ব্যাখ্য/- দৃম্ত অর্থাৎ প্রকৃতি ভূত ও ইন্দ্রিসমষ্টিকপ ৯ 
ভূত বলিতে স্থুল, সুস্সস সর্বপ্রকার ভূতকে বুঝাইবে, আর ইন্দ্র 
অর্থে চক্ষুরার্দি সমুদয় ইক্দরির, মন প্রভৃতিকেও বুঝাইবে । উহী- 
দের ধশ্ম আবার তিন প্রকার; -ষথ- প্রকাশ, কাধ্য ও স্ফিতি 
অর্থাৎ জড়ত্ব ঃ ইহাদিগকেই অন্ঠ কথায় সত্ব. রজ2 ও তমঃ বলে। 
সমুদয় প্ররুত্ির উদ্দেশ্তা কি? উদ্দেশ এই, যাহাতে পুরুষ সমুদ্র 
ভোগ করিয়। বিশেষভ্ঞ হইতে পারেন । পুরুষ যেন আপনাব 
মহান্‌ এশ্বরিক ভাব বিস্বত হইয়াছেন । এ বিষয়ে একটি বড় 
নন্দ আখ্যাস্িক। আছে । অহন্ছুর বধের নিমিত্ত কোন সমন্ে 
দেবরাজ ইন্দ্র শুকর হইয়া! কর্দমের ভিতর বাঁস করিতেন, তাহার 
অবশ একটি শৃকরী ছিল, ০সই শৃকরী হইতে তাহার 
অনেকগুলি শাবক হইক্সাঁছিল । অনুর বধ ভ্ওয়ার পরু 
তিনি অভি ন্থে কালষাপন করিতেন। কতকগুলি দেবতা 
তাহার ছুরবস্থা দর্শন করিয়া তাহার নিকট আসিক্সা বলিলেন, 
“আপনি দেবরাজ, সমুদ্র দেবগণ আপনার শাসনে অবস্থিত,» 

২২০ 


যোগস্তত্র 


আপনি এখানে কেন % কিন্ত ইন্দ্র উভ্তর দিলেন, “আমি বেশ 
আছি, আমি হ্বর্গ চাই নাঃ এই শুকরী ও শাবকগুলি ষত- 
দিন আছে, ততর্দিন স্বর্ণা কিছুই প্রার্থনা করি না।” তখন 
সেই দেবগণ কি করিবে্নে ভাবিম্প। কিছুই স্থির করিতে পারি- 
লেন না। কিছুদিন পরে তাহারা মনে মনে এক সংকল স্থির 
করিলেন এবং ধীরে ধীরে আসিম। একটি শাবককে মারিস! 
ফেলিলেন । এইব্দপে একটি একটি কৰিসসা॥! সমুদক্ম শাবকশুলি 
হত হইল । দেবগণ অবশেষে সেই শুকরীকেও মারিস 
ফেলিলেন । যখন ইন্ছ্রের পক্সিবাঁরবর্গ সকলেই ম্বত হইল» তখন 
ইন্দ্র কাত হইম্স॥ বিলাপ করিতে লাগিলেন । দেবতার! 
ইন্দ্রের নিজের শুকরদেহটিকে পধ্যন্ত খণ্ড বিখণ্ড কিয় 
ফেলিলেন ॥ তখন ইন্দ্র সই শুকরদেহু হইতে নির্গত হ্ইস্স! 
হস্ত করিতে লাগিলেন এবং ভাঁবিতে লাগিলেন, 
“আমি কি ভগ্মহ্কর ম্বপ্র দেখিতেছিলাম ! আমি দেবরাজ, 
আমি এই শুকরজন্মকেই একমাত্র জন্ম বলিম্পা মন্নে 
করিতেছিলাম * শুধু তাহাই নভে, সমুদর জগত্ই 
শৃকরদেহ ধারণ করুক, আমি এই উচ্ছ)॥ করিতেছিলাম 1” পুরুষ ও 
এইব্দপে প্রর্ুতির সহিত মিলিত হইক্সা, তিনি বে শুদ্ধন্বভাব ও 
অনন্তন্ব্ূপ তাহ! বিস্মৃত হইক্। বান । পুরুষকে অসভ্ভিত্বশালী 
বলিতে পারা যার না, কারণ পুরুষ অ্স্পত অস্ভিত্ন্বরূপ 
আত্মাকে জ্ঞানসম্পন্গ করিতে পারা যায় না, কারণ আত্মা হক্সং 
জ্ঞানস্বরপ । তাহাকে পপ্রমসম্পন্ম বলিভে পারা বাসস না, কানণ 
তিনি স্ব প্রমন্বরূপ । আত্মাকে অ্তিত্বশালী, জ্ঞানবুক্ত 
২২২১ 


রাজযোগি 


অথবা প্রমমক্স বলা সম্পূর্ণ ভুল । প্রেম, জ্ঞান ও অন্ডিত 
পুরুষের গুণ নহে», উহার প্র পুরুষের স্বরূপ । যখন উহার? 
কোন বস্তর উপর প্রতিবিহ্িত হস, তখন ভহাদ্দিগকে সেই বস্তর 
শুণ বলিতে পার! বাক্স । কি্ড উহার পুক্রবের গুণ নভে, ভহার। 
সেই মহান আত্মার-_অনস্ত পুরুষের ম্বরূপ- ইহার জন্ম নাই, 
মৃত্যু নাই, ইন্টি নিজ মহিমাক্স বিরাজ করিতেছেন ॥ কিন্ত 
তিনি এতদূর স্বব্দপবিজষ্ট হইক্সাছেন যে, বর্দি তুমি তাহার নিকট 
গিক্া। বল, “তুমি শুকর নহ*” তিনি চীত্কার কন্সিতে থাকিবেন ও 
তোমাকে কামড়াইতে আর্ত করিবেন। মানার মধ্যে, আই 
স্বপ্রময জগতের মধ্যে আমাদেরও তেই দশ হইক্সাছে । এখানে 
কেবল বোন, কেবল হহখ” কেবল হাহাকার-__ এখানকার 
ব্যাপারই এই ঘষে কম্সেকটি স্ুবর্ণগোলক যেন গড়াইক্না দেওযস্! 
হইক্স়াছে আর সমুদস্স জগৎ উহ) পাইবার জন্য পরম্পর্‌ প্রত্তি- 
দ্বন্দ্িত) করিতেছে । তুমি তোন নিক্ষমেই কখন বদ্ধ ছিলে না। 
প্রক্কৃতির বন্ধন তোমাতে কোন কালেই নাই । যোগী তোমাকে 
ইহাই শিক্ষ। দিক) থাকেন, সহিকুঃতার সহিত উহা শিক্ষা কর । 
যোগী তোমাকে বুঝাইব॥ দিবেন, কিনব্ধপে এই প্রকৃতির সহিত 
মিশ্রিত হইয়।, আপনাকে মন ও জগতের সহিত মিশাউক্স॥ পুরুষ 
আপনাকে হঃখ্ী ভাবিতেছে । যোগী আরও বলেন, এই 
হুঃখময় সংসার হইতে অব্যাহন্তি পাইতে হইলে তাহার উপায় 
এই যে», প্রাকৃতিক সমুদয় সুখনহঃখ ভোগ করিক্সা অভিজ্ঞত! 
অঞ্জন করিতে হইবে । - ভোগ করিতে হইবে নিশ্চস্সইঞ তবে 
ভোগ যত শীত্র শেব করিন্সা ফেলা যাস্স»০ ততই মঙ্গল । আমর! 
২২ 


যোগস্ত্জ 


আপনাদ্দিগকে ওই জালে ফেলিক্সাছি, আমাদিগকে ইহার 
বাহিরে যাইতে হইবে । আমরা নিজেরা এই ফাদে পা দিকাছি, 
আমাদিগকে নিজ চেষ্টাই উহা হইতে মুক্তি লাভ করিতে 
হইবে । অতএব এরই পতিপত্ত্ীসম্বন্ধীস্ব, মিত্রসহ্বন্ধীম ও অন্ঠান্য 
যে সকল ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র প্রেমের আকাতক্ষা! আছে, সবই ভোগ করিস! 
লও । বদি নিজের স্বরূপ সর্ববদ। স্মরণ থাকে, তাহ হইলে তুমি 
শীঅই নির্ব্বিঘে ইহ] হইতে উত্ভীর্ণ হইস্সা যাইবে । এই অবস্থা 
যে অতি অল্ক্ষণের জন্য এবং আমাদিগকে উহার মধ্য দিয়! 
বাধ্য ভইস়। যাইতে হইতেছে» একথ। কখনও ভুলিও ন॥ ॥ €ভাগ-_ 
এই স্খ-ত্ুঃখের অন্ঞভবই- আমাদের একমাত্র মহান শিক্ষক, 
কিন্ত এ ভোগশুলিকে কেবল সামঘ্রিক পথের ব্যাপার বলিস্তা যেন 
মনে থাকে £ উহার ক্রমশও আমাদিগকে এমন এক অবস্থান লইয়1 
যাইবে, যেখানে জগতের সমুদয় বস্ত অতি তুচ্ছ হুইক1? যাইবে । 
পুরু তখন বিশ্বব্যাপী বিরাঁটরূপে পরিণত হইবেন 5 তখন 
সমুদ্র জগত যেন সমুর্রে একবিন্দু জলের ন্গাক্স প্রতীব্রমান হইবে, 
তখন উহ আপনা আপনিই চলিকী। যাইবে, কারণ উহ? 
শৃন্তন্ব্ূপ । স্থখছুহখনভোগ আমাদিগকে করিতেই হইবে, কিন্ত 
আমরা বেন আমাদের চরম লক্ষ্য কখনই বিস্থৃত না হই । 


বিশেষাবিশেষলিজমাভ্রালিঙ্গানি গুণপর্বাণি ॥ ১৯ ॥ 
স্তত্রার্থ__গুণের এই পশ্চালিখিত অবস্থা কয়েকটি 
আছে, যষথা।-_বিশেষ € ভুতেক্দরিয় ), অবিশেৰ € তন্মাত্র 


অস্সমিত। ), কেবল চিহুমাত্র (মহৎ) ও চিহু-্গুন্য €প্রকুতি) । 
সই সই ২৩ 


বাজ যোগা 


ব্যাখ্যা আমি আপনাদিগকে পুর্ব প্ুর্বব বক্তুতাক়্ 
বলিক্পাছি যে, যোগশান্ত্র সাংখ্যদর্শনের উপর স্থাপিত » এখানেও 
পুনর্বার সাংখ্যদ্শনের জগবৎ্স্হষ্টি প্রকরণ আপনাদিগকে স্মরণ 
কল্সাইর$ দিব । সাংখ্যমতে তই জগতের নিমিভ্ত ও 
উপাদান কারণ এরই উভযপই । এই প্রকৃতি আবার ভ্রিবিধ 
ধাতৃতে নিশ্মিত, যথ।--সভ্ভ, রজ5 ও তমঃ । তম পদার্থটি 
কেবল অন্ধকারন্বরূপ, ষাহা কিছু অজ্ভঞানাত্ক ও ওর পদার্থ 
সবহ তভতমোমক় । রজহ ক্তিয়াশক্তি । সম্ভব স্থির প্রকাশব্ষঘভাব ॥ 
সির পূর্বেবে প্রকৃতি যে অবস্থীষ্ম থাকেন, তাহাকে সাংখ্যে 
অব্যত্ত, 'অবিশেব বা অবিভক্ত বলেহ ইহার অর্থ এই», হে 
অবস্থাক্স লাঁমরূপের কোন প্রভেদ নাই, যে অবস্থা এ তিনটি 
পদ্ার্ঁপ ঠিক সাম্যভাঁবে থাকে) ততপরে যখন এই সাম্যাবস্থ! 
নষ্ট হুইমন টবষম্যাবস্থা আসে, তখন এই তিন পদার্থ প্রথথক 
পথক ভাবে পরস্পর মিশ্রিত হইতে থাকে, তাহার ফল এরই 
জগাৎৎ । প্রত্যেক ব্যক্তিতেও এই ভিন পদার্থ বিরাজমান ॥ 
যখন সম্তভ প্রবল হন্স তখন জ্ঞানের উদয় ভয়, রজহ প্রবল হইলে 
ক্রি বুদ্ধি হক, আবার তম প্রবল হইলে অন্ধকার” আলম 


ও অজ্ঞান আসে । সাংখ্যমতাচছসারে ত্িগুণনরী প্রক্কৃতি 
সর্ক্বোচ্চ প্রকাশ মহত অথবা বুদ্ধিতত্ত-_উনা।কে সব্বব্যাপী বা 
সার্বজনীন বুদ্ধিতত্ব বল বার । ্প্রভ্্যেক মন্ুষ্যবুদ্ধিই এই 
সর্বব্যাপী বুদ্ধিতর্তের একটি ₹শমুত্র । সাংখ্যমন্োবিজ্ঞান- 


মনে মন ও বুদ্ধির মধ্যে বিশেষ প্রাভিদ আছে ॥। মনের কাধ্য 
কেবল বিষরাভিঘাতজনিত, বেদনাগুলিকে লহইক্স/॥ ভিতন্রে জড় 
২২৪ 


যোগন্সুক্র 


কর! ও বুদ্ধি অর্থথৎ ব্যষ্টি ব। ব্যক্তিগত মহতের নিকট প্রদান, 
করা । বুদ্ধি এ সকল বিষক্স নিশ্চয় করে । মহত হইতে 
অহংতত্ত ও অহংতত্ত হইতে স্স্ম-ভূভের উৎপভ্ি হন্স। এরই 
স্স্-ক্ততসকল আবার পরস্পর মিলিত হইন্স/ এই বাহ স্ুল- 
তর্দপে পর্রিশত হত; তাহা? হইতেই এই স্কুল জগতের 
ভতৎ্পভ্ি 2১ সাংখ্যদ্শনের মত--বুদ্ধি হইতে আরম্ভ করিন্। 
একখগও্ড প্রাস্ডভর পধ্যস্ত সমুপ্স্সই এক পদার্থ হইতে উপ 
হইছে, ০কবল স্ক্ততা ও স্থুলভ লইক্সাই উহাদের প্রভেদ । 
স্ল্ষ কারণ, স্থুল কাধ্য। সাংখ্যদশনের মতে প্রুক্রষ সমুদ্র 
প্রকৃতির বাহিরে, তিন্নি জড় নহেন। বুদ্ধি, মন, শন্মাত্রা! 
অথবা? স্থল-ভূত৮ পক্ষ কাহাঁরই সদৃশ নহেন। ইনি সম্পুর্ণ 
পুথকৃ, ইহার প্রকৃতি সম্পূর্ণ ভিন্গরূপ ॥ ইহ হইতে তাহার 
সিদ্ধাম্ত করেন যে, প্ুক্রষ অবশ্য ম্বত্যুক্হিত অজ অমব্র,. 
কারণ উন্দি কোন প্রকান মিশ্রণ হইতে উত্পল্ম নন ॥। বাহ! 
মিশ্রণ হইতে উৎপন্গ নক, ভাহার কখন নাশ হইতে পারে না। 
এই প্ুক্রষ ব। আত্মাসমুহের সংখ্যা অগণন। 

এক্ষণে আমরা এই ন্ত্ররির তাতৎ্পধ্য বুঝিতে পাব্রিব ॥ 
বিশেষ অর্থে স্থল ভূতগণকে লক্ষ্য করিতেছে -_-€ষশুলিকে আমর? 
ইন্ছিক্দ্বার! উপলব্ধি করিতে পারি ॥ , অবিশেষ অর্থে সুশ্প্রভৃত 
-তন্মাত্র, এই ভন্মাভ্রা সাধারণ তোকে উপলন্ধি করিতে 
পারে না॥ কিন পতঞগ্জলি বলেন, “বদি তুমি তোগাতভ্যাস কর» 
কিছুদিন পরে নামান অন্ত্রবশক্তি খঅতদুর সুস্ম হইবে যে, 
তুমি তন্সাত্রাশুলিকে বাস্তবিক প্রত্যক্ষ করিবে ।” €তাম্র? 

৮১-৫4 


বাজবোগ 


শুন্কছি গ্রত্যেক ব্যক্তির এক প্রকার জ্যোতি আছে, 
প্রত্যিক প্রাণীর ভিতন্ব হইতে সর্বদ। এক প্রকার আলেখক 
বাহির হইতেছে । পতঞ্জলি বলেন, “কেবল যোগীই উহ? দেখিতে 
সমর্থ । আমরা সকলে উহা? দেখিতে পাঁই না বটে, কিন্ত 
যেমন প্রু্প হইতে সর্বদাই পুষ্পের হ্শ্াচস্স্ পরমাণুন্বরূপ 
তন্মাত্র! নির্গত স্ব, যদ্দ্ার। আমরা আ'ভ্রাণ করিতে পালি, 
সেইব্ধপ আমাদের শরীর হইতে সর্বদাই এই অতন্মাত্রা সকলও 
বাহির হইতেছে । প্রত্যহই আমাদের শরীর হইতে শুভ বা! 
অশুভ কোন না কোন প্রকারের ব্রাশীকৃত শভ্তি বাহির 
হইতেছে ॥। ক্তরাং আমরা যেখানেই বাই, সেখানেই আকাশ 
এই তন্মাত্রাক্স পুর্ণ থাকে । মানব ইহার প্রকৃত রহন্য না 
জাঁনিলেও ইহ) হইতেই অজ্ঞাতসারে মানুষের অন্তরে মন্দির, 
গিজ্জারদি করিবার ভাব আসিক্সাছে। ভগবানকে ভপাসনা। 
করিবার জন্য মন্দিবনিন্নাণের কি প্রষ্মোজন ছিল? €কন, 
বেখানে সেখানে ঈশ্বরের উপাসনা! করিলেই ত চলিত । 
ইহার কারণ এই, মানব নিজে এই ব্রহস্তটি না জানিলেও 
তাহার মনে স্বভাবতহঃ এইরূপ উদকস্স হইক্জাছিল তে, যেখানে 
লোকে 'ঈশববের উপাসন! করে, ৫স স্থান পবিত্র তন্মাত্রাক্স পরিপূর্ণ 
হইক্স) বান্স। তোকে প্রত্যহই ন্তথান্স গ্রিক্সা থাকে * লোকে 
তথাক্স যতই যাতাক্সাত করে, ততই তাহারা পবিত্র হইতে 
থাকে এবং সঙ্গে সঙ্গে সেই স্থাঁনটিও পবিত্রতব হইতে থাকে । 
যে ব্যক্তির অন্তরে ততদুক্র সত্বগুণ নাই, ০দ বর্দে সেখানে গমন 
করে, তাহারও সত্বগুণের উদ্রেক হইবে । অতএব মন্দিরাি 
২২৬ 


যোগস্ঠ্ত্র 


ও তীর্থার্দি কেন পবিভ্র বলিস্জ। গণ্য হয়ঃ তাহার কারণ বুঝা 
গেল । কিন্তু এটি সর্বদাই স্মরণ থাক) আবশ্যক যে, সাধু 
লোকের সমাগমের উপরেই সেই স্থানের পবিত্রত। নিডর করে । 
কিস্ত লোকেব এই গোল হইক্সা পড়ে যে, লোকে উহার মুল 
উদ্দেশ্য বিস্মত হইয্তা যায়__হইস্স। শকটকে অশ্বেতর অগ্রে যোজন? 
করিতে ইচ্ছ। করে । প্রথমে ছোোকেই সেই স্থানকে পবিত্র 
করিক্াছিল, তৎপবে সেই স্থানের পবিভ্রতারূপ কাধ্যটি আবার 
কারণ হইন্না ে।ককেও পবিত্র করিত । যদি সে স্থানে সর্ববদ। 
অলাধু লোক বাতাম্নাত করে. তাহ হইলে সেই স্থান অন্ঠান্ত 
স্থানের ন্যাযই অপবিত্র হইব! যাইবে । বাটীর গুণে নয়, লোকের 
ওতণই মন্দির পবিত্র বলিব) গণ্য হ্ম্ব5১ কিন্তু এইটিই আমর! 
সর্বদা ভুলিয়। যাই । এই কারণেই প্রবলসত্গুণসম্পন্ধগ সাধু 
ও মহাত্স।গণ চতুর্দিকে শর সত্বশুণ বিকিরণ করিয়া তাহাদের 
চতুপ্পার্বন্ছ লোকের উপর মহাপ্রভাব বিস্ডার করিতে পারেন। 
মান্তুব এতদূর পবিত্র হইতে পারে যে, তাহার তেই পবিত্রতা যেন 
একেবারে প্রত্যক্ষ দেখ! যাইবে__দেহু ফুটিস। বাহির হইবে । 
সাধুর শরীর পবিত্র হইস্্া যায়, স্থতরাং সেই দেহ যেথায় বিচরণ 
করে তথায় পবিত্রতা বিকিরণ কতিস্কা থাকে । ইহা কবিত্ের 
ভাষা নর, রূপক নয়, বাস্তবিক দেই পবিত্রতা যেন ইন্ছিয়গোচর 
একটি বাহ বস্ত বলিক্সা প্রতীক্ষমান হনব । ইহার একটা ষথার্থ 
অন্ডিত্ব--বথার্থ সম্ভা আছে । তে ব্যক্তি সেই লোকের সংস্পশে 
আসে, সে-ই পবিজ্র হুইক্স যাক্স | ্‌ 

এক্ষণে “লিজমাত্রের” অর্থ কি, দেখ বাডক । লিঙ্গমাত্ 

২২৭ 


াজযোগ 


বলিতে বুদ্ধিকে বুঝায় ; উহ! প্রকৃতির প্রথম অভিব্যক্তি, উহা 
হইতেই অন্ঠান্থ. সমুদ্র বস্ত অভিব্যক্ত হইগ্সাছে। গুণের শেষ 
অবস্থাটির নাম অলিঙ্গ বা চিহ্ুশৃন্ত । এই স্থানেই আধুনিক 
বিজ্ঞান ও সমুদয় ধন্মে এক মহ বিবাদ দেখা বাক্স । প্রত্যেক 
ধর্মেই এই এক সাধারণ সত্য দেখিতে পাওয়। যাক যে, এই জগৎ 
টচতন্তশত্তি হইতে উৎপন্ন হইন্বাছে। ঈশ্বর আমাদের হ্যাক 
ব্যক্তিবিশেষ কি-না, এ বিচার ছাভিয়। দিয়া কেবল মনো বিজ্ঞানের 
দিক দিক্পা ধরিলে ঈশ্বরবাদের তাতৎপধ্য এই যে, ঠচতন্যই স্ঙ্ির 
আদি বস্ত; তাহ? হইতেই স্থল ভূতের প্রকাশ ভইক্সাছে। 
কিন্ত আধুনিক দার্শনিক পণ্ডিতেরা বলেন, চৈত্ন্যই স্থন্টির শেষ 
বস্ত । অর্থাৎ তাহাদের মত এই বে, অচেতন জড় বস্ত সকল 
অল্পে অল্পে জীবরূপে পরিণত হইন্সাছে, এই জীবগণ আবার ক্রমশঃ 
উন্নত হইস্সা মনুষ্যাকার ধারণ করে। তাহার। বলেন, জগতের 
সমুদয় বস্ত যে চৈতন্ত হইতে প্রন্থৃত হইক্সাছে তাহ নহে, বরং 
উচৈতন্তই স্যট্টির সর্বশেষ বস্ত। বযদ্দিও এএইরূপে ধর্মসমৃহের ও 
বিজ্ঞানের সিদ্ধাস্ত আপাতবিরুদ্ধ বলিল প্রতীক্সমান হয়, তাহ 
হইলেও এই ছুইটি সিদ্ধাস্তকেই সত্য বলিতে পার! যার। 
একটি অনস্ত শৃঙ্খল বা শ্রেণী গ্রহণ কব, যেমন ক-খক-খ-ক-থ 
ইত্যাদি ; এক্ষণে প্রশ্ন এই, ইহার মধ্যে ক আর্দিতে অথবা খ 
দসদিতে ? যদি তুমি এই শৃজ্খলটিকে ক-খ এইরূপে গ্রহণ কর, 
তাহ) হুইলে অবশ্য “ককে প্রথম বলিতে হইবে, কিন্ত তুমি 
উহাকে খ-ক এই ভাবে গ্রহণ কর, তাহা হইলে “খ”কেই আদি 
ধরিতে হইবে । আমরা যে দৃষ্টিতে উহাকে দেখিব» উহা! সেই 


২৮৮ 


যোগস্চত্র 


ভাবেই প্রতীক্সমান হইবে । ঠচতন্ত অনচুলোম-পল্িণামপ্রাপ্ত 
হইক্সা স্থলভূতের আকার ধারণ করে, স্থলভূত আবার বিলোম- 
পৰিণাম্প্রান্ত হইস্স। ঠচতন্যব্দপে পরিণত হয় ॥ সাংখ্য ও সমুদযু 
ধন্সাচাধ্যগণই চৈতন্তকে 'আগ্রে স্থাপন করেন । তাহাতে এ 
শৃভ্খল এই আকার ধারণ করে, যথ।-- প্রথমে 6তন্য, পরে ভূভ। 
€বজ্ঞান্িক প্রথমে ভূতকে গ্রহণ ককিয়$ বলেন, প্রথমে ভূত পরে 
ইচতন্য ॥ কিন্তু এই অউভম্ষেই সেই একই শুঙ্খলের কথা৷ 
কহিতেছেন । ভারতীন্ন দর্শন কিন্তু এই ঠতন্য ও ভূত উভক্সেরই 
উপর গিক্ষা পুকুষ বা আত্মবকে দেখিতে পান এই আত্ম! 
জ্ঞানেরও অতীত $ জ্ঞান তেন তাহার নিকট হইতে প্রাণ্ড 
আলোকম্বরূপ । 


দ্রেক্টা দ্বশিমাত্র€ শুদ্ধোহপি প্রত্যস্বানুপন্ঠযত ॥ ২০ ॥ 


স্রত্রার্থ_দ্রষ্টী কেবল ঠৈতন্যঞ মাত্র ;* যদিও তিনি 
স্ব পবিভ্রন্বরূপ” তথাপি বুদ্ধির ভিতর দিয়া তিনি 
দেখিয়া! থাকেন । 

ব্যাখ্য।-_ এখানেও সাংখ্যদ্শনের কথা বলা হইতেছে । 
আমর) প্ুর্বেবই দেখিক্সাছি, সাংখ্যদশনেবত্র এই মত যে, অতিত ক্ষুত্ 
পদার্থ হইতে বুদ্ধি পধ্যস্ত সবই প্রকৃতির অন্তর্গত, কিন্ধ পুক্রষগণই 
এই প্রক্কত্তির বাহিরে, এই পুক্ষবগণের কোন ও৭ নাই । তবে 
আত্ম। হুহতী বা সুখী বলিক্ষ। প্রতীন্রমান হন তেন? কেবল বুজি 
উপরে প্রতিবিশ্বিত হইক্না) তিনি এ সকল রূপে প্রতীক্ষমাঁন হন্‌। 
যেমন এক এণ্ড স্ষটিকেত্ন নিকট একটি লাল ফুল রাখিলে এ 

২২৯ 


ব্লাজবোগ 


স্কটিকটিকে লাল €দখাইবে 2 ০সইবূপ আমরা যে সুখ বা হহখ 
বোধ করিতেছি, তাহা বাশ্ডবিক প্রতিবিম্ব মাত্র, বাস্ডবিক আত্মাতে 
এ সকল কিছুই নাই ॥ আত্স। প্রক্কৃতি হইতে সম্পুর্ণ পৃথক বস্ত । 
প্রক্কত্তি এক বস্ত, আত্ম। এক বস্ত, সম্পুর্ণ পুথক*» সর্ববদ। পৃথক । 
সাংখ্যেরা বলেন যে, জ্ঞান একটি মিশ্র পদার্থ* উহার স্াস বুদ্ধি 
উভক্সই আছে, উহ) পরিবর্তননাল £ শরীরের ভ্যাক্স উহাও কব্রমশ2 
পরিণাম প্রাণ হয়, শরীরের যে সকল রন্ধন, উহাতেও প্রাক্স তৎসদৃশ 
ধন্ম বিচ্যামান। শরীরের পক্ষে নখ যদ্ধরপ, জ্ঞানের পক্ষে দেহও 
তব্দরপ ॥। নখ শরীরের একটি অংশবিশেষ, উহাকে শত শত 
বার কাটিয়া ফেলিলেও শরীর থাকিম্্র। যাইবে । -এইক্সপ এই 
শরীর শত শত বার নট হইলেও জ্ঞান বুগধুগ।স্তর ধর্ির। 
থাকিবে ॥। কিম্তু তাহা হইলেও এই জ্ঞান কখনও অবিনাণা 
হইতে পানে মন, কারণ উহ? পরিবর্তনশীল, ভহার হ্বাসবুদ্ধি 
আছে ২ আর যাহ। পরিবর্তনশীল তাহা কখনও অবিনাশা হইতে 
পনন্সে না1 1 এরই জ্ঞান অবশ্যই জন্যপদ্াার্থ। আর “ইহছা। জন্য” 
এই কথাতেই বুঝাইতেছে, ইহার উপরে-- ইহ! হইতে ০শ্রষ্ঠ 
অন্ত এক পদার্থ আছে £ কারণ জন্তপদার্থ কখনও মুস্তস্বভ1ব 
হইতে পারে না॥। ভূতসংশ্রিষ্ট সমুদ্প্পই প্রকৃতির অন্তর্গত, 
ক্কতকাং তাহা চিরকালের জন্য বদ্ধভাবাপন্জ। তবে প্রক্কৃত 
মুক্ত কে? বিনি কাধ্যকারণ-সমন্বন্ধের অতীত» তিনিই প্রকৃত 
মুক্ত্বভাব । বর্দি তুমি বল, মুক্তভাবটি ভ্রমাত্মক: আমি 
বরপিব এ্রই বন্ধনভাবটিও ভ্রমাত্সক ॥ আমাদের জ্ঞান্দে এই ছই 
ভাবই সদ) বিরাজিত + শ্র ভাবদ্বস্ক পরস্পর পরস্পরের আশ্রিত £ 


সই) 


ও যোগন্ুত্র 
একটি ন1 থাকিলে অপরটি থাকিতে পাবে না। উহাদের 
মধ্যে একটির ভাব এই যে, আমরা বদ্ধ। মনে কর, আমাদের 
ইচ্ছা হইল আমরা েওযক্ালের মধ্য দিক্সা যাইব । আমাদের 
মাথা দেওকসণালে লাগিক্সা গেল, তাহা হইলে বুব্িলাম আমর 
প্র দেওয়ালের দ্বারা সীমাবদ্ধ । কিস্তু তাহা] হইলেও আমর 
দেখিতে পাইতেছি আমাদের ইচ্ছাশভ্তি রহিক্সাছে, আমাদের 
মনে হক্স এই ইচ্ছাঁশক্তিকে আমব। যেখানে হইচ্ছ। পরিচালিত 
করিতে পারি । শ্রতিপদে আমর॥ দেখিতেছি, এই বিরোধী 
ভাবদক্স আমাদের সম্মথে আসিতেছে । আমর) মুভ্ত, ইহ» 
আমাদিগকে অবস্তই বিশ্বাস করিতে হইবে; কিন্ত আবার 
প্রতি সুহ্র্তেই দেখিতেছি ০, আমরা মুত নহি। যদি 
ছুইটির ভিতরে একটি ভাব ভ্রমাত্সক হয়”, তবে অপরটিও 
ভ্রমাত্মক হইবে 52 আর যর্দি একটি সত্য হর, তবে অপরটিও 
সত্য হইবে, কারণ উভস্বেই অন্ুুভব্রপ একই ভিত্তির উপর 
স্থাপিত ॥। ষোগী বলেন, এই ছুই ভাবের উভয্ষটিই সত্য । 
বুদ্ধি পধ্যনস্ত ধরিলে আমরা বান্ডবিক বন্ধ। কিম্ত আত্ম! 
হিসাবে আমর মুন্তত্বভাব ॥ 1চষের প্রকৃত ম্বরূপ-_-আত্ম! 
বা পুরুষ কাধ্যকারণশৃঙ্খলের বাহিরে । এই আত্মারই মুক্ত- 
ত্বভাঁবটি ভূতের ভিন্ন ভিন্ম স্তরের মধ্য দিক প্রকাশিত হইক্স? 
বুদ্ধি মন হত্যার্দি নানা আকার ধারণ কতিক্সাছে। ইহাই 
জ্যোতি সকলের ভিতর দিক প্রকাশিত হইতেছে । বুদ্ধির 
নিজে কোন ঠচতন্ত নাই। প্রত্যেক ইন্দ্িক্সেরই মন্তডিক্ষে 
এক একটি কেন্দ্র আছে ॥ সমুদ্র ইন্ছ্রিয়ের ষে একমাত্র কেক 
৩ 
১৩৩ 


রাজযোগ 


তাহ) নহে, প্রত্যেক ইন্দ্রিয়েরইে কেন্দ্র পৃথক পৃথক ॥ তবে 
আমাদের এই অনুভূতিগুলি তোথায়় যাইয়া! একত্ব লাভ করে? 
যদি মন্ডিষ্ষে তাহারা একত্ব লাভ করিত, ওহ! হইলে 
চক্ষুঃ, কর্ণ, নাসিক। সকলগুলির একটি মাত্র কেন্দ্র থাকিত ॥। কিন্ত 
আমর। নিশ্চয় করিকস্বা জানি যে, প্রত্যেকটির জন্য ভিন্ন ভিন্গ 
কেন্ছরর আছে । কিন্তু লোকে এক সময়েই দেখিতে শুনিতে 
পাস্প। ইহা]তেই বোধ হইতেছে যে, এই বুদ্ধির পশ্চাতে 
অবশ্তই এক একত্ব আঁছে। বুদ্ধি নিত্যকালই সম্ডিক্ষের 
সহিত সম্বদ্ধ-_কিল্ড এই বুদ্ধিরও পশ্চাতে পুরুষ রহিক্সাছেন | 
তিনি একত্বম্বপ। তাহার নিকট গিক্সাই এই সমুদ্ক্স 
অন্ভূতিগুলি একীভাব ধার) করে । আত্মাই সই কেন্দ্র, 
যেখানে সমুদক্স ভিন্ন ভিন্ধ ইন্দ্রিক্বাচভূতিগুলি একীভূত হয্স। 
আর আত্ম! মুক্তত্বঘভাব । এই আত্মারই মুক্ত ্বভাব তোমাকে 
প্রতি মুহূর্তেই বলিতেছে যে তুমি সুস্ত। কিন্তু তুমি ভ্রমে 
পড়িক্স। সেই মুক্ত স্বভাবকে প্রতি মুহূর্তে বুদ্ধি ও মনের সহিত 
মিশ্রিত করিয়া ফেলিতেছ । তুমি নেই মুক্ত ত্বভাঁব বুদ্ধিতে 
আরোপ করিতেছ । আবার তৎক্ষণাৎ দেখিতে পাইতেছ যে, 
বুদ্ধি মুক্তত্বভাঁব নহে । তুমি আবার সেই মুক্ত ত্বভাব দেহে 
আরোপ করিস্বা থাক* কিন্ত প্রকৃতি তোমাকে তৎক্ষণাৎ 
বলিক্স। দেন যে» তুমি ভুলিয়াছ ;$ মুক্তি দেহের বর্ম নহে। 
এই জন্যই একই সমন্সে আমাদের মুক্তি ও বন্ধন এই দুই 
প্রকারের অনুভূতিই দেখিতে পাওয়া যায় । যোগী মুক্তি ও 
বন্ধন, উভয়েরই বিচার করেনঃ আর তাহার অজ্ঞানান্ধকার 

২৩২ | 


যোগস্তত্রু 
চলিক্স। যাকস। তিনি বুঝিতে পারেন যে, পুরুষই মুক্রম্বভাব, 
জ্ঞানঘন, তিনিই বুদ্ধিরূপ উপাঁধির মধ্য দিক) এই সাম্ত জ্ঞানরূপে 
প্রকাঁশ পাইতেছেন, সই হিসাবেই তিনি বদ্ধ । 


তদর্থ এব দৃশ্ঠস্াত্সা ॥ ২১ ॥ 


্ুৃত্রার্থ_ দৃশ্ট অর্থাৎ এও্রকৃতির আত্মা €স্বরূপ অর্থাৎ 
বিভিন্ন আকারের পরিণাম ) চিন্ময় পুরুষেরই € ভোগ ও 
মুক্তির ১ জন্য | 

ব্যাখ্য।- প্রকৃতির নিজের তোন শক্তি নাই । যতক্ষণ 
পুরুষ তাহার নিকট উপস্থিত থাকেন, ততক্ষণই তাহার শক্তি 
প্রত্তীকমান হস্ম । চক্দ্রালোঁক যেমন উহার নিজের নহে, স্চুর্যয 
হইতে আহত, প্রকৃতির শক্তিও তন্রপ পুক্রুৰব হইতে লব্ধ । 
যোগীদের মতে, সমুদস্থ ব্যক্ত জগৎ প্রকৃতি হইতে উৎপন্ধ $ 
কিন্ত প্রকতিব্ নিজের আর ঢতোন উদ্দেশ নাই, কেবল 
“পুরুৰকে মুক্ত করাই প্রক্কতির প্রকোোজন ॥ 
ক্লুতার্থ প্রতি নক্টমপ্তনক্টং তদন্যসাধারণত্বাৎ ॥২২॥ 


স্রত্রার্থ_মিনে সেই পরম পদ্দ লাভ করিয়াছেন, 
তাহার পক্ষে প্রকৃতি নই হইলেও উহা নষ্ট হয় না, 
কারণ উহা অপরের পক্ষে সাধারণ । 

ব্যাখ্যা--আত্মা যে প্রক্কতি হইতে সম্পুর্ণ ত্বতম্ত্র় ইহ! 
জানানই প্রকৃতির একমাত্র লক্ষ্য । যখন আত্মা ইহা জানিতে 
“পারেন, তখন প্রকৃতি আব তাঁহাকে কিছুতেই '্রলোভিত 


ন্‌ 


বাজবোগ 


করিতে পারেন না। যিনি মুক্ত হইঙ্সাছেন, তাহার পক্ষেই 
সমুদস্থ প্রকৃতি একেবারে উড়িক্সা বাক্স । কিস্তু অনস্ত কেটি 
লোক চিরকালই থাকিবেন, ধাহাদের জন্য প্রক্কৃতি কাধ্য করিস! 
বাইবেন । 


্বন্বামিশক্ত্যোই স্বরূতণপোপলন্ষিহেতুত সংবোগহ ॥২৩॥ 


স্তৃত্রার্থ দৃশ্য ও উহার প্রভু দ্রষ্তীর শক্তি_ 
্য়ের € ভোগ্যত্ব ও ত্ডোক্তত্ববরূপ ) ব্বরূপ উপলব্ধির 
হেতু সংযোগ । 

ব্যাখ্যা এই ন্ত্রান্ুসারে বখনই আত্॥ প্রকৃতির সহিত 
যুক্ত হন, তখনই এই সংযোগব্শ তহ উভক্ষের বথাক্রমে ডুউুত্ব ও 
দৃহ্/ত্ব এই ছুই শক্তির প্রকাশ হইক্স। থাকে । তখনই এই জগহ_ 
প্রপঞ্চ ভিন্ন ভিন্ন ব্ূপে ব্যক্ত হইতে থাকে । অজ্ঞাঁনই এই 
যোগের হেতু । আমর। প্রতিদিনই দেখিতে পাইতেছি যে, 
আমাদের হঃখ বা সুখের কারণ, শরীরের সহিত আপনার 
সংযোগ ॥। যদি আমার এই নিশ্চক্জ্ঞান থাকিত বে আমি শরীর 
নই, তবে আমার শীত, শ্রীক্ম অথবা আর কিছুরই খেকাল' 
থাকিত না । এই শরীর একটি সমবান্গ বা সংহতি মাত্র। 
আমার এক দেহ» তোমার অন্য দেহ» অথবা) ্ধ্য এক পুথক 
পদার্থ বলা কেবল গল্পকথামাত্র । সমুদক্ জগত এক 
মহাভূতসমুদ্রতুল্য । সেই মহাসমুদ্রের তুমি এক বিন্দুষ আমি 
এক বিন্দু ও স্ধ্য আর এক বিন্দু? আমরা জানি, এই ভ্তত 
সর্বদাই ভিন্ম ভিন্ন আকার ধারণ করিতেছে । আজ যাহ 

চি 4০১85 


যোগস্তজুে_ 


সর্্যের উপাদ্দানভূত রহিস্ছে* কাল তাহা আমাদের শরীরের 
উপপাদানরূণে পরিণত হইতে পাবে। 


তস্ত হেতুরবিছ্যা ॥ ২৪ ॥ 


স্রত্রার্থ-এই সংযোগের কারণ অবিস্তা অর্থীৎ 
অভ্ভান । 

ব্যাখ্যব আমরা অজ্ঞানবশতহ আপনাকে এক নির্দিষ 
শরীরে আবদ্ধ করিক্স। আমাদের ছুঃখের পথ ভন্মুক্ত বাখিক্ষখছি | 
এই যে আমি শরীর” এই ধারণা, ইহ কেবল কুসংস্কার মাত্র । 
এই কুসংস্কারেই আমাদিগকে স্থথী হখী করিতেছে । অজ্ঞান- 
প্রভব এই কুসংস্কার হইতে আমরা শীত, উক্ত, স্খখ, হুঃখ এই 
সকল বোধ কব্সিতিছি । আমাদের কর্তব্য, এই স্কারকে 
অতিক্রম কর । কি করিক্সা ইহ কাধ্যে পরিণত কবর্িতে হইবে, 
যোগী তাহা দেখাইম্বা দেন । ইহা প্রমাণিত হইক্সাছে যে, মনের 
কোন কোন বিশেষ অবস্থাতে শরীর দগ্ধ হইতেছে, তথাপি * 
বতক্ষণ ০সই অবস্থা থাকিবে, ততক্ষণ সে কোন কট বোধ করিবে 
না। তবে মনের এইব্দপ হঠাঁৎ উচ্চাবস্থা হয়ত এক নিমিষের 
জন্য ঝড়েন মত আদিল, আবার পরক্ষণেই চলিম্স। গেল। 
কিন্ত বর্দি আমর এই অবস্থা যোগের ছার? জ্ঞানিক প্রণালীতে 
লাভ করি, তাহ? হইলে আমরা সর্বদ শরীর হইতে আত্মাকে 
পৃথক রাখিতে পাৰিব । 

তদভাবাহ সংযোগাভাবে! হানং 


তদ্দু শেঃ €কবল্যম্‌ ॥ ২৫ £ 
২২৩০৬ 


.বাজিযোগ 


স্ুত্রার্থ_এই অভজ্ঞানের অভাব হইলেই পুরুষ 
প্রকৃতির সংযোগ নষ্ট হইয়া গেল । ইহাই হান € অজ্ভানের 
পরিত্যাগ ১, ইহাই ভ্রষ্টার কৈবল্যপদে অবস্থিতি । 


ব্যাখ্য।--বোগশান্সের মতে আত্মা অবিদ্ভাবশতহ 'প্রক্কতির 
সহিত সংযুক্ত ভইক্সাছেনঃ প্রকৃতির কবল হইতে মুক্ত হওযাই 
আমাদের উদ্দেশ্ত । ইহাই সমুদয় ধন্পের একমাত্র লক্ষ্য । আত্মা 
মাত্রেই অব্যক্ত ব্রক্দ। বাহা ও অন্তঃপ্রক্তি বশীভূত করিব) 
আত্মার এই ব্রক্ষমভাঁব ব্যক্ত করাই জীবনের চরম লক্ষ্য । কর্ম, 
উপাসন1, মনহসংবম অথবা জ্ঞান, ইহাদের মধ্যে এক* একাধিক 
বা সকল উপাক্মগুলির দ্বারা আপনার ব্রহ্মভাঁব ব্যক্ত কর ও 
মুক্ত হও । ইহাই ধর্মের পুর্ণাঙ্গ । মত, অননুষ্ঠান-পদ্ধতি, 
শাস্স, মন্দির বা অন্ত বাহা ক্রিক্সাকলাপ কেবল উহার গৌণ 
অঙ্গপ্রত্যঙ্গ মাত্র । যোগী মনঃসংযমের দ্বার? এই চরম লক্ষ্যে 
উপনীত হইতে চেষ্টা করেন । যত দিন না আমর? প্রকৃতির 
হত্ত হইতে আপনাদ্দিগকে উদ্ধার করিতে পারি, ততদিন 
আমরা ব্রীতদাসসদৃশ 2৮ প্রকৃতি যেমন বলিব) দেন, আমর 
সেইব্দপ চলিতে বাধ্য হইস্সা থাকি ॥। যোগী বলেন, ধিনি মনকে 
বশীভূত করিতে পারেন তিনি ভূতকেও বশীভূত করিতে 
পানেন। অস্তঃপ্রকৃতি বাহাপ্রক্ৃতি অপেক্ষা উচ্চতর, স্তরাং 
উহার ক্ষমতাবিস্তার_ উহাকে জক্ কর! অপেক্ষাকৃত কঠিন ॥ 
এই কারণে যিনি অস্তঃপ্রক্কতি বশীভূত করিতে পানেন, 
সমুদক জগৎ তাহার বশীভূত হম্। উহা তাহার দাসন্বরূপ হইস্ 


২৩৬ 


যোগস্জ- 
যায় । বরাঁজযোগ প্রকৃতিকে এইরূপে বশীভূত করিবখর উপাক্ক 
দেখাইন। দেয় । আমরা বাহজগতে যে সকল শক্তির সহিত 
পরিচিত”, তদপেক্ষী উচ্চতর শক্তিসমুহকে বশে আনিতে হইবে । 
এই শরীর মনের একটি বাহা আবরণ মাত্র । শরীর ও মন ফে 
ছুইটি ভিন্ধ ভিন্্ বস্তু তাহ নহে, উহার শুক্তি ও তাহার বাহ 
আবরণের মত। উহার এক বস্তরই ছুইটি বিভিন্ব অবস্থা ॥ 
শুক্তির আ'ভ্যজ্তরীণ পদার্থটি বাহির হইতে নানাপ্রকার উপাদান 
গ্রহণ করিত! ও বাহা আবরণ রচিত করে । মনোনামধেকস এই 
আস্তরিক স্স্ম-শক্তিসমূহও বাহির হইতে স্থুলভূত লইঙ্স 
তাহা হইতে এই শরীররূপ বাহা আবরণ প্রস্তত করিতেছে । 
স্গতরাং যর্দি আমরা অস্তঙ্জগতৎকে জস্স করিতে পারি, তবে 
বাহাজগৎকে জর কর+ও সহজ হইসক্সা আসে । আবার এই 
ছুই শক্তি যে প্ররস্পর বিভিন্ন তাহা নহে । কতকগুলি শক্তি 
ভৌতিক ও কতকগুলি মানসিক তাহ? নহে। যেমন এই 
দৃশ্যমান ভোৌতিক জগত স্স্সজগতের স্থল প্রকাশ মাত্র” তত্র 
ভোতিক শক্তিশুলিও হুক্্শক্তির স্থল প্রকাশ মাত্র । 


বিবেকখ্তাতিরবিল্লীবা হানোপায়হ ॥ ২৬ ॥ 


স্রত্রার্থ__নিরস্তর এই বিবেকের অভ্যাসই অভ্ভ্ান্‌ 
নাশের উপাজ । 


ব্যাখ্যা--সমুদকস সাধনের প্রক্কত লক্ষ্য এই সদসছিবেক-_- 
পুরুষ যে প্রকৃতি হইতে স্বতন্ত্র, তাহ? প্রত্যক্ষ কর » এইটি বিশেষবূপে 
জান। বে পুরুষ ভূতও নন, মনও নন, আব উনি প্রক্কতিও নন, 


২ ৩শ 


রাজযোগ 


স্রতরা২ং উহার কোনরূপ পরিণাম অসম্ভব । কবল প্ররুতিই 
পদাসর্বদ। পরিণত হইতেছে» সর্বদাই উহার সংশ্পেষ, বিশ্রেষ 
ঘটিতেছে । যখন নিরস্তর অভ্যাসের ছার আমরা ভেদত্ঞান্‌ 
লাভ করিব, তখনই অজ্ঞান' চলিম্বা ষাইবে । তখনই পুরুষ 
আপনাক শ্বরূপে অর্থাৎ সর্ববজ্ঞঃ সর্বশক্তিমান ও সর্বব্যাপিরূপে 
প্রতিষ্ঠিত হইবেন ॥ 


তস্ত্য সপ্তধ! প্াম্তভুমিও প্রজা ॥ ২৭ ॥ 


স্তত্রার্থ_তাহার €জ্ঞানীর ) বিবেকভজ্ঞভানের সাতটি 
উচ্চতম সোপান আছে । 


ব্যাখ্যা-যখন এই জ্ঞান লাভ হইতে থাকে, তখন যেন 
উহা! একটির পর আর একটি করির। সপ্তস্তবরে আইসে । আর 
যখন উহাদের মধ্যে একটি অবস্থা আরম্ভ হয়, আমরা তখন 
নিশ্চয় করিয়া জানিতে পারি যে, আমর জ্ঞানলাভ করিতেছি । 
প্রথমে এইরূপ অবস্থা আসিবে, মনে এইব্প উদক্ম হইবে-_ 
প্বাহ। জানিবানর তাহ! জানিক্সাছি»” মনে তখন আর কোনরূপ 
অসস্ভোষ থাকিবে না। যখন আমাদের জ্ঞানপিপাস। থাকে, 
তখন আমরা ইতশস্ততঃ জ্ঞানের অনুসন্ধান করি । যেখানে কিছু 
সত্য পাঁইৰব বলিক্পা/ মনে হক, আমরা অমনি তৎক্ষণাৎ তথা 
ধাবিত হইস্সা থাকি ! যখন তথাক্স উহা প্রাপ্ত না হই, তখনি 
মনে আশাস্তি আসে । অমনি অন্য একদিকে সত্যে অন্ছ- 
সন্ধানে ধাবিত হইক্স থাকি । যতক্ষণ না আমরা অন্চভব 
করিতে পাক্সি যে, সমুদয় জ্ঞান আমাদের ভিতরে, ষতর্দিন ন। দৃঢ় 

২ ৩৬৮ 


যোগস্. 


ধারণ হক্স যে, কেহই আমাদিগকে সত্যলাভ করিতে সাহায্য 
করিতে পারেন ন17,» আমাদিগকে নিজেনিজেই নিজেকে সাহাব্য ৫ 
করিতে হইবে, ততদিন সমুদস্স সত্যান্বেবণেই বৃথা । বিবেক 
অভ্যাস করিতে আরম্ভ কৰিলে আমরা যে সত্যের নিকটবর্তী 
হইতেছি তাহার প্রথম চিহ্ত এই প্রকাশ পাইবে যে, 
পুর্বেবোস্ত অসস্ভোষ-অবস্থা চলিক্সা যাইবে । আমাদের নিশ্চয় 
ধারণা হইবে যে, আমর সত্য পাইক্সাছি-_ইহ)॥ অসত্য ব্যতীত 
আর কিছুই হইতে পারে না। তখন আমরা জানিতে পাৰিব 
যে, সত্যত্বরূপ ্ধ্য উদিত হইতেছেন, আমাদের অজ্ঞান্রজনা 
প্রভাতা হইতেছে ।॥ তখন বুকে ভরসা বাধিক্স) সেই পরম্পদ 
লাভ যতদিন না হয়, ততদিন অধ্যবসাকপরাক্সণ হইক্সা থাকিতে 
হইবে । দ্বিতীয় অবল্লায সমম্ড ছুহখ চলিয়া যাইবে । জগতের 
বাহা 'ব। আ'ভ্যন্তর কোন বিষয়ই তখন আমাদিগকে হতখ দিতে 
পারিবে না। তৃতীক্স অবস্থাক্স আমরা পুর্ণ জ্ঞান লাভ করিব 
অর্থাৎ সর্বজ্ঞ হইব ॥ চতুর্থ অবন্ঠাক্সম বিবেকসহায়ে সমুদ্ক্স 
কর্তব্যের অস্ত লাভ হইবে। তৎ্পৰে চিত্তবিমুক্তি-অবস্থ! 
'অঠসিবে। আমরা বুঝিতে পারিব, আমাদের বিদ্ববিপভ্তি সব 
চলিয়া শিক্সাছে। ”ষমন কোন পর্বতের চড়। হইতে একটি 
প্রস্তবখণ্ড নিক্সন উপত্যকাক্ম পতিত হইলে আর উহ) কখন উপরে 
যাইতে পাকে না, তবক্রপ মনের চঞ্চলত।, মনঃসংযমের অসামর্থঃ 
সমুদস্ব পড়িক্সা যাইবে অর্থাৎ চলিক্সা যাইবে 1” তৎ্পরের অবস্থা 
এই হইবে_চিভ্ত বুঝিতে পারিবে যে, হইচ্ছামাত্রই উহা 
শ্বকারণে লীন হইস্সী যাইতেছে । অবশেষে আমরা দেষ্খিতে 


স২২৩০০১ 


বরাজযোগ ৫ 


পাইব যে, আমরা ব্বস্বরূপে অবস্থিত বহিক্সাছি 2 দেখিব ফে, 
এতদিন জগতের মধ্যে কেবল আমরাই একমাত্র অবস্থিত 
ছিলাম । মন অথবা শরীরের সঙ্গে আমাদের কোন সম্পর্ক 
ছিল না1। উহার? ভত আমাদিগের সহিত সংযুক্ত কখনই ছিল ন1। 
উনারা আপন আপন কাজ আপনারা করিতেছিল, আমরা 
অজ্ভঞাঁনবশতহ আপনাদ্িগকে উহাদের সহিত যুক্ত করিক্সাছিলাঁম । 
কিন্তু আমরাই ০কবল সর্বশক্তিমান, সব্বব্যাস্পী ও সদানন্দ-_ 
ত্বরূপ । আমাদের নিজ আত্মা এতদূর পবিত্র ও পুর্ণ ছিল ৫, 
আমাদের আর কিছুই আবশ্তক ছিল না । আমাদিগকে ক্খী 
করিবার জন্য আব কাহাঁকেও আবশ্যক ছিল না, কারণ আমরাই 
ল্খত্বরূপ । আনর। দেখিতে পাইব যে, এই জ্ঞান আব কিছুর 
উপর নির্ভর করে না। জগতে এ্রমন কিছুই নাই যাহঃ 
আমাদের জ্ঞানালোকে শ্রকাশ না হইবে । ইহাই যোশগীর * পরম 
লক্ষ্য । যোগী তখন ধীর ও শাস্ত হইস্সরা যান, অর কোন প্রকার 
কষ্ট অনুভব করেন না । তিনি আর কখনও অজ্ঞান-মোহে ভ্রান্ত 
হন না, ক্ষেঃখে আর তাহাকে স্পর্শ করিতে পারে না। তিনি 
জানিতে পাঁরেন যে, আমি নিত্যানন্দস্বরূপ, নিত্যপৃর্ণস্বপ ও 
সর্বশক্তিমান । 


বোগাঙ্গানুষ্ঠানাদশ্দ্বিক্ষয়ে ভ্ভঞানদীপ্তিরাবিবে ক- 
খ্াতেও ॥ ২৮ ॥ 


স্ত্রার্থ প্থকৃ পুথক যোগাঙ্গ অনুষ্ঠান করিতে 


২৪৩ 


যোগস্ত্র, 


করিতে যখন অপবিভ্রতা লয় হইঝা। যায়, তখন জ্ঞান, 
প্রদীন্ত হইয্স। উঠে 5 উহার শেষ সীমা বিবেকখ্যাতি । ৃ 

ব্যাখ্যা এক্ষণে সাধনের কথা বল হইতেছে । এতক্ষণ 
বাহ) বল। হইন্তভেছিল», স্ভাহ॥? অপেক্ষাকৃত উচ্চতর ব্যাপার ॥। উহা। 
আমাদের অনেক দৃত্রে। কিন্তু উহাই আমাদের আদর্শ, আমা 
দিগের উহাই একমাত্র লক্ষ্য । এর লক্ষ্যস্থলে পাঁহুছিতে হইলে, 
প্রথমতঃ শরীর ও মনকে সংবত কর 'াবশ্টাক । তখন প্ুর্ব্বোক্ত 
উচ্চতর লক্ষ্য বাস্তবিক অপরোন্ষ পথে আলিম স্হান হইতে 
পারে। আমাদের আদর্শ লক্ষ্য কি তাহ! আমরা জানিতে 
পরিল্পাছি 2 এক্ষণে উহ1? লাভের জন্য সাধন আবশ্যক । 


যমনিয়মাসনপ্রাণায়াম অতরাহারধার ণাধনান- 
সমাধয়োহষ্টাবঙ্গানি ॥ ২৯ ॥ 


স্ুত্রার্থ__ যম, নিয়ম, আসন, প্রাণীক্সাম,  প্রত্যা_ 
হার, ধারণা, ধ্যান, সমাধি এই আটটি যোগেরু অঙ্গ- 
স্বরূপ । 


অআহিংসাসত্তাস্ভেয়ব্রক্দচধ্যাপরি-গ্রহা বমাঃ ॥ ৩০ ॥ 


স্রত্রশর্থ-_অহিংসা, সত্য, অস্ভেষষ (অচৌবধ্য ১, ব্রহ্মচর্ধ্য 
৩ অপরিগপ্রহ এইগুলিকে ষম বলে । 

ব্যাখ্য।--পূর্ণ ঘযোগী হইতে গেলে, তাহাকে লিঙ্গাভিমান্‌ 
ত্যাগ করিতে হইবে । আত্মার কোন লিঙ্গ নাই, তবে তিন্নি 


লিঙ্গাভিমান ছারা আপনাকে কলুষিত করিবেন কেন? আমরা 
২৪১৯ 


*ব্রাজযোগ 

৮. পরবে আরও স্পষ্ট বুঝিতে পাব্রিবএ কেন এই সকল ভাব একেবারে 

* পরিত্যাগ ক্সিতি হইবে । চৌধ্য যেমন অসৎকাধ্য, পরিগ্রহু 
অর্থাৎ অপরের নিকট হুইতে ্রহণও তব্রপ অনৎ কম্ধ। যিনি 
অপরের নিকট হইতে কোনকব্প উপহার গ্রহণ করেন, তাহার 
মনের ডপর ভপহাবরদাতান্র মন কাধ্য করে, সুতরাং ঘিনি উহা! 
গ্রহণ করেন, তাহার ভ্রষ্ট হইবার সম্ভাবনা । অপরের নিকট 
হইতে উপহার গ্রহণে মনের স্বাধীনতা নষ্ট ।হইয়। যাক । আমরা? 
ক্রীতদাসতুল্য অধীন হইক্সা পড়ি । অতএব কিছু গ্রহণ করা 
উচিত নহে। 


জাতিদেশকাালসময়ানবচ্ছিন্নাঃ 
সার্ববভেোম। মহাব্রতম্্‌ ॥ ৩১ ॥ 


স্ত্রার্থ--এইগুলি ,জাতি, দেশ, কল ও সময় অর্থাৎ 
উদ্দেশ্যদ্ারা অবচ্ছিন্ন না হইলে সাববভোৌম মহাব্রত বলিয়। 
কথিত হয় । 

ব্যাখ্য4--এই সাধনগুলি অর্থাৎ এই অহিংস, সত্য, অসভ্য, 
ব্রহ্মচধ্য ও অঅপরিগ্রহ প্রত্যেক পুরুষ, স্ত্রী ও বালকের পক্ষে 
জাতি, দেশ অথবা অবস্থানিরিবিশেষে অনুষ্ঠেন্স | 

শোৌচসভ্ভোবতপঃ স্বাধাযে খবর - 
প্রণিধানানি নিয়মাত ॥ ৩২ ॥ 
স্ুত্রার্থ_বাহা ও অভ্ভঃশৌচ, সম্ভোষ, তপন্তা 


৪৭ 


যোগস্তুত্ত 


স্বাধ্যায় € মস্ত্রজপ, স্ভোত্র বা অধ্যাত্শাকজ্ পাঠ ) ও ঈশ্বরো- 
গাসন। এইগুলি নিযম। 

ব্যাখ্যা_বাহাশৌোচ অর্থে শরীরকে শুটচি বাখা ১ অশুচি 
ব্যক্তি কখনও যোগী হইতে পারে না। এই বাহাশোৌচের সঙ্গে 
সঙ্গে অস্তঃশৌচও আবম্তক । সমাধিপারদ ৩৩শ ন্ত্রে বে 
ধন্মগুলির কথ। বলা হইক্সাছে, তাহা হইতেই এই অস্তঃশোৌচ 
আসে । অবশ্তা বাহাশৌচ হইতে অস্তঃশৌচ অধিকতর 
উপকারী, কিলম্তু উভয়টিরই প্রয়োজনীয়ত। আছে ; আর অন্তঃশোৌচ 
ব্যতীত কেবল বাহাশৌচ কোন ফলোপধাক্ক হয় না । 


বিতর্কবাধনে এপরতিপক্ষভাবনম্‌ ॥ ৩৩ ॥ 

সুত্রার্থ যোগের প্রতিবন্ধক ভাবসমৃহ উপস্থিত হইলে, 
তাহার বিপরীত চিস্ত। করিতে হইবে ॥ 

ব্যাখ্য।-_পূর্বেব যে সকল ধন্ধের কথা বলা হইল তাহাদের 
অভ্যাসের উপাযস_স্ঞ্রন বিপরীত প্রকারের চিন্তা আনক্ন কর।। 
যখন অস্তরে চৌধ্যেকর ভাব আসিবে, তখন অচৌধ্যের চিন্ত! 
কৰবিতে হইবে । যখন দান গ্রহণ করিবার ইচ্ছ॥ হইবে, তখন 
বিপরীত চিত্ত! করিতে হইবে ৷ 
বিতর্ক? হিংসাদয়ঃ কৃতকারিতান্গমো দিত লোভ- 
ক্রোধমোহপুর্বক। ম্বছমধ্যাধিমাত্র! ছুহখাজ্ভানানম্ভ- 

ফলা ইতি প্রতিপক্ষভাবনম্‌ ॥ ৩৪ ॥ 
স্ুত্রার্থ-_-পুর্ববস্ত্রে ষে প্রতিপক্ষ-ভাবনার কথ। বলা 


৪৩ 


রা. বাজযোগ 


' হইয়াছে, ভাহার প্রণালী এইরূপ-_বিতর্ক অর্থৎ যোগের 
প্রতিবন্ধক হিংসা আদি: কৃত, কারিত অথবা অন্থ- 
”মোৌদিত ১ উহাদের কারণ লোভ, ক্রোধ, অথবা মোহ 
অর্থাৎ অজ্ঞান, তাহ অন্পই হউক আর মধ্যম পরি- 
মাণই হউক, অথবা অধিক পরিমাণই হউক ; উহাদের 
ফল অনস্ত অভ্ভান ও ক্রেশ;ঃ এইবূপা ভাবনাকেই শ্রতি- 
পন্ষ ভাবনা বলে । 


ব্যাখ্যা-_আমি নিজে কোন মিথ্যা কথা বলিলে তাহাতে 
যে পাপ হর, ষদি আমি অপরকে মিথ্যা কথ। কহিতে প্রবুক্ত 
করি» অথব। অপরে মিথ্যা কহিলে তাহাতে অনুমোদন করি, 
তাহাতেও তুল্য পরিনাণে পাপ হন্স। বদিও উহ সামান্য মিথ্য। 
হউক, তথাপি উহ্‌? যে মিথ্যা) তাহ1 স্বীকার করিতে হইবে। 

তগুহাক্স বসিক্সাও বর্দি তুমি কোন পাপ চিস্তা করিনা থাক, 
যদি কাহার প্রতি অন্তরে গ্বণা প্রকাশ করিস্ব্ডথাক তাহ! হইলে 
তাহাঁও সঞ্চিত থাকিবে কালে আবার তাহা তোমার উপরে 
গিক॥ প্রতিঘাত করিবে, একদিন না একদিন কোন না কোন্‌ 
প্রকার হুঃখের আকারে উহ প্রবল বেগে তোমাকে আক্রমণ 
করিবে । তুমি যর্দি হৃদঘ্সে সর্বপ্রকার ঈর্ষা ও স্বণার ভাব 
পোষণ কর ও উহা তোমার হৃদ হইতে চতুদ্দিকে প্রেরণ 
কর, তবে উহ1 ল্ুদ্ সমেত তোমার উপর শিক্ষা পড়িবে । 
জগতের কোন শক্তিই উহা নিবারণ করিতে পারিবে না। 
যখন ভুমি একবার প্র শক্তি প্রেরণ করিক্সাছ, তখন অবশ্য 

নু ৪৪ 


যোগস্হত্র 


তোমাকে উহার প্রতিঘাত সহা করিতে হইবে । এইটি স্মরণ 
থাকিলে, তোমাকে অসৎকাধ্য হইতে নিবুত্ত বাখিবে । 


অহিংসাপ্রতিষ্ঠায়াং তসমিধে বৈরতগ্তাগহ ॥ ৩৫ ॥ 


সুত্রার্থ অস্তনে অহিংস। প্রতিষ্ঠিত হইলে, তাহার 
নিকট অপরে আপনাদের স্বাভাবিক বৈরিতা পরিত্যাগ 
করে । ্‌ 

ব্যাখ্যা--বর্দি কোন ব্যক্তি অহিংসার চরমাবস্থা লাভ 
করেন, তবে তাহার সম্মথে যে সকল শ্রীনী স্বভাবতই হিৎল্র 
তাহারাও শাস্ত ভাব ধারণ করে । সেই যোগীর সম্মথে ব্যান্র ও 
মেষশাবক একত্র ক্রীড়া করিবে, পরস্পরকে হিংসা করিবে 
না। এই অবস্থা লাভ হইলে তুমি বুঝিতে পারিবে যে 
তোমার অহিংসাব্রত প্রতিষ্ঠিত হইক্নাঁছে। 


সত্যপ্রতিচ্চঠায়াং ভ্রিয়।কলাশ্রয়ত্বম্‌ ॥ ৩৬ ॥ 


স্রত্রার্থ_যখন সত্যব্রত হ্দয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়, তখন 
নিজের জন্য বা £অপরের জন্য কোন কনম্ম ন। করিয়াই 
ভাহার ফল লাভ হইয়া! থাকে ॥ 


ব্যাখ্য।- যখন এই সত্যের শক্তি তোমার মধ্যে প্রতিষ্ঠিত 

হইলে, যখন ব্বপ্ে পবধ্যস্ত তুমি মিথ্যা কথা কহিবে না, বখন 

কাক্সমনেো বাক্যে সত্য ভিন্ম কখন মিথ্য। ভাষণ করিবে না, তখন 

এ এইরূপ অবস্থা লাভ হইলে) তুমি যাহা বলিবে, তাহাই 

সত্য হইস্সা ঘাইবে। তখন তুমি বর্দি কাহাকেও বল, “তুমি 
২৪৫ 


বাজযোগ 
, ক্কতার্থ হও»” সে তৎক্ষণাৎ কতার্থ হইকা যাইবে। কোন পীড়িত 


* ব্যক্তিকে যদি বল, “রোগমুক্ত হও» সে তৎক্ষণাৎ রোগমুক্ত 
হইস্স। যাইবে । 


অভ্ভেয়প্রতিষ্ঠায়াং সর্ববরত্বোপস্থানম্‌ ॥ ৩৭ ॥ 


স্রত্রণর্থ__অচৌধ্য প্রতিষ্ঠিত হইলে, সেই যোগীর নিকট 
সমুদয় ধন-রত্বাদি আসিয়। থাকে ॥ 

ব্যাখ্যা তুমি যতই প্রকৃতি হইতে প্লার়নের হচ্ছ 
করিবে, সে ততই তোমার অনুসরণ করিবে £ আর তুমি যদি 
সেই প্রকৃতির প্রতি কিছুমাত্র লক্ষ্য না কর, তবে সে তোমাব দাসী 
হইস্। থাকিবে । 


ব্রল্চর্ষ্য প্রতিষ্ঠায়াং বীধ্যলাভহ ॥ ৩৮ ॥ 


সুত্রর্থ__ব্রল্মচধ্য প্রতিষ্ঠিত হইলে বীবধ্যলাভ হয় ॥ 

ব্যাখ্য।-__ ব্রহ্মচধ্যবান ব্যক্তির মন্ডিক্ষে প্রবল শক্তি _ মহতী 
ইচ্ছণশক্তি সঞ্চিত থাকে । উহ? ব্যতীত আধ্যাত্মিক শক্তি আৰ 
কিছুতেই হইতে পারে না। যত মহাম মন্ডিকষশালী পুকুষ 
দেখা যাক, তীহার। সকলেই ব্র্গচধ্যবান নী হহ। দ্বার। 
মাজষের উপব আশ্চধ্য ক্ষমত। লাভ করা যাক্স। মানবসমাজের 
নেতৃগণ সকলেই ব্রঙ্গচধ্যব।ন ছিলেন, তাহাদের সমুদ্রক্স শক্তি এই 
ব্রহ্মচধ্য হইতেই লাভ হুইক্সাছিল 7; অতএব যোগীর ব্রহ্গচধ্যবান 
হওয্!। বিশেষ আবশ্যক । 

অপরিগ্রহন্ছৈর্ষেয জন্মকথন্তাসংবোধঃ ॥ ৩৯ ॥ 


৪৩ 


যোগস্যত্র 


স্ুৃত্রার্থ-_অপরিপ্রহ দৃঢ়ও্রতিষ্ট হইলে, পুববজন্ম 
স্মৃতিপথে উদ্দিত হইবে ॥ 

ব্যাখ্যা-_-যোগী যখন অপরের নিকট হইতে কোন বস্ত 
গ্রহণ না করেন, তখন তাহার অপরের সহিত বাধ্যবাধকতা না 
থাকাতে তিনি স্বাধীন ও মুক্তত্বভাব হইক্সা যাঁন। তাহার মন 
শুদ্ধ হুইস্স] যায়, কারণ দান্গ্রহণ করিতে গেলে দাতার পাপ গ্রহণ 
করিতে হক ।॥ উহা! মনের উপর ্ডরে শরে লাগিয়া থাকে, 
ল্তরাৎ উহ সর্বপ্রকার পাপের আবরণে আবুত হইস্সা পড়ে । 
এই পরিশ্রহ ত্যাগ করিলে মন শুদ্ধ হইক্স॥ বাস, আব ইহ? হইতে 
যে সকল ফললাভ হয়, তন্মধ্যে পুর্ববজন্ম স্বৃতিপথে আরঢ়ু হওক! 
প্রথম । তখনই সেই যোগী সম্পূর্ণরূপে তাহার নিজ লক্ষে 
দৃঢ় হইক্সা থাকিতে পারেন । কারণ তিনি দেখিতে পান যে» 
এত দিন তিন্নি কেবল বাওত্স।-আস। করিতেছিলেন । তিন্দি 
তখন হইতে দৃঢ়প্রতিভ্ঞারূঢ হন ৫” এইবার আমি মুক্ত হইব, 
আমি আর যাওক্া1-আস। করিব না, আব প্রকৃতির দাস 
হইব না। 

০্োৌচাহু স্বাক্জুগুপ্না পরৈরসংসগ্গি ॥ ৪০ ॥ 

্ত্রার্থ_-শোৌচ প্রতিষিত হইলে নিজের শরীরে 
প্রতি স্বণার উদ্দ্রেক হয়, পরের সহিতও সঙ্গ করিতে আর 
প্রবৃত্তি থাকে না । 

ব্যাখ্যা-যখন বাস্তবিক বানা ও আভ্যনম্তন উভকম্ম "প্রকার 
শোৌঁচ নিদ্ধ হসস, তথন শরীরের প্রতি অবত্র আইসে, উহাকে 

২৪৭ 
*্১ঞ্টি 


বরাজযোগ 


কিসে ভাল ব্রাখিব, কিসেই বা উহ সুন্দর দেখাইবে, এ সকল 
ভাব একেবারে চলিক্না যাক । অপবরে বাহাকে অতি ছন্দর 
মুখ বলিবে তাহাতে জ্ঞানের কোন চিহ্ত ন। থাকিলে যোগীর 
নিকট তাহা পশুর মুখ বলিম্বর॥ প্রতীয়মান হইবে । জগতের 
লোকে যে মুখে কোন বিশেষত্ব দেখে না, তাহার পশ্চাতে 
১চতন্য প্রকাশ থাকিলে তিনি তাহাকে স্ব্সীক্স সুখল্ী। বলিবেন। 
এই দেহতৃষ্তজ। মন্ষ্য লীবনের এক মহ। উপদ্রব ॥। স্ুতর।ং 
শোৌচএ্রতিষ্ঠার প্রথম লক্ষণ এই প্রকাশ পাইবে যে, তুমি আপনাকে 
আব একটি শরীরমাত্র বলিক্স॥ ভাবিতে পাত্রিবে না। যখন এই 
পবিত্রতা আমাদের মধ্যে বাস্তবিক প্রবেশ করে, তখনই আমর! 
এই দেহ-ভাবকে অতিক্রম করিতে পাকি । 

সভ্বশুদ্িসৌমনক্ত্ে কাঞ্রোতজ্ছিয়- 

জম্াতুাদর্শনযোগতত্বানি চ ॥ ৪১ ॥ 

স্ত্রার্থ-_এই শোৌঁচ হইতে সত্ব-শুদ্ি, মসৌমনস্ 
অর্থাৎ মনের প্রফুল্ল ভাব, একাগ্রতা, ইন্দ্রিয়জয় ও 
আ'ত্মদর্শনের াগ্যতা। লাভ হই থাকে । 

ব্যাখ্য1-_-এই শোঁচ অভ্য(সের দ্বারা সত্ব পদার্থ বদ্ধিত 
হইবে, স্তরাং মনও একাগ্র ও সম্ভোষপুর্ণ হইবে । তুমি 
ধন্মপথে অগ্রসর হইতেছ, ইহার প্রথম লক্ষণ এই দেখিবে বে, 
তুমি বেশ সম্ভোবলাভ করিতেছ । বিষাদপুর্ণ ভাব অবশ্য 
অজীর্ণ রোগের ফল হইতে পারে, কিন্তু তাহা ধন্ম নহে । স্খই 


সক্বের স্বভাবলিদ্ধ ধশন্ম ; সাত্বিক ব্যক্তি পক্ষে সমুদস্গই ক্কখমস্ত 
২৪৮ 


যোগস্তুত্র 


বলি্বা বোধ হয, স্থতরাং যখন তোমার এই আনন্দের ভাব 
আসিতে থাকিবে তখন তুমি বুঝিবে যে, তুমি যোগে খুব 
উন্নতি করিতেছ। কষ্ট যাহা কিছু, সকলই অতমোগুণপ্রভব ; 
সুতরাং এ কু বাহাতে নাশ হয়, তাহা কৰিতে হইবে। 
অতিশক্স হ্বিবাদাচ্ছন্ধ হইর) সুখ ভাব করিয়া রাখা তমোগুণের 
একটি লক্ষণ ॥ সবল, দৃঢ়, ল্মস্থকাঁয়, যুবা ও সাহসী ব্যক্তিরাই 
যোগী হইবার উপযুক্ত । যষোগীর পক্ষে সমুদযঘই স্থখমন্ব বলিক্ষ। 
প্রতীক্মান হয়* তিনি যে কোন মন্তব্যমুত্তি দেখেন, তাহাতে 
তাহার আনন্দ উদস্ব হস্্র। ইহাই খধান্মিক লোকের চিহ্ । 
পাপই কষ্টের কারণ, আব কোন কারণ হইতে কষ্ট আসে 
না । বিষাদমেঘাচ্ছন্স সুখ লইক্। কি হইবে? উহা কি ভক্লানক 
দৃশ্য! এইব্প মেঘাচ্ছন্ধ মুখ লইয্ব) বাহিরে যাইও না। কেন 
দিন এইরূপ হুইর্লি, দ্বারে অর্গলবদ্ধ করিয়া? কাটাহস্কা দাও । 
জগতের ভিতর অই ব্যাধি সংক্রানিত করিক্স। দিবার তোমার 
কি অধিকার -আছে £ যখন তোমার মন সংযত হইবে, তখন 
তুমি সমুদন্ন শরীরটাকে বশে রাখিতে পারিবে। তখন আর 
তুমি এই যন্ত্রের দাস থাকিবে না5 এই দেহযস্ত্রই তোমার দাসবৎ 
হইম্বা থাকিবে । এই দেহযন্ত্র আত্মাকে আকর্ষণ করিক়। নিম্রদিকে 
ন। লইক্স। গিয্স॥ উহাই তাহাব্র মুক্তিপথে মহান সহায় হইবে। 


সম্ভোষাদনুতভমঃ সখলাভঃ ॥ ৪২ ॥ 
সুত্রার্থ_ সন্তোষ হইতে পরম স্থখলাভ হয় । 


কাজমেক্দ্রিকসিদ্িরশুদ্িক্ষয়াওপসহ ॥ ৪৩ ॥ 
৪০১ 


রাজযোগ 


জ্ত্রার্থ _অশুদ্ি-ক্ষয়-নিবন্ধন তপন্তা হইতে দেহ তু 
ইঞ্দিয়ের লানাপ্রকার শক্তি আসে । 


ব্যাখ্যা।--তপস্ত।(র ফল কখন কখন সহস। দূরদর্শন, দৃরশ্রবণ 
ইত্যাদি রূপে প্রকাশ পাক্স | রি 


স্বাধ্যাযসাদিষ্টদে বতাসহ্প্রয়োগহ ॥ ৪৪ ॥ 


স্ত্রার্থ মন্ত্রাদির পুন? পুনঃ উচ্চারণ বা অভ্যাস দ্বারা 
ইষ্টঈদেবতণর দর্শনলাভ হইয়া থাকে । 

ব্যাখ)।-- যে পরিমানে উচ্চ প্রানী দেবতা, খধি, সিদ্ধ) দেখিবার 
ইচ্ছ) কৰিবে; অভ্যণসও সেই পরিমাণে অধিক করিতে হইবে | 


সমাধিসিদ্ধিরীশ্বরঞ্াণধানাহ ॥ 9৫ ॥ 


স্ুত্রার্থ__ঈশ্বরে সমুদয় অর্পণ করিলে স'মাধিলাভ' 
হইয়া থাকে । 


ব্যাখ্য।--ঈশ্বরে নিরবের দ্র! সমাধি ঠিক পূর্ণ হক্স । 
স্ছিরহ্ৃখমাসনম ॥ ৪৬ ॥ 


স্তত্রার্থ- যে ভাবে অনেকক্ষণ স্ছিরভাবে সুখে বসিয়া 
থাঁক। বায়, তাহণন্র নীম আসন । 

ব্যাখ্য।__এক্ষণে আসনের কথা বলা হুইবে। যতক্ষণ 
তুমি শ্থিরভাবে অনেকক্ষণ বসিক্সা থাকিতে -না পাবিতেছ, 
ততক্ষণ তুমি প্রাণাক্সাম ও অন্যর্থন্ত সাধনে কিছুতেই ক্কৃতকাধ্য 
হইবে লা। আসন দৃঢ় হওয়ার অর্থ এই তুমি শরীরের সম! 


৫ 


যোগস্যজ্র 


মোটেই অনুভব করিতে পারিবে. না। এইব্প হইলেই 
বাস্তবিক আসন দ্ঢ হইক্সাছে, বল। যাক্স। কিন্ত সাধারণ 
ভাবে তুমি যদ্দি কিয়তক্ষণের জন্য বসিতে চেষ্টা কর, তোমা 
ন।নাপ্রকারন বিদ্ি আদিতে থাকিবে । কিস্তু যখনই তুমি 
এই স্কুলক্কোহভাববিবঞ্ঞিত হইবে, তখন তোমার শরীরের 
অস্ভিত্ব পধ্যস্ত অনুভূত হইবে না; আর তুমি সুখ অথব। 
£খ কিছুই অনুভব করিবে না। আবার যখন তোমার 
শরীরের জ্ঞান আসিবে, তখন তুমি অন্তভব করিবে বে, আমি 
অনেকক্ষণ বিশ্রাম করিলাম। যদি শরীরকে সম্প্র্ণ বিশ্রাম 
দেওয্স) সম্ভব হক্স»এ় তবে উহা? এইব্ূপেই হইতে পারে । যখন 
তুমি এইবূপে শরীরকে নিজ অধীন করিক্সা উহাকে দৃঢ় রাখিতে 
পারিবে, তখন তোমার সাধন দৃঢ় হইয়াছে জানিবে। কিন্ত 
যতক্ষণ তোমার শারীরিক বিদ্ববাধাগুলি আদিতে থাকিবে, ততক্ষণ 
তোমার আ্নারুমণ্ডলী চঞ্চল থাকিবে এবং তুমি কোনরূপে মনকে" 
একাগ্র করিকর। রাখিতে পারিবে না । 


প্রযত্রশৈথিল্যানভ্তসমাপন্ভিভ্যাম্ঞ্ 5৭ 


স্ত্ার্থ_শরীরে যে এক প্রকার অভিমানাতআক 
প্রয্ত্ব আছে, তাহ! শিখিল ককিক্া দিক! ও 'অনস্তের 
চিস্ত। ছারা আসন স্থির ও স্থখকর হইতে পাবে । 

ব্যাখ্যা।-_ অনন্তের চিস্তা ছারা আসন অবি্চিলিভ হইতে 


পারে ॥। অবশ্য আমর$ সেই সর্বছন্থাতীত অনস্ত ব্রক্ষ) 
ৰ ৮.4, 


এস, ী 


রাজযোগ 
সম্বন্ধে €(সহছে ) চিস্ত। করিতে পারি ন1» কিন্তু আমর1 অনন্ত 
আকাশের বিষন্ন চিন্ত। করিতে পারি । 
ততে। দ্বন্্ানভিতঘাতঃ ॥ ৪৮ ॥ 
স্তত্রার্থ__এইরূপে আসন জয় হইলে, তখন ছন্দ_ 
পরম্পরা আর কিছু বিদ্ উৎপাদন করিতে পারে না । 
ব্যাখ্য।--ছন্দ অর্থে শুভ-অশুভ, শলীত-উষ্ত, আলোক- 


অন্ধকার, ম্খ-ছুঃখ ইত্যাদি বিপরীতধর্্মক ছুই ছুই পদার্থ । 
এগুলি আব তখন তোমাকে চঞ্চল করিতে পারিবে ন।। 


তশ্মিন সতি শ্বাসপ্রশ্বাসযে ্গতিবিচ্ছেদঃ 
পাণায়ামত ॥ ৪৯ ॥ 


স্রত্রার্থ--এই আসন জয়ের পর শ্বাস ও প্রশ্বাস 
উভয়ের গতি সংষত করাকে শ্রাণাম়াম বলে। 


ব্যাখ্য।-যখন এই আসন জিত হয়, তখন এই শ্বাস- 
প্রশ্থাসের গতিভঙক্গ ( অভাব ১ করিস্র। দ্িক্প। উহাকে জয় করিতে হইবে, 
স্তরাং, এএকন্সকণ ব্রাণায়ামের্ধ বিষক আরম্ভ হইল । প্রাণাকাম 
কি? না_-শরীরস্থিত জীবনীশক্তিকে বশে আনয়ন । যদিও 
প্রাণ শব্দ সচরাচর শ্বাস অর্থে ব্যবহৃত হইক্সা থাকে কিন্ত 
বাস্তবিক উহ শ্বাস নহে ॥ প্রাণ অর্থে জাগতিক সমুদ্র শত্তি- 
সমষ্টি । উহা প্রত্যেক দেহে অবস্থিত শক্তিন্বরূপ, আর উহার 
আপাতপ্রতীরমান প্রকাশ-_-এই ফুস্ফুসের গতি । প্রাণ যথন্‌ 
স্বাসকে ভিতর দিকে আকর্ষণ করে, তখনই এই গতি 

২৫২. 


যোগস্ত্র 


আরম্ভ হন্ব; প্রাণায়াম করিবার সমক্ষ আমরা উহাকেই সংষম 
করিবার চেষ্টা কিক থাকি । এই প্রাণের উপর শক্তিলাভ 
করিতে হইলে, আমর। প্রথমে শ্বাসপ্রশ্বাসকে সংযম কটিতে 
আস্ত করি, করণ উহাই প্রাঃণজক্সের সর্বাপেক্ষা সহজ পন্থা? ॥ 


বাস্যাভ্যক্ভতরস্তম্ভবুক্ডিত দেশ কালসংখ্ঠাভিঃ 
পরিদৃষ্টে] দীর্ঘসুক্ষও ॥ ৫০ ॥ 


স্তত্রধর্থ-__বাহ্যবুত্তিঃ আভ্যস্তরবুক্তি ও স্তম্তবৃত্তি ভেদে 
এই প্লাণাযমাম ভ্রিবিধ 2: দেশ, কল, সংখ্যার দ্বারা 
নিঘমিত এবং দীর্ঘ বা স্ল্স হওয়াতে উহাদেরও আবার 
নানাপ্রকার ভেদ আছে । 


ব্যাথ্যা।--এই ধ্ররাণাক্সাম তিন প্রকার ক্করিক্সার বিভক্ত ॥ প্রথম- 
যখন আমব7 শ্বাসকে অভ্যন্তরে আকর্ষণ ও ধারণ কৰি £ দ্বিতীক্ব যখন 
আমরা উহা? বাহিরে প্রক্ষেপ ও ধারণ করি 7 তুতীস্গ__ যখন শ্বাস ও 
প্রশ্থাস ফুসফুসের মধ্যে বা বাহিরে ধীরে ধীরে সংকুচিত হইক্সা ধুত হক । 
উহ্ারা আবার দেশ» কাল ও সংখ্য। অন্ঞ্রারে ভিন্দ ভিন্ন আকার ধারণ 
করে । দেশ অর্থে প্রাঁণকে শরীরের কোন্‌ অংশবিশেবে আবদ্ধ রাখ! 
€(অথব। তাহার দ্য লক্ষ্য কর)? )। সমস্স অর্থে প্রীণ কোন্‌, 
স্থানে কতক্ষণ রাখিতে হইবে, এবং সংখ্য। অর্থে কতবার এরূপ 
করিতে হইবে, তাহ বুঝিতে হইবে । এই জন্ঠ কোথাক, কতক্ষণ ও 
কতবার রেচকার্দি করিতে হইবে, ইত্যার্দি কথিত হইস্সা থাকে ॥ 
এই প্রাণায়ামের ফল উদঘাত অর্থাৎ কুগুলিনীর জাগরণ । 


৫৩০ 


বাজযোগ 
বাহ্যাভ্যজ্তরবিষয়াক্ষেগী চতুর্থত ॥ ৫১ ॥ 
স্রত্রার্থ-_চতুর্থ প্রকার শ্রাণায়াম এই যে, যাহাতে 
ওাণায়ামের সময় বাহ বা আভ্যম্তর গতির অভাব হয় । 
ব্যাখ্যঠ ইহা চতুর্থ প্রকার প্রাণাক্সাম॥। ইহাতে পূর্বেবাক্ত 
চিস্ত|সহকুত দীর্ঘ কাল অভ্যাসের দ্বার। ম্বাভাবিক কুস্তক 
€ স্তম্তবুত্তি ১ হইন1 থাকে । অন্ক প্রাণাক্নামগুলিতে চিস্তার সংশ্রব নাই । 
ততঃ ক্ষীয়তে প্রকাশাবরণম্‌ ॥ ৫২ ॥ 
স্রত্রার্থ তাহা হইতেই চিত্তের প্রকাশের আবরণ 


ক্ষয় হইয়া! যায়। 

ব্যাখ্যা_চিভ্ে স্বভাবতঃই সমুদ্প্স জ্ঞান রহিক্নাছে*, উহ! 
সত্পদার্থ ছার) নিিশ্রিত, উহ1 কেবল বূজঃ ও তমোদ্বার। আবুত হইক্স! 
'আছে। প্রাণায়াম ছাল) চিভ্তের এই আবরণ চলিক্স। বাক্স । 


ধারণা চ যোগততা মনসহ ॥ ৫৩ ॥। 
স্রত্রার্থ_€ তাহা! হইতেই ) ধারণা মনের 


যোগ্যতা হয় । গর 
ব্যাখ্য।--এই আবরণ চলি গেলে আমরা মনকে একা গ্র 


কনিতে সমর্থ হইক্সা থাকি । 
স্থবিষয়াসহ্প্রয়োগে চিজস্বরূপান্গকার 
ইবেক্ছিয়াণাং প্রত্যাহারও ॥ ৫৪ ॥ 
স্ত্রার্থ--যখন ইন্দ্রিসগণ তাহাদের নিজ নিজ 


৫৪ 


যোগস্তুত্র 


বিষয় পরিত্যাগ করিয়া যেন চিত্তের স্বূপ গ্রহণ করে, 
তখন তাহাকে এত্যাহার বলা বাজ । 

ব্যাখ্যা__এই ইক্ছ্রিগুলি মনেরই বিভিন্ন অবস্থা মাত্র। 
মনে কর, আমি একখানি পুস্ডক দেখিতেছি। বাস্তবিক এর 
পুশ্তকাকতি বাহিরে নাই ।॥। উহা? কেবল মনে অবস্থিত । 
বাহিরের কোন কিছু ত্র আক্কৃতিটিকে জাগাইক্স। দেস্স মাত্র 
বাস্তবিক উহ1 চিভ্তেই আছে । এই ইন্ড্রিস্মশুলি, যাহ? তাহাদের 
সম্ম্রথখে আসিতেছে, তাহাদেরই সহিত মিশ্রিত হইক্স/ তাহাদেরই 
আকার গ্রহণ করিতেছে । যর্দি তুমি মনের ই সকল ভিন্ন 
ভিন্ম আকুতি-ধারণ নিবারণ করিতে পার, তবে তোমার 
মন শান্ত হইবে এবং ইন্ছরিমগুলিও মনের অন্রূপ হইবে ।? ইহ্াকেই 
প্রত্যাহার বলে । 


ততঃ পনর্মাবশ্ঠতেক্ছিয়াণাম্‌ ॥ ৫৫ ॥ 


সুত্রার্থ_ তাহা হইতেই ইন্দ্রিযসগণ সম্পূর্ণরূপে 
জিত হইয়া থাকে | 

ব্যাখ্য।-_ যখন যোগী ইন্ছ্রিয়গণের এইকূপ বহিবস্তর 
আকৃতি ধারণ নিবারণ করিতে পারেন ও মনের সহিত উহ1- 
দিগকে এক করিক্বা ধারণ করিতে কৃতকাধ্য হন, তখনই 
ইক্দ্রিরগণ সম্পূর্ণরূপে জিত হইন্ন। থাকে । আর বখনই ইন্দ্রিক্গণ 
জিত হস্স, তখনই সমুদয় আয়ু» সমুদস্স মাংসপেশী পব্যস্ত আমাদেকে 
বশে আসিক্সা থাকে, কারণ ইন্দ্রিক্গণই সর্বপ্রকার অন্ভুতি ও 
কাধ্যের কেক্দ্রন্বব্ধপ ॥ এই ইন্ডছরিক্সগণ জ্ঞানেন্দিক ও কম্মেজিকে 


৫৫ ১» 


বাজযোগ 

এই ছুই ভাগে বিভক্ত। ন্মতরাং যখন ইন্ড্রিক্সগণ সংযত হইবে» 
তখন যোলী সর্বপ্রকার ভাব ও কাধ্যকে জয় করিতে পারিবেন। 
সমুদক্! শরীরাটিই তাহার অধীন হহস্সা পড়িবে । শএ্রইরপ অবস্থা 
লাভ হইলেই মানুষ জেহধারণে আনন্দ অনুভব করে । তখনই 
সে যথার্থ সত্যভাবে বলিতে পাবে «আমি জন্ষিপ্াছিলাম 
বলিয়া আমি শ্তঘঘী 1৮” যখন ইন্দ্রিকত্গণের উপর এইকব্প শক্তিলাভ 
হয়, তখনই বুঝিতে পার। বায়, এই শরীর বথার্থই অতি অদ্ভুত 


পদার্থ । 


৫৩ 


সভৃতভ্ভীকষ্ষ অধ্যাক্স 
বিভূতি-প্দু 


এক্ষণে বিভূতি-পাদ আসিল ।* 
দেশবন্ধশ্চিজস্য ধারণা ॥ ১ ॥ 


স্রত্রার্থবচ্ভ্তকে কোন বিশেষ বস্জভ্রতে বদ্ধ করিয়া 
ল্লাখার নাম ধারণা । 

ব্যাখ্যা বখন ম্ন শরীরের ভিতরে অথবা! বাহিতে কোন 
বস্ততে সংলপ্র হন্স» ও কিছুকাল প্র ভাবে থাকে, তাহাকে ধারণ? 
বলে। 


তত্র প্রত্যয়েকতাঁনত! ধ্তানম্‌ ॥২ ॥ 


্ত্রার্থ-সেই বস্তবিষয়ক জ্ঞান নিরস্তর একভাবে 
প্রবাহিত হইতে থাকিলে তাহাকে ধ্যান বলে । 

ব্যাখ্য।-_-মনে কর, মন ষেন কোন একটি বিষয় চিম্ত। 
করিবার চেষ্টা করিতেছে, কোন একটি বিশেষ স্থানে যথা, 
মন্ডকের উপরে, অথব। হৃদর ইত্যাদি স্থানে আপনাকে ধরিয়। 
রাখিবার চেষ্টা করিতেছে । বর্দি মন শরীরের কেবল এ অংশ 
দিয়াই সর্বপ্রকার অনুভূতি গ্রহণ করিতে সমর্থ হয়, শরীরের 
আব সমুদস্স ভাঁগকে য্দি বিষক্সগ্রহণ হইতে নিবুক্ত রাখিতে পারে, 
তবে তাহার নাম ধারণ?» আর যখন আপনাতকে খানিকক্ষণ 
এ অবস্থার রাখিতে সমর্থ হয়, তাহার নাম ধ্যান। 

৫৭ 


ব্লাজফোগ 
তদেবার্থমাভ্রনির্ভাসং স্বরূপশুহ্যমিব সমাধি ॥ ৩ ॥ 


স্ত্রার্থ_ তাহাই যখন সমুদয়, বাহযোপাধি পরিত্যাগ 
করিয়া কেবল অর্থমান্রকে ও্রকাশ করে, তখন সমাধি 
আখ্যা প্রাপ্ত হয় । 

ব্যাখ্যা_যখন ধ্যানে বস্তুর” আক্কৃতি বা বাহাভাগ পরিত্যক্ত 
হস্সর, তখনই এই সমাধি অবস্থা আসে। মনে কর, আমি এই 
পুস্তভকখানি সম্বন্ধে ধ্যান করিতেছি £* মনে কর, যেন আমি উহার 
উপর চিভ্তসংবম করিতে ক্লুতকাধ্য হইলাম, তখন কেবল কোনরূপ 
কানে অপ্রকাশিত অর্থনানধেক্ম আভ্যন্তরীণ অচ্ভূতিশুলি 
আমাদের জ্ঞানে প্রকাশিত হইতে লাগিল । আঅইব্প ধ্যানের 
অবস্থ/কে সমাধি বলে । 

অযমেোক্ন্ত্র লসংহবম 2 153 1 

স্রত্রার্থ_এঞই তিনটি যখন একত্র অর্থাৎ এক বস্তর 
সম্কন্ধেই অভ্যস্ত হয়, তখন তাহাকে সংষম বলে । 

ব্যাখ্যা--যখন তেহ তীাহার নিজের মনকে কোন নিদিষ্ট দিকে 
লইন্স! গ্িস্বা ০সেই বস্ত্র উপর কিছুক্ষণের জন্য ধারণ করিতে 
পারেন, পরে তাহার অস্তর্ভাগকে উহার বাহা আকার হইতে 
প্ুথক কত্রিক্সা অনেকক্ষণ থাকিতে পারেন, তখনই সংযম হইল । 
অর্থাৎ ধারণ, ধ্যান ও সমাধি এই সমুদ্রক্ুলি একটির পর আৰ 
একটি ক্রমান্বস্্রে এক বস্তর উপরে হইলে একটি সংযম হইল । তখন 
বস্তর বাহা আকারটি কোথাস্ব চলিক্প। বাক্স» মনে কেবল তাহার 
র্থমাত্র উদ্ভাসিত হইতে থাকে । 


চি: 


যোগস্ত্র 


তভ্জম়াহ প্রভ্ভালোকহ5 ॥ ৫7 

্ুত্রার্থ_এই সংষমের দ্বারা যোগীর জ্হকানালোকের 
প্রকাশ হয়। ৃ্‌ 

ব্যাখ্যা-_ যখন তকোঁন ব্যক্তি এরই সংযমসাধনে ক্তকাধ্য 
' হয়» তখন সমুদ্ক্স শক্তি তাহার গ্ন্ডে আসিক্সা থাকে । এই 
সংষমই যোগীর জ্ঞান্লাভের প্রধান যন্ত্রশ্বর্ূপ । জ্ঞানের বিষন্গ 
অন্ভ্ত । উহার স্থলে, স্থুলতর, স্ুলতম » স্ক্ম, স্ম্মতর,» স্স্মতম 
ইত্যাদি নানা বিভাগে বিভক্ত ॥ এই সংযম প্রথমত স্থুল 
বস্তর উপর প্রস্সোগ করিতে হয়্»ঞ় আর ষখন স্থুলের জ্ঞান্লাভ 
হইতে থাকে, তখন একটু একটু কনির॥ পসোপান্ক্রমে উহ৭ স্স্দ্রভর 
বস্তর ভপব প্রসোগ করিতে হইবে । 


তল্ড সুমি বিনিয়োগহ ॥ ৬ ॥ 


স্ত্রার্থ_এই সংষম ঢচোপানক্রমে জ্রয়োগ করা 
উচিত । 

ব্যাখ্যা_খুব ভ্রত যাইবার চেষ্টা করিও নী, এই স্তর 
এইরূপ সাবধান কিস দিতেছে । 


ব্রয় মক্ভরঙ্গং পুর্বেবভ্যত ॥ ৭7 ॥ 


স্ুতর্থ_এই তিনটি তযোলীর পুরব্বকথিত সাধনগুলি 
হইতে অধিক অন্তরঙ্গ সাধন । 
ব্যাখ্যাঁপুর্ববে যম» নিক্ষম» আসন, প্রাণারাম ও প্রত্যাঁ 
হারের বিষন্ন কথিত হইক্সাছে । উহার ধারণা, ধ্যান ও সমাধি- 
৫9 


ব্াজযোগ 


হইতে বৃহিরঙ্গ । এই ধারণার্দি অবস্থা লাভ করিলে অবশ্য 
ম।নুব সর্ববন্ঞজ ও সর্বশক্তিমান হইতে পারে, কিন্তু সর্বজ্ঞতা বব! 
সর্ববশক্তিমড ত মুক্তি নহে । কেবল শর ত্রিবিধ সাধন দ্বার! 
মন নিকিবিকলক অর্থাৎ পরিণানশুন্য হইতে পারে না এ ভ্রিবিধ 
সাধন আয়ত্ত হইলেও দেহধারণের বীজ থাকিস্রা যাইবে । বখন্‌ 
সেই বীজশুলি, তষোগীদের ভাষান বাহাকে ভজ্জিত বলে, 
তহাই হইস্স যাব, তখন ভাহাদের পুনরার বুক্ষ উৎ্পন্ধ করিবার 
উপযোগী শক্তিটি ন& হুইন্র+ বান্ন। শক্তিসমূহ কখনই বীজশুলিকে 
ভর্ভিসিত করিতে পালে না । 


ভদপি বহিরক্গং নিবকাঁজজ্ঞ ॥ ৮ ॥ 
স্রত্রার্থ কিন্তু এই সংবমও নিববাঁজ সমাধির পক্ষে 


বহিরঙ্গত্যরপ ॥ 
ব্যাখ্যা--এই কারণে নিববীজ সমাধির সহিত তুলনা। 


করিলে এইশুলিকেও বহিবঙ্গ বলিতে হইবে। সংষম লাভ 
হইলে আমরা বস্ততহ সব্রবেোচ্চ সনাধি অবস্থা! লাভ না করিস! 
একটি নিম্তর ভূমিতে মাত্র অবস্থিত থাকি । ০সই অবস্থাক্র 


এই পরিদৃশ্তমান জগত বিছ্ধমান থাকে, পিদ্ধিদকল এএই 
জগ্তেরই অন্তর্গত | 
ব্য্ধান-নিরোধসংস্কারয়েণরভিভব প্রাছর্ভাবে 
নিরোধক্ষণচিভান্বয়ো নিরোধপরিণামহ ॥ ৯ ॥ 


স্কৃত্রার্থ-_যখন ব্যু্খান অর্থাৎ মনশ্চাঞ্চল্যের 
ন৬গ 


যোগস্চ্ 


অভিভব € নাশ) ও নিরোধ-স্ংস্কারের আবির্ভাব হম, 
তখন চিত নিরোধনণমক অবসরের অনুগত হয়ত উহাকে 
লিবোধপরিণাম বলে । 


ব্যাখ্য)--ইহাঁর অর্থ এই যে, সমাধিন প্রথম অবস্থাক্ষ 
মনের সমুদয় বৃত্তি নিরুদ্ধ হন্সু বটে, কি্তভ সম্পূর্ণন্ূপে নহে 2 
কারণ ভাহ। হইলে কোন প্রকার বুভ্ভতিই থাকিত না । মনে 
কর, মনে এমন এক প্রকার বুর্তি উদক্ষ হইক্সাছে, যাহাতে 
মনকে ইন্ড্রিরের দিকে লইক্স' যাইতেছে, আর যোগী শর বুভ্তিকে 
সংবম কক্রিবার চেষ্টা করিতেছেন । এ অবস্থাক্স ভর সংবমটিকেও 
একটি বুক বলিতে হইবে । একটি তরঙ্গ আব একটি তরঙ্গের 
দ্বার! নিবািত হইল, স্তরা২ উহা)? সর্বতরঙ্ের নিবুত্িরূপ 
সমাধি নহে, কারণ এর সংযমটিও একটি তরঙ্গ । তবে যে 
অবস্থায় মনে তরঙ্গের পর তরঙ্গ আসিতে থাকে, তদপেক্ষ। এই 
নিম্ন তর সমাধি সেই উচ্চতর সমাধির নিকটবভ্তভী বটে । 


তত্ভ্ প্রশাক্তবাহিতা সংক্কাকা্ড ॥ ১০ ॥ 
স্রত্রার্থ__অভ্যাসের দ্বারা ইহার স্ফিরতা হয় । 
ব্যাখ্যা _প্রতিনিন নিক্সমিতক্ধূপোে অভ্যাস করিলে ও সদাসর্ববদণ 
একা গ্রতার শক্তি লাভ কণঞ্জিলে মনের এই নিয়ত সংযম গ্রবাহাকানে 
চলিতে থাকে ও উহার স্থির ত। হয় । 
সর্ববার্থতৈকাগ্রতয়ো১ ক্ষয়োদযেব চিতুস্ত 


সমাবিপরিণামহ ॥ ১১ ॥ 
ন্‌ ৬৯ 


বাজযোগ 


স্তত্রণর্থ__মনে সর্বপ্রকার বস্ত গ্রহণ করা ও একাগ্রতা 
এই ছুইটি যখন যথাক্রমে ক্ষম্স ও উদয্ম হয়,» তাহাকে 
চিত্তের সমাধি-পরিণাম বলে । 

ব্যাখ্যাঁ_মন সর্বদাই নানাপ্রকার বিষন্প গ্রহণ করিতিছে, 
সর্বদাই সর্বপ্রকার বস্ততেই বাইতেছে । আবার মলের এমন 
একটি উচ্চতর অবস্থা, রৃহিত্বাছে, যখন উহা? একটিমাত্র বস্ত গ্রহণ 
করিম! আর সকল বস্তকে ত্যাগ করিতে পারে । এই এ্রক বস্তু 
গ্রহণ করার ফল সমাধি । 

শাক্তোদিতে। তুল্যপ্রত্যযঝৌ চিত স্যৈকা- 

এ্রতাপরিণাম? ॥ ১২ ॥ 

স্রত্রার্থ__ষখন মন শাস্ত ও উদিত অর্থাৎ অতীত 
ও বর্তমাঁন উভদ্ধ অবস্থাতেই তুল্য-প্রত্যন্স হয়» অর্থাৎ 
উভয়কেই এক সময়ে গ্রহণ করিতে পারে” তাহাকে 
চিত্তের একা গ্রতা-পরিণাম বলে : | 

ব্যাখ্যামন একা গ্র হইক্সীছে, কি করিক্স) জানা যাইবে ? 
মন একাগ্র হইলে সময়েকন কোন জ্ঞান থাকিবে ন॥। যতই 
সময়ের জ্ঞ।ন চলিয়। যাক, আমর? তত একাশ্র হইতেছি* 
বুঝিতে হইবে । আমর) সাঁধারণতহ দেখিতে পাই» যখন আমর! 
. খুব আগ্রহের সহিত কোন পুম্ভকপাঙে মগ্ন হই, তখন সময়ের 
দিকে আমাদের মোটেই লক্ষ্য থাকে নয যখন আবার পুশ্ডক- 
পাঁঠে বিরত হই, তখন ভাবিক্া) আশ্চধ্য হই যে, কতখানি সমক্স 
অমনি চলিক্সা। পিক্সাছে। সমুদ্রক্স সমক্ষটি যেন একক্রিত হইস্স। 

২৬২. 


যোগিস্হত্র 


বর্তমানে একীভূত হইবে । এই জন্যই বল। হইক্সাছে, যতই অতীত,» 
বর্তমান ও ভবিষ্যৎ আসিক্া। মিশিক্পা একীভূত হইক্বা যাক, মন 
ততই একা গ্র হইক্সা থাকে । 


এতেন জুতেত্ছিয়েষু ধম্মলক্ষণাবস্থ 
পরিণাম বতাখভাতাহ ॥ ১৩ ॥ 


স্ত্রার্থ- ইহার দ্বারাই ভূত ও ইক্দ্রিয়ের যে ধন্ত্র, 
লক্ষণ ও অবস্থারূপা পরিণাম আছে, ভাহার ব্যাখ্য। 
করা হইল ॥ 
ব্যাখ্যা পুর্ব তিনটি স্তরে থে চিভ্ডের নিরোধাদি প্রিণামের 
কথ। বল হইস্সাছে, তদ্দ্বারা ভূত ও ইন্ডিক্সের ধন্ঘম, লক্ষণ ও অবস্থাবূপ্‌ 
তিন প্রকার পরিণামের ব্যাখ্যা কর! হইল ॥। মন ক্রমাগত 
বুভ্তিরূপে পব্িিণত হইতেছে, ইহা মনের খধন্মসরূপ পরিণাম । 
উহ॥ যে অতীত» বর্তমান ও ভবিষ্যৎ এই তিন কালের মধ্য 
দিন চলিতেছে, ইহাই মনের লক্ষণরূপ পরিণাম 5 আর কখনও 
তে নিরোধ-সংস্কার প্রবল ও বুখান সংক্কা্ ছুর্বল অথবা 
তাহার বিপরীত হস্গ* ইহা মনের অবস্থারূপ পরিণাম । মনের 
এই পরিণামত্রয়ের ন্াক্স ভূত ও ইন্ছ্রিয়ের ভ্রিবিধি পরিণামও 
বুঝিতে হইবে । যথা, মৃত্তিকাব্ূপ খন্মীর পিগুক্ষপ ধন্ম গিক্ষ। 
উহাতে বে টাকার ধন্ম আবিভূত হস্ত, তাহা ধর্ম-পরিণাম ॥ 
প্র ঘটে বর্তমান, অআভীত ও ভবিষ্যৎ অবস্থাকপ পরিণামকে 
লক্ষণ-পরিণাম এবং উহাঁর নুতনত্ব ও পুব্াতিনত্বারি অবস্থাব্্‌প 
পরিণামকে অবস্থা-পরিণাম বলে । 
৩৬৩) 
৮৮ 


পবাজযোগ 

পুর্ব পূর্বব সুত্রে যে সকল সমাধির বিষয় কথিত হইয়াছে, 
তাহাদের উদ্দেশ্ত, যোগী যাহাতে মনের পরিণামগুলির উপব্র 
ইচ্ছাপুর্ববক ক্ষমত সথশলন করিতে পারেন । তাহ হইতে পুর্ববোস্ত 
সংযমশক্তি লাভ হ্ইক্স) থাকে ॥ 

শান্তোদিতাব্যপদেশ্যধন্মান্ুপাতী ধন্না ॥ ১৪ ॥ 

সুত্রার্থ__শীস্ত অর্থাৎ অতীত, উদিত (বর্তমান) 
ও অব্যপদেশ্ট (ভবিষ্তুৎ ) ধনম্ম যাহাতে অবস্থিত 
তাহার নাম ধন্মা । 

ব্যাখ্য1--ধন্মী ভাহাঁকেই বলে, বাহার উপর কাল ও সংস্কার 
কাধ্য করিতেছে, যাহ! সর্ক্দাই পরিণামপ্রাণ্ত ও ব্যক্তভাঁব 
ধারণ করিতেছে । 

ক্রমান্যত্বং পরিণামান্তত্তে হেতু৪ ॥ ১৫ ॥ 

স্তত্রর্থ ভিন্ন ভিন্ন পরিণ।ম হইবার কারণ ক্রমের 
বিভিন্নত। € পুববাপর পার্থক্য )। 

পরিণামন্রয়নমংবমাদতীতানাগতভ্ভানম্‌ ॥ ১৬ ॥ 

স্ত্রার্থ_ পুবেবীক্ত তিনটি পরিণামের প্রতি চিভ্তসংবঘম 
করিলে অতীত ও অনাগতের জ্ঞান উৎপন্ন হয় । 

ব্যাখ্যা পুর্বে সংযমের যে লক্ষণ কর। হইক্সাছে, আমর! 
তাহ। বেন বিস্বত না হই। যখন মন বস্তর বাহাভাগকে 
পরিত্যাগ করিয়। ভহার আভ্যন্তরীণ ভাবগুলির সহিত নিজেকে 


একীভূত করিবার উপধুস্ত অবস্থাত্স উপনীত হয়, যখন দীর্চ 
২৬৪ 


যোগক্ফত্র 


অভ্যাসের দ্বারা মন কেবল একমাত্র সেইটিই ধারণ করিক্সা 
সুহূর্তমধ্যে তেই অবস্থাক্স উপনীত হইবার শক্তি লাভ করে, তথন্‌ 
তাহাকেই সংযম বলে । এরই অবস্থা লাভ ককিক্সা যদি কেহ 
ভূত 'ভবিষ্যৎৎ জানিতে ইচ্ছ।? করেন, তাহাকে কেবল সংস্কারের 
পরিণামশ্ডলির উপর সংযম প্রয়োগ করিতে হইবে । কতকগুলি 
সংস্কার বর্তমান অবস্থাক্স কাধ্য করিতেছে, কতকগুলির ভোগ 
শেব হইয়া গিক্সাছে আর কতকশুলি এখনও ফল প্রদান করিবে 
বলিরা সঞ্চিত রহিক্াছে । এইশুলির উপর সংযন প্রস্সোগ করিস। 
তিনি ভূত ভবিষ্যৎ সমুদ্রক্স জানিতে পারেন । 
শব্দার্থপ্রত্যয়নামি তরে তরাধ্যাসাহ সঙ্করস্ত₹ প্রবিভাগ- 
সংযমা সর্ববভুতরুতজ্জভানম্‌ ॥ ১৭ ॥. 
্রুত্রার্থ_ শব্দ, অর্থ ও প্রত্যয়ের পরস্পরে পরস্পরের 
আরোপি জন্য এইবূপ সক্করাবস্থা হইয়ীছে, উহাদিগের 
প্রভেদগুলির ভপর সংষম করিলে সমুদ্রয় ভূতের শব্দভ্ভান 
হইয়া! থাকে ॥ 
ব্যাখ্যা শব্দ বলিলে বাহাবিষয়-__যাহাতে মনে কে!ন্‌ 
বৃত্তি জাগরিত করিক্পা দেয়» তাহাকে বুঝিতে হইবে ॥ অর্থ 
বলিলে যে শরীরাভ্যস্তরীণ প্রবাহ ইক্দ্রিয়ছশার দ্বার) লব্ধ বিষক্সীভি- 
ঘ[তজনিত বেদনাকে লই গিক্সা॥ ম্স্ডকে পনহুছিস্বা দেম্গ তাহাকে 
বুঝিতে হইবে, আর ত্ঞান বলিলে মনের যে প্রতিক্রিয়।» যাহ? 
হইতে বিষস্বান্ুভূতি হস্স তাহাকেই বুঝিতে হইবে । এই তিনটি 


মিশ্রিত হইক্সাই আমাদের ইন্ড্রিস্গোঁচর বিষয় উৎ্পজ্জ হক্স । 
২৩০৫ 


বাজযোগ 


মন কর, আমি একটি শব্দ শুনিলাম, প্রথমে বহির্দেশে এক 
কম্পন হইল, তৎপরে শ্রবণেক্্িক্ঘ ছার। মন একটি বোধপ্রবাহ 
গেল, ততৎপরে মন প্রতিঘাত করিল, আমি শব্দটিকে জানিতে 
পারিলাম। আমি ত্র যে শব্দটিকে জানিলাম, উহা তিনটি 
পদার্থের মিশ্রণ প্রথম কম্পন, দ্বিতীক্স অনুভূতি প্রবাহ ও 
তৃতীয্ব প্রতিক্রিক্ণ॥ । সাধারণতঃ, এই তিনটি ব্যাপারকে পুথক 
করা যায় ন1, কিস্তু অভ্যাসের দ্বারা যোগী উহ।দিগকে পৃথক 
করিতে পারেন । যখন মানুষ এই কয়েকটিকে পৃথক করিবার 
শক্তিলভ করে, তখন সে ঘষে কোন শব্দের উপর সংযমপ্রস্োগ 
করে, অমনিই যে অর্থপ্রকাশের জন্য শ্রী শব্দ উচ্চারিত, তাহা 
মনুব্যক্কতই হউক ব1 অন্য কোন প্রাণীকৃতই হউক, তৎক্ষণাৎ 
বুঝিতে পারে । 


সংস্কারসাক্ষা২করণাহ পুর্বজাতিভ্ভঞানম্‌ 9 ১৮ ॥ 


স্ত্রার্থ_সংস্কারগুলিকে প্রত্যক্ষ করিলে অর্থাৎ 
উহাদিগকে জানিতে পারিলে পুক্বজন্মের ভ্ভান হয় | 

ব্যাখ্যা__আমরা যাহ? কিছু অনুভব করি, সমুদ্বস্থই 
আমাদের চিত্তে তরঙ্গাকাঁরে আলিক্সা) থাকে, উহা আবার 
চিত্তের অভ্যন্তরে মিলাইক্সা। যাক্স, ক্রমশঃ ুশ্ক্াৎ্৭থ সুক্দ্মরতর হইতে 
থাকে, একেবারে নউ হইন্স। যাক্স না7। উহ? তথাক্স যাইক্সা অতি 
সুক্ষ আকানে অবস্থান করে, যদ্দি আমর) প্র তরজটিকে পুঅরাক্স 
আনক্কন করিতে পারি, তাহ। হইলে তাহাই স্বতি হইল ॥। হ্তরাৎ 
যোগী যদ্দি মনের এই সমন্ড পূর্ববসংস্কারের উপর সংযম করিতে 

১০৪ 


যোগস্ত্ 


পারেন, তবে তিনি পুর্ববজন্মের কথা স্মরণ করিতে আরম্ভ 
করিবেন । 


প্ত্যয়ন্য পরচিভুভ্ভানম্‌ ॥ ১৯ ॥ 


ক্রত্রার্থ_ অপরের শরীরের ঘষে সকল চিহুত আছে, 
তাহাতে সংষঘম করিলে সেই ব্যক্তির মনের ভাব 
জানিতে পারা যায় । 

ব্যাখ্য।--প্রত্যেক ব্যক্তির শরীরেই বিশেষ বিশেষ প্রকার 
চিহ্ন আছে» তন্বারা তাহাকে অপর ব্যক্তি হইতে পুথক করা 
যাক্স। যখন যোগী কোন ব্যক্তির . এই বিশেষ চিহ্ৃগুলির 
উপর সংযম কবঝেন, তখন তিনি ই ব্যক্তির মনে অবস্থা? 
জানিতে পারেন । 


ন চ তু সালম্বনং তস্তাবিবক্ষীভুতত্বাৎ ॥ ২০ ॥ 


স্তত্রার্থ_কিস্ত এ চিত্তের অবলম্বন কি, তাহা। 
জানিতে পারেন না, কারণ, উহা তাহার সংযমের 
বিষয় নহে । 

ব্যাখ্যা পুর্বেবে যে শরীরের উপর সংযমের কথা বলা 
হইকসণছে» তন্্ারা তাহার মনেন ভিতরে তখন কি হইতেছে, 
তাহ! জানিতে পার। যাস্ব না॥। এখানে হইবার সংযম কিবা 
আবশ্যক হইবে, প্রথম শরীরের লক্ষণসমুহের উপর ও তৎ্পরে 
মনের উপর সংযম প্রক্োগ করিতে হইবে । তাহ? হইলে যোগী 
সেই ব্যক্তির মনের সমুদ্রক্স ভাব জানিতে পারিবেন । 


চু. 


বাজযোগ 


কায়রপসংবমাভুদ্‌ গ্রাহ্য শক্তিস্তস্ভি 
চক্ষুঃপ্র কাশাহসংযোগ্েহভ্তদ্ধানম্‌ ॥ ২১ ॥ 

স্তত্রার্থ_-দেহের আকৃতির উপর সংযম করিয়া, 
এ অ.ক্ুতি অনুভব করিবার শ্অক্তি স্তম্তিত ও চন্কুর 
ও্কাশশক্তির সহিভ উহার অসংযোগ হইলে যোগী 
লোকদমক্ষে অস্তহিত হইতে পারেন । 

ব্যাখ্য।--মনে কর, কোন বোলগী এই গৃহের ভিতব দণ্ডাঁর- 
মান বহিক্পাছেন, ভিনি আপাতদৃষ্টিতে সকলের সমক্ষে অস্তহ্তি 
হইতে পারেন । ভ্িনি যে বাস্তবিক অন্তহিত হন তাহ) নহে, 
তবে কেহ তাহাকে দেখিতে পাইবে না এই মাত্র । শরীরের 
আকৃতি ও শরীব্ এই ছুইটিকে তিনি যেন পুথথক করিব! 
ফেলেন । এটি বেন স্বরণ থাকে যে যোগী যখন এবপ 
একাগ্রতা-শক্তি লাভ করেন যে, বস্তর আকার ও তর্দাকার- 
বিশিষ্ট বস্তুকে পরস্পর পৃথক করিতে পারেন, তখন শ্রব্দপ 
অন্তদ্ধানশক্তি লাভ হইক্সা থাকে । ইহার উপর অর্থাৎ 
আকার ও তে আকারবান বস্তুর পার্থক্য উপ সংযম্‌- 
প্রয়োগ করিলে শর আকৃতি 'অন্গভব করিবার শক্তির উপর 
যেন একটি বাধ। পড়ে, কারণ, বস্তুর আকৃতি ও আকাববান্‌ 
সই পদার্থ পরস্পর বুক্ত হইলেই আমর বস্তকে উপলন্ধি 
করিতে পাতি । 

এতেন শব্দাহ্ক্তদ্ধানমুক্তম্‌ ॥ ২২ ॥ 


স্আার্থ ইহা দ্বারাই শব্দাদির অজ্ঞঞ্ধান অর্থাৎ 


হু. খা 


যোগস্ুজ 


শ্ক্দাদিকে অপরের ইক্ডদ্রিয়গোচর হইতে না দেওয়া ব্যাখ্যা 
করা হইল । 


০সাপক্রমং নিরুপক্রমঞ্চ কন্ম ভহুসংবমাদ- 
পরাক্তভ্ভানমরিক্টেভেতা বা ॥ ২৩ ৪ 


স্ত্রার্থব-কনম্ম ছই প্রকার, যাহার ফল শী লাভ 
হইবে ও যাহা বিলম্বে ফলপ্রসৰব করিবে । ইহাদের 
উপর সংযম করিলে অথবা অবিষ্ট-নমক ম্ৃৃত্যুলক্ষণসমূহের 
উপর সংষমঞ্রয়োগ করিলে তযোলীরা দেহত্যাগের সঠিক 
সনম অবগত হইতে পাবেন । 

ব্যাখা বখন ষোশী তাহার নিজ কন্ম অর্থাৎ তাহার মনের 
ভিতরব্ যে সংস্কারশুলির কাধ্য আরম্ভ হইস্জাছে ও €বগুলি ফল- 
প্রসবের জন্য অপেক্ষা! করিতেছে, সেশুলির উপর সংযম প্রয়োগ 
করেন, তখন তিনি যেশুলি ফলপ্রসবেব্র জন্ত অপেক্ষা কব্রিতেছে, 
তাহাদের দ্বার জানিতে পারেন, কবে তাহার শরীব্পাত হইবে ॥ 
কোন্‌ সমন্সে, কোন্‌ দিন, কটার সমকরে, এমন কি কত মিনিটের 
সমক্স তাহার মৃত্যু হইবে, তাহা তিনি জানিতে পারেন । হিন্দুরা 
মৃত্যুর এই আসন্গবস্তিত। জানাকে বিশেষ প্রক্সোজনীকস মনে কিক! 
থাকেন, কারণ, শীতাতে এই উপদেশ পাঁওয্া যাক্স যে, ম্ৃত্যুসমন্ষের 
চিন্তা পরজীবন নিক্মমিত করিবার পক্ষে বিশে প্রন্নোজনীয় 
কারণম্বরূপ । 


মেত্র্যাদিযু বলানি ॥ ২৪ ॥ 


০৪১ 


বাজবোগ 
স্ত্রর্থ মৈত্রী ইত্যাদি গুণগুলির উপর জংষম- 
প্রয়োগ করিলে, এ গুণগুলি অতিশমষ্ প্রবল ভাব ধারণ 
করে । 
বলেধু হস্তিবলাদীনি ॥ ২৫ ॥ 


স্ুত্রার্থ হস্ভী ইত্যাদির বলের উপর সংষমপ্রয়োগণ 
কৰিলে ফোগিগণের শরীরে সেই সেই শ্রীণীর তুল্য বল 
আসে । 
ব্যাখ্যা যখন যোগী এই সংষমশক্তি লাভ করেন, তখন তিনি 
যদি বল ইচ্ছ। করেন 'গবং হস্ডীর বলের উপর সংবম প্রয়োগ করেন, 
তবে তাহাই লাভ করিক্সা থাকেন । প্রত্যেক ব্যক্তির ভিতরেই 
অনস্ত শক্তি রহিক্সাছে», ০স যর্দি উপাকর জানে, তবে প্র শক্তি 
লইপ্ল। ইচ্ছামত ব্যবহার করিতে পারে । যোগী বিনি, তিনি উহ! 
লাভ করিবার বিস্য? আবিষ্ষার করিকাছেন । 
প্রবৃততালো কন্যাসাৎ সুন্ববতবহিত- 
বিপ্রকৃষ্টভ্ভানম্‌ 1 ২৬ ।। 
স্ত্রার্থ__€ পুর্ববকঘিত ) মহা-জ্যোতির উপর সংষম 
করিলে স্ুম্স্র, ব্যবহিত ও দুরবস্তর্ণ বস্তুর ভজ্ভান হইয়া 
থাকে । 
ব্যাখ্যা হৃদয়ে যে মহা-জ্যোতিঃ আছে, তাহার উপর সংষ্ম 
করিলে অতি দূরবন্তী বস্তও তিনি দেখিতে পান। যদি কোন 


চি 


যোগত্তত্র 


বস্ত পাহাড়ের আড়ালে থাকে তাহ) এবং অতি স্শ্দ সশ্ম বন্তও 
তিনি জানিতে পারেন । 


স্ঞবনভ্ভানং সুয্যে সংযমাশ 7২৭ ॥ 


স্ুত্রার্থ_স্ুধ্যে সংষমের দ্বারা সমুদয় জগতের 
ভ্তানলাভ হয় । 


৮ত্ত্র তারাব্যহভ্ভানম্ 0) ২৮ ॥ 


স্ুত্রার্থ_ চন্দ্রে সংষম করিলে তারকাসমূুহের জ্ঞান- 
লাভ হক্স। 


গ্রুবে তদগতিজ্জানম্‌ ॥ ২৯ ॥ 
স্ত্রার্থ_ঞ্ুবতারায় চিত্তসংষম করিলে তারাসমূুহের 
গতিজ্ঞান হয় । 
নাভিচক্রে কায়ব্যুহ-জ্হানম্‌ ॥ ৩০ ॥ 
্রত্রার্থ_নাভিচক্রে চিভ্তসংষম করিলে শরীরের গঠন 
জানা যাস । 
কঞ্চকুপে ক্ষুৎুপিপাসানিনুত্িও ॥ ৩১ ॥ 
সুত্রার্থ_কঞ্চকুপে সংষম করিলে ক্ষুৎপিপাস! 
নিবুত্তি হয় । 
ব্যাখ্যা__অভিশক্স ক্ষুধিত ব্যক্তি ষর্দি ক্চকুপে চিত্তসংযম করিতে 
পাবেন, তবে তাহার ক্ষুধানিবুত্ভি হইক্সণ যাক্স । 


স্৭৯৯ 


ব্লাজযোগ 
কৃম্মনাভতাৎ স্থিত ॥ ৩২ ॥ 
স্তব্রার্থ কুল্মনাড়ীতে চিত্তসংষম করিলে শরীরের 
স্হিরতা আসে । 


ব্যাখ্যাযখন ভিনি সাধনা কবেন, তাহার শরীর চঞ্চল 
ভয় না । 


মুদ্ধজেতাতিঘি সিদ্ধদর্শনম্‌ ॥ ৩৩ ॥ 


স্রত্রার্থ_মস্ভতকের জ্যোতির উপর সংষম করিলে 
সিদ্ধপ্ুরষদিগের দশনলাভ হম 

ব্যাখ্যা-পিদ্ধ বলিতে এস্ফখলে ভূতঙযোন্টি অপেক্ষা কিঞ্চিৎ 
উচ্চবে।নিকে বুঝাইতেছে ? যোগী যখন ভাহার মন্তকের উপরিভাগে 
মনহসংঘম করেন, তখন তিনি এই লিদ্ধগণকে দর্শন করেন । এখানে 
সিদ্ধ শব্দে মুক্তপুরুষ বুঝাইতেছে না। কিন্ত অনেক সমন উহ? প্র 
অর্থে ব্যবহৃত হইব খাকে । 

প্রাতিভাদছ। সর্ব ॥ ৩৪ ॥ 

স্রত্রার্থ_ অথবা শ্রতিভাশক্তিদ্বারা সমুদয় ত্ভান 
লাভ হম । 

ব্যাখ্যা যাহাদের এইরূপ প্রতিভার শক্তি অর্থাৎ 
পবিত্রতান ছারা লব্ধ জ্ঞানবিশেব আছে, তাহাদের কোন প্রকার 
সংযম ব্যতীতই এই সম্ুদ্দক্স জ্ঞান আসিতে পারে ॥। যখন মানুষ উচ্চ 
প্রতিভাশক্তি লাভ করেন, তখনই তিনি এই মহা আলোক প্রাপ্ত 


হন ॥ তাহার জ্ঞানে সমুদ্ক্স প্রকাশিত হইক্সা বাত্স। তাহার 
৬, 


বোগস্তত্র 
কোন প্রকার সংযম না কত্িপাই, আপনা আপনিই সমুদক্স 
জ্ঞানলাভ হুইস্সা থাকে । 
হৃদয়ে চিসমন্ষিদ ॥ ৬৩৫ ॥ 
স্ুতার্থ হৃদয়ে চিভসংষম করিলে মনোবিষয়ক 
ভ্ঞানলাীভ হয় । 
সত্প্ুরুষয়োরত্যক্তাসংকীণযো5 এত্যনাবিশেষাদ্‌ 
ভাগ পর্াার্থত্বাদন্ম্যার্থলংবমাহু গুক্রষজ্জানম্‌ ॥৩৬॥ 
সুত্রার্থ পুরুষ ও লুদ্ধি, যাহারা অভতিশক্ম প্ুথক 
তাহাদের বিবেকের অভ্ববেই ভোগ হইয়া থাকে, সই 
ভোগ পরার্থ অর্থাৎ অপর বা পুরুষের জন্য ॥। বুদ্ধির 'অন্চ 
এক অবস্থার নাম ত্যার্থঃ উহার ভপর সংষম করিলে 
পুরুষের জ্ভান হজ । 





ব্যাখ্যা পুক্রুব ও বুদ্ধি প্রকৃতপক্ষে সম্পূর্ণ ব্বভভ্ত্র ; তাহ? 
হইলেও পুরুষ বুদ্ধিতে প্ররতিবিস্বিত হইয্স/ উহার সহিত 
আপনাকে অভেদভাবাপন্গ মনে করে এবং তাহাতেই আপনাকে 
সতী বা ছঃখী তবোধ করিক্সা থাকে । বুদ্ধির এই অবস্থাকে 
পরার্থ বলে, কারণ, উহার সমুদস্ব ভোগ নিজের জন্য নহে» 
পুরুষের জন্য ॥ এতঘ্যতাত বুদ্ধির আনব এক অবস্থা আছে-_ 
উহার নাম ত্যার্থ। যখন বুদ্ধি সত্বপ্রধান হইয়া! অতিশস্ব 
নির্মল হন্নম তখন ভাহাঁতে পুক্ষষ বিশেষভাবে শ্রতিবিদ্বিত 
হন, এব সেই বুদ্ধি অন্তম্ম্্থী হইক্স পুক্রষমাত্রাবলম্বন হস্ব। 

০০ 


রাজযোগ 


সেই স্বার্থনণমক বুদ্ধিতে সংঘম করিলে পুরুষের জ্ঞান হক । প্ুক্রুব- 
মাআ্াবলম্বন-বুদ্ধিতে সংষম করিতে বলার উদ্দেহ্য এই-_শুদ্ধ পুকুষ 
ভুঞাত) বলিক্ব। কখন জ্ঞানের বিষস্ত হইতে পারেন না। 

ততঃ প্রাতিভ শ্রাবণ_-বেদনাদর্শাস্বাদবার্ত। 

জায়ন্ডে ) ৩৭ ॥ 

সুত্রর্থ__তাহা! হইতে প্রাতিভ শ্রবণ, স্পর্শ, দর্শন, 
স্বাদ ও ভআ্রাণ উৎপন্ন হয় । 

তে সমাধাবুপসর্গ। বুতুত্খানে সিদ্ধয়ত ॥ ৩৮ ॥ 

স্ত্রার্থ_ইহারা সমাধির সময উপসর্গ, কিস্ত সংসার 
অবস্থায় উহারা সিদ্ধির স্বরূপ | 

ব্যাখ্য।- যোগী জানেন, সংসারে এই সমুদ্রন্ম ভোগ পুক্রষ ও 
মনের যোগের ছ্বার। হইয়া) থাকে, বদ্দি তিনি আত্মা ও প্রক্কৃতি 
পরস্পর পৃ্থক্‌ বস্ত” এই সত্যের উপর চি্তসংঘম করিতে পারেন, 
তবে তিনি পুরুষের জ্ঞানলাভ করেন । তাহা হইতে বিবেকজ্ঞান্‌ 
উদর হইক্সা থাকে। যখন তিনি এই বিবেকলাভ কবিতে 
ক্ৃতকাধ্য হন, তখন তাহা মহোচ্চ দৈবজ্ঞান লাভ হস্স। 
কিস্তু এই শক্তিসমুদযস সেই উচ্চতম লক্ষ্য অর্থ সেই 
পবিত্রন্বদপ আত্মার জ্ঞান ও মুক্তির প্রতিবন্ধকম্বর্ূপ ৷ এগুলি 
পথিমধ্যে লব্ধ হইক্সা। থাঁকে মাত্র। যোগী যদি এই শক্তিগুলিকে 
পরিত্যাগ করেন, তবে তিনি সেই উচ্চতম জ্ঞান্লাভ করিতে পাবেন । 
যদি তিনি এই শক্কিগুলি লাভ করিতে প্রলোভিত হন, তবে তাহার 
অধিক উদ্জতি হস্স না । 


নখ ৭৪ 


যোগস্হত্র 


বন্ধকারণশৈধিলাহু প্রচার সংবেদনাচ্চ 
চিভস্ত পরশরীরাবেশহ ॥ ৩৯ ॥& 


স্ত্রার্থ_ যখন বন্ধের কারণ শিঘিল হইয়া যাস ও 
চিত্তের ্রচারস্থানগুলিকে € অর্থাৎ শরীরহ্ছ নাভীসমূহকে ) 
অবগত হন, তখন তিনি অপরের শরীরে শ্রবেশ করিতে 
পারেন ॥ 


ব্যাখ্যা যোগী অন্য এক €তদহে অবস্থান করিক্সা তদ্দেহে 
ক্রিকরাশীল থাকিলেও কোন এক ম্ৃতদ্দেহে প্রবেশ কক্রিয। উহাকে 
গতিশীল করিতে পারেন ॥ অথবা? তিনি কোন জীবিত শরীরে 
প্রবেশ করিস ০৫সই দেহুস্থ মন ও ইন্ড্রিরগণকে নিকুদ্ধ করিতে 
পারেন ও €সই সময়ের জন্য ০সই শরীরের মধ্য দিয়? কাধ্য 
করিতে পারেন । প্রক্লতিপুরুষের বিবেকলাভ করিলেই ইহ! 
তাহার পক্ষে সম্ভব হইতে পারে । তিনি অপরের শরীরে 
প্রবেশ কনব্রিতে ইচ্ছ! করিলে সেই শরীরে সংযম প্রস্সোগ 
করিলেই ইহা পরিদ্ধ হইবে, কারণ তীহার আত্ম! যে কেবল 
সর্ববব্য।গপী তাহ! নহে, তাহার মনও (অবশ্য যোগীদিগেন্দ মতে ) 
সর্বব্যাপী, উহ1। ০সই সব্বব্যাপী মনের এক অংশমাত্র । এক্ষণে 
কিন্তু উহ) কেবল এই শরীরের জরুমগুলীব্র ভিতর দিক়্(ই কাব্য 
করিতে পারে, কিন্তু যোগী যখন শ্লাক্গবীন্পন প্রবাহগুলি হইতে 
আপনাকে মুক্ত করিতে পারেন, তখন তিনি অন্ঠান্য শরীরের ছাবাও 


কাধ্য করিতে পারেন । 
৮ ও 


ব্বাজযোগ 
উদ্ণান-জয্াভ্ভল-পক্ক-কণ্টকাদিম্বসঙ্গ উতক্রাস্তিশ্চ ॥৪০॥ 

স্ত্রার্থ_উদীন-নামক সযুপ্রবাহজয়ের দ্বারা যোগী 
জলে বা পক্ষে মগ্ন হন না, তিনি কন্টকের উপর ভ্রমণ করিতে 
পারেন ও ইচ্ছাম্ৃত্যু হন। - 

ব্যাখ্য_উদ্াান নামক যে স্নারবীন্ন শক্তিপ্রবাহ ফুস্ফুস্‌ ও 
শরীরের উপরিস্থ সমুদয় অংশকে নিয়মিত করে, যোগী যখন 
তাহাকে জয় করিতে পারেন, তখন তিনি অতিশম্ব লঘু হইক্স 
যান। তিনি আব জলে মগ্ন হন না, কন্টকের উপর ও 
তরবাবি-ফলকের উপর অনাগ্সাসে ভ্রমণ করিতে পারেন, অগ্নির 
মধ্যে দণ্ডায়নাঁন হইন্স। থাকিতে পারেন, এবং ইচ্ছামাত্রেই এই শরীর, 
ত্যাগ করিতে পারেন । 

লমানজয়াহ প্রজ্বলনম্‌ ॥ ৪১ ॥ 

স্ত্রার্থ--সমান বাযুকে জয় করিলে ভিনি জ্যোতিঃ 
দ্বার বেষ্টিত হইয়। থাকেন । 

ব্যাখ্য1-_ভিনি যখনই ইচ্ছ!? করেন, তখনই তাহার শরীর 
হইতে জ্যোতিঃ নির্গত হয়। 
শ্রোত্রাকাশয়োহ সন্বহ্ধসংযমাদ্দিব্যং শ্রোত্রম্‌ ॥ ৪২ ॥ 

সুত্রার্থ_-কণ ও আকাশের পরস্পর যে সম্বন্ধ আছে, 
ভাহার উপর সংঘম করিলে দিব্য কর্ণ লাভ হয়। 

ব্যাখ্যা_এই আকাঁশভূত ও তাহাকে অন্ভৰ করিবার 


যন্ত্রত্বরূপ কর্ণ রহিয়াছে । ইহাদের উপর সংঘম করিলে ঘোগী 
দিব্য শ্রাত্র লাভ করেন। তখন তিনি সমুদ্ধয় শুনিতে পান। 


যোগস্তত্ 


বহু মাইল দূরে কোন কথাবার্তী বা শব্দ হইলেও তিন্ছি 
শুনিতে পান 


কায়াকাশয়োহ সন্বন্ধসংবমা- 
লদ্বুতুলসমাপভ্েশ্গাকাশগমনম্‌ ॥ ৪৩ ॥ 


স্ত্রার্থ_ শরীরের ও আকাশের সম্বন্ষের উপর চিতু- 
সংষম করিয়া এবং তুলার ন্ঠাক্স আপনাকে লক্ষু ভাবন। 
করিয়া তযোগী আকাশের মধ্য দিনা গমন করিতে 
পারেন । 

ব্যাখ্য।--আকাশই এই শবীবের উপাদ।ন ; আকাশই 
একপ্রকার বিকৃত হইয়। এই শরীররূপ ধারণ করিবাছে । যদি 
যোগী শরীরের উপাদান ভর আকাশ ধাতুর উপর সংযমপ্রক্ষোগ 
করেন, তবে তিনি আকাশের ভ্যান লঘু প্রাণ্তড হন ও যেখানে 
ইচছ1, বারুর মধ্য দিক) বথাক্স তথা ক্স ঘাইতে পারেন । 

বহিরকল্লিতা বুভির্মহাবিদেহা ততঃ 

পকাশাবরণজ্ষ্য়ও ॥ 8৪25 ॥ 

স্ত্রার্থ_-ব।হিরে  ষে মনের বধথার্থ বুক্তি অর্থাৎ 
মনের ধারণা, তাহার নাম মহাবিদেহ £ তাহার উপর 
সংযমপ্রযোোগ করিলে শ্রকাশের যে আবরণ, তাহার 
ক্ষয় হইয়া যাক । 

ব্যাখ্য)-_-মন অজ্ঞতা প্রযুক্ত বিব্চেনা করে যেসে এই দেহের, 


ভিতর দ্িক্সা কাধ্য করিতেছে । যদি মন্‌ সর্বব্যাপী হয়, তকে 
০, 


রাজযোগ 


আমরা কেবলমাত্র এক শ্রকার লাঘুমণ্ডলীর দ্বার আবদ্ধ থাকিব, 
অথব$ এই অহংকে একটি শরীরেই আবদ্ধ করিক্সা। রাখিব কেন £ 
ইহার ত কোন যুক্তি দেখিতে পাওয়া! যায় না। যোগী ইচ্ছ। 
করেন বে তিনি যেখানে ইচ্ছা), অভতথাক্ম আপনার এই আমি 
ভাঁবকে অনুভব করিবেন । অহংভাঁব চলিক্স॥। গিস্বা যে মানসিক 
বুক্তিপ্রবাঁহছু এই দেহে জাগরিত হয়, তাহাকে অকলিতা। 
বৃত্তি” বা “মহাবিদেহ” বলে। যখন তিনি উহার উপর সংযম 
করিতে ক্কতকাধ্য হন, তখন প্রকাশের সকল আবরণ চলিক্স! 
যাক্স এবং সমুদন্ম অন্ধকার ও অজ্ঞান চলিক্সা গিক্সা সমস্ডই তাহার 
নিকট €তন্ডমরন বলিক্সা বোধ হস ॥ 


স্থলস্বরূপ-সুন্মনান্বয়ার্থবন্ব-সংবমাদ্ডতজয়ও ॥ ৪৫ ॥ 


সুত্রার্থ_ভুতগণের স্থল ্বরাপ, কুল, অন্বম্ম ও 
অর্থবত্ব এই কয়েকটির উপর সংবম করিলে ভুতজয় 
হয 

ব্যাখ্যা- যোগী সমুদয় ভূতের উপর সংযম করেন; প্রথম 
স্থলভূত্ের উপর, তৎ্পরে উহার অন্ান্য স্ক্দ্ অবস্থার উপর সংবম 
করেন । এক সম্প্রদায়ের তবৌদ্ধগণ এই সংযমটি বিশেষভাবে 
গ্রহণ করিক্সা থাকেন । তাহাব।। খানিকট। কাদার তাল লইঙ্স। 
উহার উপর সংযম প্রক্সেগ করেন, কক্িম্সা ক্রমশঃ উহা? যে সকল 


৮ স্বরূপ- পৃথিবীর কাঠিন্ঠ* জলের তারল্যারদি। অন্ব্প-_সত্বৎ রজঃ ও 
তমঃ প্রত্যেক ভূতে অস্িত রহিক্সাছে, ইহা! জানা । অর্থবন্ত--বিশেষ বিশেষ 
ভোগপ্রদান-সামথ্য । 

ন্‌ ৭৮৮ 


বোগস্তজ 
সঙ্ক্ভূতে নিল্মসিত, তাহা দেখিতে আরস্ত করেন । যখন তাহারা 
এ সুঙ্্ভৃতের বিষয় সমুদয় জানিতে পারেন, তখনি তাহারা এ 
ভূতের উপর শক্তিলাভ করেন। সমুদ্রস্ব ভূতের পক্ষেই ইহ" 
বুকিতে ভইবে-__যোঁগী সমুদ্বন্ই জয় করিতে পারেন । 
ততোহণিমাদি-প্রাহুভপণবঃ কায়সম্পভদ্বল্া- 
| নভিঘাতম্চ 11 ৪৬ ।। 


স্যত্রার্থ_ তাহ! হইতেই অণিমা ইত্যাদি সিদ্ধির 
আবিভাব হয্প, কায়-সস্পৎ লাভ হযস ও সমুদয় শারীরিক 
ধন্মের অনভিঘাত হয । 

ব্যাখ্যা) ইহার অর্থ এই যে, বোগী অষ্টসিদ্ধি লাভ করেন । 
তিনি আপনাকে ইচ্ছামত অণু করিতে পারেন, তিনি "সাপনাকে 
খুব বুহত্ করিতে পারেন, আপনাকে পৃথিবীর ভ্াক্স শুরু ও বাছুর 
ন্াম্ম লঘু করিতে পারেন, তিনি যাহ ইচ্ছ/ তাহারই উপর প্রভূত 
করিতে পারেন, যাহা ইচ্ছ। তাহাই জয় করিতে পারেন, ভাহার 
ইচ্ছাপ্প সিংহ তাহার পদতলে মেষের নাক শাম্তভাবে বসিয়। 
থাকিবে ও তাকার সমুদয় বাসনাই পরিপৃর্ণ হইবে । 


রূপ-লাবণ্য-বল-বজসংহননত্বানি কায়সম্পহ ॥ ৪৭ ॥ 


স্ুত্রার্থ_ কায়সম্পৎ বলিতে সৌন্দর্য্য, সুন্দর অঙ্গ- 
কান্তি, বল ও বজবৎ দৃঢ়তা বুঝায় । 
ব্যাখ্যা তখন শরীর অবিনাশী হইক্সা যায়, কিছুই উহার 


কোন ক্ষতি করিতে পারে না। যোগী বদি স্বয়ং ইচ্ছ। না 
৭৪১ 


৯৬৯ 


ল্লাজযোগ 


করেন, তবে কিছুই তীঁহার বিনাশে সমর্থ হয় না, “কালদণ্ড ভঙ্গ 
করিয়া তিনি এই জগতে শরীর লইক্স বাস করেন ।” বেদে লিখিত 
আছে যে, ০সই ব্যক্তির রোগ, মৃত্যু অথবা কোন ক্রেশ হয় না। 


গ্রহণব্ববূপাস্সিতান্বযার্থবরনংযমাদিজ্দিয়জয়ত ॥ ৪৮ ॥ 


সৃত্রার্থ- ইক্দিয়গণের বাহপদার্ধাভিসুখী গতি, তজ্জনিত 
জান, এই জ্ঞান হইতে বিকশিত অহং-প্রত্যয়, উহাদের 
ত্রিগুণময়ত্ব ও ভোগদাতৃত্ব এই কয়েকটির উপর সংষম 
করিলে ইক্দ্রিয়জয় হয়। 

ব্যাখ্য।- বাহা বস্তর অনুভূতির সমক্সে ইন্ছিসসগণ মন হইতে 
বাহিরে যাইকা বিবক্বের দিকে ধাবমান হয়, তাহ! হইতেই 
উপলব্ধি ও অস্মিতার উৎপভ্তি হত্স। বখন যোগী উহাদের উপর 
এএবং অপর ছুইটির উপরও ক্রমে ক্রমে সংযম প্রক্ষোগ করেন, 
তখন তিনি ইন্দ্রিয় জক্স করেন ॥ যে কোন বস্ত তুমি দেখিতেছ 
বা অনুভব করিতেছ-_-যথ। একখানি পুস্ডক-_তাহ? লইস্স। তাহার 
উপর সংযম প্রক্পোগ কর। তৎ্পরে পুস্তকের আকারে যে জ্ঞন 
রহিস্সাছে তাহার উপর সংঘম প্রয়োগ কর । এই অভ্যাসের দ্বার! 
সমুদৃস্স ইন্ড্রির জন হুইস্গ। থাকে ॥ 


ততো মনোজবিত্বং বিকরণভাব2 অধানজয়শ্চ ॥৪৯॥ 

্রত্রার্থ__তাহা হইতে দেহের মনের ন্যায় বেগ, 
ইক্দিয়গণের দেহনিরপেক্ষ শক্তিলীভ ও প্রকৃতিজয় 
হইম। থাকে । 


১ 


বোগস্ত্ত্র 
ব্যাখ্যা যেমন ভতজগক্প দ্বারা কাস্থসম্পত লাভ হক্স, তন্দ'প 
হইীন্ড্রিয়সত্যমের ছার? পূর্বোক্ত শক্তিসমুদ্ুক্স লাভ হইক্সা॥ থাকে। 


সন্তপুর্ুষান্ততাখ্যাতিমাত্রস্ত অর্বঝভাবাহধিষ্ঠাতৃত্বং 
সর্ববজ্ঞাতৃত্বঞ্চ ॥ ৫০ ॥ 


স্ুত্রার্থ_ পুরুষ ও বুদ্ধির পরস্পর পার্থক্য-বিজ্ঞানের 
উপর চিতভ্তসংবম করিলে সকল বস্ভতর উপর অধিন্ঠাতৃত্ব ও 
সববভ্ভীতৃত্ব লাভ হয় । 

ব্যাখ্যা যখন আমর। প্রকৃতি জর করিতে পাবি ও পুক্রব- 
প্রকৃতির ভেদ উপলব্ধি করিতে পারি» অর্থাৎ জানিতে পারি ষে 


পুরুষ অবিনাশী, পবিত্র ও পুর্ণত্বরূপ» তখন সর্ববশক্তিমত্তা ও 
সর্ববজ্তত? লাভ হস্স । 


তদ্বৈরাগন্তাদপি দোষবীজক্ষয়ে কৈবলতম্‌ ॥ ৫১ ॥ 


স্ুত্রার্থ__এইগুলিকেও ত্যাগ করিতে পা্িলে দোবের 
বীজ ক্ষয় হইয়া যায়, তখনই কৈবল্য লাভ হয় । 

ব্যাখ্য।-- যখন তিন্নি &কবল্য লাভ করেন», তখন তিনি মুক্ত 
হইস্স) যান । যখন তিনি সর্ববশক্তিমভা। ও সর্ববজ্ঞতা শক্তিদ্ব্ূকে ও 
পরিত্যাগ করেন, তখন তিনি সম্বদক্স প্রলোভন, এমন কি দেব- 
গণকৃত অও্রলোভনও অতিক্রম করিতে পারেন যখন যোগী 
এই সকল অদ্ভুত ক্ষমতা লাভ করিরাও ভহাদিগক পরিত্যাগ 
করেন, তখনই তিনি তেই চরম লক্ষ্যস্থলে উপনীত হুন। 
বান্তবিক এই শক্তিগুলি কি £ কেবল বিকার মাত্র ॥ স্বপ্ন হইতে 

২৮১ 


নি 


তের স্পন্সর 


বাজযোগ 


উহাদের শ্রেষ্ঠত্ব কি আছে? সর্বশক্তিমন্তাও ন্বপ্রতুল্য । উহু। 
কেবল মনের উপর নির্ভর করে । যতক্ষণ পধ্যন্ত মনের অন্ডিত্ব 
থাকে, ততক্ষণ পবধ্যন্ত সর্ববশক্তিমতা সম্ভব হইতে পারে, কিন্ক 
আমাদের লক্ষ্য মনের ও অতাত প্রদেশে । 


স্থানুতপনিমন্ত্রণে সঙম্ময়াকরণং 
পুনরনিষ্ত প্রসঙ্গাহৎ ॥ ৫২ ॥ 


স্রত্রার্থ_ দেবগণ প্রলোভিত করিলেও তাহাতে 
আসক্ত হওয়। বা আনন্দবোধ করা উচিত নয়, কারণ 
তাঁহণতে অনিষ্টের আশঙ্ক। আছে । 


ব্যাখ্য।--আরও অনেক বিদ্ম আছে। দেবা যোগীকে 
প্রলোভিত করিতে আসেন ; তাহার? ইচ্ছ।? করেন না যে, কেহ 
সম্পূর্ণরূপে যুক্ত হন। আমর। যেমন জঈর্ষাপরারণ, তাহারাও 
সেইরূপ, বরং কখন কখন আমাদের অপেক্ষা অধিক । তাহার! 
পাঁছে আপনাদের পদভ্রষ্ট হয়, তজ্জন্ত অতিশয় ভীত । বে সকল 
যোগী সম্পূর্ণ সি্ধ হইতে পারেন ন!, তাহার স্বৃত হ্ইন্সা দেবতা 
হন ॥ তীহারা সোজা পথ ছাড়িক্সা পার্থের এক পথে চলিক্স। যান 
ও এই ক্ষমতাগুলি লাভ করেন। তাহাদের আবার জন্মাইতে 
হয়, কিন্তু যিনি 'এতদুর শক্তিসম্পন্ম যে, এই প্রলোভনগুলি পধ্যস্ত 
অতিক্রম করিতে পারেন ও একেবারে সেই লক্ষ্য স্থানে পহুছিতে 
পারেন, তিনিই মুক্ত হইক্স। যান। 


ক্ষণততুভ্রময়োঃ সংযমাদ্ধিবেকজং ভ্ভানম্‌ ॥ ৫৩ ॥ 
১৩৪ 


বোগন্ডজ 


স্ুত্রার্থ ক্ষণ ও তাহার পুব্বাপর ভাবগুলির উপর 
সংষম ও্রয়োগণ করিলে বিবেকজ্ জ্ঞান উৎপন্ন হয় ॥. 

ব্যাঁথা।--এই দেবতা), স্বর্গ ও শক্তিশুলি হইতে রক্ষা! 
পাইবার উপায় নি? বিবেকবলে বখন সদ্‌সৎ বিচারশভ্তি হয়, 
নখনই এই সকল বিদ্র চলিপ্স। যাইন্বে। এই বিবেকজ্ঞান দৃঢ় 
হইতে পারে, এই উদ্দেশ্যে এই সংষমের উপদেশ প্রদত্ত হইল । 
ক্ষণ অর্থাৎ কালের সপ্তম অংশের এবং উহার পূর্বাপর 
ভাবগুলির উপর সংযমের দ্বার! ইহ। হইক্সা থাকে | 

জাতিলক্ষণদেশৈরন্যতানবচ্ছেদাভ্,ল্য যোস্ততঃ 
ু পতিপভিও ॥ ৫৪ ॥ 

স্ুতার্থর জাতি, লক্ষণ ও দেশ দ্বারা যাহাদিগকে 
পাঞ্চক্যনিশ্চজ্ করিতে না পারার জন্ঠ তুল্য বোধ হয়, 
তাহাদিগকেও এ পুক্বোক্ত সংষমের দ্বারা প্র্ক করিয়! 
জান! যাইতে পারে । 

ব্যাখ্য। - আমরা ঘষে ছুহ৪খভোগ" করি, তাহা সত্য ও 
অসত্যের মধ্যে পার্থক্যদৃষ্টির অন্ডাবরূপ অভ্ভান হইতে উৎপন্ 
হইক্সা থাকে । আমরা সকলেই মন্দকে ভাল বলিক্প। ও স্বপ্লকে 
সত্য বলিয়া গ্রহণ কৰি । আত্মাই একমাত্র সত্য, আমর উহা? 
বিস্মৃত হইস্সাছি । শরীর মিথ্যা ক্বপ্রমাত্র ৮ আমর? ভাবি, আমরা 
শরীর । স্ৃতরাং দেখা গেল, এই অবিবেকই হুহখের কারণ । - এই 
অবিবেক আবার অবিছ্য। হইতে প্রস্থত হক্স। বিবেক আসিলেই 
তাহার সঙ্গে সঙ্গেই বলও আসে, তখনই আমরা এই শরীর, 

২৮৩ 


বাজযোগ 


স্বর্গ ও দেবাদির কলনা-পরিহারে সমর্থ হই। জাতি চিহ্ন ও 
স্থান দ্বারা আমরা বস্তরিগকে ভিন্ম করিক্সা থাকি । উদাহরণস্থলে 
একটি গাভীর কথা ধর॥ যাউক ॥। গাভীর কুকুর হইতে ভেদ 
জ!তিগত । ছুইটি গাভীর মধ্যে আমর) কিন্ধপে পরস্পর গ্রে 
করিক্স। থাকি ? চিজ্ের দ্বারা । আবার ছুইটি বস্তু সর্বাংশে 
সমান হইলে, আমরা স্থানগত ভেদের দ্বারা উহাদিগকে পুথক্‌ 
করিভে পারি । কিন্ত যখন বস্তসকল এমন মিশাইন্সা থাকে যে, 
ভেদ করিবার এই ভিন ভিন্ধ উপাক্রশুলির কিছুই কাজে আসে 
না, তখন পুর্বোক্ত সাধনপ্রণালী-অভ্যাসের ছাঁর। লব্ধ বিবেকবলে 
আমরা উহার্দিগকে পৃথক করিতে পারি । যোগাদিগের উচ্চতম 
দর্শন এই সত্যের উপর স্থাপিত যে, পুরুষ শুন্ধত্যভাব ও সদা? 
পূর্ণশ্বরূপ এবং জগতের মধ্যে তাহাই একমাত্র অমিশ্র বস্ত। শরীর 
ও মন মিশ্র পদার্থ, তথাপি আমরা সর্বদাই আমাদিগকে উহাদের 
সহিভ মিশাইব। ফেলিতেছি । এই আমাদের মহাত্রম যে, 
এই পার্থক্যটুকু নষ্ট হইক্্! গিক্সাছে। যখন এই বিবেকশক্তি 
লব্ধ হ্মঘ্, তখন মানুষ দেখিতে পার যে জগতের সমুদ্দপ বস্ত 
--তাহ1! বাহাই হউক আর আভ্যস্তরই হউক» সমুদ্রক্সই মিশ্র 
পার্থ, স্থতবাৎ উহার) পুরুষ হইতে পারে না । 


তারকং সর্ববিষয়ং সর্ববা-বিষয় মক্রমধ্েঞতি 
বিবেকজং ভ্ভানম্ ॥ ৫৫ ॥ 


স্ত্রার্থ_-ষে বিবেকভ্ঞান সকল বস্তু ও বল্ভর 
৮9: 


যোগস্চভ্র 


সবববিধ অবস্থাকে যুগপৎ গ্রহণ করিতে পারে, তাহাকে 
তারকত্ভান বলে ॥ 


ব্যাখ্যা-তারক অর্থে বাহ সংসার হইতে তাঁরণ করে। 
সমুদক্স প্রকৃতির ুষ্ম স্কুল সর্ববিধ অবস্থা এই জ্ঞানের গ্রাহা ৷ 
এই জ্ঞানে কোনরূপ ক্রম নাই। ইহা? সম্মদস্ম বস্তকে মুহ্গ্তমধ্চে 
যুগপৎ গ্রহণ করিতে পারে ॥ 


সত্ত্পুরুবয়োহ শুদ্ধিসপামেত তেকবল্তমিতি ॥ ৫৬ ॥ 


ক্ত্রার্থবঘখন স্ব ও পুরুষের শুন্ধির সমতা হয়, 
তখনই €কবল্য লাভ হয় । 


ব্যাখ্য।-_-&কবল্যই আমাদের লক্ষ্য ;$ যখন অই লক্ষ্যস্থলে 
পৃহুছিতে পারা যার, তখন আত্মা বুঝিতে পারেন যে তিনি 
চিরকালই একমাত্র- কেবল ছিলেন, তাহাকে স্ুতী কিবার 
জন্য আর কাহারও প্রপোজন ছিল না। যতদিন আমব্র। আমা- 
দিগকে স্যী কব্পিবারন জন্য আনব কাহাকেও চাহি, ততদিন 
আমরা দাসমাত্র । যখন পুরুষ জানিতে পারেন যে, তিনি 
নুক্তস্বভাঁব ও তাহাকে পুর্ণ করিতে আব কাহারও প্রস্নোজন হয় 
না__জানিতে পারেন যে, এই প্রকৃতি ক্ষণিক, ইহার কোন 
প্রয়োজন নাই, তখনই মুক্তিলাভ হয়, তখনই এই টকবল্য লাভ 
হস ।? বখন আত্মা জানিতে. পারেন বে, জগতে ক্ষুদ্রতম 
পরমাণু হইতে দেবগণ পধ্যস্ত কিছুরই উপর তাহার নিডরের 
প্রয়োজন নাই, তখনই আত্মা ০সই অবস্থাকে ইকবল্য ও পুর্ণ ত? 

৮৬৭ 


বাজযোগ 


বলে । ষখন শুদ্ধি ও অশ্ুদ্ধি উভস্ম মিশ্রিত সম্ভব অর্থাৎ বুদ্ধি 
পুরুষের ন্ডানস শুদ্ধ হইক্সা যাঁর” তখনই এই €কবল্যলাভ হইগ্সা 
থাকে, তখন উহা কেবল নিশু৭ পবিত্রত্বর্ূপ প্ুক্রষকে প্রতি 
ফলিত করে । 


২৮৬. 





জন্মোষধিমন্দ্রতপহসমাধিজাও সিদ্ধ ॥ ১ ॥। 


স্ুত্রর্থ_ সিদ্ধিসমূহ জন্ম, ওষধ, মন্ত্র তপস্যা ও 
সমাধি হইতে উৎপন্ন হয় । 


ব্যাখ্যা কখনও কখনও মানুষ পুর্ববজন্মলন্ধ সিদ্ধি লইক়। 
জন্মগ্রহণ কবে । তে জন্মে সে যেন তাহাদের ফলভ্োগ 
করিতেই আসে। সাংখ্যদশনের পিতৃন্বরূপ কপিলসন্বন্ধে 
কথিত আছে ৫, তিনি সিদ্ধ হুইঝা জন্সিক্সাছিলেন । “সিদ্ধি” 
এই শব্দের অর্থ_বিনি ক্ৃতকাধ্য হইয়াছেন । 

যোলীর। বলেন, রসাক্ষনবিদ্ধা অর্থাৎ ওধষধার্দি দ্বার। অই 
সকল শক্তি লব্ধ হইতে পানে ॥ তোমরা সকলেই জান যে, 
রসাস্মনবিন্যার প্রারস্ত আলকেমি ** হইতে । মানুষ পরশ-পাথব 
(1171105101551%5 50০8০), সঞ্জীবনী অম্বত (7221152£০0£ 11) 
ইত্যাদির অন্বেবণ করিত । ভারতবর্ষে বসাক্গন নামে এক 
সম্প্রদাক্স ছিল । তাহাদের এই মত ছিল যে, স্হস্ম্রতত্তপ্রিস্ত1, 


* আলকেমি-__তামা শ্রভৃৃতি নিম্দরের ধাতু হইতে সোনা বূপা শ্রভভতি 
করিবার বিদ্যা; পুবেব ইউরোপে গুপ্তভাবে এই বিদ্যার খুব চচ্চ! ছিল ॥ 
'সপ্রীবনী অস্বুত" অর্থে এক শ্রকার কাল্পনিক রস. ষদ্বঘার। মানব অমর হইতে 
পাবে। 

২৮৭ 


বাজযোগ 


জ্ঞান, আধ্যাত্মিকতা, ধন্ম_এ সকলগুলিই সত্য €ভাল) বটে 
কিস্ড এইখগুলিকে লাভ করিবার একমাত্র উপাক্স এই শরীর । 
যদি মধ্যে মধ্যে শরীর ভগ্ন অর্থাৎ ম্বত্যুপ্রস্ড হয়, তবে শর কারণে 
সেই চরমলক্ষ্যে এঁহুছিতে কতকট। অধিক সময় লাঁগিবে । মনে 
কর কোন্‌ ব্যক্তি যোগ অভ্যাস কনব্িরিতে অথব। অত্যধিক 
আধ্যাত্মিকভাবসম্পন্ম হইতে ইচ্ছুক ॥ কিন্ত অধিকদূর উন্গতি করিতে 
না] করিতেই তাহার মৃত্যু হইল । তখন সে আর এক দেহ 
লইস্স) পুন্রাক্ম সাধন করিতে আরম্ভ করিল, পরে তাহার মৃত্যু 
হইল» এইরূপে পুনঃ পুল জন্মগ্রহণ ও ম্বত্যুতেই তাঁহার অধিকাংশ 
সমত্র নষ্ট ইন্না গেল । যদি শরীরকে এতদূর সবল ও নির্দোষ 
করিতে পারা বাক্স বে, উহার জন্সম্বত্যু একেবারে বন্ধ হইস্স। 
বাক্স, তাহ)! হইলে আধ্যাত্মিক উন্গতি করিবার অনেক সমক্স 
পাওয়া ষাইবে। এই কারণে এই বসাক়নের। বলিক্ষা থাকেন 
“প্রথমে শরীরকে সবল কর” । তীহার॥ বলেন যে, শরীরকে 
অমর করা বাইতে পাবে । ইহাদের মনের ভাব এই বে, শরীর 
গঠন করিবার কর্ত। যদি মন হয়, আর ইহা যদি সত্য হর যে, 
প্রত্যেক ব্যক্তির মন সেই অনস্ত শক্তিপ্রকাশের এক একটি 
বিশেষ প্রণালীমাত্র, তবে এ্রইব্দপ প্রত্যেক প্রণালীর বাহির 
হইতে যথেচ্ছ শক্তিসংগ্রহ করিবার তোন সীম। নির্দিষ্ট হইতে 
পাবে না। ক্ুুতরাং আমর! চিরকশল এই শরীরকে 
রাখিতে পাব না কেন? যত শরীর আমর) ধারণ করি, 
সসুদস্সই আমাদিগকে গঠন করিতে হন? যে মুহূর্তে এই 
শরীরের পতন হইবে, তন্মুহর্তডে আবার আমাদিগকে আর 
হ৮৮৮ 


যো গস্তত্ 


এক শরীর গঠন করিতে হইবে, কেন না যদি আমাদের এই 
ক্ষমতা থাকে, তবে এই শরীর হইতে বাহিরে না শিক্া1, আমর! 
এখানেই এবং এখনই সেই গঠনকাধ্য করিতে পারিব। এই 
মতি সম্পূর্ণ সত্য । যদ্দি ইহ সম্ভব 'হন্ন যে, আমর ম্বত্যুর পরও 
জীবিত থাকি) আপনাদের শরীর 2গঠন করি. তাহ! হইলে 
সম্পূর্ণরূপে শরীরকে ধ্বংস না কক্স কেবল উহাকে ক্রমশঃ 
পরিব্্তিত কতিক্ন। এই স্থানেই শরীর প্রস্তত করা আমাদের পক্ষে 
অসম্ভব কেন হইবে ? তাহাদের আরও বিশ্বাস ছিল যে, পারদ 
ও গন্ধকে অত্যছুত শক্তি নিহিত আছে । এই ত্রব্যগুলি এক 
নির্দি প্রণালীতে প্রস্তুত করিলে মানুষ বতদ্দিন ইচ্ছ$ শরীরকে 
অবিক্ুত ব্াখিতে পাঁরে। অপর কেহ কেহ বিশ্বাস করিত যে, 
ওুধপবিশেবের সেবনে আকাশগমনার্দি সিদ্ধিলীভ হইতে পারে । 
আজকালকার অধিকাংশ আশ্চধ্য ওউষধই, বিশেষতহ ওষঙে 
ধাতুর ব্যবহার আমরা রাসাক়নিকদের নিকট হইতে পাইক্সাছি । 
কোন কোন বোগিসম্প্রদাক্ম বলেন, আমাদের প্রধান প্রধান শুরুর? 
অনেকে এখনও ভাহাদের পুরাতন শরীনে বিছ্ামান আছেন । 
যোগসন্বন্ষে বাহার প্রামাণ্য অকাট্য, সেই পতঙঞ্জলি ইহ] অস্বীকার 
করেন না । 

মন্্রশক্তি-__ মন্ত্রনামক কতকশুলি পবিত্র শব্দ আছে, নির্দিষ্ট 
নিম্নমে উচ্চারণ করিলে উহ? হইতে আশ্চর্য শক্তিলাভ হইক্সা 
থাকে । আমর) দিনরাত এমন এক মহা অদ্ভুত ঘটনারাশির 
মধ্যে বাস কবিিতোছি যে, আমর! সেগুলির বি্ষম্ব কিছু 
ভাবিক্পা দেখি না?” উহার্দিগকে সামান্ত জ্ঞান কবি? 


৯ 
সই 


বাজযোগ 


আানুষের শক্তি, শব্দের শক্তি ও মনের শক্তির কোন সীনা- 
পরিসীমা নাই । 

তপস্ত1-- তোমর) দেখিবে, কচ্জসাধন প্রত্যেক ধন্মেই আছে । 
ধর্মে এই সকল অঙ্গ-সাধনের বিষয়ে হিন্দুরাই সর্ববাপেক্ষ। 
অধিকদৃর গমন করিক্সা থাকেন । এমন অনেকে আছেন, 
বাহার সমন্ড ভীবন্‌ হন্ড উদ্ধে বাখিক্গ। দিবেন পরিশেষে উহ? 
শুকাইক্স। মরিক্সা বাইবে। অনেকে দিবারাআ ছঈ্াঁড়াইক্স। থাকে, 
অবশেষে তাহাদের পা! ফুলিক্সা উঠে বদি ভাহাবা তাহার পরও 
জীবিত থাঁকে, তাহা হইলে সেই অবস্থাক্স তাহাদের পদদেশ 
এতদূর শত হুইন। যাক হযে, তাহার)? আব পর? নোক্ষাইতে পারে না 
সমস্ত জীবন তাহাদিগকে লাড়াইন্সা থাকিতে হন । আনি 
একবার একটি ভউদ্ধবানহু পুরুষকে দেখিক্সাছিলাম ॥। আমি 
ভাহাকে জিজ্ঞাস) করিলাম, “যখন আপনি প্রথম প্রথম ইহা 
অভ্যাস করিতেন, তখন আপনি কিন্ধপ বাধ করিতেন ?” 
তিনি বলিলেন যে, প্রথম প্রথম ভক্কগানক যাতনা বোধ হইত । 
এত যাতনা তোধ হইত যে, তিনি নদ্দীতে বাইর? জলে 
চুবিক্বা থাকিতেন ; তাহাতে কিছুক্ষণের জন্ঠ তাহার যন্ত্রণার 
কতকট। উপশম হইত । একমাস পন আবু তাহা বিশেষ 
কষ্ট ছিল না1। এইকর্প অভ্যাসের দ্বার) বিভূতি লাভ হুইক্স। 
থাকে । ৃ 

সমাধি-_ ইহাই ওক্কত যাগ, এই শাক্সের ইহাই প্রধান 
বিবক্স ; আর ইহাই সাধনের প্রধান উপান । পুর্বেব যেগুলির 
বিষন্ন বল। হইল, উহার গৌণ সাধন মাত্র । উহার্দিগের দ্বার? 


£ ২৯৬ 


যোগস্ুত্র 


সেই পরম পর্দ লাভ কর। যাক না । সমাধিছারা মানসিক, 
নৈতিক ও আধ্যাত্মিক যাহ) কিছুঃ আমর) সবই লাভ করিতে 
পাবি । 

জাত্যক্তর-পরিণামহ অক্কততাপুরাহ্ 11 ২ ॥1 


স্ত্রার্থ-_ প্রকৃতির আপুরণের দ্বারা এক জাতি আর 
এক জাতিতে পরিণত হইয়া বায ৷ 

ব্যাখ্যা_-পতঞ্জলি বলিন্বাছেন, এই শক্তিগুলি জন্মদ্বার॥ 
লাভ হয়, কথন কখন ওষ্ধবিশেব্দীর। লন্ধ হয়, আব তপস্া- 
দ্বারাও ইহার্দিগকে লাভ করিতে পারা যাক । তিনি আরও 
ত্বীক।ব করিন্বাছেন যে, এই শরীরকে বতরদ্িন ইচ্ছী। বক্ষ! করা 
যাইতে পাবরে। এক্ষণে এই শরীর একজাত্ি হইতে অপর 
জাতিতে পরিণত হস্স কেন, তাহ? বলিতেছেন । তিনি বলেন, 


“ইহ প্রকৃতির আপুরণের দ্বার হইক্স। থাকে ।” পরস্ত্রে তিন্দি 
ইহ। ব্যাখ্য। করিবেন । 


নিমিভমপ্রযোজকৎং প্রক্কৃতীনাং বরণভেদস্তভ 
ততঃ ক্ষেন্ত্রিকব€ 1 ৩ |1 
স্ত্রার্_-সৎ ও অসৎ কন্ম শ্রকৃতির পরিণামের 
সাক্ষাৎ কারণ নহে, কিম্তু উহার! উহার বাধাভগ্নকারী 
নিমিভমাত্র--মন, কৃষক জল আসিবার প্রতিবন্ধক- 


স্বরূপে আইল ভঙ্গ করিয়া দিলে জল আপানার ত্বভাবেই 
চলিয়া যাস । 


ন্‌ ও১ ৯ 


বাজযোগ 


ব্যাখ্যা-যথখন কোনও ক্ুষক ক্ষেত্রে জল সেচন করিবার 
ইচ্ছা! করে, তখন তাহার আর অন্ত কোন স্থান হইতে জল 
আনিবর আবশ্তক হস না, ক্ষেত্রের নিকটবর্তী জলাশয়ে জল 
সঞ্চিত রহিক্সাছে, কেবল মধ্যে কপাটেবর দ্বার) এ জল ক্ষেত্রে 
আসিতে দিতেছে না। কৃষক সেই কপাট খুলিক্প। দেয় মাত্র, 
দিবামাতই জল আঁপনাআপনি মাধ্যাকর্ষণ-নিক্রমানসারে তাহার 
ভিতর চলিক্স যান । এইন্ধূপ সকল ব্যক্তিতে সর্বপ্রকার 
উন্নতি ও শক্তি পুর্ব হইতেই অবস্থিত রহিয়াছে । পুর্ণত। 
প্রত্যেক মনুষ্যের ব্বভাব, কেবল উহার দ্বার ক্ুদ্ধ আছে, উহা 
উহার প্রকৃত পথ পাইতেছে না। বর্দি কেহ ক্র প্রতিবন্ধক 
অপসারিত করিষা দিতে পারে, তবে তাহার সেই ত্বভাঁবগত 
পুর্ণত৭ নিজি শক্তিবলে অভিব্যস্ত হুইবেই হইবে । তখন মাচ্ৰ 
তাহার ভিতর পুর্ব হইতেই অবস্থিত শক্তিগুলি লাভ করিক্বা 
থাকে ।? এই প্রতিবন্ধক অপসারিত হইলে ও প্রকৃতি আপনার 
অপ্রতিহত গতি পাইলে, আমরা যাহাদিকে পাপী বলি, তাহার? 
সাধুবূপে পরিণত হক্স। ম্বভাবই আমাদের পুর্ণ তান দিকে 
লইক্সা; যাঁইতেছেন, কালে তিনি সকলকেই তথান্ব লইন্স। যাইবেন। 
ধান্মিক হইবার জন্য বাহ! কিছু সাধন ও চেষ্টা, তাহা কেবল 
নিষেধমুখ কাধ্যমাত্র_কেবল প্রতিবন্ধক অপসারিত করিস 
দেওয়া ও আমাদের শ্মভাবসিন্ধ, জন্ম হইতে প্রাণ অধিকারত্বরূপ 
পূর্ণভার দ্বার খুলিয়া দেওযা!?। আজক।ল প্রাচীন যোগীদিগের 
পরিণামবাদদ বর্তমান কালের জ্ঞানের আলোকে অপেক্ষাকৃত 
উত্তমরূপে বুঝিতে পানা যাইবে । কিন্তু যোগীদিগের ব্যাখ্য! 

৮৪৮০ 


যোগস্তত্র 


আধুনিক ব্যাখ্যা হইতে শ্রে্ঠতর । আধুনিকের! বলেন, পরিণামের 
ছুইটি কাঁরণ-_-যৌন-নির্বাচন €59১002.1] 551500107 ) ও যোগ্য- 
তমের উজ্জীবন্‌ (50151598101 00০ 50655) ।*% কিন্তু এই 
হুইটি কারণকে সম্পূর্ণ পর্যাপ্ত বলিকন। বোধ হর না। মনে কর, 
মানবীর জ্ঞান এতদূর উন্নত হইল বে, শরীর ধারণ ও পতি ব! 
প্বী লাভ করিবার শ্রতিযোগিতা উঠিক্না গেল। তাহ 
হইলে আধুনিকদিগেক মতে মানবীর উন্নতিপ্রবাহ রুদ্ধ হইবে ও 
জাতির মুত্যু হইবে । আর এই মতের এই ফল দীড়ায যে, 
প্রত্যেক অত্যাচারী ব্যক্তি আপনার বিবেকের ভত্সনা হইতে 
অব্যাহতি পাইবার বুক্তি প্রাপ্ত হয়» । আর এমন লোকেরও 
অভাব নাই, বাহার দার্শনিক নাম ধারণ করিক্বা যত হষ্ট ও 
অনুপবুক্ত লোকদ্দিগকে মাবিস্রী ফেলিক্না (অবশ্য ইহাঁরাই 
উপযুদ্ততা। অন্থপবুস্ততার একমাত্র বিচারক ) মন্ষ্যজাতিকে 
রক্ষা! করিতে চাহেন। কিস্তু প্রাচীন পর্শামবাদী মহাপুক্ষষ 
পতঙঞ্জলি বলেন যে, পরিণামের প্রকৃত বহস্ত- প্রত্যেক ব্যক্তিতে 
পূর্ণতার ষে প্রাগ্ভাঁব রহিয়াছে তাহারই আবিভাব মাত্র । 
এ পুর্ণ তারূপ- আমাদের অন্তরালস্থ অনস্ত তরঙ্গরাশি 
আপনাকে প্রকাশ করিবার জন্ত চেষ্টা করিতেছে । এই প্রতি- 


পপ পপ সপাাশপপাাশশীশ শিট শীট 


* ডারউইনের মত এই যে. জগতের ক্রমোনতি কতকগুলি নিদ্দি্ই [িয়মা- 
ধীনে হয়, তন্মধ্যে যৌন-নির্বাচন ও হযোগ্যতমের উজ্ভীবনই প্রধান । সকল 
জীবই আপনার উপযুক্ত ভর্তা বা ভারা নির্বাচন করিয়! লয় ও যে যোগ্যতম 
সেই শেষ পধ্যন্ত বীচিয়া থাকে, এই ছুই শব্দের এই অর্থ। 

২৯৩ 


বাজযোগ 


হ্বন্দিত) ও প্রতিযোগিতা কেবল আমাদের অজ্ঞানের ফলমাত্র । 
আমর এই দ্বার কি করির+ খুলিক্সা দিতে হন ও জলে কি 
করিক্সা ভিতরে আনিতে হন, ভাহা জানি না বলিক্মাই এএইক্ধপ 
হইয়া থাকে । আমাদের পশ্চাতে যে অনভ্ত তরঙ্গরাশি 
রহিস্বাছে, তাহা আপনাকে প্রকাশ করিবেই করিবে 25 ইহাই 
সমুদকস অভ্িব্যক্তির কারণ, কেবল জীবনধারণ অথব1 ইন্িক্স 
চরিতার্থ করিবার চেষ্টা এই অভিব্যক্তির কারণ নহে । উহার । 
বাস্তবিক ক্ষণিক অনাবশ্তক বাহা ব্যাপার মাত । উহার 
অভ্ভানজাত । সমুদয় প্রতিযোগিতা বন্ধ হইব) ষাইলেও বতর্দিন 
পধাস্ত না! প্রত্যেক ব্যক্তি পুর্ণ হইতেছে, ততর্দিন আমাদের 
অন্তরালস্থ এই পুর্ণশ্বভাব আমাদিগকে ক্রমশহ অগ্রসর করাইব। 
উন্মতিব্র দিকে লইক্সা যাইবে । এই জন্যই প্রন্তিবোগিতা ষে 
উন্নতির জন্য আবশ্তক, ইহ1 বিশ্বাস করিবার কোন বুক্তি নাই ॥ 
পশ্ডর ভিতর মানুষ গুড়ুভ।বে রহিনাছে। যেমন ছার তোলা! 
হর অর্থাৎ প্রন্তিবন্ধক অপসারিত ভ্ক্স, অমনি মান্ছৰব প্রকাশ পাক । 
এইব্প মানুষের ভিতরও দেবতা! গুট্ভাবে রহিয়াছেন, কেবল 
'অভ্ভানের 'র্গল পড়ি তাহাকে প্রক।শ হইতে দিতেছে লা । 
যখন জ্ঞান এই প্রতিবন্ধক ভাঙ্গিস। ফেলে, তখনই সেই দেব্ত? 
প্রকাশ পান । 


নিম্মাণচিভান্য্মিতামাভ্রাহ 11৪8 11 


স্রত্রার্থ 2 ফোলী কেবল নিজের অহংভাব হইতেই 


অনেক চিত্ত স্জন করিতে পারেন । 
৯৪ 


যোগস্্ত্র 


ব্যাখ্যা? কম্মবাদের ভাৎ্পর্ধয এই যে, আম্র$। আমাদিগের 
সদস্ কন্ষের ফলভোগু করিক্সা থাকি আব সমগ্র দশনশাস্সের 
একমাত্র উদ্দেশ্য এই, মাছষের নিজ মহিমা অবগত হওক । 
সমুদম্ম শাস্সই মানবের আত্মার মহিম। ঘোষণা করিতেছে, 
আবার সেই সঙ্গে সঙ্গে কন্মবাদ প্রচার করিতেছে ॥ শুভকম্মের 
শুভ ফল, অশুভ কর্মের অশুভ ফল হইক্সা থাকে; কিকম্ত যদি 
শুভাশুভ আত্মার উপর প্রভাব বিষ্তার করিতে পাবে, তবে 
আত্মা ত কিছুই নক্স। প্রক্কতপক্ষে অশুভ কনম্দমম তেবল পুরুষের 
স্ব-ন্বর্ূপ প্রকাশের বাঁধা দেক্স মাত্র, শুভ কম্ম সেই বাধাগুলি দূৰ 
করিস €েক্স 2 তখনই “পুরুষের মহিমা প্রকাশিত হক্স ৮ কিন্ত 
পুরুষ নিজে কখনই পরিণাম প্রাণ হন না। তুমি যাহাই কর 
না কেন, কিছুই তোমান মহিমাকে__০তামার নিজ স্বব্দপকে 
নই করিতে পারে না + কারণ, কোন বস্তুই আত্মার উপর কাধ্ত 
কনিতে পারে না, কেবল উহাছার)॥ যেন আত্মার উপর একটি 
আবরণ পড়িক্স। উহার পুণতী আচ্ছাদন কলিক্সা। বাখে । 

যোগিগণ শীত্র শীত কম্মক্ষদ করিবার জন কাক্সব্যুহ ম্হজন্‌ 
করেন । এই সকল দেহের জন্য আবার তাহারা তাহাদের 
অস্মিত বী অহংতত্ব হইতে মন্2সমুহের স্যজন্দ করিক্সা থাকেন । 
এই নিন্সিত চিত্তসমুহকে তাহাদের মূল চিভ্ডের সহিত পৃথক্‌ 
নির্দেশের জন্ঠ “ন্ম্মীণচিভ্ড” বলে ॥ 


এবুক্ভিভেদে অক্সোজকং চিভমেকমনেক্েষাম্‌ ॥৫ ॥ 
স্ত্রার্থ_বদিও এই ভিন্ন ভিন স্যষ্ত 'মনের কাধ্য 


ব্২ ৪১ ৫ 


৬. 


ল্লাজযোগ 
"নানাপ্রকার, কিন্ত সেই এক আদি মনই তাহাদের 


সকলগুলির নিয়স্ত! | 

ব্যাখ্যা-_এই ভিন্ন ভিন্ন মন, যাহাঁর। ভিন্ন ভিন্ন দেহে কাধ্য 
করে, তাহার্দিগকে নিম্মীণচিত্ত ও এই নিম্মিত শরীরগুলিকে 
নিম্মণদেহ বলে। ভূত ও মন ইহারা যেন দুইটি অফুরস্ত 
ভাগুরগৃহের ভক্স । যোগী হইলেই তুমি উহাদিগকে জঙ্ব 
করিবার রহস্য অবগত হইবে । তোমার বরাবরই উহা জান! 
ছিল, কেবল তুমি উহ ভুলিয়া গিক্নাছিলে। যোগী হইলে 
উহা! তোমার স্মতিপথে উদ্দিত হইবে । তখন তুমি উহাকে 
লইয্র!] যাহ] ইচ্ছ1, তাহাই করিতে পারিবে । যে উপাদান 
হইতে এই বৃহৎ ব্রহ্মাণ্ডের উৎপত্তি হয়, এই নির্মিতচিভ্তও সেই 
উপাদান হইতে নিম্মিত। মন আর ভূত ইহার যে পরস্পর 
পুথক্‌ পদার্থ» তাহ! নহে, উহার! একই পদার্থের অবস্থাভেদমাত্র | 
অস্মিতাই সেই উপাদান, সেই সুশ্সম বস্ত, যাহা হইতে যোগীর 
এই নিম্মীণচিত্ত ও নিন্মীণদেহ প্রস্তত হয়। স্তরাং যখনই 
যোগী প্রকৃতির এই শক্তিগুলির রহস্ত অবগত হন, তখনই তিনি 
অন্মিত। নামক পদার্থ হইতে বত হচ্ছ! তত মন ও শরীর নিন্মাণ 
করিতে পারেন।। 


তত্র ধ্তানজমনাশয়ম. || ৬ || 


স্রত্রাথ--ভিন্ন ভিন্ন প্রকার চিত্তের মধ্যে যে চিত্ত 
সমাধিদ্বারা উৎপল, তাহা! বাসনাশৃন্ত । 
ব্যাখ্যা _ভিঙ্ন ভিন্ন ব্যক্তিতে যে আমরা ভিম্ন ভিন প্রকার 
৪৬ 


যোগস্ 


মন দেখিতে পাই, তন্মধ্যে যে মনের সমাধি অবস্থা লাভ হইস্াঁছে, 
তাহাই সর্বোচ্চ । তে ব্যক্তি ওষধ, মন্ত্র অথবা তপস্যাবলে 
কতকগুলি শক্তি লাভ করে” তাহার তখনও বাসনা! থাকে, 
কিন্ত বে ব্যক্তি যোগের দ্বারা সমাধি লাভ করে, কেবল সই 
ব্যক্তিই সকল বাসনা হইতে মুক্ত ॥ 


কন্মাশুক্রাকৃক্তৎ যোগিনক্দ্রিবিধমিতবেষান্‌ ॥ ৭ ॥ 


স্ত্রার্থ_যোলীদিগের কম্ম কৃষও নহে, শুক্রও নহে, 
কিন্তু অন্যন্য ব্যক্তির পক্ষে কন্ম ভ্রিবিধ_ অর্থাৎ শুক্র? 
কৃষ্ণ ও মিশ্র | 

ব্যাখ্য।-- যখন যোগী এ প্রকার পুর্ণ তালাভ করেন, তখন 


তাহার কাধ্য ও এ কাধ্যদ্বারী। যে কর্মফল উৎপন্ধ হক্স*« তাহা। 
তাহাকে আর বন্ধন করিতে পানে না কারণ», তাহার বাসনার 
ংস্পর্শ নাই । তিনি কেবল কন্দ্ম করিক্স? যান । তিনি অপরের 
হিতে জন্য কন্ম করেন, অপবের উপকার করেন, কিন্তু তিন্দি 
তাহাঁর ফলের আকাভ্কষা করবেন না। ম্তবাং, উহ) তাহাতে 
ব্তিবে না । কিস্ত সাধারণ লোকে, যাহারা এই সর্ব্বোচ্চ অবস্থা 
পাক্স নাই, তাহাদের পক্ষে কর্ম ভ্রিবিধ-_-কষ্ণ €(অসত্গ্জ কাধ্য ), 
শুক্র (সৎ কাধ্য ) ও মিশর । 


ততক্তদ্বিপাকান্ুগুণানামেবাভিবতভি্বাসনানাম্‌ 0৮৪ 


্তত্রার্থ_এই ভ্রিবিধি কম্ম হইতে কেবল সেই 


বাসনাগুলি প্রকাশিত হয়,» যেগুলি সেই অবস্থাক্গ 
৪১০ 


প্লাজযোগ 


প্রকাশ হইবার উপযুক্ত । €অপরগুলি সেই সময়ের জন্য 
স্তিমিতভাবে থাকে 1) 

ব্যাখ্যা মনে কর, আমি সৎ, অসৎ ও মিশ্রিত, এই তিন 
প্রকার কনম্মহই করিলাম । তত্পরে মনে কর, আমার মৃত্যু হইল, 
আমি ত্বর্গে দেবতা হইলাম । মন্ুক্যদেহের বাঁসনা আর দেব- 
দেহের বাসনা একন্সপ নহে । €দবশরীর €তোঁজন, পান কিছুই 
করে না । ভাহ1 হইলে আত্মার যে প্রাক্তন অভুক্ত কন্ম আহার 
ও পাঁনের বাসনা স্যজন করিসক্সাছে* সেশুলি তোথাকস যাইবে ? 
আমি বদি দেবত1 হই, তাহ! হইলে এই কন্মন কোথা যাইবে ? 
ইহার উত্তর এই যে, বাসন? উপধুক্ত অবস্থা! ও ক্ষেত্র পাঁইলেই 
প্রকাশ পাইয়।? থাকে । ঘষে সকল বাসনার প্রকাশের উপবুক্ত 
অবন্থা। আপিক্াাছে, তাহাবাই তেবল প্রকাশ পাইবে । অবশিষ্টগুলি 
সঞ্চিত হইক্স থাকিবে । এই জীবনেই আমাদের অনেক 
দেবোচিত, অনেক মন্ুব্যোচিত ও অনেক পাশব বাসনা বহিকস্াছে। 
আমি যদি দেবদেহ ধারণ করি, তবে কেবল শুভ বাসনাশুলিই 
প্রকাশ পাইবে, কারণ তাহাদের প্রকাশের উপবুত্ত অবসর 
আসিক্সাছে। আমি যদি পশুদেহ ধারণ করি, তাহা হইলে €েবল 
পাঁশব বাসনাশুলিই আসিবে । শুভ বাসনাগুলি তখন অপেক্ষ। 
করিতে থাকিবে । ইহাতে কি দেখাইতেছে ? ইহাতে দেখাইতেছে 
বে, বাহিতে উপযুক্ত অবস্থা পাইলে বাসনাশুলিকে দমন কর যায় । 
কেবল যে কন্দমম সেই অবস্থার উপযোগী, তাহাই প্রকাশ পাইবে । 
ইহাতে স্পষ্ট প্রমাঁণ হইতেছে যে», বাহিরের অনুকুল অবস্থ?' 
কন্দমকেও দ্‌ম্ন করিতে পাবে । 

হই ও ৮৮ 


যোগস্ড্ত্র 
জাতিদেশকাালবতবহিতানামপত্াানস্তর্ষতং 
স্মৃতিসংস্কারয়োরেকরপত্থা ॥ ৯ ॥ 
স্ুার্থ স্মৃতি ও সংস্কার একবপ বলিমা জাতি দেশ 
ও কাল ব্াযাবহিত হইলেও বাসনার আনভ্তব্য হইবে । 


ব্যাখ্য1-__অন্ভূতি জমুদক ক্স আঁকার ধারণ করি! 
সংস্কাররূপে পরিণত হন, সেগুলি আবার যখন জাগনবিত হস্গু, 


তখন ভাঁহাকেই স্বতি বলে। এএস্কলে স্থতিশব্দবে বর্তমান 
জ্ঞানকৃত কন্মের সহিত সংস্কাররূপে পরিণত প্রুর্বাচভূতিসমূহের 
পরস্পর অজ্ভানসহকৃত সম্বন্ধকেও বুঝাইবে । প্রত্যেক দেহে, 


তজ্জাতীকষ দেহে লব্ধ যে সকল সংস্কারসমষ্টি, তাহাঁরাহইি কেবল 
সেই দেহে কন্দ্নের কারণ হইবে ॥। ভিন্ন জাতীম্স দেহের সংস্কার 
তখন ভ্িমিতভাবে থাকিবে । প্রত্যেক শরীরই তেই জাতী 
কতকগুলি শরীরের ভবিষ্যত্বংশীস্বরূপে কাধ্য করিবে । এইবূপে 
' বাসনার পৌর্বাপধ্য নই হস্স না । 

তানসামনাদিত্বঞ্ধাশিষেো নিত্তত্বাহ ॥ ১০ ॥ 


স্ত্রার্থ- সখের বাসনা নিত্য বলিয়া বাসনাও 
অনাদি । 


ব্যাখ্যা_-আমর। যাহা কিছু অনুভব ব1? ভোগ কবি, তাহাই 
ুতী হইবার ইচ্ছ। হইতে প্রস্থত হস্ম। এ্রই ভোগের কোন আদি 
নাই 2 কারণ, প্রত্যেক নুতন তভোগই» পুর্ববভোগের হ্বার। আমাদের 
চিত্তে যে একপ্রকার গতিবিশেষ উৎপকন্ম হইক্সাছে, তাহারই উপর 
স্ছাপিত। এই কারণে বাসন! অনাদি । ৰ 


২৪১৩) 


নাজযোগ 


হেতুফলাশ্রয়ালম্বনৈঃ সংগ্ৃহীতত্বাদেষামভাবে 
তদভাবঃ ॥ ১১ ॥ 


স্তত্রার্থ এই বাসনাগুলি হেতু, ফল, আধার ও তাহার 
বিষয় এইগুলি দ্বারা সংগৃহীত বলিয্মা! ইহাদের অভাব হইলে 
বাসনার অভাব হজম । 

ব্যাখ্য/-এই বাসনাশুলি কাধ্যকারণশ্যত্রে শ্রথিত * মনে 
কোন বাঁসন। উদ্দিত হইলে উহ1 তাহার ফলপ্রসব না করিস্ব। বিনষ্ট 
হইবে নী॥ আবার মন সমুদ্ূক্স প্রাচীন বাঁসনাসমুহের আঁধাঁর-_ 
ব্রহৎ ভাগারম্বরূপ । প্র বাসনাসমুহ সংস্কারের আকাব্র ধারণ' 
করিক্সা রহিক্রাছে, উহার)? বতক্ষণ না ভহাদ্দের কাধ্য শেষ করিতেছে, 
ততক্ষণ উহাদের বিনাশ নাই । আরও, বতর্দিন ইন্ছ্রিলগণ বাহাবস্ত 
গ্রহণ করিবে, ততদিন নুতন নুতন বাসনা উখিত হইবে । যদি 
এইৎ্গলি হইতে অব্যাহতি পাওয়া? সম্ভব হস», তবেই কবল বাসনার 
বিনাশ হইতে পারে । 


অতীতানাগতং স্বরূপতো হস্ত্যধ্বভেদাদ্বম্্াণ1ম্‌, ॥১২।॥ 
ুত্রার্থ- বস্তর ধন্মসকল বিভিন্ন ব্ধপ ধারণ করিয়াই 
সমুদয় হইয্সজাছে বলিক্া অতীত ও ভবিষ্যৎ বাস্তবিক 
ব্বর্পতহ আছে । 
তে ব্তজ্ক-সুন্ষযা গুণাত্সানও ॥ ১৩ ॥ 
্‌ স্ুত্রার্থ উহারা কখন ব্যক্ত হস্সষ় কখন বা স্স্্ 


স্ঞগু ও 


যোগস্তজ 
অবস্থাজ্স চলিয়া যায়১় আর গুণই উহাদের আত্মা অর্থাহ 
স্বরূপ । 
ব্যাখ্যাগুণ বলিতে সত্ব“ বজঃ,» তমহ, এই তিন পদাথকে 
বুঝায়, উহাদের স্থল অবস্থাই এই পরিদৃশ্যমান জগৎ ।॥ ভূত ও 
ভবিষ্যৎ এই গুণ কম্সেকটিবই বিভিন্ন প্রকাশে উৎপন্ধ হয় ॥ 
পরিণামৈকত্বাদ্বস্ততত্বম ॥ ১৪ ॥ 
স্ুত্রার্থ_ পরিণামের মধ্যে একত্ব দেখা যায় বলিয়া 
বস্ত বাস্তবিক এক । € যদিও বস্তু তিনটি, অর্থাৎ সত্ব, 
বজহ, ও তম, তথাপি তাহার পব্রিণামগুলির ভিতরে 
পরস্পর একটি সক্ষন্ধ থাকাতে সকল বস্ততেই এএকত্ব 
আছে, বুঝিতে হহবে |) 
বস্ভসামেত চিভভেদাউয়োবিভক্ত2 পঙক্ছাহ ॥ ১৫ ॥ 
স্রত্রার্থ বস্ত্র এক হইলেও চিত্ত ভিন্ন ভিন্ন বলিয়া 
ভিন্ন ভিন্ন রূপ বাসনা ও অনুভূতি হইয্া। থাকে । 
| ন চৈকচিভ্তন্দ্রং বস্ভ তদপ্রমাণকং তদ1] কিং 
স্ত২ ॥ ১৬ ॥ 
স্ুুত্রর্থ-_€ দৃশ্য ) বজ্ভত একটি মাত্র চিত্তের -অধীন নক্ষ, 
€ কেন না) তাহ। হইলে যখন উহা €সেই চিত্তের) 
প্রত্যক্ষাদি প্রমাণের অবিষয় হইবে, তখন প্র ব্স্ত কি 
হইবে 7 
তছপরাগাপেক্ষিত্বাচ্চিতুন্ত বন্ত ভ্ভাতভাভভাতম, ₹॥ ১৭ ॥ 


৩) 


রাজযোগ 


জ্ুত্রার্থ চিত্তে বস্তর ও্ুুতিবিক্বপাতের অপোক্ষা 
থাকাতে বস্ভ কখন ত্ভাত ও কখন অত্ভাত থাকে । 
সদ1 ত্ভঞাতাশ্চিকুবুক্য়স্ত₹প্রভোঃ 
গুর্রুষল্যাহপরিণামিত্বাহ 11 ১৮ ।। 


স্তত্রার্থ_ চিত্তবুক্তিগুলিকে সববদাই জানা যায়, কারণ, 
উহাদের ও্রভু পুরুষ অপরিণামী । 

ব্যাখ্যা এতক্ষণ ধরিয়া যে মতের কথা বল, হইতেছে» 
তাহার সংক্ষিণত মম্ম এই যে, জগত মনোমকস ও ভোৌতিক এই 
উভয্স প্রকারই । আর এই মনোঁমক ও ভৌতিক জগৎ সর্বদাই 
যেন প্রবাহের আকারে চলিক্বাছে। এই প্ুল্তকখানি কি? ইভ! 
ন্ত্যপরিবর্তননীল কতকগুলি পরমাণু সমভিমাত্র । কতকগুলি 
বাহিরে বাইতেছে* কতকগুলি ভিতরে আসিতেছেঃ উহা একটি 
আবর্তত্বরূপ । কিন্ত কথ। এই», তাঁহ! হইলে একতবোধ কোথা! 
হইতে হইতেছে ? এই পুস্তকখানি যে একখানি পুস্তক, তাহ 
কি করিকা জানা যাইতেছে £? এই পন্িিণামগুলি তালে তালে 
হইতেছে £ তালে তালে উহারা আমার মনে তাহাদের প্রভাব 
প্রেরণ করিতেছে । বর্দিও উহাঁদের ভিম্ম ভিন্ন অংশগশুলি সদ? 
পরিবর্তনশীল, তথাপি উহাঁরাই একত্র হইব একটি অবিচ্ছি্ 
চিত্তের জ্ঞান উৎপাদন করিতেছে । মনও এইবূপ সদ! 
পরিবর্তনশীল । মন আর শরীর যেন বিভিন্গ বেগে ভ্রমণশীল 
একই পদার্থের ছুইটি স্তর মাত্র। তুলনাস্ব একটী ম্ছ ও অপব্রটি 
ভ্রুততর বলিস অবশ্তঠা আমর! প্র ছুইটি গতিব মধ্যে অনাস্থাসে 


২). 


যোগক্চ্ত্র 


পার্থক্য করিতে পাতি । যেমন একটি ট্রেন চলিতেছে শু একখানি 
গাড়ী তাহার পাশ দিক বাইতেছে। কিক পরিমাণে এই 
উভক্লেরছই গতি নির্নীত হইতে পারে । কিস্ত তথাপি অপর 
একটি পদার্থের প্রক্সোজন ॥ নিশ্চল বস্ত একটি থাঁকিলেই 
গতিকে অনুভব কর যাইতে পারে । তবে যখন ছুই তিনটি 
বস্ত্ুই বিভিন্নরূপ গতিশীল হয়, তখন আমর। প্রথমে ভ্রুততরটির, 
পরিশেষে মৃহৃতর চলনশীল বস্তটির গতি অন্থভব করিতে পাবি। 
মন কি করিয়া অনুভব করিবে £ উহ? নিক্ত গতিশীল । তবাং 
অপব্ এক বস্ত্র থাকা ীক্ষোজন, যাহা অপেন্ষাক্ত ম্হুভাবে 
গতিনীল, পরে তদপেক্ষ+ মুহতর, তদপেক্ষা ম্ুহুতর এইরূপ চলিতে 
চলিতে আর ইহার অস্ত পাও যাইবে না। স্থতরাং যুক্তি 
তোমায় একস্থানে চুপ করিতে বাধ্য করিবে । অপরিবর্তলীক্ন 
কোন্‌ বস্তকে জানিক্বা তোমাকে, এই অনস্ত শ্রেনীর শেষ করিতে 
হুইবেই হইবে । এই অশেব গতিশুঙ্খলের পশ্চাতে অপরিণানী, 
অসঙ্গ, শুদ্ধস্বরূপ পুরুষ রহিস্বাছেন । তেমন ম্যাজিক লগ্ন হইতে 
আলোক-কিরণরাশি আসিক্সা শ্বেত বস্্রথণ্ডের উপর প্রতিফলিত 
হুইক্স॥ উহাতে শত শত চিত্র উৎপাদন করে অথচ কোঁনরূপেই 
উহাকে কলক্কিত করে না, ঠিক সেই ভাবেই বিষয়ান্ভূতিজ 
সংস্কারসমুহ কেবল উহার উপর প্রতিফলিত হইতেছে মাত্র ॥ 


ন তহ স্বাভাসং দৃশ্টত্বাথ ॥ ১৯ ॥ 


স্ত্রাথ--মন দৃশ্য বলিয়া অ্বসংপ্রকাশ নহে । 
ব্যাখ্য।---প্রক্কতির সর্বত্রই মহাশক্কিন্ন বিকাশ দেখ! যাইতেছে, 


খও) ও ও 


পাজযোগ 


কিন্ত উহা স্বপ্রকাঁশ নহে, স্বভাবতঃ চতন্তন্বরূপ নহে । কেবল পুক্রবই 
স্বপ্রকাশ, উহার জ্যোতিঃতেই প্রত্যেক বস্ত উদ্ভাসিত হইতেছে ॥ 
উহারই শক্তি ভূত ও শক্তিসমুদসের মধ্য দিক্স। প্রকাশিত হইতেছে । 
একসময়ে ০চাভয়ানবধারণম, ॥ ২০ ॥ 

স্ত্রার্থএক সময়ে ছুইটি বস্তকে বুঝিতে পারে ন! 
বলিয্সা মন শ্বপ্রকাশ নহে ॥ 

ব্যাখ্য।য্দি মন স্বপ্রকাশ হইত, তবে এক সনক়ে উহ 
সমুদন্স অন্ভবৰ করিতে পারিত 5১ উহা ত তাহা পারে না। 
যর্দি এক বস্ততে গাভীর মনোযোগ শ্রদান কর, তবে আব 
অপব্প বস্তুতে মনোবোগ দিতে পারিবে না। বযর্দি মন ব্বপ্রকাশ 
কুইত» তবে উহা কত অন্থভুতি যে এক সঙ্গে করিতে পারিত, 
তাহার সীমা নাই। পুরুষ এক মুহূর্তে সমুদ্ধক্ছ অনুভব করিতে 
পারেন, ক্ছতরাং পুরুষ স্ব প্রকাশ ।% 

6ভ্াস্তর দৃশ্যত্বে বুদ্ধি-বুদ্ধেরতি প্রসঙ্গ? 
স্মতিসক্করূশ্চ ॥ ২১ ॥ 

স্ত্রার্থ যদি কল্পনা করা যায় যে, আর এক চিত্ত এ 
চিশতকে শ্রকাশ করে, তবে এইব্প কল্পনার অস্ত থাকিবে 
না ও স্ম্তির গোলমাল হইয়া যাইবে ॥ 

ব্যাখ্যা মনে কর, আর এক মন বুহিক্াছে, উহা এ 
প্রথম মনটিকে অন্দভব করিতেছে, তাহা হইলে আব।ক্ এমন 

শু এই স্তরের টীকা-সম্মত অর্থ এই._মন্‌ এক সঙষক্সে নিজেকে ও বিষক্ষকে 


ছসনুত্তব করিতে পানে না বলিয়া উহ! শ্বপ্রকাশ নহে, পুরুষই ম্বপ্রকাশ । 
২৩১) 95 


যোগজ্চত্র 
এক মনের আবশ্তক, যাহা আবার তাঁহাকে অন্কুভব করিবে, 
হ্ৃতরাং, ইহার কোন স্থানে শেষ পাঁওকা যাইবে না(। ইহাতে 
স্মৃতিরও গোলমাল উপস্থিত হইবে, কারণ, ম্বতির কোন নির্দিষ্ট 
ভাগার থাকিবে ন।। 
চিতিরপ্রতিসংক্রমাস্াস্তদাকারাপত্তে। 
ত্ববুদ্িসন্যেদ নম. 11 ২২ || 


স্ত্রার্থ চিৎ অপরিণাজী ; যখন মন উহার আকার 
গ্রহণ করে», তখনই উহা? জ্ভানময় হয় । ্‌ 

ব্যাখ্যা-_জ্ঞাঁন বে পুরুষের গুণ নহে, ইহা! আমাদিগকে 
স্পষ্টরূপে বুঝাইবাঁর জন্তফ পতঞ্জলি এই কথ। বলিলেন ।? যখন 
মন পুক্ুষের নিকট আইসে, তখন যেন পুক্ুষ মনের উপর 
প্রতিফলিত হন আব মন কিক্পত্ক্ষণের জন্য জ্ঞান্বান হয়, আর 
বোধ হযক্স যেন উহাই পুরুষ । 

ব্রষ্ট-দৃশ্টোপিরভ্ং চিত্ং সরব্বার্থম, । ২৩ ।1 


স্ুৃত্রার্থ_ষখন মন দ্রষ্টী ও দ্ৃষ্ত্য উভয়দ্বারা উপরক্ত 
হয়, তখন উহা? সব্বপ্রকার অর্থকেই আকাশ কনে ॥ 
ব্যাখ্যা একদিকে দৃশ্য অর্থাৎ বাহা জগৎ মনের উপর গ্রতিবিদ্থিত 
হইতেছে, অপর দিকে দ্রষ্ট। অর্থ পুরুষ উহার উপর প্রভিবি ম্বি 
হইতেছে ১ ইহ হইতেই মনে সর্বপ্রকার জ্ঞানলাভের শক্তি আইসে । 
তদসং খেতয়-বাসনাভিশ্চিভ্রমপি পক্সার্থং 
হত্যকারিত্বাু 11 ২৪ || 


বাজযোগ 


স্তত্রার্থ সেই মন অসংখ্য বাসনাদারা বিচিত্র 
হইলেও মিশ্র পদার্থ বলিয়া পরের অর্থাৎ পুরুষের জন্য 
কাব্য করে । 

ব্যাখ্যা মন নানাপ্রকার পদার্থের সমষ্িত্বরূপ 5১ স্তরাং 
উহ1 নিজের জন্য কাধ্য করিতে পারে না। এই জগতে হত 
মিশ্র পদার্থ আছে, সকলেরই প্রক্সোজন অপর বস্ততে-__-এমন 
কোন তৃতীন্স বস্ততে- বাহার জন্য ঞসেই পদার্থ এইবপে মিশ্রিত 
হইক্সাছে । ক্তরাং, মনও যে নানাপ্রকার বসত সিশ্রণে 
উৎপন্গ, তাঁহ। কেবল পুক্রষের জন্ত । 


বিশেষদশিন আত্মভঠব-ভাবনা1-বিনিবুতিও 11 ২৫ || 

সুত্রার্থ__বিশেবদর্শী অর্থাৎ বিবেকী পুরুষের মনে 
আক্মভাব নিহ্বভ হইয়া যায় । 

ব্যাখ্য1-বিবেকবলে যোগী জানিতে পারেন, পুক্রব মন নহেন। 
তদা বিবেকনিন্গং ৈবল্তঞ্াগ ভাবং ক্ষ চিতম্‌ ॥২৬॥ 

স্ত্রার্থী-তখন চিত্ত বিবেকপ্রবণ হইক্জা কৈবল্যে্র 
পুর্বলক্ষণ লাভ করে । 

ব্যাখ্যা এইরূপ যোগাভ্যাসের বারা বিবেকশক্তিনূপ 
দৃষ্টির শুদ্ধতা লাভ হইক্সা থাকে । আমাদের দৃষ্টির আবরণ সবিক্ষ। 
যাক্সঞ় আমরা তখন বস্তর যথার্থ স্বরূপ উপলব্ধি করিতে পারি। 
আমরা তখন বুঝিতে পান্সি যেঃ প্রকৃতি একটি মিশ্র পদার্থ” উহা 


পাঁঠাম্তর---কৈবল্য প্রা. ভারং 


যোগস্তত্র 
সাক্ষিত্বরূপ পুরুষের জন্তঞ এই সকল বিচিত্র দৃশ্য দেখাইতেছে মাত্র ॥ 
আমর)? তখন বুঝিতে পারি, প্রক্কৃতি ঈশ্বর নহেন। এই প্রকৃতির 
সমুদ্র সংহতিই কেবল আমাদের হৃদয়সিংহাসনস্থ রাজ! পুরুষকেই এই 
সমস্ত দৃশ্য দেখাইবাঁর জন্য ॥ যখন দীর্কাল অভ্যাসের ছার! 
বিবেকের উদর হয়, তখন ভয় চলিক্র' ষাক্স ও 8কবল্যপ্রান্তি হয় ॥ 
তচ্ছদ্রেছু প্রত্রম়ান্তরাণি সংস্কারেভন্ও ॥ ই৭ ॥ 
সুত্রার্থ উহার বিদ্বব্বরূপোে যে মধ্যে মধ্যে অন্যান 
জ্ঞান উৎশপন হয়, তাহা সংস্কার হইতে আসিয়া! থাকে । 
ব্যাখ্য।-_“আমাকে স্থখী করিবার জন্য কোন বাহিরের 
বস্ত আবশ্যক”, এইব্প বিশ্বাস আমাদের যে সকল ভাব হইতে 
আইসে, তাহারা সিদ্ধিলাভের্ প্রতিবন্ধক । পুরুষ স্বভাঁবতঃ 
স্খ ও আনন্দস্বরূপ ॥ পুর্ব সংস্কারের দ্বারা ০সই জ্ঞান আবুত 
হইম্বাছে । এই সংস্কারগুলির ক্ষয় হুওয়1॥ আবশ্তক ৷ 
হানমেষাং ক্রেশবছুভুম্‌ ॥ ২৮ ॥ 
ুত্রার্থ ক্রেশগুলিকে ঘষে উপায়ের ছারা নাশের 
কথা বল হইয়াছে, ইহাদিগকেও ঠিক সেই উপায়েই 
নাশ করিতে হইবে । 
প্রসংখতানেহপত্কুসীদস্ত সর্বথাবিবে কখ্তাতে- 
ধর্মমেঘ সমাধি ॥ ২৯ ॥ 
সুত্রার্থ_তন্বসমুহের বিবেকজ্ঞান্নিত প্রশ্বধ্যেণ্ড 
ধিনি বীতস্পুহ হন, তাহার সর্বপ্রকারে বিবেকজ্ঞান. 


ও) 


ব্লাজযোগ 


লাভ হুমম বলিয়া তাহার খধন্মমেঘনামক সমাধি লাভ 
হইয়া থাকে । 

ব্যাখ্যা যখন ঢতোগী এই বিবেকজ্ঞান লাভ করেন, তখন 
পুর্ব অধ্যানসে কথিত শক্তিগুলি আসিবে, কিন্তু প্রকৃত যোগী 
ইহুণদিগকে পরিভ্যাগ করিক্নী থাকেন । তাহার নিকট ধন্মমেঘ- 
নামক এক বিশেবপ্রকার জ্ঞন, এক বিশেষ প্রকার আলোক 
আইসে। ইতিহাস ঘষে সকল ধন্মাচাধ্যদিগের কথা বর্ণন। 
কবিরাছেন, তাহার সকলেই শ্রই ধন্মমেবসম।ধিসম্পন্ধ ছিলেন । 
ভাহার। আপনাদের ভিতরেই জ্ঞানের মুল প্রম্রবণ পাইক্সা- 
ছিলেন । সত্য তাহাদের নিকট অতি স্পঈরূপে প্রকাশিত 
হইন্রাছিল ॥ পুর্বেবোক্ত শক্তিসমুহের অভিমান ত্যাগ করাতে 
শান্তি, বিন ও পুর্ণ পবিত্রতা তাহাদের ্বভাঁবগত হইব! 
গিন্নাহিল ॥ 

ততঃ ক্রেশকম্মনিবৃতিহ ॥ ৩০ ॥ 


স্রত্রার্থ_তাহা হইতে ক্রেশ ও কন্মের নিবৃক্তি হয় । 

ব্যাখ্যা_যখন এই খন্মমেঘসমাধি আইসে, তখন আব 
পতনের আশঙ্কা নাই, কিছুতেই আর তাহাকে অধোর্দিকে 
আকর্ষণ করিতে পারে না, আর তাহার কোন কও থাকে না। 


তদা. সর্ববাবরণমলাপেতস্ভ জ্ভানহ্তানক্তভতাজ.- 
ভেয়মলম ॥ ৩১ ॥ 


স্ত্রার্থ--তখন ত্ভান সব্বপ্রকান আবরণ ও 


৩) ও ৮ 


যোগস্ত্র 


অগুদ্ধিশুন্য হওওয়াকস অনস্ত হইয়া! যায়: স্থতরাং জ্েয়ও 
অল্প হইয়া? পড়ে । 

ব্যাখ্যা জ্ঞান ত ভিতরে রহিক্সাছে, €েব্ল উহার আবরণ 
চলিক্সা যায় মাত্র । কোন বৌদ্ধশাজ্স “বুদ্ধ” (ইহ একটি অবস্থার 
স্ষচক ১ শব্দের লক্ষণ কনিক্সাছেন--অনস্ত আকাশের ভ্যান অনস্ত 
জ্ঞবন । বীশু এ অবস্থা লাভ কবির) শ্রী হইদ্বাছিলেন । তোমরা! 
সকলেই প্র অবস্থা লাভ করিবে । তখন জ্ঞান অনস্ত হইক্স! 
বাইবে, সুতরাং জ্ঞেক্স অল হইপ্লা যাইবে । এই সমুদ্ক্স জগৎ 
উহার সর্বপ্রকার জ্ঞেকস বস্তর সহিত পুরুষের নিকট শুন্তরূশে 
প্রতিভাত হইবে । সাধারণ লোকে আপনাকে অতি ক্ষুদ্র 
বলিয়। মনে করে, কারণ, তাহার নিকট জ্তেক্স বস্ত অনন্ত বলিক্স।. 
বোধ হয্স । 


ততঃ ক্ৃতার্থানাৎ পরিণামক্রমসমাপ্তিগুণানাম্‌ ॥৩২॥ 
্রত্রার্থ_ যখন গুণগুলিন কাধ্য শের হইয়া যায়, 


তখন গুণগুলির যে ভিন্ন ভিন পরিণাম তাহাও শেৰ 
হইয়া যায় । 


ব্যাখ্য।-- তখন শুণগুলির এই সকল বিভিন্ধ পরিণাম, এক 


জাতি হইতে উহাদের অপনু জাতিতে পরিণতি, একেবারে শেষ 
হহুক্সা যাস । 


ক্ষণপ্রতিযোগী পরিণামাপবাস্তনিগ্রীস্যঃ ব্রমহ ॥৩৩৪ 
স্ুত্রার্থিষে পরিণাম ক্ষণ অর্থাৎ মুহ্র্তসম্বন্ধ 


২৩০৩ গু 


প্লাজযোগ 


লইস্জা অবস্থিত ও ষাহাকে একটি শ্রেণীর অপর প্রা্তে 
€ শেষে ) যাহক্সা বুঝিতে পারা মায়ঃ তাহার নাম ক্রম । 

ব্যাখ্য।--পতর্জলি এখনে ক্রম শব্দের লক্ষণ করিলেন । 
ক্রম শব্দে যে পব্রিণামণুলি সুহ্র্তকীল সন্বন্ধে সম্বদ্ধ, তাহাদিগকে 
বুঝাইতেছে । আমি চিস্তী করিতেছি, ইহার মধ্যে কত মুহূর্ত 
চলি); গেল । এই প্রতি মুহূর্তের সহিতই ভাবের পব্রিবর্তন, কিন্ত 
আমরা প্র পরিণামণ্ুলিকে একটি শ্রেণীর অস্ভে € অর্থাৎ অনেক 
পরিপামশ্রেনার পর) ধরবিতে পান্রি। ইহাকে ক্রম বলে। কিম্ত 
ঘষে মন সর্বব্যাপী হইব গিক্ষাছে, তাহার পক্ষে আর ক্রম নাই । 
তাহার পক্ষে সবই বর্তমান হইক্স॥ গিক্ষসাছে । বল এই 
বর্তমানই তাহার নিকট উপস্থিত আছে, ভূত ও ভবিষ্যৎ তাহার 
জ্ঞান হইতে একেবারে চলিয়। গিক্সাছে । তখন সে মন কালকে 
জনসন কনে আর তাহার নিকট সমুদ্স্স জ্ঞানই এক মুহুর্তের মধ্যে 
আসিক্সা উপস্থিত হস্স। সমুদ্স্সই তাহার নিকট বিহ্যতের নান 
চকিতে প্রকাশ পাইক্সা থাকে । 


গুরুষার্থশুল্যানাং গুণানাং প্রতিঞ্রসবহ 
তকবল্যং স্বরূপত্রতিষ্ঠী ব। চিতিশক্তিরিতি ॥৩৪॥ 


স্ত্রার্থ- গুণস্কলে যখন পুরুষের কোন শ্রয়োজন 
থাকে না, তখন তাহাদের প্রতিলোমব্রমে লককে টৈবল্য 
বলে, অথবা উহাকে চিৎশক্তির শ্বরূপ-প্রতিষ্ঠা বলিতে 
পারা বায । 


২৩৯ ৭ 


যোগস্হত্র 


ব্যাখ্য।/-_প্রকাতির কাধ্য ফুকাইল । আমাদের পরম 
কল্যাণমকী ধাত্রী শ্রকতি ইচ্ছ। করিস যে নিহন্যার্থ কাধ্য নিজ 
সন্ধে লইক্লাছিলেন, তাহা ফুরাইল ॥ তিনি যেন আত্মবিস্বত 
জীবাত্মার হাত ধিক) তাহাকে জগতে যত প্রকার ভোগ আছে, 
ধীরে বীপ্পে সব তোগ করাইলেন* বত প্রকার প্রক্কতির 
অভিব্যক্তি_ বিকার আছে, সব দেখাইলেন ॥। ক্রমশহ তাহাকে 
নানাবিধ শরীরের মধ্য দিশ্র। উচ্চ হইতে উচ্চতর ০সাপাঁনে লইস। 
যাইতে লাগিলেন, শেষে আত্ম নিজ অপন্থত মহিমা পুনঃ প্রাপ্ত 
হইলেন, নিজ ব্বব্ূপ প্ুনরান্স তাহার স্বতিপথে উদিত হইল । 
তখন তেই কক্ুণামক্সী জননী যে পথে আসিকাছিলেন সেই পথেই 
ফিলিক্সা গেলেন ॥। গিয়া, বাহার) এই জীবনের পথচিহু বিহীন 
মরুতে পথ হারাসক্াাছে, ভাহার্দিগকে আবার পথ €দরখাইন্ডে 
প্রনুর্ত হইলেন । এইন্দুপে তিনি অনার্দি অনস্ত কাল কাধ্য 
করিয়া চলিক্ষাছেন । আএইক্ধপে স্ুখহুহখের মধ্য দির» ভরলমন্দের 
মধ্য দিক্সা অনস্ত নদীম্বরূপ জীাবাত্সাগণ সিদ্ধি ও আত্মসান্ষ/ৎ্- 
কার্প সমুদ্রের দিকে চলিস্কাছেন । 

বহর আপনাদের স্বরূপ অনুভব করিসক্সাছেন, তাহাদের জঙ্গ 
হউক । তাহার আমাদের সকলকে আশীর্বাদ করুন । 


২৩১১৩ 


শ্পল্ত্িস্পি 


যোগ বিষয়ে অন্যান্য শাস্ত্রের মত 
শ্বেতাশ্বতর উপনিবদ্‌ 


ছ্িভীক্ম অধ্যাক্স 


অগ্রিধ ব্রাভিনথ্যতে বারুধত্রা ধিরুধ্যতে | 
সোঁমে। বক্রাতিরিচ্যতে তত্র সঞ্জার়তে মন ॥ ৬ ॥ 


অর্থ যেখানে অগ্রিকে মথন করা হয়, যেখানে বাুকে 
রোধ করা হম ও যেখানে অপধ্যাণ্ড সোমরস প্রবাহিত হয়, 
সেখানে (সিদ্ধ ) মনের উৎপত্তি হইর থাঁকে। 

ভ্রিরুল্গতং স্থাপ্য সমং শরীরং হুদীক্ড্িক্সাণি মনস। সন্নিবেশ | 

ব্রন্দোড়,পেন প্রতরেত বিদ্বান্‌ শ্োতাংসি সর্ববাণি ভক্গাবহাঁনি ॥৮ ॥ 

অর্থ--বক্ষঃ, আশ্রীবা ও শিরোদেশ উন্নতভাবে রাখি, 
শরীরকে সমভাবে ধারণ করিক্া, ইন্ড্রিয়গুলিকে মনে স্থাপন 
কৰিয়। জ্ঞানিব্যক্তি ব্রহ্মরূপ্‌ ভেলাছার॥। সমুদঘ্ম ভগ্লাবহ শ্বোত 
পার হইস্স। বান । 

প্রাণান্‌ প্রপীভ্যেহ সংযুক্তচেষ্টঃ ক্ষীণে প্রাণে নাপিকয়োচ্ছুনীত । 

হুষ্টাশ্বযুক্তমিব বাহমেনং বিদ্বান মনে ধারয়েতাপ্রমভঃ & ৯ ॥ 

অর্থ-_-সংঘুক্তচেষ্ট ব্যক্তি প্রাণকে সংষম করেন। যখন 
উহা শান্ত হুইক্সা বাক্স, তখন নালিক। দ্বার! প্রশ্বাস পন্রিত্যাগ 


৩১৭ 


পরিশিষ্ট 


করেন । যেমন সারথি চঞ্চল অশ্থগণকে ধারণ করেন, অধ্যবসায়শীল 
যোশীও তব্রপ মনকে ধারণ করিবেন । 
সমে শুচে শর্করাবহ্ছিবালুকাবিবজ্জিতে শব্দজলাশ্রয়াদ্িভিঃ | 
মনোহ্ন্কুলে ন তু চক্ষুঃপীড়নে গুহাঁনিবাতাশ্রকণে প্রযোজস্ষে্ ॥ ১০ ॥ 
অর্থ_-সমতল, শুচি, প্রস্তর, অশ্ি ও বালুকাশুষ্ঠ, মন্ষ্যক্কত 
অথব। কোন জলপ্রপাতজন্ত মনশ্চাঁঞ্চল্যকব শব্দশৃন্য, মনের অন্কুল, 
চক্ষর এ্রীতিকর, পর্বতগুহাদি নিজ্জন স্থানে থাকিক্স। যোগ অভ্যাস 
করিতে হইবে । 
নীহারধূমার্কানিলানল।নাং খছ্যেতিবিহ্যৎ্স্ফষটিকশশিনাম্‌। 
এতানি বূপাণি পুরহসরাণি ব্র্মণ্যভিব্যক্তিকরাণি যোগে ॥ ১১ ॥ 
অর্থ__নীহার, ধুম, স্খ্যত বাবু, অগ্রিত খগ্যোৎত বিহু, 
স্কটিক, চক্র, এই বূপশুলি সম্মুখে আসিয়া ক্রমশঃ যোগে ত্রহ্কে 
অভিব্যক্ত করে । 
পৃর্যপতেজোহনিলখে সমুশ্খিতে পঞ্চাত্সকে যোগগুলে এপ্রবুভে । 
ন তন্য রোগেো। ন জর ন মৃত্যু প্রাণুস্ত যোগাপ্রিময়ৎ শরীরম্‌ ॥ ১২ ॥ 
অর্থ__ যখন পৃথিবী, জল, তেজঃ» বারু ও আকাশ এই পঞ্চভূত 
হইতে যৌগিক অনুভূতি সমুদস্স হইতে থাকে তখন যোগ আরজ 
হইক্াছে, বুঝ্ধিতে হইবে । যিনি এইবপ যষেোগশপ্রিমর শরীর পাইসক্সাছেন, 
তাহার আর ব্যাধি, জর, মৃত্যু থাকে না। 
লঘ্বুত্বমারো গ্যমলোলুপত্বং বর্ণ প্রসাদহ স্বরসৌষ্ঠবঞ্চ । 
গন্ধ শুভো মুত্রপুরীবমলং যোগ প্রবৃত্তি প্রথমা বদভ্তি ॥ ১৩ ॥ 
অর্থ--শরীরের লগ্বুত,» স্বাস্থ্য,» লোভশুন্ততা, হুন্দর বর্ণ» 
ত্বর-সৌন্দধ্য, মৃত্রপুতীঝের অল্গতা ও শরীরে একটি পরম 
খ্৯ 


বাজযোগ 


স্থগন্ধ«ধ যোগারস্ত করিলে যোগী এই লক্ষণশুলি প্রথমেই 
প্রকাশ পায় । 
যখৈব বিশ্বং ম্রো পলিপ্তং তেজোমনং ভ্রাজতে তৎ সুধাস্তং ৷ 
তদ্ব'্সতত্তং প্রসমীক্ষ্য দেহী এক কৃতার্থেো ভবতে বীতিশোকহ ॥ ১৪ ॥ 
অর্থ_ যেমন স্বর্ণ ও রজত প্রথমে ম্ুক্তিকাদি দ্বার লিগ 
থাকে, পরিশেষে উত্তমরূপে ধৌত ভ্ইক্স। তেজোমস্স হইক্সা প্রকাশ 
পান্স সেইরূপ দেহী আত্মশুত্ত দর্শন করিয়) একন্বরপ, ক্ৃতার্থ ও 
2খবিমুক্ত হয় 


শহ্কর-উদ্ধত বাজ্ভবক্ক্ত 


অ।সনানি সমভ্যন্ত বাঞ্ছিতাঁনি যথাবিধি । 
প্রাণাক্সামৎ ততো গণি, জিতাসনগত্তৌোজভ)পেন্খ ॥ 
ম্ব্গাসনে কুশান্নম্যগান্ভীধ্যাজিনমেব চ | 
লঙ্গোদরং চ সম্পুঙ্ ফলমোঁদকভক্ষণৈহ ॥ 
তদ।|সনে স্খাসীনঃ সব্যে হুসম্তেতরং করম্‌॥ 
সম্প্রীবশিরাহ সম্যক সংবুতাভ্তহই সুনিশ্চলহ ॥ 
প্রাস্থখোদজ্ুখো। বাপি নাসা গ্রন্তস্ডলোচনঃ 
অতিভুক্তমভুক্তং চ বঞ্জন্রিত্থা প্রযত্রতহঃ ॥ 
নাড়ীসংশোধনং কুধ্যাছ্ক্তমার্গেণ যত্বুতঃ । 
বুপা ক্রেশো। ভবেভ্তশ্ত তচ্ছোধনমকুর্বত2 ॥ 
নাসাগ্রে শশভৃদ্বীজং চন্